আজঃ মঙ্গলবার ০৫ মার্চ ২০২৪
শিরোনাম

অঙ্গদান করা সারা ইসলামের মৃত্যু নাই: বিএসএমএমইউ উপাচার্য

প্রকাশিত:রবিবার ২৯ জানুয়ারী ২০২৩ | হালনাগাদ:রবিবার ২৯ জানুয়ারী ২০২৩ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

অকাল প্রয়াত দেশের প্রথম ব্রেন ডেথ রোগী সারা ইসলামের দান করা কর্নিয়া প্রাপ্ত দুই রোগী ভাল আছেন। তাঁরা সারা ইসলামের কর্নিয়ায় চোখের আলো ফিরে পেয়েছেন। রোববার সকাল নটায় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের মাননীয় উপাচার্য অধ্যাপক ডা. মোঃ শারফুদ্দিন আহমেদ সারার কর্নিয়া গ্রহীতা দুই রোগীর চক্ষু পরীক্ষা করে এসব জানিয়েছেন। আজ রবিবার ২৯ জানুয়ারি ২০২৩ইং তারিখ সকালে সারা ইসলামের দুটি কর্নিয়া বসানো রোগী শিক্ষিকা ফেরদৌস আক্তার (৫৬) ও মোহাম্মদ সুজনের (২৩) চোখ পরীক্ষা করেন আন্তর্জাতিক খ্যাতি সম্পন্ন চক্ষু বিশেষজ্ঞ অধ্যাপক ডা. মোঃ শারফুদ্দিন আহমেদ।

এসময় মাননীয় উপাচার্য অধ্যাপক ডা. মোঃ শারফুদ্দিন আহমেদ বলেন, বাংলাদেশে চিকিৎসা বিজ্ঞানের ইতিহাসে অনন্য দৃষ্টান্ত স্থাপনকারী সারা ইসলামের মত্যু নাই। সারা ইসলামের অঙ্গদানের মাধ্যমে ২ জন কিডনী ফেলিউর রোগী স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসছে। তাদের কিডনীর কার্যকারিতা শুরু হয়েছে। অন্য ২ জন রোগী যাদের চোখে সারা ইসলামের কর্ণিয়া প্রতিস্থাপন করা হয়েছে তারা দেখতে পাচ্ছেন। এভাবে সারা ইসলাম অঙ্গদান করে চারজনের মাঝে বেঁচে আছেন। সারা ইসলামকে আমরা সব সময় কৃতজ্ঞার সাথে স্মরণে রাখবো।  সারা ইসলাম যে দৃষ্টান্ত রেখে গেলেন তা আমরা সকলেই অনুসরণ করতে পারি। দেশে ক্যাডাভেরিক কার্যক্রম বাস্তবায়ন করা গেলে রোগীদের বিদেশে যাওয়ার প্রবণতা অনেকটাই কমে যাবে এবং অনেক অর্থের সাশ্রয় হবে। একই সাথে অনেক রোগী যারা জীবনের আশা ছেড়ে দিয়েছেন তারা নতুন জীবন লাভ করবেন। ভবিষ্যতে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ে হার্ট ট্রান্সপ্ল্যান্টও সফলভাবে সম্পন্ন হবে বলে আমি বিশ্বাস করি। মানুষের জীবন বাঁচাতে অঙ্গদান কার্যক্রমকে সামাজিক আন্দোলনে পরিণত করতে সবাইকে এগিয়ে আসতে হবে।  

উপস্থিত ছিলেন উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ডা. ছয়েফ উদ্দিন আহমদ, প্রক্টর ও রেনাল ট্রান্সপ্ল্যান্ট সার্জন অধ্যাপক ডা. মোঃ হাবিবুর রহমান দুলাল, রেজিস্ট্রার ডা. স্বপন কুমার তপাদার, কমিউনিটি অফথালমোলজী বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ডা. মোহাম্মদ শীষ রহমান, ইউরোলজী বিভাগের সহযোগী ডা. মোঃ ফারুক হোসেন, চক্ষু বিজ্ঞান বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ডা. রাজশ্রী দাশ প্রমুখ।

১৯ জানুয়ারি প্রথম প্রহরে সারা ইসলাম ব্রেন ডেথ হবার পরপরই তাঁর দুই কিডনি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাডাভেরিক সেলের আহ্বায়ক ও রেনাল ট্রান্সপ্লান্টেশনের অধ্যাপক ডা. মোঃ হাবিবুর রহমান দুলালের নেতৃত্বে তার দুটি কিডনি বের করেন আনেন। একটি কিডনি অধ্যাপক ডা. মোঃ হাবিবুর রহমান দুলাল শামীমা আক্তার নামের এক রোগীর দেহে সফলভার প্রতিস্থাপন করেন। সারা ইসলামের অপর কিডনিটি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের ইউরোলজি বিভাগের অধ্যাপক ডা. খুরশিদুল আলমের নেতৃত্বে হাসিনা আক্তার নামের অপর এক রোগীর শরীরে সফলভাবে প্রতিস্থাপন করা হয়। তারা ভাল আছেন।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ে ফেরদৌসী আক্তারের চোখে অস্ত্রপচারের নেতৃত্ব দেন  বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের কমিউনিটি অফথালমোলজি বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ডা. মোহাম্মদ শীষ রহমান। ফেরদৌসী আখতার ২০১৬ সালে এক অজানা ভাইরাসে তাঁর ডান চোখে সমস্যা দেখা দেয়। কিছুই দেখতে পেতেন না। স্থানীয় বিভিন্ন সরকারি-বেসরকারি ক্লিনিকে চোখ দেখালেও সমাধান মেলেনি। পরে সহযোগী অধ্যাপক ডা. মোহাম্মদ শীষ রহমানের কাছে চিকিৎসা নিতে আসেন। সাত বছর আগে কর্ণিয়া প্রতিস্থাপনের পরামর্শ দেন এ চিকিৎসক। তবে কর্নিয়া সংকটে এটি এতদিন করা সম্ভব হয়নি। কর্ণিয়া জোগাড় করতে আগ্রিম ৫০ হাজার টাকা দিয়ে  রেখেছিলেন এ শিক্ষিকা। সারাহর কর্ণিয়া দানের সম্মতি পেয়েই চিকিৎসক শীষ রহমান। ফেরদৌসকে ফোন করে ঢাকায় আসতে বলেন। এরপর তাঁর ডান চোখে কর্ণিয়া প্রতিস্থাপন করা হয় । ডান চোখে এখন স্বাভাবিকভাবে দেখতে পাচ্ছেন।

মোহাম্মদ সুজনের চোখের অস্ত্রোপচারের নেতৃত্ব দেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের চক্ষু বিজ্ঞান বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ডা. রাজশ্রী দাশ। মোহাম্মদ সুজন এখন ভাল আছেন।

১৮ জানুয়ারি দিবাগত রাতে দেশে প্রথম  ব্রেন ডেন রোগী  ঘোষিত সারা ইসলাম কিডনি অন্য দুজন রোগীর দেহে সফলভাবে প্রতিস্থাপন করা হয়। এটি দেশের চিকিৎসাসেবায় মাইলফলক। দুরারোগ্য রোগে আক্রান্ত হয়ে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের আইসিইউতে চিকিৎসাধীন ছিলেন ২০ বছরের তরুণী ফাইন আর্টসের মেধাবী শিক্ষার্থী সারা ইসলাম তিনি তাঁর অঙ্গদান করে যান। তার অঙ্গদানের মাধ্যমে চারজন মানুষ নতুন করে বাঁচার স্বপ্ন দেখছেন।


আরও খবর



টাঙ্গাইলে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ১

প্রকাশিত:শনিবার ১০ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ১০ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
টাঙ্গাইল প্রতিনিধি

Image

টাঙ্গাইলের কালিহাতীতে পিকআপভ্যানের ধাক্কায় ছিটকে পড়ে ইদু মিয়া (৫৫) নামে এক নির্মাণ শ্রমিক নিহত হয়েছেন। শুক্রবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে উপজেলার রাজাবাড়ি এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহত ইদু মিয়া টাঙ্গাইল সদর উপজেলার সুরুজ গ্রামের মৃত সাইদ আলীর ছেলে।

এলেঙ্গা পুলিশ ফাঁড়ির উপ-পরিদর্শক (এসআই) মাহফুজুর রহমান জানান, সন্ধ্যায় কালিহাতী থেকে একটি পিকআপভ্যান নির্মাণ সামগ্রী ও কয়েকজন নির্মাণ শ্রমিক নিয়ে টাঙ্গাইল যাচ্ছিল। এ সময় রাজাবাড়ি এলাকায় এলে অপর একটি পিকআপভ্যান পেছন থেকে ধাক্কা দেয়। এতে সামনের পিকআপভ্যানের ওপরে বসে থাকা নির্মাণ শ্রমিক ইদু মিয়া ছিটকে নিচে পড়লে ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়। মরদেহ উদ্ধার করে টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।


আরও খবর



স্টেডিয়ামে প্রকাশ্যে দুইজনের মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করল তালেবান

প্রকাশিত:শনিবার ২৪ ফেব্রুয়ারী 20২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ২৪ ফেব্রুয়ারী 20২৪ | অনলাইন সংস্করণ
আন্তর্জাতিক ডেস্ক

Image

তালেবান কর্তৃপক্ষ পূর্ব আফগানিস্তানের একটি ফুটবল স্টেডিয়ামে হত্যার দায়ে দোষী সাব্যস্ত দুই ব্যক্তিকে প্রকাশ্যে মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করেছে। এসময় মৃত্যুদণ্ড দেখতে স্টেডিয়ামের ভিতরে হাজার হাজার মানুষ জড়ো হয়েছিল।

ভারতীয় সংবাদ মাধ্যম এনডিটিভি জানিয়েছে, দেশটির সুপ্রিম কোর্টের কর্মকর্তা আতিকুল্লাহ দারবিশ তালেবানের সর্বোচ্চ নেতা হিবাতুল্লাহ আখুন্দজাদার স্বাক্ষরিত একটি মৃত্যু পরোয়ানা উচ্চস্বরে পড়ার পর উভয় ব্যক্তিকে পিছন থেকে গুলি করে তাদের মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা হয়।

আতিকুল্লাহ দারবিশ বলেন, এই দুই ব্যক্তিকে হত্যার অপরাধে দোষী সাব্যস্ত করা হয়েছিল। আদালতে দুই বছর ধরে বিচার চলার পর তাদের মৃত্যুদণ্ডের আদেশে স্বাক্ষর করা হয়েছে।

১৯৯৬ সাল থেকে ২০০১ সাল পর্যন্ত তালেবানের প্রথম শাসনামলে জনসমক্ষে মৃত্যুদণ্ড কার্যকরের ঘটনা বেশ স্বাভাবিক ছিল। তবে ২০২১ সালের আগস্টে নতুন করে ক্ষমতায় ফিরে আসার পর এই নিয়ে মাত্র চারজনের মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা হল দেশটিতে।


আরও খবর
আইনি লড়াইয়ে বড় জয় পেলেন ট্রাম্প

মঙ্গলবার ০৫ মার্চ ২০২৪




গুলশানে ছাদ থেকে পড়ে স্পেন দূতাবাস কর্মকর্তার মৃত্যু

প্রকাশিত:রবিবার ০৩ মার্চ ২০২৪ | হালনাগাদ:রবিবার ০৩ মার্চ ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

রাজধানীর গুলশানে একটি ভবনের ছাদ থেকে পড়ে স্পেন দূতাবাসের এক কর্মকর্তার মৃত্যু হয়েছে। ওই কর্মকর্তা আত্মহত্যা করেছেন বলে ধারণা পুলিশের।

রবিবার (৩ মার্চ) বিকেলে গুলশানের পিংক সিটির বিপরীতে একটি ভবনে এ ঘটনা ঘটে। নিহত কর্মকর্তার নাম ইসমাইল গিল সেরানো।

ডিএমপি গুলশান থানার পরিদর্শক (তদন্ত) শেখ শাহিনুর রহমান জানান, দুপুরের দিকে পিংক সিটির বিপরীতে থাকা একটি ভবনের ছাদ থেকে পড়ে স্পেন দূতাবাসের ওই কর্মকর্তার মৃত্যু হয়। আমাদের প্রাথমিক ধারণা, এটি আত্মহত্যা হতে পারে।

মরদেহ এখন ঘটনাস্থলে আছে। সুরতহাল শেষে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেওয়া হবে বলেও জানান পুলিশের এই কর্মকর্তা।


আরও খবর



রিজার্ভ চুরি মামলার প্রতিবেদন ফের পেছালো

প্রকাশিত:রবিবার ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:রবিবার ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
আদালত প্রতিবেদক

Image

বাংলাদেশ ব্যাংকের রিজার্ভ চুরির মামলায় তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের জন্য আগামী ৬ মে দিন ধার্য করেছেন আদালত। রোববার (২৫ ফেব্রুয়ারি) মামলার তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের দিন ধার্য ছিল। তবে তদন্ত সংস্থা সিআইডি প্রতিবেদন দাখিল না করায় ঢাকা মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট রাজেশ চৌধুরী নতুন দিন ধার্য করেন।

২০১৬ সালের ৫ ফেব্রুয়ারি যুক্তরাষ্ট্রের ফেডারেল রিজার্ভ ব্যাংক থেকে জালিয়াতি করে সুইফট কোডের মাধ্যমে বাংলাদেশ ব্যাংকের ৮ কোটি ১০ লাখ ডলার হাতিয়ে নেয় দুর্বৃত্তরা। পরে ওই টাকা ফিলিপাইনে পাঠানো হয়। সংশ্লিষ্টরা আশঙ্কা করেন দেশের অভ্যন্তরের কোনো চক্রের সহায়তায় হ্যাকার গ্রুপ রিজার্ভের অর্থপাচার করেছে।

ওই ঘটনায় ২০১৬ সালের ১৫ মার্চ বাংলাদেশ ব্যাংকের অ্যাকাউন্টস অ্যান্ড বাজেটিং ডিপার্টমেন্টের উপ-পরিচালক জোবায়ের বিন হুদা বাদী হয়ে কয়েকজনকে আসামি করে মতিঝিল থানায় মানি লন্ডারিং প্রতিরোধ আইন-২০১২ (সংশোধনী ২০১৫) এর ৪ ধারাসহ তথ্য ও প্রযুক্তি আইন-২০০৬ এর ৫৪ ধারায় ও ৩৭৯ ধারায় মামলা করেন। মামলাটি তদন্ত করছে সিআইডি।


আরও খবর



ভালোবাসা দিবসে মেক্সিকোতে একসঙ্গে ১২০০ যুগলের বিয়ে

প্রকাশিত:শুক্রবার ১৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ১৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
আন্তর্জাতিক ডেস্ক

Image

বিশ্ব ভালোবাসা দিবসে দক্ষিণ আমেরিকার দেশ মেক্সিকোতে হলো বিয়ের রেকর্ড। এদিন দেশটির নেজাহলকয়ট শহরে একসঙ্গে গাঁটছড়া বাধলেন ১২০০ যুবক। প্রতি বছরে প্রথাগতভাবেই এই বিয়ের আয়োজন করা হয়।

সেই ধারাবাহিকতায় বুধবার গণবিয়ের আয়োজন করা হয় মেক্সিকোর ওই শহরে। এই বিয়েতে অংশ নেওয়া বিভিন্ন প্রজন্মের যুগলদের অনেকেই জানিয়েছেন, তারা এই গণবিয়েতে অংশ নেন কিছু অর্থ সাশ্রয় করতে। কেউ আবার আসেন তার দীর্ঘমেয়াদী সম্পর্ককে চূড়ান্ত পরিণতি দিতে।

তেমনই একজন ২৮ বছর বয়সি নববিবাহিত রোজালিন রুইজ। তিনি বলেন, বিয়ে খুবই ব্যয়বহুল। শুভ্র বিয়ের বসন পরা ৩০ বছর বয়সি রিকার্ডো রেস জানান, এটাই বিয়ের সবচেয়ে সহজ উপায়।

এবারের গণবিয়ের অনুষ্ঠানটির পৃষ্ঠপোষকতা করেছে স্থানীয় মেয়রের কার্যালয়। এসময় দীর্ঘ বৈবাহিক জীবন কাটানো তিন যুগলকেও পুরস্কৃত করা হয়। এদের মধ্যে ছিলেন ৫০ বছরের দাম্পত্য জীবন কাটানো যুগলও। তাদের টেলিভিশন ও বিশেষ চেয়ার পুরস্কার দেওয়া হয়।


আরও খবর
আইনি লড়াইয়ে বড় জয় পেলেন ট্রাম্প

মঙ্গলবার ০৫ মার্চ ২০২৪