আজঃ মঙ্গলবার ২৮ জুন ২০২২
শিরোনাম

‘বিএনপি শুধু লিপ সার্ভিসের মাধ্যমে মানুষের দুর্দশা নিয়ে রাজনীতি করে’

প্রকাশিত:রবিবার ১৯ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ১৯ জুন ২০২২ | ৩২৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

দেশের মানুষ যখন প্রাকৃতিক দুর্যোগ বন্যার কারণে বেঁচে থাকার সংগ্রামে লিপ্ত, ঠিক তখন বিএনপি মহাসচিবের হীন রাজনৈতিক আচরণ অত্যন্ত দুঃখজনক বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। আজ রোববার এক বিবৃতিতে মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরসহ বিএনপি নেতাদের উদ্দেশ্যপ্রণোদিত ও দুরভিসন্ধিমূলক বিভিন্ন বক্তব্যের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে তিনি এ মন্তব্য করেন।

বিএনপি নেতারা মানুষের দুর্ভোগ নিয়ে রাজনীতি করছে মন্তব্য করে ওবায়দুল কাদের বলেন, বিএনপি নেতাদের আচরণ খুব অমানবিক, অতীতে কোনো দুর্যোগ মোকাবিলায় বিএনপির পক্ষ থেকে কোনো ধরনের প্রচেষ্টা ও উদ্যোগ জনগণ দেখেনি। বিএনপি শুধুমাত্র লিপ সার্ভিসের মাধ্যমে মানুষের দুঃখ-দুর্দশা নিয়ে রাজনীতি করে।

বৃহত্তর সিলেট অঞ্চলের সৃষ্ট বন্যার কারণে মানুষের জানমালের নিরাপত্তার জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরাসরি নির্দেশে দুর্যোগ মোকাবিলায় বাংলাদেশ সেনাবাহিনী, নৌবাহিনী, বিজিবি, কোস্টগার্ডসহ স্থানীয় প্রশাসন মানুষের কষ্ট লাঘবে সর্বাত্মক কার্যক্রম পরিচালনা করছে বলে জানান আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক। তিনি আরও বলেন, মানুষকে নিরাপদ আশ্রয়ে নিতে সিলেট ও সুনামগঞ্জে বন্যার্তদের জন্য ৬০০ আশ্রয়কেন্দ্র খোলা হয়েছে। সেখানে হাজার হাজার মানুষ আশ্রয় নিয়েছে।

যেকোনো প্রয়োজনে বন্যায় ক্ষতিগ্রস্তদের সহায়তায় সেনাবাহিনী টোল ফ্রি নম্বর চালু করেছে জানিয়ে সেতুমন্ত্রী বলেন, বানভাসি মানুষের স্বাস্থ্য সেবায় ইমারজেন্সি কন্ট্রোল রুম চালু করেছে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর। পরিস্থিতি সার্বক্ষণিক পর্যবেক্ষণে মনিটরিং টিম ও মেডিকেল বোর্ডও গঠন করা হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, পানিবন্দী মানুষের মাঝে শুকনো খাবার, পানি, প্রয়োজনীয় ওষুধ ও স্যালাইনের পাশাপাশি রান্না করা খাবারও বিতররণ করছে স্থানীয় আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনসমূহের নেতৃবৃন্দ। বন্যার পানি সরে গেলেও এই তৎপরতা অব্যাহত থাকবে এবং আরও জোরদার করা হবে বলেও জানান ওবায়দুল কাদের।

দুর্যোগপূর্ণ এই সময়ে দেশের সব বিত্তবান মানুষকে দুর্যোগ কবলিত মানুষের পাশে দাঁড়ানোর আহ্বান জানিয়ে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, বিএনপি দুর্ভাগ্যজনকভাবে বন্যার্তদের নিয়ে অপরাজনীতি শুরু করেছে এবং দুর্গত মানুষকে নিয়ে পরিহাস করছে। তিনি বলেন, সিলেটের বন্যা কোনো মানবসৃষ্ট দুর্যোগ নয়, এটি প্রাকৃতিক দুর্যোগ। আর এই প্রাকৃতিক দুর্যোগ মোকাবিলায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকার অতীতের যেকোনো সরকারের চেয়ে সফলতা অর্জন করেছে।

সরকারের প্রতি কোনো রকম বিষোদগার বা দোষারোপ না করে এই দুর্যোগের সময় বিএনপির নেতাকর্মীরা দুর্গতদের পাশে দাঁড়াবে বলে আশা প্রকাশ করেন ওবায়দুল কাদের। এ সময় জনমনে বিভ্রান্তি সৃষ্টি হয় এমন মিথ্যাচার ও অপপ্রচার না করারও অনুরোধ জানান তিনি।


আরও খবর



লটারির টিকিট বিক্রি করতেন নোরা

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০২ জুন 2০২2 | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ০২ জুন 2০২2 | ৩৪৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

অভিনয়ে প্রথম সারির না হয়েও নাচ দিয়ে বলিউডের প্রভাবশালী তারকা হয়ে উঠেছেন নোরা ফাতেহি। গত কয়েক বছরে বলিউডের অন্যতম আলোচিত তারকা তিনি। বাটলা হাউজ, স্ট্রিট ড্যান্সার কিংবা ভারত ছবিতে তার নাচের পারফরম্যান্স তাকে বিপুল জনপ্রিয়তা এনে দিয়েছে। মরক্কোর পরিবার থেকে আসা ও কানাডায় বেড়ে ওঠা নোরার ভারতজয় সহজ ছিল না। সম্প্রতি এক সাক্ষাত্কারে শুনিয়েছেন তার শুরুর দিনের সংগ্রামের কথা। বিশেষত, বিভিন্ন জায়গায় অডিশন দিতে গিয়ে রীতিমতো অপমান সইতে হয়েছে তাকে।

ভারতের নাগরিক না হওয়ায় স্বভাবতই হিন্দি ভাষাজ্ঞান ছিল না নোরার। আর এতেই ভুগতে হয়েছিল। যেখানেই যেতেন অডিশন দিতে, সেখানেই নানা কটু মন্তব্য শুনতে হয়েছে। নোরার কথায়, আমি হিন্দি শিখতে শুরু করেছিলাম। কিন্তু অডিশনগুলো দুঃস্বপ্নের মতো হয়ে উঠেছিল। মানসিকভাবে ওরকম পরিস্থিতির জন্য প্রস্তুত ছিলাম না। নিজেকে বোকা মনে হচ্ছিল। অনেক কাস্টিং পরিচালক তাকে নিয়ে হাস্যরস করতেন, মুখের ওপর বিদ্রুপের হাসি হাসতেন। একটা বিশেষ ঘটনার কথা উল্লেখ করে নোরা বলেছেন সেটা তিনি জীবনে কখনো ভুলতে পারবেন না।


একজন কাস্টিং এজেন্ট একবার আমায় বলেছিলেন, আপনাকে এখানে দরকার নেই। আপনি চলে যান। এখন অনেক সমালোচনা, বিদ্রুপ সহজে মোকাবেলা করতে পারলেও পাঁচ বছর আগে বিনোদন জগতে নতুন মানুষ হিসেবে তার জন্য সেগুলো হজম করাটা খুব কঠিন ছিল। এখন এ রকম বিষয় আমি বন্ধুদের সঙ্গে হেসে উড়িয়ে দিতে পারি। কিন্তু তখন রিকশায় বসে কাঁদতাম।

পরিবারে আর্থিক সংকট থাকায় কৈশোরেই কর্মজীবনে প্রবেশ করতে হয়েছিল নোরাকে। ১৬ বছর বয়সে নিজের স্কুলের কাছে একটি শপিং মলে সেলসম্যানের কাজ করেছেন। এরপর বিভিন্ন সময় রেস্তোরাঁয় পরিচারিকা হিসেবে কাজ করেছেন। টেলিমার্কেটিংয়ে ছিলেন, এমনকি লটারির টিকিটও বিক্রি করেছেন। এরপর ভারতে এসে নৃত্য প্রতিভা দিয়ে নিজেকে নিয়ে গেছেন প্রথম সারির তারকাদের কাতারে।

নোরা এখন কাজ করছেন ড্যান্স দিওয়ানে জুনিয়রসের বিচারক হিসেবে। শিশু-কিশোরদের এ রিয়ালিটি শো বেশ জনপ্রিয়। এতে নোরার সঙ্গে বিচারক হিসেবে আরো আছেন নিতু কাপুর ও কোরিওগ্রাফার মার্জি পেসটোনজি।

নিউজ ট্যাগ: নোরা ফাতেহি

আরও খবর



নতুন সেনা প্রকল্প ‘অগ্নিপথ’ চালু করল ভারত

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৪ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৪ জুন ২০২২ | ৩৭০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

সামরিক ব্যয় কমানো ও প্রতিরক্ষা শক্তিকে আরও কার্যকর করে তুলতে অগ্নিপথ প্রকল্পের আওতায় সেনাবাহিনী ঢেলে সাজানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে ভারত। এখন থেকে স্থল, নৌ ও বিমানবাহিনীতে এই প্রকল্প অনুসারেই সেনা সদস্যদের নিয়োগ দেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন দেশটির প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং।

মঙ্গলবার (১৪ জুন) রাজধানী দিল্লিতে অগ্নিপথ প্রকল্প ঘোষণা করেন কেন্দ্রীয় প্রতিরক্ষামন্ত্রী। সেখানে তিনি জানান, এই প্রকল্পের আওতায় চার বছরের জন্য সেনা সদস্যদের নিয়োগ দেওয়া হবে; এবং নিয়োগপ্রাপ্তদের মধ্যে ক্ষুদ্র একটি অংশকে স্থায়ীভাবে রেখে দেওয়া হবে সামরিক বাহিনীতে। বাকিদের চার বছর পর বিদায় জানানো হবে। এ সময় তাদের প্রত্যেককে দেওয়া হবে এককালীন অর্থ। তবে বিদায়ী সেনা সদস্যরা পেনশন সুবিধা পাবেন না। যাদেরকে স্থায়ীভাবে সেনাবাহিনীতে রেখে দেওয়া হবে, কেবল তারাই পাবেন এ সুবিধা।

রাজনাথ সিং বলেন, চলতি বছর মোট ৪৫ হাজার সেনা নিয়োগ দেবে সরকার। ১৭ বছর ৫ মাস থেকে ২১ বছর বয়সী আগ্রহী প্রার্থীরা আবেদন করতে পারবেন। অনলাইন সেন্ট্রালাইজড সিস্টেমের ভিত্তিতে আগামী ৯০ দিনের মধ্যে এই সেনা নিয়োগ প্রক্রিয়া শেষ হবে। প্রাথমিক নিয়োগে যারা টিকে যাবেন, তাদেরকে নাম হবে অগ্নিবীর। বর্তমানে ভারতের সেনাবাহিনীতে নিয়োগপ্রাপ্তির জন্য যে ন্যূনতম শিক্ষাগত যোগ্যতার প্রয়োজন, অগ্নিবীরদের ক্ষেত্রেও সেই একই যোগ্যতা রাখা হয়েছে।

প্রাথমিক নিয়োগপ্রাপ্তির পর সেনাদের নিতে হবে ৬ মাসের প্রশিক্ষণ। এসময় প্রত্যেক সেনার মাসিক বেতন হবে ৩০ হাজার থেকে ৪০ হাজার রুপির মধ্যে। সেই সঙ্গে চিকিৎসাভাতা ও অন্যান্য ভাতা ও বীমার সুবিধাও ভোগ করবেন তারা। চার বছর পর কমিশনপ্রাপ্ত সেনা সদস্যদের মধ্যে ২৫ শতাংশ ও নন কমিশন্ড সেনা সদস্যদের মধ্যে ১৫ শতাংশকে রেখে বাকিদের বিদায় জানানো হবে। বিদায়ের সময় সরকারের পক্ষ থেকে এককালীণ ১১ লাখ থেকে ১২ লাখ রুপি দেওয়া হবে প্রত্যেককে। বিদায়ী সেনা সদস্যরা পেনশন পাবেন না;  তবে যুদ্ধক্ষেত্রে কোনো সেনা সদস্য যদি মৃত্যু ও পঙ্গুত্বের শিকার হন, সেক্ষেত্রে এককালীন অর্থের পরিমাণ বাড়বে।

মঙ্গলবারের ঘোষণায় অগ্নিপথ প্রকল্পকে ঐতিহাসিক বলে উল্লেখ করে প্রতিরক্ষামন্ত্রী জানান, চলতি বছর নিয়োগ ও প্রশিক্ষণ শেষে আগামী ২০২৩ সালে জুলাইয়ে নিয়মিত চাকরিতে প্রবেশ করবে অগ্নিবীরদের প্রথম ব্যাচ। ভারতের নিরাপত্তা বিশ্লেষকদের মতে, যদি এই প্রকল্প সফল হয় তাহলে সামরিক খাতে বিপুল পরিমাণ অর্থ সাশ্রয় করতে সক্ষম হবে ভারত; কারণ প্রতি বছর দেশটির সামরিক খাতে যে বাজেট বরাদ্দ দেওয়া হয়, তার একটি বড় অংশই চলে যায় দেশটির কমিশনপ্রাপ্ত ও নন কমিশন্ড সেনা সদস্যদের বেতন, অবসরকালীন ভাতা ও অন্যান্য আর্থিক সুবিধা বাবদ ব্যায়ে। ভারতের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের বরাত দিয়ে এক প্রতিবেদনে এনডিটিভি জানিয়েছে, গত অর্থবছরে সামরিক বাহিনী খাতে ৫ দশমিক ২ লাখ কোটি রুপি বাজেট বরাদ্দ করা হয়েছিল। এই বাজেটের অর্ধেকই ব্যয় হয়েছে সেনা সদস্যদের বেতন-ভাতা ও অবসরকালীন ভাতার পেছনে।

 

নিউজ ট্যাগ: অগ্নিপথ

আরও খবর



বিশ্বে করোনায় আক্রান্ত আরও ৩ লাখ

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৪ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৪ জুন ২০২২ | ৩৩৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে গত ২৪ ঘণ্টায় ৭০১ জনের মৃত্যু হয়েছে। এনিয়ে বিশ্বজুড়ে মৃতের সংখ্যা পৌঁছেছে ৬৩ লাখ ৩২ হাজার ৩২৫ জনে।

একই সময়ের মধ্যে ভাইরাসটিতে নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ৩ লাখ ২৬ হাজার ৩৯ জন। এতে মহামারির শুরু থেকে এ পর্যন্ত মোট রোগীর সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৫৪ কোটি ৯ লাখ ২৩ হাজার ৩৩৫ জনে।

মঙ্গলবার (১৪ জুন) সকালে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত, মৃত্যু ও সুস্থতার হিসাব রাখা ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডোমিটারস থেকে এ তথ্য পাওয়া যায়।

ওয়ার্ল্ডোমিটারসের তথ্য অনুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় বিশ্বে করোনায় সবচেয়ে বেশি সংক্রমণ ও প্রাণহানির ঘটনা ঘটেছে যুক্তরাষ্ট্রে। এই সময়ের মধ্যে দেশটিতে নতুন করে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ৪৮ হাজার ৪২৪ জন এবং মারা গেছেন ১১৩ জন। এছাড়া দৈনির প্রাণহানির তালিকায় দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে তাইওয়ান। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশটিতে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ১০৯ জন এবং নতুন করে ভাইরাসে সংক্রমিত হয়েছেন ৪৫ হাজার ১১০ জন।

করোনায় আক্রান্তের তালিকায় দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে প্রতিবেশী দেশ ভারত। তবে ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মৃতের সংখ্যার তালিকায় দেশটির অবস্থান তৃতীয়। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশটিতে নতুন করে করোনায় সংক্রমিত হয়েছেন ৩ হাজার ২৩৭ জন।

এছাড়া ইতালিতে নতুন করে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ১০ হাজার ৩৭১ জন এবং মারা গেছেন ৪১ জন। জার্মানিতে গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ৩৮ হাজার ৬৬৮ জন এবং মারা গেছেন ৩০ জন। রাশিয়ায় গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ৫৬ জন এবং নতুন করে ভাইরাসে সংক্রমিত হয়েছেন ২ হাজার ৯৯৬ জন।

গত ২৪ ঘণ্টায় অস্ট্রেলিয়ায় নতুন করে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ১৯ হাজার ৫১ জন এবং মারা গেছেন ১১ জন। একইসময়ে থাইল্যান্ডে নতুন করে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ১ হাজার ৮০১ জন এবং মারা গেছেন ১৫ জন। চিলিতে নতুন করে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৯ হাজার ১১০ জন এবং মারা গেছেন ১৪ জন।

উল্লেখ্য, ২০১৯ সালের ডিসেম্বরে চীনের উহানে প্রথম করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়। এরপর ২০২০ সালের ১১ মার্চ বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও) করোনাকে বৈশ্বিক মহামারি’ হিসেবে ঘোষণা করে।

নিউজ ট্যাগ: করোনাভাইরাস

আরও খবর



নিজেকে পিটার দ্য গ্রেটের সঙ্গে তুলনা পুতিনের

প্রকাশিত:শুক্রবার ১০ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ১০ জুন ২০২২ | ৪১০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

ইউক্রেনে চলমান যুদ্ধের মধ্যেই নিজেকে রাশিয়ার পরাক্রমশালী সম্রাট পিটার দ্য গ্রেটর সঙ্গে তুলনা করেছেন বর্তমান রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন। মূলত বৃহস্পতিবার (৯ জুন) প্রেসিডেন্ট পুতিন তার বর্তমান কর্মকাণ্ডকে পিটার দ্য গ্রেটের সুইডেনের বিরুদ্ধে ১৮ শতকের যুদ্ধের সময় বাল্টিক উপকূল জয়ের সাথে তুলনা করেছেন।

বৃহস্পতিবার রাশিয়ার তরুণ উদ্যোক্তাদের সঙ্গে সাক্ষাতের সময় ভ্লাদিমির পুতিন এই মন্তব্য করেন। শুক্রবার (১০ জুন) এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানিয়েছে বার্তাসংস্থা এএফপি।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, রাশিয়ার সাবেক জার সম্রাট পিটার দ্য গ্রেটর ৩৫০তম জন্মবার্ষিকীকে উৎসর্গ করে বৃহস্পতিবার রাজধানী মস্কোতে আয়োজিত একটি প্রদর্শনীর অনুষ্ঠান পরিদর্শন করেন রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন। পরে সেখানে তরুণ উদ্যোক্তাদের তিনি বলেন, সুইডেনের সঙ্গে যুদ্ধ করে তিনি (পিটার দ্য গ্রেট) কিছু দখল করেছিলেন। তিনি কারও কাছ থেকে কিছু দখল করেননি। তিনি ফিরিয়ে এনেছিলেন।

প্রেসিডেন্ট পুতিন আরও বলেন, পিটার দ্য গ্রেট যখন সেন্ট পিটার্সবার্গ প্রতিষ্ঠা করেছিলেন এবং এটিকে রাশিয়ার রাজধানী ঘোষণা করেছিলেন তখন ইউরোপের কোনো দেশই এই অঞ্চলটিকে রাশিয়ার অন্তর্গত বলে স্বীকৃতি দেয়নি। সবাই এটিকে সুইডেনের অংশ বলে মনে করত। কিন্তু অনাদিকাল থেকে ফিনো-ইউগ্রিক জনগণের পাশাপাশি স্লাভরা এখানে বসবাস করত।

এই পর্যায়ে ইউক্রেনে রাশিয়ার চলমান আক্রমণের স্পষ্ট ইঙ্গিত দিয়ে পুতিন বলেন, আমাদের দায়িত্ব (আমাদের যা আছে, তা) ফিরিয়ে নেওয়া এবং শক্তিশালী করা। হ্যাঁ, আমাদের দেশের ইতিহাসে এমন সময় এসেছে যখন আমরা পিছু হটতে বাধ্য হয়েছি, কিন্তু সেটি শুধুমাত্র আমাদের শক্তি ফিরে পেতে এবং আরও এগিয়ে যাওয়ার জন্য।

এএফপি বলছে, ১৭০০ সাল থেকে ১৭২১ পর্যন্ত হওয়া গ্রেট নর্দার্ন যুদ্ধে মস্কোর কাছে সুইডেনের পরাজয় রাশিয়াকে বাল্টিক সাগর অঞ্চলে নেতৃস্থানীয় শক্তিতে পরিণত করে। এতে করে ইউরোপীয় বিষয়ে গুরুত্বপূর্ণ দেশ তথা শক্তি হিসেবে আবির্ভূত হয় রাশিয়া।

কিন্তু সাম্প্রতিক সময়ে ইউক্রেন আক্রমণের ফলে পশ্চিমের সাথে রাশিয়ার সম্পর্ক কার্যত ভেঙে গেছে এবং এর পাশাপাশি ইউরোপের প্রতি পিটারের যে সখ্যতা ছিল সেটিকেও কার্যত খাটো করে দেখছে মস্কো কর্তৃপক্ষ। একইসঙ্গে রাশিয়া বর্তমানে এই অঞ্চলে তার ভূখণ্ড সম্প্রসারণের দিকে মনোনিবেশ করেছে বলেও জানিয়েছে বার্তাসংস্থাটি।

রাশিয়ানরা বৃহস্পতিবার জার পিটার দ্য গ্রেটের ৩৫০ তম জন্মদিন উদযাপন এমন এক সময় করেছে যখন ইউক্রেন সংঘাতের কারণে দেশটি বাকি বিশ্ব থেকে গভীরভাবে বিচ্ছিন্ন। মূলত তিন শতাব্দী আগেই রাশিয়াকে ইউরোপের কাছাকাছি আনার চেষ্টা প্রথম করেছিলেন জার পিটার।

উল্লেখ্য, ১৬৭২ সালের ৯ জুন মস্কোতে জন্মগ্রহণ করেন পিটার দ্য গ্রেট। ক্ষমতায় আসার পর তিনি প্রথমে জার এবং তারপর ১৬৮২ সাল থেকে ১৭২৫ সালে মৃত্যুর আগপর্যন্ত সম্রাট হিসাবে সমগ্র রাশিয়া শাসন করেছিলেন।


আরও খবর



গরমে ত্বক ভালো রাখতে যা করবেন

প্রকাশিত:সোমবার ১৩ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ১৩ জুন ২০২২ | ৩৩৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

হঠাৎ হঠাৎ বৃষ্টি এলেও গরম যেন যাচ্ছেই না। প্রচণ্ড গরমে সবার অবস্থা নাজেহাল। এমন সময়ে আপনার পাশাপাশি ক্লান্ত হয়ে পড়ে আপনার ত্বকও। এসময় ত্বকের প্রতি বিশেষ নজর না দিলে মুশকিল। অনেকেই গরমের সময়ে শীতের সময়ের মতো ত্বকের প্রতি যত্নশীল থাকেন না। আবার এই দুই মৌসুমের যত্নের ধরনও আলাদা। গরমে ত্বক ভালো রাখতে চাইলে করতে হবে কিছু কাজ। চলুন জেনে নেওয়া যাক-

সানস্ক্রিনের ব্যবহার: গরমে তীব্র রোদের কারণে ত্বকে পোড়াভাব সৃষ্টি হতে পারে। রোদের তীব্রতা থেকে বাঁচতে চাইলে বাইরে বের হওয়ার আগে অবশ্যই সানস্ক্রিন মাখতে হবে। কারণ এটি আপনার ত্বককে রোদের হাত থেকে রক্ষা করবে। বাইরে বের হওয়ার আগে মুখ, হাত-পা ও শরীরের অন্য খোলা অংশে সানস্ক্রিন ব্যবহার করুন।

সাবান পরিবর্তন করুন: অনেকেই আছেন যারা শীতের সময়ে যে সাবান ব্যবহার করেছেন, গরমেও সেটিই ব্যবহার করছেন। কিন্তু শীতের উপযোগী সাবান বা ফেসওয়াশ আর গরমের উপযোগী সাবান বা ফেসওয়াশ এক নয়। তাই গরমের সময়ে এগুলো পরিবর্তন করে গরমের উপযোগীগুলো ব্যবহার করুন। গরমে মুখের গ্রন্থি থেকে অতিরিক্ত তেল বের হয়। তা দূর করার জন্য প্রয়োজন হয় উপযুক্ত সাবান ও ফেসওয়াশের।

অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট সমৃদ্ধ ক্রিম বা সিরাম ব্যবহার: গরমের সময়ে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট সমৃদ্ধ ক্রিম বা সিরাম ব্যবহার করুন। কারণ এগুলো আপনাকে গরমে ত্বক সুন্দর রাখতে সাহায্য করবে। যেজন্য কিছুটা অর্থ ব্যয় হলেও এ ধরনের ক্রিম ও সিরাম কিনে আনুন।

পর্যাপ্ত ফল খান: গরমের সময়টা হলো ফলের মৌসুম। এসময় মৌসুমী ফলগুলো বেশি বেশি খান। এতে শরীরে পানির ভারসাম্য বজায় থাকবে। এছাড়া ফলে থাকে বিভিন্ন ভিটামিন। এসব ফলের পুষ্টিগুণ আপনার ত্বক ভালো রাখতে সাহায্য করবে। তাই এসময় আম, কাঁঠাল, লিচু, তরমুজ, বাঙ্গি, লটকন, পেয়ারা, আখ এগুলো খান।

টোনারের ব্যবহার করতে পারেন: ত্বকের যত্নে খুব বেশি কিছু করার দরকার নেই। আপনার ছোট ছোট কাজই ত্বককে ভালো রাখবে। গরমের সময়ে সম্ভব হলে ত্বকে টোনার ব্যবহার করুন। এটি ত্বকের তৈলাক্তভাব কমাতে কাজ করে। সেইসঙ্গে ত্বকও রাখে পরিষ্কার।

পানি পান করুন: গরমে শরীরে অল্পতেই সৃষ্টি হতে পারে পানিশূন্যতা। তাই এসময়ে প্রচুর পানি পান করুন। গরমে আমাদের শরীরে প্রচুর দূষিত পদার্থ জমা হতে পারে। সেসব দূর করার জন্যও পানি পান করা উচিত। শরীর থেকে দূষিত পদার্থ বের হয়ে গেলে ত্বক সহজেই পরিষ্কার ও উজ্জ্বল হবে।