আজঃ শনিবার ২৯ জানুয়ারী ২০২২
শিরোনাম

ভয়ঙ্কর করোনা : ঢাকাসহ ২ জেলা রেড জোন, ঝুঁকিতে ৬ জেলা

প্রকাশিত:বুধবার ১২ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:বুধবার ১২ জানুয়ারী ২০২২ | ৪২২৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

প্রাণঘাতি করোনাভাইরাস সংক্রমণের রেড জোন ঘোষণা করা হয়েছে ঢাকা ও রাঙামাটি জেলাকে। এছাড়াও মধ্যম পর্যায়ের ঝুঁকিতে রাখা হয়েছে যশোরসহ সীমান্তবর্তী ৬ জেলাকে। আজ বুধবার (১২ জানুয়ারি) স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের করোনা ড্যাশবোর্ড ওয়েবসাইট থেকে এ তথ্য জানা গেছে।

ঝুঁকিতে থাকা জেলাগুলো হলো- রাজশাহী, রংপুর, নাটোর, লালমনিরহাট, দিনাজপুর, যশোর। এসব জেলায় করোনা সংক্রমণের হার ৫ শতাংশ থেকে ৯ শতাংশে অবস্থান করছে। আর রেড জোনে থাকা দুই জেলায় করোনা সংক্রমণের হার ১০ শতাংশ থেকে ১৯ শতাংশ।


আরও খবর
করোনায় আরও ২০ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ১৫৪৪০

শুক্রবার ২৮ জানুয়ারী ২০২২

করোনায় মৃত্যু ১৫, শনাক্ত ১৫ হাজার ৮০৭ জন

বৃহস্পতিবার ২৭ জানুয়ারী ২০২২




পি কে হালদার কেলেঙ্কারি : বাংলাদেশ ব্যাংকের ৪ কর্মকর্তাকে তলব

প্রকাশিত:বুধবার ১৯ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:বুধবার ১৯ জানুয়ারী ২০২২ | ৩৮০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

আলোচিত এনআরবি গ্লোবাল ব্যাংকের সাবেক ব্যবস্থাপনা পরিচালক প্রশান্ত কুমার হালদার (পি কে হালদার) কেলেঙ্কারিতে বাংলাদেশ ব্যাংকের চার কর্মকর্তাকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তলব করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।

দুদকের প্রধান কার্যালয় থেকে সংস্থাটির উপ-পরিচালক ও তদন্ত কর্মকর্তা গুলশান আনোয়ার প্রধানের সই করা পৃথক নোটিশে তাদের তলব করা হয়েছে। বুধবার (১৯ জানুয়ারি) দুদকের জনসংযোগ দফতর সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে। নোটিশে তাদেরকে আগামী ২৪ জানুয়ারি দুদকের প্রধান কার্যালয়ে হাজির হয়ে বক্তব্য প্রদানের জন্য অনুরোধ করা হয়েছে।

যাদের তলব করা হয়েছে তারা হলেন- বাংলাদেশ ব্যাংকের প্রধান কার্যালয়ের আর্থিক প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন বিভাগের যুগ্ম পরিচালক মোহাম্মদ ফেরদৌস কবির, এ.বি.এম মোবারক হোসেন, উপপরিচালক মো. হামিদুল আলম ও সহকারী পরিচালক মো. কাদের আলী।

ক্যাসিনো অভিযানের ধারাবাহিকতায় পি কে হালদারের বিরুদ্ধে প্রায় তিন হাজার ৬০০ কোটি টাকা আত্মসাৎ ও পাচারের অভিযোগ ওঠে। দুর্নীতির সংশ্লিষ্টতায় এখন পর্যন্ত ৮৩ ব্যক্তির প্রায় তিন হাজার কোটি টাকার সম্পদ আদালতের মাধ্যমে ফ্রিজ করেছে দুদক। পর্যায়ক্রমে তিন ধাপে এখন পর্যন্ত ৫২ আসামি ও অভিযোগসংশ্লিষ্ট ব্যক্তির বিদেশ গমনে নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হয়েছে।

দুদক উপপরিচালক গুলশান আনোয়ার প্রধানের নেতৃত্বে একটি টিম পি কে হালদারের আর্থিক কেলেঙ্কারির বিষয়টি অনুসন্ধান করছে। ওই টিম এরই মধ্যে ১৫টি মামলা করেছে। ইন্টারন্যাশনাল লিজিং থেকে প্রায় ৮০০ কোটি টাকা ভুয়া ঋণের নামে উত্তোলন করে আত্মসাতের অভিযোগে প্রতিষ্ঠানের ৩৭ জনের বিরুদ্ধে ১০টি মামলা এবং ৩৫০ কোটি ৯৯ লাখ টাকা আত্মসাতের অভিযোগে ইন্টারন্যাশনাল লিজিং অ্যান্ড ফাইন্যান্সিয়াল সার্ভিসেসর ৩৩ শীর্ষ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে পৃথক পাঁচটি মামলা করেছে দুদক।

২০২০ সালের ৮ জানুয়ারি প্রায় ২৭৫ কোটি টাকার অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগে প্রথম প্রশান্ত কুমার হালদারের বিরুদ্ধে মামলা হয়। এরপর গত বছরের নভেম্বরে ৪২৬ কোটি টাকার জ্ঞাত আয় বহির্ভূত সম্পদ অর্জন ও বিভিন্ন ব্যাংক হিসাবে প্রায় ৬ হাজার ৮০ কোটি টাকা লেনদেনের অভিযোগে এনআরবি গ্লোবাল ব্যাংক ও রিলায়েন্স ফাইন্যান্স লিমিটেডের সাবেক এমডি পি কে হালদারসহ মোট ১৪ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দেয় দুদক। উপ-পরিচালক মো. সালাউদ্দিনের তদন্ত কর্মকর্তা হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন।

২০২১ সালের ৮ জানুয়ারি দুদকের অনুরোধে পি কে হালদারের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা দিয়ে ইন্টারপোলের মাধ্যমে রেড অ্যালার্ট জারি করা হয়। তার কেলেঙ্কারিতে এখন পর্যন্ত গ্রেফতার হয়েছেন ১১ জন। তাদের মধ্যে উজ্জ্বল কুমার নন্দী, পি কে হালদারের সহযোগী শংখ বেপারী, রাশেদুল হক, অবান্তিকা বড়াল ও নাহিদা রুনাইসহ আটজন আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন।

তবে ইন্টারপোলের মাধ্যমে রেড অ্যালার্ট জারি হওয়ার আগেই অর্থ পাচারের মামলা মাথায় নিয়ে ২০১৯ সালে বেনাপোল বন্দর দিয়ে দেশ ছাড়েন পি কে হালদার; যদিও তিনি যাতে দেশত্যাগ করতে না পারেন সে অনুরোধ জানিয়ে পুলিশের বিশেষ শাখাকে চিঠি দেওয়া হয়েছিল। তবে চিঠি পৌঁছানোর দুই ঘণ্টা ৯ মিনিট আগেই ২০১৯ সালের ২৩ অক্টোবর বেনাপোল বন্দর দিয়ে দেশ ত্যাগ করেন পি কে হালদার। ইমিগ্রেশন পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ অ্যাটর্নি জেনারেল কার্যালয়কে এমন তথ্য দিয়েছে।

নিউজ ট্যাগ: পি কে হালদার

আরও খবর



ব্রাজিলকে ১-১ গোলে রুখে দিলো ইকুয়েডর

প্রকাশিত:শুক্রবার ২৮ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৮ জানুয়ারী ২০২২ | ২৪০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

ম্যাচে কী ছিল না! ব্রাজিলের গোলরক্ষক দুই দুইবার লাল কার্ড দেখলেন। ফাউলের পর ফাউল হলো। ম্যাচের প্রথম ২০ মিনিট যেতেই দুই দল ১০ জনে পরিণত হলো। শেষ পর্যন্ত জিততে পারলো না কোনো দলই।

বাংলাদেশ সময় শুক্রবার (২৮ জানুয়ারি) ভোরে বিশ্বকাপ বাছাইপর্বের এই ম্যাচে ব্রাজিলকে ১-১ গোলে রুখে দিলো ইকুয়েডর।

এদিন নেইমারকে ছাড়াই ম্যাচ শুরুর মাত্র ৬ মিনিটে গোল করে ব্রাজিলকে এগিয়ে দেন ক্যাসেমিরো। পরে ম্যাচের ৭৫তম মিনিটে গিয়ে সমতা টানেন ইকুয়েডরের ফেলিক্স তোরেস। পরে জয়সূচক গোলের দেখা পেতে চেষ্টার কোনো ত্রুটি রাখেনি ব্রাজিল। বেশ কিছু সুযোগও তৈরি হয়েছিল। কিন্তু সেগুলো কাজে লাগাতে পারেনি কোচ আদেনর লিওনার্দো বাচ্চির (তিতে) দল। এ ম্যাচে মোট ৩২টি ফাউল করেছেন দুই দলের ফুটবলাররা।

দক্ষিণ আমেরিকা অঞ্চলের বিশ্বকাপ বাছাইয়ে ব্রাজিল ১৪ ম্যাচে ১১ জয় ও তিন ড্রয়ে ৩৬ পয়েন্ট নিয়ে আছে শীর্ষে। ১৫ ম্যাচে সাত জয় ও তিন ড্রয়ে ২৪ পয়েন্ট নিয়ে তিনে আছে ইকুয়েডর।

এদিকে একই দিনে লিওনেল মেসিকে ছাড়াই চিলির বিপক্ষে ২-১ গোলে জয় পেয়েছে আর্জেন্টিনা। আর্জেন্টিনার পক্ষে গোল দুটি করেছেন ডি মারিয়া ও লাউতারো মার্টিনেজ।


আরও খবর
সাড়ে ৩ বছর নিষিদ্ধ ব্রেন্ডন টেলর

শুক্রবার ২৮ জানুয়ারী ২০২২




অর্ধেক যাত্রী নিয়ে চলবে গণপরিবহন

প্রকাশিত:সোমবার ১০ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ১০ জানুয়ারী ২০২২ | ৫৮০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

করোনাভাইরাসের নতুন ধরন ওমিক্রনধরন ঠেকাতে আসন সংখ্যার অর্ধেক যাত্রী নিয়ে গণপরিবহন চলাচলের সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। সোমবার (১০ জানুয়ারি) মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের সিনিয়র সহকারী সচিব সাইফুল ইসলাম স্বাক্ষরিত প্রজ্ঞাপনে এ তথ্য জানানো হয়।

প্রজ্ঞাপনে বলা হয়, ট্রেন, বাস এবং লঞ্চে সক্ষমতার অর্ধেক সংখ্যক যাত্রী নেওয়া যাবে। সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ এ বিষয়ে কার্যকারিতার তারিখসহ সুনির্দিষ্ট নির্দেশনা জারি করবে। সর্বপ্রকার যানের চালক ও সহকারীদের আবশ্যিকভাবে কোভিড-১৯ টিকা সনদধারী হতে হবে।

বেশ কয়েকদিন ধরেই দেশে করোনা শনাক্তের সংখ্যা বাড়ছে। এর মধ্যে সোমবার দেশে দুই হাজার ২৩১ জনের শরীরে করোনা শনাক্ত হয়েছে। শনাক্তের হার ৮ দশমিক ৫৩ শতাংশ।

এর আগে গত ২৮ নভেম্বর করোনাভাইরাসের দক্ষিণ আফ্রিকান ধরন ওমিক্রনের সংক্রমণ দেখা দেওয়ায় অধিকতর সতর্কতার অংশ হিসেবে ১৫ দফা নির্দেশনা জারি করে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর।


আরও খবর



জেনে নিন কেমন হবে আপনার নতুন বছর

প্রকাশিত:শনিবার ০১ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০১ জানুয়ারী ২০২২ | ৫৬৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

নতুন বছর মানে নতুন স্বপ্ন, নতুন আশা। কেমন হতে যাচ্ছে নতুন বছর, তা ভেবে টেনশন হচ্ছে খুব? হওয়ারই কথা। আপনার অর্জন ঠিক ততটুকুই হবে, যতটুকু আপনার কর্ম। ফলে সাফল্য, ব্যর্থতা, রোজগার, সম্পর্কপুরোটাই আপনার হাতের মুঠোয়।

২০২২ সাল বাংলাদেশের জন্য একটি অপার সম্ভাবনার বছর হিসেবে চিহ্নিত হয়ে থাকতে পারে। নানারকম প্রাকৃতিক দুর্যোগ থাকা সত্ত্বেও কৃষিতে আমাদের সাফল্য প্রতিবেশী দেশগুলোর কাছে অনুকরণীয় হয়ে থাকবে। পাশাপাশি আর্থিক উন্নতির ক্ষেত্রেও চাকা সামনের দিকেই এগোবে; তবে কিছুটা মন্থর গতিতে! রাহুর অবস্থানগত কারণে দেশের রাজনৈতিক মঞ্চ কখনো কখনো অস্থির হয়ে উঠবে ঠিকই তবে তা কোনো বড় ধরনের পরিবর্তন ঘটাবে বলে মনে হয় না। রাজনৈতিক পরিমণ্ডলে পারস্পরিক দোষারোপের সংস্কৃতির আগের মতোই বজায় থাকবে। পরাশক্তির সঙ্গে কৌশলগত আচরণ বিশ্ব রাজনীতিতে বাংলাদেশের অবস্থানকে আরও সুসংহত করবে। দেশের যোগাযোগ ব্যবস্থায় কিছু বড় ধরনের চমক থাকলেও সার্বিক পরিস্থিতির তেমন একটা পরিবর্তন দেখা যাবে না। প্রায় দুই বছর শিক্ষা ক্ষেত্রে চরম অস্থিরতা বিরাজ করলেও এ বছর পরিস্থিতির উন্নতি ঘটবে। অনেক ছাত্র-ছাত্রীই এ বছর বিদেশে পড়ালেখার সুযোগ পাবেন। আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ে খুব একটা আশাবাদ ব্যক্ত করা যাচ্ছে না। সরকারের নিরলস প্রচেষ্টা থাকা সত্ত্বেও চুরি-ডাকাতি, ছিনতাই, অপহরণ ইত্যাদি কখনো কখনো জনজীবনকে বিপর্যস্ত করে তুলতে পারে। পরকীয়া, ডিভোর্স, একাধিক বিয়ের প্রবণতা ইত্যাদি আশঙ্কাজনকভাবে বাড়তে পারে। এ বছর খেলাধুলায় বাংলাদেশ অনেকটাই এগিয়ে যাবে। একাধিক আন্তর্জাতিক প্রতিযোগিতায় দেশের মুখ উজ্জ্বল করবে তরুণ প্রতিযোগীরা। বর্তমানে ক্রিকেট নিয়ে যে সমালোচনা চলছে, তার উপযুক্ত জবাব দিতে সক্ষম হবে আমাদের ক্রিকেটারেরা। এ বছর আমাদের দেশের চলচ্চিত্র বিদেশের মাটিতে পুরস্কার জিততে পারে। নৃত্যকলা ও সংগীতেও এ দেশের শিল্পীরা বিদেশে সুনাম কুড়াতে সক্ষম হবেন। পোশাক শিল্প গত দুই বছরে যে পরিমাণ ক্ষতির সম্মুখীন হয়েছিল, আর অনেকটাই এ বছর কাটিয়ে উঠতে সক্ষম হবে। এ ছাড়া সার্বিক রপ্তানি বাণিজ্যে নতুন করে সুবাতাস বইতে শুরু করবে। দেশ একাধিকবার প্রাকৃতিক দুর্যোগের কবলে পড়তে পারে। বন্যা, সাইক্লোন, ভূমিকম্পএগুলোর আশঙ্কাকে একদম উড়িয়ে দেওয়া যাচ্ছে না। তবে সরকারের ত্বরিত ব্যবস্থা গ্রহণের ফলে ক্ষয়ক্ষতি ঘটবে একদম ন্যূনতম পর্যায়ে। করোনা পুরোপুরি নিয়ন্ত্রণে আনা সম্ভব না হলেও নতুন করে মারাত্মক আকার ধারণ করবে বলে মনে হয় না। সবকিছু মিলিয়েই এ বছর আমাদের সকলের জীবনে সম্ভাবনার নতুন দিগন্ত উন্মোচিত হতে পারে। এটাই হোক আমাদের সবার প্রত্যাশা।

ব্যক্তিগত বর্ষফল-২০২২

মেষ (২১ মার্চ-২০ এপ্রিল)

সম্ভাবনার বছর।

কাজকর্ম, অর্থ, সম্পর্ক সবকিছুতেই ইতিবাচক শুভ ফলের যোগ আছে।

চাকরি প্রত্যাশীদের অনেকেরই এ বছর দুশ্চিন্তার অবসান হবে। ব্যবসায়িক পরিকল্পনা বাস্তবায়নের জন্য জানুয়ারি ও ফেব্রুয়ারি এ দুই মাস অত্যন্ত শুভ। শিক্ষা ক্ষেত্রে কারও কারও বৈদেশিক বৃত্তি পাওয়ার সম্ভাবনা আছে। প্রেমের ব্যাপারে আগ বাড়িয়ে কিছু করার দরকার নেই। বিদেশ যাত্রার ব্যাপারে একাধিক নতুন সুযোগ আসতে পারে কারও কারও। অর্থনৈতিক দিক স্থিতিশীল থাকার সম্ভাবনা বেশি।

বৃষ (২১ এপ্রিল-২১ মে)

অপ্রত্যাশিত সৌভাগ্যের বছর।

হঠাৎ কোনো সম্পত্তির মালিকানা আপনার কাছে চলে আসতে পারে। ব্যবসায় বছরের প্রথম তিন মাসে চমক থাকবে। পেশা পরিবর্তনের মধ্য দিয়ে আপনার আর্থিক সমৃদ্ধি ঘটতে পারে। বছরের পুরোটাই পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে সুসম্পর্ক বজায় থাকবে। সন্তানের কৃতিত্বে অনেকের সামাজিক মর্যাদা বাড়ার সম্ভাবনা আছে। বন্ধু-বান্ধব কিংবা আত্মীয়-স্বজনের সঙ্গে পুরোনো বিরোধের নিষ্পত্তি হতে পারে অনেকের। আইনি বিষয়ে সতর্ক থাকবেন।

মিথুন (২২ মে-২১ জুন)

মিশ্রফলের বছর।

বছরের শুরু থেকেই একটু একটু করে হলেও পাওনা আদায় হবে। অংশীদারের খপ্পর থেকে বেরিয়ে এসে নিজেই ব্যবসা শুরু করুন। বছরের মাঝামাঝি চাকরিজীবীদের জন্য শুভ সময়। এ বছর পড়ালেখা নিয়ে ছাত্র-ছাত্রীরা স্বস্তির নিশ্বাস ফেলতে সক্ষম হবেন। কারও কারও বছরের মাঝামাঝি সময়ে বিদেশে অধ্যয়নের বিষয়টি চূড়ান্ত হতে পারে। এ বছর আয়ের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে ব্যয় বাড়তে পারে। প্রেমের ব্যাপারে সতর্ক হয়ে এগোন।

কর্কট (২২ জুন-২২ জুলাই)

রহস্যজনক বছর।

বছরের দ্বিতীয় ভাগে একাধিক ব্যবসায়িক পরিকল্পনা সফল হতে পারে। চাকরিতে হঠাৎ পদোন্নতি কিংবা অপ্রত্যাশিত সুবিধা আপনাকে কিছুটা অবাক করতে পারে। এ বছর জমি, অ্যাপার্টমেন্ট কিংবা অন্য কোনো স্থাবর সম্পত্তির মালিকানা পেতে পারেন। প্রেমের ব্যাপারে প্রতারণার ঘটনা ঘটতে পারে। এ বছর উপার্জনের নতুন উৎসের সন্ধান পাবেন অনেকেই। সৃজনশীল কাজের জন্য প্রশংসিত হবেন কেউ কেউ।

সিংহ (২৩ জুলাই-২৩ আগস্ট)

শুভ সম্ভাবনাময় বছর।

অতীতের ব্যর্থতা, আর্থিক ও মানসিক বিপর্যয় কাটিয়ে ঝকঝকে একটি বছর আপনার সামনে। নতুন ব্যবসায়ে হাত দিলে সাফল্য পাবেন। চাকরিজনিত দুশ্চিন্তায় বছরের শুরুতে নিষ্পত্তি হতে পারে। এ বছর শিক্ষার্থীদের অনেকেই বিদেশে পড়া লেখার সুযোগ পাবেন। দীর্ঘদিনের ঝুলে থাকা মামলা নিষ্পত্তি হতে পারে। তবে একাধিক প্রেমের আহ্বান আপনাকে কিছুটা বিভ্রান্তিতে ফেলতে পারে। অনেকেই এ বছর একাধিকবার বিদেশে ভ্রমণের সুযোগ পাবেন।

কন্যা (২৪ আগস্ট-২৩ সেপ্টেম্বর)

সার্বিকভাবে সুসংহত হওয়ার বছর।

ব্যবসায়ে অংশীদারের সঙ্গে বিরোধ নিষ্পত্তি হতে পারে। চাকরিতে যারা পরিবর্তন চাইছেন, তাঁদের জন্য বছরটি শুভ। এ বছর জমিসহ অস্থাবর সম্পত্তির মালিকানা পেতে পারেন। চাকরি প্রত্যাশীদের জন্য বছরের প্রথমার্ধ শুভ। প্রেমের ব্যাপারে ভুল বোঝাবুঝির সৃষ্টি হলেও তা নিষ্পত্তি হতে বেশি সময় লাগবে না। এ বছর আয়ের নতুন উৎসের সন্ধান পেতে পারেন। রাজনৈতিক তৎপরতা শুভ।

তুলা (২৪ সেপ্টেম্বর-২৩ অক্টোবর)

শুভ সম্ভাবনায় বছর।

ব্যবসায়ীদের মুখে হাসি ফুটবে। নতুন ব্যবসার জন্য বছরটি শুভ। চাকরিতে অনেকেরই আটকে থাকা পদোন্নতির বিষয়টি নিষ্পত্তি হবে। এ বছর অনেকেই জমি কিংবা অন্য কোনো অস্থাবর সম্পত্তির মালিকানা পাবেন। প্রেমিক-প্রেমিকার জন্য বছরটি অত্যন্ত শুভ। সম্ভাব্য ক্ষেত্রে বিয়ের কথাবার্তা পাকাপাকি হতে পারে। আর্থিক বিষয়ে বছরের আগাগোড়াই সৌভাগ্য আপনার সঙ্গে থাকবে।

বৃশ্চিক (২৪ অক্টোবর-২২ নভেম্বর)

সৌভাগ্যে পরিপূর্ণ বছর।

ব্যবসায়ে নতুন বিনিয়োগ শুভ। নতুন চাকরিতে গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব পাওয়ার পাশাপাশি আর্থিক দিক দিয়েও লাভবান হবেন। ছাত্র-ছাত্রীদের অনেকেই এ বছর বৈদেশিক বৃত্তি পেতে পারেন। বিভিন্ন পরীক্ষায় কেউ কেউ ভালো ফল অর্জনে সক্ষম হবেন। এ বছর একাধিকবার আইনি জটিলতায় পড়তে হলেও শেষ পর্যন্ত তা থেকে বেরিয়ে আসতে সক্ষম হবেন। প্রেমিক-প্রেমিকার জন্য বছরের আগা-গোড়াই সুসময় বিরাজ করবে।

ধনু (২৩ নভেম্বর-২১ ডিসেম্বর)

সৌভাগ্যময় বছর।

বছরের প্রথম তিন মাস নতুন ব্যবসা শুরুর জন্য শুভ সময়। এ বছর ছাত্র-ছাত্রীদের অনেকেই ভালো করবেন। চাকরিজনিত ঝামেলা থেকে মুক্তি পেতে পারেন। পারিবারিক বিরোধের নিষ্পত্তি হতে পারে কারও কারও। এ বছর পাওনা টাকা আদায়ের ক্ষেত্রেও উল্লেখযোগ্য অগ্রগতি হবে। প্রেমের ব্যাপারে অতি উৎসাহী হবেন না। প্রতারণার ঘটনা ঘটতে পারে। সৃজনশীল কাজের জন্য সম্মাননা পেতে পারেন। 

মকর (২২ ডিসেম্বর-২০ জানুয়ারি)

স্মরণীয় বছর।

ব্যবসায়ীদের মুখে হাসি ফুটবে এ বছর। পারিবারিক দ্বন্দ্ব চরম আকার ধারণ করতে পারে। মাথা ঠান্ডা রেখে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনুন। চাকরিজনিত বিভিন্ন বিষয় বছরের প্রথম দিকেই নিষ্পত্তি হতে পারে। চাকরিপ্রত্যাশীদের অনেকেই এ বছর প্রত্যাশার চেয়েও ভালো চাকরি পেতে পারেন। হঠাৎ অর্থপ্রাপ্তির সম্ভাবনা আছে এ রাশির মানুষদের। এ বছর একাধিক প্রেমের প্রস্তাব পেতে পারেন। বন্ধুবান্ধবের মাধ্যমে উপকৃত হবেন।

কুম্ভ (২১ জানুয়ারি-১৮ ফেব্রুয়ারি)

সংগ্রাম ও সফলতার বছর।

আয়ের একাধিক নতুন উৎসের সন্ধান পেতে পারেন। ব্যবসায় উন্নতির জন্য সুযোগ কাজে না লাগালে একাধিক সুযোগ হাতছাড়া হতে পারে। চাকরিতে পরিবর্তন আপনার জন্য সুফল বয়ে আনতে পারে। শিক্ষার্থীদের অনেকেই ভালো ফলাফল অর্জন করবেন। কেউ বিদেশেও পড়ালেখার সুযোগ পাবেন। প্রেমে ভুল বোঝাবুঝি মাত্রা ছাড়িয়ে যেতে পারে। সতর্ক থাকবেন। আইনি সমস্যার সমাধান হতে পারে কারও কারও।

মীন (১৯ ফেব্রুয়ারি-২০ মার্চ)

সফলতার বছর।

একক কিংবা অংশীদারী যেকোনো ধরনের ব্যবসায় সাফল্য পাবেন। চাকরিতে পরিবর্তন সার্বিকভাবে সুফল বয়ে আনতে পারে কারও কারও। অনেকেই বছরের প্রথম ২-৩ মাসের মধ্যে নতুন কাজের সন্ধান পেতে পারেন। এ বছর একাধিক প্রেমের প্রস্তাব আপনাকে বিভ্রান্তিতে ফেলতে পারে। তবে সম্ভাব্য ক্ষেত্রে বিয়ের কথাবার্তা পাকাপাকি হতে পারে। শিক্ষার্থীদের কারও কারও জন্য শুভ সময় যাবে। এ বছর সার্বিকভাবে আপনার আয় বৃদ্ধি পাবে।

নিউজ ট্যাগ: আজকের রাশিফল

আরও খবর
আজ আপনার জন্মদিন হলে

শুক্রবার ২৮ জানুয়ারী ২০২২




বিদায়লগ্নে একটি ভালো নির্বাচন দেখতে চাই: ইসি মাহবুব

প্রকাশিত:রবিবার ১৬ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ১৬ জানুয়ারী ২০২২ | ২৯০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

বর্তমান নির্বাচন কমিশনের (ইসি) বিদায়লগ্নে একটি ভালো নির্বাচন দেখার প্রত্যাশা ব্যক্ত করেছেন নির্বাচন কমিশনার মাহবুব তালুকদার।

রোববার (১৬ জানুয়ারি) দুপুরে নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন (নাসিক) নির্বাচনে নগরীর ১৩ নম্বর ওয়ার্ডের আদর্শ স্কুল, নারায়ণগঞ্জ কেন্দ্র পরিদর্শনকালে তিনি সাংবাদিকদের এ কথা বলেন।

এসময় প্রার্থীদের এজেন্টদের কাছে মাহবুব তালুকদার তাদের কোনো ধরনের অসুবিধা হচ্ছে কি না, সে বিষয়ে জানতে চান। জবাবে এজেন্টরা ইভিএমসহ ভোটের বর্তমান পরিস্থিতি নিয়ে কোনো অভিযোগ নেই বলে জানান।

পরে প্রিসাইডিং অফিসারের কাছেও ইভিএমে সমস্যা আছে কি না, কারো কোনো অভিযোগ আছে কি না এবং ভোট কেমন হচ্ছে, এসব বিষয়ে জানতে চান এ নির্বাচন কমিশনার।

সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ভোট কেমন হচ্ছে এ ব্যাপারে কোনো কথা আমি এখন বলবো না। সময়টা শেষ না হওয়া পর্যন্ত ভোটের কোনো কিছু আমি বলতে পারি না, বলবো ভোটের সময়েটা পার হওয়ার পরে। ভোট যত বেশি কাস্ট হবে আমি তত খুশি। আমাদের বিদায়লগ্নে একটি ভালো নির্বাচন দেখতে চাই। যার জন্য আমি আজ এখানে এসেছি।

মাহবুব তালুকদার বলেন, নির্বাচন সম্পর্কে আমার চেয়ে সাংবাদিকরা ভালো জানেন। আমি তো একদিন এসেছি, গণমাধ্যমকর্মীরা দীর্ঘদিন ধরে এটা দেখছেন, পর্যবেক্ষণ করছেন। কোনো ধরনের সমস্যা থাকলে আপনারা (মিডিয়া) জানান। আমি এখন যদি কিছু বলি সেটা খণ্ডচিত্র হবে।


আরও খবর