আজঃ শনিবার ২৯ জানুয়ারী ২০২২
শিরোনাম

ভারতে আবারও বাড়ছে করোনা আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০৬ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ০৬ জানুয়ারী ২০২২ | ৬১৮৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

ভারতে আবারও বাড়ছে করোনা আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা। বৃহস্পতিবার সেই সংখ্যা বেড়ে প্রায় লাখের কাছাকাছি পৌঁছেছে। করোনায় একদিনে প্রাণ হারানো মানুষের সংখ্যাও ৩২৫ জনে দাঁড়িয়েছে।

এরই মধ্যে ভারতে করোনার নতুন ভ্যারিয়েন্ট ওমিক্রন আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে দুই হাজার ৬৩০ জনে। এবং বুধবার রাজস্থানে একজনের মৃত্যু হয়েছে। বৃহস্পতিবার এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানিয়েছে ভারতীয় বার্তা সংস্থা এএনআই ও সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি।

বৃহস্পতিবার ভারতের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় দেশটিতে নতুন করে করোনায় সংক্রমিত হয়েছেন ৯০ হাজার ৯২৮ মানুষ। অর্থাৎ আগের দিনের তুলনায় দেশটিতে নতুন সংক্রমিত রোগীর সংখ্যা বেড়েছে প্রায় ৩৩ হাজার। আর বুধবারের তুলনায় ৫৬ দশমিক ৫ শতাংশ বেশি।

অন্যদিকে বুধবারের তুলনায় বৃহস্পতিবার ভারতে দৈনিক মৃত্যুর সংখ্যা কমলেও তা এখনও তিনশর ওপরেই রয়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশটিতে মারা গেছেন ৩২৫ জন। অর্থাৎ গত একদিনে প্রাণহানির সংখ্যা কমেছে দুই শতাধিক। মহামারির শুরু থেকে দেশটিতে এখন পর্যন্ত মারা গেছেন ৪ লাখ ৮২ হাজার ৮৭৬ জন।

ভারতে এখন দৈনিক সংক্রমণের হার ৬ দশমিক ৪৩ শতাংশ। এ ছাড়া গত ২৪ ঘণ্টায় দেশটিতে সুস্থ হয়েছেন ১৯ হাজারের বেশি মানুষ। ফলে দেশটিতে এখন সক্রিয় করোনা রোগীর সংখ্যা ২ লাখ ৮৫ হাজার ৪০১ জন।

এদিকে করোনার সংক্রমণ বাড়তে থাকায় সতর্ক অবস্থানে রয়েছে দিল্লি সরকার। রাজধানীর নয়টি হাসপাতালকে কোভিড বেডের সংখ্যা বাড়ানোর নির্দেশ দিয়েছেন দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল।

এ ছাড়া দিল্লি সরকারের স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ বিভাগের পক্ষ থেকে একটি নির্দেশনাও জারি করা হয়েছে। সেই নির্দেশনায় দিল্লির হাসপাতালগুলোতে কোভিড বেড তিন হাজার ৩১৬ থেকে বাড়িয়ে চার হাজার ৩৫০ করার কথা বলা হয়েছে।


আরও খবর



পঞ্চম ধাপের ইউপি নির্বাচন, সহিংসতা এড়াতে বিজিবি মোতায়েন

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৪ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ০৪ জানুয়ারী ২০২২ | ৩৫৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

পঞ্চম ধাপের ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনে ১৯টি উপজেলায় সহিংসতার আশঙ্কার কথা জানিয়েছে মাঠ প্রশাসন। এজন্য সংশ্লিষ্ট উপজেলাগুলোতে মোতায়েন করা হচ্ছে অতিরিক্ত বিজিব ও র‌্যাব।

নির্বাচন কমিশনের (ইসি) সূত্রগুলো জানিয়েছে, বিভিন্ন জেলা প্রশাসন থেকে ভোটের আগে-পরে ১৯টি উপজেলায় সহিংসতার আশঙ্কা করে সম্প্রতি অতিরিক্ত ফোর্স মোতায়েনের চাহিদাপত্র দিলে ইসি তাতে অনুমোদন দিয়েছে। এজন্য স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতেও বলেছে।

আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী মোতায়েনের ছক থেকে জানা গেছে, প্রতি উপজেলায় র‌্যাবের ২টি মোবাইল টিম ও একটি স্ট্রাইকিং টিম মোতায়েন রয়েছে। বিজিবির মোবাইল টিম রয়েছে ২ প্লাটুন ও ১ প্লাটুন সদস্য নিয়োজিত আছে স্ট্রাইকিং টিম হিসেবে। একই হারে কোস্ট গার্ডও মোতায়েন করা হয়েছে।

ওই ১৯টি উপজেলার কোথাও অতিরিক্ত ২ প্লাটুন বিজিবি এবং কোথাও ১ প্লাটুন বিজিবি মোতায়েনের সিদ্ধান্ত দিয়েছে ইসি। এছাড়া র‌্যাবের অতিরিক্ত টিমও মোতায়েন থাকছে।

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগের সিনিয়র সচিবের কাছে বুধবার (০৪ জানিয়ারি) এ সংক্রান্ত পত্রটি পাঠিয়েছেন ইসির নির্বাচন পরিচালনা শাখার উপ-সচিব মো. আতিয়ার রহমান। এতে অতিরিক্ত ফোর্স স্ট্রাইকিং ফোর্স হিসেবে মোতায়েন করার জন্য বলা হয়েছে।

ইতোমধ্যে নির্বাচনী এলাকায় আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা অবস্থান নিয়েছেন। কেন্দ্র পাহারায় পুলিশ, আনসারের সমন্বয়ে নিয়োজিত রয়েছে ২২ জনের ফোর্স।

এছাড়া ভোটের এলাকায় পুলিশ, আনসার ও ব্যাটেলিয়ন আনসারের একটি করে টিম মোবাইল ফোর্স হিসেবে এবং প্রতি ইউপির জন্য ১টি করে টিম স্ট্রাইকিং ফোর্স হিসেবে দায়িত্ব পালন করছে।

ইতোমধ্যে চার ধাপের ইউপি ভোট সম্পন্ন করেছে ইসি। ষষ্ঠ ধাপের ভোট হবে ৩১ জানুয়ারি। আর সপ্তম ধাপে আগামী ৭ ফেব্রুয়ারি ভোটগ্রহণ করবে ইসি। এ পর্যন্ত ইউপিতে ৫০ জনের মতো নির্বাচনী সহিংসতায় নিহত হয়েছে। আহত হয়েছে তিন শতাধিক।


আরও খবর



ঈমানের পরই নামাজের স্থান

প্রকাশিত:বুধবার ২৬ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:বুধবার ২৬ জানুয়ারী ২০২২ | ১৯০জন দেখেছেন

Image

ইসলামের মূল ভিত্তি পাঁচটি। একজন মানুষ মুসলিম পরিচয় লাভের জন্য সর্ব প্রথম তাকে ইমান আনতে হবে। আর সেই ঈমানটা হলো আল্লাহ এক ও অদ্বিতীয় তার কোনো শরিক নেই, মুহাম্মাদ সা: তার নবী ও রাসূল। এর পরই নামাজের স্থান। প্রিয়নবি সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম নামাজকে ঈমানের পর স্থান দিয়েছেন। নামাজ শব্দটিকে আরবিতে বলা হয় সালাত।

নামাজই একমাত্র ইবাদত; যার মাধ্যমে মানুষ দুনিয়ার সব কাজ ছেড়ে শুধুমাত্র আল্লাহর জন্য নিবেদিত হয়ে যায়। এ নামাজই মানুষকে দুনিয়ার সব পাপ-পংকিলতা থেকে ধুয়ে মুছে পাক-সাফ করে দেয়। দুনিয়ার সব অন্যায়-অনাচার থেকে হেফাজত করে।

সালাত শব্দের আভিধানিক অর্থ দোয়া, তাসবিহ, রহমত তথা দয়া, ইস্তিগফার বা ক্ষমা প্রার্থনা করা। পরিভাষায় বলা হয় নির্দিষ্ট সময়ে, নির্দিষ্ট নিয়মে, নির্দিষ্ট পদ্ধতিতে ইবাদত করার নামই সালাত।

রাসূলুল্লাহ সা: যখন মিরাজে গমন করেন, মহান আল্লাহ তায়ালা তখন পাঁচ ওয়াক্ত সালাত ফরজ করেন রাসূল সা: ও তার উম্মতের ওপর। পবিত্র কুরআনে মহান আল্লাহ তায়ালা সর্বমোট ৮২ বার নামাজের কথা বলেছেন।

নামাজ একটি ফরজ তথা আবশ্যক ইবাদত, সেই প্রসঙ্গে আল্লাহপাকের বর্ণিত কুরআনের কিছু আয়াত যারা অদৃশ্যের বিষয়গুলোতে ইমান আনে এবং নামাজ কায়েম করে (সূরা বাকারা, আয়াত-৩)। আর তোমরা নামাজ প্রতিষ্ঠা করো; জাকাত প্রদান করো এবং রুকুকারীদের সাথে রুকু করো (সূরা বাকারা, আয়াত-৪৩)। হে নবী! আমার বান্দাদের মধ্যে যারা মুমিন তাদের বলুন, নামাজ কায়েম করতে (সূরা ইবরাহিম, আয়াত-৩১)। তোমরা লোকদের সাথে উত্তমভাবে কথা বলবে এবং নামাজ আদায় করবে (সূরা বাকারা, আয়াত-৮৩)। আল্লাহ ইরশাদ করেন, তুমি বলে দাও, আমার রব ন্যায়বিচারের নির্দেশ দিয়েছেন। তোমরা প্রত্যেক নামাজের সময় তোমাদের মুখমণ্ডল স্থির রেখো (সূরা আরাফ, আয়াত-২৯)। অতএব, আল্লাহকে সিজদা করো এবং তার ইবাদত করো (সূরা নাজম, আয়াত-৬২)।

নামাজের গুরুত্বপূর্ণ একটি দিক হলো নামাজ অশ্লীল ও মন্দকাজ থেকে বিরত রাখে। আল্লাহ রাব্বুল আলামিন ইরশাদ করেন, নিশ্চয় নামাজ অশ্লীল ও মন্দকাজ থেকে বিরত রাখে। (সূরা আনকাবুত, আয়াত-৪৫) যারা কিতাবকে দৃঢ়ভাবে ধারণ করে এবং নামাজ প্রতিষ্ঠা করে আমি এরূপ সৎকর্মশীলদের কর্মফল নষ্ট করি না (সূরা আরাফ, আয়াত-১৭০)। মুমিনরা নামাজ আদায় করে, জাকাত আদায় করে এবং আল্লাহ ও তার রাসূলের আদেশ মেনে চলে, এসব লোকের প্রতি আল্লাহ অবশ্যই করুণা বর্ষণ করবেন (সূরা তাওবা, আয়াত-৭১)।

মানুষের জীবনে কোনো বিপদ-আপদ এলে একজন প্রকৃত মুমিন বান্দার উচিত ধৈর্য্য ধারণ করা ও আল্লাহর কাছে সাহায্য প্রার্থনা করা এবং অবশ্যই তা নামাজের মাধ্যমে। এ প্রসঙ্গে আল্লাহ ইরশাদ করেছেন, হে ঈমানদারগণ! সবর ও নামাজের দ্বারা সাহায্য গ্রহণ করো, আল্লাহ সবরকারীদের সাথে আছেন (সূরা বাকারা, আয়াত-১৫৩)। অশান্তি বা গোলযোগের সময় হলে পায়ে হেঁটে অথবা বাহনে চড়ে যেভাবেই সম্ভব নামাজ পড়ো। আর যখন শান্তি স্থাপিত হয়ে যায় তখন আল্লাহকে সেই পদ্ধতিতে স্মরণ করো, যা তিনি তোমাদের শিখিয়েছেন, যে সম্পর্কে ইতঃপূর্বে তোমরা অনবহিত ছিলে (সূরা বাকারা, আয়াত-২৩৯)। নামাজ কায়েম করো এবং তাঁর নাফরমানি করা থেকে দূরে থাকো। তাঁরই কাছে তোমাদের সমবেত করা হবে (সূরা আল আনয়াম, আয়াত-৭২)।

বলো, আমার নামাজ, আমার ইবাদতের সমস্ত অনুষ্ঠান, আমার জীবন ও মৃত্যু সবকিছু আল্লাহ রাব্বুল আলামিনের জন্য (সূরা আল আনয়াম, আয়াত-১৬৩)। আমিই আল্লাহ, আমি ছাড়া আর কোনো ইলাহ নেই, কাজেই তুমি আমার ইবাদত করো এবং আমাকে স্মরণ করার জন্য নামাজ কায়েম করো (সূরা ত্বহা, আয়াত-১৪।

নামাজের গুরুত্ব বোঝাতে গিয়ে রাসূল সা: বলেছেন নামাজ বেহেশতের চাবি। দৈনিক পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ আদায়ের মাধ্যমে আল্লাহর সাথে তার বান্দার সরাসরি যোগাযোগ স্থাপিত হয়। আর এ জন্যই একজন মুসলিমের জীবনে নামাজের গুরুত্ব অনেক, কারণ মহান আল্লাহ তায়ালার কাছে প্রিয় ইবাদত হলো নামাজ।

হজরত আবদুল্লাহ ইবনে মাসউদ রা: থেকে বর্ণিত তিনি বলেন, আমি রাসূলুল্লাহ সা:কে জিজ্ঞাসা করলাম, (হে আল্লাহর রাসূল) আল্লাহর কাছে সবচেয়ে বেশি প্রিয় আমল কোনটি? রাসূলুল্লাহ সা: বললেন, নামাজ। (বুখারি ও মুসলিম)

নামাজ এমন একটি ইবাদত যার মাধ্যমে কুফর এবং ইমানের মধ্যে পার্থক্য করা যায়। কোন ব্যক্তি ইমানদার আর কোন ব্যক্তি কাফির তার স্পষ্টত ফারাক হলো নামাজ। কারণ মুমিন ব্যক্তি যেকোনো অবস্থাতেই প্রত্যহ পাঁচবার নামাজ আদায় করবে, আর কাফির ব্যক্তি নামাজ থেকে দূরে থাকে।

এ সম্পর্কে জাবির রা: বলেছেন, আল্লাহর রাসূল সা: নামাজের গুরুত্ব সম্পর্কে আলোচনা করতে গিয়ে বলেছেন, কুফর ও ইমানের মধ্যে পার্থক্য হলো নামাজ ত্যাগ করা। (সুনানে তিরমিজি-২৬১৮, সহিহ ইবনে মাজাহ-১০৭৮, মুসলিম)

হুসায়ন ইবনে হুরায়স রহ. বুরায়দা রা: থেকে বর্ণিত তিনি বলেন, রাসূলুল্লাহ সা: বলেছেন, আমাদের এবং কাফিরদের মধ্যে পার্থক্যকারী আমল হলো সালাত। যে সালাত ছেড়ে দিলো সে কুফরি করল। (সুনানে নাসায়ি-৪৬৪, সহিহ ইবনে মাজাহ-১০৭৯)

ব্যক্তি জীবন, পারিবারিক জীবন, সমাজ জীবন, রাষ্ট্রীয় জীবন, নামাজ সর্বোপরি সব জীবনের জন্যই একটি কল্যাণকর ইবাদত। মহান আল্লাহ সুবহানাহু তায়ালা সব বান্দাকে সঠিকভাবে নামাজ আদায়ে তৌফিক দান করুক, আমিন।

নিউজ ট্যাগ: নামাজ

আরও খবর
ক্ষমা মহত্ত্বের লক্ষণ

বৃহস্পতিবার ২৭ জানুয়ারী ২০২২

সূরা ফাতিহার গুরত্ব

মঙ্গলবার ২৫ জানুয়ারী ২০২২




ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে ৩০ কিলোমিটার দীর্ঘ যানজট

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২০ জানুয়ারী ২০22 | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২০ জানুয়ারী ২০22 | ২৯৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের কুমিল্লা অংশের প্রায় ৩০ কিলোমিটার দীর্ঘ এলাকাজুড়ে যানজটের সৃষ্টি হয়েছে। মহাসড়কের একাংশ বন্ধ করে বৃহস্পতিবার (২০ জানুয়ারি) বিকালে সড়ক ও জনপথ (সওজ) অধিদফতর রাস্তার মেরামত কাজ করার কারণে এ যানজট বেঁধেছে।

এদিকে, সওজ কুমিল্লার নির্বাহী প্রকৌশলী রেজা-ই-রাব্বি জানিয়েছেন, মহাসড়কের নিমসারে দুর্ঘটনা এবং সড়ক মেরামতের কারণে মানুষকে কিছুটা ভোগান্তির মধ্যে পড়তে হচ্ছে।

জানা গেছে, মহাসড়কের চান্দিনা অংশে রাস্তার একপাশ বন্ধ রেখে মেরামত কাজ করা হচ্ছে। সড়কের একই অংশে দুই দিকের গাড়ি চলাচল করছে। এতে যানজটের সৃষ্টি হয়েছে। তাছাড়া সড়কের নিমসারে উল্টোপথে সড়ক বিভাজকের ওপর দুর্ঘটনাকবলিত একটি ট্রাকটি পড়ে আছে। রাস্তা বন্ধ ও সড়কে দুর্ঘটনা দুটি কারণেই যানজট ব্যাপক আকার ধারণ করেছে।

ব্যক্তিগত কাজে ঢাকার উদ্দেশে বিকাল ৩টায় রওনা হয়েছেন স্থানীয় সাংবাদিক জহিরুল হক বাবু। তিনি বলেন রাত ৮টার মধ্যে আমাকে ঢাকায় পৌঁছাতে হবে। কিন্তু মহাসড়কের বুড়িচং অংশের কাবিলাতেই আটকে আছি। দিন গড়িয়ে রাত হয়েছে তবু যানজট ছাড়ছে না।

শুক্রবার (২১ জানুয়ারি) ব্যাংকের নিয়োগ পরীক্ষা এমরান হোসেনের। তিনি জানান, দুপুর ২টায় কুমিল্লা থেকে ঢাকার উদ্দেশে রওনা হয়েছেন। সন্ধ্যা সাড়ে ৬টাতেও চান্দিনাতেই আটকে আছেন। গাড়ি স্থির হয়ে আছে।

ময়নামতি হাইওয়ে থানার ওসি বেলাল উদ্দিন জাহাঙ্গীর বলেন, এক লেন বন্ধ করে মহাসড়ক মেরামতের কাজ করার কারণে যানজট সৃষ্টি হয়েছে। বৃহস্পতিবার এ সময়ে যানবাহনের চাপ থাকে, তাই সওজকে আপাতত কাজ বন্ধ রাখতে বলেছি। আমাদের দুটি টিম যানজট নিরসনে কাজ করছে।

সওজের নির্বাহী প্রকৌশলী রেজা-ই-রাব্বি জানান, এখন শুষ্ক মৌসুম হওয়ায় মেরামত কাজ এগিয়ে নিতে হচ্ছে। এক লেনে গাড়ি চলছে। নিমসারে দুর্ঘটনাও ঘটেছে। তাই যানজটের সৃষ্টি হয়েছে। 


আরও খবর



মনিরুল ইসলামসহ অতিরিক্ত আইজিপি হলেন ৭ জন

প্রকাশিত:শনিবার ২২ জানুয়ারী 20২২ | হালনাগাদ:শনিবার ২২ জানুয়ারী 20২২ | ৫৫০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

বাংলাদেশ পুলিশের উপ-মহাপরিদর্শক (ডিআইজি) সমমর্যাদার ৭ কর্মকর্তাকে অতিরিক্ত আইজিপি পদে পদোন্নতি দেওয়া হয়েছে। এদের মধ্যে রয়েছে পুলিশের স্পেশাল ব্রাঞ্চের (এসবি) মনিরুল ইসলাম ও পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনের (পিবিআই) প্রধান ডিআইজি বনজ কুমার মজুমদার।

শনিবার (২২ জানুয়ারি) রাষ্ট্রপতির আদেশক্রমে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগের যুগ্ম সচিব মো. আনোয়ারুল ইসলাম সরকার স্বাক্ষরিত এক স্মারকে এ পদোন্নতি দেওয়া হয়।

৭ কর্মকর্তার মধ্যে আরো রয়েছেন- পুলিশ সদর দফতরের ডিআইজি আবু হাসান মোহাম্মদ তারিক, কেন্দ্রীয় পুলিশ হাসপাতাল, রাজারবাগের পরিচালক ড. হাসান উল হায়দার, বরিশাল মেট্রোপলিটন পুলিশের কমিশনার মো. শাহাবুদ্দিন আহমেদ, শিল্পাঞ্চল পুলিশের ডিআইজি মো. মাহাবুবর রহমান, ময়মনসিংহ রেঞ্জের ডিআইজি ব্যারিস্টার মোহাম্মদ হারুন অর রশিদ।

জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় জানায়, সাত জনকে পদোন্নতি দিয়ে অবিলম্বে প্রজ্ঞাপন জারি করা হবে।


আরও খবর



কাঁচা টমেটোর গুনাগুন

প্রকাশিত:সোমবার ১০ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ১০ জানুয়ারী ২০২২ | ৪১৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

শীতের দাপট একটু কমলেও আমবাঙালি এখনও যথেষ্ট শীত উপভোগ করছে। শীত পড়তেই বাজারে হরেকরকম মরসুমি সব্জির সম্ভার। শীতকাল বলে নয়, সব ঋতুতেই সুস্থ থাকতে শাক-সব্জির বিকল্প নেই। সারাবছর রান্নার স্বাদ বাড়াতে বা শেষ পাতে চাটনি খেতে লাল টমেটো খাওয়া হয়।তবে শীতকালে লাল টমেটোর বদলে অনেকেই পছন্দ করেন সবুজ টমেটো। সবুজ টমেটো রান্নায় স্বাদ বাড়ানোর পাশাপাশি খেয়াল রাখে স্বাস্থ্যেরও।

১) ২৪০ গ্রাম কাঁচা টমেটোয় আছে ১৫ মাইক্রোগ্রাম ভিটামিন কে এবং ৪৫ মিলিগ্রাম ফসফেট। এই দুটি উপাদান বাতের ব্যথা এবং শীতকালে হাড়ের ক্ষয় রোধ করতে কার্যকরী ভূমিকা পালন করে।

 ২) ভিটাভিন সি ও ই সমৃদ্ধ কাঁচা টমেটো শরীরে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা গড়ে তোলে। দাঁত এবং ত্বকের জন্যে বেশ উপকারী সবুজ টমেটো।

 ৩) কাঁচা টমেটোয় থাকা কিউমেরিক ও ক্লোরোজেনিক অ্যাসিড কার্সিনোজের প্রভাব থেকে শরীরকে রক্ষা করে। এ ছাড়াও ক্যানসারে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কায় খানিক কমে।

 ৪) টমেটোতে থাকা লাইকোপিন নামক অ্যান্টিঅক্সিড্যান্ট হৃদ্‌যন্ত্রকে ভাল রাখে।ত্বক ভাল রাখে। এ ছাড়াও লাইকোপেন প্রস্টেট বা পেটের ক্যানসার রোধেও বিশেষ ভূমিকা পালন করে।

 ৫) কাঁচা টমেটোতে থাকা ভিটামিন বি ও পটাশিয়াম শরীরে কোলেস্টেরলের মাত্রাকে নিয়ন্ত্রণে রাখার পাশাপাশি রক্তচাপকেও স্বাভাবিক রাখতে বিশেষ ভূমিকা পালন করে।

নিউজ ট্যাগ: কাঁচা টমেটো

আরও খবর
করোনায় আরও ২০ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ১৫৪৪০

শুক্রবার ২৮ জানুয়ারী ২০২২

করোনায় মৃত্যু ১৫, শনাক্ত ১৫ হাজার ৮০৭ জন

বৃহস্পতিবার ২৭ জানুয়ারী ২০২২