আজঃ মঙ্গলবার ২৮ জুন ২০২২
শিরোনাম

ভান্ডারিয়ায় ধর্ষকের ফাঁসির দাবিতে শিক্ষার্থীদের মানববন্ধন

প্রকাশিত:সোমবার ২০ জুন ২০22 | হালনাগাদ:সোমবার ২০ জুন ২০22 | ৩০৫জন দেখেছেন

Image

ভান্ডারিয়া (পিরোজপুর) প্রতিনিধি:

পিরোজপুরের ভান্ডারিয়ার এক স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণের ঘটনায় ধর্ষকের ফাঁসির দাবিতে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে। সোমবার (২০ জুন) দুপুরে উপজেলার আতরখালী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সামনের রাস্তায় এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। এতে বিভিন্ন স্কুল,কলেজের শিক্ষক, শিক্ষার্থী, এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তি ও জনপ্রতিনিধিরা অংশ নেন।

মানববন্ধনে বক্তারা ধর্ষক শামীম মৃধার সর্বোচ্চ সাজা মৃত্যুদণ্ডের দাবি জানান। এছাড়াও তারা ভিকটিম পরিবারের নিরাপত্তা দেয়া, এলাকার শান্তি-শৃঙ্খলা রক্ষা ও শিক্ষার শান্তিপূর্ণ পরিবেশের দাবি জানান।

মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন, বীর মুক্তিযোদ্ধা সেলিম হোসেন,মানিক মিয়া কলেজের অধ্যক্ষ দেলোয়ারা জেসমিন, আতরখালী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সিনিয়র শিক্ষক আমিনুল ইসলাম, মো. ইদ্রিস আলী, ইউপি সদস্য নাছির উদ্দীন মল্লিক, সাবেক ইউপি সদস্য শাহনাজ আক্তার, প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক মাহাবুব হাওলাদার, সমাজসেবক জাকির হাওলাদার প্রমুখ।

উল্লেখ্য গত ১১ জুন পরীক্ষা শেষে বিদ্যালয় থেকে বাড়ি ফেরার পথে দেশীয় অস্ত্র দেখিয়ে নবম শ্রেণির স্কুল ছাত্রীকে ধর্ষণ করে শামীম মৃধা। পরে ১২ জুন ওই ছাত্রীর মা বাদি হয়ে থানায় মামলা করেন এবং গত বৃহস্পতিবার (১৬ জুন) রাতে র‍্যাব রাজধানীর উত্তরা থেকে তাকে গ্রেফতার করে ।

অভিযুক্ত শামীম মৃধা (৩০) পেশায় একজন শ্রমিক। সে উপজেলার ধাওয়া ইউনিয়নের রাজপাশা গ্রামের মৃত আব্দুল বারেক মৃধার পুত্র এবং একাধিক মামলার আসামী।

ভান্ডারিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. মাসুমুর রহমান বিশ্বাস, তার বিরুদ্ধে ঢাকা, খুলনা, বরিশাল, কিশোরগঞ্জসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে ধর্ষণের অভিযোগে তার বিরুদ্ধে ১০টির বেশি মামলা রয়েছে। তাকে আটকের পর জেলা জজ আদালতের মাধ্যমে জেলা কারাগারে পাঠানো হয়েছে।


আরও খবর



ঋণ ছাড় নিয়ে আইএমএফ-পাকিস্তান আলোচনায় অগ্রগতি

প্রকাশিত:বুধবার ২২ জুন 20২২ | হালনাগাদ:বুধবার ২২ জুন 20২২ | ৩২০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

পাকিস্তানের ঋণ ছাড় নিয়ে আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিলের (আইএমএফ) সঙ্গে আলোচনায় গুরুত্বপূর্ণ অগ্রগতি হয়েছে বলে জানিয়েছেন দাতাগোষ্ঠীটির এক কর্মকর্তা। পাকিস্তানে নিযুক্ত আইএমএফ এর আবাসিক প্রতিনিধি বুধবার (২২ জুন) এই তথ্য জানিয়েছেন। পাকিস্তানের অর্থনীতি যখন আর্থিক সঙ্কটের দ্বারপ্রান্তে তখন এই বিবৃতিটি এসেছে। দ্রুত শেষ হয়ে যাচ্ছে পাকিস্তানের বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ আর মার্কিন ডলারের বিপরীতে পাকিস্তানি রুপির দর রেকর্ড পরিমাণ কমছে।

আইএমএফ কর্মকর্তা এস্তার পেরেজ রুইজ বলেন, আগামী বছরে সামষ্টিক অর্থনৈতিক স্থিতিশীলতা জোরদার করার নীতিগুলি নিয়ে আইএমএফ কর্মীদের এবং কর্তৃপক্ষের মধ্যে আলোচনা অব্যাহত রয়েছে এবং ২০২৩ অর্থবছরের বাজেটের উপর গুরুত্বপূর্ণ অগ্রগতি হয়েছে। পাকিস্তান এই মাসে ২০২২-২৩ অর্থবছরের জন্য নয় লাখ ৫০ হাজার কোটি রুপির বাজেট প্রস্তাব উত্থাপন করেছে। এর লক্ষ্য অত্যন্ত প্রয়োজনীয় ঋণ ছাড় পেমেন্ট পুনরায় চালু করতে আইএমএফকে রাজি করানো এবং রাজস্ব আয় ব্যাপকভাবে বাড়ানো।

তবে ঋণদাতা সংস্থাটি পরে জানায়, আইএমএফ কর্মসূচির মূল উদ্দেশ্যগুলোর সঙ্গে সঙ্গতিপূর্ণ পাকিস্তানের বাজেট আনতে অতিরিক্ত ব্যবস্থা নেওয়া প্রয়োজন।

সামষ্টিক অর্থনীতি এবং আর্থিক লক্ষ্য অর্জন নিয়ে উভয় পক্ষ মঙ্গলবার রাতে আলোচনায় বসে জানিয়েছেন পাকিস্তানের প্রকাশে অনিচ্ছুক কর্মকর্তারা। তারা বলছেন, আলোচনা ভালোভাবেই চলেছে। আর পাকিস্তান এখন সামষ্টিক অর্থনৈতিক এবং আর্থিক লক্ষ্যমাত্রার প্রাথমিক সমঝোতা এবং তারপর কয়েক দিনের মধ্যে একটি কর্মকর্তা পর্যায়ের চুক্তির আশা করছে।

২০১৯ সালে আইএমএফ এর সঙ্গে ছয়শ কোটি ডলারের ঋণ পেতে ৩৯ মাসের চুক্তি করে পাকিস্তান। তবে লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে ইসলামাবাদের নাজুক পরিস্থিতির কারণে এখন পর্যন্ত মাত্র অর্ধেক ঋণ বিতরণ করা হয়েছে। সবশেষ অর্থ বিতরণ হয়েছিল ফেব্রুয়ারিতে এবং পরবর্তী ধাপটি মার্চ মাসে একটি পর্যালোচনা অনুসরণের পর বিতরণের কথা ছিল। কিন্তু ক্ষমতাচ্যুত প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের সরকার ব্যয়বহুল জ্বালানি মূল্যের দাম বৃদ্ধি আটকে দিলে আর্থিক লক্ষ্যমাত্রা এবং কর্মসূচির অগ্রগতি বন্ধ হয়ে যায়। পাকিস্তানের নতুন সরকার জ্বালানির মূল্যবৃদ্ধির সীমা সরিয়ে নিয়েছে। এর ফলে বিগত তিন সপ্তাহের মধ্যে দেশটিতে জ্বালানির দাম প্রায় ৭০ শতাংশ বেড়েছে।

নিউজ ট্যাগ: আইএমএফ

আরও খবর



কুসিক নির্বাচন : জাল ভোটের অভিযোগে ৬ জনের কারাদণ্ড

প্রকাশিত:বুধবার ১৫ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:বুধবার ১৫ জুন ২০২২ | ২৬৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

কুমিল্লা সিটি করপোরেশন (কুসিক) নির্বাচনে বিভিন্ন কেন্দ্রে জাল ভোট দেওয়া ও গোলযোগ সৃষ্টির অভিযোগে ছয় জনকে বিভিন্ন মেয়াদে কারাদণ্ডাদেশ দিয়েছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত।

কুমিল্লা জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ কামরুল হাসান আজ বুধবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে এ তথ্য জানিয়েছেন। তিনি বলেন, একজনকে তিন মাস এবং পাঁচ জনকে তিন থেকে এক সপ্তাহের সাজা দেওয়া হয়েছে।

কামরুল হাসান আরও বলেন, জাল ভোট দেওয়ায় একজনকে তিন মাসের সাজা দেওয়া হয়েছে। এ ছাড়া সংরাইশ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোটকেন্দ্র থেকে পাঁচ বহিরাগতকে আটকের পর তিন থেকে সাত দিনের সাজা দেওয়া হয়েছে। তবে, তাৎক্ষণিকভাবে তাঁদের নাম-পরিচয় জানা যায়নি।

নিউজ ট্যাগ: কুসিক নির্বাচন

আরও খবর



কুড়িগ্রামে ৩ শতাধিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে পাঠদান বন্ধ

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২১ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২১ জুন ২০২২ | ৩০০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

কুড়িগ্রামে ধরলা, তিস্তা ও ব্রহ্মপুত্রের পানি বৃদ্ধি অব্যাহত রয়েছে। এতে জেলায় বন্যা পরিস্থিতির আরও অবনতি হয়েছে। প্রতিদিন বাড়ছে প্লাবিত এলাকার পরিধি, সেই সঙ্গে বাড়ছে দুর্গত মানুষের সংখ্যা। পানিবন্দি হয়ে পড়েছে লক্ষাধিক মানুষ। পাঠদান বন্ধ তিন শতাধিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে।

প্রশাসনের দেওয়াতথ্য মতে, কুড়িগ্রামের ৯ উপজেলার ৪৯ ইউনিয়নের ৩৫ হাজার ৪০৩ গ্রামের লক্ষাধিক মানুষ পানিবন্দি হয়ে পড়েছে। বন্যার পানিতে প্লাবিত হওয়ায় ২৯৪টি প্রাথমিক বিদ্যালয়সহ ৩২৫টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে পাঠদান স্থগিত রাখা হয়েছে। নদ-নদীর পানি বৃদ্ধি অব্যাহত থাকায় জেলার সার্বিক বন্যা পরিস্থিতির আরও অবনতি হতে পারে।

প্রতিটি উপজেলায় বন্যা নিয়ন্ত্রণ কক্ষ চালু করা হয়েছে। পরিস্থিতি মোকাবিলায় সকল দফতরের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সার্বক্ষণিক কর্মস্থলে থাকার নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। দুর্গত এলাকায় সরকারিভাবে ত্রাণ সহায়তা শুরু করেছে স্থানীয় প্রশাসন। তবে বিতরণের ধীরগতিতে এখনও অনেক দুর্গত এলাকার মানুষ সহায়তা পাননি বলে অভিযোগ উঠেছে।

স্থানীয় পানি উন্নয়ন বোর্ড (পাউবো) জানায়, মঙ্গলবার (২১ জুন) সকাল ৬টা পর্যন্ত গত ২৪ ঘণ্টায় ধরলা নদীর পানি সামান্য কমে বিপৎসীমার ৪২ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছিল। ব্রহ্মপুত্র নদের পানি নুনখাওয়া পয়েন্টে স্থিতিশীল থাকলেও, চিলমারী পয়েন্টে তিন সেন্টিমিটার বেড়ে বিপৎসীমার  ৫৫ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছিল। নদ-নদীর পানি বেড়ে জেলায় বন্যা পরিস্থিতির আরও অবনতি হতে পারে। বন্যা পূর্বাভাস ও সতর্কীকরণ কেন্দ্রের বরাত দিয়ে পাউবো এই তথ্য জানিয়েছে।


এদিকে জেলা প্রাথমিক ও মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসের বরাত দিয়ে জেলা প্রশাসনের দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা শাখা জানায়, বিদ্যালয় সংলগ্ন মাঠ ও আশপাশের এলাকা প্লাবিত হওয়ায় জেলার ৯ উপজেলার ২৯৪টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে পাঠদান স্থগিত রয়েছে। এছাড়া ২৩টি মাধ্যমিক বিদ্যালয়, সাতটি মাদ্রাসা ও একটি কলেজের পাঠদান কার্যক্রম বন্ধ রয়েছে। সবচেয়ে বেশি প্রাথমিক বিদ্যালয় প্লাবিত হয়েছে নাগেশ্বরী উপজেলায় ৭৯টি। রৌমারীতে প্লাবিত ৬৮, উলিপুরে ৫৮, চিলমারীতে ৩৮, সদরে ১৮, রাজীবপুরে ১৭, ভূরুঙ্গামারীতে ৭, ফুলবাড়ীতে ৬ ও রাজারহাটে তিনটি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে পাঠ কার্যক্রম স্থগিত রাখা হয়েছে।


বন্যায় মানুষের সঙ্গে গবাদি পশু-পাখিও ক্ষতির শিকার হয়েছে। জেলা প্রাণিসম্পদ বিভাগের তথ্যমতে, প্লাবিত এলাকায় প্রায় ৪২ হাজার গরু, মহিষ ও ভেড়াবন্যা কবলিত হয়েছে। আর মৎস্য বিভাগের দেওয়া তথ্যমতে, জেলায় ১৩৩ দশমিক ৭৯ হেক্টর পুকুর ও জলাশয় ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। ১৬৬ দশমিক ৬১ মেট্রিক টন মাছ এবং ৬ দশমিক ৫৫ মেট্রিক টন মাছের পোনা ভেসে গেছে। এই খাতে এ পর্যন্ত প্রায় কোটি টাকার ওপর ক্ষতি হয়েছে বলে মৎস্য বিভাগের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে।

জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ রেজাউল করিম জানান, বন্যা মোকাবিলায় স্থানীয় প্রশাসন কাজ করে যাচ্ছে। দুর্গত এলাকায় ত্রাণ কার্যক্রম শুরু হয়েছে। যাদের ঘরবাড়িতে বন্যার পানি প্রবেশ করেছে তাদেরকে নিকটবর্তী আশ্রয়কেন্দ্র কিংবা বিদ্যালয় ভবনে আশ্রয় নেওয়ার আহ্বান জানানো হচ্ছে।


আরও খবর



প্রাণঘাতী অ্যাপে বোনের রহস্যমৃত্যু, বিচার চান অভিনেত্রী

প্রকাশিত:শুক্রবার ০৩ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০৩ জুন ২০২২ | ৪৮৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

রহস্যে মজেছেন পায়েল সরকার। একেন বাবুর ছোঁয়া বুঝি তাঁর গায়েও? বড় পর্দায় দ্য একেন-এর পরেই আসছেন ক্লিক ওয়েব প্ল্যাটফর্মের নতুন সিরিজ এনক্রিপটেড-এ। এখানেই তিনি বোনের রহস্যমৃত্যুর জট ছাড়াবেন। সঙ্গী নগরপাল হেমা সিংহ এবং সাংবাদিক সোহাগ। 

তানিয়া আর দিয়া দুই বোন। প্রেমে ব্যর্থ ছোট বোন তানিয়া মাদকের নেশায় আসক্ত। একটা সময়ের পরে আর্থিক অনটনের শিকার। তখনই তার হাতে আসে বিশেষ অ্যাপ 'ডার্ক ডেয়ার'। অ্যাপ অনুযায়ী কিছু টাস্ক করলেই হাতে আসবে প্রচুর টাকা। মরিয়া তানিয়া বেশ কিছু টাস্ক করেও ফেলে। তার হাতেই খুন হন তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রী! পুলিশি হেফাজতে আসার পরেই শারীরিক ও মানসিক অত্যাচারে আত্মহত্যা করে সে। বোনের রহস্যমৃত্যুর প্রকৃত কারণ জানতে এ বারে আসরে পায়েল ওরফে দিয়া। তাঁর সঙ্গী কমিশনার রিচা শর্মা এবং এক সাংবাদিক। দিয়া কি পারবে এই কুখ্যাত অ্যাপটির এনক্রিপটেড কোডের চাঁইকে খুঁজে বার করতে?

সিরিজের পরতে পরতে রহস্য বুনে দিয়েছেন পরিচালক সৌপ্তিক চক্রবর্তী। প্রযোজনায় সৌপ্তিক এবং রণিতা দাসের যৌথ প্রযোজনা সংস্থা স্থলান্তর ফিল্মস অ্যান্ড এন্টারটেনমেন্ট প্রাইভেট লিমিটেড। তানিয়ার ভূমিকায় অভিনয় করেছেন ঐশ্বর্য সেন। এ ছাড়াও দেখা যাবে, অর্পিতা দাস, রানা মুখোপাধ্যায়, রানা বসু ঠাকুর, অমিতাভ আচার্য প্রমুখকে। এই প্রথম বাংলা ওয়েব সিরিজে শীর্ষসঙ্গীত গেয়েছে এবং অভিনয় করেছে বাংলা রক ব্যান্ড ক্যাকটাস-ও।


আরও খবর



বিড়ি শিল্প রক্ষার্থে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড ঘেরাও; স্মারকলিপি প্রদান

প্রকাশিত:সোমবার ০৬ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ০৬ জুন ২০২২ | ৩৯০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

বাজেটে বিড়ির উপর বিদ্যমান শুল্ক কমানো, বিড়ির উপর অর্পিত অগ্রিম ১০ শতাংশ আয়কর প্রত্যাহার, বিড়ি শিল্পে নিয়োজিত শ্রমিকদের সুরক্ষা আইন প্রণয়ন এবং দেশীয় শিল্প হিসেবে বিড়িকে রক্ষা করার দাবি জানিয়েছেন বাংলাদেশ বিড়ি শ্রমিক ফেডারেশন।

সোমবার (৬ জুন) সকাল ১০ টায় জাতীয় রাজস্ব বোর্ড এর সামনে আয়োজিত মানববন্ধন কর্মসূচি থেকে এ দাবি জানান তারা। মানববন্ধন চলাকালে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড ঘেরাও করে বিড়ি শ্রমিকরা। 

মানববন্ধন শেষে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড এর চেয়ারমানের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী বরাবর স্মারকলিপি প্রদান করা হয়।    

মানববন্ধনে বক্তরা বলেন, বিড়ি শিল্প দেশীয় শ্রমিকবান্ধব শিল্প। অথচ দেশের প্রাচীন শ্রমঘন বিড়ি শিল্প ধ্বংসের চক্রান্ত করা হচ্ছে। ব্রিটিশ আমেরিকান টোব্যাকো কোম্পানি (বিএটিবি) ও জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) কতিপয় অসাধু কর্মকর্তা বিড়ি শিল্প ধ্বংসের চক্রান্তে লিপ্ত রয়েছেন। তারা বিড়ির উপর ষড়যন্ত্রমূলকভাবে মাত্রাতিরিক্ত করের বোঝা চাপিয়ে দিচ্ছে। বিড়ি মালিকরা এই মাত্রাতিরিক্ত করের বোঝা সহ্য করতে না পেরে কারখানা বন্ধ করতে বাধ্য হচ্ছে। ফলে বিড়ি কারখানায় নিয়োজিত শ্রমিকরা কর্ম হারিয়ে পরিবার নিয়ে অনাহারে, অর্ধাহারে দিনাতিপাত করছে। শ্রমিকদের কর্মরক্ষার্থে সরকারের কাছে আমরা বিড়ি উপর বিদ্যমান শুল্ক কমানোর জোর দাবি জানাচ্ছি।

বক্তারা আরো বলেন, বিড়ি শতভাগ দেশীয় প্রযুক্তি নির্ভর শিল্প। সমাজের অসহায়, হতদরিদ্র, স্বামী পরিত্যক্তা, নদী ভাঙ্গন কবলিত জনগণ, শারীরিক বিকলাঙ্গসহ লক্ষ লক্ষ সুবিধা বঞ্চিত শ্রমিক ও পরিবারের রুটি-রুজির একমাত্র অবলম্বন এই বিড়ি শিল্প। অন্যদিকে সিগারেটের সবকিছু বিদেশ থেকে আমদাদিকৃত ও প্রযুক্তি নির্ভর। বিদেশী বহুজাতিক কোম্পানী এদেশের মানুষের ফুসফুস পুড়িয়ে হাজার হাজার কোটি টাকা পাচার করছে। ব্রিটিশ বেনিয়াদের দোসর ও নব্য মীরজাফর আত্মা এবং প্রজ্ঞা বিড়ি শিল্প ও শ্রমিক ধ্বংস করতে বিভিন্ন অপপ্রয়াস চালিয়ে যাচ্ছে। বিড়ি শিল্প ধ্বংসের চক্রান্ত বন্ধ করা না হলে আমরা শ্রমিকদের নিয়ে সকল চক্রান্ত প্রতিহত করবো। একইসাথে দেশের স্বার্থে, দেশের শ্রমজীবি মানুষের স্বার্থে দেশীয় শ্রমিকবান্ধব বিড়ি শিল্পকে রক্ষার জোর দাবি জানান শ্রমিকরা।

বাংলাদেশ বিড়ি শ্রমিক ফেডারেশনের যুগ্ম সম্পাদক হারিক হোসেনের সঞ্চালনায় মানববন্ধনে সভাপতিত্ব করেন ফেডারেশনের সভাপতি এম. কে. বাঙ্গালী। বক্তব্য রাখেন, বাংলাদেশ বিড়ি শ্রমিক ফেডারেশনের সহ-সভাপতি নাজিম উদ্দিন, সহ-সভাপতি লোকমান হাকিম, সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রহমান, সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল গফুর, যুগ্ম সম্পাদক লুৎফর রহমান, প্রচার সম্পাদক শামীম ইসলাম, কার্যকরী সদস্য আনোয়ার হোসেন প্রমূখ।


আরও খবর