আজঃ বুধবার ২৯ মে ২০২৪
শিরোনাম

উখিয়া দুর্বৃত্তের গুলিতে দুই রোহিঙ্গা নিহত

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২১ মার্চ ২০২৩ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২১ মার্চ ২০২৩ | অনলাইন সংস্করণ
কক্সবাজার প্রতিনিধি

Image

কক্সবাজারের উখিয়া বালুখালী ক্যাম্পে আবারো সশস্ত্র সন্ত্রাসীরা এলোপাতাড়ি গুলি চালিয়ে দুজনকে হত্যা করেছে। মঙ্গলবার দুপুরে উখিয়া উপজেলার বালুখালী ১৩ নম্বর ক্যাম্প এলাকায় এ ঘটনা ঘটে বলে উখিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শেখ মোহাম্মদ আলী জানান।

ওসি শেখ মোহাম্মদ আলী বলেন, বেলা ১টার দিকে ১৫-১৬ জনের একটি সশস্ত্র সন্ত্রাসী দল ১৩ নম্বর ক্যাম্প এলাকায় ঢুকে এলোপাতাড়ি গুলি ছুঁড়ে। এতে ঘটনাস্থলে এক রোহিঙ্গা যুবক মারা যান। আরেকজনকে হাসপাতালে নেওয়ার পর কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

মোহাম্মদ আলী জানান, নিহত দুই যুবকের নামই মোহাম্মদ রফিক। এর মধ্যে ঘটনাস্থলে নিহত যুবকের বয়স ৩০ বছর। এছাড়া হাফেজ মাহবুব (২৭) নামে গুলিবিদ্ধ আরেকজনকে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

ওসি আরও বলেন, নিহতদের লাশ উদ্ধার করে কক্সবাজার সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানোর প্রক্রিয়া চলছে।

রোহিঙ্গা শিবিরে নিরাপত্তার দায়িত্বে নিয়োজিত ৮ নম্বর আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়নের (এপিবিএন) সহকারী পুলিশ সুপার মোহাম্মদ ফারুক আহমেদ আজকের পত্রিকাকে বলেন, প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে, পূর্বশত্রুতার জের ধরে এ ঘটনা ঘটেছে। ক্যাম্প এলাকায় নিরাপত্তা জোরদারের পাশাপাশি জড়িতদের শনাক্ত করে গ্রেপ্তারে অভিযান চলছে।

চলতি বছর জানুয়ারি থেকে এ পর্যন্ত কক্সবাজারের শরণার্থী শিবিরে সংঘাতের ঘটনায় মোট ১৮ জন রোহিঙ্গার মৃত্যুর তথ্য দিয়েছে প্রশাসন। সর্বশেষ গত ১৮ মার্চ উখিয়ার বালুখালীর ১২ নম্বর ক্যাম্পের জি ৭ ব্লকে ৫-৬ জনের একদল সন্ত্রাসী একজনকে তুলে নিয়ে গুলি করে হত্যা করে।

 


আরও খবর



এমপি আনার হত্যাকাণ্ড: শিলাস্তি-আমানসহ গ্রেপ্তার ৩

প্রকাশিত:শুক্রবার ২৪ মে 20২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৪ মে 20২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

ঝিনাইদহ-৪ আসনের সংসদ সদস্য আনোয়ারুল আজীম আনারকে হত্যায় জড়িত থাকার অভিযোগে ঢাকা থেকে আটক তিন ব্যক্তিকে অপহরণের মামলায় গ্রেপ্তার দেখানো হয়েছে। এ তিন জন হলেন- সৈয়দ আমানুল্লাহ, ফয়সাল আলী ও শিলাস্তি রহমান।

বৃহস্পতিবার (২৩ মে) রাতে গ্রেপ্তারের বিষয়টি নিশ্চিত করে মামলার তদন্ত সংশ্লিষ্ট একজন কর্মকর্তা। তিনি জানান, এমপি আনারকে হত্যায় জড়িত সন্দেহে তিনজনকে আটক করা হয়। এই তিনজন ঘটনার পর ভারত থেকে দেশে ফিরেছিলেন।

ডিবির জিজ্ঞাসাবাদে তারা স্বীকার করছেন, সংসদ সদস্য আনোয়ারুল আজীম আনারকে হত্যায় তারা জড়িত। যেহেতু এমপি আনারের মেয়ে তার বাবাকে অপহরণের অভিযোগে শেরেবাংলা নগর থানায় মামলা করেছেন, সেই কারণে তিনজনকে অপহরণের মামলায় গ্রেপ্তার দেখানো হয়েছে।

শুক্রবার তাদের রিমান্ডের আবেদন জানিয়ে আদালতে পাঠানো হবে বলেও জানান ডিবির এই কর্মকর্তা।

গত ১২ মে চিকিৎসার জন্য ঝিনাইদহের কালীগঞ্জ থেকে চুয়াডাঙ্গার দর্শনার গেদে সীমান্ত দিয়ে ভারতে যান এমপি আনার। ওঠেন পশ্চিমবঙ্গে বরাহনগর থানার মণ্ডলপাড়া লেনে গোপাল বিশ্বাস নামে এক বন্ধুর বাড়িতে। পরদিন ডাক্তার দেখানোর কথা বলে বাড়ি থেকে বের হন। এরপর থেকেই তিন নিখোঁজ ছিলেন।

বাড়ি থেকে বেরোনোর পাঁচদিন পরে, গত ১৮ মে বরাহনগর থানায় আনোয়ারুল আজীম নিখোঁজের বিষয়ে একটি জিডি করেন বন্ধু গোপাল বিশ্বাস। এরপরও খোঁজ মেলেনি তিনবারের এই সংসদ সদস্যের।

বুধবার (২২ মে) হঠাৎ খবর ছড়ায়, কলকাতার পার্শ্ববর্তী নিউটাউন এলাকায় বহুতল সঞ্জীবা গার্ডেনস নামে একটি আবাসিক ভবনের বিইউ ৫৬ নম্বর রুমে আনোয়ারুল আজীম খুন হয়েছেন। ঘরের ভেতর পাওয়া গেছে রক্তের ছাপ। তবে মেলেনি মরদেহ।


আরও খবর



বাড্ডায় কারখানার সন্ধান, ৬৫ হাতবোমাসহ আটক ৩

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২৩ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২৩ মে ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

রাজধানীর বাড্ডার টেকপাড়া এলাকার একটি বাড়ি থেকে ৬৫টি হাতবোমাসহ তিনজনকে আটক করেছে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব-৩)। বুধবার (২২ মে) রাতে এ অভিযান চালানো হয়।

এর আগে বোমা তৈরির কারখানার সন্ধান পেয়ে ওই বাড়িটি ঘিরে রাখার বিষয়টি জানান র‌্যাব-৩ এর অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল মো. ফিরোজ কবীর।

পরে র‌্যাবের বোম্ব ডিসপোজাল ইউনিট ঘটনাস্থলে পৌঁছালে অভিযান শুরু হয়। বাড়িটিতে তল্লাশি চালিয়ে ৬৫টি হাতবোমা উদ্ধার করা হয়েছে। আটক তিনজনের মধ্যে একজন এর আগেও বোমা তৈরির অভিযোগে গ্রেপ্তার হয়েছিলেন।

সংশ্লিষ্টদের ধারণা, চলমান উপজেলা নির্বাচনে বড় ধরনের নাশকতার সৃষ্টির জন্য বোমাগুলো তৈরি হচ্ছিল এ কারখানায়, এ বিষয়ে তদন্ত চলছে।


আরও খবর



নাম বলার পরেও অপরাধীদের পুলিশ ধরছে না

প্রকাশিত:শুক্রবার ২৪ মে 20২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৪ মে 20২৪ | অনলাইন সংস্করণ
রেদওয়ানুল হক মিলন, ঠাকুরগাঁও

Image

ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর মা-বাবা ও দুই শিশুকে পাশবিক নির্যাতনের পর এক শিশুর মা দায়নি ঋষী (৪২) কে পিটিয়ে হত্যার পর গাছের ডালে ঝুলিয়ে রাখার অভিযোগে দোষীদের দৃষ্টান্তমুলক শান্তির দাবিতে ঠাকুরগাঁওয়ে মানবন্ধন করেছে মহিলা পরিষদ।

শুক্রবার (২৪ মে) বেলা ১১টায় বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ জেলা শাখার ব্যানারে শহরের চৌরাস্তায় এ মানববন্ধন করেন তাঁরা।

মহিলা পরিষদ জেলা শাখার যুগ্ন আহবায়ক সুরভী কেরকেটার সভাপত্বিতে নিহত দায়ন ঋষীর স্বামী বিষ্ণু ঋষী, দুই সন্তান সাজন, রাজেন, জেলা মহিলা পরিষদের সাবেক সাধারণ সম্পাদক সুচরিতা দেব, সদস্য মাহমুদা আক্তার, শাহানাজ বেগমসহ বক্তারা অভিযোগ করে বলেন, চুরির অপবাদে দায়ন ঋষীর ছেলেকে ধরে নিয়ে মারপিটের পর মাকেও তুলে নিয়ে মারপিট করে হত্যার করা হয়েছে। যা নিহতের সদস্যরা দাবি করছেন।

কারা বাসা থেকে তাদের তুলে নিয়ে গেছে স্পস্ট নামও বলছে। তারপরেও পুলিশ সেভাবে ব্যবস্থা নিচ্ছেন না। এখন পর্যন্ত একজনকে আটক করেছে। ক্ষুদ্র-নৃ গোষ্ঠির মানুষ এমনিতেই অবহেলিত। যে ব্যক্তিটি চুরির অপবাদ দিয়ে বাসায় নিয়ে পরিবারের সদস্যদের মারপিট করলো সে কেনো পুলিশের হাতে তুলে দিলো না। আইন নিজের হাতে কেনো তুলে নিলেন তিনি? অবিলম্বে এ ঘটনার বিচারের দাবি করেন বক্তারা। তা না হলে আরো কঠোর কর্মসুচির হুশিয়ারী উচ্চারণ করেন তারা।

উল্লেখ্য, গেল সোমবার (২০মে) পরিষদপাড়ার নুর আলম লিটনের বাসায় চুরির ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় লিটনসহ তার লোকজন পরদিন মঙ্গলবার (২১ মে) চোর সন্দেহে একই গ্রামের দায়ন ঋষির ছোট ছেলে রাজেন (১৩) ও একই গ্রামের মৃত যোগেনের ছেলে সঞ্জিত (১৫) কে তুলে নিয়ে বাসায় আটকে রাখে। পরে চুরির অপবাদে কয়েক দফায় তাদের পাশবিক নির্যাতন চালায় লিটনসহ তার লোকজন। শুধু তাই নয়। ছেলেকে পেটানোর পর মাকে তুলে নিয়ে মারপিট করে হত্যার পর গাছে ঝুলিয়ে রাখা হয়।

পরে বুধবার (২২ মে) সকালে জেলা শহরের পৌর এলাকার ৯ নং ওয়ার্ড পরষিদপাড়ার একটি লিচু গাছে ওই নারীর মরদেহ ঝুলে থাকতে দেখেন স্থানীয়রা। পরে খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে মরদেহ উদ্ধার করে মর্গে প্রেরণ করা হয়।

ঠাকুরগাঁও সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা এবিএম ফিরোজ ওয়াহিদ বলেন, ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠী নারীর মৃত্যুর ঘটনায় থানায় মামালা হয়েছে। অভিযান চালিয়ে একজনকে আটক করা হয়েছে। অভিযান অব্যাহত রয়েছে।


আরও খবর



দেশের সব আদালতে চালু হচ্ছে ওয়ান স্টপ সার্ভিস

প্রকাশিত:বুধবার ০১ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ০১ মে ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

উচ্চ আদালতে ওয়ান স্টপ সার্ভিস বাস্তবায়িত হয়েছে। আগে জামিন আদেশের কপি পেতে অনেক সময় ব্যয় হত। এখন তা সঙ্গে সঙ্গেই আপলোড হয় এবং আদেশ যথাস্থানে পৌঁছে যায়। উচ্চ আদালতের এই সুবিধা দেশের সব পর্যায়ের আদালতে পর্যায়ক্রমে চালু করা হবে। বাংলাদেশ বিচার বিভাগ স্বাধীনভাবে কাজ করছে। সম্মিলিত প্রচেষ্টায় বিচার বিভাগ আরো শক্তিশালী হবে বলে মনে করেন প্রধান বিচারপতি ওবায়দুল হাসান।

বুধবার (১ মে) দুপুরে সিলেটে আদালত চত্বরে ন্যায়কুঞ্জ উদ্বোধন করেন প্রধান বিচারপতি। এর আগে মঙ্গলবার (৩০ এপ্রিল) রাতে তিনি সিলেট সিটি করপোরেশন আয়োজিত নাগরিক সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে যোগ দেন। এসব অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখতে গিয়ে এসব কথা বলেন প্রধান বিচারপতি ওবায়দুল হাসান।

তিনি বলেন, আদালতে আসা বিচারপ্রার্থীদের সুবিধাজনক বসার স্থান হিসেবে সিলেটে ন্যায়কুঞ্জের উদ্বোধন করা হলেও আদালতে আসা সব মানুষ এটি ব্যবহার করতে পারবেন। সব মানুষের সমান অধিকার নিশ্চিত হলেই আইনের শাসন প্রতিষ্ঠা হয়।

প্রধান বিচারপতি বলেন, স্থানীয় প্রশাসন, আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী এবং জনগণের নির্বাচিত প্রতিনিধিগণ সম্মিলিতভাবে কাজ করলে বিচার বিভাগ পূর্ণতা লাভ করে এবং ন্যায়বিচার প্রতিষ্ঠা হয়। এ ক্ষেত্রে সবার সহযোগিতা চান তিনি।


আরও খবর



দেশের সর্বোচ্চ আকারের বাজেট ঘোষণা হবে ৬ জুন

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০৯ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ০৯ মে ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক

Image

আগামী ৬ জুন, ২০২৪-২৫ অর্থবছরের বাজেট প্রস্তাব সংসদে পেশ করা হবে বলে আশা করা হচ্ছে। এদিন অর্থমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলী জাতীয় বাজেট উত্থাপন করবেন।

অর্থ মন্ত্রণালয়ের একজন জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তা সংবাদমাধ্যমকে জানান, আগামী ৬ জুন, ২০২৪-২৫ অর্থবছরের বাজেট উত্থাপনের দিন নির্ধারণ করা হয়েছে। বাজেট পেশের দিনক্ষণ ঠিক করে ইতোমধ্যে কর্মকর্তাদের দায়িত্ব বণ্টন করে দেওয়া হয়েছে।

অর্থ বিভাগ সূত্র জানায়, ২০২৪-২৫ অর্থবছরের বাজেট হবে প্রায় ৮ লাখ কোটি টাকার, যা হবে বাংলাদেশের ইতিহাসে সর্বোচ্চ আকারের বাজেট।

এবারের বাজেটে নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের মূল্য বা মূল্যস্ফীতি নিয়ন্ত্রণ সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার পচ্ছে বলে ওই কর্মকর্তা জানান।


আরও খবর