আজঃ সোমবার ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
শিরোনাম

তফশিল ঘিরে নেতাকর্মীদের যে বার্তা দিল আ.লীগ

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৪ নভেম্বর ২০২৩ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৪ নভেম্বর ২০২৩ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা হতে পারে বুধবার। এদিন বিএনপির নাশকতার আশঙ্কায় দিনব্যাপী সতর্ক পাহারায় থাকবে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ। পাশাপাশি তফসিল ঘোষণার পর রাজধানী ঢাকাসহ সারাদেশে মিছিল করবে ক্ষমতাসীনরা।

মঙ্গলবার সন্ধ্যায় আওয়ামী লীগ সভাপতির ধানমন্ডির রাজনৈতিক কার্যালয়ে রুদ্ধদ্বার বৈঠকে কেন্দ্রীয় নেতারা এ সিদ্ধান্ত নেন বলে জানা গেছে। এরই মধ্যে আওয়ামী লীগের কেন্দ্র থেকে সব শাখাকে এ নিয়ে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। পাশাপাশি সহযোগী সংগঠনগুলোও তাদের শাখাগুলোকে এমন নির্দেশনা দিয়েছে।

ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগের সভাপতি বজলুর রহমান জানিয়েছেন, সকাল থেকে সব থানা ও ওয়ার্ডে তাদের সতর্ক পাহারা থাকবে। বিকেলে তফসিলকে স্বাগত জানিয়ে মিছিল হবে।

এছাড়া যুব মহিলা লীগ বিভিন্ন শাখায় মিছিল করার নির্দেশনা সংক্রান্ত চিঠিও গণমাধ্যমে পাঠিয়েছে।

বৈঠকে ছিলেন আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া, জাহাঙ্গীর কবির নানক, আব্দুর রহমান, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম, সাংগঠনিক সম্পাদক মির্জা আজম, উপ-দপ্তর সম্পাদক সায়েম খান।

বৈঠক সূত্রে জানা যায়, বিএনপির ৪৮ ঘণ্টার অবরোধে সারাদেশের আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের সর্বস্তরের নেতাকর্মীদের আরও বেশি সতর্ক অবস্থায় পাহারার সিদ্ধান্ত হয়। একই সঙ্গে তফসিল ঘোষণা হলে তফসিলকে স্বাগত জানিয়ে ঢাকা মহানগরীর গুরুত্বপূর্ণ স্পটে এবং সারাদেশের জেলা, উপজেলা ও ইউনিয়নে আনন্দ মিছিলেরও সিদ্ধান্ত হয়।

প্রসঙ্গত, আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনের ভোটার সংখ্যা ১১ কোটি ৯৬ লাখ ৯১ হাজার ৬৩৩ জন। আর ভোটকেন্দ্র রয়েছে ৪২ হাজার ১০৩টি। ডিসেম্বরের শেষ থেকে আগামী বছরের জানুয়ারির প্রথম সপ্তাহে সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে।

নিউজ ট্যাগ: তফশিল

আরও খবর



শরীরে ম্যাগনেশিয়ামের ঘাটতি হলে কী হয়

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ০৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
জীবন ধারা ডেস্ক

Image

ম্যাগনেমিয়াম শরীরের জন্য অতি প্রয়োজনীয় একটি খনিজ। বিভিন্ন শারীরিক ক্রিয়াকলাপে এই খনিজটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। তারপরও শরীরে এর অভাব প্রায়ই দেখা যায়। সামগ্রিক স্বাস্থ্য এবং সুস্থতা বজায় রাখার জন্য শরীরে ম্যাগনেশিয়ামের ঘাটতি হয়েছে কীনা তা সনাক্ত করা প্রয়োজন। শরীরে ম্যাগনেশিয়ামের ঘাটতি হলে কয়েকটি রখ্ষণ দেখা দেয়। যেমন-

পেশি ক্র্যাম্প : পেশির সক্রিয়তা এবং সংকোচনের জন্য ম্যাগনেসিয়াম অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। শরীরে এর ঘাটতি হলে পেশিতে ক্র্যাম্প দেখা দেয়। ঘন ঘন পেশিতে ক্রাম্প হলে বুঝতে হবে শরীরে ম্যাগনেশিয়ামের ঘাটতি হয়েছে।

ক্লান্তি এবং দুর্বলতা : শরীরে ম্যাগনেশিয়ামের ঘাটতি হলে ক্লান্তি এবং দুর্বলতা দেখা দেয়। আপনি যদি প্রায়ই অলস বোধ করেন বা প্রতিদিনের কাজকর্ম করা কঠিন মনে করেন তাহলে তা ম্যাগনেশিয়ামের অভাবে হতে পারে।

অনিয়মিত হৃৎস্পন্দন : ম্যাগনেমিয়ামের ঘাটতি হলে অনিয়মিত হৃৎস্পন্দন হতে পারে। আপনি যদি হৃৎপিণ্ডে ধড়ফড় বা অনিয়ম লক্ষ্য করেন, তাহলে স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞের সাথে পরামর্শ করা গুরুত্বপূর্ণ।

বমি বমি ভাব এবং ক্ষুধা হ্রাস: হজমসংক্রান্ত সমস্যা যেমন বমি বমি ভাব এবং ক্ষুধা হ্রাস ম্যাগনেশিয়ামের অভাবে হতে পারে। এই খনিজটি পরিপাকতন্ত্রের কার্যকারিতা ঠিক রাখে। আপনি যদি ঘন ঘন গ্যাস্ট্রিকের সমস্যায় ভোগেন তাহলে তা ম্যাগনেশিয়ামের ঘাটতির কারণে হতে পারে।

অস্বাভাবিক ক্যালসিয়াম স্তর : ম্যাগনেসিয়াম এবং ক্যালসিয়াম হাড়ের স্বাস্থ্য এবং স্নায়ুর কার্যকারিতা বজায় রাখতে কাজ করে। শরীরে এই খনিজগুলির ভারসাম্যহীনতা হলে পেশির ক্র্যাম্পসহ বিভিন্ন সমস্যা হতে পারে। শরীরের সামগ্রিক খনিজের ভারসাম্যের জন্য ম্যাগনেসিয়াম এবং ক্যালসিয়ামের মাত্রা পরীক্ষা করা গুরুত্বপূর্ণ।


আরও খবর
নারীর জন্য প্রয়োজনীয় পাঁচ ভিটামিন

রবিবার ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

২৩ ফেব্রুয়ারি : ইতিহাসে আজকের এই দিনে

শুক্রবার ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




জাতিসংঘ থেকে ইসরায়েলকে বহিষ্কার করার দাবি জানালেন রায়িসি

প্রকাশিত:সোমবার ১২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ১২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
আন্তর্জাতিক ডেস্ক

Image

ইরানের প্রেসিডেন্ট ইব্রাহিম রায়িসি দখলদার ইসরায়েলকে জাতিসংঘ থেকে বহিষ্কারের দাবি জানিয়েছেন। রবিবার (১১ ফেব্রুয়ারি) রাজধানী তেহরানে ইরানের ইসলামি বিপ্লবের ৪৫তম বার্ষিকীর শোভাযাত্রায় এ দাবি জানান তিনি।

রায়িসি গাজায় ইসরায়েলি গণহত্যার নিন্দা জানিয়ে বলেন, বর্ণবাদী ইসরায়েল এ পর্যন্ত বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সংস্থার চারশ' ইশতেহার, প্রস্তাব ও ঘোষণা লঙ্ঘন করেছে। তারা জাতিসংঘের প্রস্তাব ও নীতিমালা মানে না। অবৈধ দখলদার ইসরায়েলের সদস্যপদ বাতিলের জন্য তিনি জাতিসংঘের প্রতি আহ্বান জানান।

তিনি বলেন, ফিলিস্তিন হচ্ছে মুসলিম বিশ্বের প্রধান ইস্যু। ফিলিস্তিনের প্রতি ইসলামি প্রজাতন্ত্র ইরানের অকুণ্ঠ সমর্থন আগের মতোই অব্যাহত থাকবে।

রায়িসি বলেন, ইসলামি প্রজাতন্ত্র ইরান বিশ্বের সবচেয়ে স্বাধীন রাষ্ট্র। প্রাচ্য বা পাশ্চাত্যের তাবেদারি না করে স্বাধীনতা ও সার্বভৌমত্ব অটুট রাখার নীতিতে ইরান অটল রয়েছে।

প্রেসিডেন্ট বলেন, ইরান ইস্যুতে শত্রুদের ভাষায় পরিবর্তন এসেছে। তারা এখন আর ইরানের বিরুদ্ধে সামরিক উপায় অবলম্বনের কথা চিন্তাও করতে পারে না।

তিনি আরও বলেন, গণতন্ত্র রক্ষার দাবিদারেরা ফিলিস্তিন ও ইয়েমেনের জনগণের রায়কে মূল্য দিচ্ছে না, তাদের ভোটাধিকারের প্রতি সম্মান দেখাচ্ছে না। ইরান প্রজাতান্ত্রিক ব্যবস্থা তথা জনগণের ভোটের ওপর প্রতিষ্ঠিত।

ভাষণে তিনি বিপ্লব পরবর্তী ইরানের নানা ক্ষেত্রে উন্নয়ন ও অগ্রগতির কথাও তুলে ধরেছেন।


আরও খবর



গাইবান্ধায় সাঁওতাল-বাঙালি সাংস্কৃতিক উৎসব

প্রকাশিত:শনিবার ২৪ ফেব্রুয়ারী 20২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ২৪ ফেব্রুয়ারী 20২৪ | অনলাইন সংস্করণ
গাইবান্ধা প্রতিনিধি

Image

সাঁওতালসহ সকল ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর ভাষা ও সংস্কৃতি রক্ষায় শনিবার গাইবান্ধা নাট্য ও সাংস্কৃতিক সংস্থা উন্মুক্ত মঞ্চে সাঁওতাল-বাঙালি সাংস্কৃতিক উৎসব অনুষ্ঠিত হয়। বর্ণাঢ্য একটি র‌্যালি গাইবান্ধা শহরের প্রধান প্রধান সড়কে প্রদক্ষিণ করে।

 এই ভূমির মানুষের সুকৃতি, আদিবাসী-বাঙালি সংস্কৃতি এই স্লোগানকে সামনে রেখে গাইবান্ধা নাগরিক সংগঠন ও বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা অবলম্বন উৎসবের আয়োজন করে। শতাধিক সাঁওতাল-উড়াওঁসহ বিভিন্ন জাতিগোষ্ঠীর নারী-পুরুষরা অংশগ্রহণ করে।

র‌্যালি শেষে গানাসাস মিলনায়তনে জন-উদ্যোগের সদস্য সচিব প্রবীর চক্রবর্তীর সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় বক্তব্য দেন শিক্ষাবিদ মাজহারউল মান্নান, আদিবাসী বাঙালি সংহতি পরিষদের আহবায়ক অ্যাড. সিরাজুল ইসলাম বাবু, নারী নেত্রী অঞ্জলী রানী দেবী, নাজমা বেগম, সামাজিক সংগ্রাম পরিষদের সদস্য সচিব হাসান মোর্শেদ দীপন, শিক্ষক আহাদুজ্জামান রিমু, অবলম্বনের প্রজেক্ট কো-অর্ডিনেটর এ.কে.এম. মাহবুব আলম মুকুল, সাঁওতাল নেত্রী মারিয়া মুর্মু, তেরেসা সরেন, ইয়ুথ নেতা সান্তনা রবিদাস প্রমুখ। সবশেষে বাঙালিসহ বিভিন্ন জাতিগোষ্ঠীর শিল্পীরা এক মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক পরিবেশন করে।

বক্তারা বলেন, সাঁওতালসহ বিভিন্ন জাতিগোষ্ঠীর মাতৃভাষা হারিয়ে যেতে বসেছে। তাদের সংস্কৃতিও বিলুপ্ত হচ্ছে। এরা বাংলাদেশের দরিদ্রতম প্রান্তিক জনগোষ্ঠী, অধিকাংশই ভূমিহীন। আদিবাসীদের ভাষা ও সংস্কৃতি রক্ষায় অবিলম্বে সরকারি উদ্যোগ নিতে হবে। অবিলম্বে আলাদা মন্ত্রণালয় গঠন করে হলে আদিবাসী ও তাদের সংস্কৃতি বাঁচিয়ে রাখতে হবে। এটি তাদের জন্য খুবই হতাশাজনক যে,  বিভিন্ন জাতিগোষ্ঠীর ভাষায় রয়েছে অনেক গীত, ঝুমুর, গল্প; যা কালের পরিক্রমায় হারিয়ে যাচ্ছে। এই সকল ভাষা ও সংস্কৃতি সংরক্ষণ জরুরি। না হলে ভাষাগুলো গবেষণা ও পরিচর্যার অভাবে হারিয়ে যাবে। 


আরও খবর
ঝিনাইদহ জেলা কারাগারে কয়েদির মৃত্যু

সোমবার ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




মানব পাচারে বিভিন্ন বিভাগের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা জড়িত : ডিবি হারুন

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

রাজধানীর বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে মানব পাচার চক্রের পাঁচজনকে আটক করেছে গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)। এ সময় তাদের কাছ থেকে ভুয়া ভিসা, বোডিং পাস, বিমানের টিকিট উদ্ধার করা হয়।

বৃহস্পতিবার (২২ ফেব্রুয়ারি) মিন্টু রোডে এক সংবাদ সম্মেলনে ঢাকা মহানগর পুলিশের গোয়েন্দা বিভাগের প্রধান হারুন অর রশীদ এ তথ্য জানান।

তিনি জানায়, মধ্যপ্রাচ্য, লিবিয়াসহ বেশকিছু নৌকাডুবিতে মৃত্যুর কারণে কড়াকড়ি আরোপ করা হয়। যার কারণে দালাল চক্র ইউরোপ এবং সেনজেনভুক্ত দেশে লোক পাঠিয়ে আসছিলো চক্রটি। এ পর্যন্ত ২৫০ জনের বেশি লোক বিভিন্ন দেশে পাঠিয়েছে দালাল চক্রটি। চক্রের মধ্যে বাংলাদেশ বিমানের নিরাপত্তাকর্মী, কুয়েত এয়ারওয়েজের কর্মী রয়েছে।

তিনি আরও বলেন, বিমানবন্দরে বিভিন্ন বিভিন্ন জায়গায় চক্রের লোক থাকে যারা বিমানের টিকিট, ভুয়া ভিসা এবং বোডিং পাস ম্যানেজ করে দেয় এবং বিমান পর্যন্ত উঠতে সহায়তা করে থাকে। বেশিরভাগ যাত্রীকে তারা টুরিস্ট ভিসা বা ভুয়া ভিসায় পাঠায়। নির্দিষ্ট একটা সময় পর তারা বুঝতে পারে তারা জালিয়াতি চক্রের খপ্পরে পরেছে। কারও ভাগ্য ভালো থাকলে তারা দেশে ফিরে আসতে পারে, না হলে কারাগারে যেতে হয়। ১৬-১৮ লাখ টাকার বিনিময়ে জাল ভিসা দিয়ে থাকে চক্রটি।

ডিবির দাবি, চক্রের সঙ্গে বিভিন্ন বিভাগের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা জড়িত আছে। তা না হলে কিভাবে বোডিং পাস, বিমানের টিকিট ম্যানেজ সম্ভব হয়।


আরও খবর



বঙ্গবন্ধু এক্সপ্রেসওয়েতে পিকআপ উল্টে নিহত ২

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
জেলা প্রতিনিধি

Image

মুন্সীগঞ্জে একটি মাছবাহী পিকআপ নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে সড়ক বিভাজনে ধাক্কা লেগে উল্টে গিয়ে দুই মাছ ব্যবসায়ী নিহত হয়েছেন। আজ মঙ্গলবার (১৩ ফেব্রুয়ারি) দুপুর দেড়টার দিকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এক্সপ্রেসওয়ের শ্রীনগরের হাঁসাড়া এলাকায় মহাসড়কে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন, মো. হাফেজ (৪০) ও শহিদুল (৪২)। এ ঘটনায় আহত হয়েছে আরও পাঁচজন মাছ ব্যবসায়ী।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, মাছবাহী পিকআপটি মাওয়া থেকে ঢাকার দিকে যাচ্ছিল। পথিমধ্যে ঢাকামুখী লেনে হাঁসাড়া হাইওয়ে ফাঁড়ির বিপরীত দিকে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে সড়ক বিভাজনের সঙ্গে ধাক্কা লেগে পিকআপটি উল্টে যায়। এতে গুরুতর আহত হয় পিকআপে থাকা সাতজন। তাদের দ্রুত উদ্ধার করে শ্রীনগর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হয়। সেখানে দায়িত্বরত চিকিৎসক দুজনকে মৃত ঘোষণা করেন। 

আরও পড়ুন>> ককটেল বিস্ফোরণে পুলিশসহ ৩ জন আহত

বিষয়টি নিশ্চিত করে শ্রীনগর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরি বিভাগের দায়িত্বরত চিকিৎসক ডা. আকলিমা রৌশন জানান, গুরুতর আহত অবস্থায় সাতজনকে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসা হয়। এদের মধ্যে হাসপাতালে নিয়ে আসার পর দুজনের মৃত্যু হয়। অপর আহতদের উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে পাঠানোর প্রস্তুতি চলছে।

হাঁসাড়া হাইওয়ে পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ কাঞ্চন কুমার সিংহ জানান, দুর্ঘটনায় দুজন নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছে আরও পাঁচজন। তারা মূলত মাছ ব্যবসায়ী। মাওয়া থেকে মাছ নিয়ে তারা ঢাকার দিকে যাচ্ছিল।


আরও খবর
ঝিনাইদহ জেলা কারাগারে কয়েদির মৃত্যু

সোমবার ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪