আজঃ বৃহস্পতিবার ২৫ জুলাই ২০২৪
শিরোনাম

তারেক-জোবায়দার বিরুদ্ধে তিন ব্যাংক কর্মকর্তার সাক্ষ্য

প্রকাশিত:সোমবার ২৯ মে ২০২৩ | হালনাগাদ:সোমবার ২৯ মে ২০২৩ | অনলাইন সংস্করণ
আদালত প্রতিবেদক

Image

জ্ঞাত আয় বহির্ভূত সম্পদ অর্জনের অভিযোগে দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) মামলায় তারেক রহমান ও তার স্ত্রী ডা. জোবায়দা রহমানের বিরুদ্ধে তিন ব্যাংক কর্মকর্তা সাক্ষ্য দিয়েছেন। তারা হলেন- এস এম মুসা করিম, ওবায়দুর রশিদ খান ও ইমরান আহমেদ। তারা সবাই এবি ব্যাংকের কর্মকর্তা।

সোমবার (২৯ মে) ঢাকা মহানগর দায়রা জজ মো. আছাদুজ্জামানের আদালতে মামলাটি সাক্ষ্য গ্রহণের জন্য ধার্য ছিল। এদিন তারা আদালতে সাক্ষ্য দেন। তাদের সাক্ষ্য শেষে আদালত আগামীকাল মঙ্গলবার সাক্ষ্য গ্রহণের জন্য নতুন দিন ধার্য করেছেন।

মামলাটিতে চার্জশিটভুক্ত ৫৬ সাক্ষীর মধ্যে এখন পর্যন্ত ৬ জনের সাক্ষ্য গ্রহণ শেষ হয়েছে। দুদকের আইনজীবী মোশাররফ হোসেন কাজল বিষয়টি জানিয়েছেন।

এর আগে গত ২১ মে মামলার বাদী দুদকের উপ পরিচালক জহিরুল হুদার সাক্ষ্যের মাধ্যমে এ মামলার সাক্ষ্যগ্রহণ শুরু হয়। এর আগে গত ১৩ এপ্রিল একই আদালত তাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠনের আদেশ দেন। এ মামলায় তাদেরকে পলাতক দেখানো হয়েছে। গত বছরের ১ নভেম্বর একই আদালত তারেক ও জোবায়দার বিরুদ্ধে আনা অভিযোগপত্র আমলে নিয়ে তাদের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেন।

গত বছরের ২৬ জুন হাইকোর্ট তারেক ও জোবায়দাকে পলাতক ঘোষণা করে ৪ কোটি ৮২ লাখ টাকার দুর্নীতি মামলা দায়ের ও তার প্রক্রিয়ার বৈধতা নিয়ে করা পৃথক রিট আবেদন খারিজ করে দেন। রিট খারিজ করে দেওয়া রায়ে হাইকোর্ট একইসঙ্গে ২০০৭ সালে তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সময় দায়ের করা এ মামলার স্থগিতাদেশ প্রত্যাহার করে নিয়ে সংশ্লিষ্ট নিম্ন আদালতকে যত দ্রুত সম্ভব বিচার কার্যক্রম শেষ করার নির্দেশ দেন।

এছাড়া ঢাকার চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেটকে এ রায় পাওয়ার ১০ দিনের মধ্যে মামলার রেকর্ড ঢাকা মহানগর দায়রা জজ আদালতে পাঠাতে বলা হয়।

মামলার বিবরণ থেকে জানা যায়, জ্ঞাত আয়ের বাইরে ৪ কোটি ৮১ লাখ ৫৩ হাজার ৫৬১ টাকার মালিক হওয়া এবং সম্পদের তথ্য গোপন ও জ্ঞাত আয়বহির্ভূত সম্পদ অর্জনের অভিযোগে ২০০৭ সালের ২৬ সেপ্টেম্বর রাজধানীর কাফরুল থানায় এ মামলা করে দুদক। মামলায় তারেক রহমান, জোবায়দা রহমান ও তার মা ইকবাল মান্দ বানুকে আসামি করা হয়। তারেক রহমানের শাশুড়ি মারা যাওয়ায় এই মামলা থেকে তাকে অব্যাহতি দেওয়া হয়।


আরও খবর
আন্দালিব রহমান পার্থ ৫ দিনের রিমান্ডে

বৃহস্পতিবার ২৫ জুলাই ২০২৪

কোটা নিয়ে আপিল বিভাগে শুনানি রোববার

বৃহস্পতিবার ১৮ জুলাই ২০২৪




স্মৃতির হাহাকার নিয়ে মানিকের মায়াটান

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৬ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৬ জুলাই ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
বিনোদন ডেস্ক

Image

মুক্তি পেলো জীবনমুখী গানের কণ্ঠশিল্পী, লেখক ও সাংবাদিক আমিরুল মোমেনীন মানিকের নতুন গান মায়াটান। ইউটিউব চ্যানেল মানিক মিউজিক-এ প্রকাশিত হয়েছে এটি। শৈশবের স্মৃতি জাগানিয়া হাহাকার নিয়ে নির্মিত গানটির কথা ও সুর সাজিয়েছেন শিল্পী নিজেই। সঙ্গীতায়োজনে ছিলেন অণু মোস্তাফিজ। ভিডিও নির্মাণ করেছেন আলম মোরশেদ।

গানটি প্রসঙ্গে মানিক বলেন, প্রত্যেকের জীবনকেই নানাভাবে অনুপ্রেরণা দেয় ফেলে আসা শৈশব। আবার কখনো নষ্টালজিয়ায় আক্রান্ত করে। জীবনের সোনালী দিনগুলোর মধুর স্মৃতিকে উসকে দিতেই মায়াটান গানটি অদ্ভুত ভালো লাগা তৈরি করবে সবার মধ্যে। এই গানে শুধু শৈশব নয়, ব্রিটিশ বিরোধী বিপ্লবী তিতুমীরের ঐতিহাসিক ঘটনার যোগসূত্রও তৈরি করা হয়েছে ভিডিওর কাহিনীচিত্রের মাধ্যমে। জানা গেছে, পরবর্তিতে মায়াটান শিরোনামের গানটি যুক্ত হবে আপকামিং বিপ্লবী তিতুমীর চলচ্চিত্রে।

গানটি প্রসঙ্গে ভিডিও নির্মাতা মোরশেদ আলম বলেন, হৃদয়কে মুগ্ধতায় ভরিয়ে দেওয়ার মতো কথা ও সুরের গান মায়াটান। আকাশ, প্রকৃতি এবং সোঁদা মাটির ঘ্রাণ আছে গানের ভিডিওতে। দর্শক ফিরে যাবে ফেলে আসা মায়ামাখা শৈশবে। মানিক ভাই যেমন অসাধারণ গেয়েছেন, তেমনি অণু মোস্তাফিজ ভাইও হাড়ি, পাতার বাঁশি, বৈঠার শব্দ দিয়ে দারুণ সঙ্গীতায়োজন করেছেন।

২০১৪ সালে  কিংবদন্তি কণ্ঠশিল্পী নচিকেতা চক্রবর্তীর সঙ্গে আমিরুল মোমেনীন মানিকের আয় ভোর শিরোনামের গান প্রকাশিত হলে দুই বাংলায় ব্যাপক সাড়া পড়ে। এরপর, নচিকেতার সঙ্গে নীল পরকীয়া এবং সকাল হবে কি শিরোনামের আরও দুটি গান করেন মানিক। এর বাইরে মা যে দশ মাস দশ দিন, শিরায় শিরায় রক্তকণায়সহ আরও বেশ কিছু জনপ্রিয় গান উপহার দিয়েছেন মানিক। গানের পাশাপাশি আমিরুল মোমেনীন মানিক সাহিত্য ও সাংবাদিকতা নিয়ে কাজ করেন। ইতোমধ্যে বেরিয়েছে ২১টি গ্রন্থ। তাঁর বেস্ট সেলার বইয়ের নাম বিশ্ববিদ্যালয়ের কতিপয় স্টুপিড শিক্ষক। সাংবাদিকতায় মানিক পেয়েছেন ইউনেস্কো ক্লাব জার্নালিজম এ্যাওয়ার্ড। ইউটিউব জার্নালিজমের প্রথম ধারণা উপস্থাপন করে তিনি প্রতিষ্ঠা করেছেন চেঞ্জটিভি. প্রেস। বর্তমানে আমিরুল মোমেনীন মানিক হামদর্দ বাংলাদেশের পরিচালক তথ্য ও গণসংযোগ হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন।


আরও খবর



রেললাইন অবরোধ, ঢাকার সঙ্গে সারাদেশের ট্রেন যোগাযোগ বন্ধ

প্রকাশিত:বুধবার ১০ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১০ জুলাই ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

কোটা নিয়ে চলমান আন্দোলনের ধারাবাহিকতায় বুধবার (১০ জুলাই) রাজধানীর কাওরানবাজারে রেললাইন অবরোধ করে রেখেছে আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীরা। এতে ঢাকার সঙ্গে সারাদেশের রেল যোগাযোগ বন্ধ হয়ে গেছে। একই সঙ্গে রিকশা, ভ্যান, মোটরসাইকেলসহ সব ধরনের যানবাহন চলাচল বন্ধ করে দিয়েছেন আন্দোলনকারীরা।

এদিন দুপুর ১টার দিকে কয়েকশ আন্দোলনকারী অবস্থান নেন কাওরানবাজার সংলগ্ন রেললাইনের ওপরে। এসময় তারা রেললাইনের দুই পাশে কাঠের স্লিপার দিয়ে রেললাইনের ওপরে বসে পড়েন, কেউ কেউ শুয়েও পড়েন। এতে বেলা ১১টার পর কমলাপুরের সঙ্গে পশ্চিম ও পূর্বাঞ্চলের রেল যোগাযোগ বন্ধ হয়ে যায়।

আন্দোলনে অংশ নেওয়া এক শিক্ষার্থী বলেন, আমাদের যৌক্তিক দাবির পক্ষে এসেছি। বেলা ১১টা থেকে রেললাইনের ওপরে অবস্থান নিয়েছি। কোন ধরনের যানবাহন চলাচল করতে দেওয়া হচ্ছে না। আমাদের দাবির পক্ষে আমরা সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত বসে থাকব।

এসময় অন্যান্যরা নানা ধরনের স্লোগান দিতে থাকেন।

অন্যদিকে সব ধরনের যানবাহন চলাচল বন্ধ থাকায় ভোগান্তিতে পড়তে হয় সাধারণ মানুষকে। অনেকে পায়ে হেঁটে স্ব স্ব গন্তব্যের উদ্দেশ্য রওয়ানা হন।


আরও খবর
ট্রেন চলাচলের সিদ্ধান্ত এখনও হয়নি

বৃহস্পতিবার ২৫ জুলাই ২০২৪




কোটা সংস্কারের দাবিতে রাবি শিক্ষার্থীদের রেললাইন অবরোধ

প্রকাশিত:সোমবার ০৮ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ০৮ জুলাই ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি

Image

সরকারি চাকরিতে কোটা পদ্ধতির সংস্কার ও মেধাভিত্তিক নিয়োগের পরিপত্র বহাল রাখার দাবিতে রেললাইন অবরোধ করেছেন রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। ফলে রাজশাহী রেল স্টেশনের সাথে চাঁপাইনবাবগঞ্জের ছাড়া বাকি সব জেলার সাথে রেল যোগাযোগ বন্ধ আছে।

সোমবার (৮ জুলাই) সকাল সাড়ে ১১টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা অনুষদের পাশের রেললাইন অবরোধ করে আন্দোলন করছেন সাধারণ শিক্ষার্থীরা।

এসময় মুক্তিযুদ্ধের মূলকথা, সুযোগের সমতা, সারা বাংলায় খবর দে, কোটা প্রথার কবর দে, আঠারোর হাতিয়ার, গর্জে উঠুক আরেকবার, জেগেছে রে জেগেছে, ছাত্রসমাজ জেগেছে, কোটা না মেধা, মেধা মেধা, মুক্তিযুদ্ধের বাংলায়, বৈষম্যের ঠাঁই নাই এমনসব স্লোগান দেন।

এসময় কোটাবিরোধী আন্দোলনে সমন্বয়ক আমানুল্লাহ আমান বলেন, হাইকোর্টের রায় অনুযায়ী মোট কোটা আছে ৫৬ শতাংশ আর মেধাবীদের জন্য মাত্র ৪৪ শতাংশ। এটা মেধাবীদের জন্য একটা বৈষম্য। আমরা এই বৈষম্য চাই না। আমাদের দাবি এখনো সরকার মেনে নেয়নি। তাই আমাদের চলমান কর্মসূচির অংশ হিসেবে আজ রেললাইন অবরোধ করেছি। আজ থেকে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল বিভাগের শিক্ষার্থী ক্লাস-পরীক্ষা আনুষ্ঠানিকভাবে বর্জন করা হয়েছে এবং ক্যাম্পাসের কোনো বাসও চলাচল করতে পারবে না।

তিনি আরো বলেন, প্রথমে আমরা চারটি দাবি নিয়ে আন্দোলন করলেও আজ থেকে এক দফা দাবি নিয়ে আন্দোলন করা হবে। সেটা হলো সব গ্রেডে, সব ধরনের অযৌক্তিক ও বৈষম্যমূলক কোটা বাতিল করে সংসদে আইন পাস করতে হবে।


আরও খবর
যে কারণে চাকরি ছাড়লেন জাবি শিক্ষক

বৃহস্পতিবার ২৫ জুলাই ২০২৪




শিরোপা জিততে দক্ষিণ আফ্রিকার দরকার ১৭৭ রান

প্রকাশিত:শনিবার ২৯ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ২৯ জুন ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
ক্রীড়া প্রতিবেদক

Image

এবারের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে নিজেকে হারিয়ে খুঁজছিলেন বিরাট কোহলি। গ্রুপপর্বের ৪ ম্যাচ, সুপার এইটের ৩ ম্যাচ ও সেমিফাইনাল খেলেও ফিফটির দেখা পাননি তিনি। তবে ফাইনালে হাসল কিং কোহলির ব্যাট। ধীরগতির হলেও গুরুত্বপূর্ণ সময়ে দলের হাল ধরে ফাইনাল ম্যাচে খেললেন ৭৬ রানের ইনিংস। তাতে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৭ উইকেট হারিয়ে ১৭৬ রানের বড় পুঁজি পেল ভারত। প্রথমবারের মতো শিরোপা জিততে দক্ষিণ আফ্রিকাকে করতে হবে ১৭৭ রান।

বার্বাডোজের কেনসিংটন ওভালে আজ টসে জিতে ব্যাটিং বেছে নেন ভারতের অধিনায়ক রোহিত শর্মা। তবে আগের ম্যাচগুলোতে রানের ফুলঝুরি ছোটালেও ফাইনালে ব্যর্থ রোহিত। রান পাননি তিনে নামা ঋশাভ পান্ত ও চারে নামা সূর্যকুমার যাদবও। ৩৪ রানের মধ্যেই ৩ উইকেট হারিয়ে বিপদে পড়ে ভারত। তবে একপ্রান্ত আগলে রেখেছেন অফফর্মে থাকা কোহলি। চতুর্থ উইকেটে অক্ষর প্যাটেলকে নিয়ে ৫৪ বলে গড়েন ৭২ রানের জুটি।

এদিন ব্যাটিং অর্ডারে উন্নতি পেয়ে দারুণ ব্যাটিং করেন অক্ষর। তবে ভারতের সেমিফাইনালের নায়ক আউট হয়েছেন দুর্ভাগ্যজনকভাবে। নন-স্ট্রাইকে থেকে রান নিতে গিয়েও ফিরতে পারেননি। উইকেটের পেছন থেকে কুইন্টন ডি ককের দুর্দান্ত এক থ্রোতে বিদায় নেন অক্ষর। ততক্ষণে ৩১ বলে ৪৭ রানের দারুণ এক ইনিংস খেলে ফেলেছেন তিনি।

অক্ষরের বিদায়ের পর শিভাম দুবেকে সঙ্গে নিয়ে দলের রান বাড়াতে থাকেন কোহলি। নিজের ফিফটি তুলতে ব্যয় করেন ৪৮ বল। ফিফটির পর রানের গতি বাড়ানোর চেষ্টা করেন এবারের বিশ্বকাপে পজিশন বদলে ওপেনিংয়ে নামা এই ব্যাটার। ১৯তম ওভারের পঞ্চম বলে ফেরার আগে করেন ৭৬ রান। ৫৯ বলের ইনিংসটি সাজানো ছিল ৬টি চার ও ২ ছক্কায়।

ছয়ে নামা শিভাম ১৬ বলে ২৭ রান করে শেষ ওভারে আউট হন। আরেক পাশে হার্দিক পান্ডিয়া অপরাজিত ছিলেন ৫ রানে, খেলেছেন ২ বল। তাতে নির্ধারিত ২০ ওভারে ১৭৬ রানে থামে মেন ইন ব্লুরা।

দক্ষিণ আফ্রিকার হয়ে এদিন নিজের প্রথম ওভারেই রোহিত ও পান্তকে ফেরান স্পিনার কেশাভ মহারাজ। ৩ ওভারে ২৩ রানের বিনিময়ে ২ উইকেট নিয়ে সবচেয়ে সফল তিনিই। ৪ ওভারের কোটা পূর্ণ করে রান খরচায় ১ উইকেট নেন এনরিখ নোর্কিয়া। একটি করে উইকেট নেন মার্কো জেনসেন ও কাগিসো রাবাদা।


আরও খবর
প্যারিস অলিম্পিকে নতুন যা থাকছে

বৃহস্পতিবার ২৫ জুলাই ২০২৪




খাম লেনদেনের ভিডিও ফাঁসের পর ওসি প্রত্যাহার

প্রকাশিত:শনিবার ০৬ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ০৬ জুলাই ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
রাজশাহী প্রতিনিধি

Image

অফিসে এক ব্যক্তির সঙ্গে খাম লেনদেনের ভিডিও ছড়িয়ে পড়ার পর রাজশাহীর চন্দ্রিমা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাহবুব আলমকে প্রত্যাহার করা হয়েছে।

শনিবার (৬ জুলাই) তাকে থানা থেকে প্রত্যাহার করে রাজশাহী মহানগর পুলিশের (আরএমপি) সদর দপ্তরে সংযুক্ত করা হয়েছে।

আরএমপির মুখপাত্র জামিরুল ইসলাম এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, আরএমপি কমিশনার বিপ্লব বিজয় তালুকদার ওসি মাহবুব আলমকে থানা থেকে প্রত্যাহার করে সদর দপ্তরে সংযুক্ত করেছেন। এখন খাম লেনদেনের বিষয়টি তদন্ত হবে। এরপর পরবর্তী পদক্ষেপ নেওয়া হবে।

শনিবার ছোট একটি ভিডিওক্লিপ সামাজিক মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে। এতে দেখা যায়, সামনে বসে থাকা ব্যক্তি ওসিকে বলেন, ভাই, একটা ছোট খাম দেন। ওসি তখন মুচকি হাসেন। এ সময় ওই ব্যক্তি বলেন, মাহবুব ভাই, আপনি আমাকে চিনেন, জানেন, বোঝেন। আমি বিপদে পড়সি বলেই আপনার কাছে আসছি ভাই। এ সময় ওসি মাহবুব আলম মুচকি হেসে ড্রয়ার থেকে একটি খালি খাম বের করে দেন।

পরে সামনে থাকা ওই ব্যক্তি ভরা খাম টেবিলে এগিয়ে দিলে ওসি সেটি নিয়ে আবার টেবিলের ড্রয়ারে রেখে দেন। ওই ব্যক্তি খামের ভেতর কী ঢুকিয়ে তা আবার ওসিকে দিয়েছেন সেটি ভিডিওতে দেখা যায়নি। তবে অভিযোগ উঠেছে, খামে ভরে এভাবে ঘুষ নিয়েছেন ওসি মাহবুব আলম।

তবে পুলিশ পরিদর্শক মাহবুব আলম দাবি করেছেন, টাকা নয়; এক ব্যক্তির কাছ থেকে ছিনতাইকারীদের তালিকা নিয়েছেন খামে। এই পুলিশ কর্মকর্তা বলেন, আমি পাবলিকের কাছ থেকে টাকা খাই না। কার সঙ্গে এ রকম কথা হয়েছে, সেটা মনে করতে পারছি না। তবে একজনের কাছ থেকে খামে ভরে ছিনতাইকারীদের তালিকা নিয়েছিলাম। ওই খাম ওইভাবেই আছে। সেই তালিকা নেওয়ার ভিডিও হতে পারে।


আরও খবর