আজঃ শনিবার ২৯ জানুয়ারী ২০২২
শিরোনাম

সূচকের বড় উত্থানে শেষ পুঁজিবাজারের লেনদেন

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১৩ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৩ জানুয়ারী ২০২২ | ৪৩৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

ওষুধ, রসায়ন এবং বহুজাতিক কোম্পানির শেয়ারে দাম বৃদ্ধির ফলে ঘুরে দাঁড়িয়েছে দেশের পুঁজিবাজার। এতে সপ্তাহের পঞ্চম ও শেষ কর্মদিবস বৃহস্পতিবার (১৩ জানুয়ারি) সূচক বেড়েছে। তবে কমেছে লেনদেন ও অধিকাংশ কোম্পানির শেয়ারের দাম।

এদিন ওষুধ ও রসায়ন খাতের ৩২টি কোম্পানির মধ্যে দাম বেড়েছে ২০টির কোম্পানির আর কমেছে ৫টির। এছাড়াও অপরিবর্তিত রয়েছে সাতটি কোম্পানির শেয়ারে দাম।

অন্যদিকে গ্রামীণফোন, ইউনিলিভার কেয়ার, ম্যারিকো, লিন্ডে বিডি, রেনেটা এবং বার্জার পেইন্টসহ বহুজাতিক কোম্পানির শেয়ারের দাম বেড়েছে। আর তাতে বেশির ভাগ কোম্পানির শেয়ারে দাম কমার পরও সূচক বেড়েছে। এর আগের দিন বুধবার উভয় বাজারে দরপতন হয়েছিল।

ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) তথ্য মতে, বৃহস্পতিবার বাজারে বিক্রেতার তুলনায় ক্রেতা কম থাকায় দিনভর সূচক ওঠানামার মধ্যদিয়ে লেনদেন হয়েছে। এদিন ৩৭৮টি প্রতিষ্ঠানের ২৩ কোটি ৪৬ লাখ ৩৯ হাজার ৬৩টি শেয়ার ও ইউনিটের লেনদেন হয়েছে। এর মধ্যে ১৫৬ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিটের দাম বেড়েছে, কমেছে ১৬৭টির আর অপরিবর্তিত রয়েছে ৫৫টির।

এদিন তিন সূচকে পথচলা ডিএসইর প্রধান সূচক ২১ পয়েন্ট বেড়ে ৭ হাজার ২১ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে। ডিএসইএক্স সূচক আগের দিনের চেয়ে বেড়েছে ৬ পয়েন্ট, আর ডিএস-৩০ সূচক বেড়েছে ৯ পয়েন্ট।

এতে ডিএসইতে লেনদেন হয়েছে ১ হাজার ২৪২ কোটি ৮৪ লাখ ১১ হাজার টাকা শেয়ার। আগের দিন লেনদেন হয়েছিল ১ হাজার ৬৬৪ কোটি ১৭ লাখ ৮ হাজার টাকা শেয়ার। অর্থাৎ আগের দিনের চেয়ে লেনদেন কিছুটা কমেছে।

এদিন ডিএসইতে সবচেয়ে বেশি লেনদেন হয়েছে বাংলাদেশ শিপিং করপোরেশনের শেয়ারের। এরপর ছিল পাওয়ার গ্রিড, বেক্সিমকো লিমিটেড, প্যারামাউন্ট টেক্সটাইল, ফরচুন সুজ, তিতাস গ্যাস, বেক্সিমকো সুকুক, ফারইস্ট ইসলামী লাইফ ইনস্যুরেন্স এবং লাভেলো আইসক্রিম লিমিটেড।

অপর পুঁজিবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের সার্বিক সূচক সিএএসপিআই ৪৮ পয়েন্ট বেড়ে ২০ হাজার ৫৪৫ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে। সিএসইতে ২৯৭টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ার লেনদেন হয়েছে। এর মধ্যে ১৩০টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ারের দাম বেড়েছে, কমেছে ১৩০টির। আর অপরিবর্তিত ছিল ৩৯টির। এদিন এ বাজারে লেনদেন হয়েছে ৪২ কোটি ২৯ লাখ ৬১হাজার ৩৯৬ টাকার শেয়ার। এর আগের দিন লেনদেন হয়েছিল ৭২ কোটি ৩৫ লাখ ৫ হাজার ৪৮০ টাকার শেয়ার।

 


আরও খবর
কোম্পানির শেয়ার ও ইউনিটের দাম কমেছে

বৃহস্পতিবার ২৭ জানুয়ারী ২০২২

মিশ্র প্রবণতায় চলছে পুঁজিবাজারের লেনদেন

বৃহস্পতিবার ২৭ জানুয়ারী ২০২২




ঘুঘুর ফাঁদ দেখা শুরু করেছি: তৈমুর

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১১ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১১ জানুয়ারী ২০২২ | ৩৯৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

সিটি নির্বাচনকে প্রভাবিত করতে কর্মী ও সমর্থকদের হয়রানি ও তাদের ওপর নিপীড়ন চালানোর অভিযোগ করেছেন নারায়ণগঞ্জ সিটি নির্বাচনে স্বতন্ত্র মেয়রপ্রার্থী ও বিএনপি চেয়ারপারসনের সাবেক উপদেষ্টা তৈমুর আলম খন্দকার।

তিনি বলেন, আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য জাহাঙ্গীর কবির নানক আমাকে ঘুঘুর ফাঁদ দেখাবেন বলে ঘোষণার ২৪ ঘণ্টার মধ্যেই বিএনপির নেতাকর্মী ও আমার সমর্থকদের গ্রেফতার করা শুরু হয়। তার বক্তব্যের পর থেকে ঘুঘু ও ঘুঘুর ফাঁদ দেখা শুরু করেছি।

মঙ্গলবার (১১ জানুয়ারি) সকাল সাড়ে ১০টায় নারায়ণগঞ্জ শহরের মিশনপাড়া এলাকায় সংবাদ সম্মেলনে তিনি এই দাবি জানান। এ সময় মহানগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক এটিএম কামালসহ বিএনপির নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

তিনি অভিযোগ করেন, গত রাতেও আমার ৩৭ জন কর্মী ও সমর্থকের বাড়িতে তল্লাশি চালানো হয়েছে। বিভিন্ন জায়গা থেকে ১৭ জনকে আটক করা হয়েছে। প্রতি রাতে পোশাকে-সাদা পোশাকে পুলিশ বিএনপির নেতাকর্মীদের বাড়ি বাড়ি তল্লাশি চালাচ্ছে।

তৈমুর আলম আরও বলেন, ঘুঘুর ফাঁদ দেখানোর যে কথা বলা হয়েছে, এটির যদি প্রতিফলন ঘটে, তাহলে সবচেয়ে বেশি ভাবমূর্তির ক্ষতি হবে প্রধানমন্ত্রীর। প্রধানমন্ত্রী হয়তো বিষয়টি জানেন না, অতি উৎসাহী হয়ে কেউ আমাদের নেতাকর্মীদের ওপর জুলুম-অত্যাচার চালাচ্ছে।

সংবাদ সম্মেলনে রেশমী আক্তার তার স্বামীকে তুলে নেওয়ার অভিযোগ করেন। পরে তৈমুর বন্দরে ১৯ নম্বর ওয়ার্ডে গণসংযোগ করতে বের হন।

সংবাদ সম্মেলনে তৈমুর আলম খন্দকার বলেন, মনিরুল ইসলাম রবি সিদ্ধিরগঞ্জের নির্বাচনি সমন্বয়ক। তার কাছে নির্বাচনের সব এজন্টে নিয়োগসহ কাগজপত্র ছিল। তাকে আগে গ্রেফতার করা হলো না। আমি যেদিন মনোনয়ন কিনেছিলাম সেদিন তিনি পাশে ছিলেন, যেদিন জমা দেই সেদিনও ছিল। যেদিন বাছাই হয় সেদিনও রবি পাশে ছিল। মার্কার দিনও আমার সঙ্গে ছিল। তখন তাকে গ্রেফতার করা হয়নি।


আরও খবর



ভারতের কাছে হেরে স্বপ্নভঙ্গ যুবা টাইগারদের

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ৩০ ডিসেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ৩০ ডিসেম্বর ২০২১ | ৫৩০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

লক্ষ্যটা খুব কঠিন ছিল। জয়ের জন্য বাংলাদেশের যুবাদের করতে হতো ২৪৪ রান। কিন্তু এই রান তাড়ায় খুব একটা প্রতিরোধও গড়তে পারল না বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৯ দল। ব্যাটে-বলের ব্যর্থতায় ভারতের কাছে বড় ব্যবধানে হেরে এশিয়া কাপের সেমিফাইনাল থেকে বিদায় নিয়েছে বাংলাদেশের যুবারা।

আজ বৃহস্পতিবার যুব এশিয়া কাপের সেমিফাইনালে বাংলাদেশকে ১০৩ রানের বিশাল ব্যবধানে হারিয়েছে ভারত অনূর্ধ্ব-১৯ দল।

শারজাহ ক্রিকেট স্টেডিয়ামে আজ দিনের দ্বিতীয় সেমিফাইনালে ২৪৪ রানের জবাব দিতে নেমে মাত্র ৩৮.২ ওভার স্থায়ী হয়েছে বাংলাদেশের ব্যাটিং। এই সময়ে ভারতীয়দের বোলিং দাপটে ১৪০ রানেই থেমে গেল লাল-সবুজের দর। দলের হয়ে সর্বোচ্চ ৪২ রান করেছেন আরিফুল হক। আর ওপেনার মাহফিজুল করেছেন ২৬ রান। বাকিরা কেউই ব্যাট হাতে জ্বলে উঠতে পারেননি। ফলে বড় জয় নিয়ে ফাইনালে উঠল ভারত।

এর আগে টস জিতে আগে ব্যাট করতে নেমে নির্ধারিত ৫০ ওভারে ২৪৩ রান তোলে ভারত। রানের গতি শেষ দিকে বেশি বাড়িয়েছে ভারতের যুবারা।

ইনিংসের ৪৫ ওভারের মধ্যে ৮ উইকেট হারিয়ে ফেলার পর শেষ ৫ ওভারে ৫০ রান যোগ করে ভারত অনূর্ধ্ব-১৯ দল। ফলে ম্যাচের ভাগ্য অনেকটাই কঠিন হয়ে যায় বাংলাদেশের।

অথচ ম্যাচের শুরুর দিকে দারুণ করেছিল বাংলাদেশ। প্রথম ২৫ ওভার শেষে ৩ উইকেট হারিয়ে মাত্র ৭৭ রান করতে পেরেছিল ভারত। সেখান থেকে ঘুরে দাঁড়িয়ে শাইক রশিদের ব্যাটে শক্ত পুঁজি পায় তারা। ১০৮ বলে ৯০ রানের অপরাজিত ইনিংস খেলেন তিনি। ভিকি ওস্তাওয়াল ১৮ বলে খেলে করেন ২৮ রান। রাজাবর্ধন হাঙ্গারেকার ৭ বলে করেন ১৬ রান। এছাড়া ইয়াশ ঢুল ২৬ ও রাজ বাওয়ার ব্যাট থেকে আসে ২৩ রান।

বাংলাদেশের পক্ষে বল হাতে বাঁহাতি স্পিনার রাকিবুল হাসান নিয়েছেন ৩ উইকেট। এ ছাড়া সমান একটি করে নিয়েছেন তানজিম হাসান সাকিব, নাইমুর রহমান, আরিফুল ইসলাম ও এসএম মেহরাব হাসান।


আরও খবর
সাড়ে ৩ বছর নিষিদ্ধ ব্রেন্ডন টেলর

শুক্রবার ২৮ জানুয়ারী ২০২২




‘সরকারি কর্মচারীদের আচরণে যেন সরকারের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন না হয়’

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১৩ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৩ জানুয়ারী ২০২২ | ৩৫০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন বলেছেন, সরকারের কর্মচারীদের মূল দায়িত্ব দেশ ও জনগণের সেবা করা। তাই জনগণের সেবায় তাদেরকে আত্মনিয়োগ করতে হবে।  সরকারি কর্মচারীদের আচরণে যেন সরকারের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন না হয়।

বৃহস্পতিবার জাতীয় পরিকল্পনা ও উন্নয়ন একাডেমি আয়োজিত ডেভেলপমেন্ট অ্যাডমিনিস্ট্রেশন ট্রেনিং কোর্সের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে ভার্চুয়ালি যুক্ত হয়ে তিনি এ কথা বলেন।

জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী বলেন, সরকারি দপ্তর ও কর্মচারীদের প্রতি জনগণের প্রত্যাশা অনেক। তারা বিভিন্ন সমস্যায় সরকারি দপ্তরে আসে। জনগণের সেই সব সমস্যা সমাধানে সরকারি কর্মচারীদের আন্তরিক হতে হবে। তাদেরকে সাধারন জনগণের সমস্যাগুলো অনুধাবন করে যথাযথ সেবা দিতে হবে।

তিনি বলেন, সরকারের ভাবমূর্তি উন্নয়নে সরকারি কর্মচারীদের ভূমিকা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। তাই সরকারি কর্মচারীদের আচরণে যেন সরকারের ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন না হয় সেদিকে লক্ষ্য রেখে কাজ করতে হবে।

জাতীয় পরিকল্পনা ও উন্নয়ন একাডেমির মহাপরিচালক বদরুল আরেফিনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে জনপ্রশাসন সচিব কে এম আলী আজম এবং থাইল্যান্ডের এশিয়ান ইনস্টিটিউট অব টেকনোলজির পরিচালক ভোরাভেট কনলাসিন অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তৃতা করেন।

প্রশাসন ক্যাডারের ৩৭ ব্যাচের ৫০ জন কর্মকর্তা ৪ মাসব্যাপী এই প্রশিক্ষণ কোর্সে অংশ নেবেন। বাংলাদেশের জাতীয় পরিকল্পনা ও উন্নয়ন একাডেমি এবং থাইল্যান্ডের এশিয়ান ইনস্টিটিউট অফ টেকনোলজি যৌথভাবে এই প্রশিক্ষণের আয়োজন করেছে।



আরও খবর



পর্নোগ্রাফি মামলায় গ্রেফতার করা যাবে না পুনমকে : আদালত

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২০ জানুয়ারী ২০22 | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২০ জানুয়ারী ২০22 | ২৮০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

পর্নোগ্রাফি মামলায় ভারতীয় অভিনেত্রী পুনম পাণ্ডেকে গ্রেফতার করা যাবে না বলে আদেশ জারি করেছে ভারতের সুপ্রিম কোর্ট। বিচারপতি বিনীত শরণ এবং বি ভি নাগারথনার একটি বেঞ্চ এই নির্দেশ জারি করেছে।

এর আগে মুম্বাই হাইকোর্ট পুনমের আগাম জামিন প্রত্যাখ্যান করেছিল। সেই আদেশের বিরুদ্ধে পান্ডের দায়ের করা আপিলের উপর মুম্বাইয়ের মহারাষ্ট্র সরকারকে নির্দেশ জারি করেছে ভারতের সর্ব্বোচ্চ আদালত। বিচারপতি বলেন, বিজ্ঞপ্তি জারি করুন, আবেদনকারীর বিরুদ্ধে কোন জবরদস্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়া হবে না।

একটি এফআইআরে অভিনেতা শার্লিন চোপড়ার সঙ্গে নাম ছিল পুনমেরও। মুম্বাই হাইকোর্ট গত ২৫ নভেম্বর তার অগ্রীম জামিনের আবেদন প্রত্যাখ্যান করেছিল। এরপর ডিসেম্বরে, সর্বোচ্চ আদালত বলিউড অভিনেত্রী শিল্পা শেট্টির স্বামী রাজ কুন্দ্রাকে পর্নোগ্রাফিক ভিডিও তৈরি ও তা ছড়িয়ে দেওয়ার অভিযোগে তার বিরুদ্ধে নথিভুক্ত একটি এফআইআরের ক্ষেত্রেও একই নির্দেশ জারি করেছিল।

কুন্দ্রার বিরুদ্ধে ভারতীয় দণ্ডবিধির বেশ কিছু ধারায় অভিযোগ দায়ের করা হয়েছিল। এরমধ্যে অন্যতম ছিল নারীর অশালীন প্রতিনিধিত্ব (প্রতিরোধ) আইন এবং তথ্য প্রযুক্তি আইনের অধীনে যৌন ভিডিও প্রচার। এই দুই ধারার ভিত্তিতে মামলা করা হয়েছিল। গ্রেফতারি থেকে রেহাই পেতে কুন্দ্রা প্রথমে দায়রা আদালত থেকে আগাম জামিন চেয়েছিলেন। কিন্তু তা প্রত্যাখ্যান করা হয়েছিল। এরপরে তিনি উচ্চ আদালতে যান। সেখানে তিনি দাবি করেছিলেন যে তাকে ফাঁসানো হয়েছে।

 

 

নিউজ ট্যাগ: পুনম পাণ্ডে

আরও খবর
টাকা দিয়ে ভোট কিনছেন জায়েদ খান : নিপুণ

শুক্রবার ২৮ জানুয়ারী ২০২২




বিআরডিবি’র দুই দিনব্যাপী উপ-পরিচালক সম্মেলন এর শুভ উদ্বোধন

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ৩০ ডিসেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ৩০ ডিসেম্বর ২০২১ | ৪০০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

বাংলাদেশ পল্লী উন্নয়ন বোর্ড (বিআরডিবি) এর মাঠ পর্যায়ের উপপরিচালকগণের সমন্বয়ে উপপরিচালক সম্মেলন-২০২১  এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠান গতকাল বুধবার (২৯ ডিসেম্বর) বিআরডিবি সদর কার্যালয়ের সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিাত হয়।  উপপরিচালক সম্মেলন-২০২১  এর উদ্বোধন করেন স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী স্বপন ভট্টাচার্য্য এমপি।

সভাপতিত্ব করেন সুপ্রিয় কুমার কুন্ডু, মহাপরিচালক (গ্রেড-১), বিআরডিবি। সম্মেলনে বাংলাদেশ পল্লী উন্নয়ন বোর্ডের  সকল পর্যায়ের কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন।

অনুষ্ঠানে গ্রামীণ অর্থনীতির উন্নতি সাধনের লক্ষ্যে বিআরডিবি কর্তৃক গৃহীত সাম্প্রতিক কর্মকাণ্ড, প্রকল্প ও কর্মসূচির অগ্রগতি এবং প্রতিষ্ঠানটির ভবিষ্যৎ কর্মপরিকল্পনা সম্পর্কে অবহিত করা হয়। এছাড়া সভায় জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান কর্তৃক সমন্বিত পল্লী উন্নয়ন কর্মসূচি প্রবর্তনের পর থেকে এ কর্মসূচি এবং এর অনুসরণে বিআরডিবি কর্তৃক মানব সংগঠন সৃষ্টি, সঞ্চয় গড়ে তোলা, আয় উৎসারী প্রশিক্ষণের মাধ্যমে দরিদ্র গ্রামীণ জনগণের সক্ষমতা ও আয় বৃদ্ধি এবং কর্মসংস্থান, আধুনিক কৃষি প্রযুক্তির মাধ্যমে উৎপাদন বৃদ্ধি ও খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণতা অর্জনে গৃহীত কার্যক্রম ও ভূমিকা সম্পর্কে আলোকপাত করা হয়।

স্বপন ভট্টাচার্য্য এমপি প্রতিমন্ত্রী, স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয় বলেন যে, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমান এর হাতে গড়া ঐতিহ্যবাহী প্রতিষ্ঠান বিআরডিবির গৌরব সমুন্নত রাখার জন্য পল্লীর জনগণকে সর্বোত্তম সেবা প্রদান করতে হবে। এ কাজ বাস্তবায়নে বিআরডিবির সকল স্তরের কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের তৎপর থাকতে হবে। তিনি আরও বলেন বাংলাদেশের স্বাধীনতাত্তোর দেশের গ্রামীণ অর্থনৈতিক উন্নয়নে বিআরডিবির অবদান অসামন্য। দেশের ৬২% পল্লীর জনগোষ্ঠীর ভাগ্য উন্নয়নের জন্য এ প্রতিষ্ঠানটিকে শক্তিশালী করতে হবে। এজন্য পণ্যভিত্তিক পল্লী বা জীবিকায়ন শিল্প পল্লী এবং আয় উৎসারি সম্পদ হস্তান্তর প্রকল্প বাস্তবায়নের উদ্যোগ গ্রহণ করতে হবে।

বিআরডিবি’র মহাপরিচালক সুপ্রিয় কুমার কুন্ডু বলেন যে, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমান এর হাতে গড়া ঐতিহ্যবাহী বিআরডিবি’র মাধ্যমে চলমান সকল কার্যক্রমের সাথে সামঞ্জস্য রেখে পল্লী উন্নয়নের জন্য ১০০০টি জীবিকায়ন শিল্প পল্লী গঠন করে তা পর্যায়ক্রমে দেশের সকল পল্লীতে জীবিকায়ন হস্ত ও কুটির শিল্প পল্লী গঠনের আশাবাদ ব্যক্ত করেন। এছাড়া তিনি বিআরডিবি’র সকল কার্যক্রমে প্রতিমন্ত্রী, স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয় এর সহযোগিতা কামনা করেন।

নিউজ ট্যাগ: বিআরডিবি

আরও খবর
রাজধানীতে মাদকসহ গ্রেফতার ৫৯

শুক্রবার ২৮ জানুয়ারী ২০২২