আজঃ সোমবার ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
শিরোনাম

সুন্দরগঞ্জে ৪ জনের মনোনয়নপত্র বাতিল

প্রকাশিত:রবিবার ০৩ ডিসেম্বর ২০২৩ | হালনাগাদ:রবিবার ০৩ ডিসেম্বর ২০২৩ | অনলাইন সংস্করণ
জুয়েল রানা, সুন্দরগঞ্জ (গাইবান্ধা) প্রতিনিধি

Image

আসন্ন দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে গাইবান্ধা-১ সুন্দরগঞ্জ আসনে ৪ জনের মনোনয়নপত্র বাতিল করেছেন রিটার্নিং কর্মকর্তা। বাংলাদেশ খেলাফত আন্দোলনের মনোনীত প্রার্থী হাফিজার রহমান সরদারসহ তিন স্বতন্ত্রপ্রার্থী হিসেবে নির্বাচনে অংশগ্রহণের জন্য মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছিলেন। রোববার (৩ ডিসেম্বর) সকালে যাচাই-বাছাই শেষে তাদের মনোনয়ন বাতিল করা হয়।

যাদের মনোনয়নপত্র বাতিল হয়েছে তারা হলেন, বাংলাদেশ খেলাফত আন্দোলনের মনোনীত প্রার্থী  হাফিজার রহমান সরদার, স্বতন্ত্র প্রার্থী আব্দুল্লাহ নাহিদ নিগার, এবিএম মিজানুর রহমান, মোঃ মোস্তফা মহসিন।

উপজেলা রিটার্নিং কর্মকর্তা তরিকুল ইসলাম জানান, বাংলাদেশ খেলাফত আন্দোলনের মনোনীত প্রার্থী হাফিজার রহমান সরদারের ব্যাংকে ঋণ খেলাপি থাকার কারণে তার মনোনয়ন বাতিল করা হয়।

স্বতন্ত্রপ্রার্থী আব্দুল্লাহ নাহিদ নিগার ভোটারের এক শতাংশ ভোটার জালিয়াতির (ভুয়া স্বাক্ষর) অভিযোগে তার মনোনয়নপত্র বাতিল করা হয়েছে। তিনি যেসব ভোটারের নাম ও স্বাক্ষর দিয়েছেন সেগুলো যাচাই-বাছাই করে সঠিক তথ্য পাওয়া যায়নি। সাধারণত কোনো প্রার্থীর ১০ জনের ভোটার যাচাই করা হয়। এর মধ্যে তিনজনের সঠিক তথ্য পাওয়া যায়নি।

স্বতন্ত্রপ্রার্থী এবিএম মিজানুর রহমান উপজেলা শান্তিরাম ইউনিয়নের চেয়ারম্যানের দায়িত্ব বহল থাকায় তার মনোনয়ন বাতিল করা হয়।

স্বতন্ত্রপ্রার্থী মোঃ মোস্তফা মহসিন তিনি তার তথ্য গোপন রেখে মনোনয়ন পত্র জমা দিয়ে ছিলেন। তার বিরুদ্ধে আদালতে মামলা চলমান তিনি এই তথ্য গোপন করেন। তথ্য গোপনের কারণে তার মনোনয় বাতিল করা হয়।

তবে এবিষয়ে, প্রার্থীদের সাথে কথা বললে তারা জানান, তারা মনোনয়ন ফিরে পেতে আপিল করবেন। মনোনয়নপত্র ফিরে পাওয়ার বিষয়ে আশাবাদী তারা। আপিলের পরে কী হয় সেটা পরে জানাতে পারবেন।


আরও খবর
ঝিনাইদহ জেলা কারাগারে কয়েদির মৃত্যু

সোমবার ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




দেশে নতুন করে ৩৬ জনের করোনা শনাক্ত

প্রকাশিত:শনিবার ১০ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ১০ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
স্বাস্থ্য ডেস্ক

Image

গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে ৩৬ করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছে। রোগী শনাক্তের হার দাঁড়িয়েছে তিন দশমিক ৫৫ শতাংশে। এ নিয়ে মোট আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২০ লাখ ৪৭ হাজার ৫২৩ জনে। এ সময়ে করোনায় আক্রান্ত হয়ে কারও মৃত্যু হয়নি। ফলে মোট মৃত্যুর সংখ্যা ২৯ হাজার ৪৮৩ জন অপরিবর্তিত রয়েছে।

শনিবার (১০ ফেব্রুয়ারি) স্বাস্থ্য অধিদপ্তর থেকে পাঠানো করোনাবিষয়ক নিয়মিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ২৪ ঘণ্টায় করোনা থেকে সুস্থ হয়েছেন ২৭ জন। এ পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন ২০ লাখ ১৪ হাজার ৭০৯ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় পরীক্ষা করা হয় ৫৯০ নমুনা। পরীক্ষার বিপরীতে শনাক্তের হার ৬.১০ শতাংশ। মহামারির শুরু থেকে এ পর্যন্ত মোট শনাক্তের হার ১৩.০৮ শতাংশ।

২০২০ সালের ৮ মার্চ দেশে প্রথম ৩ জনের দেহে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়। এর ১০ দিন পর ওই বছরের ১৮ মার্চ দেশে এ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে প্রথম একজনের মৃত্যু হয়। ২০২১ সালের ৫ ও ১০ আগস্ট দুদিন করোনায় সর্বাধিক ২৬৪ জন করে মারা যান।


আরও খবর



রমজানে পুরো মাস বন্ধ থাকবে মাদরাসা

প্রকাশিত:সোমবার ১২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ১২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

আসন্ন রমজানে স্কুল-কলেজ ১৫ দিন ও প্রাথমিক স্কুল ১০ দিন খোলা থাকলেও পুরো মাস বন্ধ থাকবে মাদরাসা। শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাদরাসা ও কারিগরি বিভাগের এক প্রজ্ঞাপনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সংশোধিত শিক্ষাপঞ্জি অনুযায়ী, পুরো রমজান মাস বন্ধ থাকবে সরকারি ও বেসরকারি (স্বতন্ত্র ইবতেদায়ি, দাখিল, আলিম, ফাজিল ও কামিল) মাদরাসা। মন্ত্রণালয়ের মাদরাসা ও কারিগরি বিভাগের উপসচিব হাসিনা আক্তার স্বাক্ষরিত প্রজ্ঞাপনে ২০২৪ শিক্ষাবর্ষের সংশোধিত ছুটির তালিকা ও শিক্ষাপঞ্জি প্রকাশ করা হয়।

মাদরাসা শিক্ষা অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক মো. শাহীনুর ইসলাম স্বাক্ষরিত বিজ্ঞপ্তিতে শিক্ষা মন্ত্রণালয় প্রজ্ঞাপন বাস্তবায়নের তাগিদ দেয়া হয়েছে। এতে বলা হয়, আসন্ন রমজানে সরকারি-বেসরকারি মাধ্যমিক ও নিম্ন মাধ্যমিক বিদ্যালয় এবং সরকারি ও বেসরকারি কলেজগুলোতেও শ্রেণি কার্যক্রম সচল রাখার নির্দেশনা দিয়েছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগ। তবে পুরো রমজান ছুটি পাচ্ছেন মাদরাসার শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা।

প্রজ্ঞাপনে ৭ মার্চ থেকে ১৮ এপ্রিল পর্যন্ত টানা ৩০ দিন ছুটির কথা উল্লেখ রয়েছে। সে অনুযায়ী, পুরো রমজান মাস ছুটি পাচ্ছে মাদরাসা শিক্ষার্থীরা।

এর আগে বৃহস্পতিবার শিক্ষা মন্ত্রণালয় ছাড়াও প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় জানায়, আসন্ন রমজানে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান আংশিক খোলা থাকবে। এরমধ্যে মাধ্যমিক পর্যায়ের স্কুল-কলেজ ও সরকারি-বেসরকারি উচ্চ মাধ্যমিক ও স্নাতক পর্যায়ের কলেজগুলো রমজানের প্রথম ১৫ দিন এবং প্রাথমিক পর্যায়ের স্কুল রমজানের প্রথম ১০ দিন খোলা থাকবে।


আরও খবর



কিংবদন্তি অভিনেতা হুমায়ুন ফরীদিহীন এক যুগ

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
বিনোদন ডেস্ক

Image

নান্দনিক অভিনয় গুণে একজন ভার্সেটাইল অভিনয়শিল্পী হয়ে উঠেছিলেন হুমায়ুন ফরীদি। পর্দায় তার অভিনয়ে বারবরই মুগ্ধ হতো দর্শকরা। জায়গা করে নিয়েছিলেন কোটি বাঙালির হৃদয়ে। কিন্তু হঠাৎ করেই ২০১২ সালের ১৩ ফেব্রুয়ারি না ফেরার দেশে পাড়ি জমান কিংবদন্তি এই অভিনেতা।

এ অভিনেতার মৃত্যু যেমন ইন্ডাস্ট্রিতে শূন্যতা তৈরি করেছে, তেমনি শূন্যতা তৈরি হয়েছে ভক্তহৃদয়ে। তাদের হৃদয় আজও চির অমলিন। আর প্রিয় এই সহকর্মী ও তারকার মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে সোশ্যাল মিডিয়া এবং বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমে শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করছেন সবাই।

হুমায়ুন ফরীদির অভিনয় ক্যারিয়ার শুরু হয়েছিল মঞ্চ থেকে। তারপর টেলিভিশন নাটক ও চলচ্চিত্রে দ্যুতি ছড়িয়েছেন। নব্বইয়ের দশকে চলচ্চিত্রে অভিনয় শুরু করেন। তার অভিনীত উল্লেখযোগ্য সিনেমাগুলো হলো দহন, বীর পুরুষ, লড়াকু, বিশ্বপ্রেমিক, দুর্জয়, আনন্দ অশ্রু, আসামী বধূ, প্রাণের চেয়ে প্রিয়, কখনো মেঘ কখনো বৃষ্টি, ভণ্ড, ব্যাচেলর, শ্যামল ছায়া ও মেহেরজান প্রভৃতি।

এ অভিনেতা তার সৃজনশীল কর্মযজ্ঞের জন্য স্বীকৃতিস্বরূপ মাতৃত্ব সিনেমার জন্য ২০০৪ সালে সেরা অভিনেতা শাখায় জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পান। এছাড়া নাট্যাঙ্গনে অসামান্য অবদানের জন্য জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ প্রতিষ্ঠানের ৪০ বছর পূর্তি উপলক্ষে সম্মাননা প্রদান করেন হুমায়ন ফরীদিকে।

হুমায়ুন ফরীদির জন্ম ঢাকায় ১৯৫২ সালের ২৯ মে। ছেলেবেলায়ই হাতেখড়ি অভিনয়ে। ক্রমে সেটিই হয়ে ওঠে জীবনের ধ্যানজ্ঞান। শুধু খল চরিত্র নয়, নানা নিরীক্ষাধর্মী চরিত্রেও অভিনয়ের মুন্সিয়ানায় মুগ্ধ করেছেন দর্শকহৃদয়। কীর্তিমান এই অভিনয়শিল্পী রূপালি পর্দায় বর্ণিল আলো ছড়ালেও সাদামাটা জীবনেই খুঁজেছেন আশ্রয়।

নিউজ ট্যাগ: হুমায়ুন ফরীদি

আরও খবর
ফের বিয়ে করছেন অনুপম রায়, পাত্রী কে?

সোমবার ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




মিয়ানমার থেকে আর কোনো মর্টার শেল বাংলাদেশে পড়বে না: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

প্রকাশিত:সোমবার ২৯ জানুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ২৯ জানুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
কূটনৈতিক প্রতিবেদক

Image

মিয়ানমার থেকে আর কোনো মর্টার শেল বাংলাদেশের ভেতরে পড়বে না বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ। আজ সোমবার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

দেশের সীমান্ত এলাকায় মর্টার শেল পড়ার বিষয়ে সাংবাদিকরা দৃষ্টি আকর্ষণ করলে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, সেখানে আরাকান আর্মি এবং মিয়ানমারের আর্মি, সরকারি বাহিনী দুটির মধ্যে সংঘাত চলছে। সেই সংঘাতেরই মর্টার শেল আমাদের দেশে এসে পড়েছে। এটি আমরা অবশ্যই নজরে রেখেছি, সেখানে আমাদের সীমান্তরক্ষীরা সতর্ক আছে এবং মিয়ানমারের সরকারি বাহিনী বা সরকারের সঙ্গেও যোগাযোগের মধ্যে আছি।

তিনি বলেন, আমরা আশা করব যে, সেখান থেকে কোনো মর্টার শেল আমাদের দেশে আসবে না। তবে আমরা সতর্ক আছি এ ব্যাপারে।

মিয়ানমারে সেনাবাহিনী ও সশস্ত্র বিদ্রোহীদের মধ্যে ফের প্রচণ্ড গোলাগুলি ও সংঘর্ষের ঘটনায় বাংলাদেশ সীমান্তের কক্সবাজারের টেকনাফ ও বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ির বাসিন্দারা আতঙ্কে রয়েছেন। তারা সীমান্তের কাছে হেলিকপ্টার উড়তে দেখছেন। ভারী মর্টার শেলের শব্দও তারা শুনতে পাচ্ছেন। আতঙ্কে থাকার কথা বলেছেন ক্যাম্পে বসবাসরত রোহিঙ্গারাও।

গতকাল পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, মিয়ানমারের পরিস্থিতি কখনোই ভালো ছিল না। সেখানে সবসময় অস্থিরতা বিরাজ করে। কখনো ভালো, কখনো খারাপ। মিয়ানমার এমন পরিস্থিতির মধ্য দিয়েই যাচ্ছে। বর্তমানে রোহিঙ্গাদের রাখাইনে প্রত্যাবাসনের জন্য প্রতিকূল পরিবেশ নেই।

সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে ঢাকায় জাতিসংঘের আবাসিক সমন্বয়কারী (ইউএনআরসি) গোয়েন লুইস বলেন, এই মুহূর্তে মিয়ানমারের অভ্যন্তরে নিরাপত্তা পরিস্থিতি খুবই কঠিন এবং রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনের জন্য এটি ভালো সময় নয়। প্রত্যাবাসন বাংলাদেশের জন্য অগ্রাধিকার এবং রোহিঙ্গাদের পাশাপাশি বাংলাদেশ তাদের নিরাপদ ও মর্যাদাপূর্ণ প্রত্যাবাসনের বিষয়ে সম্মত হয়েছে।


আরও খবর



রমজানে পুলিশের ম্যাজিস্ট্রেট দিয়ে বাজার মনিটরিং হবে: ডিএমপি কমিশনার

প্রকাশিত:সোমবার ১৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ১৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

আসন্ন রমজানে নিত্যপণ্যের দাম স্বাভাবিক রাখতে ডিএমপি নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের মাধ্যমে মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করে বাজার মনিটরিং করবে বলে জানিয়েছেন ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি) কমিশনার হাবিবুর রহমান।

রোববার (১৮ ফেব্রুয়ারি) ডিএমপি হেডকোয়ার্টার্সে রমনা বিভাগের আইনশৃঙ্খলা সমন্বয় কমিটির (এলওসিসি) সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

ডিএমপি কমিশনার বলেন, আসন্ন রমজান সামনে রেখে কিছু সুযোগ সন্ধানী লোক গুজব ছড়িয়ে দ্রব্যমূল্যের দাম বৃদ্ধি করার চেষ্টা করবে। কেউ যেন এ ধরনের কাজ করতে না পারে সেজন্য সবাইকে সতর্ক থাকতে হবে। রমজানে ভোক্তা অধিদপ্তরের পাশাপাশি ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশও নিত্যপণ্যের দাম স্বাভাবিক রাখতে ম্যাজিস্ট্রেটের মাধ্যমে মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করে বাজার মনিটরিং করবে।

সবাইকে সতর্ক থাকার আহ্বান জানিয়ে ডিএমপি কমিশনার বলেন, ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ জনগণকে সঙ্গে নিয়ে কাজ করবে। জনগণের জন্য কাজ করে প্রমাণ করতে চাই পুলিশই জনতা, জনতাই পুলিশ।

সভায় উপস্থিত বিভিন্ন স্টেকহোল্ডার তাদের গুরুত্বপূর্ণ মতামত বক্তব্যের মাধ্যমে ডিএমপি কমিশনারের কাছে উপস্থাপন করেন।

সভার সভাপতিত্ব করেন ডিএমপির রমনা বিভাগের উপ-পুলিশ কমিশনার (অতিরিক্ত ডিআইজি পদে পদোন্নতিপ্রাপ্ত) মুহাম্মদ আশরাফ হোসেন৷

সভায় উপস্থিত ছিলেন ডিএমপির অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (অ্যাডমিন) এ কে এম হাফিজ আক্তার, অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (ট্রাফিক) মো. মুনিবুর রহমান, যুগ্ম পুলিশ কমিশনার, উপ-পুলিশ কমিশনার ও বিভিন্ন পদমর্যাদার পুলিশ কর্মকর্তারা।


আরও খবর