আজঃ শুক্রবার ০৩ ডিসেম্বর ২০২১
শিরোনাম

সুগন্ধা নদীতে তেলবাহী জাহাজে বিস্ফোরণে নিহত ১, দগ্ধ ৭

প্রকাশিত:শুক্রবার ১২ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:শুক্রবার ১২ নভেম্বর ২০২১ | ৭১০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

ঝালকাঠির সুগন্ধা নদীতে জ্বালানি তেলবাহী ট্যাংকার জাহাজে বিস্ফোরণে একজন নিহত হয়েছেন। আজ শুক্রবার সকাল সোয়া আটটার দিকে সুগন্ধা নদীর তীরবর্তী পদ্মা অয়েল কোম্পানির দক্ষিণপাড়ে সাগর নন্দিনী-৩ নামের ওই জাহাজে বিস্ফোরণ ঘটে। পরে ঝালকাঠি ফায়ার সার্ভিসের একটি দল ঘটনাস্থলে গিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে।

নিহত ওই ব্যক্তির নাম মো. কামরুজ্জামান (৪৫)। তিনি ওই জাহাজের সুকানি ছিলেন। নিহত কামরুজ্জামানের বাড়ি গোপালগঞ্জে। এ ঘটনায় ওই জাহাজের আরও সাত কর্মী দগ্ধ হয়ে গুরুতর আহত হন। আহত ব্যক্তিদের উদ্ধার করে বরিশাল শের-ই বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

ঝালকাঠি পদ্মা অয়েল কোম্পানি সূত্রে জানা যায়, ১০ নভেম্বর সাগর নন্দিনী-৩ নামের জাহাজটি চট্টগ্রাম থেকে জ্বালানি তেল বোঝাই করে ঝালকাঠি পদ্মা অয়েল কোম্পানির ডিপোতে আসে। জাহাজটি ওই ডিপোতে পেট্রল খালাস করার পর ডিজেল খালাস করার জন্য সুগন্ধা নদীর দক্ষিণপাড়ে অবস্থান করছিল। এ সময় ওই জাহাজে ১৩ জন কর্মী অবস্থান করছিলেন।

আহত ব্যক্তিদের মধ্যে রুবেল হোসেন জানান, আজ সকালে জাহাজের ইঞ্জিনকক্ষের জেনারেটর চালু করতে গিয়ে হঠাৎ বিস্ফোরণ ঘটে আগুন ধরে যায়। এতে জাহাজে অবস্থান করা অধিকাংশ কর্মী দগ্ধ হন। এরপর আহত ব্যক্তিদের উদ্ধার করে ঝালকাঠি সদর হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে চিকিৎসক সুকানি কামরুজ্জামানকে মৃত ঘোষণা করেন। আহত অন্য কর্মীদের অবস্থাও আশঙ্কাজনক।

এদিকে ঘটনার খবর শুনে ঝালকাঠি জেলা প্রশাসক মো. জোহর আলী, পুলিশ সুপার ফাতিহা ইয়াসমিনসহ পদ্মা অয়েল কোম্পানির ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ বিস্ফোরণে ক্ষতিগ্রস্ত জাহাজটি পরিদর্শন করেন।

জেলা প্রশাসক মো. জোহর আলী জানান, আহত ব্যক্তিদের বর্তমানে বরিশাল শের-ই বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। তবে তাঁদের উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় পাঠানো হবে। এ ঘটনা তদন্তের জন্য একটি কমিটি গঠন করা হবে।

ঝালকাঠি ফায়ার সার্ভিস অ্যান্ড সিভিল ডিফেন্স স্টেশনের কর্মকর্তা শফিকুল ইসলাম জানান, আজ সকালে জাহাজের ইঞ্জিনকক্ষের জেনারেটর চালু করতে গিয়ে বিকট শব্দে আগুন লাগে। আগুন দ্রুত পুরো জাহাজে ছড়িয়ে পড়ে। বিস্ফোরণের পর জাহাজের তলা ফেটে যাওয়ায় জাহাজটি ক্রমেই নদীতে ডুবে যাচ্ছে। ওই জাহাজে সাড়ে আট লাখ লিটার ডিজেল ছিল বলে জানা যায়।


আরও খবর
বগি লাইনচ্যুত, ট্রেন চলাচল বন্ধ

বৃহস্পতিবার ০২ ডিসেম্বর 2০২1




সুফিয়া কামালের সাহিত্যকর্ম তরুণদের উদ্বুদ্ধ করবে : রাষ্ট্রপতি

প্রকাশিত:শনিবার ২০ নভেম্বর ২০21 | হালনাগাদ:শনিবার ২০ নভেম্বর ২০21 | ৩৫০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ বলেছেন, কবি সুফিয়া কামালের জীবনাদর্শ ও সাহিত্যকর্ম বৈষম্যহীন-অসাম্প্রদায়িক সমাজ বিনির্মাণে তরুণ প্রজন্মকে উদ্বুদ্ধ ও অনুপ্রাণিত করবে।

২০ নভেম্বর কবি কবি সুফিয়া কামালের মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে এক বাণীতে তিনি এ কথা বলেন। গণতন্ত্র, সামাজিক-সাংস্কৃতিক ও নারীমুক্তি আন্দোলনের অগ্রদূত কবি সুফিয়া কামালের ২২তম মৃত্যুবার্ষিকীতে রাষ্ট্রপতি তাঁর স্মৃতির প্রতি গভীর শ্রদ্ধা জানান।

তিনি বলেন, কবি সুফিয়া কামাল ছিলেন নারী আন্দোলনের পথিকৃৎ এবং সাম্প্রদায়িকতা ও ধর্মান্ধতার বিরুদ্ধে এক অকুতোভয় যোদ্ধা। তাঁর জন্ম ১৯১১ সালের ২০ জুন বরিশালে। তখন বাঙালি মুসলমান নারীদের লেখাপড়ার সুযোগ একেবারে সীমিত থাকলেও তিনি নিজ চেষ্টায় লেখাপড়া শেখেন এবং ছোটবেলা থেকেই কবিতাচর্চা শুরু করেন।

রাষ্ট্রপতি বলেন, সুললিত ভাষায় ও ব্যঞ্জনাময় ছন্দে তাঁর কবিতায় ফুটে উঠত সাধারণ মানুষের সুখ-দুঃখ ও সমাজের সার্বিক চিত্র। তিনি নারী সমাজকে অজ্ঞানতা ও কুসংস্কারের বেড়াজাল থেকে মুক্ত করতে আজীবন সংগ্রাম করে গেছেন। মহান ভাষা আন্দোলন, স্বাধিকার আন্দোলন, মুক্তিযুদ্ধসহ গণতন্ত্র ও মানবাধিকার প্রতিষ্ঠার প্রতিটি আন্দোলনে তিনি আমৃত্যু সক্রিয় ছিলেন। মুক্তিযুদ্ধকালীন মানবতাবিরোধী অপরাধের বিচারের জন্য যে আন্দোলন শুরু হয়েছিল, তিনি ছিলেন তার অন্যতম উদ্যোক্তা।

আবদুল হামিদ বলেন, কবি সুফিয়া কামাল নিজ উদ্যোগে শুধু নিজেকে শিক্ষিত করেননি, পিছিয়ে পড়া নারী সমাজকে শিক্ষার সুযোগ করে দেয়ারও আন্দোলন শুরু করেছিলেন। তাঁর প্রতিষ্ঠিত বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ নারী অধিকার আদায়ের এক অনন্য প্রতিষ্ঠান। বিভিন্ন গণতান্ত্রিক, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক আন্দোলনে তাঁর অবদানের জন্য তাঁকে জননী সাহসিকা উপাধিতে ভূষিত করা হয়।

তিনি বলেন, কবি সুফিয়া কামাল তাঁর কাব্য প্রতিভা ও কর্মের গুণে আমাদের মাঝে চিরকাল বেঁচে থাকবেন। মহীয়সী এ নারীর জীবনাদর্শ ও সাহিত্যকর্ম একটি বৈষম্যহীন ও অসাম্প্রদায়িক সমাজ বিনির্মাণে তরুণ প্রজন্মকে উদ্বুদ্ধ ও অনুপ্রাণিত করবে বলে আমার দৃঢ় বিশ্বাস।

তিনি কবি সুফিয়া কামালের বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনা করেন।


আরও খবর
১২ ডিসেম্বর মেট্রোরেল চলবে

শুক্রবার ০৩ ডিসেম্বর ২০২১

দেশবাসীকে শপথ পড়াবেন প্রধানমন্ত্রী

বৃহস্পতিবার ০২ ডিসেম্বর 2০২1




নাঈমের হত্যাকারীর ফাঁসি চাইলেন মেয়র তাপস

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২৫ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২৫ নভেম্বর ২০২১ | ৬৭০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

নটর ডেম কলেজের ছাত্র নাঈম হাসানের হত্যাকারীর বিচারের দাবিসহ ছাত্রদের অন্যান্য দাবির সঙ্গে শুধু একমত পোষণই না, ঘাতক সেই খুনির ফাঁসিও দাবি করেছেন ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের মেয়র ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপস। বৃহস্পতিবার নগর ভবনের সামনে নিহত শিক্ষার্থী নাঈম হাসানের হত্যার বিচারের দাবিতে বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীদের সমাবেশে এসে তিনি এ কথা বলেন।

মেয়র তাপস বলেন, আমি জানি এই কষ্ট কী। একজন মেধাবী ছাত্র নাঈম আমার এই সিটি করপোরেশন এলাকার সড়কে আমার করপোরেশনের গাড়ি দ্বারা দুর্ঘটনা কবলিত হয়ে নিহত হবে- সেজন্য আমি রাজনীতিতে আসি নাই। আমার কাছে আমার সন্তানের সুখ, সন্তানের হাসি, সন্তানের ভালোবাসা অনেক অনেক মূল্যবান। আপনারা যে দাবি দিয়েছেন, সেই দাবির সঙ্গে আমি শুধু একমত পোষণই না, শুধু সম্মতিই না- আমি আরও দাবি করি, যেন সেই খুনির ফাঁসি হয়। আমি দাবি করি, এ শহরের সড়কে আর যেন কোনো নাঈমের প্রাণহানি না ঘটে।

তিনি বলেন, আমি আপনাদের কাছে ওয়াদা করছি ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের সব জঞ্জাল মুক্ত করব ইনশাআল্লাহ। আমাদের তারপরও আইনের আওতায় থাকতে হয়। আমাদের সরকারি নীতিমালা-নিয়মকানুন মানতে হয়। মেনে চলতে হয়। সেই নিয়মকানুন মেনেই গাড়িচালকের গাড়ি চালানোর দায়িত্ব ছিল। সে সেই দায়িত্ব পালন করেনি। আরেকজন ভাড়াটিয়া গাড়িচালককে দিয়ে গাড়ি চালিয়েছে। সুতরাং সবাইকে শাস্তি ভোগ করতে হবে। যার দায়িত্ব ছিল তাকে আমরা সাময়িক বরখাস্ত করেছি এবং ইনশাআল্লাহ চাকরি থেকে অপসারণ করব। যে চালক গাড়ি চালানো অবস্থায় ছিল সে খুনি। তার সর্বোচ্চ শাস্তি ইনশাআল্লাহ আমরা নিশ্চিত করব। আপনাদের সঙ্গে কণ্ঠে কণ্ঠ লাগিয়ে আমি বলি- সেই খুনির ফাঁসি চাই আমি।

এ সময় আন্দোলনরত ছাত্রদের দাবির পক্ষে সরকারের উচ্চপর্যায়ে অ্যাডভোকেসি করবেন জানিয়ে মেয়র তাপস বলেন, কোনো বহিরাগত যেন ডিএসসিসির কোনো গাড়ি চালাতে না পারে, সেই কঠোর ব্যবস্থা নেব। আপনাদের যে দাবি এসেছে আমি আপনাদের হয়ে সরকারের উচ্চপর্যায় পর্যন্ত আপনাদের পক্ষে অ্যাডভোকেসি করব। সরকারের কাছ থেকে সব দাবি আদায়ের ব্যবস্থা করব। ঢাকা নিরাপদ শহর হবে আমাদের নির্বাচনী ইশতেহার ছিল। নিরাপদ সড়ক করতে আপনাদের সঙ্গে কাঁধে কাঁধে মিলিয়ে কাজ করব।

নাঈমকে নিজের সন্তানতুল্য উল্লেখ করে মেয়র তাপস বলেন, সম্প্রতি আমি আমার সন্তানের সঙ্গে ছুটি কাটিয়ে এসেছি। কিন্তু আসার দিনেই আমি নাঈমকে হারাব সেটা আমি কল্পনাও করতে পারিনি। নাঈম শুধু আপনাদের ভাই না, আপনাদের বন্ধু না- একটি সতেরো বছরের আমার সন্তান।

এ সময় ছাত্রদের দাবি মেনে নাঈমের নামে এ বছরের মধ্যে দক্ষিণ সিটির নিজস্ব অর্থায়নে ফুটওভার ব্রিজ নির্মাণের ঘোষণা দেন মেয়র তাপস।

নিউজ ট্যাগ: মেয়র তাপস

আরও খবর



বাংলাদেশের বিপক্ষে পাকিস্তানের দল ঘোষণা

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১৮ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৮ নভেম্বর ২০২১ | ২৭৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

বাংলাদেশের বিপক্ষে প্রথম টি-টোয়েন্টিরর জন্য দল ঘোষণা করেছে পাকিস্তান। ১২ সদস্যের দলে অধিনায়ক হিসেবে রয়েছেন বাবর আজম।

আজ বৃহস্পতিবার (১৮ নভেম্বর) ম্যাচ পূর্ববর্তী আনুষ্ঠানিক সংবাদ সম্মেলনে অধিনায়ক বাবর আজম প্রথম ম্যাচের জন্য ১২ জনের নামের তালিকা প্রকাশ করেন। এই ম্যাচে অভিজ্ঞদের উপরেই আস্থা রেখেছে পাকিস্তান।

প্রথম ম্যাচের জন্য পাকিস্তানের ১২ সদস্যের স্কোয়াড-

বাবর আজম (অধিনায়ক), শাদাব খান, ফখর জামান, হায়দার আলী, হারিস রউফ, হাসান আলী, খুশদিল শাহ, মোহাম্মদ নওয়াজ, মোহাম্মদ রিজওয়ান (উইকেটরক্ষক), মোহাম্মদ ওয়াসিম জুনিয়র, শাহীন শাহ আফ্রিদি ও শোয়েব মালিক।

 


আরও খবর



নদী পারাপারের অপেক্ষায় ৬ শতাধিক গাড়ি

প্রকাশিত:বুধবার ২৪ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:বুধবার ২৪ নভেম্বর ২০২১ | ৪০০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

ঘনকুয়াশার কারণে রাজবাড়ীর দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌরুটে ফেরি চলাচল বন্ধ রয়েছে। এ কারণে ফেরি পারাপারের অপেক্ষায় রয়েছে ছয় শতাধিক যানবাহন। এতে যাত্রী ও যানবাহন চালকদের চরম ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে।

বুধবার সকাল ৬টা থেকে দুর্ঘটনা এড়াতে ফেরি চলাচল বন্ধ রাখেন বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহণ করপোরেশন (বিআইডব্লিউটিসি) কর্তৃপক্ষ।

দৌলতদিয়া  বিআইডব্লিউটিসি ও ঘাট কর্তৃপক্ষ জানায়, ভোর থেকে পদ্মায় কুয়াশার ঘনত্ব বৃদ্ধি পায়। কুয়াশার ঘনত্বের বৃদ্ধির কারণে নৌপথ সম্পূর্ণরূপে অস্পষ্ট হয়ে যায়। এ অবস্থায় ফেরি চলাচল করলেও দুর্ঘটনার সম্ভাবনা সৃষ্টি হতে পারে বলে সকাল ৬টা থেকে ফেরি চলাচল বন্ধ করে দেওয়া হয়।

রাজবাড়ী  জেলা পুলিশ সূত্র থেকে জানা যায়, দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌরুটের দৌলতদিয়া ঘাট এলাকায় এবং রাজবাড়ীর গোয়ালন্দ মোড় এলাকায় প্রায় ৬ শতাধিক যানবাহন ফেরিপারের অপেক্ষায় আটকে রয়েছে। ঘণ্টার পর ঘণ্টা ফেরি চলাচল বন্ধ থাকার কারণে যাত্রী ও যানবাহন চালকদেরও চরম ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে।

এ বিষয়ে বিআইডব্লিউটিসির আরিচা কার্যালয়ের বাণিজ্য বিভাগের সহকারী ব্যবস্থাপক মো. মহিউদ্দীন রাসেল  বলেন, ঘনকুয়াশার কারণে ফেরি চলাচলে সমস্যা সৃষ্টি হয়। এতে দুর্ঘটনা এড়াতে আমরা বুধবার ভোর থেকে ফেরি চলাচল বন্ধ রেখেছি। কুয়াশার ঘনত্ব কমে গেলে পুনরায় ফেরি চলাচল স্বাভাবিক হবে বলে জানান ওই কর্মকর্তা।

 


আরও খবর



চিকিৎসা সেবায় বদলে গেছে দক্ষিণ সুরমা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২৩ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২৩ নভেম্বর ২০২১ | ৪৭০জন দেখেছেন

Image

সিলেট (দক্ষিণ সুরমা) প্রতিনিধি:

গ্রামীণ জনপদে উন্নত সেবার এক অনন্য দৃষ্টান্ত সিলেটের দক্ষিণ সুরমা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স। দক্ষিণ সুরমার বেশির ভাগ মানুষের চিকিৎসা সেবার একমাত্র কেন্দ্র উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সটির সার্বিক অবকাঠামোর সৌন্দর্য্য বৃদ্ধি, নিয়ম শৃঙ্খলার উন্নতি ও সেবার মান ব্যপক পরিবর্তন এসেছে। বর্তমানে হাসাপাতালের সেবা নিয়েও এলাকার মানুষ বেশ সন্তোষ্ট। জানা যায় একত্রিশ (৩১) শয্যার স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এ চিকিৎসক মোট ১৩ জন,  সেবিকা ৭ জন নিয়ে রোগীদের নিয়মিত সেবা দিচ্ছেন স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এর বহির্বিভাগে। উপজেলায় দূর-দূরান্ত থেকে আসা প্রতিদিন কমবেশী প্রায় ৩০০ জন রোগীর সেবা নিয়ে থাকে।

প্রতিদিন জরুরী বিভাগে প্রায় চল্লিশ থেকে পঁয়তাল্লিশ (৪০-৪৫) জন রোগী সেবা নিয়ে থাকে। প্রতিমাসে কমবেশী ত্রিশ থেকে পঁয়ত্রিশ জন গর্ভবতী মায়ের নরমাল ডেলিভারী করা হয়। তাছাড়াও জ্ঞাত যে জরুরী প্রয়োজনের দিক বিবেচনায় ২৪ ঘন্টা হাসপাতালে ডেলিভারীর ব্যবস্থা চালু রয়েছে। তাছাড়া বীর মুক্তিযোদ্ধাদের বিশেষ সেবা দেওয়া হয়।

নিরাপত্তার দিক বিবেচনা করে সিসি ক্যামেরা দ্বারা পর্যবেক্ষণ করা হয়। এই স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এর দৃশ্যপট একেবারে পাল্টে দিয়েছেন বর্তমান উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের স্বাস্থ্য পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা। তিনি এখানে যোগদানের পর থেকে হাসপাতালের রোগীর খাবার পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতা, সুবিধা-অসুবিধা, ফুল-ফলাদির বাগানসহ সার্বিক বিষয়ে নানামুখী সৃজনশীল কার্যক্রম পরিচালনা করছেন। তাছাড়াও রাত অবধি এই কর্মকর্তাকে হাসপাতালের কর্মব্যস্থ সময় পার করতে দেখা যায়।

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের একাধিক স্বাস্থ্যকর্মী জানান কিভাবে আরো সহজে প্রতিটি ইউনিয়ন, ওয়ার্ড ও গ্রাম পর্যায়ে সাধারণ মানুষের স্বাস্থ্য সেবা নিশ্চিত করা যায় এ ব্যাপারে প্রতিনিয়ত সভা-সমাবেশের মাধ্যমে তাদের সঠিক দিক নির্দেশনা ও পরামর্শ প্রদান করেন। এখানের স্বাস্থ্যকর্মীরা তাদের কর্মকর্তার সৃজনশীল ভাবনা, শৃঙ্খলা ও যুগান্তকারী উদ্যোগের জন্য উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ মোঃ মঈনুল আহসান কে কৃতজ্ঞতা জানান।

দক্ষিণ সুরমা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এর এক পরিসংখ্যানে জানা গেছে করোনাকালে এখানে মোট ২,৩৪৪ (দুই হাজার তিনশত চুয়াল্লিশ) জনের করোনার নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। তার মধ্যে করোনা আক্রান্ত ৬৩১জন রোগী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি হয়ে চিকিৎসা নিয়েছেন। তার মধ্যে করোনায় আক্রান্ত হয়ে ১১ জন রোগী মারা যায়। উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের সূত্রে জানা যায় নিয়মিত করোনা টিকা দান কার্যক্রমের পাশাপাশি স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের নির্দেশনায় গণটিকা এবং প্রধানমন্ত্রীর ৭৫তম জন্মদিন উপলক্ষ্যে ১৭৫৮জনকে বিশেষ টিকা প্রধান করা হয়েছে। এখানে করোনা টিকা প্রধানের লক্ষ্য মাত্রায় রেজিষ্ট্রেশন করেছেন ৭৮৯৪৮জন তার মধ্যে প্রথম ও দ্বিতীয় ডোজ লক্ষমাত্রা অর্জন হয়েছে ৯১,২৫২ জন। তন্মধ্যে ৫৫,৯৩৫ জন কে প্রথম ডোজ এবং ৩৫,৩১৭ জনকে দ্বিতীয় ডোজ টিকা প্রধান করা হয়েছে।

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এর পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাক্তার মোঃ মঈনুল আহসান বলেন, সকল চিকিৎসক ও অন্যান্য স্বাস্থ্যকর্মীদের ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় উপজেলা প্রশাসন স্থানীয় জনপ্রতিনিধিসহ সার্বিক সহযোগিতায় অর্জন করা সম্ভব হয়েছে।

তিনি আরো বলেন সিলেটের ১২টি উপজেলায় আউটসোর্সিং জনবল আছে শুধু আমার দক্ষিণ সুরমা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেই এই স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের ১ জন ওয়ার্ড বয় পরিচ্ছনতা ২ জন ও আয়া ১ জন আছে। এম্বেুালেন্স আছে কিন্তু ড্রাইভার নেই, খাবার দেওয়ার জন্য কোন বার্বুচী নেই বিভিন্ন হাসপাতালে, মেডিকেল অ্যাসিস্ট্যান্ট ৫ জন কিন্তু আমার হাসপাতালে ১ জন কোভিড হাসপাতাল করা হয়েছে কিন্তু সেন্টাল অক্সিজেন নেই। এই বিষয় গুলো যদি আমার উর্দতন কর্মকর্তা সহযোগিতা করেন তাহলে আরো ভাল জায়গায় এই দক্ষিণ সুরমা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সকে নিয়ে যেতে পারব।


আরও খবর