আজঃ বৃহস্পতিবার ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
শিরোনাম

স্কুল থেকে ফেরার পথে কিশোরীকে প্রকাশ্যে কুপিয়ে হত্যা

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০২ মে 2০২3 | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ০২ মে 2০২3 | অনলাইন সংস্করণ
নেত্রকোনা প্রতিনিধি

Image

নেত্রকোনার বারহাট্টায় কিশোরের এলোপাতাড়ি দায়ের কোপে প্রাণ গেলো এক কিশোরীর। মঙ্গলবার (২ মে) বিকালে বারহাট্টা উপজেলার প্রেমনগর ছালিপুরা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

জানা যায়, বারহাট্টার বাউসী ইউনিয়নের প্রেমনগর ছালিপুরা গ্রামের মুক্তি বর্মনকে (১৬) স্কুল থেকে ফেরার সময় পথরোধ করে এক বখাটে। ওই স্কুলছাত্রী প্রেমনগর ছালিপুরা গ্রামের নিখিল বর্মনের মেয়ে এবং প্রেমনগর-ছালিপুরা উচ্চ বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণির শিক্ষার্থী। অভিযুক্ত বখাটের নাম কাউছার মিয়া (১৯)। সে একই গ্রামের সামছু মিয়ার ছেলে।

আরও পড়ুন: পাবনায় পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় কলেজ ছাত্রীসহ নিহত তিন

স্কুলছাত্রী মুক্তি বর্মনের ভাই লিটন বর্মন মঙ্গলবার সন্ধ্যায় মোবাইল ফোনে এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, তার বোন মুক্তিকে নেত্রকোনা আধুনিক সদর হাসপাতালে নেওয়ার পর ডাক্তার মৃত ঘোষণা করেন।

আরও পড়ুন: নরসিংদীতে বাস চাপায় মা-মেয়ের মৃত্যু

মুক্তি বর্মনের সহপাঠীরা জানায়, মঙ্গলবার দুপুর দুইটার দিকে স্কুল থেকে আমরা একসঙ্গে বাড়ি ফিরছিলাম। পথিমধ্যে কাউছার এসে দা দিয়ে মুক্তিকে কোপাতে শুরু করে। আমরা ভয় পেয়ে যাই। চিৎকারে লোকজন এসে মুক্তিকে আহত অবস্থায় উদ্ধার করে বারহাট্টা হাসপাতালে নিয়ে যায়। সেখান থেকে তাকে নেত্রকোনায় পাঠানো হয়।

বারহাট্টা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) খোকন কুমার সাহা ঘটনা নিশ্চিত করে বলেন, ঘটনা জানার সঙ্গে সঙ্গে ঘটনাস্থলে যাই। মরদেহ নেত্রকোনা হাসপাতালে আছে। লিখিত অভিযোগ পাওয়ার পর আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

নিউজ ট্যাগ: নেত্রকোনা

আরও খবর



একুশে ফেব্রুয়ারিতে কোনো নিরাপত্তা ঝুঁকি নেই : ডিএমপি কমিশনার

প্রকাশিত:সোমবার ১৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ১৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি) কমিশনার হাবিবুর রহমান বলেছেন, একুশে ফেব্রুয়ারি মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসে কোনো ধরনের নিরাপত্তা ঝুঁকি নেই। তবে নির্বিঘ্ন পরিবেশ বজায় রাখতে চার স্তরের নিরাপত্তা বলয় থাকবে।

সোমবার (১৯ ফেব্রুয়ারি) বেলা সাড়ে ১১টার দিকে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে ডিএমপির গৃহীত নিরাপত্তা-ব্যবস্থা পরিদর্শনে এসে তিনি এ কথা জানান।

ডিএমপি কমিশনার বলেন, প্রতিবারের ন্যায় এবারও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস যথাযথ ভাবগাম্ভীর্যের মধ্য দিয়ে পালিত হবে। এ কারণে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার কেন্দ্রিক নিরাপত্তা ব্যবস্থা গড়ে তোলা হয়েছে।

হাবিবুর রহমান বলেন, একুশে ফেব্রুয়ারি রাতে শহীদ মিনারে ভাষা শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী, মন্ত্রিপরিষদ, রাজনৈতিক নেতা, বিভিন্ন সংগঠনসহ অনেকেই শ্রদ্ধা জানাবেন। এই সময়ের জন্য কোনো ধরনের বিশৃঙ্খলা না হয় সে কারণেই পোশাক পরিহিত পুলিশের সঙ্গে সাদা পোশাকের পুলিশসহ সরকারের অন্যান্য সংস্থার সমন্বয়ে এ নিরাপত্তা ব্যবস্থা থাকবে।

তিনি আরও বলেন, শহীদ মিনারের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে ২০ ফেব্রুয়ারি রাত থেকে ২১ ফেব্রুয়ারি সকাল পর্যন্ত আশপাশের কিছু সড়কে যান চলাচল বন্ধ থাকবে। এ কারণে বিকল্প রাস্তা দিয়ে যানবাহন ও জনসাধারণকে চলাচল করতে হবে। পাশাপাশি শহীদ মিনারে আগত ব্যক্তিদের গাড়ি পার্কিংয়ের জন্য নির্দিষ্ট জায়গা নির্ধারণ করা হয়েছে।

পলাশী মোড় থেকে দোয়েল চত্বর ও বইমেলার পুরো এলাকা সিসিটিভির আওতায় নিয়ে আসা হয়েছে জানিয়ে ডিএমপি কমিশনার বলেন, শহীদ মিনারের প্রত্যেকটি প্রবেশপথে আর্চওয়ে বসানো থাকবে। যারাই আসবেন আর্চওয়ের ভেতর দিয়ে তল্লাশির মাধ্যমে প্রবেশ করতে হবে। শহীদ মিনারে চার স্তরে নিরারাপত্তাসহ ট্রাফিক ব্যবস্থাপনায় প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। মোতায়েন থাকবে বোম ডিসপোজাল, সোয়াত টিম, টহল দল, ড্রোন, সাইবার পেট্রোলিং।


আরও খবর
দেশে ৩০ শতাংশ খাদ্য অপচয় হয়: কৃষিমন্ত্রী

বুধবার ২১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




খালেদার গ্যাটকো দুর্নীতি মামলায় অভিযোগ গঠন শুনানি ৬ মার্চ

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
আদালত প্রতিবেদক

Image

গ্যাটকো দুর্নীতি মামলায় বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়াসহ ১৩ আসামির বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন শুনানির জন্য নতুন দিন নির্ধারণ করেছেন আদালত। আগামী ৬ মার্চ নতুন এ দিন ধার্য করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (১৫ ফেব্রুয়ারি) কেরাণীগঞ্জ কেন্দ্রীয় কারাগারে অবস্থিত ঢাকার ৩ নম্বর বিশেষ আদালতের বিচারক আলী হোসেনের আদালতে মামলাটির অভিযোগ গঠন শুনানির জন্য দিন ধার্য ছিল।

এ দিন খালেদা জিয়ার পক্ষে আংশিক শুনানি করেন তার আইনজীবী মাসুদ আহম্মেদ তালুকদার। এরপর শুনানি মুলতবি রাখার জন্য সময়ের সময়ের আবেদন করেন তিনি। আদালত সময়ের আবেদন মঞ্জুর করে আগামী ৬ মার্চ দিন ধার্য করেন। খালেদা জিয়ার আইনজীবী হান্নান ভূঁইয়া এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

উল্লেখ্য, ২০০৭ সালের ২ সেপ্টেম্বর দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) উপ-পরিচালক গোলাম শাহরিয়ার চৌধুরী চার দলীয় জোট সরকারের তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়া ও তার ছোট ছেলে আরাফাত রহমান কোকোসহ ১৩ জনের বিরুদ্ধে তেজগাঁও থানায় এ মামলা দায়ের করেন। মামলার পরদিন খালেদা জিয়া ও কোকোকে গ্রেপ্তার করা হয়।

ওই বছরের ১৮ সেপ্টেম্বর মামলাটি অন্তর্ভুক্ত করা হয় জরুরি ক্ষমতা আইনে। পরের বছর ১৩ মে খালেদা জিয়াসহ ২৪ জনের বিরুদ্ধে এ মামলায় অভিযোগপত্র দাখিল করা হয়।

মামলার অভিযোগপত্রে বলা হয়, আসামিরা পরস্পর যোগসাজশে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান গ্যাটকোকে ঢাকার কমলাপুর আইসিডি ও চট্টগ্রাম বন্দরের কনটেইনার হ্যান্ডলিংয়ের কাজ পাইয়ে দিয়ে রাষ্ট্রের ১৪ কোটি ৫৬ লাখ ৩৭ হাজার ৬১৬ টাকার ক্ষতি করেছেন।

মামলার ২৪ আসামির মধ্যে ১১ জন এরই মধ্যে মারা গেছেন। মামলার জীবিত আসামিরা হলেন, সাবেক মন্ত্রী ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষের সাবেক চেয়ারম্যান কমোডর জুলফিকার আলী, প্রয়াত মন্ত্রী কর্নেল (অব.) আকবর হোসেনের স্ত্রী জাহানারা আকবর, তিন ছেলে ইসমাইল হোসেন সায়মন ও এ কে এম মুসা কাজল, এহসান ইউসুফ, চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষের সাবেক সদস্য এ কে রশিদ উদ্দিন আহমেদ, গ্লোবাল অ্যাগ্রোট্রেড প্রাইভেট লিমিটেডের (গ্যাটকো) পরিচালক শাহজাহান এম হাসিব, গ্যাটকোর পরিচালক সৈয়দ তানভির আহমেদ ও সৈয়দ গালিব আহমেদ, চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষের সাবেক চেয়ারম্যান এ এস এম শাহাদত হোসেন, বন্দরের সাবেক পরিচালক (পরিবহন) এ এম সানোয়ার হোসেন ও বন্দরের সাবেক সদস্য লুৎফুল কবীর।


আরও খবর



ইন্দোনেশিয়ায় জয়ের দ্বারপ্রান্তে বিতর্কিত জেনারেল

প্রকাশিত:বুধবার ১৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
আন্তর্জাতিক ডেস্ক

Image

ইন্দোনেশিয়ায় প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের প্রথম ধাপে বিপুল ভোটের ব্যবধানে এগিয়ে রয়েছেন দেশটির সাবেক প্রতিরক্ষামন্ত্রী প্রাবোয়ো সুবিয়ান্তো। বিশ্বের বৃহত্তম একদিনের নির্বাচনে এখন চলছে ভোট গণনা। অনানুষ্ঠানিক গণনায় এখন পর্যন্ত বড় ব্যবধানে এগিয়ে রয়েছেন বিতর্কিত এই জেনারেল। বুধবার (১৪ ফেব্রুয়ারি) সংবাদমাধ্যম রয়টার্সের প্রতিবেদনে এমনটি বলা হয়েছে।

ইন্দোনেশিয়ার প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের অনানুষ্ঠানিক পরিসংখ্যানে দেখা গেছে, দেশটির প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের দৌড়ে প্রতিরক্ষামন্ত্রী প্রাবোয়ো সুবিয়ান্তো ৫৮ শতাংশ ভোট পেয়ে প্রাথমিকভাবে এগিয়ে রয়েছেন। দেশটির প্রায় ৬৭ শতাংশ ব্যালট গণনার ভিত্তিতে এই তথ্য পাওয়া গেছে।

চারটি ভোট ফেরত জরিপ বা পোলস্টারের তথ্য অনুযায়ী, সুবিয়ান্তোন নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী সাবেক শিক্ষামন্ত্রী ও জাকার্তার সাবেক গভর্নর অ্যানিস বাসওয়েদান ২৫ শতাংশ ভোট পেয়ে দ্বিতীয় এবং সেন্ট্রাল জাভার সাবেক গভর্নর গঞ্জার প্রানোয়ো ১৭ শতাংশ ভোটে তৃতীয় অবস্থানে রয়েছেন।

আজকের প্রথম ধাপের নির্বাচনের মাধ্যমে সরাসরি প্রেসিডেন্ট হতে হলে সুবিয়ান্তোকে মোট ভোটের ৫০ শতাংশের বেশি পেতে হবে। পাশাপাশি তাকে দেশটির ৩৮ প্রদেশের অর্ধেকের বেশি স্থানে অন্তত এক-পঞ্চমাংশ ভোট পেতে হবে। এই শর্ত পূরণ না হলে শীর্ষ দুই প্রার্থীকে নিয়ে আগামী জুন মাসে দ্বিতীয় দফায় প্রেসিডেন্ট নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার বৃহত্তম অর্থনীতির এই দেশটির নেতৃত্ব দেয়ার এগিয়ে থাকা প্রাবোয়ো সুবিয়ান্তোর বিরুদ্ধে মানবাধিকার লঙ্ঘনের রেকর্ড নিয়ে উদ্বেগ রয়েছে। এক প্রজন্ম আগে জেনারেল সুহার্তোর স্বৈরশাসনের সময় সশস্ত্র বাহিনীর প্রধান ছিলেন সুবিয়ান্তো। তিনি জনপ্রিয় বিদায়ী প্রেসিডেন্ট জোকো উইদোদোর স্থলাভিষিক্ত হতে যাচ্ছেন।

দেশটিতে স্থানীয় সময় বুধবার (১৪ ফেব্রুয়ারি) সকাল ৮টা থেকে বেলা ২টা পর্যন্ত টানা প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ভোট গ্রহণ চলে। পরে শুরু হয় ভোটগ্রহণ। দেশটিতে ৮ লাখের বেশি কেন্দ্রে ভোটাধিকার প্রয়োগ করতে পারেন সর্বোচ্চ ২০ লাখ ভোটার। নেয়া হচ্ছে। ভোটকেন্দ্রে ৫৭ লাখের বেশি ব্যক্তি নির্বাচনী দায়িত্ব পালন করেন।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ভোটাররা আজ প্রেসিডেন্টের পাশাপাশি ভাইস প্রেসিডেন্ট, ৫৮০ জন পার্লামেন্ট মেম্বার, ২০ হাজারের বেশি আঞ্চলিক আইনপ্রণেতাও নির্বাচন করবেন। এসব নির্বাচনে লড়ছেন  প্রায় ২ লাখ ৬০ হাজার প্রার্থী। ভোট উপলক্ষে ২৮ কোটি জনসংখ্যার দেশ ইন্দোনেশিয়ায় আজ সরকারি ছুটি রয়েছে।

ইন্দোনেশিয়ার স্থিতিশীল অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি অর্জনে নেতৃত্ব দিয়ে এসেছেন দেশটির দুই মেয়াদের প্রেসিডেন্ট উইদোদো। তবে দেশটির সাংবিধানিক বিধান হলো, এক ব্যক্তি দুই মেয়াদের বেশি প্রেসিডেন্ট থাকতে পারবেন না। এই সাংবিধানিক বাধ্যবাধকতার কারণে উইদোদো আর প্রেসিডেন্ট পদে নির্বাচন করতে পারছেন না।

এর আগে, সুবিয়ান্তো এক নির্বাচনী সমাবেশে তার সমর্থকদের বলেছিলেন, আমরা ইন্দোনেশিয়ার সর্ব স্তরের মানুষের শান্তি-সমৃদ্ধির জন্য লড়াই অব্যাহত রাখবো। আগের প্রেসিডেন্টরা ইতিমধ্যে যা করেছেন, তাও আমরা এগিয়ে নিয়ে যাবো। ১৯৯৮ সালে জেনারেল সুহার্তোর একনায়কত্বের অবসানের পর দেশটিতে পঞ্চমবারের মতো প্রেসিডেন্ট নির্বাচন অনুষ্ঠিত হচ্ছে।


আরও খবর
সাত দশক পর পাকিস্তানে প্রথম নারী মুখ্যমন্ত্রী

বৃহস্পতিবার ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

রাশিয়াকে ‘জুলফিকার’ ক্ষেপণাস্ত্র দিচ্ছে ইরান

বৃহস্পতিবার ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




মানুষ আমাকে বাংলার জেমস বন্ড বলে: অনন্ত জলিল

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ০১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
বিনোদন ডেস্ক

Image

প্রয়াত লেখক কাজী আনোয়ার হোসেনের অমর সৃষ্টি মাসুদ রানা। এই লেখকের অপারেশন চিতা নামের উপন্যাস থেকে এবার নির্মিত হবে চিতা নামের সিনেমা।

জাজ মাল্টিমিডিয়া প্রযোজিত অ্যাকশন থ্রিলারধর্মী সিনেমাটিতে জুটিবদ্ধ হয়েছেন তারকা দম্পতি অনন্ত জলিল ও বর্ষা। এছাড়াও রয়েছেন এমআর-৯ : ডু অর ডাই সিনেমা দিয়ে পরিচিত পাওয়া আলিশা ইসলাম।

বুধবার (৩১ জানুয়ারি) সন্ধ্যায় মহরতের মাধ্যমে এমন ঘোষণা দেওয়া হয়েছে। সেখান হাজির হয়ে অনন্ত জলিল বলেন, ‘‘মাসুদ রানা সিরিজে কাজ করা আমার নিজেরও স্বপ্ন ছিল। দেশে যখন থেকে কাজ করি, অনেকেই আমাকে বলত বাংলার জেমস বন্ড। এই যে চিতা ছবিতে আমি কাজ করছি, এটা কিন্তু সাংবাদিকরাও জানতেন না। অথচ জাজের ঘোষণার পর থেকে ফেসবুকে অনেকেই কমেন্ট করেছে, বাংলার জেমস বন্ড অনন্ত জলিল। এজন্য আমি নিজেকে ধন্য মনে করি। প্রায় নাইন্টি ফাইভ পারসেন্ট কমেন্ট আমাকে নিয়ে করেছে।’’

চিতা ছবিটি পরিচালনা করবেন কলকাতার নির্মাতা রাজীব বিশ্বাস। এর আগে তার পরিচালনায় অপারেশন জ্যাকপট ছবিতে কাজ করেছেন অনন্ত। সেটি এখনও নির্মাণাধীন রয়েছে। নির্মাতা প্রসঙ্গে জলিল বলেন, আমি একজন ভাগ্যবান মানুষ যে, চিতা ছবিতে ওপার বাংলার সুপারহিট ছবির নির্মাতা রাজীব ভাইয়ের সঙ্গে আবার কাজ করতে পারবো।

এই সিনেমায়ও অনন্ত জলিলের সঙ্গে থাকছেন তারই স্ত্রী, নায়িকা বর্ষা। মহরত অনুষ্ঠানে তিনি বলেছেন, আমি খুব নার্ভাস। ভয় লাগছে। খোঁজ-দ্য সার্চর (প্রথম ছবি) সময় যেমন লেগেছিল, আজও তেমন লাগছে। আমি আজিজ ভাইয়ের প্রতি ভীষণ কৃতজ্ঞ। তিনি আমাকে এই চরিত্রের জন্য উপযুক্ত ভেবেছেন। আমি জানি যে, এই ক্যারেক্টারের জন্য আমাকে অনেক কষ্ট করতে হবে। তবে সবার কথা শুনে মনে হচ্ছে, ছবিটা ভালো হবে। আর ভালো তো হতেই হবে। কারণ মাসুদ রানা, বাংলার জেমস বন্ড।

জানা যায়, এ সিনেমার শুটিং শুরু হবে আগামী মে মাসে। শুটিংয়ের জন্য বেছে নেওয়া হয়েছে বাংলাদেশ, থাইল্যান্ড, ইন্দোনেশিয়া ও ভিয়েতনামকে। সিনেমাটিতে আরও দেখা যাবে নাদের চৌধুরী, সাঞ্জু জন, মিস্টার রবার্টসহ অনেকেই।


আরও খবর
আজ গোয়াতে চার হাত এক হবে রাকুল-জ্যাকির!

বুধবার ২১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

জয়ার ইরান জয়

বুধবার ২১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




শিশু আয়ানের মৃত্যু নিয়ে হাইকোর্টে শুনানি আজ

প্রকাশিত:সোমবার ২৯ জানুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ২৯ জানুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
আদালত প্রতিবেদক

Image

রাজধানীর বাড্ডার সাঁতারকুলে ইউনাইটেড মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে সুন্নতে খতনা করাতে গিয়ে শিশু আয়ান আহমেদের মৃত্যুর ঘটনায় স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের তদন্ত প্রতিবেদন গতকাল রোববার হাইকোর্টে দাখিল করা হয়েছে। এতে এমন অনাকাঙ্ক্ষিত মৃত্যু এড়াতে চারটি সুপারিশ করা হয়েছে।

সেগুলো হলো হাসপাতালে একাধিক অ্যানেসথেশিওলজিস্ট নিয়োগ দেওয়া, রোগী ও তার আত্মীয়কে অ্যানেসথেশিয়া ও অস্ত্রোপচারের ঝুঁকি ভালোভাবে জানানো, হাসপাতালে আইসিইউ ব্যবস্থা রাখা, সরকারের অনুমোদনের পরে হাসপাতালের কার্যক্রম শুরু করা। এ নিয়ে শুনানির জন্য আজ সোমবার দিন ধার্য করেন আদালত।

এদিকে ইউনাইটেড হাসপাতালের বিরুদ্ধে করা মামলা তুলে নিতে গতকাল আয়ানের বাবা শামীম আহমেদকে হত্যার হুমকি দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় শামীম আহমেদ শাহবাগ থানায় সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেছেন। এতে তিনি বলেন, হাইকোর্টের মাজার গেট থেকে হেঁটে শিশু একাডেমিতে যাওয়ার সময় ছয় থেকে সাতজন বাড্ডা থানায় ডাক্তারদের বিরুদ্ধে করা মামলা তুলে নিতে তাঁর ওপর চাপ সৃষ্টি করে। মামলা তুলে না নিলে অফিসে যাওয়ার সময় যে কোনো ধরনের ক্ষতি করবে বলে ভীতি প্রদর্শন ও প্রাণনাশের হুমকি দেয়।

বিচারপতি মোস্তফা জামান ইসলাম ও বিচারপতি মো. আতাবুল্লাহর সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চে গতকাল ১৫ পৃষ্ঠার প্রতিবেদন দাখিল করা হয়। স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালকের পক্ষে উপপরিচালক (আইন) ডা. পরিমল কুমার পাল প্রতিবেদন জমা দিয়েছেন। এতে বলা হয়েছে, আয়ান ‌চাইল্ডহুড অ্যাজমা সমস্যায় ভুগছিল। শ্বাসকষ্টের জন্য তাকে মাঝেমধ্যে নেবুলাইজার ও ইনহেলার দিতে হতো। অস্ত্রোপচারের আগে ওয়েটিং রুমে তাকে নেবুলাইজার ও ইনহেলার দেওয়া হয়েছিল। এ বিষয়টি চিকিৎসকদের জানানো হয়নি। তবে আয়ানের বাবা সামীম আহমেদ সমকালকে বলেন, তাঁর ছেলের হালকা ঠান্ডা ও সর্দির বিষয়ে দুই চিকিৎসক সবকিছুই জানতেন। তারা নানা ধরনের পরীক্ষা-নিরীক্ষা করেছেন। সব রিপোর্ট দেখার পর অস্ত্রোপচার করা হয়।

আদালতে প্রতিবেদনটি দাখিল করেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল তুষার কান্তি রায়। রিটের পক্ষে ছিলেন অ্যাডভোকেট এ বি এম শাহজাহান আকন্দ মাসুম। পরে আদালত প্রতিবেদন অ্যাফিডেভিট আকারে দাখিলের নির্দেশ দেন এবং শুনানির জন্য দিন ধার্য করেন।

এদিকে সচিবালয়ে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে সংবাদ সম্মেলনে স্বাস্থ্যমন্ত্রী ডা. সামন্ত লাল সেন বলেছেন, আয়ানের মৃত্যুর ঘটনায় দোষীদের বিরুদ্ধে অবশ্যই পদক্ষেপ নেওয়া হবে। তবে তা হবে হাইকোর্টের রায়ের পর। তিনি আরও বলেন, দেশের চিকিৎসা ব্যবস্থার ওপর মানুষের আস্থা নেই। আস্থাহীনতার কারণে মানুষ বিদেশে চিকিৎসা নিতে যান। চিকিৎসা ব্যবস্থার উন্নতি করে দেশের মানুষের আস্থা ফিরিয়ে আনতে চান তিনি। এ জন্য স্বাস্থ্যসেবা ব্যবস্থাকে বিকেন্দ্রীকরণ করা হবে।

গত ৯ জানুয়ারি সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী শাহজাহান আকন্দ মাসুম জনস্বার্থে রিট করেন। ওই রিটের শুনানি নিয়ে বাড্ডার সাঁতারকুলের ইউনাইটেড মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ও ইউনাইটেড গ্রুপের হাসপাতালে চিকিৎসা করাতে গিয়ে এ পর্যন্ত কত রোগীর মৃত্যু হয়েছে, তা জানাতে নির্দেশ দেন হাইকোর্ট। একই সঙ্গে আয়ানের মৃত্যুর ঘটনায় তার পরিবারকে পাঁচ কোটি টাকা ক্ষতিপূরণ কেন দেওয়া হবে না, তা জানতে চেয়ে রুল জারি করেন। পাশাপাশি এ মৃত্যুর ঘটনা তদন্ত করে সাত দিনের মধ্যে আদালতে প্রতিবেদন দাখিল করতে বলা হয়।


আরও খবর