আজঃ শনিবার ২৯ জানুয়ারী ২০২২
শিরোনাম

সিরিজ জয়ের পথে দক্ষিণ আফ্রিকা

প্রকাশিত:শুক্রবার ১৪ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ১৪ জানুয়ারী ২০২২ | ৪৩০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

এশিয়ার বাইরে টেস্টে তৃতীয় সেঞ্চুরি ঋষভ পন্থের। তাও আবার দলের বাকিরা যখন সবাই মিলে স্কোরবোর্ডে ৯৮ রান তুলেছেন, তখন একাই শতরান হাঁকিয়েছেন তিনি। অর্থাৎ তার একার রান বাকিদের মিলিত উদ্যোগের চেয়ে বেশি। এমন অবস্থায় নিজের পারফরম্যান্স নিয়ে তৃপ্ত হওয়া কিংবা গর্ব করা গেলেও দলকে রক্ষা করা হয়তো সম্ভব হয় না।

কেপটাউনে দিনের শেষ ছবিটা যেন সে কথাই বলছে। দ্বিতীয় ইনিংসে দুই উইকেট হারিয়ে ১০০ রানের গণ্ডি পার করল দক্ষিণ আফ্রিকা। আর তাতেই যেন আরও উজ্জ্বল হয়ে উঠল প্রোটিয়াদের তৃতীয় টেস্ট তথা সিরিজ জয়ের স্বপ্ন। মারক্রামকে দ্রুত প্যাভিলিয়নে ফেরানো গেলেও ক্রিজে জাঁকিয়ে বসেন অধিনায়ক এলগার এবং পিটারসেন। পাঁচ দিনের ফরম্যাটে দারুণ ছন্দে ধরা দিচ্ছেন পিটারসেন। আর তৃতীয় দিনের শেষে ৪৮ রান করে অপরাজিত রইলেন তিনি।

প্রোটিয়ারা একশোর গণ্ডি পার করার পর এলগারকে প্যাভিলিয়নে ফেরান বুমরাহ। জয়ের জন্য আর মাত্র ১১১ রান প্রয়োজন দক্ষিণ আফ্রিকার। হাতে দুইটি দিন এবং আটটা উইকেট। ফলে দুই টেস্ট জিতে সিরিজ পকেটে ভরা যেন হোম ফেভারিটদের কাছে শুধুই সময়ের অপেক্ষা। তবে বাইশ গজের লড়াইতে কোনও ভবিষ্যদ্বাণী সেভাবে খাটে না। বুমারহ-শামি-অশ্বিনরা যদি অঘটন ঘটাতে পারেন, তবে কে বলতে পারে, দক্ষিণ আফ্রিকার মাটিতে প্রথম টেস্ট সিরিজ জয়ের স্বাদ কোহলিই দেবেন ভারতবাসীকে। কিন্তু সে গুড়ে বালি দেওয়ার জন্য বদ্ধপরিকর এগলারের সৈনিকরা।

ভারত: ২২৩/১০ (কোহলি-৭৯) ও ১৯৮/১০ (পন্থ-১০০*)

দক্ষিণ আফ্রিকা: ২১০/১০ (পিটারসেন- ৭২, বুমরাহ-৪২/৫) ও ১০১/২ (পিটারসেন-৪৮*) 


আরও খবর
সাড়ে ৩ বছর নিষিদ্ধ ব্রেন্ডন টেলর

শুক্রবার ২৮ জানুয়ারী ২০২২




মালয়েশিয়ায় সাত রাজ্য বন্যায় প্লাবিত

প্রকাশিত:সোমবার ০৩ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ০৩ জানুয়ারী ২০২২ | ৪৬০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

মালয়েশিয়ায় বন্যা পরিস্থিতি ভয়াবহ রূপ নিয়েছে। সাত রাজ্য বন্যায় প্লাবিত হয়ে গেছে। রবিবার বন্যাকবলিত এলাকাগুলো থেকে কয়েক হাজার মানুষকে নিরাপদ আশ্রয়ে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে। রবিবার দেশটির জাতীয় দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা সংস্থা এ তথ্য জানিয়েছে।

এক বিবৃতিতে সংস্থাটি জানিয়েছে, কেলান্তান, তেরেঙ্গানু, পাহাং, জোহর, মালাক্কা, নেগরি সেম্বিলান ও সাবাহতে বন্যা পরিস্থিতি দেখা দিয়েছে। রবিবার ১২৮টি আশ্রয় কেন্দ্রে আট হাজার ৭২৭ জনকে স্থানান্তর করা হয়েছে। দেশজুড়ে বন্যার প্রভাব পড়েছে মোট এক লাখ ২৫ হাজার ৪৯০ জনের ওপর। এদের মধ্যে এক লাখ ১৭ হাজার ৭০০ জনকে নিরাপদ আশ্রয়ে সরিয়ে আনা হয়েছে।

অক্টোবর থেকে মার্চ পর্যন্ত বর্ষা মৌসুমে মালয়েশিয়ার পূর্বাঞ্চলে প্রায় প্রতি বছরই বন্যা হয়ে থাকে। তবে গত ১৭ ডিসেম্বর দেশটিতে অস্বাভাবিক ভারী বৃষ্টিপাত শুরু হয়। এতে দেশটিতে আকস্মিক বন্যা পরিস্থিতি দেখা দেয়।

এদিকে চলতি সপ্তাহেই ভারী বৃষ্টিপাত হতে পারে বলে সতর্ক করেছে আবহাওয়া বিভাগ। এছাড়া সেচ ও নিস্কাশন বিভাগ জানিয়েছে, ২ থেকে ৫ জানুয়ারি পর্যন্ত পশ্চিম উপকূলীয় এলাকায় সাগরের ঢেউ স্বাভাবিকের চেয়ে অনেক উঁচু হতে পারে।

 


আরও খবর



নতুন বছরের শুরুতে সূচকের বড় উত্থান

প্রকাশিত:সোমবার ০৩ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ০৩ জানুয়ারী ২০২২ | ৪৪০জন দেখেছেন

Image

নতুন বছরের প্রথম কার্যদিবসের মতো দ্বিতীয় কার্যদিবসেও লেনদেনের শুরুতে শেয়ারবাজারে মূল্যসূচকের বড় উত্থান প্রবণতা দেখা যাচ্ছে। সেই সঙ্গে লেনদেনে বেশ ভালো গতি দেখা যাচ্ছে।

প্রথম আধঘণ্টার লেনদেনে প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) প্রধান মূল্যসূচক ডিএসইএক্স ৫০ পয়েন্টের ওপরে বেড়ে গেছে। আর লেনদেন হয়েছে ২০০ কোটি টাকার ওপরে।

ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের পাশাপাশি অপর শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জেও (সিএসই) প্রথম আধঘণ্টার লেনদেনে সূচকের বড় উত্থান প্রবণতা দেখা যাচ্ছে। সেই সঙ্গে দাম বাড়ার তালিকায় নাম লিখিয়েছে বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিট।

এর আগে বছরের প্রথম কার্যদিবস রোববার শেয়ারবাজারে মূল্যসূচকের উল্লম্ফন হয়। ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স ৯৬ পয়েন্ট বেড়ে যায়। অপর দুই সূচকের মধ্যে ডিএসই শরিয়াহ্ ১৪ পয়েন্ট এবং বাছাই করা ভালো কোম্পানি নিয়ে গঠিত ডিএসই-৩০ সূচক ২৮ পয়েন্ট বেড়ে যায়।

এ পরিস্থিতিতে বছরের দ্বিতীয় কার্যদিবস সোমবার ডিএসইতে লেনদেন শুরু হয় বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিটের দাম বাড়ার মাধ্যমে। ফলে লেনদেনের শুরুতে ডিএসইর প্রধান মূল্যসূচক ডিএসইএক্স প্রায় ৩০ পয়েন্ট বেড়ে যায়।

লেনদেনের শুরুতে দেখা দেওয়া সূচকের বড় উত্থান সময়ের সঙ্গে আরও বাড়তে থাকে। এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত সকাল ১০টা ৪২ মিনিটে ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স আগের তুলনায় ৬৪ পয়েন্টে বেড়েছে। অপর দুই সূচকের মধ্যে ডিএসই-৩০ সূচক বেড়েছে ২৩ পয়েন্ট। আর ডিএসই শরিয়াহ্ সূচক ১১ পয়েন্ট বেড়েছে।

এ সময় পর্যন্ত ডিএসইতে লেনদেনে অংশ নেওয়া ২৮০টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিট দাম বাড়ার তালিকায় নাম লিখিয়েছে। বিপরীতে দাম কমেছে ৪৩টির। আর ৩৩টির দাম অপরিবর্তিত রয়েছে। লেনদেন হয়েছে ২৬৯ কোটি ৩১ লাখ টাকা।

অপর শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) সার্বিক সূচক সিএএসপিআই ৯৫ পয়েন্ট বেড়েছে। লেনদেন হয়েছে ৪ কোটি ২০ লাখ টাকা। লেনদেন অংশ নেওয়া ১১১ প্রতিষ্ঠানের মধ্যে দাম বেড়েছে ৭৬টির, কমেছে ২৩টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ১২টির।


আরও খবর
কোম্পানির শেয়ার ও ইউনিটের দাম কমেছে

বৃহস্পতিবার ২৭ জানুয়ারী ২০২২

মিশ্র প্রবণতায় চলছে পুঁজিবাজারের লেনদেন

বৃহস্পতিবার ২৭ জানুয়ারী ২০২২




চট্টগ্রামে ২৪ ঘণ্টায় শনাক্ত ৩৮ শতাংশ

প্রকাশিত:রবিবার ২৩ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ২৩ জানুয়ারী ২০২২ | ২৭৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

চট্টগ্রামে গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে এক হাজার ২৬ জনের শরীরে করোনা শনাক্ত হয়েছে। নমুনা পরীক্ষা বিবেচনায় শনাক্তের হার ৩৮.৬৪ শতাংশ। এ সময় করোনায় কেউ মারা যায়নি।

রোববার (২৩ জানুয়ারি) সকালে চট্টগ্রামের সিভিল সার্জন কার্যালয় থেকে পাঠানো প্রতিবেদন থেকে এ তথ্য পাওয়া যায়।

জানা গেছে, ফৌজদারহাটস্থ বিআইটিআইডি ও নগরীর আটটি ল্যাবে সর্বশেষ ২৪ ঘণ্টায় ২ হাজার ৬৫৫ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়। নতুন শনাক্তদের মধ্যে রয়েছে শহরের বাসিন্দা ৮২২ জন ও ১৪ উপজেলার ২০৪ জন। উপজেলায় আক্রান্তদের মধ্যে সর্বোচ্চ আনোয়ারায় ৩০ জন, রাউজানে ২৭ জন, হাটহাজারীতে ১৯ জন, বোয়ালখালীতে ১৭ জন, মিরসরাই ও সাতকানিয়ায় ১৫ জন করে, সীতাকুণ্ডে ১৪ জন, রাঙ্গুনিয়া ও ফটিকছড়িতে ১৩ জন করে, লোহাগাড়া ও পটিয়ায় ১১ জন করে, চন্দনাইশে ৮ জন, বাঁশখালীতে ৭ জন এবং সন্দ্বীপে ৪ জন। কর্ণফুলী উপজেলায় সর্বশেষ ২৪ ঘণ্টায় কোনো রোগী শনাক্ত হয়নি।

এদিকে জেলায় করোনাভাইরাসে মোট সংক্রমিতের সংখ্যা এখন ১ লাখ ১১ হাজার ১২৩ জন। এদের মধ্যে শহরের বাসিন্দা ৮১ হাজার ১৮৪ জন ও গ্রামের ২৯ হাজার ৯৩৯ জন। আর মৃতের সংখ্যা ১ হাজার ৩৪৩ জনই রয়েছে।


আরও খবর



সাত কলেজের স্থগিত পরীক্ষা চলবে

প্রকাশিত:রবিবার ২৩ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ২৩ জানুয়ারী ২০২২ | ৩৬০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত সরকারি সাত কলেজের চলমান পরীক্ষাগুলো চলবে। রোববার (২৩ জানুয়ারি) দুপুরে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনির সঙ্গে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এবং সাত কলেজ কর্তৃপক্ষের অনলাইন সভায় এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন সাত কলেজের শিক্ষা কার্যক্রম তদারকির দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ও ঢাকা কলেজ অধ্যক্ষ অধ্যাপক আই কে সেলিম উল্লাহ খোন্দকার। সেলিম উল্লাহ খোন্দকার বলেন, চলমান ডিগ্রি ২য় বর্ষ, মাস্টার্স প্রথম পর্ব ও বিভিন্ন বর্ষের প্র্যাকটিক্যাল পরীক্ষাগুলো চলবে। এজন্য নতুন তারিখ ঘোষণা করা হয়েছে।

এছাড়া অনার্স চতুর্থ বর্ষ ও মাস্টার্স ফাইনাল পরীক্ষার বিষয়ে তিনি বলেন, আশা করছি পরিস্থিতি খারাপ না হলে পূর্বনির্ধারিত সম্ভাব্য সময় অনুযায়ী পরীক্ষাগুলো নিতে পারবো। এর আগে শনিবার (২২ জানুয়ারি) পরীক্ষা স্থগিতের প্রতিবাদে নীলক্ষেত মোড় অবরোধ করেছিল সাত কলেজের ডিগ্রির শিক্ষার্থীরা। 


আরও খবর



পঁচাত্তরের পরের সরকারগুলো ছাত্রদের হাতে অস্ত্র তুলে দেয় : প্রধানমন্ত্রী

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১৩ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৩ জানুয়ারী ২০২২ | ২৩৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

পঁচাত্তরে জাতির পিতাকে হত্যার পর যেসব সরকার রাষ্ট্রক্ষমতায় ছিল, তাদের সমালোচনা করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেছেন, পঁচাত্তরের পরে যারা ক্ষমতায় ছিল, তারা সংবিধান লঙ্ঘন করেছে। ক্ষমতায় টিকে থাকার জন্য তারা ছাত্রদের হাতে, মেধাবী শিক্ষার্থীদের হাতে অস্ত্র তুলে দেয়। তাদের ব্যবহার করেছে। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে অস্ত্রের ঝনঝনানি ছিল তখন।

বৃহস্পতিবার সকালে নবনির্মিত জাতীয় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি কমপ্লেক্সের উদ্বোধন অনুষ্ঠানে ভার্চুয়ালি যুক্ত হয়ে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় শেখ হাসিনা এসব কথা বলেন। প্রধানমন্ত্রী বলেন, পঁচাত্তর-পরবর্তী সরকারগুলোর ফোকাস ছিল ক্ষমতা ভোগ করা এবং কুক্ষিগত করা। জনগণের কী প্রয়োজন সেদিকে তাদের দৃষ্টি ছিল না।

অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিমন্ত্রী স্থপতি ইয়াফেস ওসমান।


আরও খবর