আজঃ শনিবার ১৫ জুন ২০২৪
শিরোনাম

সিলেটে আকস্মিক বন্যায় ডুবেছে সড়ক-মহাসড়ক, প্রস্তুত সেনাবাহিনী

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ৩০ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ৩০ মে ২০২৪ | পত্রিকায় প্রকাশিত
এস এ শফি, সিলেট

Image

সিলেটে টানা বৃষ্টি আর উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢলে চারটি উপজেলায় আকস্মিক বন্যা দেখা দিয়েছে। বন্যাকবলিত এলাকার মানুষ ঘরবাড়ি ছেড়ে আশ্রয়কেন্দ্রে উঠেছেন। বুধবার (২৯ মে) থেকেই সিলেটের সুরমা, কুশিয়ারা ও সারি নদীর পানি ছিল বিপদসীমার ওপরে।

এদিন রাতে ভারতের মেঘালয় থেকেও নামে ব্যাপক ঢল, যাতে বন্যা দেখা দেয়। সিলেটে গত ২ বছরের মধ্যে এ বছরের মে মাসে সর্বোচ্চ বৃষ্টিপাত হয়েছে। বৃহস্পতিবার (৩০ মে) পর্যন্ত সিলেটে ৭০৫ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে।

প্রবল বৃষ্টি ও পাহাড়ি ঢলের পানিতে আকস্মিক বন্যায় প্লাবিত হয়েছে সিলেটের গোয়াইনঘাট, জৈন্তাপুর, কানাইঘাট ও জকিগঞ্জের বিস্তীর্ণ অঞ্চল। পানিবন্দি হয়েছেন অন্তত তিন লক্ষাধিক মানুষ। এদিকে বন্যাকবলিত এলাকার মানুষদের উদ্ধার অভিযানে নামার প্রস্তুতি নিয়েছে সেনাবাহিনী।

সিলেটের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মোহাম্মদ মোবারক হোসাইন বলেন, বন্যা পরিস্থিতির জন্য কন্ট্রোল রুম খোলা হয়েছে। জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কমিটি ইতোমধ্যে বৈঠক করেছে। দ্রুত উদ্ধার অভিযান চলছে। সেনাবাহিনীও ইতোমধ্যে কাজ করেছে। প্রয়োজনে তারাও উদ্ধার ও ত্রাণ বিতরণে যোগ দেবে।

জানা যায়, বন্যায় প্লাবিত হয়েছে সিলেট-তামাবিল মহাসড়কসহ ওই চার উপজেলার গুরুত্বপূর্ণ অনেক সড়ক। এতে ব্যাহত হচ্ছে যোগাযোগ ব্যবস্থা। যান চলাচল বন্ধ রয়েছে বিভিন্ন সড়কে।

পানি উন্নয়ন বোর্ডের তথ্যমতে, বৃহস্পতিবার সকাল ৯টায় সুরমা নদীর কানাইঘাট উপজেলা পয়েন্টে বিপদসীমার ১৬৬ সেন্টিমিটার ওপরে ও কুশিয়ারা নদী জকিগঞ্জের অমলসীদ পয়েন্টে ২০২ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।

এ ছাড়াও সিলেটের জৈন্তাপুর উপজেলায় সারি নদী বিপদসীমার ৯৫ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে এবং গোয়াইনঘাট উপজেলায় সারিগোয়াইন নদী ৬৯ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।

গোয়াইনঘাটের উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. তৌহিদুল ইসলাম জানান, বন্যায় উপজেলার ৭৫ ভাগ এলাকা প্লাবিত হয়েছে, পানিবন্দি হয়েছেন লক্ষাধিক মানুষ। পর্যটন এলাকার পর্যটকবাহী নৌকা নিয়ে উদ্ধার অভিযান চলছে। উপজেলার ৫৬টি আশ্রয়কেন্দ্রে অন্তত ২৫০ পরিবার আশ্রয় নিয়েছেন।

সিলেট আবহাওয়া অফিসের সহকারী আবহাওয়াবিদ শাহ মো. সজীব হোসাইন বলেন, ২০২২ সালের মে মাসে সিলেট আবহাওয়া অফিসের রেকর্ডকৃত বৃষ্টির পরিমাণ ছিল ৮৩৯ মিলিমিটার। ২০২৩ সালের মে মাসে ছিল ৩৩০ মিলিমিটার এবং ২০২৪ সালের মে মাসে বৃহস্পতিবার পর্যন্ত সর্বোচ্চ ৭০৫ মিলিমিটার রেকর্ড করা হয়েছে।


আরও খবর



অভিনয়ে নাম লেখালেন মালালা ইউসুফজাই

প্রকাশিত:সোমবার ০৩ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ০৩ জুন ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
বিনোদন ডেস্ক

Image

অভিনেতা হিসেবে অভিষেক হচ্ছে শান্তিতে নোবেল বিজয়ী পাকিস্তানি মালালা ইউসুফজাইয়ের। ব্রিটিশ সিটকম উই আর লেডি পার্টস এর দ্বিতীয় সিজনে দেখা যাবে তাকে।

সম্প্রতি প্রকাশ হয়েছে শোয়ের ফার্স্টলুক। আর সেখানে কাউগার্লের রুপে দেখা গেছে মালালাকে।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম হিন্দুস্তান টাইমসের প্রতিবেদনে বলা হয়, সিরিজটির মালালা মেড মি ডু ইট শিরোনামের একটা পর্বে মালালাকে পশ্চিমা ও পাকিস্তানি পোশাকে নকল ঘোড়ায় বসে থাকা অবস্থায় দেখা যায়।

এর আগে মালালা পর্দার আড়ালে কাজ করেছেন। এবার সরাসরি একটি সিরিজে ২৬ বছর বয়সী মালালর অভিনয় পর্দায় দেখবেন দর্শক।

মার্কিন ফ্যাশন ও লাইফস্টাইল ম্যাগাজিন ভোগকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে মালালা প্রতিক্রিয়া জানিয়ে বলেছিলেন, অবশেষে আমি আমার প্রতিভা দেখাচ্ছি।

নিউজ ট্যাগ: মালালা ইউসুফজাই

আরও খবর



ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে তীব্র যানজট

প্রকাশিত:বুধবার ০৫ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ০৫ জুন ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে গাড়ি নষ্ট হওয়ায় নারায়ণগঞ্জের বন্দর লাঙ্গলবন্দ এলাকা থেকে সোনারগাঁয়ের চৈত্রী এলাকা পর্যন্ত চট্টগ্রামমুখী লেনে ৪ কিলোমিটার জুড়ে তীব্র যানজটের সৃষ্টি হয়েছে। এর ফলে তীব্র ভোগান্তিতে পড়েছেন যাত্রীরা।

বুধবার (৫ জুন) সকাল সোয়া ৭টার দিকে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে এমন দৃশ্য দেখা যায়।

এ দিকে এমন যানজট আগে কখনো দেখেননি জানিয়ে এক বাসচালক বলেন, সচরাচর এই সময় মহাসড়কে তেমন যানজট থাকে না। আবার আজ মহাসড়কে যানবাহনের চাপও কম। কী কারণে এমন যানজটের মাধ্যমে আমাদের দুর্ভোগের মধ্যে পড়তে হলো তা জানা নেই।

এ বিষয়ে আমিনুর রহমান নামে এক যাত্রী বলেন, যানজটের কারণে লাঙ্গলবন্দ ব্রিজ থেকেই গাড়ি আর সামনের দিকে যাচ্ছে না। কখন নাগাদ গন্তব্যস্থলে যেতে পারব জানি না।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে কাঁচপুর হাইওয়ে থানার ওসি রেজাউল হক বলেন, আজ ভোরের দিকে মহাসড়কের চৈত্রী এলাকায় একটি গাড়ি বিকল হয়ে যায়। এ কারণে মহাসড়কে যানবাহন চলাচলে বাধার সৃষ্টি হচ্ছে। তবে এরইমধ্যে রেকার দিয়ে ওই বিকল গাড়িটি সরিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করা হচ্ছে। আশা করছি, খুব শিগগিরই যান চলাচল স্বাভাবিক হবে। যানজট নিরসনে আমরা সবার্ত্মক চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি।


আরও খবর



চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবে পিআইবি'র দুই পর্বে ৬ দিনের প্রশিক্ষণ কর্মশালা সম্পন্ন

প্রকাশিত:বুধবার ০৫ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ০৫ জুন ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
রাহুল সরকার, চট্টগ্রাম ব্যুরো

Image

চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবের সদস্যদের নিয়ে ৬ দিনব্যাপী দুই পর্বের প্রশিক্ষণ কর্মশালা বুধবার সম্পন্ন হয়েছে।

প্রথম পর্বে ৩১ মে থেকে ২ জুন পর্যন্ত অনুসন্ধানমূলক রিপোর্টিং প্রশিক্ষণ কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়।  দ্বিতীয় পর্বে ৩ থেকে ৫ জুন পর্যন্ত মোবাইল সাংবাদিকতা বিষয়ক প্রশিক্ষণ কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়। প্রেস ইনস্টিটিউট বাংলাদেশ (পিআইবি) এই প্রশিক্ষণ কর্মশালার আয়োজন করে।

৩ থেকে ৫ জুন অনুষ্ঠিত মোবাইল সাংবাদিকতা বিষয়ক প্রশিক্ষণ কর্মশালার সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন চট্টগ্রাম মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ডা. মো. ইসমাইল খান। সভাপতিত্ব করেন চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবের সভাপতি সালাহ্উদ্দিন মো. রেজা। স্বাগত বক্তব্য রাখেন চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক দেবদুলাল ভৌমিক।

চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবের যুগ্ম সম্পাদক শহীদুল্লাহ শাহরিয়ারের সঞ্চালনায় বক্তব্য রাখেন দৈনিক সুপ্রভাত বাংলাদেশ পত্রিকার সম্পাদক রুশো মাহমুদ, প্রেস ক্লাবের সিনিয়র সহ-সভাপতি চৌধুরী ফরিদ, চট্টগ্রাম মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপপরিচালক ডা. বিদ্যুৎ বড়ুয়া, প্রেস ক্লাবের সাবেক সাধারণ সম্পাদক শুকলাল দাশ এবং শাহনেওয়াজ রিটন। 

প্রধান অতিথির বক্তব্যে চট্টগ্রাম মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ডা. মো. ইসমাইল খান বলেন, সাংবাদিকদের দায়িত্ব অনেক বেশি। সমাজের ভুল দেখিয়ে দিতে পারেন সাংবাদিকরা। সত্য সংবাদ দ্রুত পৌঁছে দিতে প্রযুক্তিগত জ্ঞান অপরিহার্য। শিক্ষার শেষ নেই। সারাজীবন শিখতে হবে। হাতে-কলমে শিক্ষাই কর্মশালা। কর্মশালা জ্ঞানকে পরিশীলিত ও শাণিত করে। প্রযুক্তির অযৌক্তিক নয়, যৌক্তিক ব্যবহার করতে হবে। প্রযুক্তিগত জ্ঞান পেশাগত মানোন্নয়নে সহায়ক হয়।

দুই পর্বের প্রশিক্ষণে ৩৫ জন করে ৭০ জন নবীণ-প্রবীণ সাংবাদিক অংশগ্রহণ করেন। অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণকারীদের মধ্যে সনদ বিতরণ করা হয়।


আরও খবর



ডিএনএ স্যাম্পল দিতে কলকাতায় যাবেন এমপি আনারের মেয়ে

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৪ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ০৪ জুন ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

ঝিনাইদহ-৪ আসনের সংসদ সদস্য আনোয়ারুল আজীম আনারের মেয়ে মুমতারিন ফেরদৌস ডরিন দীর্ঘদিন পর ভারতের ভিসা পেয়েছেন। বাবার দেহের খণ্ডাংশ উদ্ধারের ঘটনায় ডিএনএ টেস্টের স্যাম্পল দিতে কলকাতায় যাবেন তিনি।

মঙ্গলবার (৪ জুন) বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন এমপি আনারের এপিএস আব্দুর রউফ।

তিনি বলেন, এমপি সাহেবের মেয়ে ডরিন ও আমি একসঙ্গে ভারতীয় ভিসা পেয়েছি। ডিবির তদন্ত টিম নেপাল থেকে দেশে আসার পর তাদের সঙ্গে কথা বলে কলকাতায় যাব।

এর আগে, গত ২২ মে মুমতারিন ফেরদৌস ডরিন ও সংসদ সদস্যের ব্যক্তিগত সহকারী আব্দুর রউফ ভারতের ভিসার জন্য আবেদন করেন। আবেদনের ১২ দিন পর ভারতের ভিসা পেয়েছেন তারা।

প্রসঙ্গত, গত ১২ মে চিকিৎসার জন্য এমপি আনোয়ারুল আজীম আনার দর্শনা-গেদে সীমান্ত দিয়ে ভারতে যান। সেখানে গিয়ে তিনি তার ভারতীয় ঘনিষ্ঠ বন্ধু পশ্চিমবঙ্গের উত্তর২৪ পরগনা জেলার বরানগর থানার অন্তর্গত ১৭/৩ মণ্ডলপাড়া লেনের বাসিন্দা স্বর্ণ ব্যবসায়ী গোপাল বিশ্বাসের বাড়িতে ওঠেন। পরদিন ১৩ মে দুপুরে চিকিৎসক দেখানোর উদ্দেশ্যে বেরিয়ে যান। কিন্তু সন্ধ্যায় ফেরার কথা থাকলেও তিনি আর ফিরে আসেননি। এরপর গত ২২ মে কলকাতার নিউ টাউনের একটি ফ্ল্যাটে তার খুন হওয়ার বিষয়টি জানায় ভারতীয় পুলিশ।

এ ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে শিমুল ভূঁইয়া ওরফে শিহাব ওরফে ফজল মোহাম্মদ ভূঁইয়া ওরফে আমানুল্যা সাইদ, তানভীর ভূঁইয়া ও শিলাস্তি রহমানকে গ্রেপ্তার করে বাংলাদেশ পুলিশ।

তবে এ হত্যার ঘটনায় এখনো পর্যন্ত কোনো এমপি আনারের মরদেহ উদ্ধার করতে পারা যায়নি। যে ভবনে তিনি খুন হয়েছিলেন সম্প্রতি সেই ভবনের সেপটিক ট্যাংক থেকে তার (এমপি আনার) মরদেহের খণ্ডাংশ উদ্ধার করা হয়েছে বলে জানা গেছে।


আরও খবর



বুথ ফেরত জরিপ বলছে বড় ব্যবধানে জয় পেতে যাচ্ছে মোদির এনডিএ

প্রকাশিত:শনিবার ০১ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ০১ জুন ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
আন্তর্জাতিক ডেস্ক

Image

বিশ্বের বৃহত্তম গণতান্ত্রিক রাষ্ট্র ভারতে প্রায় ছয় সপ্তাহের ম্যারাথন নির্বাচন শেষ হয়েছে শনিবার। গত ১৯ এপ্রিল থেকে শুরু হওয়া সাত দফার এই ভোটের শেষ ধাপে শনিবার ৮টি রাজ্যে লোকসভার ৫৭ আসনে ভোটগ্রহণ সম্পন্ন হয়েছে। শেষ ধাপের এই নির্বাচনে পশ্চিমবঙ্গের কয়েকটি এলাকায় বিচ্ছিন্ন সহিংসতা ও ইভিএম মেশিন ভাঙচুরের ঘটনাও ঘটেছে। দেশটির জাতীয় নির্বাচন কমিশন আগামী ৪ জুন আনুষ্ঠানিকভাবে নির্বাচনের চূড়ান্ত ফল ঘোষণা করবে।

ভারতের সংবিধান অনুযায়ী, কোনো দল বা জোট যদি সরকার গঠন করতে চায় তাহলে তাদের লোকসভার ৫৪৩টি আসনের মধ্যে কমপক্ষে ২৭২টিতে জয় পেতে হবে। এবারের লোকসভা নির্বাচনে দুটি বড় জোটের তীব্র প্রতিদ্বন্দ্বিতা দেখা গেছে। এর একটি দেশটির ক্ষমতাসীন রাজনৈতিক দল ভারতীয় জনতা পার্টি (বিজেপি) নেতৃত্বাধীন ন্যাশনাল ডেমোক্রেটিক অ্যালায়েন্স (এনডিএ) এবং অন্যটি কংগ্রেসের নেতৃত্বাধীন ইনডিয়া জোট। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির এনডিএ জোট টানা তৃতীয় মেয়াদে ক্ষমতায় আসতে মরিয়া হয়ে উঠেছে। অন্যদিকে কংগ্রেস নেতৃত্বাধীন ইনডিয়া জোটও নির্বাচনে ভূমিধস জয়ের ব্যাপারে আশাপ্রকাশ করেছে।

শনিবার ভোটগ্রহণ শেষ হওয়ার কিছুক্ষণের মধ্যে বরাবরের মতো দেশটির সংবাদমাধ্যমে বুথ ফেরত জরিপের ফলাফল প্রকাশিত হতে শুরু করেছে। যদিও এসব জরিপের ফলাফল অনেক সময় উল্টো যেতে দেখা যায়। এর আগে, ২০১৯ সালের নির্বাচনে ৩৫৩ আসনে জয় পেয়েছিল এনডিএ জোট।

সন্ধ্যার দিকে দেশটির অন্তত চারটি গণমাধ্যমের বুথ ফেরত জরিপের ফলাফল প্রকাশ করা হয়েছে। এতে বলা হয়েছে, নরেন্দ্র মোদির বিজেপি নেতৃত্বাধীন এনডিএ জোট লোকসভার ৩৫০টিরও বেশি আসনে জয় পেতে যাচ্ছে। এর মধ্য দিয়ে টানা তৃতীয়বারের মতো ক্ষমতায় আসছেন নরেন্দ্র মোদি।

দেশটির সংবাদমাধ্যম এনডিটি প্রথম বুথ ফেরত জরিপের ফল প্রকাশ করে বলেছে, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির ভারতীয় জনতা পার্টির নেতৃত্বাধীন এনডিএ জোট এবারের সাধারণ নির্বাচনে সংখ্যাগরিষ্ঠতা পেতে যাচ্ছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। দেশটির চারটি সংবাদমাধ্যম ও সংস্থার বুথ ফেরত জরিপের ফলাফলে বলা হয়েছে, ক্ষমতাসীন এনডিএ জোট ৫৪৩ আসনের লোকসভার ৩৫০টিরও বেশি আসনে জয় পেতে পারে। যেখানে সাধারণ সংখ্যাগরিষ্ঠতার জন্য ২৭২টি আসন প্রয়োজন।

ইন্ডিয়া নিউজ ও ডি-ডায়নামিকসের বুথ ফেরত জরিপ বলছে, লোকসভা নির্বাচনে এনডিএ জোট ৩৭১ ও ইনডিয়া জোট ১২৫ আসনে জয় পেতে পারে। এছাড়া কংগ্রেস নেতৃত্বাধীন ইনডিয়া জোট ১২৫ আসনে জয়ী হতে পারে।

দেশটির অপর সংবাদমাধ্যম রিপাবলিক ভারত ও ম্যাট্রিজের বুথ ফেরত জরিপের ফলাফলেও বিজেপি নেতৃত্বাধীন এনডিএ জোট ৩৫৩ থেকে ৩৬৮ আসনে জয় পেতে পারে বলে জানানো হয়েছে। এছাড়া দেশটির বিরোধী দলগুলোর জোট ইনডিয়া ১১৮ থেকে ১৩৩ আসনে জয়ী হতে পারে। অন্যান্য দলগুলো ৪৩ থেকে ৪৮ আসনে জয় পাবে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

ভারতের আরেক সংবাদমাধ্যম রিপাবলিক টিভি ও পিএমএআরকিউয়ের বুথ ফেরত জরিপ বলছে, এনডিএ জোট ৩৫৯ আসনে এবং ইনডিয়া জোট ১৫৪ আসনে জয় পেতে পারে। অন্যান্য দলগুলোর দখলে যেতে পারে ৩০ আসন।

জান কি বাতের বুথ ফেরত জরিপের ফলে এনডিএ জোট ৩৬২ থেকে ৩৯২ আসন এবং ইনডিয়া জোট ১৪১ থেকে ১৬১ আসনে জয় পেতে যাচ্ছে বলে জানানো হয়েছে।

এই চার সংবাদমাধ্যমের বুথ ফেরত জরিপের ফল গড় হিসেব করে এনডিটিভি বলেছে, বিজেপি নেতৃত্বাধীন এনডিএ জোট ৩৬৫ আসন, ইনডিয়া জোট ১৪২ আসন এবং অন্যান্যরা ৩৬ আসনে জয়ী হতে পারে।

ব্রিটিশ বার্তা সংস্থা রয়টর্সের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ভারতে বুথ ফেরত জরিপের ফলাফলের রেকর্ড খুব বেশি ইতিবাচক নয়। কারণ প্রায়ই দেশটিতে বুথ ফেরত জরিপের  নির্বাচনী ফলাফল ভুল প্রমাণিত হয়েছে। তবে ভারতের বিশ্লেষকরা বলছেন, বৃহৎ ও বৈচিত্র্যময় সংস্কৃতির এই দেশে নির্বাচনের ফল সম্পর্কে আগাম ধারণা করা বেশ কঠিন চ্যালেঞ্জ।

গত ১৯ এপ্রিল থেকে শুরু হওয়া সাত ধাপের নির্বাচনে প্রায় একশ কোট মানুষ ভোট দেওয়ার যোগ্য ছিলেন। গ্রীষ্মের রেকর্ড তীব্র তাপদাহের মাঝে ভারতের এবারের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে। দেশটির জাতীয় নির্বাচন কমিশন আগামী ৪ জুন ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনে (ইভিএম) ভোট গণনা করবে এবং একই দিনে ফলাফল ঘোষণার কথা রয়েছে।

৭৩ বছর বয়সী মোদির সম্ভাব্য বিজয় তাকে ভারতের স্বাধীনতা আন্দোলনের প্রভাবশালী নেতা জওহরলাল নেহরুর পর দ্বিতীয় প্রধানমন্ত্রী হিসেবে টানা তৃতীয় মেয়াদে ক্ষমতার মসনদে বসাবে।


আরও খবর