আজঃ বৃহস্পতিবার ১৩ জুন ২০২৪
শিরোনাম

শিবচরে বাস-প্রাইভেটকার দুর্ঘটনায় নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৫

প্রকাশিত:রবিবার ৩০ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ৩০ জানুয়ারী ২০২২ | অনলাইন সংস্করণ
Image

শিবচর (মাদারীপুর) প্রতিনিধিঃ

মাদারীপুর জেলার শিবচরের ভাঙ্গা-ঢাকা এক্সপ্রেসওয়ের হাজী শরিয়তউল্লাহ সেতু সংলগ্ন সড়কে যাত্রীবাহী গ্রামীণ পরিবহনের বাসের সঙ্গে ঢাকাগামী একটি প্রাইভেটকারের সংঘর্ষ হলে উদ্ধার করতে আসা এলাকাবাসীকে অপর একটি যাত্রীবাহী বাস পিষে দেওয়ার ঘটনায় নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৫ এ দাঁড়িয়েছে।

শনিবার (২৯ জানুয়ারি) সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় প্রথম দুর্ঘটনায় ঘটনাস্থলেই এক যাত্রীর মৃত্যু হয়। স্থানীয়দের ওপর অপর বাসের চাপা দেওয়ার ঘটনায় আরও তিনজনসহ ১০ মিনিটের ব্যবধানে চারজনের মৃত্যু হয়। চিকিৎসাধীন অবস্থায় রাত সাড়ে ১১টার দিকে স্থানীয় আরও একজনের মৃত্যু হয় বলে জানা গেছে।

নিহতরা হলেন- প্রাইভেটকার যাত্রী সদর উপজেলার শিরখাড়া ইউনিয়নের বল্লবদী গ্রামের খলিল মাতুব্বর (৭০), শিবচর উপজেলার দত্তপাড়া ইউনিয়নের ফেলু হাজীকান্দি গ্রামের মোস্তফা শিকদার (৫০), তার ভাই নুরুল ইসলাম শিকদারের স্ত্রী রোকেয়া বেগম (৪০), মাদবরচর ইউনিয়নের শরীফকান্দি গ্রামের ভ্যানচালক লিটন শরীফ (৪০) ও স্থানীয় মোফাজ্জেল হোসেন (৫৫)।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, শনিবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে এক্সপ্রেসওয়ের বাঁচামারা এলাকায় মাদারীপুর থেকে ঢাকাগামী একটি প্রাইভেটকারকে পেছন দিক থেকে গ্রামীণ পরিবহনের যাত্রীবাহী একটি বাস ধাক্কা দেয়। এসময় প্রাইভেটকারটি দুমড়ে-মুচড়ে গেলে ঘটনাস্থলেই মো. খলিল মাতুব্বর নামে মাদারীপুর সদর উপজেলার শিরখাড়া এলাকার এক ব্যক্তির মৃত্যু হয়। দুর্ঘটনার খবর পেয়ে স্থানীয়রা দ্রুত এগিয়ে এসে তাদের উদ্ধার করতে থাকে। এমন সময় গোপালগঞ্জ থেকে আসা ইমাদ পরিবহনের যাত্রীবাহী আরেকটি বাস স্থানীয়দের ওপর উঠিয়ে দিলে ঘটনাস্থলেই বাঁচামারা এলাকার মোস্তফা শিকদার, রোকেয়া বেগম ও ভ্যানচালক মো. লিটন মারা যান। 

গুরুতর আহত আশিকুর রহমান, শিরিয়া বেগম নামে প্রাইইভেটকারের দুই যাত্রীকে ফরিদপুর মেডিক্যালে এবং স্থানীয় আরও তিনজনকে পাঁচ্চর রয়েল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এছাড়া সামান্য আহত অন্তত আরও পাঁচজন রাতেই প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়ে বাড়ি ফেরেন।

শিবচর হাইওয়ে পুলিশ জানিয়েছে, প্রাইভেটকারের সঙ্গে গ্রামীণ পরিবহনের বাসের দুর্ঘটনাটি প্রথম ঘটে। স্থানীয়রা উদ্ধার করতে এলে তাদের অন্য একটি বাস চাপা দেয়। গ্রামীন পরিবহনের বাসটি আটক করা হলেও অপর যাত্রীবাহী বাসটি তাৎক্ষণাৎ আটক করা সম্ভব হয়নি।

শিবচর হাইওয়ে পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাখাওয়াত হোসেন জানান, খবর পেয়েই হাইওয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছায়। আহতদের উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করে। দুর্ঘটনায় ঘটনাস্থলে চারজনের মৃত্যু হয়। গুরুতর আহত কয়েকজনকে ফরিদপুর মেডিক্যালে পাঠানো হয়েছে রাতেই। নিহতদের মধ্যে চারজনই শিবচরের বাচামারা ও মাদবরচর এলাকার পথচারী।


আরও খবর



এত পরিশ্রমের পরও কটু কথা কষ্ট দেয়, সবকিছু অর্থহীন মনে হয়: জাহ্নবী

প্রকাশিত:শুক্রবার ২৪ মে 20২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৪ মে 20২৪ | অনলাইন সংস্করণ
বিনোদন ডেস্ক

Image

বর্তমানে বলিউডে যে কজন তারকা সন্তান অভিনয় করছেন তাদের মধ্যে অন্যতম শ্রীদেবীকন্যা জাহ্নবী কাপুর। ইতোমধ্যে পায়ের নিচের মাটি খানিকটা শক্ত করেছেন তিনি। শুরু থেকেই মা শ্রীদেবীর সঙ্গে তুলনা টানা হতো জাহ্নবীর। এমনকি তাঁকে নানাভাবে কটাক্ষও করা হতো। সে সময় মানসিকভাবে ভেঙে পড়তেন তিনি। তবে এখন তিনি এসব নিয়ে বাঁচতে শিখেছেন। মিলি, বাওয়াল, গুঞ্জন সাক্সেনা: দ্য কারগিল গার্ল, গুডলাক জেরির মতো ছবিতে অভিনয়ের পর তাঁর কদর আরও বেড়েছে। নিজের প্রতিভা প্রমাণের সুযোগ পেয়েছেন।

কিছুদিন আগেই এক বিবৃতিতে মায়ের সঙ্গে তুলনা প্রসঙ্গে জাহ্নবী বলেন, মাম্মার [শ্রীদেবী] মতো কেউ বৈচিত্র্যময় হয়ে উঠতে পারবেন না। তাঁর যা উচ্চতা, সেই উচ্চতায় কেউ পৌঁছাতে পারবেন বলে আমি মনে করি না। তাই দয়া করে আমাকেও রেহাই দিন।

ক্যারিয়ারের শুরুতে মানুষের কটু কথায় মন খারপ হতো জাহ্নবীর। তবে এখন অনেকটাই সামলে নিতে শিখেছেন। এর পরও মাঝেমধ্যে যে মন খারাপ হয় না, তা নয়। এ অভিনেত্রী বলেন, এত পরিশ্রমের পরও কটু কথা আমাকে কষ্ট দেয়। আমার রক্ত, ঘাম ঝরানো পরিশ্রম অর্থহীন বলে মনে হয়। কিছু মানুষের তির্যক মন্তব্য শুনে মন অশান্ত হয়ে ওঠে। তবে ইতিবাচক সমালোচনাকে সব সময় সম্মান জানাই।

আগামী শুক্রবার মুক্তি পাচ্ছে এই অভিনেত্রীর নতুন সিনেমা মিস্টার অ্যান্ড মিসেস মাহিশরণ শর্মা পরিচালিত এই সিনেমায় তিনি অভিনয় করেছেন রাজকুমার রাওয়ের সঙ্গে।এই ছবিতে এক উঠতি ক্রিকেটারের চরিত্রে অভিনয় করেছেন জাহ্নবী। সম্প্রতি ছবির ট্রেলার প্রকাশ্যে এসেছে। অনুরাগীদের মধ্যে সাড়া ফেলেছে এই ট্রেলার। এই চরিত্রের জন্য বেশ কাঠখড় পোড়াতে হয়েছে জাহ্নবীকে।

জাহ্নবী বলেন, এই ছবির জন্য আমি প্রচুর পরিশ্রম করেছি। মিলি ছবির প্রচারণার সময় এই ছবির জন্য ক্রিকেটের প্রশিক্ষণ নেওয়া শুরু করে দিয়েছিলাম। প্রায় দুই বছর প্রশিক্ষণ নিয়েছি। শরণ (পরিচালক) এই ছবিতে কোনো ভিএফএক্স ব্যবহার করেননি।তিনি চেয়েছিলেন ক্রিকেটের দৃশ্যগুলো বাস্তব দেখাতে। পর্দায় যেন আমাকে প্রকৃত ক্রিকেটারের মতো দেখতে লাগে তাই টানা পরিশ্রম করেছি।ট্রেনিংয়ের সময় অনেক চোট পেয়েছি। আমার দুই কাঁধের হাড় সরে গিয়েছিল। এতটাই কষ্ট হয়েছিল মাঝেমধ্যে ভেবেছিলাম ছবিটি ছেড়ে দেই।

নিজের সম্পর্কে খুব বেশি খোলামেলা কথা বলেন না অভিনেত্রী জাহ্নবী কাপুর। তবে বলিউডে কান পাতলেই শোনা যায়, শিখর পাহাড়িয়ার সঙ্গে সম্পর্কে রয়েছেন শ্রীদেবীকন্যা। আকারে-ইঙ্গিতে অবশ্য জাহ্নবী নিজেও বুঝিয়েছেন, শিখরের সঙ্গেই প্রেমের সম্পর্কে আবদ্ধ তিনি।

তবে সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারে শিখরকে নিয়ে জাহ্নবী বললেন, আমার যখন ১৫-১৬ বছর বয়স, তখন থেকে ও আমার সঙ্গে আছে। আমার স্বপ্নগুলো ও নিজের করে নিয়েছে। ওর স্বপ্নগুলোও আমি আমার নিজের স্বপ্ন করে তুলেছি। আমরা পরস্পরের খুব কাছের। আমরা সব সময় পরস্পরের পাশে এমনভাবে থেকেছি যেন আমরাই পরস্পরকে বড় করে তুলেছি।

নিউজ ট্যাগ: জাহ্নবী কাপুর

আরও খবর



কুমিল্লায় গরুবোঝাই ট্রাক উল্টে নিহত ২

প্রকাশিত:বুধবার ১২ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১২ জুন ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
রবিউল বাশার খান, কুমিল্লা

Image

কুমিল্লার ইলিয়টগঞ্জে গরুবোঝাই ট্রাক উল্টে ২ জন নিহত হয়েছে। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন আরও চারজন।

বুধবার (১২ জুন) সকাল পৌনে ১০টার দিকে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের পুটিয়া ইউটার্নে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহতের মধ্যে একজনের পরিচয় পাওয়া গেছে। তার নাম রাসেল। অপরজনের পরিচয় জানার চেষ্টা চলছে। ইলিয়টগঞ্জ হাইওয়ে থানার ওসি মো. মঞ্জুরুল আলম বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, ঢাকা থেকে কুমিল্লা অভিমুখী গরুবোঝাই একটি ট্রাক মহাসড়কের পুটিয়া ইউটার্নে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে উল্টে যায়। পরে ট্রাকটি একটি কাভার্ডভ্যানকে পেছন থেকে ধাক্কা দিলে গরুবোঝাই ট্রাক ও কাভার্ডভ্যান সড়কের পাশে খাদে পড়ে যায়। এ সময় গরু ব্যবসায়ী রাসেলসহ দুইজন নিহত হন। দুর্ঘটনায় পাঁচটি গরুর পা ভেঙে গেছে।


আরও খবর



এমপি আনার হত্যাকাণ্ড: শাহীনকে যুক্তরাষ্ট্র থেকে ভারতে ফেরানোর পরিকল্পনা

প্রকাশিত:রবিবার ২৬ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:রবিবার ২৬ মে ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

ঝিনাইদহ-৪ আসনের সংসদ সদস্য আনোয়ারুল আজীম আনার হত্যার পরিকল্পনাকারী’ আক্তারুজ্জামান শাহীনকে যুক্তরাষ্ট্র থেকে ভারতে ফিরিয়ে আনার কথা ভাবছে পশ্চিমবঙ্গ ক্রাইম ইনভেস্টিগেটিভ ডিপার্টমেন্ট (সিআইডি)।

পশ্চিমবঙ্গ সিআইডির একজন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা নাম প্রকাশ না করার শর্তে গণমাধ্যমকে বলেছেন, মার্কিন সরকারের সঙ্গে বাংলাদেশের কোনো প্রত্যর্পণ চুক্তি নেই, কিন্তু ভারতের আছে। আমরা শাহীনকে ভারতে প্রত্যর্পণের পরিকল্পনা করছি, কারণ অপরাধটি আমাদের রাজ্যে ঘটেছে।

এ মামলার অন্যতম আসামি আক্তারুজ্জামান শাহীন এমপি আনোয়ারুল আজীমের ঘনিষ্ঠ বন্ধু এবং ব্যবসায়িক অংশীদার হিসেবে পরিচিত। তিনি যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কে থাকেন। তার মার্কিন নাগরিকত্ব রয়েছে বলে খবর পাওয়া যাচ্ছে।

এদিকে, শাহীনকে পেতে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ভারত, নেপাল, ইন্টারপোল ও যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে কাজ করছে বলে ভারতীয় সংবাদসংস্থা পিটিআইকে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান। তিনি জানান, আখতারুজ্জামান শাহীন মূল সন্দেহভাজন এবং পলাতক। তাকে বিচারের আওতায় আনতে ভারত, নেপাল ও যুক্তরাষ্ট্রের আইন প্রয়োগকারী সংস্থার সাহায্য চাওয়া হয়েছে।

গোয়েন্দাদের অনুসন্ধানে বেরিয়ে এসেছে, কলকাতার নিউটাউনের সঞ্জীবা গার্ডেনে এমপি আনারকে শ্বাসরোধ করে হত্যার পর লাশ অন্তত ৮০ টুকরা করে ছোট ছোট শপিংব্যাগে ভরা হয়। হত্যাকারীরা সেই ব্যাগগুলো গার্ডেনের সামনের খালে ফেলে দেয়। স্মরণকালে নিষ্ঠুরতম হত্যাকাণ্ডটি হিন্দি সিনেমাকেও হার মানিয়েছে বলে একাধিক গোয়েন্দা কর্মকর্তা অভিমত ব্যক্ত করেছেন।


আরও খবর



চট্টগ্রাম কলেজ সংলগ্ন ফুটপাত উচ্ছেদের দাবি ছাত্রলীগের

প্রকাশিত:শনিবার ০১ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ০১ জুন ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
রাহুল সরকার, চট্টগ্রাম ব্যুরো

Image

চট্টগ্রাম কলেজ সংলগ্ন ফুটপাত দখলে নিয়ে অবৈধ দোকানপাট বসিয়ে সৌন্দর্য ও শিক্ষার সুষ্ঠু পরিবেশ বিনষ্ট করছে একটি চক্র। এসব অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করতে চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের মেয়র বীর মুক্তিযোদ্ধা এম রেজাউল করিম চৌধুরীকে স্মারকলিপি দিয়েছে চট্টগ্রাম কলেজ ছাত্রলীগ।

শুক্রবার (৩১ মে) রাতে নগরের বহদ্দারহাটস্থ মেয়রের বাসভবনে এ স্মারকলিপি প্রদান করেন চট্টগ্রাম কলেজ ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীরা। 

মেয়র দ্রুত সময়ের মধ্যে এসব অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদের আশ্বাস দেন ছাত্রলীগ নেতাদের।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম কলেজ ছাত্রলীগ নেতা মনির ইসলাম, জাহিদ হাসান সাইমুন, মুনির উদ্দিন, আব্দুল্লাহ আল সাইমুন, মহিউদ্দিন বাপ্পি, ওয়াহিদুর রহমান সুজন, অর্ণব দেব,  ইয়াসির আরাফাত, গিয়াস উদ্দিন সাজিদ, আব্দুল মালেক রুমি, মোস্তফা আমান, ইয়াছির আরফাত রিকু, তারেক রহমান, শাহজাদা শাহরিয়ার সাকিব, আব্দুর রাজ্জাক, সিরাজুম মুনির, আব্দুল হাকিম, তানভির আহমেদ, মোহাম্মাদ সম্রাট, মোহাম্মদ আরাফাত আবিদুল ইসলাম, ফয়সাল মোহাম্মদ জয়, ফয়সাল মোহাম্মদ মিনহাজ, আরশাদুল ইসলাম প্রমুখ।


আরও খবর



বসতবাড়ির ফাটল, ক্ষতিপূরণের দাবিতে সংবাদ সম্মেলন

প্রকাশিত:রবিবার ২৬ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:রবিবার ২৬ মে ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
দিনাজপুর প্রতিনিধি

Image

দিনাজপুরের বড়পুকুরিয়া কয়লাখনি হওয়ার কারণে ক্ষতিগ্রস্ত পাতরাপাড়া এলাকার ঘরবাড়ি ফাটলের ক্ষতিপূরণ দ্রুত দেওয়ার দাবিতে সংবাদ সম্মেলন করেছেন ক্ষতিগ্রস্ত এলাকাবাসী।

রোববার সকাল সাড়ে ১১টায় বড়পুকুরিয়া কয়লাখনি সংলগ্ন পাতরাপাড়া মোড়ে ক্ষতিপূরণের দাবিতে সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন মো. মুনতাসির আফসানি মুন্না।

এ সময় উপস্থিত থেকে সংবাদ সম্মেলনে বক্তব্য দেন, মো. মামুনুর রশীদ মামুন, মো. মনিরম্নজ্জামান, মো. আলমগীর হোসেন, মো. মোয়াজ্জেম হোসেন হিটলার, মো. আবুল কালাম আজাদ নুর মোহাম্মদ, মো. কিবরিয়া।

সংবাদ সম্মেলনে ক্ষতিগ্রস্ত এলাকার প্রায় শতাধিক মানুষ উপস্থিত ছিলেন।

লিখিত বক্তব্যে ক্ষতিগ্রস্ত এলাকাবাসী জানান, আমাদের ২০০৯ সালে পেট্রোবাংলার সাথে সমঝোতা স্মারকে ১০ দফা দাবি চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়েছে। সেই ১০ দফা চুক্তি এখনো বাস্তবায়ন করা হয় নাই। এই ১০ দফা চুক্তি দ্রুত বাস্তবায়ন করতে হবে। আমাদের অধিগ্রহণকৃত সম্পত্তিতে কে বা কাহারা পেশি শক্তি ব্যবহার করে সোলার প্রকল্প এর নামে জোর জবরদস্তি করে দখল করার পাঁয়তারা করছে। এতে খনি এলাকার ক্ষতিগ্রস্ত লোকজন ক্ষিপ্ত, যাহা সম্পর্কে আমরা কেউ অবগত নই। জবরদখলের প্রতিবাদ করায় ক্ষতিগ্রস্ত এলাকার অসহায় কিছু মানুষের নামে মিথ্যা মামলা দায়ের করা হয়। আমরা সরকারের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের কাছে জোর দাবি জানাচ্ছি, এই মিথ্যা মামলা অতিদ্রম্নত প্রত্যাহার করা হউক।

এই এলাকার সংসদ সদস্য আলহাজ্ব অ্যাডভোকেট মো. মোস্তাফিজুর রহমান ফিজার এমপি দেশে না আসা পর্যন্ত কোন প্রকার সোলার প্রকল্পের কার্যক্রম চালানো যাবে না।

কয়খনির কিছু কর্মকর্তা ও বহিরাগত কিছু অসাধু কোম্পানি স্থানীয় কিছু প্রতিনিধির সহযোগিতায় এই জমিতে ঘেরা বেড়া দিচ্ছে তা দ্রুত সরিয়ে ফেলতে হবে। সাত দিনের মধ্যে আমাদের ফাটা ঘরবাড়ির টাকা ক্ষতিগ্রস্ত এলাকার জনগণের মাঝে প্রদান করতে হবে। এ সময় তারা প্রধানমন্ত্রী ও জ্বালানি মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করেন। তারা বলেন, আমাদের ক্ষতিগ্রস্ত এলাকার জনগণের প্রতি সুদৃষ্টি দিয়ে দাবিগুলো দ্রুত বাস্তবায়নের অনুরোধ জানাচ্ছি।

আগামী ৭ দিনের মধ্যে ক্ষতিপূরণসহ দাবি দাওয়া বাস্তবায়ন না হলে, কঠোর আন্দোলনের ঘোষণা দেন বক্তারা।


আরও খবর