আজঃ শনিবার ২৯ জানুয়ারী ২০২২
শিরোনাম

সেন্টমার্টিনে পর্যটকবাহী জাহাজ চলাচল বন্ধ

প্রকাশিত:শনিবার ০৪ ডিসেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:শনিবার ০৪ ডিসেম্বর ২০২১ | ৬৪৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image
আজ যেসব জাহাজ সেন্টমার্টিন গেছে, সেগুলো ফিরে আসছে। মূলত রোববার (৫ ডিসেম্বর) থেকে আর কোনো জাহাজ সেন্টমার্টিনের উদ্দেশ্যে ছেড়ে যাবে না। সেটা টেকনাফ বা কক্সবাজার যেখান থেকেই হোক

বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট ঘূর্ণিঝড় জাওয়াদের প্রভাব পড়তে শুরু করেছে কক্সবাজারে। জেলার সর্বত্র আকাশ মেঘাচ্ছন্ন রয়েছে। সকাল থেকে গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টি হচ্ছে। উত্তাল রয়েছে সমুদ্র।

সমুদ্রবন্দরগুলোকে ২ নম্বর দূরবর্তী হুঁশিয়ারি সংকেত নামিয়ে ৩ নম্বর স্থানীয় সতর্কতা সংকেত দেখাতে বলেছে আবহাওয়া বিভাগ। তাই দেশের একমাত্র প্রবালদ্বীপ সেন্টমার্টিনে জাহাজ চলাচল বন্ধ ঘোষণা করেছে টেকনাফ উপজেলা প্রশাসন। রোববার সকাল থেকে এই নিষেধাজ্ঞা কার্যকর হবে।

শনিবার (৪ ডিসেম্বর) বিকেলে টেকনাফ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) পারভেজ চৌধুরী বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, আজ যেসব জাহাজ সেন্টমার্টিন গেছে, সেগুলো ফিরে আসছে। মূলত রোববার (৫ ডিসেম্বর) থেকে আর কোনো জাহাজ সেন্টমার্টিনের উদ্দেশ্যে ছেড়ে যাবে না। সেটা টেকনাফ বা কক্সবাজার যেখান থেকেই হোক। আবাহাওয়া পরিস্থিতি যতদিন ভালো হচ্ছে না ততদিন এ নিষেধাজ্ঞা জারি থাকবে।

কক্সবাজার আবহাওয়া অফিসের আবহাওয়াবিদ মো. মনোয়ার হোসেন বলেন, ঘূর্ণিঝড় কেন্দ্রের ৫৪ কিলোমিটারের মধ্যে বাতাসের একটানা সর্বোচ্চ গতিবেগ ঘণ্টায় ৬২ কিলোমিটার, যা দমকা অথবা ঝোড়ো হাওয়ার আকারে ৮৮ কিলোমিটার পর্যন্ত বৃদ্ধি পাচ্ছে। এই মুহূর্তে ঘূর্ণিঝড় কেন্দ্রের নিকটে সাগর উত্তাল রয়েছে। সমুদ্রবন্দরগুলোকে ২ নম্বর দূরবর্তী হুঁশিয়ারি সংকেত নামিয়ে ৩ নম্বর স্থানীয় সতর্কতা সংকেত দেখিয়ে যেতে বলা হয়েছে।

নিউজ ট্যাগ: সেন্টমার্টিন

আরও খবর



সৌদি আরবে পাওয়া গেল ৪৫০০ বছর আগের মহাসড়ক

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৮ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৮ জানুয়ারী ২০২২ | ৪০৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

সৌদি আরবে সাড়ে চার হাজার বছর আগের একটি মহাসড়ক নেটওয়ার্ক আবিষ্কার করেছেন প্রত্নতাত্ত্বিকেরা। এই সড়কের পাশেই রয়েছে সুসংরক্ষিত প্রাচীন সমাধির সারি।

সমাধিগুলোর বেশিরভাগই হয় প্যানডেন্ট আকৃতির বা আংটির মতো। আংটির মতো সমাধিগুলো দুই মিটার পর্যন্ত উচ্চতার প্রাচীর দ্বারা বেষ্টিত একটি পাথরের ফলকের মতো। আর প্যানডেন্ট আকৃতিরগুলোতে লেজের মতো বর্ধিত অংশ আছে।

রেডিওকার্বন ডেটিং ব্যবহার করে গবেষকরা নির্ধারণ করেছেন, একটি নমুনা ২ হাজার ৬০০ থেকে ২০০০ খ্রিস্টপূর্বাব্দ আগের। যদিও সমাধিগুলো প্রায় এক হাজার বছর আগে পর্যন্ত পুনর্ব্যবহার করা হতো বলে ধারণা করা হচ্ছে।

ইউনিভার্সিটি অব ওয়েস্টার্ন অস্ট্রেলিয়ার গবেষকরা গত বছর জুড়ে এ নিয়ে বিস্তর অনুসন্ধান চালিয়েছেন। এর মধ্যে ছিল হেলিকপ্টার দিয়ে আকাশ থেকে পরিচালিত জরিপ, স্থল জরিপ এবং খনন। এছাড়া স্যাটেলাইট চিত্রও পরীক্ষা হয়েছে।

গত ডিসেম্বরে হোলোসিন জার্নালে প্রকাশিত প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, উত্তর-পশ্চিম আরবের আল-উলা এবং খায়বার কাউন্টি দুটিতে বিশাল দূরত্ব পর্যন্ত বিস্তৃত এ মহাসড়ক। এটি মূলত অন্ত্যেষ্টিক্রিয়ার পথ, অর্থাৎ শবযাত্রার জন্য ব্যবহৃত হতো বলে ধারণা করা হচ্ছে।

গবেষক ম্যাথিউ ডাল্টন মার্কিন সম্প্রচার মাধ্যম সিএনএনকে বলেন, এই অঞ্চলে বসবাসকারী লোকেরা হাজার হাজার বছর ধরে এই সড়ক সম্পর্কে জানে। কিন্তু আমি মনে করি, আমরা স্যাটেলাইট ইমেজ পাওয়ার আগে পর্যন্ত জানা যায়নি এই প্রত্নস্থানটি কতটা ব্যাপক।

ডাল্টন বলেন, শেষকৃত্যের পথগুলো, যা তিনি হেলিকপ্টার থেকে দেখেছিলেন, শত শত, হয়তো হাজার হাজার কিলোমিটার পর্যন্ত বিস্তৃত ছিল। বর্তমানেও প্রধান সড়কে ভ্রমণকারীরা প্রায়শই একই রুট অনুসরণ করে।

ডাল্টন আরও বলেন, প্রধান রাস্তাগুলোও একই রুট অনুসরণ করে কারণ দুটি স্থানের মধ্যে এটিই সংক্ষিপ্ততম পথ। কিছু ক্ষেত্রে সমাধিগুলো এতো ঘন ঘন স্থাপিত যে আপনি সড়ক ব্যবহারে বাধ্য হবেন।

গবেষক মেলিসা কেনেডি সিএনএনকে বলেন, সমাধিগুলো ৪ হাজার ৫০০ বছর পুরোনো। এগুলো এখনও যে তাদের আসল উচ্চতায় দাঁড়িয়ে আছে, সেটি সত্যিই অবাক করার মতো। আমি মনে করি, এটিই বিশেষ করে সৌদি আরবকে বাকি অঞ্চল থেকে আলাদা করে। এগুলো যেভাবে সংরক্ষিত হয়েছে সেটি অবিশ্বাস্য!

কেনেডির বিশ্বাস, এককভাবে বা ছোট ছোট গ্রুপকে এখানে সমাহিত করা হতো। অন্ত্যেষ্টিক্রিয়ার পথ বরাবর প্রায় ১৮ হাজার সমাধি চিহ্নিত করেছেন তাঁরা। এর মধ্যে নমুনা হিসেবে খননের জন্য ৮০টিকে বেছে নেওয়া হয়েছে।

গবেষকরা মনে করছেন, সমাধিগুলোর অনেক আগে থেকেই রাস্তাটি ছিল। তবে তাঁরা এখনও নিশ্চিত নন, কেন সমাধিগুলো সড়ক বরাবর তৈরি করা হয়েছিল। যদিও পরবর্তীতে গ্রিস এবং রোমে জমির মালিকানার সঙ্গে সম্পর্কিত একই ধরনের প্রথার দিকে ইঙ্গিত করেছেন কেনেডি।

কেনেডি বলেন, সম্ভবত মালিকানা বোঝানোর একটি উপায় হিসেবে সমাধিগুলো নির্মিত হয়েছে। কারণ আপনি আপনার প্রিয়জনকে আপনার চলাচলের রাস্তার পাশেই সমাধিস্থ করবেন, যাতে প্রায়শই তাঁদের কবর অতিক্রম করেন এবং তাঁদের কথা আপনার স্মরণ হয়।

প্রত্নতাত্ত্বিক দলটির জন্য পরবর্তী পদক্ষেপ হবে আরও রেডিওকার্বন ডেটিং করা এবং ডেটা বিশ্লেষণ করা। ডাল্টন বলছেন, সড়কগুলো ইয়েমেন পর্যন্ত প্রসারিত হতে পারে। কারণ ইয়েমেন এবং উত্তর সিরিয়ায় একই ধরনের সমাধি দেখতে পাওয়া যায়।

কেনেডি বলছেন, তৃতীয় সহস্রাব্দ একটি গুরুত্বপূর্ণ সময়কাল। কারণ এই সময়টাতেই মিশরের পিরামিড নির্মিত হয়। এখানে অনেকগুলো ভিন্ন সংস্কৃতির যোগাযোগ ঘটেছে। ফলে এই সময়কালে সৌদি আরবে অন্ত্যেষ্টিক্রিয়ার নিদর্শনটি নতুন গবেষণার পথে খুলে দিতে পারে।


আরও খবর



শাবিপ্রবি উপাচার্যের বাসভবন ঘেরাও, বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন

প্রকাশিত:রবিবার ২৩ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ২৩ জানুয়ারী ২০২২ | ৩৩০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

এবার শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (শাবিপ্রবি) উপাচার্য অধ্যাপক ফরিদ উদ্দিন আহমেদের বাসভবনের বিদ্যুৎসংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দিয়েছেন তার পদত্যাগের দাবিতে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা। রোববার (২৩ জানুয়ারি) সন্ধ্যা ৭টা ৪৫ মিনিটের দিকে সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেন শিক্ষার্থীরা। আন্দোলনরত শিক্ষার্থী সাদিয়া আফরিন গণমাধ্যমকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

এদিন বিকেল থেকে শিক্ষার্থীরা উপাচার্যের বাসভবন ঘেরাও করে রেখেছেন আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা। এ সময় তারা ঘোষণা দেন, আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী ছাড়া উপাচার্যের বাসভবনের ভেতরে কাউকে ঢুকতে দেওয়া হবে না।

আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা বলেন, আমাদের বাধ্য করা হচ্ছে আরও কঠোর কর্মসূচির দিকে যেতে। উপাচার্যের বাসভবনে কেবল পুলিশ ছাড়া আর কেউ ঢুকতে পারবে না। ভবিষ্যতে তারা বাসভবনের জরুরি পরিষেবা বন্ধ করতে বাধ্য হবেন বলেও হুঁশিয়ারি দেন।

নাফিজা আনজুম নামে এক শিক্ষার্থী বলেন, আমরা উপাচার্যের বাসভবনের ভেতরে কাউকে ঢুকতে দেব না। আমরা এখানে বসে অনশন করছি, আর সবাই গিয়ে উপাচার্যের সঙ্গে দেখা করবেন, সেটা হয় না। এ কারণে এই কর্মসূচির ঘোষণা করা হয়েছে।

উপাচার্যের পদত্যাগের দাবিতে গত বুধবার (১৯ জানুয়ারি) দুপুর থেকে ২৪ শিক্ষার্থী আমরণ অনশন শুরু করেন। এর মধ্যে এক অনশনকারীর পরিবারের সদস্য হৃদ্‌রোগে আক্রান্ত হওয়ায় বাড়ি ফিরে গেছেন।

গত ১৩ জানুয়ারি থেকে আন্দোলনের সূত্রপাত হয়। ওই দিন রাতে বেগম সিরাজুন্নেসা চৌধুরী হলের প্রাধ্যক্ষ জাফরিন আহমেদের বিরুদ্ধে অসদাচরণের অভিযোগ তুলে তার পদত্যাগসহ তিন দফা দাবিতে আন্দোলন শুরু করেন হলের কয়েক শ ছাত্রী। এরপর ১৫ জানুয়ারি সন্ধ্যার দিকে ছাত্রলীগ হলের আন্দোলনরত ছাত্রীদের ওপর হামলা চালায়। পর দিন বিকেলে শিক্ষার্থীরা বিশ্ববিদ্যালয়ের আইসিটি ভবনে উপাচার্যকে অবরুদ্ধ করেন। তখন পুলিশ শিক্ষার্থীদের লাঠিপেটা ও তাদের লক্ষ্য করে শটগানের গুলি ও সাউন্ড গ্রেনেড ছোড়ে।

ওই দিন রাত সাড়ে আটটার দিকে বিশ্ববিদ্যালয় অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ ও শিক্ষার্থীদের হল ছাড়ার ঘোষণা দিলেও শিক্ষার্থীরা তা উপেক্ষা করে উপাচার্যের পদত্যাগ চেয়ে আন্দোলন চালিয়ে যান। এরপর ১৯ জানুয়ারি বেলা ৩টা থেকে উপাচার্যের পদত্যাগের দাবিতে আমরণ অনশন শুরু করেন শিক্ষার্থীরা।

বর্তমানে দাবি আদায়ে অনশনে করছেন ২৮ জন শিক্ষার্থী। তাদের মধ্যে ১৫ জন অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। বাকি ১৩ জন উপাচার্যের বাসভবনের সামনে অনশন করছেন।


আরও খবর



প্রাথমিক স্কুলেও নতুন শপথ পাঠের নির্দেশ

প্রকাশিত:শুক্রবার ১৪ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ১৪ জানুয়ারী ২০২২ | ৩২০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

স্কুল-কলেজ ও মাদ্রাসার মতো প্রাথমিক বিদ্যালয়েও নতুন শপথ পাঠ করার বিষয়ে দিকনির্দেশনা দিয়েছে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর। গতকাল বৃহস্পতিবার প্রতিষ্ঠানটির এক আদেশে জেলা ও উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা ও বিভাগীয় উপপরিচালকদের প্রাথমিক বিদ্যালয়ে প্রতিদিনের সমাবেশে জাতীয় সংগীতের পর নতুন শপথ পাঠ করানোর নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

নতুন শপথে বলা হয়েছে, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে পাকিস্তানি শাসকদের শোষণ ও বঞ্চনার বিরুদ্ধে এক রক্তক্ষয়ী মুক্তিসংগ্রামের মধ্য দিয়ে বাংলাদেশ স্বাধীনতা অর্জন করেছে। বিশ্বের বুকে বাঙালি জাতি প্রতিষ্ঠা করেছে তার স্বতন্ত্র জাতিসত্তা। আমি দৃপ্ত কণ্ঠে শপথ করছি যে, শহীদদের রক্ত বৃথা যেতে দেব না। দেশকে ভালোবাসব, দেশের মানুষের সার্বিক কল্যাণে সর্বশক্তি নিয়োগ করব। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবের আদর্শে উন্নত, সমৃদ্ধ ও অসাম্প্রদায়িক চেতনার সোনার বাংলা গড়ে তুলব। মহান সৃষ্টিকর্তা আমাকে শক্তি দিন।

এর আগে ৩০ ডিসেম্বর দেশের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে শিক্ষার্থীদের এই শপথ পাঠ করার বিষয়ে দিকনির্দেশনা দেয় শিক্ষা মন্ত্রণালয়। ওইদিন শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের উপসচিব আলমগীর হুসাইনের সই করা অফিস আদেশে বলা হয়, সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের প্রতিদিনের সমাবেশে জাতীয় সংগীত পরিবেশনের পর নতুন শপথ পাঠ করতে হবে। ইংরেজি ও বিদেশি মাধ্যমের স্কুল-কলেজগুলোকেও মানতে হবে এ নির্দেশনা।

নিউজ ট্যাগ: শপথ পাঠ

আরও খবর



স্বাস্থ্যবিধি অমান্যকারীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশ

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২০ জানুয়ারী ২০22 | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২০ জানুয়ারী ২০22 | ৩১০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

যারা স্বাস্থ্যবিধি মানবে না তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য জেলা প্রশাসকদের (ডিসি) নির্দেশ দেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক। আজ বৃহস্পতিবার (২০ জানুয়ারি) রাজধানীর ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে জেলা প্রশাসক সম্মেলনের তৃতীয় দিনে একটি অধিবেশন শেষে সাংবাদিকদের তিনি এ তথ্য জানান।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, গতকাল সাড়ে ৯ হাজার করোনা আক্রান্ত হয়েছে এবং ১২ জন মারা গেছেন। আমরা খুবই আতঙ্কিত না হলেও এটা আশঙ্কাজনক ও চিন্তার কারণ। আমরা জেলা প্রশাসকদের বলেছি, গতবার করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ে বা প্রথমে যেভাবে সহযোগিতা করেছেন এবারও সেভাবে সহযোগিতা আশা করছি। আপনারা (ডিসি) একটি জেলা পর্যায়ে কমিটির সভাপতিত্ব করেন। সেখানে সবাইকে নিয়ে কাজ করবেন। আমাদের স্থানীয় যারা জনপ্রতিনিধি আছেন তাদের নিয়েও কাজ করবেন।

জাহিদ মালেক বলেন, আমরা আগের তুলনায় অনেক ভালো অবস্থায় আছি। আমাদের অক্সিজেনের অভাব নেই। প্রায় ১৩০টি হাসপাতালে সেন্ট্রাল অক্সিজেন লাইন স্থাপন করা হয়েছে। আমাদের বেড রয়েছে ২০ হাজার। ৪০ হাজার নতুন লোক নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। ১৫ হাজার ডাক্তার রয়েছে। ২০ হাজার নার্স ও টেকনিশিয়ান রয়েছে। দেশে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় তা নিয়ন্ত্রণে নতুন করে পাঁচ পরামর্শ দিয়েছে কোভিড-১৯ সংক্রান্ত জাতীয় কারিগরি পরামর্শক কমিটি।

কমিটি বলেছে, করোনা পজিটিভ রোগী লক্ষণ প্রকাশের ১০ দিন পর্যন্ত আইসোলেশনে থাকবেন। রোগীর সংস্পর্শে এসেছেন এমন ব্যক্তির উপসর্গ না থাকলে আইসোলেশনের প্রয়োজন নেই।


আরও খবর



সলঙ্গায় কবরস্থান থেকে ১৬ কঙ্কাল চুরি

প্রকাশিত:বুধবার ১৯ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:বুধবার ১৯ জানুয়ারী ২০২২ | ৪০০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়ায় কবরস্থান থেকে ১৬ কঙ্কাল চুরির ঘটনা ঘটেছে।উপজেলার সলঙ্গা ইউনিয়নের নাইমুড়ি গ্রামে রুয়াপাড়া কবরস্থানে এ ঘটনা ঘটে।

সোমবার (১৭ জানুয়ারি) বিকেলে নাইমুড়ী গ্রামের মৃত বদিউজ্জামান তালুকদারের স্ত্রী মরহুমা হালিমা খাতুনের (৭৬) মরদেহ দাফন করতে গিয়ে বিষয়টি জানা যায়।

গ্রামবাসী জানান, নাইমুড়ি গ্রামের মৃত বদিউজ্জামানের স্ত্রী মরহুমা হালিমা খাতুনকে দাফন করতে গিয়ে দেখা যায় ১৬টি কবর খনন করা। সন্দেহ হলে একটা কবর খনন করে দেখা যায় সেখানে কঙ্কাল নেই। এরপর বাকি ১৫ কবর খুঁড়লে কোনোটিতেই কঙ্কাল পাওয়া যায়নি।

এ বিষয়ে নাউমুড়ী রুয়াপাড়া সম্মিলিত কবরস্থান কমিটির সভাপতি আব্দুল মান্নান তালুকদার বলেন, বিষয়টি অত্যান্ত দুঃখজনক। পরবর্তীতে এ ধরনের ঘটনা আর যাতে না ঘটে সেজন্য কমিটির পক্ষ থেকে কঠোর নজরদারির ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এ বিষয়ে সলঙ্গা সলঙ্গা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ও নাইমুড়ি গ্রামের বাসিন্দা আকমল হোসেন বাদশা বলেন, এমন ঘটনায় আমরা মর্মাহত। বিষয়টি প্রশাসনকে অবহিত করেছি। চোর চক্রকে ধরতে কবরস্থানে পাহারার ব্যবস্থা করা হয়েছে।

তবে এ ব্যাপারে সলঙ্গা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুল কাদের জিলানীকে একাধিকবার ফোন করলে তিনি ফোন রিসিভ করেননি।

নিউজ ট্যাগ: কঙ্কাল চুরি

আরও খবর