আজঃ সোমবার ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
শিরোনাম

শেখ হাসিনার সঙ্গে বৈঠকে জাপার ৩ নেতা

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৫ ডিসেম্বর ২০২৩ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ০৫ ডিসেম্বর ২০২৩ | অনলাইন সংস্করণ
জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক

Image

দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আসন বণ্টনের আলোচনার মধ্যে আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে বৈঠকে বসেছেন জাতীয় পার্টির (জাপা) নেতারা। আজ সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় গণভবনে যান জাপার তিন নেতা।

জাপার একটি সূত্র এ তথ্য নিশ্চিত করেছে। সূত্রটি জানায়, জাপা চেয়ারম্যান গোলাম মোহাম্মদ (জি এম) কাদের, কো-চেয়ারম্যান ব্যারিস্টার আনিসুল ইসলাম মাহমুদ ও মহাসচিব মুজিবুল হক চুন্নু গণভবনে গেছেন।

গত ২৭ নভেম্বর দলীয় প্রার্থীদের নাম প্রকাশ করছে জাতীয় পার্টি (জাপা)। ৩০০ আসনের মধ্যে ২৮৭টি আসনে প্রার্থীর নাম ঘোষণা করে দলটি।

আরও পড়ুন>> জি এম কাদেরের সম্পদ বেড়েছে তিন গুণ, স্ত্রীর দ্বিগুণ

অন্যদিকে, গত ২৬ নভেম্বর দলীয় প্রার্থীদের নাম ঘোষণা করেছে আওয়ামী লীগ। দলের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউয়ে কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে নৌকা প্রতীকের প্রার্থীদের নাম ঘোষণা করেন।

ওবায়দুল কাদের ২৯৮ আসনে আওয়ামী লীগের প্রার্থীদের নাম ঘোষণা করেছেন। নারায়ণগঞ্জ-৫ ও কুষ্টিয়া-২ আসনের প্রার্থীর নাম ঘোষণা করেননি তিনি। নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনে বর্তমান সংসদ সদস্য জাপার এ কে এম সেলিম ওসমান, কুষ্টিয়া-২ আসনের সংসদ সদস্য জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল-জাসদের সভাপতি হাসানুল হক ইনু।


আরও খবর
জানুয়ারিতে সড়ক দুর্ঘটনায় ৪৮৬ মৃত্যু

রবিবার ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




মিয়ানমারের সংঘাত: সীমান্তে এক দিনে ৫ বাংলাদেশি গুলিবিদ্ধ

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ০৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক

Image

মিয়ানমার থেকে আসা গুলিতে মঙ্গলবার (৬ ফেব্রুয়ারি) পাঁচ বাংলাদেশি আহত হয়েছেন। এর মধ্যে কক্সবাজারের উখিয়ার পালংখালী ও থাইংখালী এলাকায় চারজন এবং বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ির ঘুমধুম সীমান্তে একজন গুলিবিদ্ধ হয়েছেন।

কক্সবাজারের আহতরা হলেন, পালংখালী ইউনিয়নের নলবনিয়া এলাকার আয়ুবুল ইসলাম, রহমতেরবিল এলাকার আনোয়ার হোসেন, পুটিবনিয়া এলাকার মোবারক হোসেন ও মো. কালা। পালংখালী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান গফুর উদ্দিন চৌধুরী বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, মঙ্গলবার সকাল থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত চারজন গুলিবিদ্ধ হয়ে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন। তাদের মধ্যে আনোয়ার হোসেন ও মোবারকের অবস্থা গুরুতর। এখনো গুলিবর্ষণের শব্দ শুনা যাচ্ছে। 

আরও পড়ুন>> একজন রোহিঙ্গাকেও ঢুকতে দেবো না : বিজিবির ডিজি

এদিকে মঙ্গলবার বিকেল ৩টায় বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ির ঘুমধুম সীমান্তে মিয়ানমার থেকে আসা গুলিতে সৈয়দ আলম (৩৫) নামের এক বাংলাদেশি আহত হন। গোলাগুলির কারণে নিজ বাড়ি ছেড়ে আশ্রয়কেন্দ্রে যাওয়ার পথে মিয়ানমার থেকে ছোড়া গুলি প্রথমে গাছে লাগার পর সৈয়দ আলমের কপালের পাশ দিয়ে চলে যায়। এতে গুরুতর আহত হলে তাকে স্থানীয় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

এ দিকে আরাকান আর্মির আক্রমণের মুখে এ পর্যন্ত বিজিপি ও অন্যান্য বাহিনীর ২৬৪ জন বাংলাদেশে পালিয়ে আশ্রয় নিয়েছেন। তারা বর্ডার গার্ড বাংলাদেশের (বিজিবি) হেফাজতে রয়েছেন।

কক্সবাজারের জেলা প্রশাসক মুহম্মদ শাহিন ইমরান জানান, মিয়ানমারে সংঘাত বেড়েছে। মিয়ানমার থেকে ছোড়া গুলি, মর্টারশেল এসে পড়ছে সীমান্তের এপারে। সীমান্তের ঝুঁকিপূর্ণ বাসিন্দাদের নিরাপদে সরিয়ে নেওয়ার নির্দেশনা রয়েছে। প্রাথমিক অবস্থায় ঘুমধুম ও তুমব্রু সীমান্তের মানুষকে নিরাপদে আশ্রয়ে যেতে বলা হয়েছে। এর আগে গতকাল সোমবার বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার ঘুমধুম ইউনিয়নের জলপাইতলী গ্রামের একটি রান্নাঘরে মিয়ানমার থেকে ছোড়া মর্টারশেলের আঘাতে দুইজন নিহত হয়েছেন। নিহত দুইজনের মধ্যে একজন বাংলাদেশি নারী, অন্যজন রোহিঙ্গা পুরুষ।


আরও খবর



কৃত্রিম সংকট সৃষ্টি করে পণ্যের দাম বাড়ালে প্রতিষ্ঠান সিলগালা করা হবে: খাদ্যমন্ত্রী

প্রকাশিত:রবিবার ০৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:রবিবার ০৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
শেরপুর (বগুড়া) প্রতিনিধি

Image

খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার বলেছেন অবৈধভাবে খাদ্য পণ্য মজুদ করে খাদ্যের কৃত্রিম সংকট সৃষ্টি করে পণ্যের দাম বাড়ালে প্রতিষ্ঠান সিলগালা করা হবে। ভরা মৌসুমেও খাদ্যপণ্যের দাম কেন বৃদ্ধি পেল সেটি খতিয়ে দেখতেই মাঠে মাঠে ঘুরে বেড়াচ্ছি।

আজ রবিবার (৪ ফেব্রুয়ারি) বিকেল ৫ টায় বগুড়ার শেরপুরের শেরুয়া বটতলা এলাকায় ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করার সময় তিনি এই সব কথা বলেন।

খাদ্যমন্ত্রী আরও বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশের মানুষের কল্যাণে সব সময় কাজ করে যাচ্ছেন। এ দেশের মানুষ যেন সব সময় সঠিক দামে খাদ্যপণ্য পায় সে বিষয়ে তিনি বদ্ধ পরিকর। 

এ সময় অবৈধভাবে পণ্য মজুদ ও নিবন্ধন না থাকায় তুষি সেমি অটো রাইস মিল সিলগালা করার নির্দেশ দেন খাদ্যমন্ত্রী।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন, খাদ্য মন্ত্রণালয়ের প্রশাসন অনুবিভাগের অতিরিক্ত সচিব প্রদীপ কুমার দাস, প্রশাসন-২ অধিশাখার(অতিরিক্ত দায়িত্ব) যুগ্ম সচিব কে এম মামুনুর রশিদ, খাদ্য অধিদপ্তরের মহা পরিচালক আব্দুল্লাহ আল মামুন, অতিরিক্ত মহা পরিচালক মোহাম্মদ ইমদাদুল হক, বগুড়ার অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) মোছা. আফসানা ইয়াসমিন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার শেরপুর সার্কেল মো. সজিব শাহরিন, জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক কাজী সাইফুদ্দিন, শেরপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. সুমন জিহাদী, উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) এস এম রেজাউল করিম, শেরপুর থানার অফিসার ইনচার্জ মো. রেজাউল করিম রেজা, উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক মো. মামুন এ কাইয়ুম। এছাড়াও ভ্রাম্যমাণ আদালতকে র‌্যাব বগুড়া ও শেরপুর থানা পুলিশের সদস্য সহযোগিতা করেন।

এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. সুমন জিহাদী বলেন, কেউ অবৈধভাবে খাদ্যপণ্য মজুদ করতে পারবে না। নিবন্ধন না থাকলেতো নয়ই। জনস্বার্থে এ ধরনের অভিযান অব্যাহত থাকবে।


আরও খবর



নেতানিয়াহুকে ক্ষমতা থেকে সরে যেতে হবে: হিলারি ক্লিনটন

প্রকাশিত:শুক্রবার ০৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
আন্তর্জাতিক ডেস্ক

Image

ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু ফিলিস্তিনের স্বাধীনতাকামী গোষ্ঠী হামাসের যুদ্ধবিরতির শর্ত প্রত্যাখ্যান করেছেন। কয়েক মাসের মধ্যে গাজায় পূর্ণ বিজয় আসতে যাচ্ছে বলে দাবি করেছেন তিনি। তবে যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্টনি ব্লিংকেন বলেছেন, একটি সফল যুদ্ধবিরতি নিয়ে আলোচনার পথ এখনও খোলা রয়েছে। এদিকে নেতানিয়াহু বিশ্বাসযোগ্য নেতা নন বলে মন্তব্য করেছেন সাবেক মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ও ফার্স্ট লেডি হিলারি ক্লিনটন। তিনি বলেন, নেতানিয়াহুর উচিত ক্ষমতা ছেড়ে দেওয়া।

ইসরায়েল সমর্থিত একটি যুদ্ধবিরতি প্রস্তাবের জবাবে হামাস বেশ কয়েকটি দাবিসহ সাড়ে চার মাস স্থায়ী একটি যুদ্ধবিরতির প্রস্তাব দেয়। বুধবার এক সংবাদ সম্মেলনে তা নিয়ে কথা বলার সময় নেতানিয়াহু হামাসের প্রস্তাবকে বিভ্রান্তিকর বলে বর্ণনা করেন। হামাসের প্রস্তাবগুলোকে উদ্ভট আখ্যায়িত করে নেতানিয়াহু বলেন, ফিলিস্তিনের এই গোষ্ঠীটির সঙ্গে আলোচনা এগোচ্ছে না। তবে যুদ্ধবিরতি নিয়ে কোনো একটি চুক্তিতে পৌঁছাতে যুক্তরাষ্ট্র, মিসর ও কাতারের মধ্যস্থতাকারীরা আলোচনা চালিয়ে যাচ্ছেন।

বিবিসি বলছে, হামাসের পাল্টা প্রস্তাবে ইসরায়েল প্রতিক্রিয়া দেখাবে, এটা প্রত্যাশিতই ছিল। কিন্তু নেতানিয়াহু যা বলেছেন, তা সরাসরি তিরস্কার।

এদিকে হিলারি ক্লিনটন বলেন, নেতানিয়াহুর উচিত ক্ষমতা ছেড়ে দেওয়া। বুধবার নেতানিয়াহুর সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের সম্পর্ক নিয়ে জিজ্ঞাসা করা হলে এসব কথা বলেন তিনি।

হিলারি বলেন, আমি মনে করি, বাইডেন তাঁর অবস্থান থেকে যা করতে পারতেন, তার সবকিছুই করেছেন। ৭ অক্টোবরের পর ইসরায়েলি জনগণের বৈধ উদ্বেগের প্রতিক্রিয়া ও মিত্র হিসেবে ইসরায়েলের জন্য যা যা করার তা করেছেন। একটি সন্ত্রাসী সংগঠনের হামলার মুখে তিনি ইসরায়েলের সঙ্গেই ছিলেন। তাঁর চোখের সামনেই হামলার ঘটনা ঘটেছে। নেতানিয়াহুকে ক্ষমতা ছাড়তে হবে। তিনি বিশ্বাসযোগ্য নেতা নন। তাঁকে সরে যেতে হবে। নেতানিয়াহু যদি যুদ্ধবিরতিতে বাধা হয়ে থাকেন এবং পরবর্তী পদক্ষেপের ক্ষেত্রেও যদি তিনি বাধা হন, তা হলে অবশ্যই তাঁকে সরে যেতে হবে। খবর রয়টার্স ও বিবিসির।


আরও খবর



শীতের রাতে রাজধানীতে হঠাৎ বৃষ্টি

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ০১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

রাজধানীতে হঠাৎ করেই মাঝরাতে নেমেছে বৃষ্টি। যদিও বৃষ্টির স্থায়িত্ব কম সময় ছিল, তবুও তীব্র শীতে চরম কষ্টে পড়েছে ছিন্নমূল মানুষরা। যাদের রাতযাপনের ঠিকানা ফুটপাত বা যাত্রী ছাউনি, সবচেয়ে বেশি ভোগান্তিতে পড়েছেন তারা।

বৃহস্পতিবার (১ ফেব্রুয়ারি) রাত ১টার দিকে রাজধানীর হাইকোর্ট, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, ঢাকা মেডিকেল কলেজ এলাকায় এসব মানুষের কষ্ট আর দুর্ভোগের চিত্র দেখা গেছে।

বৃষ্টিতে ফুটপাত ভিজে যাওয়ায় কষ্ট করে থাকতে হচ্ছে তাদের। অনেককেই পলিথিন টানিয়ে বৃষ্টির পানি থেকে নিজেকে রক্ষা করতে দেখা গেছে। যাদের পলিথিনও নেই তাদের কাপড়-চোপড়সহ যাত্রী ছাউনি, ভবনের দেয়ালের পাশে আশ্রয় নিতে দেখা গেছে। কাউকে আবার দেখা গেছে বৃষ্টি থেমে যাওয়ার পর ভেজা কাপড় দিয়ে কোনো রকমে ঘুমানোর প্রস্তুতি নিতে।

রাস্তার পাশে থাকা এসব ছিন্নমূল মানুষ বলছেন, শীত নিবারণের যথেষ্ট কাপড় না থাকা সত্ত্বেও তারা কোনো রকমে রাস্তার পাশে ঘুমিয়ে রাত কাটাতেন। এখন বৃষ্টি নামার কারণে ঘুমানোর জায়গাটুকুও ভিজে গেছে।

ঢাকা মেডিকেল এলাকায় থাকা কাকলী পারভিন বলেন, আমরা গরিব মানুষ। কী আর করমু? ঝড়-বৃষ্টি হলেও রাস্তায় রাত কাটে। আমাদের শীত-বৃষ্টি নাই। ঘুমায়ে গেছিলাম। বৃষ্টি আসার পর টের পাইছি। খ্যাতা-কম্বল গুটায়ে বসে আছি। রাইতটা কষ্টে যাইবো।

একই এলাকায় থাকা সুরাব নামের আরেকজন বলেন, সারাদিন কাম করি। রাত হলে এইহানে আইসা ঘুমাই। এতদিন আর বৃষ্টি হয় নাই। কষ্ট কইরা থাকছি। আইজ বৃষ্টি নামলো। এহন কষ্ট আরও বাড়বো।

ছিন্নমূল এসব মানুষের পাশাপাশি ভোগান্তিতে পড়েছেন অনেক রিকশাচালকও। কয়েকজন চালককে পলিথিন দিয়ে মুড়িয়ে রিকশায় ঘুমাতে দেখা গেছে ওই এলাকায়।


আরও খবর
খারাপ হয়েছে ঢাকার বায়ু

শনিবার ২৪ ফেব্রুয়ারী 20২৪




মেয়ের ছবিতে প্রতি মিনিটে রজনীকান্তের পারিশ্রমিক এক কোটি

প্রকাশিত:শুক্রবার ০৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
বিনোদন ডেস্ক

Image

বর্ষীয়ান দক্ষিণী সুপারস্টার রজনীকান্ত এবার নতুন রূপে পর্দায় ফিরছেন। মেয়ে ঐশ্বর্যা রজনীকান্তের পরিচালনায় লাল সালাম ছবিতে একটি গুরুত্বপূর্ণ চরিত্রে দেখা যাবে থালাইভাকে। রজনীকান্তকে বড় পর্দায় দেখার জন্য মুখিয়ে থাকেন অনুরাগীরা। গত বছরের মাঝামাঝি সময় থেকেই শুরু হয়েছিল এই ছবির শুটিং। ছবির প্রচার ঝলকেই প্রশংসা কুড়িয়ে নিয়েছে এই ছবি। আর যে সিনেমার সঙ্গে রজনীকান্তের নাম জড়িয়ে, সেই সিনেমা দর্শকের মনে প্রথম থেকেই একটা স্বাভাবিক উৎসাহ তৈরি করে। ১৬৩ মিনিটের এই ছবিতে রজনীকান্ত পর্দায় থাকবেন ৩০-৪০ মিনিট মতো। মেয়ের সিনেমা হলেও পারিশ্রমিক নিয়ে কোনও আপস করেননি রজনীকান্ত। প্রতি মিনিট শুটিংয়ের জন্য ১ কোটি টাকা পারিশ্রমিক নিয়েছেন তিনি।

রজনীকান্তের পারিশ্রমিক যে আকাশছোঁয়া হবে, তা অজানা নয়। দক্ষিণী সিনেমা ইন্ডাস্ট্রিকে বিশ্বের দরবারে তুলে আনার নেপথ্যে রজনীকান্তের অবদান অনস্বীকার্য। বিগত পাঁচ দশক ধরে দর্শকের মনোরঞ্জন করে আসছেন তিনি। দক্ষিণ ভারতের বিনোদন জগতের উজ্জ্বল নক্ষত্র তিনি। তার মতো জনপ্রিয় অভিনেতা পর্দায় থাকা মানেই ছবি হিট, তা ধরে নেওয়া যেতে পারে। ফলে তাকে অভিনেতা হিসাবে পেতে গেলে যে ছবি নির্মাতাদের বাজেট বৃদ্ধি করতে হবে, সেটা স্বাভাবিক।

লাল সালাম ছবিতেও একটি ক্যামিয়ো চরিত্রে অভিনয় করেছেন তিনি। তবে পর্দায় তার উপস্থিতির সময় কম হলেও এই ছবি থেকে রজনীকান্ত মোট ৪০ কোটি টাকা পারিশ্রমিক পেয়েছেন। এই ছবির সঙ্গীত পরিচালনার দায়িত্ব রয়েছেন এ আর রহমান। লাল সালাম সিনেমার একটি গান থিমিরি ইয়েজুদা ইতোমধ্যেই মুক্তি পেয়েছে। সেই গান কোনও জীবিত শিল্পীকে দিয়ে গাওয়াননি তিনি। কৃত্রিম মেধা প্রযুক্তির মাধ্যমে (এআই) প্রয়াত দুই শিল্পী বাম্বা বাক্য ও শাহুল হামিদের গলার স্বর তৈরি করে গান গাইয়েছেন। এই ঘটনা আলোড়ন ফেলেছিল সঙ্গীত জগতে। লাল সালাম মুক্তির আগেই চর্চা শুরু হয়েছিল এই ছবি নিয়ে। লাল সালাম মূলত একটি স্পোর্টস ড্রামা।


আরও খবর
ভারতীয় পরিচালক কুমার সাহানি আর নেই

রবিবার ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪