আজঃ শনিবার ২৯ জানুয়ারী ২০২২
শিরোনাম

সাতছড়িতে মর্টারশেল-গোলাবারুদ উদ্ধার

প্রকাশিত:সোমবার ২৭ ডিসেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:সোমবার ২৭ ডিসেম্বর ২০২১ | ৬৬৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

হবিগঞ্জের সাতছড়ির দুটি গহিন অরণ্যে অভিযান চালিয়ে মর্টারশেল ও গোলাবারুদ উদ্ধার করেছে কাউন্টার টেররিজম ইউনিট। তবে কি পরিমাণে উদ্ধার করা হয়েছে তা ব্রিফিংয়ে জানানো হবে।

কাউন্টার টেররিজম ইউনিটের প্রধান কর্মকর্তা এলে ব্রিফিং করা হবে বলে জানিয়েছেন অভিযানে থাকা সোয়াদ কর্মকর্তা আসাদুজ্জামান। তিনি বলেন, সোমবার ভোর থেকে কাউন্টার টেররিজমের একটি টিম সতর্কতার সঙ্গে সাতছড়ির গহিন অরণ্যে অভিযান চালায়। পরে একটি ব্যাংকার থেকে এসব গোলাবারুদ উদ্ধার করা হয়।

উল্লেখ্য, ২০১৪ সালের ১ জুন থেকে ১৭ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ছয় দফায় অভিযান চালিয়ে সাতছড়ি জাতীয় উদ্যান থেকে ৩৩৪টি কামান বিধ্বংসী রকেট, ২৯৬টি রকেট চার্জার, একটি রকেট লঞ্চার, ১৬টি মেশিনগান এবং প্রায় ১৬ হাজার রাউন্ড বুলেটসহ বিপুল পরিমাণ গোলাবারুদ উদ্ধার করে র‌্যাব।

এরপর একই বছরের ১৬ অক্টোবর থেকে চতুর্থ দফার প্রথম পর্যায়ে উদ্যানের গহিন অরণ্যে মাটি খুঁড়ে ৩টি মেশিনগান, ৪টি ব্যারেল, ৮টি ম্যাগাজিন, ২৫০ গুলির ধারণক্ষমতাসম্পন্ন ৮টি বেল্ট ও উচ্চক্ষমতাসম্পন্ন রেডিও উদ্ধার করা হয়। পরে ১৭ অক্টোবর দুপুরে এসএমজি ও এলএমজির ৮ হাজার ৩৬০ রাউন্ড, রাইফেলের ১৫২ রাউন্ড, পিস্তলের ৫১৭ রাউন্ড, মেশিনগানের ৪২৫ রাউন্ডসহ মোট ৯ হাজার ৪৫৪ রাউন্ড বুলেট উদ্ধার করা হয়।

পঞ্চম দফায় ২০১৮ সালের ২ ফেব্রুয়ারি সাতছড়িতে অভিযান চালিয়ে ১০টি হাই এক্সক্লুসিভ ৪০ এমএম অ্যান্টি-ট্যাংক রকেট উদ্ধার করা হয়। ষষ্ঠ দফায় ২০১৯ সালের ২৪ নভেম্বর সাতছড়ি জাতীয় উদ্যান থেকে ১৩টি রকেট লঞ্চারের শেলসহ বেশ কিছু বিস্ফোরক উদ্ধার করা হয়। গত ২ মার্চ বিজিবি অভিযান চালিয়ে ১৮ ট্যাংক বিধ্বংসী রকেট গোলা উদ্ধার করে।

সর্বশেষ গত ১৩ আগস্ট হবিগঞ্জের চুনারুঘাটের সাতছড়ি জাতীয় উদ্যানসংলগ্ন একটি ব্রিজের পাশ থেকে পরিত্যক্ত অবস্থায় ৯টি একনলা বন্দুক, ৩টি পিস্তল ও ১৯ রাউন্ড গুলি উদ্ধার করেছে বিজিবি।


আরও খবর
হবিগঞ্জে এসপিসহ ৫৪ পুলিশের বিরুদ্ধে মামলা

বৃহস্পতিবার ৩০ ডিসেম্বর ২০২১




চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির নির্বাচনে ভোটগ্রহণ সম্পন্ন

প্রকাশিত:শুক্রবার ২৮ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৮ জানুয়ারী ২০২২ | ১৭৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির নির্বাচনের ভোটগ্রহণ সম্পন্ন হয়েছে। সন্ধ্যা ৬টা ১০ মিনিটে সর্বশেষ ভোট প্রদান করেন অভিনেতা পীরজাদা শহীদুল হারুণ। তিনি এই নির্বাচনের প্রধান কমিশনারের দায়িত্বও পালন করছেন। ভোটগ্রহণ শেষে গণমাধ্যমের কাছে তথ্যটি তিনি নিজেই নিশ্চিত করেন।

পীরজাদা হারুণ বলেন, ৪২৮ জন ভোটারের মধ্যে ৩৬৫ জন ভোট দিয়েছেন। আমরা এতো ভোট আশাও করিনি। করোনার কারণে  সবগুলো সংগঠনকে নিয়ে নির্বাচন করতে আমাকে অনুমতি দেয়নি এফডিসি কর্তৃপক্ষ। এরপরও উৎসবমুখর পরিবেশে ভোটগ্রহণ হয়েছে।

প্রধান নির্বাচন কমিশনার আরও জানান, ২০২২-২৪ মেয়াদের এই নির্বাচনের ভোট গণনা শুরু হবে কিছুক্ষণের মধ্যেই। প্রতি বছরই শিল্পী সমিতির ভোট গণনায় দীর্ঘ সময় লেগে যায়। এর কারণ জানতে চাইলে তিনি জানান, ভোটগুলো বেশ কয়েকটি ভাগে গণনা করতে হয়। এ কারণেই অধিক সময় লাগে।

এবার বাইরে প্রজেক্টরের ব্যবস্থা করা হয়েছে। সেখানে গণমাধ্যম কর্মী থেকে শুরু করে প্রার্থী সবাই ভোট গণনা দেখতে পারবেন। তাই বিষয়টি নিয়ে কার সংশয় থাকবে না বলে আশাব্যক্ত করেছেন পীরজাদা হারুণ।

শুক্রবার (২৮ জানুয়ারি) সকাল সোয়া ৯টায় শুরু হয় শিল্পী সমিতির নির্বাচনের ভোটগ্রহণ। প্রথম ভোটটি দিয়েছিলেন এবারের সভাপতি পদপ্রার্থী ইলিয়াস কাঞ্চন। এরপর একে একে অন্য প্রার্থী ও সাধারণ ভোটাররা ভোট দেন।

শিল্পী সমিতির এই নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছে দুটি প্যানেল। একটি গঠন করেছেন ইলিয়াস কাঞ্চন ও নিপুণ আক্তার। অন্যটিতে আছেন মিশা সওদাগর ও জায়েদ খান। দুটি প্যানেলে রয়েছে একাধিক প্রজন্মের বহু তারকা।


আরও খবর
টাকা দিয়ে ভোট কিনছেন জায়েদ খান : নিপুণ

শুক্রবার ২৮ জানুয়ারী ২০২২




১২ জানুয়ারি বিএনপিকে বঙ্গভবনে আমন্ত্রণ

প্রকাশিত:বুধবার ০৫ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:বুধবার ০৫ জানুয়ারী ২০২২ | ৪৩৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

নির্বাচন কমিশন গঠন বিষয়ে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদের সঙ্গে আলোচনায় অংশ নিতে আগামী ১২ জানুয়ারি বঙ্গভবনে যাওয়ার আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দলকে (বিএনপি)।

বুধবার (০৫ জানুয়ারি) বঙ্গভবন প্রেস উইং এ কথা জানায়।

গত ২০ ডিসেম্বর থেকে পরবর্তী নির্বাচন কমিশন গঠনের জন্য রাজনৈতিক দলগুলোর সঙ্গে সংলাপ করছেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ।

প্রথম দিনে সংসদের বিরোধী দল জাতীয় পার্টির সঙ্গে আলোচনা করেন রাষ্ট্রপতি। এখন পর্যন্ত জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল (জাসদ), তরিকত ফেডারেশন, সাম্যবাদী দল, গণফোরাম, বিকল্পধারাসহ বেশ কয়েকটি রাজনৈতিক দলের সঙ্গে আলোচনা করেছেন তিনি।

সিইসি কে এম নূরুল হুদার নেতৃত্বাধীন বর্তমান নির্বাচন কমিশনের মেয়াদ শেষ হচ্ছে আগামী ১৪ ফেব্রুয়ারি। সার্চ কমিটির মাধ্যমেই প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে এম নূরুল হুদা, নির্বাচন কমিশনার মাহবুব তালুকদার, রফিকুল ইসলাম, কবিতা খানম ও শাহাদাত হোসেন চৌধুরীকে বাছাই করে বর্তমান নির্বাচন কমিশনার গঠন করা হয়।

২০১৭ সালের ১৫ ফেব্রুয়ারি শপথ নিয়েছিলেন বর্তমান নির্বাচন কমিশনাররা। নূরুল হুদার নেতৃত্বাধীন নির্বাচন কমিশনের (ইসি) মেয়াদ আগামী ১৪ ফেব্রুয়ারি শেষ হবে। তার আগেই নতুন ইসি নিয়োগ দিতে হবে রাষ্ট্রপতিকে।


আরও খবর



নারায়ণগঞ্জ সিটি নির্বাচন

ভোট নিয়ে চলছে শেষ মুহূর্তের নানা সমীকরণ

প্রকাশিত:শুক্রবার ১৪ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ১৪ জানুয়ারী ২০২২ | ৪৮০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

আজ শুক্রবার (১৪ জানুয়ারি) মধ্যরাতে শেষ হচ্ছে নারায়ণগঞ্জ সিটি নির্বাচনের প্রচারণা। নির্বাচনের আর মাত্র এক দিন বাকি।  ভোট নিয়ে চলছে শেষ মুহূর্তের নানা সমীকরণ।

এদিকে, ব্যস্ত সময় কাটছে প্রার্থীদের।  শেষ মুহূর্তে অনেকের মধ্যেই উদ্বেগ-উৎকণ্ঠা আর সংশয় কেমন হবে সিটির ভোট? জয়ের জন্য প্রতিনিয়ত নিজেদের মতো করে কৌশল নিয়ে এগোচ্ছেন আওয়ামী লীগ প্রার্থী সেলিনা হায়াৎ আইভী ও স্বতন্ত্র প্রার্থী অ্যাডভোকেট তৈমূর আলম খন্দকার।

তারা ভোটারদের মন জয়ে দিচ্ছেন নানা প্রতিশ্রুতি।  নির্বাচনে মেয়র পদে জয়-পরাজয়ে নিয়ামক বা ফ্যাক্টর কারা হবেন, তা নিয়ে চলছে চুলচেরা বিশ্লেষণ।

নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন নির্বাচন পর্যবেক্ষণ করতে ৯টি সংস্থার ৪২ পর্যবেক্ষককে অনুমতি দিয়েছে নির্বাচন কমিশন। নির্বাচন কমিশনের জনসংযোগ পরিচালক এস এম আসাদুজ্জামান গণমাধ্যমকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তবে পর্যবেক্ষক হিসেবে কাজ করতে নির্বাচন পর্যবেক্ষণ নীতিমালা মানার পাশাপাশি এসব সংস্থাকে ভোট শেষ হওয়ার এক সপ্তাহের মধ্যে প্রতিবেদন দাখিলের শর্ত দিয়েছে নির্বাচন কমিশন।

প্রায় ২০ লাখ মানুষের এ সিটিতে ভোটার ৫ লাখ ১৭ হাজার ৩৫৭ জন। নারী ভোটার-২ লাখ ৫৭ হাজার ৫১৯ আর পুরুষ ভোটার-২ লাখ ৫৯ হাজার ৮৩৪ জন।

 


আরও খবর



৪০তম বিসিএসের ভাইভা স্থগিত

প্রকাশিত:বুধবার ২৬ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:বুধবার ২৬ জানুয়ারী ২০২২ | ২১৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

৪০তম বিসিএসের মৌখিক পরীক্ষা অনিবার্য কারণে স্থগিত করা হয়েছে। বুধবার বাংলাদেশ সরকারি কর্ম কমিশনের (পিএসসি) এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

পিএসসির পরিচালক (ক্যাডার) নেয়ামত উল্যাহ স্বাক্ষরিত বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, আগামী ৩০ জানুয়ারি অনুষ্ঠেয় ৪০তম বিসিএসের মৌখিক পরীক্ষা পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত স্থগিত করা হলো। তবে আগামীকালের পরীক্ষা নেওয়া হবে।

পরবর্তীতে কম সময়ের নোটিশে পরীক্ষার্থীরা যাতে স্থগিত মৌখিক পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে পারে সে জন্য তাদের প্রস্তুত থাকতে বলা হয়েছে।

৪০তম বিসিএসের জন্য ২০১৮ সালের ১১ সেপ্টেম্বর বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে পিএসসি। প্রিলিমিনারি পরীক্ষায় অংশ নিতে চার লাখ ১২ হাজার ৫৩২ জন প্রার্থী আবেদন করলেও পরীক্ষায় অংশ নেন তিন লাখ ২৭ হাজার পরীক্ষার্থী। তাদের মধ্যে প্রিলিমিনারিতে উত্তীর্ণ হন ২০ হাজার ২৭৭ জন। আর লিখিত পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হন ১০ হাজার ৯৬৪ জন।

৪০তম বিসিএসে প্রশাসন ক্যাডারে ২০০, পুলিশে ৭২, পররাষ্ট্রে ২৫, করে ২৪, শুল্ক আবগারিতে ৩২ ও শিক্ষা ক্যাডারে প্রায় ৮০০ জন নিয়োগ দেওয়া হবে। সবমিলিয়ে এক হাজার ৯০৩ জন ক্যাডার নিয়োগ দেওয়া হবে।


আরও খবর



বিদেশে বসে রাষ্ট্রদ্রোহী কর্মকাণ্ডে জড়িতদের পাসপোর্ট বাতিল হবে

প্রকাশিত:বুধবার ১২ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:বুধবার ১২ জানুয়ারী ২০২২ | ৩৬৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

বিদেশে বসে যেসব বাংলাদেশি রাষ্ট্রদ্রোহী কর্মকাণ্ড করছেন, তাঁদের পাসপোর্ট বাতিলের নির্দেশ দিয়েছে একটি মন্ত্রিসভা কমিটি। আজ বুধবার সচিবালয়ে আইনশৃঙ্খলা-সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির সভা থেকে এই নির্দেশ দেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন এই কমিটির সভাপতি ও মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেলহক

সভা শেষে মন্ত্রী সাংবাদিকদের বলেন, বিদেশে বসে অনেক লোক মিথ্যাচার করছে। কোনো ব্যক্তির বিরুদ্ধে বলতে পারে, কিন্তু রাষ্ট্রের বিরুদ্ধেও করছে। এতে রাষ্ট্র ক্ষতিগ্রস্ত হয়। রাষ্ট্রবিরোধী কাজ বিদেশে বসে যারা করছে, তাদের পাসপোর্ট যাতে বাতিল করা হয়, সে জন্য আমরা পরামর্শ দিয়েছি।

বিদেশে বসে যাঁরা রাষ্ট্রদ্রোহী কর্মকাণ্ড করছেন, তাঁদের তালিকা তৈরি করে এসংক্রান্ত তথ্য-উপাত্ত সংগ্রহ করে তা পরীক্ষার করার নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে বলে জানান মোজাম্মেল হক। তিনি বলেন, তারা কী কী করছেন, এর মধ্যে রাষ্ট্রবিরোধী কী কাজ করল, সেগুলো পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে যদি দেখা যায় তারা সক্রিয়ভাবে, অব্যাহতভাবে এই কাজ করে যাচ্ছেন, তাহলে তাদের পাসপোর্ট বাতিলের জন্য উদ্যোগ নেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

রাষ্ট্রদ্রোহিতাকে কীভাবে সংজ্ঞায়িত করা হবে, সেই প্রশ্নে মন্ত্রী বলেন, দেশদ্রোহী ও দেশের স্বার্থবিরোধী কোনটা সেই সংজ্ঞা আইনে আছে। রাষ্ট্রের স্বার্থ পরিপন্থি কোনগুলো এ বিষয়ে সংবিধান ও সিআরপিসিতে যা বলা আছে, সেটা মেনেই করা হবে। নতুনভাবে কোনো কিছু সংজ্ঞায়িত করা হবে না।


আরও খবর