আজঃ বৃহস্পতিবার ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
শিরোনাম

সাত দলের জোট ‘গণতন্ত্র মঞ্চ’র আত্মপ্রকাশ

প্রকাশিত:সোমবার ০৮ আগস্ট ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ০৮ আগস্ট ২০২২ | অনলাইন সংস্করণ
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

সাতটি রাজনৈতিক দলের সমন্বয়ে গঠিত জোট গণতন্ত্র মঞ্চ-এর আনুষ্ঠানিক আত্মপ্রকাশ ঘটেছে। সোমবার (৮ আগস্ট) ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির নসরুল হামিদ মিলনাতয়নে জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল- জেএসডির সভাপতি আ স ম আবদুর রবের সভাপতিত্বে মঞ্চের আত্মপ্রকাশের ঘটে।

ভবিষ্যতে কারও স্বৈরতন্ত্রী বা ফ্যাসিবাদী হয়ে ওঠা প্রতিরোধে এবং নতুন এক গণতান্ত্রিক বন্দোবস্ত প্রতিষ্ঠায় সাংবিধানিক ও শাসনতান্ত্রিক সংস্কার করতেই এই গণতন্ত্র মঞ্চের আত্মপ্রকাশ বলে জানিয়েছেন মঞ্চের সংশ্লিষ্টজনেরা।

গণতন্ত্র মঞ্চের সাতটি দল হলো- আ স ম আবদুর রবের নেতৃত্বে জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল-জেএসডি, মাহমুদুর রহমান মান্নার নেতৃত্বে নাগরিক ঐক্য, সাইফুল হকের নেতৃত্বে বাংলাদেশের বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টি, জোনায়েদ সাকির নেতৃত্বে গণসংহতি আন্দোলন, ড. রেজা কিবরিয়ার নেতৃত্বে গণ অধিকার পরিষদ, রফিকুল ইসলাম বাবলুর নেতৃত্বে ভাসানী অনুসারী পরিষদ ও  হাসনাত কাইয়ুমের নেতৃত্বে রাষ্ট্র সংস্কার আন্দোলন।

গণতন্ত্র মঞ্চের রূপরেখা তুলে ধরেন নাগরিক ঐক্যের সভাপতি মাহমুদুর রহমান মান্না।

রূপরেখায় বলা হয় - আগামী নির্বাচনকে সামনে রেখে জনগণের ভোটের অধিকার নিশ্চিত করা এবং অবাধ ও গ্রহণযোগ্য নির্বাচনের জন্য বর্তমান সরকারকে পদত্যাগ করতে হবে। জাতীয় সংসদ বিলুপ্ত ঘোষণা করতে হবে এবং একটি রাজনৈতিক ঐক্যমতের ভিত্তিতে গঠিত অন্তর্বর্তীকালীন সরকারের কাছে ক্ষমতা হস্তান্তর করতে হবে।

আরও বলা হয়, রাষ্ট্রের তিন অঙ্গ- সংসদ, নির্বাহী বিভাগ ও বিচার বিভাগের মধ্যে ক্ষমতার ভারসাম্য প্রতিষ্ঠা ও সরকারের জবাবদিহিতার কার্যকরী ব্যবস্থা গড়ে তোলা। সংখ্যানুপাতিক নির্বাচন ও দ্বিকক্ষবিশিষ্ট পার্লামেন্ট ব্যবস্থার জন্য প্রয়োজনীয় সাংবিধানিক সংস্কার। একইসাথে ফেডারেল পদ্ধতির সরকারব্যবস্থা বিষয়ে আলোচনার জন্য জাতীয় কমিশন গঠন।'

'বিচার বিভাগের পরিপূর্ণ স্বাধীনতা নিশ্চিত করা, নিম্ন আদালতকে নির্বাহী বিভাগ থেকে সম্পূর্ণ আলাদা করে তার পরিচালনা ও তদারকি উচ্চ আদালতের হাতে ন্যস্ত করা, প্রধান বিচারপতিসহ বিচারক নিয়োগ ও পদোন্নতির বিষয়ে সুনির্দিষ্ট নীতিমালা প্রণয়নের কথাও বলা হয় জোটের রূপরেখায়।

এছাড়াও, গণমাধ্যমের স্বাধীনতা নিশ্চিত করা; মুক্তিযুদ্ধের অঙ্গীকার সাম্য, মানবিক মর্যাদা ও সামাজিক ন্যায়বিচারের নীতিতে রাষ্ট্রের সকল নাগরিকের জীবন ও মর্যাদা নিশ্চিত করা এবং দেশে ব্যাপক কর্মসংস্থানস ও অর্থনীতির টেকসই প্রকৃতিবান্ধব ভিত্তি প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে সকল জনগণের জন্য সমান সুযোগের নিশ্চয়তা তৈরি' বিষয়েও উল্লেখ করা হয়েছে।

রূপরেখা উপস্থাপন শেষে ১১ আগস্ট ঢাকার রাজপথে বিক্ষোভ সমাবেশ ও মিছিল পালনের কর্মসূচি ঘোষণা করা হয় গণতন্ত্র মঞ্চের পক্ষ থেকে।

গণতন্ত্র মঞ্চের আত্মপ্রকাশ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন মঞ্চের শরিক দলের নেতারা।


আরও খবর
জামিনে মুক্তি পেলেন বিএনপি নেতা আলাল

বৃহস্পতিবার ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




দ্রুততম ১০ হাজার রানের কীর্তি গড়লেন বাবর আজম

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
ক্রীড়া প্রতিবেদক

Image

পাকিস্তান সুপার লিগে (পিএসএল) আজ করাচি কিংসের বিপক্ষে খেলতে নেমে দারুণ এই রেকর্ড গড়েছেন পেশাওয়ার জালমির অধিনায়ক বাবর আজম।

ম্যাচটিতে ৫১ বলে ৭ চার ও ১ ছক্কায় ৭২ রান করেন তিনি। আর এই ম্যাচেই গড়েন দ্রুততম ১০ হাজার রানের রেকর্ড। ২৭১ ইনিংসে তিনি এই রেকর্ড নিজের করেন। দুইয়ে থাকা গেইল ২৮৫ ইনিংসে এই মাইলফলকে পৌঁছান। তিনশোর কম ইনিংসে এই মাইলফলক ছুঁতে পেরেছেন আর কেবল ভিরাট কোহলি। ভারতীয় তারকার লেগেছিল ২৯৯ ইনিংস।

বিশ্বের ১৩তম ও পাকিস্তানের তৃতীয় ক্রিকেটার হিসেবে ১০ হাজার রান করেছেন বাবর আজম। এই তালিকায় ১৪ হাজার ৫৬২ রান করে সবার ওপরে আছেন ক্রিস গেইল। ১৩ হাজার ১৫৯ রান নিয়ে দুইয়ে পাকিস্তানের শোয়েব মালিক।

বিপিএলে রংপুর রাইডার্সের হয়ে দারুণ পারফর্ম করে দেশে পিএসএল খেলতে যান বাবর। প্রথম ম্যাচে কোয়েটা গ্ল্যাডিয়েটর্সের বিপক্ষে ৪২ বলে ৬৮ রান করেন তিনি। ২০৭ রানের লক্ষ্য তাড়ায় ওই ম্যাচে ১৬ রানে হেরে যায় তার দল। পরের ম্যাচেও তার ব্যাট থেকে এল পঞ্চাশ ছাড়ানো ইনিংস। এই সংস্করণে এটি তার ৮৪তম ফিফটি। সেঞ্চুরি আছে ১০টি, যা দ্বিতীয় সর্বোচ্চ। ২২ সেঞ্চুরি নিয়ে এখানে চূড়ায় গেইল।

পাকিস্তান জাতীয় দলসহ এখন পর্যন্ত মোট ১৯টি দলের হয়ে টি-টোয়েন্টি খেলেছেন বাবর আজম।


আরও খবর



বিএনপিকে নিষিদ্ধ করার চিন্তা আওয়ামী লীগ এখনো করেনি : কাদের

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক

Image

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, বিএনপিকে সন্ত্রাসী দল হিসেবে অনেকেই চিহ্নিত করেছে, তবে তাদের নিষিদ্ধ করার চিন্তা এখনো দলগতভাবে আওয়ামী লীগ করেনি।

বৃহস্পতিবার (১৫ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে রাজধানীর ধানমন্ডিতে আওয়ামী লীগ সভাপতির কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে এ কথা বলেন তিনি।

ওবায়দুল কাদের বলেন, বিএনপি সন্ত্রাসী দল- এটা কানাডার ফেডারেল আদালত এ রায় দিয়েছেন। যুক্তরাষ্ট্রে তারেক রহমানের প্রবেশ নিষিদ্ধ। আমেরিকার হোমল্যান্ড সিকিউরিটি এটা দিয়েছে। বিএনপিকে সন্ত্রাসী দল হিসেবে অনেকেই চিহ্নিত করেছে। তবে তাদের নিষিদ্ধ করার চিন্তা দলগতভাবে আওয়ামী লীগ এখনো করেনি। এখানে আদালতের বিষয় আছে। আইন-আদালত তো মানতে হবে।

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের জামিন প্রসঙ্গে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, আদালত স্বাধীনভাবে কাজ করছেন। আদালত জামিন দিয়েছেন। কাউকে জামিন দেওয়ার অর্থ এই নয়, তিনি অপরাধ থেকে সম্পূর্ণ মুক্ত। মামলা তো আছে, মামলা চলবে।

বিএনপি মহাসচিবের জামিনে মুক্ত হওয়ার পর দলটির আন্দোলন বেগবান হবে কি না- এমন প্রশ্নের জবাবে ওবায়দুল কাদের বলেন, বিএনপির আন্দোলন বেগবান হতে হতে পতন হয়ে যাবে। এখন পতনের গভীর খাদ থেকে কে উদ্ধার করবে? আমরা তো প্রস্তুত, রাস্তায় সদাজাগ্রত প্রহরী শেখ হাসিনার জন্য।

ডামি নির্বাচন নিয়ে বিএনপি নেতাদের বক্তব্যের বিষয়ে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেন, তারা যাকে ডামি নির্বাচন বলছে, তারা প্রমাণ হয়ে গেছে তারাই ডামি বিরোধীদল। তারা নিজেরাই ডামি। নির্বাচনে অংশগ্রহণই করেনি।

সংরক্ষিত নারী আসনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রসঙ্গে ওবায়দুল কাদের বলেন, দলের সংসদীয় মনোনয়ন বোর্ড যাচাই-বাছাই করে প্রার্থিতা চূড়ান্ত করেছে।


আরও খবর
জামিনে মুক্তি পেলেন বিএনপি নেতা আলাল

বৃহস্পতিবার ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




কলেজ শিক্ষককে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ ভাই ও ভাতিজার বিরুদ্ধে

প্রকাশিত:রবিবার ২৮ জানুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:রবিবার ২৮ জানুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
কালিয়াকৈর (গাজীপুর) প্রতিনিধি

Image

গাজীপুরের কালিয়াকৈরে জমি নিয়ে বিরোধের জেরে এক কলেজ শিক্ষককে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ উঠেছে তার ভাই ও ভাতিজার বিরুদ্ধে।

রবিবার (২৮ জানুয়ারি) বিকেলে উপজেলার শ্রীফলতলী ইউনিয়নের বাজেবলিয়াদী এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। হত্যাকাণ্ডের ঘটনার পর থেকে নিহতের ভাই ও দুই ভাতিজা পলাতক রয়েছেন।

নিহত হলেন রেজা সাইদ আল মামুন উপজেলার সাজনধারা এলাকার আফাজ উদ্দিনের ছেলে। তিনি উপজেলা চন্দ্রা এলাকার জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু সরকারি কলেজের অর্থনীতি বিভাগের প্রধান প্রভাষক ছিলেন।

নিহতের পরিবার ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, আফাজ উদিনের ছয় ছেলে ও চার বোনের মধ্যে পাঁচ নম্বর ছিলেন রেজা সাইদ আল মামুন। তার এক মেয়ে-দুই ছেলে ও স্ত্রীকে নিয়ে সংসার। বড় মেয়ে সূচনা আক্তার সূচীকে বিয়ে দিয়েছেন।

দীর্ঘদিন ধরে ওই শিক্ষকের সঙ্গে তার ভাইদের জমি নিয়ে বিরোধ চলছিল। রবিবার বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে উপজেলার বাজেবলিয়াদী এলাকায় বংশাই নদীর ধারে নিজের ফসলি জমি দেখতে যান ওই শিক্ষক। সেখানে গিয়ে তার জমিতে কচুরিপানা দেখতে পান। জমিতে কেন কচুরিপানা ফেলা হলো জানতে চাইলে ক্ষিপ্ত হন তার বড় ভাই মজিবর রহমান। এ নিয়ে কথা-কাটাকাটির একপর্যায়ে মজিবর ও তার ছেলে সুমন তাকে এলোপাতাড়ি পিটিয়ে গুরুতর আহত করে।

আহতাবস্থায় তাকে উদ্ধার করে গাজীপুরের শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব মেমোরিয়াল কেপিজে বিশেষায়িত হাসপাতাল ও নার্সিং কলেজে নিয়ে যায় এলাকাবাসী। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক মামুনকে মৃত ঘোষণা করেন। এ সময় তার শরীরের বিভিন্ন স্থানে আঘাতের চিহ্ন ছিল। এ খবর ছড়িয়ে পড়লে ঘাতক ভাই মজিবর রহমান ও তার ছেলে সুমন পালিয়ে যায়।

খবর পেয়ে উপজেলা নিবার্হী কর্মকর্তা হোসাইন মোহাম্মদ হাই জকী ও কালিয়াকৈর থানার ওসি এ এফ এম নাসিম ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। সেখানে ছুটে যান কলেজের সহকর্মী ও স্বজনসহ বিভিন্ন এলাকার মানুষ। এ সময় ওই এলাকায় শোকের ছায়া নেমে আসে। পরে রাত ৮টার দিকে নিহতের লাশ ময়নাতদন্তের জন্য গাজীপুর শহীদ তাজউদ্দিন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠায় পুলিশ।

নিহতের মেয়ে সূচনা আক্তার সূচী বাবার লাশের পাশে কান্নারত অবস্থায় বলেন, আব্বু তুমি আদর্শ পিতা, আদর্শ শিক্ষক। তুমি মিথ্যা বলা শিখাওনি, আব্বু তুমি বলেছে অন্যায় সহ্য করবা না। আব্বু তোমাকে যারা পিটিয়ে মেরে ফেলেছে, তাদের ছাড়ব না। আমরা তোমার হত্যাকারীদের বিচার করব।

কালিয়াকৈর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এ এফ এম নাসিম জানান, জমি নিয়ে বিরোধের জেরে এক ভাই আরেক ভাইকে খুন করেছে। নিহতের লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় আইনি ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।


আরও খবর



একের পর এক সৈকতে ভেসে আসছে ডিমওয়ালা মৃত কচ্ছপ

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২০ ফেব্রুয়ারী ২০24 | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২০ ফেব্রুয়ারী ২০24 | অনলাইন সংস্করণ
মোহাম্মদ ফারুক, কক্সবাজার

Image

কক্সবাজার-টেকনাফ মেরিন ড্রাইভ সড়কের পাশের সোনারপাড়া সমুদ্রসৈকত দুটি অলিভ রিডলি প্রজাতির মৃত মা কচ্ছপ ভেসে এসেছে মঙ্গলবার (২০ ফেব্রুয়ারি)। পঁচে যাওয়া ডিম বাদ দিয়ে এদের একটির পেটে মিললো ৯০ আর অপরটির পেটে মিললো ৯৫টি ডিম। বাংলাদেশ সমুদ্র গবেষণা ইনস্টিটিউটের (বোরি) জ্যেষ্ঠ বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা তরিকুল ইসলাম জানান, এর আগে গত ৬ দিনে সোনারপাড়া, রেজুখালের মোহনা, হিমছড়ি ও ইনানী সৈকতে ১১টি মা কচ্ছপ ভেসে আসে।

ধারণা করা হচ্ছে, সৈকতের বালিয়াড়িতে ডিম পাড়তে এসে জেলেদের জালে বা অন্য কোনোভাবে আঘাত পেয়ে কচ্ছপগুলো মারা পড়ছে।

তরিকুল ইসলাম বলেন, সেন্টমার্টিন থেকে সোনাদিয়া উপকূলে এ পর্যন্ত ৪১টি মৃত মা কচ্ছপ ভেসে এসেছে। এগুলোর মধ্যে বেশ কয়েকটি মৃত কচ্ছপের পেটে ডিম ছিল। এ ছাড়াও এই কয়েকদিনের ব্যবধানে তিনটি ডলফিন ও একটি বিপন্ন প্রজাতির স্তন্যপায়ী পরপইসের মৃতদেহ ভেসে এসেছে।

এর আগে রবিবার (১৮ ফেব্রুয়ারি) দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে কক্সবাজার-টেকনাফ মেরিন ড্রাইভের উখিয়া উপজেলার জালিয়াপালং ইউনিয়নের সোনারপাড়া সৈকতে জোয়ারের পানিতে ভেসে এসেছে আরও তিনটি মৃত মা কচ্ছপ। এসব কচ্ছপের পেটে মিলেছে ৩১০টি ডিম।

এছাড়া গত শনিবার (১৭ ফেব্রুয়ারি) রাতে উখিয়ার সোনারপাড়া সৈকতে ভেসে এসেছিল আরও একটি মা কচ্ছপ।

অলিভ রিডলি বা জলপাই রঙের এসব সামুদ্রিক কচ্ছপ ডিম পাড়তে সমুদ্রসৈকতের বালিয়াড়িতে আসার পথে মারা পড়েছে বলে মনে করছেন বাংলাদেশ সমুদ্র গবেষণা ইনস্টিটিউটের (বোরি) জ্যেষ্ঠ বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা মো. তরিকুল ইসলাম।

তিনি জানান, আজ ভেসে আসা দুটি কচ্ছপের পেটে ২১৫টি ডিম পাওয়া গেছে। গতকাল রাতে আসা কচ্ছপটির পেটে ছিল ৯৫টি ডিম। আজ ভেসে আসা দুটি কচ্ছপের পেছনের এবং সামনের একটি সাঁতার কাটানো পাকনা (ফ্লিপার) ক্ষতিগ্রস্ত ছিল। আগে পাওয়া মা কচ্ছপগুলোর শরীরেও আঘাতের চিহ্ন রয়েছে।

বাংলাদেশ সমুদ্র গবেষণা ইনস্টিটিউটের (বোরি) হিসেব মতে, জানুয়ারি থেকে মঙ্গলবার (২০ ফেব্রুয়ারি) পর্যন্ত কক্সবাজার সমুদ্র উপকূলের সেন্টমার্টিন, সোনাদিয়া, হিমছড়ি, সোনারপাড়া, ইনানী ও টেকনাফ সৈকতে অন্তত ৪১টি মৃত কচ্ছপ উদ্ধার করা হয়েছে।


আরও খবর



পুনরায় সৌদি আরবে ক্যাম্প করবে বাংলাদেশ

প্রকাশিত:রবিবার ০৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:রবিবার ০৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
ক্রীড়া প্রতিবেদক

Image

গত বছর মার্চে সৌদি আরব গিয়ে প্রায় তিন সপ্তাহ কন্ডিশনিং ক্যাম্প করেছিল বাংলাদেশ ফুটবল দল। দেশের বাইরে করা নিবিড় অনুশীলনের ফলও পেয়েছিল বাংলাদেশ। সাফ চ্যাম্পিয়নশিপে সেমিফাইনাল খেলা নাকি সেই কন্ডিশনিং ক্যাম্পের ফল; এমনটা দাবি করেছিলেন কোচ ও ফুটবলাররা। আগামী মার্চে বিশ্বকাপ বাছাইয়ে ফিলিস্তিনের বিপক্ষে দুটি ম্যাচ খেলবে বাংলাদেশ ফুটবল দল।

তার আগে সৌদি আরবে এবারো ক্যাম্প করবে বাংলাদেশ দল। রবিবার (০৪ ফেব্রুয়ারি) জাতীয় দল কমিটির সভা শেষে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন কাজী নাবিল আহমেদ।

আগামী ২ মার্চ সৌদি আরবের উদ্দেশ্যে দেশ ছাড়বে বাংলাদেশ। ১৭ মার্চ পর্যন্ত সেখানে অবস্থান করবে দল। আল তাইফ শহরের কিং ফাহাদ স্টেডিয়ামে হবে ক্যাম্প। আগামী ২৫ ফেব্রুয়ারি দল ঘোষণা করবেন হাভিয়ের কাবরেরা। সেখানে দুইটি প্রস্তুতি ম্যাচ আয়োজনের চেষ্টা করছে ফেডারেশন। সৌদ আরবের সঙ্গে দিপাক্ষিক চুক্তি থাকায় এবারো সেখানে সব খরচ বহন করবে সৌদি ফেডারেশন।

মার্চের বিশ্বকাপ বাছাইয়ের দুইটি ম্যাচের সূচিতে পরিবর্তন এসেছে। ২১ মার্চ কিংস অ্যারেনায় হোম ম্যাচ হওয়ার কথা থাকলেও ফিলিস্তিনের অনুরোধে আগে অ্যাওয়ে ম্যাচ খেলবে বাংলাদেশ। ম্যাচটি হবে কুয়েতে। সৌদি থেকে সরাসরি কুয়েতে যাবে বাংলাদেশ দল। আর ২৬ মার্চ হবে কিংস অ্যারেনায় হোম ম্যাচ।


আরও খবর
দ্রুততম ১০ হাজার রানের কীর্তি গড়লেন বাবর আজম

বৃহস্পতিবার ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪