আজঃ রবিবার ০৫ ডিসেম্বর ২০২১
শিরোনাম

শারুনের বিরুদ্ধে এবার ধর্ষণচেষ্টা মামলা

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২৫ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২৫ নভেম্বর ২০২১ | ৪৩০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

ছিনতাই, মাদক ব্যবসা, চাঁদাবাজি, করোনা ভ্যাকসিন জালিয়াতির মতো ভয়ংকর অপরাধে জড়িত চট্টগ্রামের পটিয়া উপজেলার নাজমুল করিম চৌধুরী শারুনের বিরুদ্ধে ধর্ষণচেষ্টার অভিযোগে মামলা হয়েছে। নিজ প্রতিষ্ঠানে চাকরি দেওয়ার প্রলোভন দেখিয়ে রাজধানী ঢাকায় এক নারীকে ধর্ষণচেষ্টার অভিযোগে এই মামলা করা হয় ( মামলা নাম্বার-১৫৫/২০২১)। ধর্ষণের ঘটনায় গত ১০ নভেম্বর ঢাকার নারী ও শিশু নির্যতন দমন ট্রাইব্যুনাল-৮-এ মামলাটি করেন ভুক্তভোগী এক নারী। মামলার বাদীর জবানবন্দি গ্রহণ করে অভিযোগ তদন্তের জন্য পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনকে (পিবিআই) দায়িত্ব দেন সংশ্লিষ্ট আদালতের বিচারক বেগম মাফরোজা পারভীন। ১৫ কার্যদিবসের মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন আদালতে দাখিল করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

ভুক্তভোগী ওই নারীর অভিযোগ, শারুন চৌধুরীর সঙ্গে তাঁর পরিচয় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে। ফেসবুকে যোগাযোগের একপর্যায়ে তাঁকে নিজের কম্পানিতে চাকরির প্রলোভন দেন শারুন। নির্দেশনানুযায়ী গত ২ নভেম্বর শিক্ষাগত যোগ্যতার সনদপত্রসহ প্রয়োজনীয় কাগজপত্র নিয়ে শারুনের কার্যালয়ে যান তিনি। অভ্যর্থনা কক্ষে যাওয়ার পর তাঁরে সরাসরি শারুনের কক্ষে পাঠানো হয়। সেখানেই জোরপূর্বক ধর্ষণের চেষ্টা চালানো হয়।

মামলার অভিযোগে বলা হয়, শারুনের কক্ষে গিয়ে কাগজপত্র দেখাতে চাইলে শারুন এ সবের কোনো প্রয়োজন নেই জানিয়ে বলেন, কাগজপত্রের প্রয়োজন নেই, তুমিই যথেষ্ঠ। এ কথা বলে তাঁকে জড়িয়ে ধরে অশালীন অঙ্গভঙ্গি করার চেষ্টা করেন শারুন চৌধুরী। এ সময় তাঁকে কুপ্রস্তাব দেওয়া হয়। পরিস্থিতি বুঝে তিনি শারুনের হাত থেকে ছাড়া পাওয়ার চেষ্টা করেও ব্যর্থ হন। তাঁকে ওই কক্ষের সোফায় ধাক্কা দিয়ে ফেলে দেন শারুন। এ সময় তাঁকে ধর্ষণের চেষ্টা করেন নাজমুল করিম চৌধুরী শারুন। তাতে ব্যর্থ হয়ে শারীরিক নির্যাতন করা হয়। তবে কোনমতে ওই কক্ষ থেকে প্রাণে বেঁচে ফেরেন তিনি।

বাদীপক্ষের আইনজীবী জানান, এই মামলার আসামী শারুন বাদীনির সঙ্গে প্রতারণা করে ধর্ষণের চেষ্টা করেছেন, যা নারী ও শিশু নির্যতন দমন আইনের ৯(৪)খ ধারা অনুযায়ী অপরাধ। এ অভিযোগ নিয়ে থানায় গেলে তারা আদালতের দারস্থ হওয়ায় পরামর্শ দেয়। ট্রাইব্যুনালে মামলাটি দাখিল করা হয়েছে। নাজমুল করিমের বিরুদ্ধে মামলা হওয়ার ঘটনা জানার পরে, তার দারা নির্যাতিত অনেক নারীই এখন মুখ খুলতে চাইছেন। কেউ কেউ মামলারও প্রস্তুতি নিচ্ছেন বলে জানা গেছে।

চট্টগ্রামের পটিয়ার নাজমুল করিম চৌধুরী এর আগেও নানা বিতর্কিত কর্মকা-ের কারণে সমালোচিত। এর আগে তার বিরুদ্ধে মাদক ব্যবসা ও চাঁদাবাজি, বিনামূল্যে দেয়া সরকারি করোনা ভ্যানসিন জালিয়াতি করে বিক্রি, সুদের ব্যবসাসহ বিভিন্ন অভিযোগে মামলাও আছে।  এলাকাবাসীর অভিযোগ, নাজমুল করিমের বাবা বিচ্ছু সামশু টাইপ রাইটার মেশিন চুরি করে চট্টগ্রাম কারেগারে ছিলেন। এলাকার চুরি-ছিনতাইসহ বিভিন্ন অভিযোগে পটিয়ার মানুষ ছিলো অতিষ্ট। সেই বিচ্ছু সামশুর ছেলে বাবার চেয়ে ভয়ংকর হয়ে উঠেছে। ব্যাংকার মোর্শেদ হত্যার নেপথ্যের কারিগর নাজমুল করিম এখন ছিনতাই, চাঁদাবাজি আর মাদক ব্যবসার মধ্যে সীমাবদ্ধ নেই। চাকরি দেয়ার নামে নারীদের ধর্ষণ করতেও ছাড়ে না। এই কুলাংগারের বিচার না হলে সে সাধারণ মানুষের আরামের ঘুম হারাম করে ফেলবে। 

পটিয়ার কয়েকজন আওয়ামী লীগ নেতা ক্ষুদ্ধ কণ্ঠে বলেন, শুধু ঢাকাতেই নয়-চাকরির প্রলোভন দেখিয়ে চট্টগ্রাম এবং পটিয়াসহ বিভিন্ন স্থানে শারুন চৌধুরী ফাঁদে ফেলে অনেক নারীর সর্বনাশ করেছেন। অনেকেই শারুন ও তার ক্যাডার বাহিনীর হুমকিতে মুখ খুলতেও ভয় পান। তবে ঢাকার নির্যাতিত নারীকে স্যালুট জানাই অন্তত সাহস করে শারুনের বিরুদ্ধে মামলা করেছে। শারুনের মতো ছিচকে সন্ত্রাসীর বিরুদ্ধে কঠোর শাস্তি দাবী করেন তারা।


আরও খবর



ঝিনাইদহে স্বামীর লাঠির আঘাতে গৃহবধূ নিহত

প্রকাশিত:শুক্রবার ২৬ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৬ নভেম্বর ২০২১ | ৪৭০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

ঝিনাইদহের মহেশপুরে স্বামীর লাঠির আঘাতে স্ত্রী নিহত হয়েছেন। শুক্রবার ভোরে এ ঘটনাটি ঘটেছে। নিহত রোজিনা খাতুন উপজেলার চাঁদরতনপুর গ্রামের মহিদুল ইসলামের স্ত্রী।

রোজিনার বাবার বাড়ি চৌগাছা উপজেলার রামকৃষ্ণপুর গ্রামে। সাত বছর আগে বিয়ে হয় তাদের। দুই কন্যাসন্তানের মা তিনি।

মহেশপুর থানার ওসি মো. সাইফুল ইসলাম জানান, গৃহবধূ রোজিনা ও তার স্বামী মহিদুলের মধ্যে দীর্ঘদিন ধরে পারিবারিক কলহ চলে আসছিল। এর জের ধরে বৃহস্পতিবার রাতে কথা কাটাকাটির একপর্যায়ে স্বামী স্ত্রীর মাথায় লাঠি দিয়ে আঘাত করেন। এতে ঘটনাস্থলেই রোজিনার মৃত্যু হয়।

ঘটনার পর থেকে মহিদুল ইসলামসহ পরিবারের সদস্যরা পলাতক রয়েছেন। লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ঝিনাইদহ সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।

নিউজ ট্যাগ: গৃহবধূ নিহত

আরও খবর



‌‘দাবি মানা না হলে পরিবহন ধর্মঘট চলবে’

প্রকাশিত:শনিবার ০৬ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:শনিবার ০৬ নভেম্বর ২০২১ | ৯৩০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image
জ্বালানি তেলের দাম বৃদ্ধি নিয়ে মালিক-শ্রমিকদের সঙ্গে আগামীকাল রবিবার বৈঠকে বসছে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহণ কর্তৃপক্ষ

দাবি মানা না হলে পরিবহন ধর্মঘট চলবে বলে জানিয়েছেন ট্রাক শ্রমিক-মালিক ফেডারেশনের অতিরিক্ত মহাসচিব আব্দুল মোতালেব। শনিবার (৬ নভেম্বর) স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামালের সঙ্গে বৈঠক শেষে তিনি এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে কথা বলে তাদের দাবির বিষয়ে সিদ্ধান্ত জানাবেন। দাবি মানা হলে ধর্মঘট প্রত্যাহার করা হবে।

জ্বালানি তেলের দাম বৃদ্ধি নিয়ে মালিক-শ্রমিকদের সঙ্গে আগামীকাল রবিবার বৈঠকে বসছে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহণ কর্তৃপক্ষ (বিআরটিএ)। ওই বৈঠকে ভাড়া বাড়ানোর ঘোষণা না আসা পর্যন্ত পরিবহণ খাতের এ অচলাবস্থার নিরসন হবে না বলে জানিয়েছেন পরিবহণ সংশ্লিষ্টরা। যদিও সরকারের তরফ থেকে শুক্রবার পরিবহণ ধর্মঘট প্রত্যাহারের আহ্বান জানানো হয়েছে। ওই আহ্বানে সাড়া না দিয়ে ধর্মঘট অব্যাহত রেখেছেন পরিবহণ সংশ্লিষ্টরা।

বুধবার (৩ নভেম্বর) মধ্যরাত থেকে ডিজেলের মূল্য লিটারপ্রতি ১৫ টাকা বাড়িয়েছে সরকার। নতুন মূল্য কার্যকর হওয়ার পর বৃহস্পতিবার (৪ নভেম্বর) জরুরি সভা করেছে ঢাকা সড়ক পরিবহন মালিক সমিতি, বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশনসহ বেশ কয়েকটি সংগঠন।

অতিরিক্ত দামে ডিজেল কিনে পরিবহন চালাতে পারবেন না বলে জানায় মালিকরা। সেক্ষেত্রে ভাড়া সমন্বয়ের দাবি ওঠে। ডিজেলের দাম কমানো, নতুবা ভাড়া সমন্বয়ের দাবি ওঠে সংগঠনগুলোর পক্ষ থেকে। দাবি পূরণ না হলে পরিবহন চালানো সম্ভব নয় বলে জানান তারা। তাদের সঙ্গে একমত হন পরিবহন শ্রমিক নেতারা।

এদিকে, লঞ্চের ভাড়া দ্বিগুণ করার দাবি জানিয়েছে মালিক সমিতি। এজন্য তারা বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌ-পরিবহন কর্তৃপক্ষের (বিআইডব্লিউটিএ) কাছে চিঠি পাঠিয়েছে। দাবি মানা না হলে আজ শনিবার (৬ নভেম্বর) কর্মসূচি ঘোষণা করবে লঞ্চ মালিক সমিতি।

নিউজ ট্যাগ: পরিবহন ধর্মঘট

আরও খবর



৮৩৫ ইউপির ভোটগ্রহণ শুরু

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১১ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১১ নভেম্বর ২০২১ | ৪৭৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

দ্বিতীয়ধাপের ৮৩৫ ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) ভোট গ্রহণ শুরু হয়েছে। বৃহস্পতিবার (১১ নভেম্বর) সকাল ৮টা থেকে ভোটগ্রহণ শুরু হয়, চলবে একটানা বিকাল ৪টা পর্যন্ত। সুষ্ঠুভাবে এসব নির্বাচনে ভোটগ্রহণের জন্য সবধরনের প্রস্তুতি নিয়েছে নির্বাচন কমিশন। গতকাল বুধবার প্রতিটি কেন্দ্রে নির্বাচনী সামগ্রী পৌঁছে গেছে। ভোটের পরিবেশ সুষ্ঠু রাখতে মাঠে নিয়োজিত আছেন আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা। ভোট নিয়ে ভোটার ও প্রার্থীদের মধ্যে টানটান উত্তেজনা বিরাজ করছে নির্বাচনী সব এলাকায়।

ইসি জানিয়েছে, দ্বিতীয় ধাপে ৮৪৮ ইউপি ভোটের তফসিল ঘোষণা করা হলেও আজ ভোটগ্রহণ হবে ৮৩৫ ইউপিতে। কেননা ৫ ইউপিতে সব পদে জনপ্রতিনিধিরা বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন। এছাড়া ৭ ইউপি ভোট স্থগিত করেছে ইসি এবং ১ ইউপির ভোট বাতিল করা হয়েছে।

দ্বিতীয় ধাপে মোট ভোট কেন্দ্র হচ্ছে ৮৪৯২টি। মোট ভোটার হচ্ছে ১ কোটি ৬৫ লাখ ৯৫ হাজার ২২৬ জন। এরমধ্যে এ ধাপে ১৬ জন তৃতীয় লিঙ্গের ভোটার রয়েছেন। ৮৩৫ ইউপিতে  চেয়ারম্যান প্রার্থী রয়েছেন ৩৩১০ জন: সংরক্ষিত নারী প্রার্থী ৯১৬১ জন এবং সাধারণ ওয়ার্ডে প্রার্থী রয়েছেন ২৮৭৪৭ জন। এ নির্বাচনের মোট ৪১২১৮ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। ২০টি ইউনিয়ন পরিষদে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনে (ইভিএম) এবং বাকিগুলোতে প্রচলিত ব্যালট পেপারে ভোট হবে। নির্বাচন উপলক্ষে বুধবার সব ভোট কেন্দ্রে নির্বাচনী সরঞ্জাম পৌঁছানো হয়েছে। আইনশৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রণে র‍্যাব, পুলিশ ও আনসারসহ আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা নির্বাচনী এলাকায় টহল শুরু করেছেন। তারা থাকবেন ভোটের পরের দিন পর্যন্ত। আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সঙ্গে রয়েছেন নির্বাহী ও জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট।

এদিকে দ্বিতীয়ধাপের ভোটে ১৮ জেলার ২৮ উপজেলায় ৮১ জন চেয়ারম্যান পদে একক প্রার্থী হওয়ায় তারা সবাই বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জয়ী হয়েছেন। এছাড়াও সংরক্ষিত সদস্য পদে ৭৬ জন এবং সাধারণ সদস্য পদে ২০৩ জন নির্বাচিত হয়েছেন। বিনাভোটে নির্বাচিত চেয়ারম্যানদের মধ্যে বরিশালের আগৈলঝাড়া উপজেলায় ৫ জন, ভোলার দৌলতখানে ১ জন, মানিকগঞ্জের সিঙ্গাইরে ১ জন, নারায়ণগঞ্জ সদরে ২ জন, রূপগঞ্জে ৩ জন, শেরপুর সদরে ৩ জন, টাঙ্গাইলের ধনবাড়ীতে ৩ জন, জামালপুর সদরে ৫ জন, কিশোরগঞ্জের বাজিতপুরে ৩ জন, কুমিল্লার লাকসামে ৫ জন, তিতাসে ১ জন, মেঘনায় ১ জন বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় চেয়ারম্যান হয়েছেন। একইভাবে চাঁদপুর সদরে ২ জন, ফেনীর ফুলগাজীতে ৩ জন, লক্ষ্মীপুরের কমলনগরে ১ জন, মাদারীপুরের কালকিনিতে ১ জন, শরীয়তপুর সদরে ৩ জন, খুলনা সদরে ১ জন, মাগুরা সদরে ৩ জন, যশোরের চৌগাছায় ২ জন, বাগেরহাট সদরে ৩ জন, মোল্লাহাটে ১ জন, জয়পুরহাটের আক্কেলপুরে ১ জন, সিরাজগঞ্জ সদরে ৩ জন, রায়গঞ্জে ৩ জন, চট্টগ্রামের সীতাকুন্ডে ৫ জন, মিরসরাইয়ে ১৩ জন এবং ফটিকছড়ি উপজেলায় ৩ জন বিনা ভোটে চেয়ারম্যান হয়েছেন।

এছাড়া উদ্বিগ্ন নির্বাচন কমিশন আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে ১০ জেলায় বিজিবি মোতায়েন করেছে। বিশেষ করে স্থানীয় প্রশাসনের চাহিদার পরিপ্রেক্ষিতে কমিশন এই সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। নারায়নগঞ্জ, নরসিংদী, মুন্সীগঞ্জ, গাজীপুর, কক্সবাজার, রাঙ্গামাটি, মাদারীপুরসহ ১০টি জেলায় নিয়মিত আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর পাশাপাশি বিজিবি মোতায়েন থাকবে। এজন্য সংশ্লিষ্ট এলাকাগুলোয় অতিরিক্ত নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটও নিয়োগ দেয়া হয়েছে।

ইসির সংশ্লিষ্টরা বলছেন, নির্বাচনকে সামনে রেখে জেলায়-জেলায় অস্ত্রের ঝনঝনানিও বেড়ে চলেছে। প্রায় প্রতিদিনই কোনো না কোনো স্থানে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া এবং রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষে প্রাণহানি ঘটছে। নির্বাচনে অন্য দলের কিংবা স্বতন্ত্র প্রার্থী থাকলেও ভোটের মাঠে কার্যত ক্ষমতাসীনরাই। ভোটে আওয়ামী লীগের প্রতিপক্ষ আওয়ামী লীগই। ক্ষমতাসীন দলের নিজেদের মধ্যকার সংঘাত-সহিংসতা নিয়ন্ত্রণ করা নিয়ে বেকায়দায় আইনশৃঙ্খলা বাহিনীও।

উল্লেখ্য, সারাদেশে সাড়ে ৪ হাজার ইউপি রয়েছে। এর মধ্যে প্রথম ধাপে ২১ জুন ২০৪ ইউপি ও ২০ সেপ্টেম্বর ১৬০ ইউপির ভোট হয়। দ্বিতীয় ধাপে ৮৩৫ ইউপির ভোট আজ। তৃতীয় ধাপে ১০০৩ ইউপির ভোট হবে ২৮ নভেম্বর। চতুর্থ ধাপের ৮৪০ ইউপিতে ভোট ২৩  ডিসেম্বর।


আরও খবর



জবি শিক্ষক সমিতির সভাপতি অধ্যাপক ড. আবুল হোসেন

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২৩ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২৩ নভেম্বর ২০২১ | ৩৯০জন দেখেছেন

Image

জবি প্রতিনিধি:

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় (জবি) শিক্ষক সমিতির কার্যনির্বাহী পরিষদের নতুন কমিটি গঠন করা হয়েছে। ৮ নভেম্বর অনুষ্ঠিত নির্বাচনে ৩০৮ ভোট পেয়ে সভাপতি বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজবিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক ড. মো. আবুল হোসেন সভাপতি হিসেবে নির্বাচিত হয়েছেন। এরপর বৃহস্পতিবার (১৮ নভেম্বর) বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির বার্ষিক সাধারণ সভা শেষে আনুষাঙ্গিকভাবে নবনির্বাচিত কার্যনির্বাহী কমিটি-২০২২ দায়িত্বভার গ্রহণ করেছেন।

নির্বাচিত সভাপতি অধ্যাপক ড. মো. আবুল হোসেন জামালপুর জেলা সদরের ঐতিহ্যবাহী পাথালিয়া গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজকল্যাণ ও গবেষণা ইনস্টিটিউট থেকে এমএসএস -এ প্রথম শ্রেণিতে প্রথম স্থান ও বি.এস.এস. (সম্মান) প্রথম শ্রেণিতে দ্বিতীয় স্থান অধিকার করেন। তিনি কানাডার কালর্টন বিশ্ববিদ্যালয় থেকে মাস্টার্স অব সোশ্যাল ওয়ার্ক (এম.এস.ডব্লিউ) এবং উইলফ্রিড লরিয়ার বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পিএইচ.ডি ডিগ্রী সম্পন্ন করেন। পিএইচডি গবেষণার জন্য তিনি IDRC (International Development Research Centre, Canada) থেকে মর্যাদাপূর্ণ Doctoral Research Award লাভ করেন।

এছাড়াও তিনি জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের সেন্টার ফর সোশ্যাল সায়েন্স রিসার্চ এন্ড ট্রেনিং এর পরিচালক হিসেবে পরিকল্পনা মন্ত্রণালয় থেকে গবেষণা মুঞ্জরিপ্রাপ্ত হয়ে 'জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হত্যাকাণ্ড পরবর্তী সশস্ত্র প্রতিবাদকারী যোদ্ধাগণের বর্তমান অবস্থা' শীর্ষক প্রকল্পের গবেষণা পরিচালক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন।

অধ্যাপক ড. মো. আবুল হোসেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যয়নকালে ১৯৯০ সালে কবি জসীম উদ্দিন হল সংসদে ছাত্রলীগ থেকে শফি-হায়দার প্যানেলে যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক পদে নির্বাচন করেন।

তিনি জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় নীলদল থেকে মনোনীত হয়ে ২০১৪-১৫ সেশনে শিক্ষক সমিতির নির্বাচিত সাধারণ সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। বর্তমানে তিনি নীলদলের কার্যনিবার্হী পরিষদের সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। অধ্যাপক ড. মো. আবুল হোসেন এশিয়াটিক সোসাইটি, বাংলা একাডেমি ও বাংলাদেশ ইতিহাস সম্মিলনীর সদস্য এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় রেজিস্টার্ড গ্রাজুয়েট, ঢাকাস্থ জামালপুর সমিতির আজীবন সদস্য হিসেবে কাজ করছেন।


আরও খবর



আরও ১০৮ ডেঙ্গু রোগী হাসপাতালে ভর্তি

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০২ ডিসেম্বর 2০২1 | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ০২ ডিসেম্বর 2০২1 | ১৪৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে আরও ১০৮ জন হাসপাতালে ভর্তি হয়েছে। এর মধ্যে ঢাকায় ৪৬ জন ও ঢাকার বাইরে ৬২ জন ভর্তি হয়েছে। আজ বৃহস্পতিবার স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের হেলথ ইমার্জেন্সি অপারেশন সেন্টার ও কন্ট্রোল রুমের নিয়মিত ডেঙ্গুবিষয়ক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

প্রতিবেদনে আরও বলা হয়েছে, বর্তমানে দেশের বিভিন্ন সরকারি ও বেসরকারি হাসপাতালে সর্বমোট ভর্তি থাকা রোগীর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৩২৩ জন। এর মধ্যে ঢাকার ৪৬টি সরকারি ও বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি আছে ২৪৫ জন এবং অন্যান্য বিভাগের বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি আছে ৭৮ জন।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, গত ১ জানুয়ারি থেকে এ পর্যন্ত ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছে ২৭ হাজার ৪৫১ জন। তাদের মধ্যে সুস্থ হয়ে হাসপাতাল ছেড়েছে ২৭ হাজার ৩০ জন। এ সময়ে ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণ করেছে ৯৮ জন।


আরও খবর