আজঃ বুধবার ২৫ মে ২০২২
শিরোনাম

সাকিব করোনা পজেটিভ, অনিশ্চিত চট্টগ্রাম টেস্টে

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১০ মে ২০২২ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১০ মে ২০২২ | ৪৫০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

আবারও সাকিব আল হাসানকে দলে পাওয়া নিয়ে শঙ্কা জেগেছে। যুক্তরাষ্ট্র থেকে দেশে ফেরার পর করোনা পজিটিভ শনাক্ত হয়েছেন তিনি।

দক্ষিণ আফ্রিকা সফর অসমাপ্ত রেখেই পরিবারের সদস্যদের অসুস্থতার কারণে দেশে ফিরে এসেছিলেন সাকিব। তারপর তিনি উড়াল দিয়েছিলেন যুক্তরাষ্ট্রে। যুক্তরাষ্ট্র থেকে দেশে ফিরে ঢাকা প্রিমিয়ার লিগে (ডিপিএল) লিজেন্ডস অব রূপগঞ্জের পক্ষে কিছু ম্যাচও খেলেছিলেন তিনি। তারপর আবারও যুক্তরাষ্ট্রে পরিবারের কাছে ছুটেছিলেন সাকিব।

শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে আসন্ন টেস্ট সিরিজের দলে আছেন সাকিব। ফলে এই সিরিজ খেলতে আবারও দেশে ফেরেন তিনি। রবিবার (৯ মে) দেশে আসেন সাকিব। তারপর দুই দফা করোনা পরীক্ষা করানো হয়েছে তার। দুইবারই পজিটিভ শনাক্ত হয়েছেন সাকিব। বিষয়টি নিশ্চিত করেছে বিসিবির নির্ভরযোগ্য সূত্র।

প্রধানমন্ত্রীর সাথে আগামীকাল (১১ মে) একটি ক্রীড়া অনুষ্ঠানে অংশ নেওয়ার কথা ছিল এই অলরাউন্ডারের। কিন্তু করোনা পজিটিভ হওয়ায় এখন আর সেখানে যাওয়ার সম্ভাবনা নেই। বরং এখন চট্টগ্রাম টেস্টে খেলা নিয়েই তৈরি হয়েছে শঙ্কা।

আসন্ন এই সিরিজের প্রথম ম্যাচ অনুষ্ঠিত হবে সাগরিকা খ্যাত চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে, যে ম্যাচ শুরু হবে ১৫ মে। এই ম্যাচ শেষে দুই দল পাড়ি জমাবে রাজধানী ঢাকায়। হোম অব ক্রিকেট খ্যাত মিরপুরের শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে দুই ম্যাচ সিরিজের দ্বিতীয় ও শেষ টেস্ট মাঠে গড়াবে ২৩ মে।


আরও খবর



খালেদাকে পদ্মায় ফেলতে আর ইউনূসকে চুবিয়ে তুলতে বললেন প্রধানমন্ত্রী

প্রকাশিত:বুধবার ১৮ মে ২০২২ | হালনাগাদ:বুধবার ১৮ মে ২০২২ | ৮১০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

পদ্মা সেতুকে জোড়াতালির বলায় বিএনপি চেয়ারপারসন  খালেদা জিয়াকে সেতুর ওপর থেকে পদ্মা নদীতে ফেলে দেওয়ার কথা, আর টাকা বন্ধের চেষ্টা করা ড. মুহম্মদ ইউনূসকে পদ্মা নদীতে চুবানোর কথা বলেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘‘খালেদা জিয়া বলেছিল, জোড়াতালি দিয়ে পদ্মা সেতু বানাচ্ছে, ওখানে চড়া যাবে না, চড়লে ভেঙে পড়বে।’’ পদ্মা সেতুতে নিয়ে গিয়ে ওখান থেকে (খালেদা জিয়াকে) টুস করে নদীতে ফেলে দেওয়া উচিত। আর যিনি আমাদের একটা এমডি পদের জন্য পদ্মা সেতুর মতো সেতুর টাকা বন্ধ করেছেন, তাকেও আবার পদ্মা নদীতে নিয়ে দু’টা চুবানি দিয়ে উঠিয়ে নেওয়া উচিত। মরে যাতে না যায়। একটু পদ্মা নদীতে দু’টা চুবানি দিয়ে সেতুতে তুলে দেওয়া উচিত। তাহলে যদি এদের শিক্ষা হয়।’

বুধবার (১৮ মে) রাজধানীর বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউতে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আয়োজিত আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন। দলের  সভাপতি শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে আওয়ামী লীগ আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধানমন্ত্রী তার সরকারি বাসভবন গণভবন থেকে ভিডিও কানফারেন্সের মাধ্যমে যুক্ত হন।

শেখ হাসিনা বলেন, পদ্মা সেতুর অর্থ বন্ধ করালো ড. ইউনূস। কেন? গ্রামীণ ব্যাংকের একটা এমডির পদে তাকে থাকতে হবে। তাকে আমরা প্রস্তাব দিয়েছিলাম গ্রামীণ ব্যাংকের উপদেষ্টা হতে। একটা উপদেষ্টা হিসেবে থাকা আরও উচ্চ মানের। সেটা সে ছাড়বে না, তার এমডিই থাকতে হবে। কিন্তু তার বয়সে কুলায় না। ড. ইউনুস কিন্তু আমাদের সরকারের বিরুদ্ধে মামলাও করেছিল। কিন্তু কোর্ট আর যাই পারুক, তার বয়স তো কমিয়ে দিতে পারে না, ১০ বছর। কারণ, গ্রামীণ ব্যাংকের আইনে আছে ৬০ বছর পর্যন্ত থাকতে পারে। তখন তার বয়স ৭১ বছর। এই বয়সটা কমাবে কীভাবে? সেই মামলায় সে হেরে যায়। কিন্তু প্রতিহিংসা নেয়।’

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ড. ইউনূস এবং যেটা আমরা শুনেছি মাহফুজ আনাম, তারা আমেরিকায় চলে যায়। স্টেট ডিপার্টমেন্টে যায়। হিলারির কাছে ইমেইল পাঠায়। ওয়ার্ল্ড ব্যাংকের মি. জোলি যিনি প্রেসিডেন্ট ছিলেন, তার শেষ কর্মদিবসে কোনও বোর্ড সভায় না, পদ্মা সেতুর টাকা বন্ধ করে দেয়। যাক, একদিকে শাপেবর হয়েছে। কেন হয়েছে? বাংলাদেশ যে নিজের অর্থায়নে পদ্মা সেতু করতে পারে, সেটা আজকে আমরা প্রমাণ করেছি। কিন্তু আমাদের এখানের একজন জ্ঞানী লোক বলে ফেললেন যে, পদ্মা সেতুতে যে রেল লাইন হচ্ছে— ৪০ হাজার কোটি টাকার খরচ হচ্ছে। ৪০ হাজার কোটি টাকা তো ঋণ নিয়ে করা হচ্ছে। এই ঋণ শোধ হবে কীভাবে? দক্ষিণবঙ্গের কোনও মানুষ তো রেলে চড়বে না। তারা তো লঞ্চে যাতায়াত করে। তারা রেলে চড়তে যাবে কেন? এই রেল ভায়াবল হবে না।’

সরকার প্রধান বলেন, ‘‘সেতুর কাজ হয়ে গেছে, এখন সেতু নিয়ে কথা বলে পারছে না। এখন রেলের কাজ চলছে, এখন রেলের কাজ নিয়ে তারা প্রশ্ন তুলেছেন। আমার মনে হয়, আমাদের সবার উনাকে চিনে রাখা উচিত। রেল গাড়ি যখন চালু হবে, তখন উনাকে নিয়ে রেলে চড়ানো উচিত। আর খালেদা জিয়া বলেছিল, জোড়াতালি দিয়ে পদ্মা সেতু বানাচ্ছে।’ কারণ, বিভিন্ন স্প্যানগুলো যে বসাচ্ছে, ওটা ছিল তার কাছে জোড়াতালি দেওয়া। তো বলেছিল, জোড়াতালি দিয়ে পদ্মা সেতু বানাচ্ছে, ওখানে চড়া যাবে না, চড়লে ভেঙে পড়বে।’ তার সঙ্গে তার কিছু দোসররাও। এখন তাদেরকে কী করা উচিত?’’

তিনি বলেন, পদ্মা সেতুতে নিয়ে গিয়ে ওখান থেকে টুস করে নদীতে ফেলে দেওয়া উচিত। আর যিনি আমাদের একটা এমডি পদের জন্য পদ্মা সেতুর মতো সেতুর টাকা বন্ধ করেছে, তাকেও আবার পদ্মা নদীতে নিয়ে দু’টা চুবানি দিয়ে উঠিয়ে নেওয়া উচিত। মরে যাতে না যায়। একটু পদ্মা নদীতে দু’টা চুবানি দিয়ে সেতুতে তুলে দেওয়া উচিত। তাহলে যদি এদের শিক্ষা হয়। বড় বড় অর্থনীতিবিদ, জ্ঞানী-গুণী এই ধরনের অর্বাচিনের মতো কথা বলে কীভাবে? সেটাই আমার প্রশ্ন। মেগা প্রজেক্টগুলো করে নাকি  খুব ভুল করছি। তারা আয়েশে বসে থাকে, আর আমার তৈরি করা সব টেলিভিশনে গিয়ে কথা বলে। বিদ্যুৎ সরবরাহ করি। সেই বিদ্যুৎ ব্যবহার করছে।’

শেখ হাসিনা বলেন, আজকে যে বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণ করেছি, সেটা নিয়েও এত টাকা দিয়ে স্যাটেলাইট করে কী হবে? এই প্রশ্নও কিন্তু তুলেছে তারা। অর্থাৎ বাংলাদেশের জন্য ভালো কিছু করলে তাদের গায়ে লাগে। কেন? তাহলে তারা কি এখনও সেই পাকিস্তানি সামরিক জান্তাদের পদলেহনকারী, খোশামদি, তোষামদির দল? গালিটালি দিই না, দেওয়ার রুচিও নাই। তবে একটু না বলে পারি না, যে পাকিস্তানি হানাদার বাহিনী যেভাবে বাংলাদেশের মেয়েদের ওপর অত্যাচার করেছে, গণহত্যা চালিয়েছে, অগ্নিসংযোগ করেছে, পোড়ামাটি নীতি নিয়ে বাংলাদেশকে ধ্বংস করতে চেয়েছিল, সেই পাকিস্তানিদের পদলেহনকারীর দল এখনও বাংলাদেশে জীবিত— এটা হচ্ছে সব থেকে দুঃখজনক। এখনও তারা বাংলাদেশের ভালো কিছু হলে ভালো দেখে না। বাংলাদেশ এগিয়ে গেলে তাদের ভালো লাগে না।’

সরকার প্রধান বলেন, আজকের বাংলাদেশে আমরা ২০০৯-এর পরে যে সরকার গঠন করেছি, তার পরেও আমাদের কম ঝামেলা পোহাতে হয়নি। অগ্নি সন্ত্রাস করে বিএনপি জীবন্ত মানুষগুলোকে পুড়িয়ে পুড়িয়ে মারে। পেট্রোল বোমা মারে। আমরা রাস্তাঘাট বানাই, তারা রাস্তাঘাট কাটে। আমরা বৃক্ষরোপণ করি তারা গাছ কাটে। এ ভাবে দেশকে তারা বার বার ধ্বংসের দিকে নেওয়ার চেষ্টা করেছে। সরকার উৎখাত করার তারা উদ্যোগ নিয়েছে। আমরা জনগণের ভোটে নির্বাচিত। তাদের ডাকে তো জনগণ সাড়া দেয়নি।’

তিনি বলেন, সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড করেছে। ওই ১০ ট্রাক অস্ত্র মামলায় এবং একুশে আগস্ট গ্রেনেড হামলার মামলায় সাজাপ্রাপ্ত আসামি তারেক জিয়া। ২০০৭ সালে তত্ত্বাবধায়ক সরকারের কাছে মুচলেকা দিয়েছিল জীবনে কোনও দিন রাজনীতি করবে না। এই মুচলেকা দিয়েই কিন্তু দেশ ছেড়ে চলে যায়। কিন্তু এই মামলায় বিচারের রায়ে সে সাজাপ্রাপ্ত। এতিমের অর্থ আত্মসাতের মামলায় সাজাপ্রাপ্ত খালেদা জিয়া।’


আরও খবর



অবশেষে কমল এলপি গ্যাসের দাম

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০৫ মে ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ০৫ মে ২০২২ | ৫৯৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

অবশেষে রান্নার এলপি গ্যাসের (তরল পেট্রোলিয়াম গ্যাস) দাম কমল। পরপর তিন মাস বাড়ার পর মে মাসের জন্য গ্যাসের দাম কমিয়েছে এনার্জি রেগুলেটরি কমিশন (বিইআরসি)। প্রতি কেজি এলপিজির দাম ১১৯ টাকা ৯৪ পয়সা থেকে কমিয়ে ১১১ টাকা ২৬ পয়সা করা হয়েছে।

প্রতি কেজিতে ৮ টাকা ৬৮ পয়সা দাম কমেছে। এতে প্রতি ১২ কেজির সিলিন্ডারের দাম ১ হাজার ৪৩৯ টাকা থেকে কমিয়ে ১ হাজার ৩৩৫ টাকা হয়েছে। একই সঙ্গে কমানো হয়েছে পরিবহনে ব্যবহৃত এলপি গ্যাসের দামও যা অটোগ্যাস নামে প্রচলিত। বৃহস্পতিবার অনলাইনে বিইআরসি আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এই দাম ঘোষণা করা হয়। নতুন নির্ধারিত দাম আজ বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা ৬টা থেকে কার্যকর হবে।

আন্তর্জাতিক বাজারের দাম এবং ডলারের বিপরীতে টাকার মূল্যায়নের ওপর নির্ভর করে এই দাম নির্ধারণ করা হয়েছে। অন্যদিকে মে মাসের জন্য অটোগ্যাসের দাম প্রতি লিটার ৬৭ টাকা ২ পয়সা থেকে কমিয়ে ৬২ টাকা ২১ পয়সা নির্ধারণ করা হয়েছে।


আরও খবর



পাকা চুল কালো করতে ঘরোয়া উপায়

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২৪ মে ২০২২ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২৪ মে ২০২২ | ২২০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

বয়সের সঙ্গে সঙ্গে স্বাভাবিক ভাবেই চুল পাক ধরতে শুরু করে। পাকা চুল কালো করতে অনেকেই বাজারচলতি বিভিন্ন প্রসাধনী ব্যবহার করেন। তাতে সাময়িক ভাবে চুলের সাদা ভাব খানিকটা কমে গেলেও দীর্ঘস্থায়ী কোনও সুফল পাওয়া যায় না। বরং রাসায়নিক দ্রব্য মিশ্রিত এই ধরনের বাজারচলতি রং ব্যবহারে চুলের স্বাস্থ্য খারাপ হয়ে যায়।

এমনকি পাকা চুলের পরিমাণও বৃদ্ধি পায়। এক বার রং করার পর প্রায় ৭-১০ দিনেই আবার সাদা চুল উঁকি দেয়। এত ঝামেলায় না গিয়ে প্রাকৃতিক উপায়ে সাদা চুল কালো করতে পারেন। কী ভাবে? জানেন কি আলু দিয়েই সাদা চুল কালো করা সম্ভব। রইল পদ্ধতি।

একটি পাত্রে এক কাপ আলুর খোসা আর দুকাপ জল দিয়ে প্রায় ২০-৩০ মিনিট মতো ফুটিয়ে নিন। জল ফুটে এলে নামিয়ে ঠান্ডা করে ছেঁকে আপনি যে শ্যাম্পু ব্যবহার করেন, তার সঙ্গে এই মিশ্রণটি মিশিয়ে শ্যাম্পু করে নিন।

শ্যাম্পু করা হয়ে গেলে হেয়ার ড্রায়ার দিয়ে চুল না শুকিয়ে ফেলে তোয়ালে দিয়ে কিছু ক্ষণ পেঁচিয়ে রাখুন। মিনিট ১৫ পরে চুল থেকে তোয়ালে খুলে চুল শুকিয়ে নিন।পর পর দুসপ্তাহ এটি ব্যবহার করলে পাকা চুলের সমস্যা দূর হবে।

 

নিউজ ট্যাগ: পাকা চুল কালো

আরও খবর
আজকের রাশিফল!

বুধবার ২৫ মে ২০২২




ঢাকা-আরিচা মহাসড়কে বেপরোয়া গতির নাম ‘সেলফি’

প্রকাশিত:রবিবার ১৫ মে ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ১৫ মে ২০২২ | ৫৫৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

ঢাকা-আরিচা মহাসড়ক এক সময় মরণ ফাঁদ নামে পরিচিত ছিলো। তবে এ মহাসড়কে বাঁক প্রশস্তকরনসহ বেশ কিছু উন্নয়ন মূলক কাজের ফলে কমে আসতে শুরু করে দুর্ঘটনার পরিমাণ। এছাড়া সড়কের মানিকগঞ্জ অংশে  যানজট নিরসন ও দুর্ঘটনা রোধে বাসস্ট্যান্ড এলাকাগুলোতে ডেডিকেটেড লেনসহ সার্ভিস লেন  ও বাস-বে নির্মাণ প্রকল্প বাস্তবায়ন করে সড়ক বিভাগ। তবে সম্প্রতি এ মহাসড়কে আবারো বেড়েছে দুর্ঘটনা। সেলফি নামের পরিবহন বাসের বেপোরোয়া গতির কারণে সড়ক দুর্ঘটনা বেড়েছে বলে দাবি স্থানীয়দের।

সামাজিক সংগঠক তৌফিক খান বলেন, মানিকগঞ্জের সেঙ্গে ঢাকার যোগাযোগের অন্যতম আরামদায়ক মাধ্যম সেলফি পরিবহন। তবে এই বাসের চালকরা মহাসড়কে বেপোরোয়াভাবে গাড়ি চালান। ফলে প্রায়ই ঘটছে দুর্ঘটনা। দ্রুত মহাসড়কে সেলফির গতি নিয়ন্ত্রণ করা না গেলে বিপদ বাড়বে। এ বিষয়ে প্রশাসনের নজরদারি বাড়ানো উচিত।

মানিকগঞ্জ উদীচী শিল্পীগোষ্ঠীর সভাপতি মোস্তাফিজুর রহমান মামুন বলেন, ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের মানিকগঞ্জে সম্প্রতি সেলফি পরিবহনের দুর্ঘটনা বেড়েছে। অহেতুক ওভারটেকিং, দ্রুত গতিতে গাড়ি চালানো ও অদক্ষ চালকদের কারণে এসব দুর্ঘটনা ঘটছে। এসব পরিবহনের চালকরা কাউকে তোয়াক্কা করে না। দ্রুত সেলফি গাড়ির রুট পারমিট বাতিল করা উচিত।  প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত চালক নিয়োগের পর সেলফি গাড়ি চলাচলের অনুমতি দেওয়া উচিত। 

সেলফি পরিবহনের পরিচালক মো.রফিকুল ইসলাম বলেন, পাটুরিয়া থেকে গাবতলী পর্যন্ত প্রতিদিন ১২০ থেকে ১২৫ টি গাড়ি চলাচল করে। জেলা প্রশাসনের নির্দেশে আমাদের চালকদের আরো প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করা হচ্ছে।

বরংগাইল হাইওয়ে পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ মো. জাকির হোসেন বলেন, মহাসড়কে যানবাহনের গতি নিয়ন্ত্রণে হাইওয়ে পুলিশ কাজ করছে। স্পিড মিটারে নির্ধারিত গতিসীমা পার হলে মামলা দেওয়া হচ্ছে। সেলফি বাসগুলোকেও নির্ধারিত গতিসীমার বেশি চলাচল করায় একাধিক মামলা দেওয়া হয়েছে। সম্প্রতি সেলফি পরিবহনের ব্যবস্থাপনা কমিটিকে এসব বিষয় জানানো হয়েছে।

জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট আরিফা জহুরা বলেন, জেলা প্রশাসন ও বিআরটিএ-এর পক্ষ থেকে নিয়মিত ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করা হচ্ছে। সেলফি পরিবহনের বাসগুলোকে নানা কারণে সড়ক পরিবহন আইনে জরিমানা করা হয়েছে।

তিনি আরো বলেন, বৃহস্পতিবার (১৩ মে) জেলা প্রশাসক কার্যালয়ে আঞ্চলিক সড়ক পরিবহন কমিটির সভায় সেলফি গাড়ির ব্যবস্থাপনা কমিটিকে বাসগুলোকে যথোপযুক্ত আইন মেনে চলার কথা জানানো হয়েছে। ব্যবস্থাপনা কমিটির সদস্যরা চালকদের আরো প্রশিক্ষণ দেওয়ার কথা জানিয়েছেন।


আরও খবর



হজ প্যাকেজ ঘোষণা, ব্যয় বেড়েছে

প্রকাশিত:বুধবার ১১ মে ২০২২ | হালনাগাদ:বুধবার ১১ মে ২০২২ | ৪১০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

চলতি বছর হজযাত্রীদের জন্য সরকারিভাবে দুটি প্যাকেজ এবং বেসরকারিভাবে একটি প্যাকেজ ঘোষণা করেছে সরকার। আজ বুধবার সচিবালয়ে হজ ব্যবস্থাপনা সংক্রান্ত নির্বাহী কমিটির সভা শেষে সংবাদ সম্মেলনে ধর্ম প্রতিমন্ত্রী মো. ফরিদুল হক খান সাংবাদিকের এ তথ্য জানান।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, সরকারিভাবে হজে যেতে প্রস্তাবিত প্যাকেজ-১-এ পাঁচ লাখ ২৭ হাজার ৩৪০ এবং প্যাকেজ-২-এ চার লাখ ৬২ হাজার ১৫০ টাকা খরচ হবে। বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় হজে যেতে একটি প্যাকেজ এ খরচ ধরা হয়েছে চার লাখ ৫৬ হাজার ৬৩০ টাকা।

সবশেষ ২০১৯ সালে বাংলাদেশ থেকে সৌদি আরবে গিয়েছিলেন হজযাত্রীরা। তখন হজ পালনে প্যাকেজ-১-এ চার লাখ ১৮ হাজার ৫০০ এবং প্যাকেজ-২-এ খরচ ধরা হয়েছিল তিন লাখ ৪৪ হাজার টাকা।

সংবাদ সম্মেলনে ধর্মমন্ত্রী বলেন, আগামী ৮ জুলাই সৌদি আরবে পবিত্র হজ অনুষ্ঠিত হবে। দ্বি-পাক্ষিক হজচুক্তি অনুযায়ী বাংলাদেশ থেকে এ বছর সরকারি ব্যবস্থাপনায় ৪ হাজার জন ও বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় ৫৩ হাজার ৫৮৫ জনসহ সর্বমোট ৫৭ হাজার ৫৮৫ জন হজযাত্রী পবিত্র হজ পালনের জন্য সৌদি আরব যাওয়ার সুযোগ পাবেন। হজযাত্রীর বিমান ভাড়া, সৌদি আরবের বাড়ি ভাড়া, সার্ভিস চার্জ, মুয়াল্লিম ফি, জমজমের পানি, খাবার খরচ এবং অন্যান্য ফি হিসাব করে ২০২২ সালের জন্য সরকারি ব্যবস্থাপনার জন্য ২টি প্যাকেজ এবং বেসরকারি ব্যবস্থাপনার এজেন্সিগুলোর জন্য একটি প্যাকেজের প্রস্তাব করা হয়েছে। এছাড়াও হজযাত্রীদের কোরবানি বাবদ প্যাকেজ মূল্যের অতিরিক্ত ৮১০ সৌদি রিয়াল বা ১৯ হাজার ৬৮৩ টাকা পরিশোধ করতে হবে।

মন্ত্রী বলেন, ২০২০ সালে সৌদি রিয়ালের বিনিময় হার ছিল ২৩ টাকা। আজ এই হারের পরিমাণ ২৪ টাকা ৩০ পয়সা। এটিও প্যাকেজ মূল্য বাড়ার অন্যতম কারণ। এছাড়া সৌদি আরবে সব খাতের উপর ১৫ শতাংশ ভ্যাট, সার্ভিস চার্জ, কর অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। মোয়াচ্ছাছা এর খরচ দ্বিগুণ হয়েছে। বাড়ি ভাড়া বেড়েছে।


আরও খবর
প্রথম হজ ফ্লাইট ৫ জুন শুরু

মঙ্গলবার ২৪ মে ২০২২