আজঃ শুক্রবার ০১ মার্চ ২০২৪
শিরোনাম

সাজেকে ট্রাক নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে একজন শ্রমিক নিহত, আহত ১৩

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৪ মার্চ ২০২৩ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৪ মার্চ ২০২৩ | অনলাইন সংস্করণ
রাঙ্গামাটি প্রতিনিধি

Image

রাঙ্গামাটির বাঘাইছড়ি উপজেলার সাজেক সিজুগ ছড়া উদয়পুর সীমান্ত সড়কের দাড়িপাড়া এলাকায় ট্রাক নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ঘটনাস্থলে এক শ্রমিক নিহত হয়েছেন। এই ঘটনায় গুরুতর আহত হয়েছে আরও ১৩ জন শ্রমিক। তারা সবাই সীমান্ত সড়কের কাজে নিয়োজিত ছিলো বলে জানিয়েছে পুলিশ।

সোমবার (১৩ মার্চ) রাত ৯টার দিকে এই দুর্ঘটনা ঘটে। তবে তাৎক্ষণিকভাবে কারো পরিচয় নিশ্চিত হওয়া যায়নি।

ঘটনার পরপরই সেনাবাহিনী ও পুলিশের একটি টিম আহতদের উদ্ধার করে চাঁদের গাড়িযোগে দিঘীনালা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে পাঠায়।

সাজেক থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নূর দুর্ঘটনার বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, শ্রমিকরা সীমান্ত সড়কের কাজ শেষে ঢ্রাম ট্রাকে করে ফেরার পথে উঁচু পাহাড় উঠতে গিয়ে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে নিচে পড়ে যায়। ফলে ঘটনাস্থলে একজনের মৃত্যু হয়। আহতদের অবস্থাও আশঙ্কাজনক, মৃতের সংখ্যা বাড়তে পারে।


আরও খবর
৯ ছাত্রীর চুল কাটার ঘটনায় শিক্ষিকা বরখাস্ত

বৃহস্পতিবার ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




বাড্ডায় বাবা-ছেলের মরদেহ উদ্ধার

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক

Image

রাজধানীর বাড্ডা থানাধীন বেরাইদে বাবা-ছেলের মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। বুধবার (২৮ ফেব্রুয়ারি) রাতে বাড্ডা থানা পুলিশ বেরাইদের জেনে পাড়ার মুবাক্কারের বাসার নিচতলা থেকে তাদের মরদেহ উদ্ধার করে। গলায় ফাঁস দেওয়া অবস্থায় ছেলে ও শায়িত অবস্থায় বৃদ্ধ বাবার মরদেহ দেখতে পায় পুলিশ।

প্রাথমিকভাবে পুলিশের ধারণা, ছেলে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছেন, আর বাবার মৃত্যু হয়েছে হার্ট অ্যাটাকে। ময়নাতদন্তের জন্য মরদেহ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে।

গুলশান বিভাগের বাড্ডার জোনের সহকারী পুলিশ কমিশনার রাজন কুমার সাহা বলেন, রাতে মোবাইলে কোনো সাড়া না পেয়ে পাশের মুদি দোকানদার হারুন বাসায় এসে দরজা বন্ধ পেয়ে ডাকাডাকি করেন। তবে কোনো সাড়া না পেয়ে স্থানীয়দের সহায়তায় দরজা ভেঙে ভেতরে প্রবেশ করেন।

ভেতরে ছেলে রাকিব হোসেনকে সিলিং ফ্যানের সঙ্গে ঝুলন্ত অবস্থায় দেখতে পান, বিছানায় বাবা গিয়াসউদ্দিনের মৃত অবস্থায় দেখতে পান তারা। নিহত রাকিব হোসেন পেশায় ইলেকট্রিক মিস্ত্রি। আর বাবা গিয়াসউদ্দিন পেশায় স্কুল শিক্ষক।

উপস্থিত জনতা দ্রুত বিষয়টি থানায় জানালে বাড্ডা থানার এসআই সাহাবুদ্দিন মুন্সী দ্রুত ঘটনাস্থলে উপস্থিত হন। এরপর মরদেহ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজে নিয়ে গেলে এসআই সাহাবুদ্দিন লাশের সুরতহাল প্রস্তুত ও ময়নাতদন্তের যথাযথ কার্যক্রম শুরু করেন।

রাজেন কুমার সাহা বলেন, তদন্তের প্রাথমিক পর্যায়ে আমাদের মনে হয়েছে যে, ছেলে রাকিব হোসেন গলা ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছেন। সেটি দেখার পর বাবা গিয়াস উদ্দিন হার্ট অ্যাটাকে মারা যান। বিষয়টি তদন্তাধীন, ময়নাতদন্তে রিপোর্ট মৃত্যুর কারণ স্পষ্ট হবে। পরবর্তী আইনগত ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন।


আরও খবর



ফিলিপাইনে সোনার খনি ধসে নিহত ৫৪

প্রকাশিত:সোমবার ১২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ১২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
আন্তর্জাতিক ডেস্ক

Image

ফিলিপাইনের দক্ষিণাঞ্চলীয় প্রদেশ দাভাও দে ওরোর মাকো শহরের কাছে একটি সোনার খনিতে ধসের পর এ পর্যন্ত সেখান থেকে ৫৪ জনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। এখনও নিখোঁজ রয়েছেন অন্তত ৬৩ জন। নিহতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।

গত ৬ ফেব্রুয়ারি সোনার খনিটিতে ধসে যাওয়া ঘটনা ঘটে বলে জানিয়েছেন দাভাও দে ওরো প্রদেশ প্রশাসনের কর্মকর্তা এডওয়ার্ড ম্যাকাপিলি।

রয়টার্সকে এডওয়ার্ড ম্যাকাপিলি জানান, সোনার খনিটি ধসের পর থেকে দুর্যোগ মোকাবিলা বিভাগের তিন শর মতো কর্মী উদ্ধার অভিযান শুরু করেন। গত পাঁচ দিনে ৫৪ জনের মরদেহ উদ্ধার করা সম্ভব হয়েছে।

কাদা-ধসে পড়া স্তূপের নিচে এখনো ৬৩ জনের মতো আটকা পড়ে আছেন বলে ধারণা করা হচ্ছে। তাদের বেঁচে থাকার সম্ভাবনা খুবই ক্ষীণ। তারপরের উদ্ধারকর্মীরা আপ্রাণ চেষ্টা চালাচ্ছেন।

ওই কর্মকর্তা আরও জানান, ভারী বর্ষণের কারণে কাদায় পুরো খনি ঢেকে গেছে। আরও ভূমিধসের আশঙ্কা করা হচ্ছে। যার ফলে উদ্ধার তৎপরতা বিঘ্ন ঘটছে।

এদিকে, নিখোঁজ তালিকাভুক্ত প্রত্যেককে উদ্ধার না করা পর্যন্ত অভিযান চালিয়ে যাওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে কর্তৃপক্ষ।


আরও খবর



লিটনের ঝোড়ো ব্যাটিং হার এড়াতে পারেনি কুমিল্লার

প্রকাশিত:সোমবার ১৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ১৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
ক্রীড়া প্রতিবেদক

Image

কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের শক্তি বাড়াতে যোগ দিয়েছিলেন আন্দ্রে রাসেল ও সুনীল নারাইন। বলে-ব্যাটে মন্দ করেননি তারা। ব্যাট হাতে সেঞ্চুরি ছুঁইছুঁই ইনিংস খেলেছেন লিটন দাসও। তবে কিছুতেই কাজ হলো না। নিজেদের জন্য গুরুত্বহীন ম্যাচে কুমিল্লাকে ১২ রানে হারিয়েছে বেনি হাওয়েলের সিলেট স্ট্রাইকার্স।

প্রথমে ব্যাট করে বেনি হাওয়েলের ঝোড়ো ৬২ রানে ৫ উইকেট হারিয়ে ১৭৭ রান করে সিলেট। জবাব দিতে নেমে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৬ উইকেট হারিয়ে ১৬৫ রানে থামে কুমিল্লা। সুযোগ ছিল, এই ম্যাচে জয় তুলে শীর্ষস্থানে থাকা রংপুর রাইডার্সকে পেছনে ফেলার। তবে সেটি আর হলো না।

১৭৮ রানের লক্ষ্যে খেলতে নামা কুমিল্লার শুরুটা ভালো হয়নি। পাওয়ার প্লের ৬ ওভারে ৩৯ রান তুলে দলটি হারায় ইমরুল কায়েস ও তাওহীদ হৃদয়ের উইকেট। তবে তৃতীয় উইকেটে জনসন চার্লসকে নিয়ে বড় জুটি গড়েন ওপেনার লিটন। ৭৯ রানের জুটিতে লুইসের অবদান ছিল মাত্র ১২ রান। ২১টি বল খেলে এই রান করে দলকে তিনি বেশ পিছিয়েই দিয়েছেন। চূড়ান্ত ব্যর্থ পাঁচে নামা ব্যাটার মঈন আলীও। ৫টি বল খেলে কোনো রান না করেই আউট হয়ে যান তিনি।

তবে ব্যাট হাতে আরেক পাশে রানের চাকা সচল রাখছিলেন লিটন। ষষ্ঠ ব্যাটার হিসেবে আন্দ্রে রাসেল যখন ব্যাটিংয়ে নামেন, তখন ২০ বলে দরকার ছিল ৫১ রান। এই দুজন ছিলেন বলে কুমিল্লা সমর্থকদের মনেও আশা ছিল। শেষ ওভারে দরকার ছিল ২৫ রান। তবে প্রথম বলেই লিটনকে বোল্ড করে কুমিল্লার আশায় জল ঢালেন তানজিম হাসান সাকিব। ৫৮ বলে ৮৫ রান আসে লিটনের ব্যাটে। ৭টি চার ও ৩ ছক্কায় নিজের ইনিংস সাজান তিনি।

শেষ পর্যন্ত ওই ওভার থেকে ১২ রানের বেশি করতে পারেনি কুমিল্লা। হার দেখতে হয় ১২ রানের। রাসেল ১৪ বলে ২৩ রান করে তানজিমের শেষ বলে আউট হন।

সিলেটের হয়ে বল হাতে আগুন ঝড়ান পেসার শফিকুল ইসলাম ও সামিত প্যাটেল। দুজনে ১টি করে উইকেট নিলেও ৪ ওভারে তারা রান দেন যথাক্রমে ১৮ ও ১৫। ৩ উইকেট নেওয়া তানজিম ৩ ওভারে দেন ৩ উইকেট।

এর আগে, চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে উদ্বোধনী জুটিতেই বড় সংগ্রহের ইঙ্গিত দেয় সিলেট। ষষ্ঠ ওভারের প্রথম বলে দলীয় ৪০ রানের মাথায় বিদায় নেন জাকির হাসান (১৮)। তবে আরেক ওপেনার কেন্নার লুইস ভালোই আগাচ্ছিলেন নাজমুল হোসেন শান্তকে নিয়ে। ৬৭ রানের মাথায় শুরু হয় মড়ক। এই রানে লুইসের ফেরার পর ৭৪ রান তুলতেই ফেরেন শান্ত ও ইয়াসির আলী।

এরপরই ঘুরে দাঁড়ায় সিলেট। ৪২ বলে ৭৭ রানের জুটি গড়েন মোহাম্মদ মিথুন ও বেনি হাওয়েল। দলীয় ১৮তম ওভারের শেষ বলে দলীয় ১৫১ রানের মাথায় ২৮ রান করে ফেরেন অধিনায়ক মিথুন। মিথুন রয়েসয়ে খেললেও ব্যাট হাতে ঝড় তোলেন হাওয়েল। ইনিংসের শেষ পর্যন্ত এই ঝড় অব্যাহত রাখেন তিনি। তাতে দল গিয়ে থামে ১৭৭ রানে। ব্যক্তিগত ৬২ রানে অপরাজিত থাকেন হাওয়েল। ৩১ বলের এই ইনিংস তিনি সাজান ৬টি চার ও ৪ ছক্কায়।

কুমিল্লার হয়ে বল হাতে সবচেয়ে সফল নারাইন। ৪ ওভারে একটি মেডেনসহ মাত্র ১৬ রান দিয়ে ২ উইকেট তুলে নেন তিনি। ২ উইকেট নিলেও ৩ ওভারে ৩৭ রান দেন লেগ স্পিনার রিশাদ হোসাইন। একটি উইকেট মুশফিক হাসানের।


আরও খবর
৪ বছরের জন্য ফুটবলে নিষিদ্ধ বিশ্বকাপজয়ী পগবা

বৃহস্পতিবার ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




রিজার্ভ বাড়াতে আসছে অফশোর ব্যাংকিং, হচ্ছে আইন

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক

Image

রিজার্ভ বৃদ্ধি, আর্থিক কাঠামোকে সমৃদ্ধ ও বিদেশি বিনিয়োগ আকর্ষণে আসছে অফশোর ব্যাংকিং, এজন্য একটি আইন করছে সরকার।

এজন্য অফশোর ব্যাংকিং আইন, ২০২৪ এর খসড়া চূড়ান্ত অনুমোদন দিয়েছে মন্ত্রিসভা। বুধবার (২৮ ফেব্রুয়ারি) প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে মন্ত্রিসভার বৈঠকে এ অনুমোদন দেওয়া হয়। প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে এ বৈঠক হয়।

বৈঠক শেষে সচিবালয়ে মন্ত্রিপরিষদ সচিব মো. মাহবুব হোসেন সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান।

মাহবুব হোসেন বলেন, এই আইনের মাধ্যমে অনিবাসী ব্যক্তি বা বাইরের কোনো প্রতিষ্ঠান যারা এখানে ইনভেস্ট করবে তারা অফশোর অ্যাকাউন্ট খুলতে পারবে। অফশোর ব্যাংকিং করতে বাংলাদেশ ব্যাংকের কাছ থেকে লাইসেন্স নিতে হবে। এর যারা এই লাইসেন্স পেয়েছে তাদের নতুন করে আর লাইসেন্স নিতে হবে না। মার্কিন ডলার, পাউন্ড, ইউরো, জাপানি ইয়েন এবং চাইনিজ ইয়ান- এ পাঁচ মুদ্রায় ব্যাংকিং কার্যক্রম গ্রহণ করা যাবে।

এই আইনের আওতায় অফশোর ব্যাংকিং করার জন্য তফসিলি ব্যাংক থেকে ব্যাংকগুলো লাইসেন্স গ্রহণ করবে। এরপর অনিবাসী বাংলাদেশে বা প্রতিষ্ঠানের কাছ থেকে বৈদেশিক মুদ্রায় আমানত গ্রহণ করতে পারেব, ঋণ দিতে পারবে। ওই আমানত স্বাভাবিক ব্যাংকিং পদ্ধতিতে ব্যবহার করতে পারবেন। বিদেশে যে বাংলাদেশি আছেন তার পক্ষে তার কোনো আত্মীয় অ্যাকাউন্ট খুলতে পারবেন, সহায়তাকারী হিসেবে অ্যাকাউন্ট পরিচালনা করতে পারবেন।

অফশোর ব্যাংকিংয়ের ক্ষেত্রে কোনো ঋণসীমা বেঁধে দেওয়া হবে কি না- জানতে চাইলে বলেন, ঋণসীমা বেঁধে দেওয়া হয়নি। যে কোনো পরিমাণ ঋণ নিতে পারবে।

সমসাময়িক আন্তর্জাতিক অর্থব্যবস্থার সঙ্গে সংগতি রেখে অফশোর ব্যাংকিং কার্যক্রম পরিচালনা করা হবে জানিয়ে মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, ১৯৮৫ সালে এটি বাংলাদেশে প্রথম ইপিজেডে শুরু হয়, সেখানে কিন্তু কারেন্ট অ্যাকাউন্টের মতো, কোনো ইন্টারেস্ট দেওয়া হয়। এখন অফশোর ব্যাংকিংয়ে ইন্টারেস্ট দেওয়া হবে। ব্যাংক বৈদেশিক মুদ্রা সংগ্রহ করতে পারলে, ব্যাংকের নরমাল ব্যবসার প্রয়োজনে সে যখন বৈদেশিক মুদ্রা সংগ্রহ করে তার তুলনায় ব্যয় কম হবে।

মাহবুব হোসেন বলেন, বহু দেশ এ পদ্ধতি অনুসরণ করে তাদের বৈদেশিক রিজার্ভ ও আর্থিক কাঠামো সমৃদ্ধ করেছে। তারা বিলিয়ন ডলার ইনভেস্টমেন্ট পেয়েছে। বিদেশিরা বাংলাদেশের অভ্যন্তরীণ ব্যাংকিং ব্যবস্থায় যখন টাকা জমা রাখে তখন কিন্তু টাকা নিয়ে যেতে পারমিশন নিতে হয়। অফশোর হলে স্বাধীনভাবে এটা অপারেট করা যাবে। এখানে ব্যবসা করে যারা লাভবান হবে তারা এখানে টাকা রাখতে আগ্রহী হবে বলে আমরা আশা করছি।

মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, শুধু রিজার্ভ বাড়াতেই এটি করা হচ্ছে না। অর্থনৈতিকভাবে আমরা লাভবান হব সেজন্য আমরা এটি করছি।

আইন অনুযায়ী ওই অ্যাকাউন্টে যে লেনদেন হবে সেই সুদের ওপর কোনো শুল্ক আরোপ করা হবে না জানিয়ে তিনি বলেন, ইকনোমির দিকে তাকিয়ে এটি চালু করা হচ্ছে। সরকার মনে করেছে এ পদ্ধতি অনুসরণ করে অনেক দেশ সুফল পেয়েছে।

সেভিং অ্যাকাউন্ট যেভাবে পরিচালনা করেন সেভাবেই এ অ্যাকাউন্ট পরিচালনা করা যাবে। ওই অ্যাকাউন্টে শুধু বৈদেশিক মুদ্রা জমা দেওয়া যাবে বলেন মাহবুব হোসেন।

নিউজ ট্যাগ: অফশোর ব্যাংকিং

আরও খবর



ইউনিট প্রতি বিদ্যুতের দাম বাড়ছে ৭০ পয়সা, মার্চেই কার্যকর

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

রমজানের আগেই বিদ্যুতের দাম বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। মঙ্গলবার (২৭ ফেব্রুয়ারি) সচিবালয়ে বিদ্যুৎ ও জ্বালানি প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বিপু সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান।

তিনি বলেন, মার্চের প্রথম সপ্তাহ থেকেই বিদ্যুতের দাম ইউনিট প্রতি সর্বোচ্চ ৭০ পয়সা এবং সর্বনিম্ন ৩৪ পয়সা কার্যকর হবে। দাম বাড়ানোর গেজেট মঙ্গলবারই (২৭ ফেব্রুয়ারি) জারি হতে পারে।

নসরুল হামিদ বলেন, ভর্তুকি তুলে নেওয়ার অংশ হিসেবে আগামী ৩ বছর বিদ্যুতের দাম সমন্বয় করা হবে।

গ্যাসের দামও সমন্বয় করা হবে জানিয়েছেন প্রতিমন্ত্রী। তিনি বলেন, আন্তর্জাতিক বাজারে দাম বাড়লে দেশেও দাম বাড়ানো হবে, দাম কমলে গ্যাসের দাম কমানো হবে। এই সমন্বয়ও মার্চ মাসের প্রথম সপ্তাহ থেকে কার্যকর করা হবে।


আরও খবর