আজঃ মঙ্গলবার ২৮ জুন ২০২২
শিরোনাম

শাহজাদপুরের ৫০ বাড়ি-ঘর যমুনার পেটে

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২১ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২১ জুন ২০২২ | ৩৭৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

টানা বৃষ্টি ও পাহাড়ি ঢলে যমুনা নদীর পানি বৃদ্ধি অব্যাহত রয়েছে। সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুর উপজেলার খুকনি ইউনিয়নের ব্রাহ্মণগ্রামের অন্তত ৫০টি বাড়িঘর, ১০টি তাঁত কারখানা, গো-খামার, একটি মসজিদ ও অসংখ্য গাছপালা যমুনা নদীগর্ভে বিলীন হয়ে গেছে।

এক সপ্তাহ ধরে এ ভাঙনের তাণ্ডবে এ গ্রামের মানুষজন সর্বস্ব হারিয়ে নিঃস্ব হয়ে গেছে। অনেকে খোলা আকাশের নিচে বসবাস করছে। অনেকের ঘরে খাবার নেই। রোদে পুড়ে ও বৃষ্টিতে ভিজে তারা মানবেতর জীবনযাপন করছে। তাদের কাছে এখনো কোনো ত্রাণ বা খাবার পৌঁছায়নি।

এ বিষয়ে সিরাজগঞ্জ পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী শফিকুল ইসলাম জানান, যমুনা নদীর ওই অংশে ভাঙন রোধে বস্তা ফেলার কাজ চলছে। এছাড়া ওই এলাকার ভাঙন স্থায়ীভাবে রোধের জন্য সাড়ে ৬০০ কোটি টাকা ব্যয়ে তীর সংরক্ষণ কাজও চলছে। এ কাজ শেষ হলে এলাকায় আর কোনো সমস্যা থাকবে না।

এদিকে বন্যার পানি বৃদ্ধি অব্যাহত থাকায় শাহজাদপুর উপজেলার নিম্নাঞ্চলের আরও নতুন নতুন এলাকা বন্যাকবলিত হয়ে পড়েছে। বন্যাকবলিত এলাকার কাঁচা পাট, তিল, কাউন, বাদাম, পটল ও শাকসবজি ক্ষেত ডুবে গেছে। এতে আর্থিক ক্ষতির মুখে পড়ছেন কৃষকেরা।

সোমবার সকালে  সিরাজগঞ্জ পানি উন্নয়ন বোর্ডের গেজ রিডার (পানি পরিমাপক) হাসানুর রহমান জানান, গত ১২ ঘণ্টায় যমুনা নদীর পানি আরও ২১ সেন্টিমিটার বৃদ্ধি পেয়ে শহর রক্ষা বাঁধ পয়েন্টে বিপৎসীমার ৩৩ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। কাজিপুর মেঘাই ঘাট পয়েন্টে ১৫ সেন্টিমিটার বেড়ে বিপৎসীমার ৩৭ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।


আরও খবর



আজ বিশ্ব তামাকমুক্ত দিবস

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ৩১ মে ২০২২ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ৩১ মে ২০২২ | ৪৭০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

বিশ্ব তামাকমুক্ত দিবস আজ। তামাক চাষ, তামাকজাত পণ্য উৎপাদন, ব্যবহার ও তামাকের বর্জ্য পরিবেশের জন্য কতটা ক্ষতিকর এ বিষয়ে জনগণ ও নীতিনির্ধারণী পর্যায়ে সচেতনতা সৃষ্টিতে প্রতি বছর ৩১ মে পালন করা হয় দিবসটি। বাংলাদেশ সরকার ২০৪০ সালের মধ্যে দেশকে তামাকমুক্ত ঘোষণা করার রোডম্যাপ হাতে নিয়েছে।

এ বছর বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা দিবসটির প্রতিপাদ্য নির্ধারণ করেছে টোব্যাকো: থ্রেট টু আওয়ার এনভায়রনমেন্ট (তামাক: পরিবেশের জন্য হুমকি)। এছাড়াও বাংলাদেশে দিবসটি পালিত হতে যাচ্ছে তামাকমুক্ত পরিবেশ, সুস্বাস্থ্যের বাংলাদেশ এই প্রতিপাদ্য নিয়ে।

এক জরিপে দেখা যায়, বাংলাদেশে ৩৫ দশমিক ৩ শতাংশ প্রাপ্তবয়স্ক জনগোষ্ঠী তামাক ব্যবহার করে। দেশে তামাকজনিত রোগে প্রতি বছর ১ লাখ ৬১ হাজারের বেশি মানুষ মারা যায়।

তামাক কোম্পানি বছরে ৮৪ মিলিয়ন টন কার্বন-ডাই-অক্সাইড নি‍র্গমণ, ৬ ট্রিলিয়ন সংখ্যক সিগারেট শলাকা উৎপাদনের জন্য ২২ বিলিয়ন টন পরিমাণ পানি অপচয় করে।

এছাড়াও ৬০ কোটি বৃক্ষ নিধনের মাধ্যমে জলবায়ু পরিবর্তন, প্রাকৃতিক সম্পদ বিনষ্ট ও ইকোসিস্টেমে ব্যাপক ক্ষতিসাধন করছে। দিবসটি উপলক্ষে বাংলাদেশ সরকার ও বিভিন্ন সামাজিক সংগঠনগুলো জনসচেতনতা মূলক নানা উদ্যোগ হাতে নিয়েছে।

এছাড়াও বাংলাদেশ ক্যানসার গবেষণা ইনস্টিটিউট ও হাসপাতাল এ দিবসটি উপলক্ষে এক আলোচনা সভার আয়োজন করছে।


আরও খবর



রায়পুরায় বালু ব্যবসাকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষে গুলিবিদ্ধ ১২

প্রকাশিত:সোমবার ২০ জুন ২০22 | হালনাগাদ:সোমবার ২০ জুন ২০22 | ২৮৫জন দেখেছেন

Image

নরসিংদী প্রতিনিধি:

নরসিংদীর রায়পুরায় বালু ব্যবসা ও আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে দুই দল গ্রামবাসীর সংঘর্ষে ১২ জন গুলিবিদ্ধ ও ২ জন টেটাবিদ্ধ হয়ে আহত হয়েছেন।

সোমবার সকালে উপজেলার আমীরগঞ্জ ইউনিয়নের নলবাটা গ্রামে এই সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

স্থানীয়রা জানান, দীর্ঘদিন ধরে নলাবাটা গ্রামের গোলজার মেম্বার গ্রুপ এবং পার্শ্ববর্তী ভাটি বদরপুর গ্রামের রবি গ্রুপ এর মধ্যে বালু ব্যবসা ও আধিপত্য বিস্তার নিয়ে বিরোধ চলছিলো। গত মাসে এ নিয়ে দুই গ্রুপের মধ্যে একাধিকবার ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। সোমবার সকালে ভাটি বদরপুর গ্রামের রবি মেম্বারের গ্রুপ নলবাটা গ্রামের প্রতিপক্ষ গোলজার গ্রুপের ওপর হামলা চালায়। এসময় নলাবাটা গ্রামের ১২ জন গুলিবিদ্ধ (রাবার বুলেট) ও ২ জন টেটাবিদ্ধ হয়ে আহত হয়। স্থানীয়রা আহতদের উদ্ধার করে নরসিংদী সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে সেখান থেকে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে উন্নত চিকিৎসার জন্য তাদের ঢাকায় নিয়ে যায় স্বজনরা।

খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ অবস্থান নেয়ার পর সংঘর্ষ থেমেছে বলে জানিয়েছে হাসনাবাদ বাজার পুলিশ ফাঁড়ি।


আরও খবর



রাজধানীর বসিলায় আগুন

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৭ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ০৭ জুন ২০২২ | ৪৪৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

রাজধানী ঢাকার বসিলায় একটি জুতার কারখানায় অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। সোমবার রাত ১০টা ২২ মিনিটে এই আগুনের সূত্রপাত হয় বলে জানা গেছে। তবে অগ্নিকাণ্ডের কারণ জানা যায়নি।

পরে ফায়ার সার্ভিসের দুইটি ইউনিট গিয়ে প্রায় ১ ঘণ্টার চেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রণ আনে। গণমাধ্যমকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের ডিউটি অফিসার জামান আজাদ।

মোহাম্মদপুর থানার ওসি আবুল কালাম আজাদ গণমাধ্যমকে বলেন, অগ্নিকাণ্ডে কোনো ধরনের হতাহতের ঘটনা ঘটেনি। তবে কারখানা কর্তৃপক্ষ বলছেন তাদের বেশ ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। ফায়ার সার্ভিসের প্রতিবেদন পেলে ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ ও আগুনের সূত্র কীভাবে হয়েছে জানা যাবে।

নিউজ ট্যাগ: বসিলায় আগুন

আরও খবর



বিশ্বের সপ্তম বসবাসের অযোগ্য শহর ঢাকা

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২৩ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২৩ জুন ২০২২ | ২৬০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

লন্ডনভিত্তিক ম্যাগাজিন দ্য ইকোনমিস্টের ইন্টেলিজেন্স ইউনিটের (ইআইইউ) বিশ্বের বাসযোগ্য শহরের তালিকায় শেষ দিক থেকে সাত নম্বরে রয়েছে রাজধানী ঢাকা। অর্থাৎ বাস অযোগ্য শহরের তালিকায় ঢাকার স্থান সপ্তম। ইআইইউ করা রিপোর্টে ১৭২ শহরের তালিকায় বাংলাদেশের রাজধানী ঢাকার অবস্থান এবার ১৬৬তম।

মহামারির ধাক্কা সামলে উন্নত দেশগুলোর অনেক শহর স্বাভাবিকতায় ফেরার পাশাপাশি বাসযোগ্যতার তালিকায় হারানো অবস্থান ফিরে পেয়েছে। তবে এক বছরে ঢাকার উন্নতি হয়েছে সামন্যই।

গত বছর ১৪০টি শহরের তালিকায় ঢাকার অবস্থান ছিল ১৩৭তম, অর্থাৎ তালিকার নিচের দিক থেকে চার নম্বরে, এবার সেখান থেকে সাত নম্বরে উঠে এসেছে বাংলাদেশের রাজধানী।

কোন শহর কতটা বাসযোগ্য তা বোঝার জন্য স্থিতিশীলতা, স্বাস্থ্যসেবা, সংস্কৃতি ও পরিবেশ, শিক্ষা এবং অবকাঠামো-এই পাঁচ মানদণ্ডে বিচার করে ইকোনমিস্ট ইন্টেলিজেন্স ইউনিট। ১০০ ভিত্তিক সূচকে ঢাকার স্কোর এবার ৩৯ দশমিক ২। গত বছর স্কোর ছিল ৩৩ দশমিক ৫।

গার্ডিয়ান এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে, ৯৯ দশমিক ১ স্কোর নিয়ে সবচেয়ে বাসযোগ্য শহরের তকমা ফিরে পেয়েছে অস্ট্রিয়ার রাজধানী ভিয়েনা। এর আগে ২০১৮ ও ২০১৯ সালের তালিকাতেও ভিয়েনা ছিল শীর্ষে। কিন্তু কোভিড মহামারির শুরুতে লকডাউনের সময় অস্ট্রিয়ার এ শহর চলে যায় ১২ নম্বরে।

গার্ডিয়ানের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, শীর্ষ দশের মধ্যে ছয়টি অবস্থানই এবার ইউরোপের দখলে। কানাডার শহরগুলোও নিজেদের অবস্থানের উন্নতি ঘটিয়েছে।

বাসযোগ্যতার বিচারে খারাপ দশার শহরগুলোর অবস্থানে বিশেষ হেরফের হয়নি। গতবারের মতো এবারও তালিকার সবচেয়ে নিচে রয়েছে যুদ্ধবিধ্বস্ত সিরিয়ার রাজধানী দামেস্ক, সব মিলিয়ে স্কোর এবার ৩০.৭।

৩২.২ স্কোর নিয়ে নাইজেরিয়ার লাগোস তালিকার ১৭১তম এবং ৩৪.২ স্কোরে লিবিয়ার ত্রিপোলি ১৭০তম অবস্থানে আছে। আলজেরিয়ার আলজিয়ার্স, পাকিস্তানের করাচি, পাপুয়া নিউগিনির রাজধানী পোর্ট মোরসবির পরই ১৬৬ নম্বরে রয়েছে বাংলাদেশের রাজধানী ঢাকা।

পাঁচ সূচকের মধ্যে ঢাকা সবচেয়ে কম ২৬.৮ স্কোর পেয়েছে অবকাঠামোতে, এই সূচকে ঢাকার চেয়ে খারাপ দশায় আর কোনো শহর নেই। এমনকি তালিকার তলানিতে থাকা দামেস্কও অবকাঠামোতে ৩২ দশমিক ১ স্কোর পেয়েছে।


আরও খবর



৫ লাখ বাংলাদেশি কর্মী নেবে মালয়েশিয়া

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০২ জুন 2০২2 | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ০২ জুন 2০২2 | ৪৮৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

প্রবাসীকল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থানমন্ত্রী ইমরান আহমদ জানিয়েছেন, চলতি মাস (জুন) থেকেই মালয়েশিয়ায় যেতে পারবেন বাংলাদেশি কর্মীরা। সর্বনিম্ন বেতন হবে ৩০ হাজার ৪০০ টাকা (১৫০০ রিঙ্গিত)।

বৃহস্পতিবার বিকালে প্রবাসীকল্যাণ মন্ত্রণালয়ে মালয়েশিয়ার মানবসম্পদমন্ত্রী এম সারাভানান ও দেশটির প্রতিনিধি দলের সঙ্গে জয়েন্ট ওয়ার্কিং গ্রুপের বৈঠক শেষে মন্ত্রী এ কথা জানান।

ইমরান আহমদ বলেন, আগামী পাঁচ বছরে ৫ লাখ কর্মী নেওয়ার কথা জানিয়েছে মালয়েশিয়া। প্রথম বছর দুই লাখ। তবে আমার কাছে মনে হচ্ছে তাদের যত কর্মীর চাহিদা, তাতে প্রথম বছরই পাঁচ লাখ লোক যাবে। আমি মন্ত্রী হওয়ার পর ভেবেছিলাম মালয়েশিয়ার বাজারে কর্মী পাঠাতে পারব না। হয়ত ব্যর্থ হয়েই বাড়ি ফিরব। আজ একটি সমঝোতায় এসেছি। জুন মাসের মধ্যে কর্মী পাঠানো শুরু করব।

তিনি বলেন, আজ আমাদের মধ্যে সিদ্ধান্ত হয়েছে। তারা বন্ধ সেক্টরগুলো খুলবে। তাদের কর্মী তালিকা দেওয়া হবে, সেখান থেকে যাবে। তাদের সিলেকশন অনুযায়ী মেডিকেল হবে।

প্রবাসীকল্যাণমন্ত্রী বলেন, কোনো সিন্ডিকেট নয়, আমরা তাদের দেশের সব বৈধ রিক্রুটিং এজেন্সির তালিকা পাঠিয়েছি। এটি পছন্দ তাদের। তারা লোক নেবে তাদের পছন্দে।

মালয়েশিয়া যেতে একজন কর্মীর কত টাকা খরচ হবে- জানতে চাইলে ইমরান আহমদ বলেন, মালয়েশিয়ার মন্ত্রী আমাদের বলেছেন যে, তারা জিরো খরচে লোক নিতে চেষ্টা করবেন। আশা করছি, আগের যে হিসাব এক লাখ ৬০ হাজার টাকার যে কথা ছিল, এবার তার চেয়ে কম হবে।

মন্ত্রী ইমরান জানান, আসা-যাওয়ার টিকিট, মালয়েশিয়ায় কোভিড-১৯ পরীক্ষা, কোয়ারেন্টিন, থাকা-খাওয়াসহ বিভিন্ন খরচ নিয়োগদাতা বহন করবে। বাংলাদেশের অংশে পাসপোর্ট, মেডিকেলসহ অন্যান্য খরচ কর্মীকে বহন করতে হবে।


আরও খবর