আজঃ রবিবার ০৫ ডিসেম্বর ২০২১
শিরোনাম
বসুন্ধরার এমডিকে হত্যাচেষ্টা

সাদের অত্যাচারে অতিষ্ঠ মা-বাবা এলাকাবাসী

প্রকাশিত:সোমবার ০৮ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:সোমবার ০৮ নভেম্বর ২০২১ | ৭৭৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

বসুন্ধরা গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) ও শেখ রাসেল ক্রীড়া চক্র লিমিটেডের চেয়ারম্যান সায়েম সোবহান আনভীরকে হত্যা চেষ্টাকারী সাইফুল ইসলাম সাদের অত্যাচারে অতিষ্ঠ ছিলেন খোদ তার মা-বাবা এবং এলাকাবাসী। ধীরে ধীরে বখাটে ও সন্ত্রাসী কার্যকলাপে জড়িয়ে পড়ার ঘটনায় লাগাম টানতে না পেরে শেষ পর্যন্ত ছেলেকে ত্যাজ্যপুত্র ঘোষণা করেছিলেন মা-বাবা। সাদের গ্রামের বাড়ি চট্টগ্রামের চন্দনাইশ উপজেলার দোহাজারী পৌরসভার হাছনদন্ডী এলাকায় সরেজমিন ঘুরে এসব তথ্য পাওয়া গেছে।

গত রবিবার দুপুরে ওই এলাকায় গেলে তার বাবা সুজন দত্ত বলেন, বখাটে ও সন্ত্রাসী প্রকৃতির হওয়ায় অতিষ্ঠ হয়ে ছেলেকে ২০১৭ সালে ত্যাজ্য ঘোষণা করি। পরে সে মুসলমান ধর্ম গ্রহণ করে। অবশ্য পরে আবার হিন্দু ধর্মে ফেরার চেষ্টা করেছিল। কিন্তু ঘরে জায়গা দেওয়া হয়নি। শুনেছি ঢাকায় গিয়ে অপরাধে জড়িয়েছে। এই বখাটে যদি কোনো অপরাধে জড়ায় তাহলে তার উপযুক্ত শাস্তি হওয়া দরকার বলেও মনে করেন সুজন দত্ত।

জানা গেছে, প্রায় চার বছর আগে সাদকে ত্যাজ্য ঘোষণা করেছিলেন তা মা-বাবা। জন্ম চন্দনাইশে হলেও তার বেড়ে ওঠা পটিয়ায়। দশম শ্রেণিতে পড়ার সময় পরিচয় হয় পটিয়ার সাংসদ হুইপ সামশুল হক ও তার ছেলে নাজমুল করিম ওরফে শারুন চৌধুরীর সঙ্গে। সাদকে মানসিকভাবে প্রস্তুত করে বসুন্ধরা গ্রুপের এমডিকে হত্যা পরিকল্পনায় যুক্ত করেন তারা। তারই অংশ হিসেবে কৌশলে দিনমজুরের ছদ্মবেশ নিয়ে বসুন্ধরার এমডি হাউসে প্রবেশ করেন সাদ। এরপর একাধিকবার চালান হত্যাচেষ্টা।

গত বৃহস্পতিবার দিনগত রাত ১টার দিকে রাজধানীর বসুন্ধরা আবাসিক এলাকার সাউতুল কোরআন মাদরাসা ও এতিমখানা থেকে সাদকে আটক করে পুলিশ। বসুন্ধরার এমডিকে হত্যার পরিকল্পনায় যুক্ত সন্দেহে তাঁকে শুক্রবার ৫৪ ধারায় আদালতে সোপর্দ করা হয়। গত রবিবার আদালত তাঁকে তিন দিনের রিমান্ডে দেন। তাঁকে রিমান্ডে এনে জিজ্ঞাসাবাদ করছে ভাটারা থানা পুলিশ।

চন্দনাইশে সরেজমিনে গেলে কথা হয় সাদের মা-বাবা, বন্ধু ও এলাকাবাসীর সঙ্গে। সাদের সঙ্গে হুইপ শামসুল হক কিংবা শারুন চৌধুরীর সঙ্গে যোগাযোগ হয়েছিল কি না জানতে চাইলে তার বাবা সুজন দত্ত বলেন, এই বিষয়ে আমি জানি না। সর্বশেষ যখন গ্রামে ফিরেছিল তখন তাকে ঘরে জায়গা না দেওয়ায় আমার সঙ্গে ঝগড়া করে। তবে তার ফেসবুকে কিছু ছবি দেখা গেছে, সেখানে প্রবীণ রাজনীতিবিদদের সঙ্গে তার ছবি দেখা গেছে।

তার মা রীনা বালা দে বলেন, ত্যাজ্য ঘোষণার পরও মাঝে মধ্যে গ্রামের বাড়িতে আসতো জয় (সাদের পূর্বের নাম)। সর্বশেষ পূজার সময় এসেছিল। হাতে দামি মোবাইল ফোন ও ঘড়ি দেখেছি। পোশাকও ছিল দামী। এসব দামি জিনিসপত্র কোথায় পেয়েছে তা জানতে প্রশ্ন করা হলেও জয় উত্তর দেয়নি। তিনি বলেন, জয়ের আচরণে মনে হয়েছে সে কোনো অপরাধী চক্রের সঙ্গে জড়িয়ে গেছে। ছেলেকে যারা ভুল পথে নিয়ে গেছে তাদের বিচার দাবি করেন রীনা।

সাদের প্রতিবেশী হাছনদন্ডী ব্রাইট স্টার সোসাইটির সভাপতি সুমন চন্দ্র দে বলেন, জয় মুসলমান ধর্ম গ্রহণের পর পুনরায় হিন্দু ধর্মে ফিরেছে। কিন্তু এখন শুনছি সে মুলমান হিসেবে মাদ্রাসায় পড়ছে। সর্বশেষ পূজার সময় গ্রামে এসেছিল। এই সময় ঘরে থাকতে চেয়েছিল। কিন্তু তার বাবা ঘরে জায়গা দেননি। এই কারণে আমাদের কাছে নালিশ দিয়েছিল। আমরা এই বিষয়ে সুজন দত্তের সঙ্গে কথা বলেছিলাম। তারা ত্যাজ্য ঘোষণার কাগজ দেখানোর পর তাকে ঘর ছেড়ে চলে যেতে বলি। তার স্বভাব চরিত্র ভালো ছিল না। মারধর ও ঝগড়া বিবাদ করা তার স্বভাব।

একই বিষয়ে গ্রামের বাসিন্দা নূর নবী বলেন, শুরুতে শুনেছিলাম সে মুসলমান হয়েছে। পরে তার মা তাকে হিন্দু ধর্মে ফিরিয়ে নিয়ে গেছে বলে শুনেছি। সব পাঞ্জাবিসহ অন্য কাপড় খুলে ধুতি পরে এবং মাথার চুল ফেলে দিয়ে পুনরায় হিন্দু রীতি অনুযায়ী চালচলন শুরু করে। গত মাসে পূজাও করে গেছে।

সাদের বন্ধু জনি দে বলেন, কিছুদিন আগে আমিও ঢাকায় ছিলাম। পরে গ্রামে ফিরে এসেছি। ঢাকায় থাকতে তার সঙ্গে আমার যোগাযোগ হতো। এই সময় তার আচরণে পরিবর্তন লক্ষ্য করি এবং সে যেন ভিন্ন জগতের বাসিন্দা হয়ে গেছে এমন ভাব ধরে আমার সঙ্গে। পরে রাগ করে আমি যোগাযোগ বন্ধ করে দিই।

প্রতিবেশী সুবল চন্দ্র দে বলেন, জয় দত্ত ধর্মান্তরিত হওয়ার পর তাকে পুনরায় তার মা হিন্দু ধর্মে নিয়ে আসে। সে গ্রামে এসে প্রতিবেশীদের সঙ্গে ঝগড়া ফ্যাসাদ করে। ছেলে হিসেবে ভালো না। এখন শুনছি যে নাকি হত্যাচেষ্টা মিশনে যুক্ত হয়েছিল।


আরও খবর



অল্পের জন্য রক্ষা পেলেন নোরা

প্রকাশিত:বুধবার ১৭ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:বুধবার ১৭ নভেম্বর ২০২১ | ৫৫৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

বলিউডে আইটেম গান বলতেই এখন নোরা ফাতেহির নাম চলে আসে সবার আগে। দিলবার দিলবার গানে তিনি বাজিমাৎ করেছিলেন। তার বেলি ড্যান্সে মেতেছিল নেট দুনিয়া। পরপর বেশ কয়েকটি আইটেম গানে তার কোমর দোলানো জনপ্রিয়তা পেয়েছে।

আবারও নিজের নাচের তালে দর্শকের হৃদয়ে কম্পন ধরিয়েছেন নোরা। এ গানের নাম কুসু কুসু। কয়েক দিন আগেই প্রকাশ্যে এসেছে গানটি। এটি রয়েছে মুক্তি প্রতীক্ষিত সিনেমা সত্যমেভ জয়তে ২তে।

এই গানের দৃশ্যেও খোলামেলা সাজে নেচেছেন নোরা ফাতেহি। সেই পোশাকের কারণেই বিপাকে পড়তে হয়েছে তাকে। শুটিংয়ের অভিজ্ঞতা জানিয়ে নোরা জানান, এই গানের জন্য একটি বিশেষ পোশাকে সেজেছিলেন তিনি। তাতে একটি ওড়না আটকানো ছিল পিঠের সঙ্গে। যার অন্য প্রান্ত জোড়া ছিল গলার হারের সঙ্গে। ওড়নার মধ্যে পাথরের নানা কারুকাজ থাকায় সেটার ওজনও ছিল বেশ। নাচের সময় সেই ওড়নার টান খাওয়ার সঙ্গে নোরার গলায়ও ফাঁস লেগে যায়।

নোরা বলেন, মনে হচ্ছিল, আমার গলায় যেন দড়ি পেঁচিয়ে হিঁচড়ে টেনে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে! নাচের সময়ে বহু ছোটখাটো বিপদ ঘটে। কখনও হাঁটুতে আঘাত লেগে রক্ত ঝরে। কখনও বা পায়ের পাতায় খোঁচা লাগে। কিন্তু কুসু কুসু গানের শুটিংয়ে যা ঘটেছে, তা আমার জীবনের সবচেয়ে ভয়াবহ ঘটনা।’’

তবে বিপদ ঘটার আগেই নাচের স্টেপ থামিয়ে নিজেকে সামলে নেন নোরা। এভাবে থেমে থেমে ছয় ঘণ্টার মতো ওই পোশাকে শুটিং করেছিলেন অভিনেত্রী।

এদিকে ইউটিউবে ইতোমধ্যে কুসু কুসু গানটি ঝড় তুলেছে। মাত্র এক সপ্তাহে গানটিতে ভিউ হয়েছে ৫৫ মিলিয়নের বেশি। 

 

নিউজ ট্যাগ: নোরা ফাতেহি

আরও খবর



শীতকালে গুড় খেলে দূরে রাখা যায় বেশ কিছু রোগ

প্রকাশিত:সোমবার ২২ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:সোমবার ২২ নভেম্বর ২০২১ | ৫০৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

শীতকালের গুড়ের স্বাদ আর গন্ধে মন বেশ ভাল হয়ে যায়। কিন্তু শরীরের উপর এর কী প্রভাব পড়ে? সে কথা জেনে রাখা জরুরি।

শীতকালে গুড় খেলে নানা ভাবে শরীরের যত্ন হয়। দূরে রাখা যায় বেশ কিছু রোগ।

১) খেজুরের গুড়ে থাকে নানা ধরনের খনিজ পদার্থ। সঙ্গে প্রোটিন আর ভিটামিনও থাকে। ফলে এই গুড় নিয়ম করে খেলে শীতকালে কাজের শক্তি বাড়ে। হজমের সমস্যা দূর হয়। কমে কোষ্ঠকাঠিন্যের সমস্যাও।

২) নিয়মিত গুড় খেলে কমতে পারে মা‌ইগ্রেনের সমস্যা।

৩) শীতের সময়ে অনেকেরই ঠান্ডা লেগে যাওয়ার সমস্যা হয়। নিয়ম করে গুড় খাওয়া গেলে সর্দি-কাশির সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়া যাবে। শ্বাস-প্রশ্বাস স্বাভাবিক হবে।

 ৪) খেজুরের গুড়ে আছে প্রচুর পরিমাণ পটাশিয়াম। শীতে যখন শুষ্ক হয়ে যায় শরীর, তখন এই গুড় আর্দ্রতা বজায় রাখতে সাহায্য করে।

 ৫) এ ছাড়াও গুড়ে থাকে পর্যাপ্ত পরিমাণ আয়রন। তা শরীরের হিমোগ্লোবিনের মাত্রা নিয়ন্ত্রণে রাখে। রক্তাল্পতা দূর করে।

নিউজ ট্যাগ: শীতকালে গুড়

আরও খবর
যেসব স্বাস্থ্যকর খাবার বাড়ায় ওজন

শনিবার ০৪ ডিসেম্বর ২০২১




ইংল্যান্ডের স্বপ্ন ভেঙে ফাইনালে নিউজিল্যান্ড

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১১ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১১ নভেম্বর ২০২১ | ৩৮০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

ওয়ানডে বিশ্বকাপের ফাইনালে এই ইংল্যান্ডের কাছে হেরেই চরম হতাশা সঙ্গী হয়েছিল নিউজিল্যান্ডের। সেই প্রতিশোধই যেন এবার ভালোভাবে নিয়েছে কিউইরা। ফাইনালের আগেই এবার বিশ্বমঞ্চ থেকে ইংল্যান্ডকে বিদায় করে দিল তারা। ইংলিশদের স্বপ্ন ভেঙে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের ফাইনালে উঠল নিউজিল্যান্ড। রোমাঞ্চকর লড়াইয়ে পাঁচ উইকেটের জয় নিয়ে ফাইনালে পা রাখল কেন উইলিয়ামসনের দল। এই প্রথম টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের ফাইনালে উঠল নিউজিল্যান্ড। 

আজ বুধবার টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের প্রথম সেমিফাইনালে টসে হেরে আগে করে নির্ধারিত ২০ ওভারে ১৬৬ রান সংগ্রহ করে ইংল্যান্ড। দলটির হয়ে সর্বোচ্চ ৫১ রান করেন মঈন আলী।

জবাব দিতে নেমে এক ওভার হাতে রেখে জয় তুলে নেয় নিউজিল্যান্ড। ১৯ ওভারে ১৬৭ রান করে কিউইরা। দলের হয়ে সর্বোচ্চ ৭৩ রান করেন ওপেনার মিচেল।

রান তাড়ায় শুরুতেই ধাক্কা খায় নিউজিল্যান্ড। প্রথম ওভারেই বাউন্ডারি হাঁকিয়ে রানের খাতা খোলা মার্টিন গাপটিলকে ফিরিয়ে দেয় ইংল্যান্ড। ক্রিস ওকসের স্লোয়ার ডেলিভারিতে ক্যাচ তুলে দেন গাপটিল। ক্যাচ ধরে সাজঘরের পথ দেখান মঈন আলী।

ওয়ানডাউনে নামা কেন উইলিয়ামসনও পারলেন না দায়িত্ব নিতে। তৃতীয় ওভারে তাঁকেও শিকার বানান ওকস। ১১ বলে পাঁচ রান করে সাজঘরে ফেরেন কিউই অধিনায়ক। দ্রুত দুই টপ অর্ডারকে হারিয়ে চাপে পড়ে যায় নিউজিল্যান্ড।

তৃতীয় উইকেটে মিচেলের সঙ্গে হাল ধরেন ডেভন কনওয়ে। দুজনে মিলে লম্বা সময় টিকে ছিলেন। কিন্তু রান নিতে ধুঁকতে হয়েছে দুজনকেও। তবুও ৬৭ বলে ৮২ রানের জুটি উপহার দেন মিচেল-কনওয়ে। ১৪তম ওভারে ওই জুটি ভাঙেন লিয়াম লিভিনস্টোন। ৪৬ রানে ফিরে যান কনওয়ে। ৩৮ বলে ৫ বাউন্ডারি ও এক ছক্কায় সাজানো ছিল তাঁর ইনিংস।

এরপর উইকেটে এসে টিকতে পারলেন না গ্লেন ফিলিপসও। দ্রুত উইকেট হারানোর সঙ্গে রানরেটও বাড়তে থাকে। এক পর্যায়ে মনে হয়েছিল ম্যাচ থেকে ছিটকে যাবে কিউইরা। কিন্তু উইকেটে এসে ম্যাচের দৃশ্যই পাল্টে দেন নিশাম। ১১ বলে ২৭ রান করে ম্যাচ কিউইদের পক্ষে এনে দেন। তাঁর দেখানো পথ ধরে দলকে জয়ের বন্দরে পৌঁছে দেন মিচেল। ইনিংস শেষে ৭৩ রানে অপরাজিত ছিলেন মিচেল।

আবুধাবির শেখ জায়েদ স্টেডিয়ামে এর আগে ব্যাট করতে নেমে শুরুটা সতর্কভাবেই করে ইংল্যান্ড। নিয়মিত ওপেনার রস টেইলর না থাকায় আজ ওপেনিংয়ের দায়িত্ব সামলান জস বাটলার ও জনি বেয়ারস্টো। পাওয়ার প্লেতে প্রথম তিন ওভারে দুজনে তোলেন ১৩ রান, পরের তিন ওভারে আসে ২৭ রান। মোট ছয় ওভারে আসে ৪০ রান।

কিন্তু দুই ওপেনার ভালো কিছুর আভাস দিয়েও টিকে থাকতে পারেননি। জুটিতে ভালো সাফল্য পায়নি ইংলিশরা। সাবধানী শুরুর পর দুজনেই ফিরেছেন সাজঘরে। সেট হয়ে টিকতে পারেননি একজনও।

ষষ্ঠ ওভারে বোলিংয়ে এসে নিউজিল্যান্ডকে প্রথম সাফল্য এনে দেন অ্যাডাম মিলনে। ডানহাতি পেসারের ফুলার লেন্থ বল মারতে গিয়ে মিড অফে ক্যাচ তুলে দেন বেয়ারস্টো। সেখানে থাকা উইলিয়ামসন দুর্দান্ত ক্যাচ নিয়ে বিদায় করেন ইংলিশ তারকাকে। ১৭ বলে ১৩ রান করে ফেরেন বেয়ারস্টো।

বেয়ারস্টোর পর বেশিক্ষণ টিকলেন না বাটলারও। ইশ শোধির বলে রিভার্স সুইপ খেলতে গিয়ে এলবির ফাঁদে পড়ে যান তিনি। রিভিউ নিয়ে বাঁচতে চেয়েছিলেন তিনি। কিন্তু শেষ রক্ষাও হলো না। ২৪ বলে ২৯ রান করে সাজঘরে ফিরেছেন বাটলার।

দুই ওপেনারকে হারানোর পর প্রতিরোধ গড়েন মঈন আলী ও ডেভিড মালান। এই জুটিতে স্কোরবোর্ডে ৬৩ রান তোলে ইংল্যান্ড। ১৬তম ওভারে এই জুটি ভাঙেন টিম সাউদি। চার বাউন্ডারি ও এক ছক্কায় ৩০ বলে ৪১ করে ফেরেন মালান। তারপর উইকেটে এসে ফিরে যান লিয়াম লিভিংস্টোনও।

তবে মালান-লিয়াম ফিরলেও টিকে ছিলেন মঈন। দায়িত্বশীল ব্যাটিংয়ে দলকে টেনে নেন তিনি। শেষ ওভারে বাউন্ডারি হাঁকিয়ে ৩৬ বলে তুলে নেন ব্যক্তিগত হাফসেঞ্চুরি। তাঁর ব্যাটে চড়েই শেষ পর্যন্ত ১৬৬ রানের পুঁজি পায় ইংলিশ। ইনিংস শেষে ৫১ রানে অপরাজিত ছিলেন মঈন। ৩৭ বলে তাঁর ইনিংসে ছিল তিন বাউন্ডারি ও দুই ছক্কা।

নিউজিল্যান্ডের হয়ে বল হাতে ২৪ রান দিয়ে এক উইকেট নেন সাউদি। ৩২ রান খরচায় সমান একটি নেন ইশ শোধি। ৩১ রান দিয়ে অ্যাডাম মিলনেও নেন একটি।


আরও খবর



ট্রাকের চাপায় কুষ্টিয়ায় স্কুলছাত্রী নিহত

প্রকাশিত:শুক্রবার ২৬ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৬ নভেম্বর ২০২১ | ৪৫০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

কুষ্টিয়ায় সড়ক দুর্ঘটনায় তোয়া খাতুন (১১) নামের এক স্কুল শিক্ষার্থী নিহত হয়েছে। আজ শুক্রবার বেলা ১১টার দিকে কুষ্টিয়া-ঈশ্বরদী মহাসড়কের তালবাড়িয়া ইউনিয়নের রানাখড়িয়া শিমুলতলা বালুঘাট এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহত তোয়া খাতুন পাবনা জেলার সদর উপজেলার দৌগাছি ইউনিয়নের কুড়ুনিয়া গ্রামের মোকাররম মুন্সির মেয়ে। তালবাড়িয়া পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ উপ-পরিদর্শক (এসআই) শ্যামা প্রসাদ রায় ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, সকালে মোকাররম মুন্সি, তার স্ত্রী ও মেয়ে তোয়াকে নিয়ে মোটরসাইকেলে পাবনা থেকে কুষ্টিয়ায় এক আত্মীয়ের বাড়ি যাচ্ছিলেন। পথিমধ্যে বালুঘাট এলাকায় পৌঁছালে মোটরসাইকেল থেকে পড়ে যায় তোয়া। এসময় পেছন থেকে আসা একটি ট্রাক তাকে চাপা দিলে ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়। খবর পেয়ে ঘটনাস্থল থেকে মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালের মর্গে প্রেরণ করা হয়।


আরও খবর



স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর কাছে যাচ্ছেন ২০-দলীয় জোট নেতারা

প্রকাশিত:রবিবার ২১ নভেম্বর 20২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২১ নভেম্বর 20২১ | ৩৬৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার বিদেশে চিকিৎসার বিষয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামালের সঙ্গে সাক্ষাৎ করবেন ২০-দলীয় জোটের নেতারা। আজ রোববার (২১ নভেম্বর) দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে জোটের একটি প্রতিনিধি দল স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাৎ করার কথা রয়েছে। এ বিষয়ে স্মারকলিপি দেবেন তারা।

জোটের অন্যতম শরিক বাংলাদেশ কল্যাণ পার্টির চেয়ারম্যান সৈয়দ মুহাম্মদ ইবরাহিমের নেতৃত্বে পাঁচ সদস্যের একটি প্রতিনিধি দল স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করবেন।

প্রতিনিধি দলের সদস্য জোটের শরিক বাংলাদেশ জাতীয় দলের চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট সৈয়দ এহসানুল হুদা এবং এলডিপির একাংশের মহাসচিব শাহাদাত হোসেন সেলিম গণমাধ্যমকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। প্রতিনিধিদলে আরও রয়েছেন এনপিপির চেয়ারম্যান ড. ফরিদুজ্জামান ফরহাদ, এনডিপি চেয়ারম্যান কারী আবু তাহের।


আরও খবর