আজঃ শুক্রবার ০১ মার্চ ২০২৪
শিরোনাম

রোমান্টিক যীশুর ভিন্ন রূপ

প্রকাশিত:বুধবার ২৫ অক্টোবর ২০২৩ | হালনাগাদ:বুধবার ২৫ অক্টোবর ২০২৩ | অনলাইন সংস্করণ
বিনোদন ডেস্ক

Image

ক্যারিয়ারের শুরুর দিকে টানা বাণিজ্যিক সিনেমায় অভিনয় করেছেন। সাফল্য পাননি। তবে আবহমান দিয়ে অভিনেতাকে নতুন জীবন দিয়েছিলেন প্রয়াত পরিচালক ঋতুপর্ণ ঘোষ। সেই যীশু সেন এখন পশ্চিমবঙ্গ ছাড়িয়ে দক্ষিণ ভারত ও বলিউডে নিয়মিত সিনেমা, সিরিজ করছেন। একই সপ্তাহে মুক্তি পেয়েছে তাঁর বাংলা ও তেলেগু সিনেমা। একসময় রোমান্টিক নায়ক বলে পরিচিত যীশুকে দুই ছবিতেই দেখা গেছে খলনায়কের চরিত্রে।

সৃজিত মুখার্জির দশম অবতার সিনেমায় এক ক্রমিক খুনির চরিত্রে দেখা গেছে। দুর্গাপূজা উপলক্ষে ছবিটি মুক্তি পেয়েছে গত শুক্রবার। একই দিনে মুক্তি পেয়েছে ভামসি পরিচালিত তেলেগু পিরিয়ড অ্যাকশন থ্রিলার সিনেমা টাইগার নাগেশ্বর রাও। এ ছবিতে প্রধান খলনায়ক তিনি। যেখানে যীশু এক অসৎ পুলিশ কর্মকর্তা।

ক্যারিয়ারের শুরুর দিকে রোমান্টিক চরিত্রে বেশি দেখা গেছে যীশুকে। পাশের বাড়ির ছেলে টাইপ কোনো চরিত্র হলেই ডাক পড়ত তাঁর। সেই জায়গা থেকে পুরোপুরি খল চরিত্রে অভিনয় যীশুর জন্য কতটা চ্যালেঞ্জিং ছিল?

এ প্রসঙ্গে ভারতীয় গণমাধ্যম এবিপিকে অভিনেতা বলেন, চরিত্র ইতিবাচক, নাকি নেতিবাচক, তার চেয়েও আমার কাছে গুরুত্বপূর্ণ অভিনয়। কোনো চরিত্র ভালো লাগলে তবেই সিনেমাটা করতে রাজি হই। তারপর চরিত্রটিতে প্রাণ ঢেলে দিয়ে অভিনয় করি। কোনো দিন ভাবিনি যে নায়ক হতে হবে বা ভিলেন হতে হবে। একটা করে চিত্রনাট্য পড়ি আর সে অনুযায়ী কাজ করি।

এই প্রথম নয়, আগে বেশ কয়েকটি দক্ষিণি সিনেমায় নেতিবাচক চরিত্রে দেখা গেছে তাঁকে। তাহলে পরপর একই ধরনের কাজ হয়ে যাচ্ছে না?

এ প্রশ্নের উত্তরে ভারতীয় গণমাধ্যম আনন্দবাজার পত্রিকাকে যীশু বলেন, পরপর ছবিগুলো এভাবে মুক্তি পাচ্ছে বলে এ কথা মনে হতে পারে। আমি কিন্তু আগেও একটা সিরিয়াল কিলারের চরিত্রে অভিনয় করেছি। ছবিটা এখনো মুক্তি পায়নি। তবে সচেতনভাবে শুধুই ভিলেনের চরিত্র করব বলে কখনো ছবি বাছাই করি না। যীশু এখন দক্ষিণি সিনেমায় নিয়মিত মুখ। ভাষা নিয়ে সমস্যায় পড়তে হয়নি?

এ প্রসঙ্গে অভিনেতা বলেন, শুরুতে একটু ভয়ে ছিলাম। পরে চিরঞ্জীবী স্যার আমাকে শেখান, কী করে ভাষা না জানলেও সংলাপ বলতে হয়। সিনেমার কোনো ভাষা হয় না, আরও একবার মনে করিয়ে দিয়েছিলেন তিনি।

সামনে যীশুকে দেখা যাবে আরও বেশ কয়েকটি বাংলা, হিন্দি ও তেলেগু সিনেমায়।


আরও খবর
টেইলর সুইফট ইফেক্টে আক্রান্ত সিঙ্গাপুর

বৃহস্পতিবার ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

শাকিব ‘রাজকুমার’ হলে আমি রাজা: জায়েদ খান

বৃহস্পতিবার ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




সংসদে সংরক্ষিত নারী আসনের তফসিল ঘোষণা মঙ্গলবার

প্রকাশিত:সোমবার ০৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ০৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

দ্বাদশ সংসদ নির্বাচনের সংরক্ষিত নারী আসনে তফসিল মঙ্গলবার (৬ ফেব্রুয়ারি) ঘোষণা করা হবে। তফসিল ঘোষণার আগে মনোনয়নপত্র দাখিল, যাচাই-বাছাই, চূড়ান্ত প্রার্থী ও ভোট গ্রহণের তারিখ ঠিক করবে নির্বাচন কমিশন (ইসি)।

ওই দিন সকাল ১১টায় সংরক্ষিত নারী আসনের তফসিল নিয়ে বৈঠকে বসবে ইসি। বৈঠকে সভাপতিত্ব করবেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কাজী হাবিবুল আউয়াল। কমিশন বৈঠকের পরেই তফসিল ঘোষণা করা হবে।

সংরক্ষিত নারী আসনে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ ১৪ দলের শরিকদের সঙ্গে জোটবদ্ধ হয়ে সংসদে সংরক্ষিত ৫০টি নারী আসনে নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবে। এবার ক্ষমতাসীনদের সমর্থন জানিয়েছেন স্বতন্ত্র প্রার্থীরা।

ইসি অতিরিক্ত সচিব অশোক কুমার দেবনাথ গণমাধ্যমকে বলেন, ৫০ সংরক্ষিত নারী আসনের ভোটের তফসিল মঙ্গলবার ঘোষণা করা হবে। কমিশন বৈঠকের পরে সব কিছু জানিয়ে দেয়া হবে। দ্বাদশ জাতীয় সংসদের সংরক্ষিত নারী আসনের নির্বাচনে সরকারি দল আওয়ামী লীগকে সমর্থন দিয়েছেন স্বতন্ত্র এমপিরা। এতে সংরক্ষিত নারী আসনগুলোতে ৪৮ জন প্রার্থী দেবে দলটি। আওয়ামী লীগের নিজস্ব সংসদ সদস্য ২২৩ জন ও জোটে দুজন। সব মিলিয়ে এখন সংরক্ষিত ৫০টির মধ্যে ৪৮টি আওয়ামী লীগের মনোনয়নে নির্বাচিত হবে।

তিনি বলেন, গণতন্ত্রকে শক্তিশালী করার জন্য ও গণতান্ত্রিক সংস্কৃতিকে প্রাণবন্ত করার জন্য স্বতন্ত্র সংসদ সদস্যরা এই সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। এই সিদ্ধান্তকে আমি একজন রাজনৈতিক কর্মী হিসেবে সাধুবাদ জানাই।

নির্বাচন বিধি অনুযায়ী, সংসদ নির্বাচনের ফলাফলের গেজেট হওয়ার ৩০ কার্যদিবসের মধ্যে সংরক্ষিত মহিলা আসনে নির্বাচনে রাজনৈতিক দল বা জোটের সদস্যদের পৃথক তালিকা প্রস্তুত করার বাধ্যবাধকতা আছে। তবে এবার অর্ধশতাধিক আসনে স্বতন্ত্ররা বিজয়ী হওয়ায় সংরক্ষিত নারী আসনগুলো নিয়ে তুমুল আলোচনা হয়। স্বতন্ত্ররা সংরক্ষিত আসনগুলোর বিষয়ে মনোনয়ন দেয়ার দায়িত্ব প্রধানমন্ত্রীর হাতে ছেড়ে দেয়ায় বাকি থাকে দুটি আসন। সংসদের বিরোধী দল হিসেবে এ আসনগুলোতে নারী প্রার্থীদের মনোনয়ন দেবে জাতীয় পার্টি।


আরও খবর



‘পায়রায় বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চল গড়তে আগ্রহী সৌদি’

প্রকাশিত:বুধবার ০৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ০৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

পায়রায় বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চল গড়ে তুলতে সৌদি আরবের বিনিয়োগকারীরা আগ্রহ প্রকাশ করেছে বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রীর বেসরকারি শিল্প ও বিনিয়োগ উপদেষ্টা সালমান এফ রহমান। মঙ্গলবার (৬ ফেব্রুয়ারি) রাজধানীর বিডা ভবনে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান তিনি।

সালমান এফ রহমান বলেন, বাংলাদেশ-সৌদি যৌথ উদ্যোগে সৌদি আরবে ইউরিয়া সার কারখানা স্থাপনের সম্ভাব্যতা যাচাই কাজ শুরু হয়েছে। পায়রায় বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চল গড়ে তুলতে আগ্রহী তারা।

চট্টগ্রামের ইস্টার্ন রিফাইনারি লিমিটেড ঘিরে সৌদি আরামকো পেট্রোকেমিক্যাল ইন্ডাস্ট্রি গড়ে তুলতে চায় বলেও জানান প্রধানমন্ত্রীর বেসরকারি শিল্প ও বিনিয়োগ উপদেষ্টা।

তিনি আরও বলেন, গ্যাস সংকটে উৎপাদন আর ডলার সংকটে দ্বিপাক্ষিক বাণিজ্যে বিঘ্ন ঘটছে। গ্যাসে বেশ কয়েকটি সমস্যা রয়েছে।

নিউজ ট্যাগ: সালমান এফ রহমান

আরও খবর



১৪ ফেব্রুয়ারি সংরক্ষিত আসনের জন্য সাক্ষাৎকার নেবে আওয়ামী লীগ

প্রকাশিত:শনিবার ১০ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ১০ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

সংরক্ষিত আসনে মনোনয়ন প্রত্যাশীদের সাক্ষাৎকার নেবে আওয়ামী লীগ। বুধবার (১৪ ফেব্রুয়ারি) গণভবনে এ সাক্ষাৎকার অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে। এতে সভাপতিত্ব করবেন আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

শনিবার (১০ ফেব্রুয়ারি) আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

এর আগে মঙ্গলবার (৬ ফেব্রুয়ারি) দ্বাদশ জাতীয় সংসদে সংরক্ষিত মহিলা আসনের জন্য মনোনয়ন ফরম বিক্রি শুরু করে আওয়ামী লীগ। ওইদিন সকাল ১০টায় বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউয়ে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে ফরম বিক্রি শুরু হয়।

সংসদের সংরক্ষিত আসনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেতে ৮ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত তিনদিনে দলীয় ফরম কিনেছেন এক হাজার ৫৪৯ জন নারী। মোট সাত কোটি ৭৪ লাখ ৫০ হাজার টাকার মনোনয়ন ফরম বিক্রি করেছে দলটি।

নিউজ ট্যাগ: আওয়ামী লীগ

আরও খবর



ফোন ট্র্যাকিং বুঝার উপায়, বন্ধ করতে যা করবেন

প্রকাশিত:সোমবার ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি ডেস্ক

Image

এখন ছোট থেকে বড় সকলের হাতে হাতেই স্মার্টফোন। এটিকে বলা যায় প্রযুক্তির আর্শিবাদ। স্মার্ট ফোন ব্যবহারের সুবিধা যেমন, তেমনি আছে ভোগান্তিও। অনেকেই হয়তো ভেবে দেখেননি ভোগান্তি কীভাবে হয়। একটি ভোগান্তি বা সমস্যা হলো ট্র্যাকিং। এর শিকার হলে সব গোপন তথ্য ফাঁস হয়ে যায়। এতে হুমকিতে পড়তে পারে মোবাইল ফোন ব্যবহারকারীর নিরাপত্তার বিষয়টি। তবে সতর্ক থাকলে এ থেকে রক্ষা পাওয়া সম্ভব।

ট্র্যাকিং বুঝার উপায় : নোটিফিকেশন প্যানেলে ডিভাইস লোকেটেড লেখা কোনো নোটিফিকেশন আসে কি না খেয়াল রাখুন। ফাইন্ড গুগল ছাড়া স্ট্যাটাস বারে লোকেশন ইনফরমেশন আইকন দেখা যায় কি না খেয়াল করুন। ট্র্যাকিং হচ্ছে কি না জানতে বিভিন্ন কোড ডায়াল করে দেখতে পারেন। যেগুলো ফোন ট্র্যাকিং করা হলে সম্ভাব্য কিছু প্রতিক্রিয়া দেখাবে। যেমন- *# ৬১# লিখে ডায়াল করলে ইনকামিং কলগুলো অন্য কোনো নম্বরে ফরওয়ার্ড করা হয় কি না, তা জানাবে। একইভাবে *# ৬২# ডায়াল করে দেখা যাবে, কোনো ডাইভারশন সফটওয়্যার বিভিন্ন কল ও টেক্সটকে আপনার কাছে পৌঁছাতে বাধা দেয় কি না। এরপরও যদি মনে করেন নিরাপত্তা হুমকির মুখে, তাহলে স্থানীয় থানায় যোগাযোগ করুন।

প্রতিরোধে করণীয় : অ্যান্ড্রয়েড ফোনে সব সময় লোকেশন বার বন্ধ করে রাখুন। ট্র্যাকিং থেকে বাঁচতে ফোনের জিপিএস অপশনটি বন্ধ করে রাখতে হবে। যদি আসে, তাহলে ফোনে লগইন করা জি-মেইলের পাসওয়ার্ড বদলে ফেলতে হবে। যদি ফাইন্ড গুগল ছাড়া স্ট্যাটাস বারে লোকেশন ইনফরমেশন আইকন দেখা যায়, তাহলে বুঝবেন আপনার মোবাইল ফোনের সেটে স্পাই অ্যাপ আছে। সমাধান পেতে, ফোনের ডেভেলপার অপশনে চলে যান। সেখান থেকে রানিং সার্ভিস অপশনে গিয়ে সন্দেহজনক কোনো অ্যাপ চোখে পড়লে সোজা আন-ইনস্টল করে দিন।

ট্র্যাকিং হওয়ার বিষয় একবার নিশ্চিত হয়ে গেলে ফোনের সেটিংসে যান এবং লোকেশন সেটিংস অফ করে দিন। এটি ফোনকে আপনার অবস্থান সংগ্রহ করা বন্ধ করতে সাহায্য করবে। চাইলে ডিভাইসে একটি ভিপিএন ব্যবহার করুন। এটি আপনার ইন্টারনেট ট্রাফিকটিকে এনক্রিপ্ট করে এবং আপনার অবস্থান গোপন রাখতে সাহায্য করবে।

এ ছাড়া নিরাপদ থাকতে ফোনকে ট্র্যাকিং থেকে রক্ষা করার জন্য একটি লক স্ক্রিন ব্যবহার এবং শক্তিশালী পাসওয়ার্ড বা ফাংশনাল প্যাটার্ন দিয়ে সুরক্ষিত রাখার চেষ্টা করতে হবে। ফোন রুট করা থেকে বিরত থাকুন। কারণ, অনেক সময় রুটের মাধ্যমে ফোনের এক্সেস পেয়ে যায়, এতে ফোনের তথ্যাদি চুরি হতে পারে। অনাকাঙ্ক্ষিত মেসেজ, যেমন স্প্যাম বক্সের জমা করা মেসেজ খোলা থেকে বিরত থাকুন।

কোনো লিংক থেকে সফটওয়্যার ডাউনলোড করা উচিত নয় এবং কোনো ধরনের সফটওয়্যার ডাউনলোড করার ক্ষেত্রে গুগল প্লে স্টোর ব্যবহার করা ভালো।


আরও খবর
শনিবার ইন্টারনেট সেবায় বিঘ্ন ঘটার শঙ্কা

বুধবার ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




ক্যানসারের ভ্যাকসিন তৈরির দ্বারপ্রান্তে রাশিয়া : পুতিন

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
আন্তর্জাতিক ডেস্ক

Image

রাশিয়া ক্যানসারের ভ্যাকসিন তৈরির দ্বারপ্রান্তে বলে জানিয়েছেন রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন। তিনি বলেছেন রোগীরা শিগগিরই এই ভ্যাকসিন পেতে পারেন। বৃহস্পতিবার (১৫ ফেব্রুয়ারি) এই তথ্য জানিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স।

গণমাধ্যমটি বলছে, রাশিয়ান বিজ্ঞানীরা ক্যানসারের ভ্যাকসিন তৈরির কাছাকাছি রয়েছেন এবং এটি শিগগিরই রোগীদের জন্য সহজলভ্য হতে পারে বলে জানিয়েছেন পুতিন। তার কথায়, আমরা নতুন প্রজন্মের তথাকথিত ক্যানসার ভ্যাকসিন এবং ইমিউনোমোডুলেটরি ওষুধ তৈরির খুব কাছাকাছি চলে এসেছি

ভবিষ্যতের প্রযুক্তির ওপর আয়োজিত মস্কো ফোরামে ভাষণ দেয়ার সময় রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট আরও বলেন, আমি আশা করি, শিগগিরই এই টিকা কার্যকরভাবে রোগীদের চিকিৎসা থেরাপির পদ্ধতি হিসাবে ব্যবহার করা হবে। তবে প্রস্তাবিত ভ্যাকসিনগুলো ঠিক কোন ধরনের ক্যানসার লক্ষ্য করে চিকিৎসার কাজ করবে বা কীভাবে হবে সে বিষয়ে বিস্তারিত কোনো বক্তব্য দেননি পুতিন।

রয়টার্স বলছে, বিশ্বের অনেক দেশ ও কোম্পানি ক্যানসারের ভ্যাকসিন নিয়ে কাজ করছে। গত বছর যুক্তরাজ্য সরকার ব্যক্তিগত ক্যানসার চিকিৎসা প্রদান করতে ক্লিনিকাল ট্রায়াল চালু করার জন্য জার্মান-ভিত্তিক বায়োএনটেকের সঙ্গে একটি চুক্তি স্বাক্ষর করেছে। দেশটি এই কাজে ২০৩০ সালের মধ্যে ১০ হাজার রোগীর কাছে পৌঁছানোর লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করেছে।

এছাড়া ফার্মাসিউটিক্যাল কোম্পানি মডার্না এবং মেরর্ক অ্যান্ড কোম্পানিও একটি পরীক্ষামূলক ক্যান্সারের ভ্যাকসিন তৈরি করছে। এই টিকার কার্যকারিতা সম্পর্কে মধ্য-পর্যায়ের এক গবেষণায় দেখা গেছে, মেলানোমায় আক্রান্ত রোগীদের তিন বছরের চিকিৎসার পর ফের এই রোগের পুনরাবৃত্তি বা মৃত্যুর সম্ভাবনা অর্ধেক কমে গেছে। মূলত মেলানোমা হচ্ছে সবচেয়ে মারাত্মক ত্বকের ক্যানসার।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার মতে, হিউম্যান প্যাপিলোমাভাইরাস (এইচপিভি)-এর বিরুদ্ধে বর্তমানে ছয়টি লাইসেন্সপ্রাপ্ত ভ্যাকসিন রয়েছে। এইচপিভি জরায়ুমুখের ক্যান্সারসহ অনেক ধরনের ক্যানসার সৃষ্টি করে। একইসঙ্গে হেপাটাইটিস বি (এইচবিভি)-এর বিরুদ্ধেও ভ্যাকসিন রয়েছে যা লিভার ক্যানসার সৃষ্টি করতে পারে।


আরও খবর