আজঃ সোমবার ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
শিরোনাম

রোববার প্রেস ক্লাবের সামনে বিএনপির মানববন্ধন

প্রকাশিত:শুক্রবার ০৮ ডিসেম্বর ২০২৩ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০৮ ডিসেম্বর ২০২৩ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

আন্তর্জাতিক মানবাধিকার দিবস উপলক্ষে আগামী রোববার বেলা ১১টায় ঢাকায় জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে মানববন্ধনের ঘোষণা দিয়েছে বিএনপি। একইদিন ঢাকা ছাড়াও দেশের সব জেলা শহরে এ কর্মসূচি পালন করবে দলটি।

শুক্রবার বিকালে এক ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলনে বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী এ কথা জানান।

গত দুদিন বিএনপির অবরোধ সফল করায় দলের নেতাকর্মীদের ধন্যবাদ জানান রিজভী। তিনি বলেন, আমাদের পরবর্তী কর্মসূচি আগামী ১০ ডিসেম্বর আন্তর্জাতিক মানবাধিকার দিবস উপলক্ষে। যারা গুম-খুন হয়েছেন, তাদের পরিবারের সমন্বয়ে এই মানববন্ধন কর্মসূচি ঘোষণা করেছে বিএনপি। ঢাকা মহানগরসহ সব জেলা সদরে এ কর্মসূচি পালিত হবে।

রিজভী জানান, ঢাকায় মানববন্ধন হবে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে বেলা ১১টায়। এ বিষয়ে ঢাকা মহানগর বিএনপি সার্বিক প্রস্তুতি নিয়েছে এবং ঢাকার বাইরে অন্যান্য জেলায় মানববন্ধন সফল করতে নেতাকর্মীরা প্রস্তুতি নিয়েছে।

বিএনপির এই নেতা আরও বলেন, সরকারের দিক থেকে সব বাধা-বিপত্তি যদি আসে সবকিছুকে প্রতিহত করে, অন্যায়ের বিরুদ্ধে প্রতিবাদের প্রতীক হিসেবে এ কর্মসূচি সফল করতে হবে।

আরও পড়ুন>> রবিবার হরতাল-অবরোধ দিচ্ছে না বিএনপি

ঢাকাসহ সারা দেশের সব পর্যায়ের নেতাকর্মীদের আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, যেসব পরিবার নিপীড়ন-নির্যাতনের শিকার হয়েছেন, গুম-খুন হয়েছে, সেসব পরিবারের সদস্যদের আপনারা মানববন্ধনে নিয়ে আসবেন। এসব কর্মসূচি অনাচারের বিরুদ্ধে, অবিচারের বিরুদ্ধে, অত্যাচারের বিরুদ্ধে।

সরকারকে ইঙ্গিত করে রিজভী বলেন, তাদের কাছে নাশকতার সংজ্ঞা হলো, গণতন্ত্রের পক্ষে, অবাধ-সুষ্ঠু নির্বাচনের কথা বলা। এ ধরনের কথা বলা মানেই একজন নাশকতাকারী। নিজের হাতে ক্ষমতা ধরে রাখতে স্বৈরাচারে রূপান্তরিত হয়েছে আওয়ামী সরকার। তারা দেশ থেকে রাষ্ট্র থেকে সমাজ থেকে সত্য কথা ভুলিয়ে দিতে চাচ্ছে। এ রকম একটি পরিস্থিতি তৈরি করেছে যেখানে সত্য কথা, মানুষের অধিকারের পক্ষে কথা বলা সবচেয়ে বড় অপরাধ হিসেবে গণ্য করা হয়।

গত ২৪ ঘণ্টায় বিএনপির ২১৫ জনের বেশি নেতাকর্মীকে পুলিশ গ্রেফতার করেছে দাবি করে তিনি বলেন, সাতটি মামলায় সাড়ে ৮০০ জনের বেশি নেতাকর্মীকে আসামি করা হয়েছে।


আরও খবর



মিউনিখ নিরাপত্তা সম্মেলনে যোগ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী

প্রকাশিত:শুক্রবার ১৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ১৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

তিন দিনব্যাপী শুরু হওয়া মিউনিখ নিরাপত্তা সম্মেলন (এমএসসি) ২০২৪-এ যোগ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। শুক্রবার (১৬ ফেব্রুয়ারি) স্থানীয় সময় বিকেলে হোটেল বেয়েরিশার হফের কনফারেন্স হলে কনফারেন্স চেয়ারের উদ্বোধনী ও স্বাগত বক্তব্য উপস্থাপনকালে যোগদান করেন প্রধানমন্ত্রী। এ সময় প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে ছিলেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ।

এমএসসি ২০২৪ আগামী ১৮ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত চলবে। এটি বরাবরের মতো এবারও বিশ্বের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ নিরাপত্তা চ্যালেঞ্জগুলোর ওপর উচ্চ-পর্যায়ের বিতর্কের এক অনন্য সুযোগ এনে দিয়েছে।

১৯৬৩ সালে প্রতিষ্ঠিত এমএসসি পরবর্তী প্রধান সম্মেলন পর্যন্ত এবং সম্মেলন চলাকালে এর ৬০তম বার্ষিকী উদযাপন করবে।

ইওয়াল্ড ফন ক্লিস্টের দ্বারা এটি প্রতিষ্ঠার ছয় দশক পর এমএসসি এবারও সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ আন্তর্জাতিক নিরাপত্তা উদ্বেগের বিষয়ে আলোচনার জন্য বিশ্বের জ্যেষ্ঠ সিদ্ধান্ত গ্রহণকারী এবং চিন্তা-নায়কদের একত্রিত করছে।

এর আগে সম্মেলনে যোগ দিতে বৃহস্পতিবার (১৫ ফেব্রুয়ারি) সন্ধ্যায় তিন দিনের সরকারি সফরে মিউনিখ পৌঁছেন প্রধানমন্ত্রী।

সম্মেলনে যোগদানের আগে হোটেল বেয়েরিশার হফে কাতারের প্রধানমন্ত্রী ও পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবদুল রহমান আল-থানির সঙ্গে বৈঠক করেন শেখ হাসিনা।

এর আগে উইমেন পলিটিক্যাল লিডারস (ডব্লিউপিএল) সভাপতি সিলভানা কোচ-মেহরিন প্রধানমন্ত্রীর সাথে তার আবাস ভবনের দ্বিপক্ষীয় বৈঠক কক্ষে সাক্ষাৎ করেন।

বৈঠকে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ ও পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব মাসুদ বিন মোমেন।


আরও খবর



স্মার্ট নাগরিক তৈরিতে প্রাথমিক শিক্ষার ভূমিকা গুরুত্বপূর্ণ

প্রকাশিত:সোমবার ২৯ জানুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ২৯ জানুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতিশ্রুত স্মার্ট নাগরিক তৈরিতে গুরুত্বপূর্ণ ও বলিষ্ঠ ভূমিকা পালন করতে হবে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরকে। সোমবার (২৯ জানুয়ারি) বিকালে মিরপুরে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের কর্মকর্তাদের সঙ্গে এক মতবিনিময় সভায় প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী রুমানা আলী এ মন্তব্য করেন।

এ সময় প্রতিমন্ত্রী কর্মকর্তাদের দেশপ্রেম, সততা, নিষ্ঠা ও আন্তরিকতার সাথে কাজ করার আহ্বান জানান।

তিনি বলেন, দেশের সরকারি কর্মচারীদের প্রায় এক-চতুর্থাংশ প্রাথমিক শিক্ষা পরিবারের। তাদের অন্তহীন প্রয়াস বাংলাদেশে প্রাথমিক শিক্ষার উত্তরণে বিশাল, বিরাট ও ব্যাপক অবদান রেখেছে। যার ফলশ্রুতিতে প্রাথমিক শিক্ষায় বাংলাদেশের অর্জন বিশ্বব্যাপী প্রশংসিত হয়েছে।

প্রতিমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব নিয়ে এদিন প্রথমবারের মতো প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরে আসেন রুমানা আলী। এর আগে তিনি দৃষ্টিনন্দন প্রকল্পের আওতায় ঢাকা মহানগরীর ৯টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের নির্মাণকাজ উদ্বোধন করেন।

অধিদপ্তরের মহাপরিচালক শাহ রেজওয়ান হায়াতের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মন্ত্রণালয়ের সচিব ফরিদ আহাম্মদ। আরও উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত মহাপরিচালক ড. উত্তম কুমার দাস, মাহবুবুর রহমান প্রমুখ।


আরও খবর



‘সন্ত্রাস-জঙ্গিবাদ-মাদকের হাত থেকে দেশকে রক্ষা করতে চাই’

প্রকাশিত:সোমবার ১২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ১২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, আমাদের ১৭ কোটি মানুষের দেশ। কাজেই এই মানুষের ভাগ্য পরিবর্তন করা, আর্থ সামাজিক উন্নতি করা এবং তাদের নিরাপত্তা বিধান করা, এটাই আমাদের কাজ। সন্ত্রাস, জঙ্গিবাদ, মাদক এর হাত থেকে আমরা দেশকে রক্ষা করতে চাই। দুর্নীতির বিরুদ্ধে আমাদের অভিযান সব সময় অব্যাহত থাকবে।

সোমবার (১২ ফেব্রুয়ারি) সফিপুর আনসার একাডেমিতে বাংলাদেশ আনসার ও গ্রাম প্রতিরক্ষা বাহিনীর ৭৬তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী এবং ৪৪তম জাতীয় সমাবেশে তিনি এসব কথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ২০৪১ সালের মধ্যে আমরা ক্ষুধা-দারিদ্রমুক্ত স্মার্ট সোনার বাংলাদেশ গড়ে তুলে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্ন পূরণ করব। নিরাপদ ও জলবায়ু পরিবর্তনের বিরূপ প্রভাব সহনীয় সমৃদ্ধশালী ব-দ্বীপ গড়ার লক্ষ্য নিয়ে শতবর্ষ মেয়াদি ডেল্টা প্ল্যান প্রণয়ন করা হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, দেশের প্রতিটি মানুষ যেন সুরক্ষিত থাকে, উন্নত জীবন পায় এবং প্রত্যেকে যেন নিজের পায়ে দাঁড়াতে পারে সেজন্য আমরা কাজ করছি। বিশেষ করে আমাদের তরুণ সমাজ, তারাই হবে আমাদের স্মার্ট বাংলাদেশের স্মার্ট নাগরিক।

আনসার ও গ্রাম প্রতিরক্ষা বাহিনীর সদস্যদের উদ্দেশে প্রধানমন্ত্রী বলেন, গ্রাম পর্যায়ে মানুষের কর্মসংস্থানে, গ্রামভিত্তিক আপনারা আরও দক্ষতার সঙ্গে মানুষকে সম্পৃক্ত করে কাজ করে যাবেন। যা দেশের আর্থসামাজিক উন্নয়নে অবদান রেখে যাবে।

অনুষ্ঠানে আরও ছিলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান, সিনিয়র সচিব মো. মোস্তাফিজুর রহমান, বাহিনীর মহাপরিচালক মেজর জেনারেল একেএম আমিনুল হক, অতিরিক্ত মহাপরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো. নাজিম উদ্দিন, আনসার ও ভিডিপি একাডেমির কমান্ড্যান্ট মো. নূরুল হাসান ফরিদী, বাহিনীর উপ-মহাপরিচালক।

প্রতিবছর ১২ ফেব্রুয়ারি আনসার বাহিনীর প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে সফিপুর আনসার ভিডিপি একাডেমিতে জাতীয় সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়ে আসছে। এ উপলক্ষ্যে আনসার ভিডিপি একাডেমিতে ব্যাপক প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে।


আরও খবর



আমরা হানাহানি চাই না: নওয়াজ শরিফ

প্রকাশিত:শনিবার ১০ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ১০ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
আন্তর্জাতিক ডেস্ক

Image

পাকিস্তানের জাতীয় পরিষদ নির্বাচনে কোনো দলই একক সংখ্যাগরিষ্ঠতা পাওয়ার পথে নেই। এ পর্যন্ত পাওয়া ফলাফলে সবচেয়ে এগিয়ে আছেন ইমরানপন্থি স্বতন্ত্র প্রার্থীরা। দ্বিতীয় অবস্থানে আছে নওয়াজ শরিফের দল পাকিস্তান মুসলিম লীগ (পিএমএল-এন)। এমন পরিস্থিতিতে জোট গঠন ছাড়া সরকার গঠন অসম্ভব। তাই জোট গঠনে মরিয়া হয়ে উঠেছেন পিএমএল-এন সুপ্রিমো নওয়াজ শরিফ।

নওয়াজ শরিফ বলেছেন, পিএমএল-এন হানাহানি চায় না, কারণ পাকিস্তানের সেই সামর্থ্য নেই। তিনি পাকিস্তানের নাজুক অর্থনৈতিক অবস্থার কথা মনে করিয়ে দিয়ে বলেন, বর্তমান পরিস্থিতি বিবেচনায় পাকিস্তানের অন্তত ১০ বছর স্থিতিশীলতা প্রয়োজন।

তিনি বলেন, জোট সরকারের জন্য তার দল পিপিপি, এমকিউএম-পি, জেআইআই-এফের সঙ্গে যোগাযোগ করছে।

নওয়াজ শরিফ বলেছেন, তিনি তার ছোট ভাই শাহবাজকে জোট সরকার গঠনের জন্য পির আসিফ আলী জারদারি, জমিয়তে উলামায়ে ইসলামের ফজলুর রেহমান এবং এমকিউএম-পির খালিদ মকবুল সিদ্দিকীর সঙ্গে যোগাযোগ করতে বলেছেন।

পিএমএল-এন নেতা আরো বলেছেন, পাকিস্তান বর্তমানে যে সমস্যার মধ্যে রয়েছে তা থেকে বের করে আনতে সব রাজনৈতিক দলের একসঙ্গে বসে সরকার গঠন করা দরকার।

পাকিস্তানকে এই সংকট থেকে বের করে আনতে দেশের সব প্রতিষ্ঠান, প্রত্যেকের একসঙ্গে ইতিবাচক ভূমিকা পালন করা উচিত উল্লেখ করে নওয়াজ বলেন, এটা সবার পাকিস্তান, শুধু পিএমএল-এনের নয়। সবার উচিত মিলেমিশে বসে পাকিস্তানকে সমস্যা থেকে বের করে আনা।

এর আগে ইমরানপন্থি স্বতন্ত্র প্রার্থীদেরকে তার দলের সঙ্গে যোগ দেওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন। নির্বাচনে জয়লাভের জন্য স্বতন্ত্র প্রার্থীদের তাদের অভিনন্দনও জানিয়েছেন নওয়াজ শরিফ।


আরও খবর



সাজেকে আগুন: পুড়ে গেছে রিসোর্ট, বসতঘর ও দোকান

প্রকাশিত:শুক্রবার ০২ ফেব্রুয়ারী 2০২4 | হালনাগাদ:শুক্রবার ০২ ফেব্রুয়ারী 2০২4 | অনলাইন সংস্করণ
রাঙ্গামাটি প্রতিনিধি

Image

রাঙ্গামাটির বাঘাইছড়ি উপজেলার সাজেক কংলাক পাহাড়ে অগ্নিকাণ্ডে পুড়ে গেছে পর্যটক রিসোর্ট। এছাড়া পুড়েছে স্থানীয়দের বসতঘর ও দোকান। অগ্নিকাণ্ডের সময় সেখানে থাকা পর্যটকদের নিরাপদে সরিয়ে নেওয়া হয়। বৃহস্পতিবার (০১ ফেব্রুয়ারি) মধ্যরাতে বাঘাইছড়ি উপজেলার সাজেক ভ্যালির কংলাক পাহাড়ে অবস্থিত মেঘছোঁয়া রিসোর্টে আগুন লাগে এবং মুহূর্তেই সেই আগুন আশপাশের রিসোর্ট, দোকান ও বসতঘরে ছড়িয়ে পড়ে। তবে এতে কোন হতাহতের ঘটনা ঘটেনি।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, বাঘাইছড়ি উপজেলার সাজেক ভ্যালির কংলাক পাহাড়ের মেঘছোয়া রিসোর্টের পাশে স্থানীয়রা শীত নিবারণের জন্য শুকনো পাতা ও কাঠে আগুন জ্বালায়। এসময় বাতাসের কারণে আগুন মুহূর্তে ছড়িয়ে পড়ে চারপাশে। আগুনে পুড়ে যায় পর্যটকদের মেঘছোয়া ও ফড়িংগি রিসোর্টসহ স্থানীয় ভূবন ত্রিপুরার বাড়ি ও একটি দোকান। খবর পেয়ে দ্রুত ঘটনাস্থলে আসে সেনাবাহিনী ও পুলিশ। পরে স্থানীয়দের সহযোগিতায় দুই ঘণ্টার চেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আসে। তবে এ ঘটনায় কোন আহত কিংবা মৃত্যুর খবর পাওয়া যায়নি।

সাজেক কটেজ মালিক সমিতির সহ-সভাপতি চাই থুয়াং অং চৌধুরী জয় জানান, অসচেনতনতার কারণে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনাটি ঘটেছে। আগুনে ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ এখনো জানা যায়নি। ক্ষতিগ্রস্ত রিসোর্টের পর্যটকদের থাকার ব্যবস্থা করা হয়েছে।


আরও খবর
ঝিনাইদহ জেলা কারাগারে কয়েদির মৃত্যু

সোমবার ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪