আজঃ মঙ্গলবার ২৮ জুন ২০২২
শিরোনাম

রাঙ্গামাটিতে সন্ত্রাসী হামলায় নিহত ৩!

প্রকাশিত:বুধবার ২২ জুন 20২২ | হালনাগাদ:বুধবার ২২ জুন 20২২ | ৩০৫জন দেখেছেন

Image

রাঙ্গামাটি প্রতিনিধি:

রাঙ্গামাটির বিলাইছড়ি উপজেলার সীমান্তবর্তী দুর্গম বড়থলি ইউনিয়নে বম পার্টি নামে একটি সন্ত্রাসী গ্রুপের গুলিতে তিনজন গ্রামবাসী নিহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। মঙ্গলবার সন্ধ্যায় ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ডের সাইজাম পাড়ায় এ ঘটনা ঘটেছে বলে জানিয়েছেন স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান আতোমং মারমা।

ইউপি চেয়ারম্যান আতোমং মারমা বলেন, গতকাল (মঙ্গলবার) সন্ধ্যার দিকে ইউনিয়নের সাইজাম পাড়ায় হত্যাকান্ডে ঘটনা ঘটে। দুর্গম গ্রামের এই পাড়াটিতে কয়েকটি বম ও ত্রিপুরা পরিবার বসবাস করে আসছেন। গতকাল সন্ধ্যার দিকে বম পার্টি খ্যাত কুকি-চিন ন্যাশনাল ফ্রন্ট (কেএনএফ) পার্টি তাদের ওপর হামলা করে এবং হামলায় তিনজন নিহত হন। কয়েকজন আহত হয়েছেন।

তিনি বলেন, এর আগেও মে মাসের দিকে ওই পাড়ায় হামলার ঘটনা ঘটেছে। তখন হতাহতের খবর না পেলেও এবার তিনজন মারা গেছেন। মে মাসে গ্রামবাসীর উপর হামলার কারণে তখন নিরাপত্তার অভাবে অনেক পরিবার বান্দরবানের রুমায় চলে যায়। কিছুদিন পুর্বে কয়েকটি পরিবার ফিরে আসে, আর তাদের উপর হামলার ঘটনা ঘটে।

স্থানীয় সূত্র জানান, ফারুয়া-বড়থলি এসব এলাকা পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতি নিয়ন্ত্রিত এলাকা, সেখানে নিয়ন্ত্রণ নিতে মাঝে মধ্যে সংস্কার বম পার্টি হানা দেয়। বম পার্টিদের ধারণা এলাকাবাসী জেএসএসকে সহযোগিতা করে, এই ধারণা থেকে হামলা করতে পারে। তবে মোবাইল নেট ও ইন্টারনেট সেবা না থাকায় সেখান থেকে কোন তথ্য পাওয়া যাচ্ছে না।

তবে কুকি চেইন ন্যাশনাল ফ্রন্ট (কেএনএফ) তাদের ফেবুক পেজে তথ্য দিয়ে বিষয়টি নিশ্চিত করেছে। তবে সন্ত্রাসী হামলায় নিহত ৩ এই বিষয়টি আইন শৃঙ্খলাবাহিনীও বিষয়টি নিশ্চিত করতে পারছে না।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ) মাহমুদা বেগম বলেন, 'হতাহতের ঘটনা শুনেছি। তবে সত্য মিথ্যা এখনো নিশ্চিত না। দুর্গম এলাকা সেখানে পৌঁছানো কঠিন, তদন্ত চলছে।


আরও খবর



পেশিশক্তির ভরসা করে আমরা রাজনীতি করি না: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

প্রকাশিত:রবিবার ২৯ মে ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ২৯ মে ২০২২ | ৩৮৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান বলেছেন, আমরা কোনো পেশিশক্তির ভরসা করে রাজনীতি করি না। কোনো বন্দুকের নলের ওপর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিশ্বাস করেন না।

প্রধানমন্ত্রী বিশ্বাস করেন এদেশের জনগণের ওপর। এ দেশের মানুষ বিশ্বাস করে বার বার দরকার, শেখ হাসিনার সরকার।

রোববার (২৯ মে) জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় মিলনায়তনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে এক আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

স্মৃতিচারণ করে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান বলেন, জগন্নাথ কলেজের ছাত্র ছিলাম, এখন জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় হয়েছে। আমার ছাত্র রাজনীতি শুরু হয়েছে এই জগন্নাথ থেকে। আমরা না গেলে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে কোনো আন্দোলন হতো না। জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগ নেতৃত্ব দেবে, আমাদের স্বপ্নের বাংলাদেশ বির্নিমাণের জন্য কাজ করবে।

আলোচনা সভায় জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি মো. ইব্রাহিম ফরাজীর সভাপতিত্বে সভায় প্রধান আলোচক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের আইন বিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট কাজী নজীবুল্লাহ হিরু ও সম্মানীত অতিথি হিসেবে ছিলেন জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো.  ইমদাদুল হক।

এছাড়া আরও উপস্থিত ছিলেন কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও সংসদ সদস্য (এমপি) নজরুল ইসলাম বাবু, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি কামরুল হাসান রিপন, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রেজারার অধ্যাপক ড. কামালউদ্দীন আহমদ, সুত্রাপুর থানা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক গাজী আবু সাইদ, কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সভাপতি আল-নাহিয়ান খান জয় ও সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্য প্রমুখ।

সভা সঞ্চালনা করেন জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক এস এম আকতার হোসাইন।


আরও খবর



ইউক্রেনে হামলা শুরুর পর প্রথম বিদেশ সফরে পুতিন

প্রকাশিত:সোমবার ২৭ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ২৭ জুন ২০২২ | ১৯৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

ইউক্রেনে রাশিয়ার আক্রমণ শুরুর পর এই প্রথমবার বিদেশ সফরে যাচ্ছেন রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন। রাশিয়ার রাষ্ট্রীয় টেলিভিশন রবিবার জানিয়েছে, এই সপ্তাহে মধ্য এশিয়ার দুটি সাবেক সোভিয়েত রাষ্ট্র সফর করবেন তিনি।

২৪ ফেব্রুয়ারি শুরু হওয়া ইউক্রেনে রুশ আক্রমণে কয়েক হাজার মানুষ নিহত, কয়েক লাখ বাস্তুচ্যুত হয়েছেন এবং মস্কোর বিরুদ্ধে ভয়াবহ আর্থিক নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। চীন, ভারত ও ইরানের সঙ্গে শক্তিশালী বাণিজ্যিক সম্পর্ক গড়ে তোলার জন্য পুতিন এই নিষেধাজ্ঞাকে কারণ হিসেবে উল্লেখ করছেন।

রুশ টেলিভিশনের খবরে বলা হয়েছে, তাজিকিস্তান ও তুর্কমেনিস্তান সফর করবেন পুতিন। সফর শেষে মস্কো ফিরে ইন্দোনেশিয়ার প্রেসিডেন্ট জোকো উইদোদোর সঙ্গে বৈঠক করবেন।

ডুশানবেতে পুতিন বৈঠক করবেন তাজিক প্রেসিডেন্ট ইমোমালি রাখমনের সঙ্গে। সাবেক এই সোভিয়েত রাষ্ট্রের সবচেয়ে বেশিদিন ক্ষমতায় থাকা নেতা রাখমন এবং রাশিয়ার ঘনিষ্ঠ মিত্র হিসেবে পরিচিত। আশগাবাটে তিনি কাস্পিয়ান দেশগুলোর একটি সম্মেলনে যোগ দেবেন। এতে থাকবেন আজারবাইজান, কাজাখস্তান, ইরান ও তুর্কমেনিস্তানের নেতারা।

পুতিনের সর্বশেষ বিদেশ সফর করেছিলেন ফেব্রুয়ারির শুরুতে। ওই সময় তিনি চীনের বেইজিং সফর করেন। চীনা প্রেসিডেন্ট শি জিনপিংয়ের সঙ্গে এক চুক্তি স্বাক্ষর করে দুই নেতা ঘোষণা দেন, তাদের দুই দেশের বন্ধুত্বের কোনও সীমা নেই।

রাশিয়া দাবি করে আসছে, প্রতিবেশী দেশে ২৪ ফেব্রুয়ারি আক্রমণ শুরুর মূল কারণ হলো ইউক্রেনের সামরিক সক্ষমতা কমিয়ে আনা, রাশিয়াকে হুমকি দিতে দেশটিকে পশ্চিমাদের দ্বারা ব্যবহার কমানো, জাতীয়তাবাদীদের উৎখাত এবং পূর্বাঞ্চলে রুশ ভাষাভাষীদের রক্ষা করা। ইউক্রেন এই আক্রমণকে সাম্রাজ্যবাদী স্টাইলে ভূমি দখল হিসেবে অভিহিত করছে।


আরও খবর



সাংবাদিকদের নাজুক অবস্থা, সুরক্ষা নিয়ে আর্টিকেল নাইনটিনের উদ্বেগ

প্রকাশিত:সোমবার ১৩ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ১৩ জুন ২০২২ | ৩৮৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

চলতি জুনে বাংলাদেশে তিনজন গণমাধ্যমকর্মী খুন হওয়ার ঘটনায় গভীর শঙ্কা ও উদ্বেগ প্রকাশ করেছে আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংস্থা আর্টিকেল নাইনটিন।

পাশাপাশি আর্টিকেল নাইনটিন ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলায় দেশজুড়ে সাংবাদিকদের বিরুদ্ধে ঢালাও মামলা ও সাংবাদিক দম্পতি সাগর-রুনি হত্যা মামলার তদন্ত প্রতিবেদন জমার তারিখ ৮৯তম বারের মতো পেছানোসহ সাংবাদিক নির্যাতনের অব্যাহত ঘটনায় নিন্দাও জানিয়েছে।রোববার (১২ জুন) গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে আর্টিকেল নাইনটিন এ নিন্দা জানায়।

সংস্থাটি মনে করে, সাংবাদিকদের অধিকার লঙ্ঘন ও হত্যাসহ নির্যাতনের অব্যাহত এ প্রবণতা বাংলাদেশে মতপ্রকাশের স্বাধীনতা পরিস্থিতির ক্রমাবনত নাজুক অবস্থা ও বিচারহীনতার পরিস্থিতি নির্দেশ করে।

আর্টিকেল নাইনটিন চলতি বছরের (২০২২) জানুয়ারি থেকে মে পর্যন্ত দেশজুড়ে সাংবাদিকদের ওপর শারীরিক হামলার ৬২টি ঘটনা রেকর্ড করেছে। এসব ঘটনায় ১১৮ জন সাংবাদিক আহত ও লাঞ্ছিত হয়েছেন। দেশের সচেতন নাগরিক, গণমাধ্যম ও সাংবাদিকদের ওপর এসব ঘটনার প্রভাব ও ব্যাপকতা মারাত্মক, যা ইতোমধ্যে একটি ভয়ের পরিবেশ ও সংস্কৃতি কায়েম করেছে।

আর্টিকেল নাইনটিন সাংবাদিকদের সুরক্ষা নিশ্চিতে হত্যাসহ নির্যাতন ও অধিকার লঙ্ঘনের প্রতিটি ঘটনা সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিয়ে দ্রুত ও সুষ্ঠু তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা গ্রহণের দাবিও জানিয়েছে। একইসঙ্গে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন সংশোধনে সরকারের প্রতিশ্রুতি অবিলম্বে বাস্তবায়নেরও আহ্বান জানায়।

সংস্থাটির দক্ষিণ এশিয়ার আঞ্চলিক পরিচালক ফারুখ ফয়সল বলেন, আর্টিকেল নাইনটিন ২০১৮ সাল থেকে মতপ্রকাশের অধিকার ও স্বাধীন সাংবাদিকতার পরিপন্থি বলে চিহ্নিত ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের নিবর্তনমূলক ধারাগুলো সংশোধনের দাবি জানিয়ে আসছে। আইনটির অপপ্রয়োগ হয়েছে স্বীকার করে সাম্প্রতিক সময়ে সরকারের একাধিক মন্ত্রী এ আইনে সাংবাদিকদের তাৎক্ষণিক গ্রেফতার না করার পাশাপাশি আইনটি সংস্কারের আশ্বাসও দিয়েছেন। কিন্তু বাস্তবতা হলো ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা দায়ের ও গ্রেফতার হচ্ছে অব্যাহত গতিতে।

তিনি বলেন, আর্টিকেল নাইনটিন ২০২১ সালে ৭১ জন সাংবাদিকের বিরুদ্ধে হওয়া ৩৫টি মামলার ঘটনা রেকর্ড করে। এসব মামলায় গ্রেফতার হয়েছেন ১৬ সাংবাদিক। আর চলতি বছরের জানুয়ারি থেকে মে পর্যন্ত ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে ২৩ সাংবাদিকের বিরুদ্ধে দায়ের হওয়া ১০টি মামলার ঘটনা রেকর্ড করা হয়েছে। এসময় তিনজন সাংবাদিক এ আইনের আওতায় গ্রেফতার হয়েছেন।

ফারুখ ফয়সল বলেন, আইনটির সুষ্ঠু প্রয়োগের চেয়ে সাংবাদিকদের হয়রানি করাসহ অপপ্রয়োগই বেশি হচ্ছে। এ বিষয়ে সরকার এবং প্রশাসনও অবগত। কালক্ষেপণ না করে প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী আইনটির প্রয়োজনীয় সংস্কার করতে সরকারের প্রতি আমরা আহ্বান জানাচ্ছি।

তিনি আরও বলেন, সাংবাদিক দম্পতি সাগর-রুনি হত্যা মামলার তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের সময় ৮৯ বারের মতো পিছিয়েছে। দীর্ঘ ১০ বছর ধরে চাঞ্চল্যকর ও আন্তর্জাতিকভাবে আলোচিত একটি মামলার তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের সময় এভাবে পেছানো নজিরবিহীন।


আরও খবর



৩ অসুখ: দূর হতে পারে শুধু আমের জোরেই

প্রকাশিত:রবিবার ২৬ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ২৬ জুন ২০২২ | ২৬০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

আম দিয়ে যে কত রকমের পদ বানান মানুষ, তা আর কী বলার আছে! আমের আহ্লাদই আলাদা। কিন্তু এর কুফল নিয়েও বড্ড বেশি আলোচনা হয়। তবে কি আম খাওয়া মানেই নিজের প্রতি অন্যায় করা? এ প্রশ্ন বহু জনের মনেই আসে।

তেমনটাও কিন্তু নয়। আম খেলে নানা ধরনের উপকারও হয়। তেমনই তিনটি জেনে রাখা জরুরি।

১) চোখের যত্নে আমের গুণ অঢেল। এই ফলে রয়েছে যথেষ্ট পরিমাণ ভিটামিন এ। এই ভিটামিন চোখ সুস্থ রাখতে সাহায্য করে। ফলে নিয়মিত আম খাওয়া গেলে চোখের যত্ন হয়।

২) অতিরিক্ত গরম পড়লেও কাজ করতে বেরোতেই হয়। কিন্তু বেশি ক্ষণ গরমে বাইরে থাকলে তা কষ্টের কারণ হয়ে দাঁড়াতে পারে। অনেক সময়ে হিট স্ট্রোকও হয়। এই সব সমস্যা থেকে বার করে আনতে পারে আম। কারণ ভিতর থেকে শরীর ঠান্ডা করে দেয় এই ফল।

৩) অনেকেরই বিভিন্ন ধরনের খাবারে অ্যালার্জি থাকে। তার জেরে শরীরের ঘটতে পারে পুষ্টির ঘাটতি। এ ক্ষেত্রেও বাঁচাতে পারে আম। কারণ আম খাদ্যের নানা উপাদানে ভরপুর। এতে রয়েছে ফাইবার, প্রোটিন, কার্বোহাইড্রেট। আবার ভিটামিন এ, সি এবং বিভিন্ন খনিজ পদার্থও রয়েছে এই ফলে। অর্থাৎ, একটি মাত্র ফল খেলেই শরীরে বিভিন্ন ধরনের উপাদান ঢুকে যাবে। আর অপুষ্টিতে ভোগার আশঙ্কা কমবে।

নিউজ ট্যাগ: আমের উপকার

আরও খবর
বিফ সাসলিক তৈরির রেসিপি

সোমবার ২৭ জুন ২০২২




নোংরামো করতে গেলেও শিক্ষা লাগে কাকু : স্বস্তিকা

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২৩ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২৩ জুন ২০২২ | ৩৬৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

ঘড়িতে রাত ৮টা। বোমা ফাটালেন অভিনেত্রী স্বস্তিকা মুখোপাধ্যায়। বুধবার ফেসবুকে নায়িকার পোস্ট বলুন দুদু, ডুডু নয়। নোংরামো করতে গেলেও শিক্ষা লাগে কাকু।

কিন্তু হঠাৎ কেন এমন কথা নায়িকার? আবার কী ঘটল? কয়েকদিন আগে মুক্তি পেয়েছে স্বস্তিকা মুখোপাধ্যায়ের নতুন ছবির একটি মজার গান। আর তা নিয়েই একটি মন্তব্য দেখে বেজায় চটেছেন নায়িকা। এক বার নয়, একাধিক বার ওই নোংরা মন্তব্য করেছেন এক ব্যক্তি। আর তা দেখেই মাথা গরম অভিনেত্রীর।

স্বস্তিকা লেখেন, দেখছি বার বার লিখছে ডুডু। আমি যত দূর জানি মেয়েদের বুককে মজা করে দুদু বলা হত। এসেছে দুধ থেকে, কারণ শিশুদের জন্য আমাদের বুকের দুধের চেয়ে বেশি পুষ্টিকর খাদ্য এখনও কোনও বিজ্ঞানী আবিষ্কার করতে পারেনি। এই নিয়ে আলাদা চর্চার দরকার নেই, কিন্তু তাই বলে সব সময়ে এমন শুনতে হবে? আর নোংরামি করতে গেলেও একটু শিক্ষা লাগে। দুদু কে ডুডু বললে হয় না কাকু।

নিজস্ব মতামত নিয়ে বরাবরই স্পষ্টবক্তা স্বস্তিকা। এমন নানা বিষয়ে বার বারই সরব হয়েছেন অভিনেত্রী। এ ক্ষেত্রেও তার অন্যথা হয়নি। এ নিয়ে কী বলছে টলিপাড়া? আনন্দবাজার অনলাইন যোগাযোগ করেছিল অভিনেত্রী শ্রুতি দাসের সঙ্গে। স্বস্তিকার সুরেই তিনি বলেন, কিছু কিছু নোংরা মানসিকতার মানুষ আছে। যাদের চরিত্র কোনওদিন বদলাবে না।


আরও খবর