আজঃ বুধবার ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
শিরোনাম

রাজশাহীতে নিপাহ ভাইরাসে শিশুর মৃত্যু

প্রকাশিত:সোমবার ২৩ জানুয়ারী 20২৩ | হালনাগাদ:সোমবার ২৩ জানুয়ারী 20২৩ | অনলাইন সংস্করণ
স্বাস্থ্য ডেস্ক

Image

নিপাহ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে (রামেক) চিকিৎসাধীন অবস্থায় এবার এক শিশুর মৃত্যু হয়েছে। সোমবার (২৩ জানুয়ারি) সকালে রামেক হাসপাতালের আইসিইউতে তার মৃত্যু হয়।

অবস্থার অবনতি হওয়ায় সাধারণ ওয়ার্ড থেকে তাকে আইসিইউতে স্থানান্তর করা হয়েছিল। সেখানেই চিকিৎসাধীন অবস্থায় আজ তার মৃত্যু হল। এর আগে জানুয়ারির প্রথম সপ্তাহে নিপাহ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে এক নারীর মৃত্যু হয়েছিল।

মারা যাওয়া ওই শিশুর নাম মো. সোয়াদ (৭)। সে পাবনার ঈশ্বরদী উপজেলার সানোয়ার হোসেনের ছেলে। এ নিয়ে বছরের শুরুতেই নিপাহ ভাইরাসের আক্রান্ত হয়ে রামেক হাসপাতালে দুইজনের মৃত্যু হল।

দুপুরে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের আইসিইউ ইউনিটের প্রধান ডা. আবু হেনা মোস্তফা কামাল এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, শুক্রবার (২০ জানুয়ারি) সকালে বাড়ির সবার সঙ্গে খেজুরের কাঁচা রস পান করে সোয়াদ। এরপর জ্বর ও খিঁচুনি শুরু হয়। এক পর্যায়ে অচেতন হয়ে যায় শিশুটি। শুক্রবার বিকেলেই তাকে হাসপাতালের শিশু ওয়ার্ডে ভর্তি করা হয়। কিন্তু অবস্থার আরও অবনতি হলে শনিবার (২১ জানুয়ারি) সকালে তাকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের শিশু আইসিইউতে স্থানান্তর করা হয়।

তিনি আরও বলেন, এক পর্যায়ে হাসপাতালের চিকিৎসকদের সন্দেহ হওয়ায় তার শরীর থেকে নমুনা সংগ্রহ করে তা নিপাহ ভাইরাসের পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়। রোববার (২২ জানুয়ারি) সন্ধ্যায় তার নমুনা পরীক্ষার ফলাফল আসে। এতে শনাক্ত হয় যে, সে নিপাহ ভাইরাসে আক্রান্ত। আর এ কারণেই ওই শিশুর অবস্থা সংকটাপন্ন ছিল। এরপর আজ সকালে আইসিইউতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যায় শিশু সোয়াদ।

এর আগে জানুয়ারির প্রথম সপ্তাহে নিপাহ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় এক নারীর মৃত্যু হয়। ওই নারী রাজশাহীর গোদাগাড়ী উপজেলার মাটিকাটা গ্রামের অধিবাসী ছিলেন।

নিউজ ট্যাগ: নিপাহ ভাইরাস

আরও খবর



বঙ্গবন্ধু এক্সপ্রেসওয়েতে পিকআপ উল্টে নিহত ২

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
জেলা প্রতিনিধি

Image

মুন্সীগঞ্জে একটি মাছবাহী পিকআপ নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে সড়ক বিভাজনে ধাক্কা লেগে উল্টে গিয়ে দুই মাছ ব্যবসায়ী নিহত হয়েছেন। আজ মঙ্গলবার (১৩ ফেব্রুয়ারি) দুপুর দেড়টার দিকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এক্সপ্রেসওয়ের শ্রীনগরের হাঁসাড়া এলাকায় মহাসড়কে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন, মো. হাফেজ (৪০) ও শহিদুল (৪২)। এ ঘটনায় আহত হয়েছে আরও পাঁচজন মাছ ব্যবসায়ী।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, মাছবাহী পিকআপটি মাওয়া থেকে ঢাকার দিকে যাচ্ছিল। পথিমধ্যে ঢাকামুখী লেনে হাঁসাড়া হাইওয়ে ফাঁড়ির বিপরীত দিকে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে সড়ক বিভাজনের সঙ্গে ধাক্কা লেগে পিকআপটি উল্টে যায়। এতে গুরুতর আহত হয় পিকআপে থাকা সাতজন। তাদের দ্রুত উদ্ধার করে শ্রীনগর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হয়। সেখানে দায়িত্বরত চিকিৎসক দুজনকে মৃত ঘোষণা করেন। 

আরও পড়ুন>> ককটেল বিস্ফোরণে পুলিশসহ ৩ জন আহত

বিষয়টি নিশ্চিত করে শ্রীনগর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরি বিভাগের দায়িত্বরত চিকিৎসক ডা. আকলিমা রৌশন জানান, গুরুতর আহত অবস্থায় সাতজনকে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসা হয়। এদের মধ্যে হাসপাতালে নিয়ে আসার পর দুজনের মৃত্যু হয়। অপর আহতদের উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে পাঠানোর প্রস্তুতি চলছে।

হাঁসাড়া হাইওয়ে পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ কাঞ্চন কুমার সিংহ জানান, দুর্ঘটনায় দুজন নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছে আরও পাঁচজন। তারা মূলত মাছ ব্যবসায়ী। মাওয়া থেকে মাছ নিয়ে তারা ঢাকার দিকে যাচ্ছিল।


আরও খবর
সিলেট নগরী থেকে গৃহবধূর গলিত লাশ উদ্ধার

বুধবার ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




রিয়েলিটি শো’র মঞ্চে দেখা যাবে মমতা ব্যানার্জিকে

প্রকাশিত:সোমবার ১৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ১৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
বিনোদন ডেস্ক

Image

পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী ও তৃণমূল কংগ্রেস নেত্রী মমতা ব্যানার্জিকে প্রথমবারের মত দেখা যাবে রিয়েলিটি শো দিদি নাম্বার ওয়ানর মঞ্চে। অনুষ্ঠানটির সঞ্চালক জনপ্রিয় অভিনেত্রী রচনা ব্যানার্জি। আগামী ২১ ফেব্রুয়ারি এপিসোডটির দৃশ্যগ্রহণ করা হবে বলে জানা গিয়েছে।

এদিকে গত জানুয়ারিতেই মমতার সাথে দেখা করেছিলেন রচনা। ধারণা করা হয়েছিলো রচনা হয়ত আগামী লোকসভা নির্বাচনে তৃণমূলের হয়ে রাজনীতির মাঠে নামবেন। তবে সব জল্পনা ভেস্তে দিয়ে রচনা জানিয়েছেন, আসলে মুখ্যমন্ত্রীকে অনুষ্ঠানের জন্য আমন্ত্রণ জানাতে গিয়েছিলেন তিনি।

ভারতীয় একাধিক গণমাধ্যমের খবর, আগামী ২১ ফেব্রুয়ারি জি বাংলার জনপ্রিয় এই রিয়েলিটি শোর স্পেশাল পর্বের শ্যুটিং স্টুডিওতে না হয়ে হাওড়ার ডুমুরজেলা স্টেডিয়ামে হবে।

উল্লেখ্য, পশ্চিমবঙ্গে মমতা ব্যনার্জি ও রচনা ব্যানার্জি দুজনকেই আমজনতা দিদি নামে সম্বোধন করে। একজন রাজনৈতিক পরিচয়ে গণমানুষের দিদি, আরেকজন এই অনুষ্ঠানের মাধ্যমে আপামর জনসাধারনের দিদি হয়ে উঠেছেন। দুজনের নামের পদবিও এক। ওপার বাংলার এই জনপ্রিয় শোর প্রচুর ভক্ত ও দর্শক রয়েছে বাংলাদেশেও।


আরও খবর



ব্রাজিলের হার, আর্জেন্টিনার ড্র

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ০৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
ক্রীড়া প্রতিবেদক

Image

স্বর্ণ জয়ের হ্যাটট্রিক মিশনে প্যারিস অলিম্পিকে যাওয়ার আগেই ধাক্কা খেল ব্রাজিল। দক্ষিণ আমেরিকান অঞ্চলের চূড়ান্ত বাছাইপর্বের প্রথম ম্যাচে সেলেকাওদের অনূর্ধ্ব-২৩ প্যারাগুয়ের কাছে ১-০ গোলে হেরে এ অঘটনের শিকার হয়েছে। তবে আর্জেন্টিনা ২-২ গোলে ড্র করেছে ভেনেজুয়েলার সঙ্গে।

দক্ষিণ আমেরিকার থেকে অলিম্পিক ফুটবলের বাছাইপর্বে দুটি দল সুযোগ পাবে। এই অঞ্চলে বাছাইপর্বের চূড়ান্ত পর্বে খেলছে আর্জেন্টিনা, ব্রাজিল, প্যারাগুয়ে ও ভেনেজুয়েলা। ভেনেজুয়েলায় চার দলের বাছাইপর্ব অনুষ্ঠিত হচ্ছে।

সোমবার (০৫ ফেব্রুয়ারি) রাতে কারাকাসে ম্যাচের শেষ মুহূর্তে ফ্যাব্রিজিও পেরালতার হেড থেকে পাওয়া গোলে এগিয়ে ব্রাজিলকে হারায় প্যারাগুয়ে। যদিও ম্যাচের ২৯তম মিনিটে পেনাল্টি থেকে আগামী বছর রিয়াল মাদ্রিদে যোগ দিতে যাওয়া ব্রাজিল ফুটবলের নতুন তারকা এনদ্রিক গোল করতে ব্যর্থ হন।

এর আগে একই ভেন্যুতে দিনের পরের ম্যাচে যোগ করা সময়ের দশম মিনিটে করা পেনাল্টি গোলে আর্জেন্টিনার সঙ্গে ড্র করে স্বাগতিক ভেনেজুয়েলা। তবে ম্যাচে লাল কার্ড ও আত্মঘাতী গোলে আর্জেন্টাইনরা খেলা শেষ করে ৯ জন নিয়ে। স্বস্তিতে ছিল না ভেনেজুয়েলাও, তাদেরও একজন দেখেছেন লাল কার্ড। আর দুই দলই প্রথম গোলটি পেয়েছে আত্মঘাতী গোলের সৌজন্যে। প্রথমার্ধে ১-১ গোলে সমতায় থাকা ম্যাচে ৬১ মিনিটে এগিয়ে গিয়েছিল আর্জেন্টিনা। এরপর শেষের ওই নাটক।

প্যারাগুয়ের বিপক্ষে আগামী ৮ ফেব্রুয়ারি দ্বিতীয় ম্যাচ খেলবে আর্জেন্টিনা। একই দিনে ব্রাজিলও ভেনেজুয়েলার বিপক্ষে খেলবে। এরপর ব্রাজিল ও আর্জেন্টিনা ১১ ফেব্রুয়ারি মুখোমুখি হবে।


আরও খবর
বাঁচা-মরার লড়াইয়ে মুখোমুখি রংপুর-বরিশাল

বুধবার ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

বিসিবিতে নতুন দায়িত্ব পেলেন নান্নু

বুধবার ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




কুষ্টিয়ায় ছেলের মৃত্যুর সংবাদ শুনে পিতার মৃত্যু

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
রফিকুল ইসলাম, কুষ্টিয়া

Image

কুষ্টিয়ার কুমারখালীতে ছেলের মৃত্যু সংবাদ শুনে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে বাবাও মারা গেছেন। মঙ্গলবার (১৩ ফেব্রুয়ারি) বিকেলে উপজেলার ছেঁউড়িয়া মণ্ডলপাড়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

মৃতরা হলেন উপজেলার ছেঁউড়িয়া মণ্ডলপাড়া গ্রামের বাসিন্দা মৃত হারান মণ্ডলের ছেলে কাবিল (৭০) ও কাবিলের ছেলে আবিদুল (৪৫)।

স্থানীয়রা জানান, সকালে নিজের বাসায় হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়েন আবিদুল। প্রথমে তাকে স্থানীয় চিকিৎসকের কাছে নিয়ে গিয়ে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়। কিছুক্ষণ পরে অবস্থার অবনতি হলে কুষ্টিয়া সদর হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে তিনি মৃত্যুবরণ করেন।

এদিকে ছেলের মৃত্যুর সংবাদ বাড়িতে পৌঁছালে বাবা কাবিল মিয়া গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়েন। তাৎক্ষণিক তাকে কুষ্টিয়া সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে তিনিও হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে মারা যান। মাত্র দুই ঘণ্টার ব্যবধানে বাবা-ছেলের মৃত্যুতে এলাকায় শোকের ছায়া নেমে আসে।

কুমারখালী উপজেলার চাপড়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান এনামুল হক মনজু বাবা-ছেলের মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করে তাদের আত্মার মাগফিরাত কামনা করেন।

নিউজ ট্যাগ: কুষ্টিয়া

আরও খবর
সিলেট নগরী থেকে গৃহবধূর গলিত লাশ উদ্ধার

বুধবার ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




বঙ্গবন্ধু স্বাধীন শক্তিশালী বিচার বিভাগের স্বপ্ন দেখে ছিলেন : আইনমন্ত্রী

প্রকাশিত:রবিবার ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:রবিবার ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
মশিউর রাহাত (পিরোজপুর)

Image

আইনমন্ত্রী আনিসুল হক বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান স্বাধীন শক্তিশালী বিচার বিভাগের স্বপ্ন দেখে ছিলেন। যেখানে বিচার প্রার্থী জনগণ শুধু ন্যায় বিচার পাবেন। বঙ্গবন্ধু শুধু এই স্বপ্নই দেখেননি বাংলাদেশকে তিনি স্বাধীন করার পর একটি আইনি কাঠামো তৈরি করে দিয়েছিলেন। কিন্তু ১৯৭৫ সালের ১৫ আগষ্ট নৃশংস হত্যাকাণ্ডের পর সামরিক শাসকদের যাতাকলে বঙ্গবন্ধুর সেই স্বপ্ন আর প্রস্ফুটিত হতে পারেনি।

আজ রবিবার (২৫ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে সংসদ ভবনের অফিস কক্ষ থেকে আইন মন্ত্রী আনিসুল হক ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে ৮ তলাবিশিষ্ট দৃষ্টিনন্দন চিফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের নতুন ভবন উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন।

মন্ত্রী মলেন, ২০০৯ সালে আওয়ামী লীগ সরকার ক্ষমতায় আসলে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিচার বিভাগের সমস্যা দূরকরণে বেশ কিছু যুগান্তকারী পদক্ষেপ গ্রহণ করেন। যার মধ্যে অন্যতম পদক্ষেপ চিফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রিসির প্রথম পর্যায়ে ২ হাজার ২শ ৬০ কোটি ৩৪ লক্ষ টাকা ব্যায়ে ৪১টি জেলায় আধুনিক সুযোগ সুবিধা সম্বলিত চিফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত নির্মন প্রকল্প। ইতোমধ্যে এর নির্মান কাজ শেষে হয়েছে। এবং আরও ৩৮টি জেলায় নির্মিত চিফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত উদ্বোধন করা হবে।  পিরোজপুরে ৫৬ কোটি ৬৪ লক্ষ টাকা ব্যায়ে নির্মিত ৮তলা ভবন উদ্বোধন করা হলো।

মন্ত্রী আরও বলেন, ২০৪১ সালের মধ্যে সুখী সমৃদ্ধ স্মার্ট বাংলাদেশ বিনির্মান করা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার রাজনৈতকি অঙ্গীকার। প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন পূরণে বিরামহীন ভাবে কাজ করে যাচ্ছেন।  তার সুদক্ষ ও দূরদর্শী নেতৃত্বেও কারনে পদ্মা সেতু কর্ণফুলী টানেল, মেট্রো রেল, হজরত শাহ জালাল বিমান বন্দরের তৃতীয় টার্মিনাল, এলিভেটেড এক্সেপ্রেস ওয়ে, রূপপূর পারমানবিক প্রকল্পসহ অনেক মেগা প্রকল্প বাস্তবায়ন করা সম্ভব হয়েছে। উন্নয়নের ক্ষেত্রে বিশ্বে বাংলাদেশ রোল মডেল হিসেবে স্বীকৃতি লাভ করেছে। তারই ধারাবাহিকতায় পিরোজপুরে আরও উন্নয়ন হবে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার গত ১৫ বছরের উন্নয়নের গতি, প্রকৃতি, অর্থনীতি, রাজনীতি, অর্থনীতি, সমাজনীতি সবকিছু বিচার বিশ্লেষণ করে দেখা যায় তিনি অভিষ্ট লক্ষ্যে পৌছাতে তিনি সঠিক পথে এগিয়ে যাচ্ছে।

এর আগে সংসদ ভবনের অফিস কক্ষ থেকে আইন মন্ত্রী আনিসুল হক ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে ৮তলা বিশিষ্ট দৃষ্টিনন্দন চিফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের নতুন ভবন উদ্বোধন করেন। অপর দিকে পিরোজপুর প্রান্তে জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

আইনমন্ত্রী আনিসুর হক উদ্বোধন ঘোষণার সঙ্গে সঙ্গে সম্মেলন কক্ষে স্থাপিত (অস্থায়ী) উদ্বোধনী ফলক উন্মেচন করেন পিরোজপুর-১ আসনের সংসদ সদস্য শ ম রেজাউল করিম, পিরোজপুর-২ আসনের সংসদ সদস্য মোহাম্মদ মহিউদ্দিন মহারাজ, চিফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত প্রকল্পের প্রধান সম্মনায়ক (যুগ্ম সচিব) বিকাশ কুমার সাহা ও জেলা জজ মোহাম্মদ মোক্তাগীর আলম।

৫৬ কোটি ৬৪ লাখ টাকা ব্যয়ে নির্মিত এ ভবনের কাজ বাস্তবায়ন করেছে গণপূর্ত বিভাগ। ৮ তলা এই ভবনে আদালতের কার্যক্রম শুরু হলে এজলাস কক্ষ সংকটের সমাধানের পাশাপাশি বিচারকার্যে গতি বাড়বে বলে মনে করেন আইনজীবী ও বিচারপ্রার্থীরা।

বিচারক, আইনজীবী ও বিচারপ্রার্থীদের সুবিধার জন্য এখানে রয়েছে ২২টি এজলাস, নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সরবরাহের জন্য ৫০০ কেবি সাবস্টেশন, অত্যাধুনিক ৩টি লিফট, অত্যাধুনিক লাইব্রেরি, কনফারেন্স রুম, ব্রেষ্ট ফিডিং কর্নার, নামাজের কক্ষ এবং বিচারকদের খাস কামরা। এছাড়াও এখানে রয়েছে নারী ও পুরুষদের জন্য পৃথক হাজতখানাসহ প্রয়োজনীয় অফিস কক্ষ, অপেক্ষমাণ কক্ষ এবং শৌচাগারের ব্যবস্থা।

আইন ও বিচার বিভাগ, আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব মোহাম্মদ গোলাম সারওয়ারের সভাপতিত্বে এসময় বক্তব্য রাখেন, পিরোজপুর-১ আসনের সংসদ সদস্য শ ম রেজাউল করিম, পিরোজপুর-২ আসনের সংসদ সদস্য মোহাম্মদ মহিউদ্দিন মহারাজ, চিফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত প্রকল্পের প্রধান সম্মনায়ক (যুগ্ম সচিব) বিকাশ কুমার সাহা ও জেলা জজ মোহাম্মদ মোক্তাগীর আলম জেলা প্রশাসক জাহেদুর রহমান, পুলিশ সুপার মুহাম্মদ শরীফুল ইসলাম, জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি খান মোহাম্মদ আলাউদ্দিন, সাদারণ সম্পাদক এম ডি আউয়াল।

উপস্থিত ছিলেন গণপূর্ত বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী জহুরুল ইসলাম, অ্যাডভোকেট কানাই লাল বিশ্বাস প্রমূখ।


আরও খবর
সিলেট নগরী থেকে গৃহবধূর গলিত লাশ উদ্ধার

বুধবার ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪