আজঃ বুধবার ২৫ মে ২০২২
শিরোনাম

রাজধানীর রায়েরবাজারে ছুরিকাঘাতে যুবক নিহত

প্রকাশিত:শনিবার ১৪ মে ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ১৪ মে ২০২২ | ২৪৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

রাজধানীর রায়েরবাজারে মেকাপ খান রোডে ছুরিকাঘাতে আহত হোসেন (১৯) নামের এক যুবক চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন। আজ শনিবার ভোর ৪টার দিকে ধানমণ্ডির একটি বেসরকারি হাসপাতালের নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিইউ) তাঁর মৃত্যু হয়। মোহাম্মদপুর থানার উপপরিদর্শক (এসআই) লিটন মাতবর এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

এসআই লিটন মাতবর বলেন, শুক্রবার সকাল ৯টার দিকে ছুরিকাঘাতের এ ঘটনা ঘটে। চার-পাঁচ জনের একটি দল হোসেনের ডান পাঁজরে আঘাত করে। পরে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান।

লিটন মাতবর আরও বলেন, ঘটনাটি পূর্বশত্রুতার জের ধরে ঘটতে পারে। এ ঘটনায় একটি হত্যা মামলা করা হয়েছে। আসামিদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।’ ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের (ঢামেক) পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ (পরিদর্শক) বাচ্চু মিয়া বলেন, মৃতদেহটি ময়নাতদন্তের জন্য ঢামেক মর্গে রাখা হয়েছে।

নিহত হোসেনের বোন মোমেনার বরাত দিয়ে লিটন মাতবর বলেন, হোসেন রায়েরবাজার এলাকাতে থাকতেন। গদিঘর এলাকায় একটি জুয়েলারি কারখানায় কাজ করতেন তিনি। শুক্রবার সকালে বাসা থেকে বের হয়ে কারখানায় যাচ্ছিলেন। পথে মেকাপ খান রোডে চার জন যুবক তাঁর ডান পাঁজরে ছুরিকাঘাত করে তাঁর মোবাইল ফোন ও মানিব্যাগ হাতিয়ে পালিয়ে যায়। শোনা যাচ্ছে, দুর্বৃত্তেরা হোসেনের পরিচিত। পরে আহত অবস্থায় তাঁকে প্রথমে সোহরাওয়ার্দী হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছিল। সেখান থেকে ঢামেকে নিয়ে তাঁর অস্ত্রোপচার করা হয়। অস্ত্রোপচারের পর চিকিৎসকেরা তাঁর আইসিইউ সাপোর্ট লাগবে বলে জানালে স্বজনেরা ধানমণ্ডি-২৭ নম্বরে একটি বেসরকারি হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করান।


আরও খবর



বাংলাবাজার-শিমুলিয়া নৌরুটে ২৪ ঘণ্টা চলবে ফেরি

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২৮ এপ্রিল ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২৮ এপ্রিল ২০২২ | ৩৫০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

বাংলাবাজার-শিমুলিয়া নৌরুটে শুক্রবার (২৯ এপ্রিল) থেকে দিনরাত ২৪ ঘণ্টা ৬টি ফেরি চলাচল করবে। এর আগে বুধবার (২৭ এপ্রিল) থেকে এ নৌরুটে পাঁচটি ফেরি চলাচল শুরু করে।

বিআইডব্লিউটিসির বাংলাবাজার ঘাট সূত্রে জানা গেছে, বুধবার (২৭ এপ্রিল) সকাল থেকেই ঈদকে সামনে রেখে ঘরমুখো যাত্রীদের ভিড় রয়েছে ঘাটে। নৌরুটে ৮৭টি লঞ্চ চলাচল করছে। যাত্রীদের যাত্রা নির্বিঘ্ন করতে লঞ্চের পাশাপাশি ফেরি কুমিল্লা, কুঞ্জলতা, ক্যামেলিয়া, মিনি রো-রো সুফিয়া কামাল ও বেগম রোকেয়া এ ৫টি ফেরি বাংলাবাজার-শিমুলিয়া নৌরুটে চলাচল করছে। আরও একটি ফেরি যুক্ত হবে এ নৌরুটে।

আপাতত ঈদের আগে ৫ দিন এবং পরে ৫ দিন ২৪ ঘণ্টা শিমুলিয়া-বাংলাবাজার নৌরুটে পদ্মা সেতুর নীচ দিয়ে আগের নিয়মে ফেরি চলাচল করবে বলে নিশ্চিত করছেন সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ।

বিআইডব্লিউটিএর বাংলাবাজার ফেরি ঘাটের ব্যবস্থাপক মো. সালাউদ্দিন আহমেদ বলেন, ঈদগামী যাত্রীদের যাত্রা নির্বিঘ্ন করতে ফেরি কুমিল্লা, কুঞ্জলতা, ক্যামেলিয়া, বেগম সুফিয়া কামাল ও বেগম রোকেয়া এ ৫টি ফেরিসহ মোট ৬টি ফেরি বাংলাবাজার-শিমুলিয়া নৌরুটে আগামীকাল শুক্রবার (২৯ এপ্রিল) থেকে ২৪ ঘণ্টাই চলবে।


আরও খবর



১২ বছর পর বড় পর্দায় শর্মিলা ঠাকুর

প্রকাশিত:শনিবার ১৪ মে ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ১৪ মে ২০২২ | ৩৩০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

আশির দশকে বলিউডের প্রথম সারির অভিনেত্রী শর্মিলা ঠাকুর। ২০১০ সালে ব্রেক কী বাদ সিনেমায় শেষবার বড় পর্দায় দেখা গিয়েছিল তাকে। দীর্ঘ ১২ বছর পর আবারও অভিনয়ে ফিরছেন তিনি। পরিচালক রাহুল চিট্টেলার গুলমোহর সিনেমা দিয়ে। ছবিতে অমল পালেকর, মনোজ বাজপেয়ীদের সঙ্গে পর্দায় অভিনয় করতে দেখা যাবে শর্মিলাকে। ছবিতে আরও অভিনয় করছেন লাইফ অফ পাই খ্যাত সূরজ শর্মা ও সিমরন ঋষি বাগ্গা।

ইতোমধ্যে শেষ হয়েছে ছবির শুটিং। রূপালি পর্দায় কামব্যাক করা নিয়ে অভিনেত্রী শর্মিলা ঠাকুর বলেছেন, অনেক দিন পর অভিনয়ে ফিরলাম। সিনেমাটির চিত্রনাট্য শুনেই অভিনয় করতে রাজি হয়ে গিয়েছিলাম। একটি পরিবারের গল্প। এত সুন্দর করে গল্প বলা হয়েছে যে আমি আর দ্বিতীয়বার ভাবিনি। একসঙ্গে বসে এ সিনেমা দেখতে খুবই ভালো লাগবে দর্শকের।

পারিবারিক সিনেমা গুলমোহর। বাত্রা পরিবারের গল্প উঠে আসবে এই সিনেমাতে। ৩৪ বছরের পুরোনো বাড়ি ছেড়ে বেরিয়ে যাবে গোটা বাত্রা পরিবার। এরপরই একান্নবর্তী পরিবারের পুরোনো সেই কথা নিজের ভাবনা দিয়ে পর্দায় ফুটিয়ে তুলবেন পরিচালক রাহুল চিট্টেলা। পরিবারের সদস্যরা পরস্পরের সঙ্গে নতুনভাবে সংযোগ স্থাপন করছেন। তারই মধ্যে ফাঁস হবে অনেক গোপন তথ্য।

লম্বা ব্রেকের পর এই ধরনের পারিবারিক ছবিতে কাজ করতে পেরে খুশি শর্মিলা ঠাকুরও। রাহুল চিট্টেলা পরিচালিত এই ছবির যৌথ প্রযোজনা করছে ফক্স স্টার স্টুডিওজ ও চকবোর্ড এন্টারটেইনমেন্ট অ্যান্ড অটোনমাস ওয়ার্কস। সব ঠিক থাকলে চলতি বছরের আগস্টে মুক্তি পাওয়ার কথা রয়েছে গুলমোহর-এর।

নিউজ ট্যাগ: শর্মিলা ঠাকুর

আরও খবর



অর্থ আত্মসাৎ-পাচার : ডেসটিনির এক মামলার রায় আজ

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১২ মে ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১২ মে ২০২২ | ৪০৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

ডেসটিনি গ্রুপের চেয়ারম্যান হারুন-অর-রশিদ ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) রফিকুল আমীনসহ ৪৬ জনের বিরুদ্ধে করা অর্থ আত্মসাৎ ও পাচারের মামলার রায় বৃহস্পতিবার (১২ মে) ঘোষণা করা হবে। বেলা ১১টার দিকে ঢাকার চতুর্থ বিশেষ জজ আদালতের বিচারক শেখ নাজমুল আলম এ রায় ঘোষণা করবেন। রায়ে সব আসামিকে সর্বোচ্চ শাস্তি ১২ বছরের কারাদণ্ড আশা করছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। অন্যদিকে আসামিপক্ষ বলছে, দুদক অভিযোগ প্রমাণ করতে সক্ষম হয়নি। তাই আসামিরা রায়ে খালাস পাবেন।

দুদকের আইনজীবী মীর আহম্মেদ সালাম জাগো নিউজকে বলেন, ডেসটিনি মাল্টিপারপাস কো-অপারেটিভ সোসাইটির গ্রাহকের অর্থ আত্মসাৎ ও পাচারের মামলায় গ্রুপের চেয়ারম্যান সাবেক সেনাপ্রধান হারুন-অর-রশিদ এবং ব্যবস্থাপনা পরিচালক রফিকুল আমীনসহ ৪৬ জনের বিরুদ্ধে করা মামলার রায় বৃহস্পতিবার হবে। আসামিদের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য প্রমাণে আমরা অভিযোগ প্রমাণ করতে সক্ষম হয়েছি। যে ধারায় আসামিদের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করা হয়েছে তার সর্বোচ্চ শাস্তি ১২ বছরের কারাদণ্ড। রায়ে আসামিদের সর্বোচ্চ শাস্তি প্রত্যাশা করছি।

এর আগে রোববার (২৭ মার্চ) ঢাকার চতুর্থ বিশেষ জজ আদালতের বিচারক শেখ নাজমুল আলম রাষ্ট্র ও আসামি পক্ষের যুক্তি উপস্থাপন শেষে রায় ঘোষণার জন্য ১২ মে দিন ধার্য করেছিলেন।

মামলায় ডেসটিনির এমডি রফিকুল আমীনসহ আসামি ৪৬ জন। তাদের মধ্যে জামিনে রয়েছেন লে. কর্নেল (অব.) মো. দিদারুল আলম, লে. জেনারেল (অব.) হারুন-অর-রশিদ, মিসেস জেসমিন আক্তার (মিলন), জিয়াউল হক মোল্লা ও সাইফুল ইসলাম রুবেল। কারাগারে আছেন এমডি রফিকুল আমীন ও প্রতিষ্ঠানটির চেয়ারম্যান মোহাম্মদ হোসেন। অন্য ৩৯ আসামি পলাতক।

পলাতক আসামিরা হলেন- ডেসটিনির উপ-ব্যবস্থাপনা পরিচালক গোফরানুল হক, পরিচালক মেজবাহ উদ্দিন, ফারাহ দীবা, সাঈদ-উর-রহমান, সৈয়দ সাজ্জাদ হোসেন, জমশেদ আরা চৌধুরী, ইরফান আহমেদ, শেখ তৈয়বুর রহমান, নেপাল চন্দ্র বিশ্বাস, জাকির হোসেন, জসিম উদ্দিন ভূঁইয়া, এসএম আহসানুল কবির, জুবায়ের হোসেন, মোসাদ্দেক আলী খান, আবদুল মান্নান, আবুল কালাম আজাদ, আজাদ রহমান, মো. আকবর হোসেন সুমন, মো. সুমন আলী খান, শিরীন আকতার, রফিকুল ইসলাম সরকার, মো. মজিবুর রহমান, ড. এম হায়দারুজ্জামান, মোহাম্মদ জয়নাল আবেদীন, কাজী মো. ফজলুল করিম, মোল্লা আল আমীন, মো. শফিউল ইসলাম, ওমর ফারুক, সিকদার কবিরুল ইসলাম, মো. ফিরোজ আলম, সুনীল বরণ কর্মকার ওরফে এসবি কর্মকার, ফরিদ আকতার, এস সহিদুজ্জামান চয়ন, আবদুর রহমান তপন, মেজর (অব.) সাকিবুজ্জামান খান, এসএম আহসানুল কবির (বিপ্লব), এএইচএম আতাউর রহমান রেজা, গোলাম কিবরিয়া মিল্টন, মো. আতিকুর রহমান, খন্দকার বেনজীর আহমেদ, একেএম সফিউল্লাহ, শাহ আলম, মো. দেলোয়ার হোসেন ও মো. শফিকুল হক।

দুদকের উপ-পরিচালক মো. মোজাহার আলী সরদার ও সহকারী পরিচালক মো. তৌফিকুল ইসলাম ২০১২ সালের ৩১ জুলাই রাজধানীর কলাবাগান থানায় মানি লন্ডারিং আইনে মামলা দুটি করেছিলেন।

এরপর ২০১৪ সালের ৪ মে আদালতে অভিযোগপত্র (চার্জশিট) দাখিল করেন মোজাহার আলী সরদার। এতে ডেসটিনির গ্রাহকদের চার হাজার ১১৯ কোটি ২৪ লাখ টাকা আত্মসাৎ করে পাচারের অভিযোগ আনা হয়।

এর মধ্যে ডেসটিনি মাল্টিপারপাস কো-অপারেটিভ সোসাইটির মামলায় ৪৬ জন এবং ডেসটিনি ট্রি প্লানটেশন লিমিটেডে দুর্নীতির মামলায় ১৯ জনকে আসামি করা হয়। দুই মামলায়ই আসামি হারুন-অর-রশিদ ও রফিকুল আমিন।

মামলার অভিযোগপত্রে বলা হয়, ২০০৮ সাল থেকে মাল্টিপারপাস কো-অপারেটিভ প্রোজেক্টের নামে ডেসটিনি বিনিয়োগকারীদের কাছ থেকে সংগ্রহ করেছিল ১ হাজার ৯০১ কোটি টাকা। সেখান থেকে ১ হাজার ৮৬১ কোটি টাকা আত্মসাৎ করা হয় বলে দুদকের অনুসন্ধানে ধরা পড়ে। ওই অর্থ আত্মসাতের ফলে সাড়ে ৮ লাখ বিনিয়োগকারী ক্ষতির মুখে পড়েন।

ডেসটিনি ট্রি প্লান্টেশন প্রোজেক্টের মাধ্যমে বিনিয়োগকারীদের কাছ থেকে ২ হাজার ৪৪৫ কোটি টাকা সংগ্রহ করা হয়। এর মধ্যে ২ হাজার ২৫৭ কোটি ৭৮ লাখ ৭৭ হাজার টাকা করা হয় আত্মসাৎ। ফলে ক্ষতিগ্রস্ত হন সাড়ে ১৭ লাখ বিনিয়োগকারী।

অভিযোগপত্রে আরও বলা হয়, ডেসটিনি গ্রুপের নামে ২৮টি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে বেশ কয়েকটি ছিল নাম সর্বস্ব। আসামিরা প্রথমে প্রোজেক্টের টাকা বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের হিসাবে জমা করতেন। তারপর বিভিন্ন ব্যাংকের হিসাবে তা স্থানান্তর করা হতো। দুদক ৩৪টি ব্যাংকে এমন ৭২২টি হিসাবের সন্ধান পায়, যেগুলো পরে জব্দ করা হয়।


আরও খবর



নিউমার্কেটে শিক্ষার্থী-ব্যবসায়ী সংঘর্ষ

অ্যাম্বুলেন্স ভাঙচুরের ঘটনায় ২০০ জনের বিরুদ্ধে মামলা

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২৬ এপ্রিল ২০২২ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২৬ এপ্রিল ২০২২ | ৫১০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

ঢাকা কলেজের শিক্ষার্থী ও নিউমার্কেটের ব্যবসায়ী-কর্মচারীদের মধ্যে সংঘর্ষ চলাকালীন সময় রোগীবাহী অ্যাম্বুলেন্স ভাঙচুরের ঘটনায় নতুন করে আরও একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। অ্যাম্বুলেন্স ভাঙচুরের ঘটনায় ওই প্রতিষ্ঠানের ব্যবস্থাপক মো. সুজন বাদী হয়ে অজ্ঞাতনামা ১৫০-২০০ জনকে আসামি করে নিউমার্কেট থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।

এ নিয়ে সংঘর্ষের ঘটনায় মোট পাঁচটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। এর মধ্যে সংঘর্ষ চলাকালীন সময় পুলিশের কাজে বাধা, ককটেল বিস্ফোরণের দায়ে পুলিশ বাদী হয়ে দুটি মামলা ও ঘটনায় নিহতদের পরিবার বাদী হয়ে দুটি হত্যা মামলা দায়ের করে। সর্বশেষ গত ২৩ এপ্রিল অ্যাম্বুলেন্স ভাঙচুরের ঘটনায় একটি মামলা দায়ের করা হয়।

সোমবার রাতে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) নিউমার্কেট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শ ম কাইয়ুম গণমাধ্যমকে বলেন, ঢাকা কলেজের শিক্ষার্থী ও নিউমার্কেটের ব্যবসায়ী-কর্মচারীদের সংঘর্ষের সময় মঙ্গলবার দুপুর ১২টার দিকে রোগীবাহী একটি অ্যাম্বুলেন্স ভাঙচুর করা হয়। এ ঘটনায় অ্যাম্বুলেন্স প্রতিষ্ঠানের ব্যবস্থাপক মো. সুজন বাদি হয়ে অজ্ঞাতনামা অন্তত ১৫০-২০০ জনকে আসামি করে একটি মামলা দায়ের করেন।

থানায় দায়ের করা পাঁচটি মামলা নিয়ে আমরা কাজ করছি। এ ঘটনার ইন্ধনদাতা, প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে জড়িতদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে বলেও জানান পুলিশের এই কর্মকর্তা।


আরও খবর



‘মুজিব’ ট্রেলার নিয়ে সমালোচনা, মুখ খুললেন পরিচালক

প্রকাশিত:সোমবার ২৩ মে ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ২৩ মে ২০২২ | ২২০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

দেশের ইতিহাসে সবচেয়ে ব্যয়বহুল সিনেমা। আবার এটি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের বায়োপিক। বাংলাদেশ ও ভারত দুই দেশের সরকারি প্রযোজনায় নির্মিত হয়েছে। সুতরাং সিনেমাটির জন্য পুরো দেশের মানুষ সীমাহীন কৌতূহল নিয়ে অপেক্ষা করছে। বলছি মুজিব: দ্য মেকিং অব আ ন্যাশন সিনেমার কথা। যেটি নির্মাণ করেছেন ভারতের খ্যাতিমান পরিচালক শ্যাম বেনেগাল। আর এতে বঙ্গবন্ধুর ভূমিকায় অভিনয় করেছেন চিত্রনায়ক আরিফিন শুভ। সম্প্রতি সিনেমাটির ট্রেলার প্রকাশিত হয়েছে। বিখ্যাত কান চলচ্চিত্র উৎসবের বাণিজ্যিক শাখায় এর ট্রেলার উন্মোচন করা হয়।

কিন্তু ট্রেলার প্রকাশের পর থেকেই ব্যাপক সমালোচনা হচ্ছে সিনেমাটি নিয়ে। বঙ্গবন্ধু রূপে আরিফিন শুভর অপরিপক্ব অভিনয়, অসামঞ্জস্যপূর্ণ বিভিন্ন দৃশ্য ও সম্পাদনা নিয়ে প্রশ্ন উঠছে। নেতিবাচক মন্তব্যে যেন ফেসবুক সয়লাব হয়ে গেছে।

যদিও এসব বিতর্ক, সমালোচনা নিয়ে নায়ক আরিফিন শুভ এখনো কিছু বলেননি। তবে মুখ খুললেন নির্মাতা শ্যাম বেনেগাল। তিনি ভারতের একটি গণমাধ্যমকে বলেছেন, আমি শুনেছি এটা নিয়ে বিভিন্ন প্রতিক্রিয়া আসছে। তারা আসলে কেন হতাশ হচ্ছেন, সেটা আমার জন্য অনুমান করা কঠিন। বিষয়টা আমি সোমবার অফিসে গিয়ে দেখব।

শ্যাম বেনেগাল মনে করেন, শুধু ট্রেলার দেখে নেতিবাচক মন্তব্য করা ঠিক নয়। তার ভাষ্য, কেবল ৯০ সেকেন্ডের একটি ট্রেলার দেখে আপনি পুরো সিনেমা নিয়ে মন্তব্য করতে পারেন না। শুধু ট্রেলার নিয়েই মন্তব্য করতে পারেন। 

উল্লেখ্য, মুজিব সিনেমায় আরিফিন শুভ ছাড়াও বিভিন্ন চরিত্রে আরও অভিনয় করেছেন চিত্রনায়ক রিয়াজ, তৌকীর আহমেদ, নুসরাত ইমরোজ তিশা, নুসরাত ফারিয়া, চঞ্চল চৌধুরী, রাইসুল ইসলাম আসাদসহ শতাধিক শিল্পী।


আরও খবর