আজঃ সোমবার ২৪ জুন 20২৪
শিরোনাম

রাবি সাংবাদিক সমিতির সভাপতি কাইয়ুম, সম্পাদক লোটাস

প্রকাশিত:বুধবার ০১ ফেব্রুয়ারী ২০২৩ | হালনাগাদ:বুধবার ০১ ফেব্রুয়ারী ২০২৩ | অনলাইন সংস্করণ
Image

রাবি প্রতিনিধি:

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতির ২০২৩-২৪ সালের নতুন কমিটি গঠন করা হয়েছে। এতে বাংলা ট্রিবিউনের বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি আব্দুল কাইয়ুম তৌসিফকে সভাপতি ও দৈনিক কালবেলার প্রতিনিধি আব্দুস সবুর লোটাসকে সাধারণ সম্পাদক করে এ কমিটি গঠন করা হয়।

মঙ্গলবার (৩১ জানুয়ারি) রাতে সংগঠনটির কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত বার্ষিক সাধারণ সভায় ১৫ সদস্যবিশিষ্ট এ কমিটি ঘোষণা করেন সংগঠনের সাবেক সভাপতি ও দৈনিক বাংলার রাজশাহী ব্যুরো প্রধান এনায়েত করিম।

কমিটির অন্য সদস্যরা হলেন, সহ-সভাপতি-১ সাইফুর রহমান (ডিবিসি নিউজ), সহ-সভাপতি-২ নোমান ইমতিয়াজ (দেশ রূপান্তর), যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক সোহানুর রহমান রাফি (ইউএনবি), সাংগঠনিক সম্পাদক আসিফ আজাদ সিয়াম (দৈনিক বাংলা), কোষাধ্যক্ষ রিপন চন্দ্র রায় (আজকের পত্রিকা), দপ্তর সম্পাদক ইরফান তামিম (ঢাকা মেইল), প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক গোলাম রববিল (কালের কণ্ঠ), ক্রীড়া সম্পাদক আব্দুল আহাদ (নিউ এইজ), সাহিত্য ও সংস্কৃতি সম্পাদক অর্পণ ধর (সকালের সময়), কর্মসূচি ও পরিকল্পনা সম্পাদক সাজ্জাদ হোসেন (সিল্কসিটি নিউজ ডটকম), কার্যনির্বাহী সদস্য-১ সাজিদ হোসেন (চ্যানেল আই অনলাইন), কার্যনির্বাহী সদস্য-২ মীর কাদির (বাংলানিউজ২৪ ডটকম) এবং কার্যনির্বাহী সদস্য-৩ এসআই সুমন (বাংলাদেশ জার্নাল)।

এছাড়া কমিটির সদস্য হিসেবে রয়েছেন মরিয়ম পলি ও মেহেদী হাসান আকাশ। উপদেষ্টা-১ হিসেবে আছেন নুরুজ্জামান খান (সমকাল) ও উপদেষ্টা-২ নূর আলম (আলোকিত বাংলাদেশ)।

কমিটি ঘোষণার সময় উপস্থিত ছিলেন বিদায়ী কমিটির উপদেষ্টা শাহীন আলম (সময়টিভি), রাবিসাসের সাবেক সহ-সভাপতি আমজাদ হোসেন শিমুল (কালবেলা, রাজশাহী ব্যুরো) ও সাবেক সভাপতি সুজন আলী (নিউ এইজ, নিজস্ব প্রতিবেদক, রাজশাহী)।

এদিকে নবগঠিত কমিটিকে শুভেচ্ছা জানিয়েছে রাবি প্রশাসন, রাবি শিক্ষক সমিতি, রাজশাহী সাংবাদিক ইউনিয়ন, রাবি প্রেসক্লাব, রাবি রিপোর্টার্স ইউনিটি, রাবি ছাত্রলীগ ও বিভিন্ন সেচ্ছাসেবী সংগঠনসহ অন্যান্য বিশ্ববিদ্যালয়ের সাংবাদিক সংগঠন।


আরও খবর



যেসব জেলায় ৬০ কিমি বেগে ঝড়ের আভাস

প্রকাশিত:শনিবার ১৫ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ১৫ জুন ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

বাংলাদেশের ওপর মৌসুমি বায়ু সক্রিয় থাকার কারণে আজ দুপুর একটার মধ্যে দেশের চার অঞ্চলে ঝড় হতে পারে। এসময় বাতাসের গতিবেগ ঘণ্টায় সর্বোচ্চ ৬০ কিলোমিটার হতে পারে বলে জানানো হয়েছে।

 শনিবার (১৫ জুন) ভোরে দেশের অভ্যন্তরীণ নদীবন্দরের জন্য দেয়া আবহাওয়ার সতর্কবার্তায় এ তথ্য জানানো হয়।

সতর্কবার্তায় জানানো হয়, আজ দুপুর ১টার মধ্যে দিনাজপুর, বগুড়া, ময়মনসিংহ এবং সিলেট অঞ্চলের ওপর দিয়ে পশ্চিম ও উত্তর-পশ্চিম দিক থেকে ঘণ্টায় ৪৫-৬০ কিলোমিটার বেগে অস্থায়ীভাবে দমকা ও ঝড়ো হাওয়াসহ বৃষ্টি অথবা বজ্রবৃষ্টি হতে পারে। এসব এলাকার নদীবন্দরগুলোকে ১ নম্বর সতর্ক সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে।

এদিকে, ঈদের দিনসহ আগামী কয়েকদিন বৃষ্টির প্রবণতা বাড়তে পারে বলছে আবহাওয়া দফতর। বলেছে, দেশের সব বিভাগেই দমকা হাওয়াসহ বজ্রবৃষ্টির পূর্বাভাস রয়েছে। সেইসঙ্গে কোথাও কোথাও ভারি বর্ষণের আশঙ্কাও রয়েছে। বর্ধিত ৫ দিনের আবহাওয়ার অবস্থায় বলা হয়েছে, বৃষ্টিপাতের প্রবণতা বৃদ্ধি পেতে পারে।


আরও খবর



জুড়ীতে ভয়াবহ বন্যা, আশ্রয়কেন্দ্রে ভিড় বাড়ছে

প্রকাশিত:বুধবার ১৯ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৯ জুন ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
উপজেলা প্রতিনিধি

Image

টানা বর্ষণ ও ভারতের উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢলের পানিতে মৌলভীবাজারের জুড়ী উপজেলায় ভয়াবহ বন্যা দেখা দিয়েছে। ঢলের পানিতে নদ-নদীর পানি বেড়ে যাওয়ায় জুড়ী শহরসহ উপজেলার বিভিন্ন নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হয়ে ইতোমধ্যে ৫০ হাজার মানুষ পানিবন্দি হয়েছেন।

ঢলের পানিতে প্লাবিত হয়েছে বেশ কিছু এলাকার সড়ক। সেই সঙ্গে তলিয়ে গেছে বিভিন্ন এলাকার ঘরবাড়ি ও দোকানপাট। বন্যায় সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে উপজেলার জায়ফরনগর ও পশ্চিমজুড়ী ইউনিয়ন।

ঢলের পানি উপজেলার বিভিন্ন নিম্নাঞ্চলে প্রবেশ করায় চরম দুর্ভোগে পড়েছেন ওই অঞ্চলের মানুষজন। অনেকেই তাদের বাড়ি ঘর ছেড়ে নিরাপদ আশ্রয়কেন্দ্র কিংবা উঁচু এলাকায় আত্মীয় স্বজনদের বাসায় ছুটছেন। নিম্নাঞ্চলের মানুষদের অনেকেই জানিয়েছেন, ঢলের পানিতে তাদের ঘরবাড়ি তলিয়ে গেছে। এখন নিরুপায় হয়ে আশ্রয়কেন্দ্রে যাচ্ছেন।

জুড়ী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা লুসিকান্ত হাজং জানান, বন্যা পরিস্থিতি মোকাবিলায় উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে সকল ধরনের প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে।

গতকাল মঙ্গলবার বিকেলে সাবেক পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তনবিষয়কমন্ত্রী ও স্থানীয় সংসদ সদস্য মো. শাহাব উদ্দিন (এমপি) জায়ফরনগর ও পশ্চিমজুড়ী ইউনিয়নের বন্যা কবলিত বিভিন্ন এলাকা পরিদর্শন করেন। এসময় তিনি জুড়ী মডেল সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় আশ্রয়কেন্দ্র ও মক্তদীর বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় আশ্রয়কেন্দ্রে আশ্রয় নেওয়া পরিবারের খোঁজখবর নেন। তাদের মধ্যে খাবার ও ত্রাণ বিতরণ করেন।

উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মো. মিজানুর রহমান আজ বুধবার সকালে জানান, বন্যায় ইতিমধ্যে উপজেলার ৬৫ টি গ্রাম প্লাবিত হয়ে প্রায় ৫০ হাজার মানুষ পানিবন্দি হয়েছে। বন্যা পরিস্থিতি মোকাবেলায় জুড়ীতে ১৪টি আশ্রয়কেন্দ্র খোলা হয়েছে। এসব আশ্রয়কেন্দ্রে এখন পর্যন্ত ৬০টি পরিবার আশ্রয় নিয়েছে।


আরও খবর



৩০ শতাংশ মুক্তিযোদ্ধা কোটা বহালের রায় স্থগিত চেয়ে আবেদন

প্রকাশিত:রবিবার ০৯ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:রবিবার ০৯ জুন ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
আদালত প্রতিবেদক

Image

প্রথম ও দ্বিতীয় শ্রেণির সরকারি চাকরিতে ৩০ শতাংশ মুক্তিযোদ্ধা কোটা বহালের রায় স্থগিত চেয়ে চেম্বার আদালতে আবেদন করা হয়েছে। রোববার (৯ জুন) সকালে সুপ্রিম কোর্টের সংশ্লিষ্ট শাখায় রাষ্ট্রপক্ষ এ আবেদন করে চেম্বার আদালতে আজই এ বিষয়ে শুনানি অনুষ্ঠিত হবে।

এর আগে ৫ জুন হাইকোর্টের বিচারপতি কে এম কামরুল কাদের ও বিচারপতি খিজির হায়াতের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ সরকারি চাকরিতে ৩০ শতাংশ মুক্তিযোদ্ধা কোটা বহাল থাকবে বলে রায় দেন। সেদিন আদালতে রিটের পক্ষে শুনানি করেন সিনিয়র আইনজীবী মো. মুনসুরুল হক চৌধুরী। তার সঙ্গে ছিলেন অ্যাডভোকেট শফিকুল ইসলাম। অন্যদিকে রাষ্ট্রপক্ষে শুনানিতে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল শেখ মোহাম্মদ (এসকে) সাইফুজ্জামান জামান। এ রায়ের বিরুদ্ধে আপিলের আবেদন করা হবে বলেও সেদিন জানিয়েছিলেন তিনি।

২০১৮ সালের ৪ অক্টোবর জারি করা এক পরিপত্রে বলা হয়, নবম গ্রেড (পূর্বতন প্রথম শ্রেণি) এবং ১০ম থেকে ১৩ তম গ্রেডের (পূর্বতন দ্বিতীয় শ্রেণি) পদে সরাসরি নিয়োগের ক্ষেত্রে মেধার ভিত্তিতে নিয়োগ দেয়া হবে। নবম গ্রেড (পূর্বতন প্রথম শ্রেণি) এবং ১০ম থেকে ১৩তম গ্রেডের (পূর্বতন দ্বিতীয় শ্রেণি) পদে সরাসরি নিয়োগের ক্ষেত্রে বিদ্যমান কোটাপদ্ধতি বাতিল করা হলো।

পরে ওই পরিপত্র চ্যালেঞ্জ করে রিট করেন অহিদুল ইসলামসহ সাত শিক্ষার্থী। ওই রিটের পরিপ্রেক্ষিতে ২০২১ সালের ৭ ডিসেম্বর রুল জারি করেন হাইকোর্ট। সরকারি চাকরির প্রথম ও দ্বিতীয় শ্রেণিতে মুক্তিযোদ্ধা কোটা বাতিল করে জারি করা পরিপত্র কেন অবৈধ ঘোষণা করা হবে না, তা জানতে চাওয়া হয় রুলে।


আরও খবর



সুপার এইটের ম্যাচ বৃষ্টিতে ভেস্তে গেলে যা হবে

প্রকাশিত:বুধবার ১৯ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৯ জুন ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
ক্রীড়া প্রতিবেদক

Image

বৃষ্টিতে ম্যাচ ভেস্তে গেলে কীভাবে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে ম্যাচের ফল নির্ধারণ করা হবে, তা আগেই জানিয়ে দিয়েছিল বিশ্ব ক্রিকেটের নিয়ন্তা সংস্থা-আইসিসি। তবে বিশ্বমঞ্চে সুপার এইটের লড়াইয়ের আগে ফের আলোচনায় বেরসিক বৃষ্টি প্রসঙ্গ। গ্রুপ পর্বে বৃষ্টি বাধায় মাঠে গড়ায়নি বেশ কয়েকটি ম্যাচ। পরিত্যক্ত হয়েছিল ম্যাচগুলো। এবার সুপার এইটেও একই শঙ্কা আছে। সেই তালিকায় বাংলাদেশের ম্যাচ তিনটিও আছে।

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে শেষ আটের সবগুলো ম্যাচই ওয়েস্ট ইন্ডিজে হবে। তবে অংশগ্রহণকারী দলগুলোকে চোখ রাঙাচ্ছে সেখানকার বৈরী আবহাওয়া। ক্যারিবিয়ান অঞ্চলের বার্বাডোজ, সেন্ট লুসিয়া, সেন্ট ভিনসেন্ট এবং অ্যান্টিগায় সুপার এইটের ম্যাচগুলো হবে। জুনের বাকি দিনগুলো এই ৪ জায়গাতেই বৃষ্টি সম্ভাবনা আছে।

স্থানীয় আবহাওয়া দপ্তর সূত্র বলছে, ব্রিজটাউনের আকাশ আগামী কয়েকদিন কালো মেঘে ঢাকা থাকবে। শুক্রবার (২১ জুন) অতিবৃষ্টির সম্ভাবনাও আছে। এই ভেন্যুতে ওইদিন ম্যাচ খেলবে ভারত-আফগানিস্তান। আগামী সপ্তাহজুড়ে শেষ আটের বাকি তিন ভেন্যুতেও বৃষ্টির জোর সম্ভাবনার কথা জানাচ্ছে পূর্বাভাস-বিষয়ক ওয়েবসাইট অ্যাকুওয়েদার

চলতি বিশ্বকাপে শুধু প্রথম সেমিফাইনাল এবং ফাইনালের জন্য রিজার্ভ ডে রাখা হয়েছে। তবে দ্বিতীয় সেমিফাইনালের জন্য কোনো রিজার্ভ ডে নেই। মূলত আইসিসির প্লেয়িং কন্ডিশন অনুযায়ী ম্যাচটি নির্ধারিত। এই ম্যাচটি পরিত্যক্ত হলে পয়েন্ট টেবিলের ভিত্তিতে ফাইনালিস্ট নির্ধারিত হবে।

এদিকে সুপার এইটের জন্যও কোনো রিজার্ভ ডের ব্যবস্থা নেই। ফলে ম্যাচ কোনো কারণে পরিত্যক্ত হলে দুই দলই একটি করে পয়েন্ট পাবে। এতে ফের সমীকরণের মারপ্যাঁচে পরতে পারে বিশ্বকাপের ফেবারিট দলগুলো।

অন্যদিকে বৃষ্টি বাগড়ায় খেলায় বিঘ্ন হলে ফল নির্ধারণের জন্য প্রতিটি দলকে ন্যূনতম ৫ ওভার খেলতে হবে। তবে সেমিফাইনাল ও ফাইনালের ক্ষেত্রে তা হবে ১০ ওভার। আর রিজার্ভ ডে নেই এমন ম্যাচে আবহাওয়ার পরিস্থিতি বিবেচনায় ডিএলএস পদ্ধতিতে ফল নির্ধারণ করা হবে।

উল্লেখ্য, আগামী ১৯ জুন থেকে শুরু হবে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের সুপার এইট পর্ব। সুপার এইটে দুই গ্রুপের শীর্ষ দুটি দল সেমিফাইনালে উঠবে। গ্রুপ-১ এর শীর্ষ দল ২ নম্বর গ্রুপের রানার্স-আপ দলের সঙ্গে খেলবে। অন্যদিকে ১ নম্বর গ্রুপের দ্বিতীয় দলের বিপক্ষে খেলবে ২ নম্বর গ্রুপের চ্যাম্পিয়নরা।

এই পর্বে গ্রুপ-১তে বাংলাদেশের প্রতিপক্ষ অস্ট্রেলিয়া, ভারত এবং আফগানিস্তান। এ ছাড়া গ্রুপ-২ থেকে দক্ষিণ আফ্রিকা, ইংল্যান্ড, ওয়েস্ট ইন্ডিজ এবং যুক্তরাষ্ট্র সুপার এইটে খেলবে। এর আগে, বেরসিক বৃষ্টি বাগড়ায় গ্রুপ পর্বের চারটি ম্যাচ পরিত্যক্ত হয়।

আগামী ২১ জুন অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে বিশ্বকাপে সুপার এইট পর্ব শুরু করবে বাংলাদেশ। ২২ জুন রাতে নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে ভারতের মুখোমুখি হবে টাইগাররা। ২৫ জুন সকালে আফগানিস্তানের বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে সুপার এইট পর্ব শেষ করবে বাংলাদেশ।


আরও খবর



শেখ হাসিনা-মোদির দ্বিপাক্ষিক বৈঠক শুরু

প্রকাশিত:শনিবার ২২ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ২২ জুন ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
কূটনৈতিক প্রতিবেদক

Image

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সঙ্গে বৈঠক শুরু করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। শনিবার (২২ জুন) দুপুরে নয়াদিল্লির হায়দরাবাদ হাউসে এ দ্বিপাক্ষিক বৈঠক শুরু হয়েছে।

এর আগে ভারতের রাষ্ট্রপতি ভবনে আতিথেয়তা গ্রহণ করেন প্রধানমন্ত্রী ও তার সফরসঙ্গীরা। যেখানে লালগালিচা সংবর্ধনা ও গার্ড অব অনার প্রদান করা হয় শেখ হাসিনাকে।

বৈঠকের পর দুই প্রধানমন্ত্রীর উপস্থিতিতে বাংলাদেশ-ভারতের মধ্যে কয়েকটি সমঝোতা স্মারক ও চুক্তি সই হওয়ার কথা রয়েছে। এরপর দুই প্রধানমন্ত্রী যৌথ সংবাদ বিবৃতি দেবেন। পরে হায়দরাবাদ হাউসে শেখ হাসিনা তার সম্মানে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির দেওয়া মধ্যাহ্নভোজে অংশ নেবেন। বিকেলে ভারতের উপরাষ্ট্রপতি জগদীপ ধনখারের কার্যালয়ে তার সঙ্গে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সাক্ষাৎ অনুষ্ঠিত হবে। এরপর তিনি পুনরায় ভারতের রাষ্ট্রপতি ভবনে যাবেন। সেখানে তিনি ভারতের রাষ্ট্রপতি দ্রৌপদী মুর্মুর সঙ্গে একান্ত সাক্ষাৎ করবেন। নয়াদিল্লি সময় বিকেল ৬টায় বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের বিশেষ বিমানে ঢাকার উদ্দেশে রওনা হবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

শুক্রবার (২১ জুন) বিকেল পৌনে ৫টায় সফরসঙ্গীদের নিয়ে পালাম বিমানবন্দরে পা রাখেন শেখ হাসিনা। এ সময় প্রধানমন্ত্রীকে স্বাগত জানান ভারতের পররাষ্ট্র ও পরিবেশবিষয়ক প্রতিমন্ত্রী কীর্তি বর্ধন সিং।

বিমানবন্দর থেকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তার সফরকালীন আবাসস্থল হোটেল তাজ প্যালেসে যান। বিমানবন্দর থেকে তাজ প্যালেসে যাওয়ার রাস্তার দুপাশ বাংলাদেশ ও ভারতের জাতীয় পতাকা, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির ছবি ও প্ল্যাকার্ড দিয়ে সাজানো হয়। এ ছাড়া প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে স্বাগত জানিয়ে বাংলা, হিন্দি এবং ইংরেজিতে বিভিন্ন উদ্ধৃতির প্ল্যাকার্ড দেখা যায় রাস্তার দুপাশে।

এর আগে দুপুর ২টা ৮ মিনিটে নয়াদিল্লির উদ্দেশে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর ছাড়েন তিনি।

এর আগে ২০২২ সালে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় বৈঠকে যোগ দেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ওই বৈঠকে দুই দেশের মধ্যে স্বাক্ষর হয় সাতটি সমঝোতা স্মারক। কথা হয়, বাণিজ্য, বিনিয়োগ, অভিন্ন নদীর পানি বণ্টন, নিরাপত্তা সহযোগিতা, বিদ্যুৎ-জ্বালানি খাতের বৃদ্ধি, সীমান্ত ব্যবস্থাপনা, মাদক ও মানব পাচার রোধ নিয়েও। শনিবারের বৈঠকে নির্ধারণ হতে পারে ২০২২ সালের চুক্তি ও সমঝোতা স্মারকের বাস্তবতা এবং আগামী পাঁচ বছরের রূপরেখা।


আরও খবর