আজঃ বৃহস্পতিবার ২৫ জুলাই ২০২৪
শিরোনাম

পুঁজিবাজারে সূচকের বড় পতন

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৮ অক্টোবর ২০২২ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৮ অক্টোবর ২০২২ | অনলাইন সংস্করণ
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

সপ্তাহের তৃতীয় কার্যদিবস মঙ্গলবার (১৮ অক্টোবর) পুঁজিবাজারে সূচকের বড় পতনের মধ্য দিয়ে লেনদেন শেষ হয়েছে। এদিন দেশের প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) ও অপর বাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) লেনদেন কমেছে।

বাজার বিশ্লেষণে দেখা যায়, মঙ্গলবার ডিএসই প্রধান মূল্যসূচক ডিএসইএক্স ১২ পয়েন্ট কমে ৬ হাজার ৪০০ পয়েন্টে অবস্থান করছে। অন্য দুই সূচকের মধ্যে শরিয়াহ সূচক ১ পয়েন্ট এবং ডিএসই-৩০ সূচক ১ পয়েন্ট বেড়ে যথাক্রমে ১৪০৬ ও ২২৭৭ পয়েন্টে অবস্থান করছে।

এদিন ডিএসইতে মোট এক হাজার ৫ কোটি ৯৫ লাখ টাকার শেয়ার ও মিউচ্যুয়াল ফান্ড ইউনিট হাতবদল হয়েছে। যা আগের কার্যদিবসের চেয়ে ২৯২ কোটি টাকা কম। আগের দিন ডিএসইতে মোট এক হাজার ২৯৭ কোটি ৮৩ লাখ টাকার শেয়ার ও মিউচ্যুয়াল ফান্ড ইউনিট লেনদেন হয়েছিল।

মঙ্গলবার ডিএসইতে মোট ৩৬৯টি কোম্পানির শেয়ার ও মিউচ্যুয়াল ফান্ড ইউনিট লেনদেন হয়েছে। এগুলোর মধ্যে দাম বেড়েছে ৪৯টি কোম্পানির, কমেছে ১০০টির। আর অপরিবর্তিত রয়েছে ২২০টি কোম্পানির শেয়ার ও মিউচ্যুয়াল ফান্ড ইউনিটের দর।

এদিন লেনদেনের শীর্ষে থাকা ১০ প্রতিষ্ঠান হলো অরিয়ন ফার্মা, ইস্টার্ন হাউজিং,  জেএমআই সিরিঞ্জ, বেক্সিমকো লি., আনোয়ার গ্যালভানাইজিং, মনোস্পুল পেপার, জেএমআই হসপিটাল, সোনালি পেপার,  বিএসসি ও  বিবিএস।

অপর শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) সার্বিক সূচক সিএএসপিআই মঙ্গলবার ৪১ পয়েন্ট কমে অবস্থান করছে ১৮ হাজার ৮৫৪ পয়েন্টে। এদিন সিএসইতে হাত বদল হওয়া ২০০টি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে শেয়ারের দর বেড়েছে ৩৬টির, কমেছে ৮০টির। আর অপরিবর্তিত রয়েছে ৮৪ টির কোম্পানির শেয়ারের দর।

মঙ্গলবার সিএসইতে মোট ৪১ কোটি ৬৫ লাখ টাকার শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন হয়েছে, যা আগের দিনের চেয়ে প্রায় ২৮ কোটি টাকা কম। আগের দিন সিএসইতে মোট ৬৯ কোটি ৬৩ লাখ টাকার শেয়ার ও মিউচ্যুয়াল ফান্ড ইউনিট লেনদেন হয়েছিল।


আরও খবর



পিএসসির তিন কর্মকর্তাসহ ১৭ জনের বিরুদ্ধে মামলা

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৯ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ০৯ জুলাই ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

বিসিএসের প্রশ্নফাঁসের ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে সরকারী কর্মকমিশনের (পিএসসি) তিন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাসহ ১৭ জনের বিরুদ্ধে মামলা করেছে সিআইডি। সোমবার (৮ জুলাই) রাতে রাজধানীর পল্টন থানায় মামলাটি দায়ের করা হয়।

মামলায় আসামির সংখ্যা অর্ধ শতাধিক দেখানো হলেও ইতোমধ্যে ১৭ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

বিষয়টি নিশ্চিত করে সিআইডির অতিরিক্ত বিশেষ পুলিশ সুপার (মিডিয়া) আজাদ রহমান জানান, প্রশ্নফাঁসে জড়িতদের ধরতে সাঁড়াশি অভিযান চলছে। এখন পর্যন্ত ১৭ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তাদের আদালতে সোপর্দ করা হবে। জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তাদের রিমান্ড চাওয়া হবে।

এর আগে, বিসিএস পরীক্ষাসহ ৩০টি নিয়োগ পরীক্ষার প্রশ্ন ফাঁসের অভিযোগে সোমবার (৮ জুলাই) ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে পিএসসি চেয়ারম্যানের সাবেক গাড়িচালক সৈয়দ আবেদ আলী জীবনসহ ১৭ জনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

গ্রেপ্তারকৃত হলেন উপ-পরিচালক মো. আবু জাফর, উপ-পরিচালক জাহাঙ্গীর আলম, সহকারী পরিচালক এস এম আলমগীর কবির, সহকারী পরিচালক নিখিল চন্দ্র রায়, অফিস সহায়ক খলিলুর রহমান, অফিস সহায়ক (ডিসপাস) সাজেদুল ইসলাম, সাবেক সেনা সদস্য নোমান সিদ্দিকী, ব্যবসায়ী আবু সোলায়মান মো. সোহেল, অডিটর প্রিয়নাথ রায়, ব্যবসায়ী মো. জাহিদুল ইসলাম, নারায়ণগঞ্জ পাসপোর্ট অফিসের নিরাপত্তা প্রহরী শাহাদাত হোসেন, ঢাকার ইমিগ্রেশন ও পাসপোর্ট অফিসে কর্মরত মো. মামুনুর রশীদ, শহীদ সোহরাওয়ার্দী হাসপাতালের মেডিকেল টেকনিশিয়ান মো. নিয়ামুন হাসান, ব্যবসায়ী সহোদর সাখাওয়াত হোসেন ও সায়েম হোসেন ও বেকার যুবক লিটন সরকার।


আরও খবর
ট্রেন চলাচলের সিদ্ধান্ত এখনও হয়নি

বৃহস্পতিবার ২৫ জুলাই ২০২৪




জুলাইয়ের ১৩ দিনে এলো সাড়ে ১১ হাজার কো‌টি টাকার প্রবাসী আয়

প্রকাশিত:রবিবার ১৪ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:রবিবার ১৪ জুলাই ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক

Image

নতুন ২০২৪-২৫ অর্থবছরের প্রথম মাস জুলাইয়ের প্রথম ১৩ দিনে দেশে বৈধ পথে ৯৭ কোটি ৮৬ লাখ ৫০ হাজার মার্কিন ডলার প্রবাসী আয় বা রেমিট্যান্স এসেছে। দেশীয় মুদ্রায় (প্রতি ডলার ১১৮ টাকা ধ‌রে) যার পরিমাণ ১১ হাজার ৫৪৮ কোটি টাকা। প্রতিদিন গড়ে এসেছে ৭ কোটি ৫২ লাখ ডলার রেমিট্যান্স।

রোববার (১৪ জুলাই) কেন্দ্রীয় ব্যাংকের প্রকাশিত হালনাগাদ প্রতিবেদন থেকে এ তথ্য জানা গেছে।

কেন্দ্রীয় ব্যাংকের তথ্য পর্যালোচনা করে দেখা গেছে, চলতি জুলাই মাসের প্রথম ১৩ দিনে যে পরিমাণ রেমিট্যান্স এসেছে এর মধ্যে রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংকগুলোর মাধ্যমে ১৩ কোটি ৬৭ লাখ ডলার, বিশেষায়িত একটি ব্যাংকের মাধ্যমে ৫ কোটি ৪ লাখ ৭০ হাজার মার্কিন ডলার, বেসরকারি ব্যাংকগুলোর মাধ্যমে এসেছে ৭৮ কোটি ৯০ লাখ ডলার এবং বিদেশি ব্যাংকগুলোর মাধ্যমে এসেছে ২৫ লাখ ৪০ হাজার মার্কিন ডলার রেমিট্যান্স।

এর আগে সদ্য সমাপ্ত ২০২৩-২৪ অর্থবছরের শেষ মাস জুনে রেমিট্যান্স এসেছে ২৫৪ কোটি ২০ লাখ মার্কিন ডলার। যা গত তিন অর্থবছরের মধ্যে সর্বোচ্চ রেমিট্যান্স। একক মাস হিসেবে যা ৪৭ মাসের মধ্যে সর্বোচ্চ রেমিট্যান্স।

গেল ২০২৩-২৪ অর্থবছরের প্রথম মাস জুলাইয়ে ১৯৭ কোটি ৩১ লাখ, আগস্টে ১৫৯ কোটি ৯৪ লাখ, সেপ্টেম্বর মাসে ১৩৩ কোটি ৪৩ লাখ, অক্টোবরে ১৯৭ কোটি ১৪ লাখ, নভেম্বর ১৯৩ কোটি, ডিসেম্বরে ১৯৯ কোটি ১২ লাখ, জানুয়ারিতে ২১১ কোটি ৩১ লাখ, ফেব্রুয়া‌রিতে ২১৬ কো‌টি ৪৫ লাখ, মার্চ মাসে ১৯৯ কোটি ৭০ লাখ, এপ্রিলে এসেছে ২০৪ কোটি ৪২ লাখ, মে মাসে এসেছে ২২৫ কোটি ৩৮ লাখ মার্কিন ডলার রেমিট্যান্স।

সদ্য সমাপ্ত ২০২৩-২৪ অর্থবছরে দুই হাজার ৩৯২ কোটি মার্কিন ডলারের সমপরিমাণ বৈদেশিক মুদ্রারর রেমিট্যান্স দেশে পাঠিয়েছেন প্রবাসীরা। দেশীয় মুদ্রায় যার পরিমাণ দুই লাখ ৮২ হাজার কোটি টাকা। রেমিট্যান্সের এ অঙ্ক এযাবৎকালের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ আহরণ। দেশের ইতিহাসে সর্বোচ্চ রেকর্ড রেমিট্যান্স এসেছিল ২০২০-২১ অর্থবছরে দুই হাজার ৪৭৭ কোটি ডলার।


আরও খবর



কাঁচা মরিচের ঝালে পুড়ছে সবজির বাজার, স্বস্তি নেই ক্রেতার

প্রকাশিত:শুক্রবার ০৫ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০৫ জুলাই ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

যাত্রাবাড়ী, কারওয়ান বাজার, রামপুরা, শান্তিনগর ও সেগুনবাগিচা বাজারে বরবটি, করলা, বেগুনসহ বেশ কয়েকটি সবজি দাম ১২০ টাকায় গিয়ে ঠেকেছে। পাশাপাশি সেঞ্চুরি হাঁকিয়ে বসে আছে শসা ও কাঁকরোল।

প্রতিকেজি টমেটো বিক্রি হচ্ছে ২০০ টাকায়, গাঁজর ১০০ টাকা, গোল বেগুন ১২০ টাকা, পেঁপে ৫০ টাকা, পটলের কেজি ৬০ টাকা, শসা ১০০ টাকা, ঝিঙ্গা ৬০ টাকা, ধন্দুল ৬০ টাকা, কচুর লতি ৮০ টাকা, বেগুন (লম্বা) ৮০, ঢেঁরস ৬০ টাকা, মিষ্টি কুমড়া ৪০ টাকা, কচুর মুখি ১০০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

যাত্রাবাড়ী বাজারের ক্রেতা লোকমান মিয়া বলেন, বাজারে সব কিছুর দাম হাতের নাগালে নেই। যা ধরি তাতেই হাত পুড়ে যাচ্ছে। সব ধরণের সবজির দাম অনেক বেড়েছে। এগুলো দেখার কেউ নেই।

বাজারের বিক্রেতা জাকির হোসেন বলেন, সবজির দাম বেশ কিছুদিন ধরেই বাড়তি। টানা বৃষ্টির কারণে সবজি নষ্ট হয়ে যাচ্ছে। পরিবহন করে আনা যাচ্ছে না। এতেই দাম বেড়ে গেছে। পাইকারি বাজারে দাম বেশি হলে এর প্রভাব তো খুচরা বাজারে পড়বেই।

এদিকে গত সপ্তাহের চেয়ে ১০ টাকা বেড়ে শতক ছাড়িয়ে পেঁয়াজের দাম। দেশি পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ১১০ টাকায়। এছাড়া দেশি হাইব্রিড জাতের পেঁয়াজের কেজি ৯০ থেকে ১০০ টাকা দরে। বেড়েছে মাছের দামও। কেজিতে ৫০ টাকা বেড়ে রুই মাছ বিক্রি হয়েছে ৩৮০ থেকে ৪০০ টাকায়। তেলাপিয়া ও পাঙাশ মাছের দাম বেড়েছে ২০ থেকে ৪০ টাকা।

অন্যদিকে বাজারে ব্রয়লার মুরগির কেজি ১৮০ টাকায়, সোনালী মুরগি ৩৪০ টাকা, কক ৩৩০ টাকা, লেয়ার ৩৩০ থেকে ৩৫০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। এছাড়া আগের বাড়তি দামেই প্রতি কেজি গরুর মাংস বিক্রি হচ্ছে ৭৮০ টাকায় এবং খাসির মাংস বিক্রি হচ্ছে প্রতি কেজি ১১০০ টাকায়।


আরও খবর



খাম লেনদেনের ভিডিও ফাঁসের পর ওসি প্রত্যাহার

প্রকাশিত:শনিবার ০৬ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ০৬ জুলাই ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
রাজশাহী প্রতিনিধি

Image

অফিসে এক ব্যক্তির সঙ্গে খাম লেনদেনের ভিডিও ছড়িয়ে পড়ার পর রাজশাহীর চন্দ্রিমা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাহবুব আলমকে প্রত্যাহার করা হয়েছে।

শনিবার (৬ জুলাই) তাকে থানা থেকে প্রত্যাহার করে রাজশাহী মহানগর পুলিশের (আরএমপি) সদর দপ্তরে সংযুক্ত করা হয়েছে।

আরএমপির মুখপাত্র জামিরুল ইসলাম এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, আরএমপি কমিশনার বিপ্লব বিজয় তালুকদার ওসি মাহবুব আলমকে থানা থেকে প্রত্যাহার করে সদর দপ্তরে সংযুক্ত করেছেন। এখন খাম লেনদেনের বিষয়টি তদন্ত হবে। এরপর পরবর্তী পদক্ষেপ নেওয়া হবে।

শনিবার ছোট একটি ভিডিওক্লিপ সামাজিক মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে। এতে দেখা যায়, সামনে বসে থাকা ব্যক্তি ওসিকে বলেন, ভাই, একটা ছোট খাম দেন। ওসি তখন মুচকি হাসেন। এ সময় ওই ব্যক্তি বলেন, মাহবুব ভাই, আপনি আমাকে চিনেন, জানেন, বোঝেন। আমি বিপদে পড়সি বলেই আপনার কাছে আসছি ভাই। এ সময় ওসি মাহবুব আলম মুচকি হেসে ড্রয়ার থেকে একটি খালি খাম বের করে দেন।

পরে সামনে থাকা ওই ব্যক্তি ভরা খাম টেবিলে এগিয়ে দিলে ওসি সেটি নিয়ে আবার টেবিলের ড্রয়ারে রেখে দেন। ওই ব্যক্তি খামের ভেতর কী ঢুকিয়ে তা আবার ওসিকে দিয়েছেন সেটি ভিডিওতে দেখা যায়নি। তবে অভিযোগ উঠেছে, খামে ভরে এভাবে ঘুষ নিয়েছেন ওসি মাহবুব আলম।

তবে পুলিশ পরিদর্শক মাহবুব আলম দাবি করেছেন, টাকা নয়; এক ব্যক্তির কাছ থেকে ছিনতাইকারীদের তালিকা নিয়েছেন খামে। এই পুলিশ কর্মকর্তা বলেন, আমি পাবলিকের কাছ থেকে টাকা খাই না। কার সঙ্গে এ রকম কথা হয়েছে, সেটা মনে করতে পারছি না। তবে একজনের কাছ থেকে খামে ভরে ছিনতাইকারীদের তালিকা নিয়েছিলাম। ওই খাম ওইভাবেই আছে। সেই তালিকা নেওয়ার ভিডিও হতে পারে।


আরও খবর



কলারোয়ায় বিরিয়ানি খেয়ে হাসপাতালে আড়াই শতাধিক কৃষক

প্রকাশিত:রবিবার ০৭ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:রবিবার ০৭ জুলাই ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
সাতক্ষীরা প্রতিনিধি

Image

সাতক্ষীরার কলারোয়ায় ঢাকা নবাব বিরিয়ানি খেয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন আড়াই শতাধিক কৃষক ও তাদের পরিবারের সদস্যরা। শনিবার (৬ জুলাই) সন্ধ্যার পর থেকে একের পর এক ওই কৃষকদের পরিবারের সদস্যরা অসুস্থ হতে থাকে।

এর আগে সকাল ১০টার দিকে ঢাকার মাছের খাদ্য আগাতা ফিডের বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। ওই সম্মেলন থেকে কৃষকদের বিরিয়ানি দেওয়া হয়।

এদিকে, অসুস্থদের কলারোয়া সরকারি হাসপাতালে নিলে তাদের উন্নত চিকিৎসার জন্য সাতক্ষীরা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ও সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়। এ ছাড়া অসুস্থ রোগীরা স্থানীয় ক্লিনিকে ভর্তি হয়েছেন।

জানা গেছে, কলারোয়ার জালালবাদ ইউনিয়নের সিংলাল বাজারের ইউপি সদস্য আফতাবুজ্জামান দোকানে শনিবার সকাল ১০টার দিকে ঢাকার মাছের খাদ্য আগাতা ফিডের বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠান শেষে দুপুর দেড়টার দিকে কলারোয়া বাজার থেকে আনা ঢাকা নবাব বিরিয়ানি ১২০ জন মাছ চাষিকে দেওয়া হয়। পরে চাষিরা ওই বিরিয়ানি বাড়ি নিয়ে পরিবারের সকলে মিলে খায়।

জালালাবাদের ইউপি সদস্য আফতাবুজ্জামান জানান, কলারোয়া উপজেলার চৌরাস্তা মোড় ঢাকা নবাব বিরিয়ানি হাউস থেকে ১২০ প্যাকেট খাওয়ার অর্ডার করা হয়। বিরিয়ানি নিয়ে অনুষ্ঠানের শেষে সকলের মধ্যে বিতরণ করা হয়। সন্ধ্যার পর একের পর এক ফোন আসতে থাকে যে, ওই বিরিয়ানি খাওয়ায় তাদের বমি, পেটে ব্যথা ও পাতলা পায়খানা হচ্ছে।

তিনি আরও বলেন, এ নিয়ে সিংহলাল গ্রামের প্রায় আড়াই শতাধিক নারী, পুরুষ ও শিশু ফুড পয়জনিং এ আক্রান্ত হয়। আক্রান্ত ব্যক্তিদের কলারোয়া সরকারি হাসপাতালে নেওয়া হলে ওষুধ, স্যালাইন, বেড খালি না থাকায় তারা বিপাকে পড়েন।

কলারোয়া হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. শফিকুল ইসলাম বলেন, শনিবার ওষুধের দোকান বন্ধ থাকায় ডায়রিয়ার স্যালাইন পাওয়া যাচ্ছিল না। একই সঙ্গে হাসপাতালে বেড খালি নেই। প্রায় ৪০ জন রোগী ভর্তি করা হয়েছে। বাকিদের উন্নত চিকিৎসার জন্য সাতক্ষীরায় পাঠানো হয়েছে।

এদিকে কলারোয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রফিকুল ইসলাম বলেন, খবর পেয়ে থানা পুলিশ ঢাকা নবাব বিরিয়ানি হাউসের প্রো. রবিউল ইসলামকে আটক করে। পরবর্তীতে অসুস্থ রোগীদের অবস্থা দেখে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। তবে এ ঘটনায় কেউ থানায় এখন পর্যন্ত অভিযোগ দেয়নি।


আরও খবর