আজঃ রবিবার ০৫ ডিসেম্বর ২০২১
শিরোনাম

পতনের মধ্য দিয়ে শেষ হলো পুঁজিবাজারে লেনদেন

প্রকাশিত:রবিবার ২১ নভেম্বর 20২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২১ নভেম্বর 20২১ | ৪৪৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

সপ্তাহের প্রথম কার্যদিবস রবিবার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) ও চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) মূল্যসূচকের পতনের মধ্যে দিয়ে লেনদেন শেষ হয়েছে।

ডিএসই ও সিএসই সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

এদিন ডিএসইর প্রধান মূল্যসূচক ডিএসইএক্সের লেনদেন ৬ পয়েন্ট কমে অবস্থান করছে ৭ হাজার ৮৫ পয়েন্টে।  এ ছাড়া অপর দুই সূচকের মধ্যে ডিএস৩০ সূচক ১১ পয়েন্ট এবং ডিএসইএস বা শরিয়াহ সূচক ৫ পয়েন্ট কমে যথাক্রমে অবস্থান করছে ২৬৮৩ ও ১৪৭৫ পয়েন্টে।

এদিকে লেনদেন হওয়া কোম্পানিগুলোর মধ্যে দাম বেড়েছে ১১৪টির, কমেছে ২৩০টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ১৫টি কোম্পানির শেয়ারের।

অপর বাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) সার্বিক সূচক সিএএসপিআই কমেছে ৩ পয়েন্ট। সূচকটি ২০ হাজার ৭১৯ পয়েন্টে অবস্থান করে।


আরও খবর



আজ আপনার জন্মদিন হলে

প্রকাশিত:শুক্রবার ১২ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:শুক্রবার ১২ নভেম্বর ২০২১ | ৬০০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

আজ আপনার জন্মদিন হলে পাশ্চাত্য জ্যোতিষে আপনি বৃশ্চিক রাশির জাতক/জাতিকা। আপনার জন্মসংখ্যা : ৩। আপনার ওপর প্রভাবকারী গ্রহ : মঙ্গল ও বৃহস্পতি। আপনার শুভ সংখ্যা : ৩ ও ৯। শুভ বার : মঙ্গল ও বৃহস্পতি। শুভ রত্ন : রক্তপ্রবাল ও পোখরাজ।

মেষ (২১ মার্চ-২০ এপ্রিল)

রাজনীতিবিদদের জন্য দিনটি শুভ। সাংগঠনিক কাজে সুফল পাবেন। ভবিষ্যতের জন্য কোনো পরিকল্পনা গ্রহণ করতে পারেন। আর্থিক দিক ভালো যাবে। বন্ধুদের কারো সহযোগিতা পেতে পারেন।

বৃষ (২১ এপ্রিল-২০ মে)

পিতৃস্বাস্থ্য ভালো যাবে। কোনো উচ্চাশা পূরণ হতে পারে। কর্ম পরিবেশ অনুকূল থাকবে। বেকারদের কারো কারো সহযোগিতা পেতে পারেন। বেকারদের কারো কারো চাকরি হতে পারে। পাবলিক ইমেজ বৃদ্ধি পাবে।

মিথুন (২১ মে-২০ জুন)

সামাজিক অগ্রগতি অব্যাহত থাকতে পারে। উচ্চ শিক্ষার্থীদের জন্য সময় অনুকূল থাকতে পারে। পেশাগত দিক ভালো যাবে। সম্ভাব্য ক্ষেত্রে বিদেশযাত্রা হতে পারে। কাজকর্মে ভাগ্যের আনুকূল্য পেতে পারনে।

কর্কট (২১ জুন-২০ জুলাই)

অতীন্দ্রিয় শাস্ত্রাদির প্রতি আগ্রহবোধ করতে পারেন। বিমা কর্মীদের জন্য সমান অনুকূল থাকতে পারে। শারীরিক অসুস্থ তাকে অবহেলা করবেন না। সামাজিক সংকট এড়িয়ে চলুন। অন্যথায় বদনাম হতে পারে।

সিংহ (২১ জুলাই-২১ আগস্ট)

ব্যবসায়িক দিক ভালো যাবে। যৌথ ব্যবসায় নিজের কর্তৃত্ব বজায় রাখতে পারবেন। নতুন বিনিয়োগ ফলপ্রসূ হতে পারে। কোনো ঘনিষ্ঠ বন্ধুর সহযোগিতা পেতে পারেন। রোমান্স ও বিনোদন শুভ।

কন্যা (২২ আগস্ট-২২ সেপ্টেম্বর)

ব্যক্তিগত দায় দায়িত্ব বৃদ্ধি পেতে পারে। কর্মস্থলে সহকর্মীদের সহযোগিতা পেতে পারেন। সীমালংঘন করা থেকে বিরত থাকুন। শত্রু সম্পর্কে সতর্ক থাকুন। শরীর অসুস্থ বোধ করতে পারেন।

তুলা (২৩ সেপ্টেম্বর-২২ অক্টোবর)

বিদ্যার্থীদের জন্য দিনটি শুভ। পড়াশোনায় মন বসাতে পারবেন। কোনো সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে অংশ নিতে পারে। ধর্মীয় কাজে আনন্দ পাবেন। সন্তানের কোনো সাফল্য আনন্দদায়ক হতে পারে।

বৃশ্চিক (২৩ অক্টোবর-২১ নভেম্বর)

কোনো প্রত্যাশা পূরণ হতে পারে। মন ভালো থাকবে। বিলাস দ্রব্য কেনাকাটা হতে পারে। মাতৃস্বাস্থ্য ভালো যাবে। জ্ঞানস্পৃহা বৃদ্ধি পাবে।

ধনু (২২ নভেম্বর-২০ ডিসেম্বর)

ছোট ভাইবোনদের সঙ্গে সুসম্পর্ক বজায় থাকতে পারে। প্রয়োজনে তাদের সহযোগিতা পেতে পারেন। কাজকর্মে উৎসাহ বোধ করতে পারেন। আত্মীয়দের সঙ্গে যোগাযোগ হতে পারে। ব্যক্তিগত কোনো যোগাযোগে সুফল পাবেন।

মকর (২১ ডিসেম্বর-১৯ জানুয়ারি)

অধীনদের কাজে লাগাতে পারবেন। মূল্যবোধ সমুন্নত থাকতে পারে। পড়াশোনা আনন্দ পাবেন। কোনো প্রতিশ্রুতি রক্ষা করতে পারবেন। আর্থিক দিক ভালো যাবে।

কুম্ভ (২০ জানুয়ারি-১৮ ফেব্রুয়ারি)

আত্মপ্রতিষ্ঠা চেষ্টা জোরদার করুন। সেক্ষেত্রে সাফল্য পেতে পারেন। শরীর ভালো থাকবে। ভালো ব্যবহার দিয়ে কাজ আদায় করা সহজ হতে পারে। ব্যক্তিত্ব দিয়ে অন্যকে প্রভাবিত করতে পারবেন।

মীন (১৯ ফেব্রুয়ারি-২০ মার্চ)

আইনগত ঝামেলা এড়িয়ে চলুন। ব্যয় কমানোর চেষ্টা করুন। ভ্রমণের সুযোগ পেতে পারেন। কোনো গুরুত্বপূর্ণ কাজ শেষ করতে পারবেন। শারীরিক অসুস্থ তাকে অবহেলা করবেন না।

নিউজ ট্যাগ: আজকের রাশিফল

আরও খবর
যেসব স্বাস্থ্যকর খাবার বাড়ায় ওজন

শনিবার ০৪ ডিসেম্বর ২০২১




দেশবাসীকে শপথ পড়াবেন প্রধানমন্ত্রী

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০২ ডিসেম্বর 2০২1 | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ০২ ডিসেম্বর 2০২1 | ৩৯০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

এবারের মহান বিজয় দিবসে সারাদেশের মানুষকে শপথ বাক্য পাঠ করাবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উদযাপন জাতীয় বাস্তবায়ন কমিটির প্রধান সমন্বয়ক ড. কামাল আবদুল নাসের চৌধুরী এ তথ্য জানিয়েছেন। তবে সেটি ঠিক কী ধরনের শপথ তা জানানো হয়নি। বৃহস্পতিবার (২ ডিসেম্বর) সচিবালয়ে দুটি সভা শেষে সাংবাদিকদের তিনি এ তথ্য জানান। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে এ দুই সভা অনুষ্ঠিত হয়।

আজ দুপুরে ১৬ ডিসেম্বর মহান বিজয় দিবস উপলক্ষে সার্বিক নিরাপত্তা বিষয়ে প্রথম সভা অনুষ্ঠিত হয়। এরপর বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী উদযাপন উপলক্ষে নিরাপত্তা প্রদান-সংক্রান্ত আরেকটি সভা অনুষ্ঠিত হয়। দুই সভায়ই সভাপতিত্ব করেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল।

কামাল আবদুল নাসের চৌধুরী বলেন, ১৬ ডিসেম্বরের যে অনুষ্ঠান, সেই অনুষ্ঠানে বিকেল সাড়ে ৪টায় প্রধানমন্ত্রী জাতীয় সংসদের দক্ষিণ প্লাজা থেকে সারা দেশে একটা শপথ অনুষ্ঠান পরিচালনা করবেন। সেখানে সকল শ্রেণি-পেশার মানুষ অংশ নেবেন। তারপর সাড়ে ৫টা থেকে আলোচনা সভা শুরু হবে।

কী শপথ হবে- জানতে চাইলে তিনি বলেন, এ বিষয়ে পরে আপনাদেরকে বিস্তারিত জানাব।

তিনি বলেন, জাতীয় সংসদের দক্ষিণ প্লাজায় আমরা এবার প্রোগ্রামটা করছি। এর আগে জাতীয় প্যারেড স্কয়ারে করেছিলাম। ১৬ ডিসেম্বরে সবসময় একটা কুচকাওয়াজ হয়। এবার যে কুচকাওয়াজ হবে, সেটা বড় আকারে হবে। সেখানে ছয়টি দেশের প্রতিনিধি আসবে বলেও জানান তিনি। এটি একটি আন্তর্জাতিক একটি প্যারেড হবে।

তিনি বলেন, আমাদের প্রতিপাদ্য হচ্ছে মহা বিজয়ের মহানায়ক। এই শিরোনামে আমরা অনুষ্ঠান করছি দুই দিনব্যাপী। প্রথম অনুষ্ঠান হবে ১৬ ডিসেম্বর ও পরেরটা হবে ১৭ ডিসেম্বর।

বিজয় দিবসের দিনের আলোচনা সভায় ভারতের রাষ্ট্রপতি যোগদান করবেন বলেও জানান কামাল আবদুল নাসের চৌধুরী। তিনি বলেন, আমাদের রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীও থাকবেন। বিজয়ের সুবর্ণজয়ন্তীর সঙ্গে আমরা বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী পালন করছি। দুটোর সমন্বয়ে যাতে সুন্দরভাবে অনুষ্ঠান হয়, সে প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেন, ১৬ ডিসেম্বর আমাদের বিজয় দিবস। বিজয় দিবসের ৫০ বছর পূর্তি হতে যাচ্ছে। সেজন্য সারা দেশের মানুষের একটি আগ্রহ রয়েছে। তারা সবাই উন্মুখ রয়েছে, এ অনুষ্ঠানে তারা অংশগ্রহণ করবেন।

তিনি বলেন, বাংলাদেশের যে যেখানে থাকে, তারা এ অনুষ্ঠানগুলোর মধ্যে অংশগ্রহণ করবেন। ১৬ ডিসেম্বর থেকে আরম্ভ করে বাকি দিনগুলো যাতে নিরাপত্তার ব্যবস্থা করতে পারি, সেজন্য এ সভা করা হয়েছে।

মন্ত্রী জানান, বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী উদযাপন উপলক্ষে একটা নিরাপত্তা সাব-কমিটি আছে, সেটার পঞ্চম সভা। সেই সভাটি আজকে অনুষ্ঠিত হয়েছে। নিরাপত্তার ব্যবস্থা নিয়ে আমরা আলাপ-আলোচনার মাধ্যমে সিদ্ধান্ত নিয়েছি, যাতে সুন্দরভাবে হয়। আমাদের নিরাপত্তা বাহিনী এ ব্যাপারে অভিজ্ঞ। এই আলোকে সবকিছুই নিরাপদে করতে পারব। আমাদের সব ধরনের প্রস্তুতি রয়েছে।

এ সময় জাতীয় সংসদের হুইপ ইকবালুর রহিম ও জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন উপস্থিত ছিলেন।


আরও খবর



সেপটিক ট্যাংকে ছেলের লাশ চাপা দিয়ে নির্বাচনে ব্যস্ত বাবা-মা

প্রকাশিত:শুক্রবার ২৬ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৬ নভেম্বর ২০২১ | ৪৮৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

দুই বছর আগে এক ছেলের বউ চিরকুট লিখে রেখে আত্মহত্যা করেন। সেই ঘটনা 'সামাল' দিতে কাঠখড় পোহাতে হয়েছে অনেক। এবার আত্মহত্যা করেছেন ছেলে। এ ঘটনা নিয়ে আর 'ঝামেলা' পোহাতে চান না বাবা-মা। একই সময়ে চলছে নির্বাচন। সেখানে মা করুণা বেগম লড়ছেন সংরক্ষিত সদস্য পদে। এমন সময় ছেলের আত্মহত্যার প্রভাব নির্বাচনে পড়তে পারে, সেই চিন্তা থেকে ছেলের লাশ উদ্ধার করে 'গোপনে' সেপটিক ট্যাংকে চাপা দেন বাবা-মা। এরপর নেমে পড়েন নির্বাচনী প্রচারণায়।

কিন্তু শেষ রক্ষা হয়নি। নিহতের বাবা নিজেই বিষয়টি চার দিন পর স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যানকে অবগত করেন। এরপর শুক্রবার (২৬ নভেম্বর) দুপুরে ঘটনাস্থল থেকে লাশ উদ্ধার এবং নিহতের বাবা ও মাকে আটক করে পুলিশ।

এমন ঘটনা ঘটেছে সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুর উপজেলায়। নিহত করিম (১৮) শাহজাদপুর উপজেলার নরিনা ইউনিয়নের নরিনা পূর্বপাড়ার আলহাজ হোসেনের ছেলে। নিহতের মা করুণা বেগম চতুর্থ ধাপের নির্বাচনে ওই ইউনিয়নের ১, ২ ও ৩ নম্বর সংরক্ষিত ওয়ার্ডে নারী পদের প্রার্থী। ছেলের লাশ চাপা দিয়ে নির্বাচনী প্রচারণায় স্বামীকে নিয়ে ব্যস্ত ছিলেন তিনি।

নিহতের মা করুনা বেগম জানান, মেজো ছেলে করিম দীর্ঘদিন ধরে নেশায় আসক্ত ছিল। মঙ্গলবার রাতে খাবার খেয়ে করিম তার নিজ ঘরে ঘুমাতে যায়। পরদিন ভোরে ডাকাডাকি করেও কোনো সাড়া না পেয়ে ছোট ছেলের ঘর থেকে উঁকি দিয়ে দেখেন তিনি আত্মহত্যা করেছেন। এরপর স্বামী-স্ত্রী মিলে ছেলের লাশ নামিয়ে বাড়ির টয়লেটের সেপটিক ট্যাংকে ফেলে মাটিচাপা দিয়ে রাখেন।

সেপটিক ট্যাংকে লাশ রাখার কারণ জানতে চাইলে নিহতের বাবা আলহাজ বলেন, 'প্রায় দুই বছর আগে বড় ছেলের বউ চিঠি লিখে রেখে আত্মহত্যা করেছিল। ওই ঘটনা সামাল দিতে আমরা সর্বস্বান্ত হয়ে গেছি। এবার ছেলের আত্মহত্যার বিষয়টি জানাজানি হলে আবারও আইনি ঝামেলা হবে, তাতে আমাদের বর্তমান বসতভিটাও থাকবে না। তাই আমরা বুকে কষ্ট চাপা রেখে ছেলের আত্মহত্যার বিষয়টি গোপন করতেই লাশ মাটিচাপা দিয়েছিলাম। পাশাপাশি বিষয়টি কেউ যেন টের না পায় সে জন্য স্ত্রীর নির্বাচনী প্রচারণাও যথারীতি চালাই।'

আলহাজ আরো বলেন, 'ছেলের মৃত্যুর ঘটনাটি সহ্য করা কঠিন হয়ে পড়েছিল। তাই শুক্রবার সকালে স্থানীয় গাড়াদহ ইউনিয়নের চেয়ারম্যান সাইফুল ইসলামের কাছে গিয়ে ঘটনা প্রকাশ করেছি। এরপর চেয়ারম্যান পুলিশকে বিষয়টি অবগত করেছে।'

সংবাদ পেয়ে শাহজাদপুর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার হাসিবুল হোসেন ও থানার ওসি শাহিদ মাহমুদ খান ও পরিদর্শক (অপারেশন) আব্দুল মজিদ দুপুরে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।

ওসি শাহিদ মাহমুদ খান জানান, নিহতের লাশ উদ্ধারের পর থানা হেফাজতে রাখা হয়েছে। শনিবার লাশটি সিরাজগঞ্জ শেখ ফজিলাতুন নেছা মুজিব হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হবে। ঘটনাটি হত্যা নাকি আত্মহত্যা ময়নাতদন্তের পর নিশ্চিত হওয়া যাবে। এ ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে নিহতের মা-বাবাকে আটক করে থানা হাজতে রাখা হয়েছে। এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে।


আরও খবর
শাহজাদপুরে ট্রাক উল্টে খাদে, নিহত ২

মঙ্গলবার ০৯ নভেম্বর ২০২১




১৬ নভেম্বর: ইতিহাসের এই দিনে

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৬ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৬ নভেম্বর ২০২১ | ৪৮০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image
একনজরে দেখে নিন ইতিহাসের এই দিনে ঘটে যাওয়া উল্লেখযোগ্য ঘটনা, বিশিষ্টজনের জন্ম-মৃত্যু দিনসহ গুরুত্বপূর্ণ আরও কিছু বিষয়

১৬ নভেম্বর গ্রেগরীয় বর্ষপঞ্জী অনুসারে বছরের ৩২০তম (অধিবর্ষে ৩২১তম) দিন। বছর শেষ হতে আরো ৪৫ দিন বাকি রয়েছে। একনজরে দেখে নিন ইতিহাসের এই দিনে ঘটে যাওয়া উল্লেখযোগ্য ঘটনা, বিশিষ্টজনের জন্ম-মৃত্যু দিনসহ গুরুত্বপূর্ণ আরও কিছু বিষয়

 

ঘটনাবলি

    ১৩৮০ - ফ্রান্সের রাজা ষষ্ঠ জর্জ করমুক্তির ঘোষণা দেন।

    ১৩৮৪ - জাডউইগা পোলান্ডের রাজ্যভার গ্রহণ করেন।

    ১৮০১ - নিউ ইয়র্ক ইভনিং পোস্টের প্রথম সংস্করণ প্রকাশিত হয়।

    ১৮২৪ - নিউ ইয়র্ক নগরীর ফিফথ এভিনিউ খুলে দেওয়া হয়।

    ১৮৬৯ - পোর্ট সৈয়দে সুয়েজ খাল আনুষ্ঠানিকভাবে নৌ চলাচলের জন্য উন্মুক্ত হয়।

    ১৯০৫ - স্বদেশি আন্দোলনের অনুপ্রেরণায় সরকারি বিদ্যাচর্চা বর্জন আন্দোলনের প্রেক্ষাপটে আশতোষ চৌধুরীর সভাপতিত্বে ন্যাশনাল কাউন্সিল অফ এডুকেশন স্থাপিত হয়।

    ১৯২৩ - অস্বাভাবিক মুদ্রাস্ফীতির পর জার্মানিতে নতুন মুদ্রাব্যবস্থা চালু হয়।

    ১৯৪৫ - ভিয়েতনামে ফ্রান্সের সেনাদের হামলা শুরুর মধ্য দিয়ে দেশটির জনগণের দীর্ঘ ও রক্তক্ষয়ী স্বাধীনতা সংগ্রাম শুরু হয়।

    ১৯৪৬ - বিশ্বে প্রথমবারের মত কৃত্রিমভাবে বৃষ্টিপাত সৃষ্টি করা হয়।

    ১৯৯৩ - জঙ্গিদের আত্মসমর্পণের মধ্য দিয়ে কাশ্মীরে ৩২ দিনের অচলাবস্থার অবসান ঘটে।

 

জন্ম

    ১৭৯৩ - ফ্রান্সিস ড্যানবি, আইরিশ চিত্রকর।

    ১৮৯০ - হেমেন্দ্রনাথ ঘোষ,ভারতে প্রথম সিরাম ভ্যাকসিন ও পেনিসিলিন প্রস্তুতকারক বিশিষ্ট ভেষজ বিজ্ঞানী ও চিকিৎসক।

    ১৮৯৫ - চৌধুরী রহমত আলি, ব্রিটিশভারতীয়-পাকিস্তানি জাতীয়তাবাদি, পাকিস্তান শব্দের প্রবক্তা।

    ১৮৯৬ - রনদা প্রসাদ সাহা, সমাজসেবক ও দানবীর

    ১৯১৪ - কমলকুমার মজুমদার, বাঙালি সাহিত্যিক ও শিল্পী।

    ১৯২০ - সৌরীন্দ্র মিত্র, ভারতীয় বাঙালি রবীন্দ্রগবেষক ও প্রাবন্ধিক।

    ১৯২২ - জিন আম্‌ডাল, নরওয়েজীয়- মার্কিন কম্পিউটার আর্কিটেক্ট এবং হাইটেক উদ্যোক্তা।

    ১৯৩০ - মিহির সেন আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন বাঙালি সন্তরণবিদ, প্রথম ভারতীয় হিসাবে ১৯৫৮ সালে ইংলিশ চ্যানেল অতিক্রম করেন।

    ১৯৩০ - চিনুয়া আচেবে, নাইজেরিয়ার প্রখ্যাত সাহিত্যিক ও আফ্রিকার আধুনিক সাহিত্যের জনক।

    ১৯৪৫ - নরেন বিশ্বাস, গবেষক ও লেখক।

 

মৃত্যু

    ১৮১২ - জন ওয়ালটার, দ্য টাইমস পত্রিকার প্রতিষ্ঠাতা।

    ১৯৩৪ - আয়াতুল্লাহিল উজমা আব্দুল করিম হায়েরি ইয়াযদি, বিশিষ্ট মুসলিম চিন্তাবিদ ও ফকীহ।

    ১৯৮৬ - বিধায়ক ভট্টাচার্য, নাট্যকার, সাহিত্যিক ও সাংবাদিক।

    ১৯৯৬ - মাসুদ করিম, বাংলাদেশী গীতিকার

    ২০১২- সুভাষ দত্ত, বাংলাদেশী চলচ্চিত্র নির্মাতা এবং অভিনেতা।

 

ছুটি ও অন্যান্য

    জাতীয় প্রেস দিবস (ভারত)

    আন্তর্জাতিক সহনশীলতা দিবস


আরও খবর
শুরু হলো মহান বিজয়ের মাস

বুধবার ০১ ডিসেম্বর ২০২১

১০ নভেম্বর: ইতিহাসের এই দিনে

বুধবার ১০ নভেম্বর ২০২১




ইকুয়েডরে কারাগারে ভয়াবহ দাঙ্গায় নিহত ৬৮

প্রকাশিত:রবিবার ১৪ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ১৪ নভেম্বর ২০২১ | ৪০৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

ইকুয়েডরের একটি কারাগারে ভয়াবহ দাঙ্গায় কমপক্ষে ৬৮ জন বন্দি নিহত হয়েছেন।

স্থানীয় সময় শুক্রবার সন্ধ্যায় (১২ নভেম্বর) গোয়াকিল শহরের লিটোরাল পেনিটেনশিয়ারিতে এ দাঙ্গা ও প্রাণহানির ঘটনা ঘটে বলে এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি।

প্রতিবেদনে বলা হয়, পুলিশের কৌশলগত ইউনিট, যারা কারাগার ভবনে প্রবেশ করে, তারা বন্দুক ও বিস্ফোরক খুঁজে পেয়েছে। দাঙ্গায় কমপক্ষে ২৫ জন আহত হয়েছেন।

এর আগে এ মাসের শুরুর দিকে একটি ছোট সশস্ত্র সংঘর্ষে তিনজন বন্দিকে গুলি করে হত্যা করা হয়েছিল।

বিবিসি জানিয়েছে, সেপ্টেম্বর মাসের শেষে দেশটির ওই কারাগারে পৃথক একটি দাঙ্গায় কমপক্ষে ১১৬ জন বন্দি নিহত হয়েছিলেন। এ নিয়ে চলতি বছর দেশটির বিভিন্ন কারাগারে প্রায় ৩০০ বন্দির সংঘর্ষে মৃত্যু হয়েছে। তবে সেপ্টেম্বরের ওই সহিংসতা সবচেয়ে ভয়াবহ ছিল।

বন্দিদের প্রতিদ্বন্দ্বী সন্ত্রাসী গ্রুপগুলোর মধ্যে দ্বন্দ্বের জের ধরে প্রাণঘাতী ওই দাঙ্গা হয়েছিল বলে জানা গেছে।

কারাগারের নিয়ন্ত্রণ নিয়ে সেখানে সন্ত্রাসী গ্রুপগুলোর ভেতরে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের ঘটনা ঘটছে বলে জানিয়েছেন পুলিশ কর্মকর্তারা।


আরও খবর
করোনায় আরও ৭ হাজারের বেশি মৃত্যু

শনিবার ০৪ ডিসেম্বর ২০২১