আজঃ মঙ্গলবার ২৮ জুন ২০২২
শিরোনাম

পরিস্থিতির ওপর নতুন রুটিন এসএসসি-এইচএসসির

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২১ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২১ জুন ২০২২ | ৩২০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

দেশের উত্তর-পূর্বাঞ্চলে সৃষ্ট বন্যা পরিস্থিতিতে মাধ্যমিক স্কুল সার্টিফিকেট (এসএসসি) ও সমমান পরীক্ষা পিছিয়ে গেছে। নতুন রুটিনে কবে শুরু হবে পরীক্ষা, তা নিয়েও দেখা দিয়েছে অনিশ্চয়তা। বন্যার প্রভাবে পেছাতে পারে চলতি বছরের এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষাও।

তবে বন্যা পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে ঈদের ছুটি শেষে নতুন রুটিনে ১০-১৫ দিন পিছিয়ে এসএসসি ও সমমান পরীক্ষা শুরু হবে। মাধ্যমিক স্তরের এ পরীক্ষা শেষ হওয়ার পরবর্তী দুই মাসের মধ্যেই এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষা শুরুর চিন্তা-ভাবনা চলছে বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে।

এ বিষয়ে আন্তঃশিক্ষাবোর্ড সমন্বয় কমিটির একাধিক সদস্যের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, সব প্রস্তুতি সম্পন্ন হলেও চলমান বন্যা পরিস্থিতির কারণে পরীক্ষা স্থগিতের সিদ্ধান্ত নিয়েছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে এসএসসি-সমমান পরীক্ষার জন্য নতুন রুটিন দেওয়া হবে। আগের রুটিনের আলোকে নতুন পরীক্ষার রুটিন তৈরি করা হবে, এক্ষেত্রে শুধু পরীক্ষা শুরুর সময়টা পরিবর্তন হবে। পরীক্ষার্থীদের নতুনভাবে প্রস্তুতির জন্য ৭ থেকে ১৫ দিন সময় দেওয়া হতে পারে।

বোর্ড সূত্র জানিয়েছে, সাধারণত এসএসসি পরীক্ষা শেষ হওয়ার মাস দুই পর এইচএসসি পরীক্ষা শুরু হয়। মাঝের সময়টাতে চলে প্রস্তুতি। এবার এইচএসসি পরীক্ষা পিছিয়ে জুনের পরিবর্তে জুলাইয়ের শেষ দিকে শুরু হতে পরে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে আন্তঃশিক্ষাবোর্ড সমন্বয় কমিটির আহ্বায়ক ও ঢাকা শিক্ষাবোর্ড চেয়ারম্যান অধ্যাপক তপন কুমার সরকার বলেন, বন্যা পরিস্থিতির কিছুটা উন্নতি হলে আমরা ঈদের আগে কয়েকটি পরীক্ষা নেওয়ার চিন্তা করছি। বর্তমানে বিভিন্ন অঞ্চলে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলো পানিবন্দি হয়ে পড়ায় তা সম্ভব হবে কি না, নিশ্চিত করে বলা যাচ্ছে না। আমাদের প্রস্তুতি থাকলেও বন্যা পরিস্থিতির ওপর নির্ভর করছে, কবে শুরু হবে পরীক্ষা।

বিলম্বিত পরীক্ষায় বিষয় কমানো হবে কি না, জানতে চাইলে তিনি বলেন, বন্যা পরিস্থিতি স্বাভাবিক হতে দেরি হলেও পরীক্ষা সংক্ষিপ্ত করা বা বিষয় কমানোর কোনো সিদ্ধান্ত এখনো হয়নি। আগে রুটিন শিডিউল অনুযায়ীই নতুন রুটিন দেওয়া হবে। তবে পরীক্ষা শুরুর সময়টা পরিবর্তন করা হতে পারে।

তিনি আরও বলেন, একটি পরীক্ষার সঙ্গে আরেকটি সম্পৃক্ত। এ কারণে এসএসসি পরীক্ষা পিছিয়ে যাওয়ায় এইচএসসিও পিছিয়ে যাবে। সে কারণে আগামী বছরের এ দুই পরীক্ষা ফেব্রুয়ারি ও এপ্রিলে আয়োজন করা সম্ভব হবে না। সেগুলো শুরু করতে বিলম্ব হবে।

জানা গেছে, চলতি বছর এসএসসি ও সমমান পরীক্ষায় ২০ লাখ ২১ হাজার ৮৬৮ জন শিক্ষার্থী অংশ নেবে। সাধারণ ৯টি বোর্ডের অধীনে ১৫ লাখ ৯৯ হাজার ৭১১ জন পরীক্ষার্থী রয়েছে। এর বাইরে দাখিলে ২ লাখ ৬৮ হাজার ৪৯৫ জন আর কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের অধীনে এসএসসি ও দাখিল ভোকেশনালে ১ লাখ ৬৩ হাজার ৬৬২ পরীক্ষার্থী পরীক্ষায় বসবে।

পরীক্ষার্থীদের অনেকের সঙ্গে কথা হলে তারা অভিযোগ করেন, দীর্ঘ আড়াই বছরের বেশি সময় ধরে তারা নবম-দশম শ্রেণিতে ক্লাস করেছেন। স্বাভাবিক সময়ে এতদিনে তাদের কলেজে ক্লাস করার কথা। করোনা পরিস্থিতির কারণে তাদের জীবন থেকে মূল্যবান সময় নষ্ট হয়ে গেছে। করোনা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে এলেও বর্তমানে দেশের বিভিন্ন স্থানে বন্যা পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে। এটি কবে স্বাভাবিক হবে, কবে তাদের পরীক্ষা শুরু হবে তা নিয়ে অনিশ্চয়তা রয়েছে। পরীক্ষা শুরুর অন্তত ১৫ দিন আগে নতুন রুটিন প্রকাশের দাবি তাদের।

এ বিষয়ে বোর্ড চেয়ারম্যান তপন কুমার সরকার আরও বলেন, আসলে প্রাকৃতিক দুর্যোগ হলে সেখানে কিছু করার থাকে না। তবে প্রথমদিকে করোনা ও পরবর্তীতে বন্যার কারণে এমন সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। পরীক্ষা শুরুর ৭ থেকে ১৫ দিন আগে রুটিন প্রকাশ করা হবে।

তিনি বলেন, এসএসসি পরীক্ষা আয়োজনের নিয়মিত সময় ছিল ফেব্রুয়ারি-মার্চে। তখন বৃষ্টিপাত বা বন্যার সম্ভাবনাও থাকে না। কিন্তু করোনা মহামারির কারণে নিয়মিত সময়ে পরীক্ষা আয়োজন সম্ভব হয়নি। করোনা আমাদের শিক্ষা ক্যালেন্ডার তছনছ করে দিয়েছে। আমরা আবার আগের সূচিতে ফিরে যাওয়ার চেষ্টা করছি।

১৯ জুন সারাদেশে একযোগে এসএসসি ও সমমান পরীক্ষা শুরুর প্রস্তুতি ছিল। কিন্তু দেশে বন্যা পরিস্থিতির অবনতি হওয়ায় গত ১৭ জুন সব শিক্ষাবোর্ডের এসএসসি জেনারেল, এসএসসি ভোকেশনাল এবং দাখিল পরীক্ষা স্থগিত করে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। তত্ত্বীয় পরীক্ষা আগামী ৬ জুলাই পর্যন্ত আর ব্যবহারিক পরীক্ষা ১৩-১৯ জুলাই পর্যন্ত হওয়ার কথা ছিল।

এর আগে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি পদ্মা সেতু উদ্বোধনের কারণে এসএসসির ২৫ জুনের ইংরেজি দ্বিতীয় পত্র পরীক্ষা একদিন এগিয়ে ২৪ জুন আয়োজনের ঘোষণা দেন। এসএসসি পরীক্ষা ঘিরে ১৫ জুন থেকে সারাদেশের কোচিং সেন্টার তিন সপ্তাহের জন্য বন্ধের নির্দেশ দেন তিনি।


আরও খবর



সোলাইমানি হত্যার নেপথ্য কারণ জানালেন মাইক পম্পেও

প্রকাশিত:শনিবার ১৮ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ১৮ জুন ২০২২ | ৩৭৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

৫০০ আমেরিকানকে হত্যার একটি চক্রান্ত ঠেকাতেই ইরানের অভিজাত কুদস ফোর্সের সাবেক কমান্ডার জেনারেল কাসেম সোলাইমানিকে হত্যা করা হয়েছে বলে দাবি করেছেন যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক প্রেসিডেন্ট ডোলাল্ড ট্রাম্প প্রশাসনের পররাষ্টমন্ত্রী মাইক পম্পেও।  সৌদি আরবের গণমাধ্যম আল আরাবিয়ার সঙ্গে দেওয়া একটি সাক্ষাৎকারে এ দাবি করেন তিনি।  এসময় যুক্তরাষ্ট্রের বাইডেন প্রশাসনের মধ্যপ্রাচ্য নীতিরও সমালোচনা করেন সাবেক এ পররাষ্ট্রমন্ত্রী।

মাইক পম্পেও বলেন, ৫০০ আমেরিকানকে হত্যার ষড়যন্ত্রে লিপ্ত ছিলেন সোলাইমানি। সেই ষড়যন্ত্র নস্যাতের সুযোগ যুক্তরাষ্ট্রের ছিল এবং আমরা সেটিই করেছি। রানের পারমাণবিক চুক্তি থেকে যুক্তরাষ্ট্র নিজেকে সরিয়ে নিতে চাইলে যুদ্ধ হবে! অনেকটা এ রকম সতর্কবার্তা ছিল। যুক্তরাষ্ট্র তার ইসরাইল দূতাবাস তেল আবিব থেকে জেরুজালেমে স্থানান্তরিত করলেও যুদ্ধের সতর্কবার্তা ছিল। জেনারেল সোলাইমানির ওপর হামলা চালালেও যুদ্ধের সতর্কতা ছিল। ভালো কথা! এই সতর্কবার্তাগুলোর মধ্যে যুক্তরাষ্ট্র শুধু একটি বা দুটিই করেনি। আমরা এর তিনটি কাজই করেছি এবং কোনো যুদ্ধ হয়নি।

ইরানের শাসকদের নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের বিতর্কিত এ সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, আমরা জানি ইরানের শাসক কে। এগুলো হলো শয়তান ধর্মশাসক যাদের লক্ষ্য যুক্তরাষ্ট্র ও ইসরাইলের ধ্বংস করা। ইরানের সঙ্গে ২০১৫ সালে হওয়া একটি পারমাণবিক চুক্তি নতুন করে করতে চাচ্ছে বাইডেন প্রশাসন। এই চুক্তি থেকে ২০১৮ সালে সরে এসেছিলেন ডোনাল্ড ট্রাম্প।  বাইডেন কেন নতুন করে এ চুক্তিটি করতে চাচ্ছেন সেটির সমালোচনা করেছেন পম্পেও। তার দাবি এর মাধ্যমে ইরান ক্ষণস্থায়ী সময়ের জন্য তাদের পারমাণবিক অস্ত্রের পরিধি বাড়ানো থেকে বিরত থাকবে।

তার দাবি, ইরান পারমাণবিক অস্ত্র প্রোগ্রাম থেকে বিরত থাকার কথা দিলেও সেটি তারা মানেনি। ফলে ডোনাল্ড ট্রাম্প প্রশাসন বাধ্য হয়ে চুক্তি থেকে সরে এসেছিল।  ২০২০ সালের ৩ জানুয়ারি ইরাকের বাগদাদ আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের কাছ থেকে ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালিয়ে জেনারেল সোলাইমানি এবং ইরাকের হাশদ আশ-শাবির সেকেন্ড-ইন-কমান্ড আবু মাহদী আল-মুহান্দিসকে হত্যা করে যুক্তরাষ্ট্র।  হামলার পাঁচ দিন পর ইরাকে অবস্থিত মার্কিন ঘাঁটি আইন আল-আসাদে ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালানোর দাবি করে ইরান।


আরও খবর



ফ্রান্সে ৫১ জন মাঙ্কিপক্সে আক্রান্ত

প্রকাশিত:শনিবার ০৪ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০৪ জুন ২০২২ | ৩২৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

করোনাভাইরাসের মহামারি থেকে এখনো বের হতে পারেনি বিশ্ব। এর মধ্যেই নতুন এক রোগ ভাবিয়ে তুলছে। যার নাম মাঙ্কিপক্স। বিশেষ করে ইউরোপের দেশগুলোতে ছড়াচ্ছে এটি। সংক্রমণের সংখ্যা বেড়ে যাওয়ার মধ্যেই ৫১ জনের মাঙ্কিপক্সে আক্রান্তের বিষয়টি নিশ্চিত করেছে ফ্রান্স। এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে এনডিটিভি।

প্রতিবেদনে বলা হয়, ফ্রান্সের স্বাস্থ্য কর্তৃপক্ষ শুক্রবার (৩ জুন) জানিয়েছে, মে মাসে তারা প্রথম রোগী শনাক্ত করেছিল এবং বুধবার পর্যন্ত মোট ৫১ জন মাঙ্কিপক্সে আক্রান্ত হয়েছেন।

ইউএস সেন্টার ফর ডিজিজ কন্ট্রোল অ্যান্ড প্রিভেনশন বলেছে, এখন পর্যন্ত মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে শনাক্ত হওয়া ২১ জনসহ বিশ্বব্যাপী মাঙ্কিপক্সে আক্রান্ত ৭০০ জনেরও বেশি রোগী শনাক্ত করা হয়েছে।

এদিকে, ফরাসি জাতীয় জনস্বাস্থ্য সংস্থা বলছে, আক্রান্ত রোগীদের বেশিরভাগই পুরুষ, যাদের বয়স ২২ থেকে ৬৩ বছরের মধ্যে। এদের মধ্যে শুধুমাত্র একজনকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছিল এবং চিকিৎসা শেষে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে।

জানা যায়, এই রোগটি মধ্য ও পশ্চিম আফ্রিকার কিছু অংশে স্থানীয় হলেও কিন্তু ইউরোপ এবং উত্তর আফ্রিকায় বিরল। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার মতে, মাঙ্কিপক্স সাধারণত দুই থেকে চার সপ্তাহ পর ঠিক হয়ে যায়।


আরও খবর



বিশ্বে করোনায় আক্রান্ত আরও ৩ লাখ

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৪ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৪ জুন ২০২২ | ৩৩৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে গত ২৪ ঘণ্টায় ৭০১ জনের মৃত্যু হয়েছে। এনিয়ে বিশ্বজুড়ে মৃতের সংখ্যা পৌঁছেছে ৬৩ লাখ ৩২ হাজার ৩২৫ জনে।

একই সময়ের মধ্যে ভাইরাসটিতে নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ৩ লাখ ২৬ হাজার ৩৯ জন। এতে মহামারির শুরু থেকে এ পর্যন্ত মোট রোগীর সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৫৪ কোটি ৯ লাখ ২৩ হাজার ৩৩৫ জনে।

মঙ্গলবার (১৪ জুন) সকালে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত, মৃত্যু ও সুস্থতার হিসাব রাখা ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডোমিটারস থেকে এ তথ্য পাওয়া যায়।

ওয়ার্ল্ডোমিটারসের তথ্য অনুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় বিশ্বে করোনায় সবচেয়ে বেশি সংক্রমণ ও প্রাণহানির ঘটনা ঘটেছে যুক্তরাষ্ট্রে। এই সময়ের মধ্যে দেশটিতে নতুন করে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ৪৮ হাজার ৪২৪ জন এবং মারা গেছেন ১১৩ জন। এছাড়া দৈনির প্রাণহানির তালিকায় দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে তাইওয়ান। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশটিতে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ১০৯ জন এবং নতুন করে ভাইরাসে সংক্রমিত হয়েছেন ৪৫ হাজার ১১০ জন।

করোনায় আক্রান্তের তালিকায় দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে প্রতিবেশী দেশ ভারত। তবে ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মৃতের সংখ্যার তালিকায় দেশটির অবস্থান তৃতীয়। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশটিতে নতুন করে করোনায় সংক্রমিত হয়েছেন ৩ হাজার ২৩৭ জন।

এছাড়া ইতালিতে নতুন করে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ১০ হাজার ৩৭১ জন এবং মারা গেছেন ৪১ জন। জার্মানিতে গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ৩৮ হাজার ৬৬৮ জন এবং মারা গেছেন ৩০ জন। রাশিয়ায় গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ৫৬ জন এবং নতুন করে ভাইরাসে সংক্রমিত হয়েছেন ২ হাজার ৯৯৬ জন।

গত ২৪ ঘণ্টায় অস্ট্রেলিয়ায় নতুন করে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ১৯ হাজার ৫১ জন এবং মারা গেছেন ১১ জন। একইসময়ে থাইল্যান্ডে নতুন করে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ১ হাজার ৮০১ জন এবং মারা গেছেন ১৫ জন। চিলিতে নতুন করে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৯ হাজার ১১০ জন এবং মারা গেছেন ১৪ জন।

উল্লেখ্য, ২০১৯ সালের ডিসেম্বরে চীনের উহানে প্রথম করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়। এরপর ২০২০ সালের ১১ মার্চ বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও) করোনাকে বৈশ্বিক মহামারি’ হিসেবে ঘোষণা করে।

নিউজ ট্যাগ: করোনাভাইরাস

আরও খবর



টেস্ট অধিনায়কত্ব ফিরে পেলেন সাকিব আল হাসান

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০২ জুন 2০২2 | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ০২ জুন 2০২2 | ৩৮০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

শ্রীলংকার বিপক্ষে সিরিজ হার ও নিজের ব্যাটিং ব্যর্থতার জন্য তোপের মুখে পড়েন মুমিনুল হক। সমালোচনার ঝড়ের মুখেই মঙ্গলবার টেস্ট দলের নেতৃত্ব ছেড়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত বোর্ডকে জানিয়ে দেন।

এর পর থেকেই প্রশ্ন ওঠে সাকিব আল হাসান কী আবারও টেস্ট দলের নেতৃত্ব ফিরে পাচ্ছেন নাকি নতুন কাউকে দেখা যাবে লাল বলের ক্রিকেটের নেতৃত্বে?

বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) সভায় সিদ্ধান্ত হয়েছে - টেস্ট অধিনায়কত্ব ফিরে পেয়েছেন সাকিব আল হাসান। আর সহ অধিনায়ক করা হয়েছে লিটন দাসকে।

মুমিনুলের নেতৃত্ব ছাড়ার পর বিসিবির চাওয়া ছিল, সাকিব যেন টেস্টে নিয়মিত হয় দলের দায়িত্ব নেন। কারণ মুশফিকুর রহিম ও তামিম ইকবাল আলোচনায় থাকলেও তারা এই মুহূর্তে টেস্ট দলের দায়িত্ব নিতে রাজি নন। সাকিবও এবার অধিনায়ক হতে ইচ্ছুক শোনা যাচ্ছিল।

বিসিবি মনে করছে, সাকিব দায়িত্ব নিলে দল অনেক দূর এগিয়ে যাবে। সেক্ষেত্রে অন্তত তিন বছর টানা খেলার নিশ্চয়তা দিতে হবে তাকে।অবশেষে মঙ্গলবার মিরপুরের বিসিবির অফিসে ১২টা ৪০ মিনিটে এক বৈঠকে সাকিবকে অধিনায়ক করার সিদ্ধান্ত নেন বোর্ড পরিচালকরা।

বোর্ড সভাতে উপস্থিত ছিলেন বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন সহ পরিচালক জালাল ইউনুস, তানভীর আহমেদ টিটু, আকরাম খান, খালেদ মাহমুদ সুজনসহ বেশ কয়েকজন।


আরও খবর



ঢাবির ‘খ’ ইউনিটে ৯০ শতাংশই ফেল

প্রকাশিত:সোমবার ২৭ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ২৭ জুন ২০২২ | ২০৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) কলা অনুষদভুক্ত ইউনিটের ফল প্রকাশিত হয়েছে। এতে কৃতকার্য হয়েছেন ৫ হাজার ৬২২ জন। পাসের হার ৯.৮৭ শতাংশ। পরীক্ষায় অকৃতকার্য হয়েছেন ৯০.১৩ শতাংশ। ১ হাজার ৭৮৮টি আসনের বিপরীতে পরীক্ষায় অংশ নেন ৫৬ হাজার ৯৭২ জন।

সোমবার (২৭ জুন) দুপুর ১টায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান প্রশাসনিক ভবনের অধ্যাপক আব্দুল মতিন ভার্চুয়াল ক্লাসরুমে আনুষ্ঠানিকভাবে ভর্তি পরীক্ষার ফলাফল ঘোষণা করেন।

যেভাবে ফল জানা যাবে

ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষায় অবতীর্ণ শিক্ষার্থীরা তাদের উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষার রোল নম্বর, বোর্ডের নাম, পাসের সন এবং মাধ্যমিক পরীক্ষার রোল নম্বর এর মাধ্যমে https://admission.eis.du.ac.bd ওয়েবসাইট থেকে পরীক্ষার ফল জানতে

পারবেন।

এছাড়া রবি, এয়ারটেল, বাংলালিংক অথবা টেলিটক নম্বর থেকে DU KHA <roll no> টাইপ করে ১৬৩২১ নম্বরে প্রেরণ করে ফিরতি SMS-এ শিক্ষার্থী তার ফলাফল জানতে পারবেন।

উত্তীর্ণ শিক্ষার্থীদের জন্য গুরুত্বপূর্ণ তারিখসমূহ

(ক) পাসকৃত শিক্ষার্থীদের আগামী ৪ জুলাই বিকেল ৩টা থেকে ২১ জুলাই বিকেল ৩টা পর্যন্ত ভর্তি পরীক্ষার ওয়েবসাইটে বিস্তারিত ফরম ও বিষয়ের পছন্দক্রম ফরম পূরণ করতে হবে।

(খ) ভর্তি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ বিভিন্ন কোটায় আবেদনকারীদের ১৭ জুলাই থেকে ২৪ জুলাই তারিখের মধ্যে সংশ্লিষ্ট কোটার ফরম কলা অনুষদের ডিন অফিস থেকে সংগ্রহ করতে হবে এবং যথাযথভাবে পূরণ করে উক্ত সময়ের মধ্যে ডিন অফিসে জমা দিতে হবে।

(গ) ফলাফল নিরীক্ষণের জন্য নির্ধারিত ফি প্রদান সাপেক্ষে আগামী ২৯ জুন থেকে ৬ জুলাই পর্যন্ত কলা অনুষদের ডিন অফিসে আবেদন করা যাবে।

ভর্তি সংক্রান্ত গুরুত্বপূর্ণ তথ্য ভর্তি পরীক্ষার ওয়েবসাইটে খ-ইউনিট এর নোটিশে পাওয়া যাবে। গত ৪ জুন এই ইউনিটের পরীক্ষা ঢাকাসহ দেশের আটটি বিভাগীয় শহরে অনুষ্ঠিত হয়।


আরও খবর