আজঃ শুক্রবার ০১ মার্চ ২০২৪
শিরোনাম

কিশোরীকে জুতাপেটা করলেন প্রেমিকের মা-ভাই, লজ্জায় আত্মহত্যা!

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০১ সেপ্টেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ০১ সেপ্টেম্বর ২০২২ | অনলাইন সংস্করণ
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

শরীয়তপুরে প্রেমিকের মা ও বড়ভাইয়ের করা অপমান সহ্য করতে না পেরে শরীয়তপুরে এক স্কুলছাত্রী (১৫) আত্মহত্যা করেছে। তার নাম সুরুভী আক্তার।

বৃহস্পতিবার (১ আগস্ট) দুপুরে সদর উপজেলার রুদ্রকর ইউনিয়নের লক্ষ্মীপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটেছে। সুরুভী স্থানীয় সুবচনী উচ্চ বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণি ছিল। সে লক্ষ্মীপুর গ্রামের জাহাঙ্গীর ওঝার মেয়ে।

স্থানীয় সূত্র ও সুরভীর মা ডলি বেগম জানান, সুরুভী আক্তারের সঙ্গে সোনামুখী গ্রামের মৃত মজিদ তালুকদারের ছেলে ও একই স্কুলের দশম শ্রেণীর ছাত্র আল-আমিনের  প্রেমের সম্পর্ক ছিল। সম্প্রতি বিষয়টি আল-আমিনের পরিবার জানলে তাকে ঢাকায় পাঠিয়ে দেয়। তবে সুরুভীর পরিবার বিষয়টি জানতো না।

বৃহম্পতিবার সকালে আল-আমিনের মা পারভিন বেগম ও বড়ভাই সেনাবাহিনীর সদস্য পারভেজ তালুকদার স্কুলে গিয়ে সুরভীকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ ও জুতাপেটা করে। পরে অসুস্থতার কথা বলে ছুটি চাইলে সুরভীকে স্কুলের দপ্তরি বাড়ি পৌঁছে দেন। এরপর সুরভী গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করে। খবর পেয়ে পুলিশ বিকেলে ঘটনাস্থলে পৌঁছে তার মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য শরীয়তপুর সদর হাসপাতালে পাঠায়। এ ঘটনার পর আল-আমিনের বাড়ির সবাই পলাতক রয়েছেন।

সুরভীর মা ডলি বেগম বলেন, আল-আমিনের মা পারভীন আমার মেয়েকে জুতা পেটা করেছে। ওর বড় ভাই পারভেজ তালুকদার অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করেছে। আমার মেয়ে সেই অপমান সহ্য করতে না পেরে মনের কষ্টে আত্মহত্যা করেছে। আমি এর বিচার চাই।

এ ব্যাপারে সুবচনী উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক নাসির উদ্দিন বলেন, ওই ছাত্রী শরীর অসুস্থ বলায় আমি দপ্তরিকে দিয়ে তাকে বাড়ি পাঠিয়ে দিয়েছি। পরে তার মৃত্যুর খবর পাই, বিষয়টি দুঃখজনক।

আর পালং থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আক্তার হোসেন বলেন, পুলিশ মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য শরীয়তপুর সদর হাসপাতালে পাঠিয়েছে। এ ঘটনা মামলার প্রস্তুতি চলছে। অভিযুক্তদের গ্রেপ্তারের অভিযান চলছে।

নিউজ ট্যাগ: আত্মহত্যা

আরও খবর
৯ ছাত্রীর চুল কাটার ঘটনায় শিক্ষিকা বরখাস্ত

বৃহস্পতিবার ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




বিটিএস সদস্যকে বিয়ে করতে ঘরছাড়া ৩ কিশোরী উদ্ধার

প্রকাশিত:শুক্রবার ০৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

দক্ষিণ কোরিয়ার ব্যান্ড বিটিএসের টানে ঘর ছাড়া রাজধানীর মেরাদিয়ার তিন কিশোরীকে উদ্ধার করেছে পুলিশ।

বৃহস্পতিবার (৮ ফেব্রুয়ারি) রাত পৌনে ১০টায় তাদেরকে টঙ্গী পশ্চিম থানা এলাকা থেকে উদ্ধার করে পুলিশ। দক্ষিণ কোরিয়ার জনপ্রিয় ব্যান্ডদল বিটিএসের ভক্ত এই তিন কিশোরী। এই ব্যান্ডদলের টানেই ২৯ জানুয়ারি ঘর ছেড়ে পালিয়ে যায় তারা।

কিশোরীরা হলেন ষষ্ঠ শ্রেণির ছাত্রী রিজওয়ানা রিজু (১৪), জান্নাতুল আক্তার বর্ষা ও রুবিনা আক্তার মিম। ২৯ জানুয়ারি দুপুরে তারা পালিয়ে যাওয়ার পর খিলগাঁও থানায় সাধারণ ডায়েরি করে তিন কিশোরীর পরিবার। ওই কিশোরীদের মধ্যে একজন একটি চিঠি লিখে যায়। চিঠিতে সে জানায়, মা-বাবার অবহেলায় বিটিএসের সদস্য জাংকুককে বিয়ে করতে বদ্ধপরিকর সে।

জানা গেছে, কিশোরী তিনজনই বাবা-মায়ের একমাত্র সন্তান। রাজধানীর মেরাদিয়ায় থাকতেন তারা। সাধারণ ডায়েরির পর তদন্তে নেমে পুলিশ সিসিটিভি ফুটেজ বিশ্লেষণের পাশাপাশি বিভিন্ন থানায় নিখোঁজের এই তথ্য ছড়িয়ে দেয়।

এদিকে পালিয়ে যাওয়ার পর গাজীপুরের টঙ্গীতে একটি ঘর ভাড়া নিয়ে থাকছিলেন তারা। বৃহস্পতিবার বিকেলে গাজীপুরের টঙ্গীর এক বাড়িমালিক কিশোরীদের খোঁজ দেন। ওই বাড়ির মালিক বলেন, টিভিতে তাদের নিখোঁজের খবর দেখে পুলিশকে জানান তিনি। পরে পুলিশ গিয়ে তাদের উদ্ধারের পর বিষয়টি নিশ্চিত হয়।

ডিএমপির মতিঝিল বিভাগের ডিসি হায়াতুল ইসলাম খান বলেন, টেলিভিশনের একটি কনসার্টের মাধ্যমে তারা বিটিএসের গান দেখে। এরপর থেকেই তারা এই ব্যান্ডদলের প্রতি আকৃষ্ট হয়। এক সময় ওই তিন কিশোরী চিন্তা করতে শুরু করে তারা ব্যান্ডদলের সঙ্গে যোগাযোগ করবে। তারা খুব সরল ও সহজ চিন্তাভাবনা নিয়েই বাড়ি থেকে বের হয়ে যায়।

পুলিশ জানায়, মেরাদিয়া থেকে টঙ্গীর আউচপাড়ায় বাসাভাড়া নিয়ে বসবাস শুরু করে তিন কিশোরী। কেনে প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র। বিটিএসের মতো করে নিজেদের তৈরি করতে তারা ভর্তি হন জিমনেসিয়ামে। এছাড়া গার্মেন্টসে চাকরি করে কোরিয়া যাওয়ার প্রয়োজনীয় টাকা সঞ্চয়ের চিন্তা ছিল তাদের। এছাড়া তাদের কাছ থেকে বিটিএস সাদৃশ্য বিভিন্ন সরঞ্জাম উদ্ধার করা হয়েছে।


আরও খবর
বেইলি রোডে আগুনে নিহত বেড়ে ৪৫

শুক্রবার ০১ মার্চ ২০২৪




সৌদি আরবে এক দিনে সাতজনের শিরশ্ছেদ

প্রকাশিত:বুধবার ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
আন্তর্জাতিক ডেস্ক

Image

এক দিনে সাতজনের মৃত্যুদণ্ড দিয়েছে সৌদি আরব। গতকাল মঙ্গলবার (২৭ ফেব্রুয়ারি) তাদের মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা হয়েছে। এএফপির বরাতে ডয়েচে ভেলের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

দেশটির রাষ্ট্রীয় সংবাদমাধ্যম জানিয়েছে, সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডে জড়িত থাকার অভিযোগে তাদের মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা হয়েছে। ২০২২ সালে এক দিনে সর্বোচ্চ ৮১ জনের মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা হয়েছিল। এরপর এক দিনে সাতজন সর্বোচ্চ সংখ্যক মৃত্যুদণ্ড কার্যকরের ঘটনা এটি।

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের বরাতে সৌদি প্রেস এজেন্সি জানিয়েছে, মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা ওই সাতজনের বিরুদ্ধে সন্ত্রাসী সংগঠন তৈরি ও এগুলোকে অর্থায়নের অভিযোগ করা হয়েছে।

এএফপির তথ্যমতে, মৃত্যুদণ্ড কার্যকরের দিক দিয়ে বিশ্বের অন্যতম শীর্ষ দেশ সৌদি আরব। দেশটিতে চলতি বছরে এখন পর্যন্ত ২৯ জনের মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা হয়েছে। এছাড়া ২০২৩ সালে ১৭০ জনের মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করেছিল দেশটি। প্রায় দুই বছর আগে এক দিনে ৮১ জনের মৃত্যুদণ্ড কার্যকরের পর ব্যাপক সমালোচনার মুখে পড়ে দেশটি। সৌদিতে শিরশ্ছেদের মাধ্যমে মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা হয়ে থাকে।

মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা এসব ব্যক্তির জাতীয়তা প্রকাশ করা হয়নি। দবে তাদের নাম ও পদবি থেকে ধারণা করা হচ্ছে যে, তারা সৌদি আরবের নাগরিক।

সৌদি প্রেস এজেন্সির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, রক্তপাতে উদ্ধুদ্ধকারী সন্ত্রাসী ধারণা লালন, সন্ত্রাসী প্রতিষ্ঠান গড়ে তোলা ও অর্থায়ন, সমাজের স্থিতিশীলতা ও নিরাপত্তা ব্যাহতের লক্ষ্যে এসবের সঙ্গে যুক্ত থাকা ও সহায়তা এবং জাতীয় নিরাপত্তা হুমকির মুখে ফেলানোর দায়ে তাদের দোষী সাব্যস্ত করা হয়েছে। তবে অভিযোগের বিস্তারিত কিছু প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়নি।

দেশটিতে গত বছরের ডিসেম্বরে এক মাসেই কেবল ৩৮ জনের মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা হয়েছিল। তাদের মধ্যে ৩৩ জনের বিরুদ্ধেই সন্ত্রাসবাদ সংশ্লিষ্ট অপরাধে জড়িত থাকার অভিযোগ করা হয়েছিল। এছাড়া রাষ্ট্রদ্রোহের অভিযোগে দুই সেনারও মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা হয়েছিল।


আরও খবর



মডেল মৌকে আত্মসমর্পণের নির্দেশ

প্রকাশিত:বুধবার ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
আদালত প্রতিবেদক

Image

মাদক ও ব্ল্যাকমেইলিংয়ের মামলায় মডেল মরিয়ম আক্তার মৌকে আত্মসমর্পণের নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। বুধবার (২৮ ফেব্রুয়ারি) এ আদেশ দেন হাইকোর্ট। আসামিকে নিম্ন আদালতে আত্মসমর্পণ করতে বলা হয়েছে।

এর আগে, ২০২১ সালের ১ আগস্ট রাতে মিরপুর রোড সংলগ্ন ২২/৯ বাবর রোডে নিজ বাসা থেকে মডেল মরিয়ম আক্তার মৌকে আটক করে ডিবি পুলিশ। এ সময় তার বাসার ভেতরের বেডরুমের একটি ড্রয়ার থেকে পাঁচ প্যাকেট ইয়াবা উদ্ধার করা হয়। এ ছাড়া তার বেড রুমের ভেতরে আরেকটি ড্রেসিং রুম থেকে অন্তত এক ডজন বিদেশি মদ উদ্ধার করা হয়। মৌ তার বাসাটিকে মদের বার হিসেবেই ব্যবহার করতেন বলে সেসময় পুলিশ জানিয়েছিল। আটকের পর রাজধানীর মোহাম্মদপুর থানায় তার বিরুদ্ধে মাদক মামলা করা হয়।

ওই সময় পুলিশ আরও জানিয়েছিল, মৌ মডেলিংয়ের নামে উচ্চবিত্ত পরিবারের সন্তানদের সঙ্গে সম্পর্ক গড়ে তুলতেন। এরপর পার্টি করার নাম করে তাদের বাসায় ডেকে নিতেন। সেখানে মদ-ইয়াবাসহ বিভিন্ন ধরনের মাদক খাইয়ে আপত্তিকর ছবি তুলতেন। পরে সেগুলো দেখিয়ে ব্ল্যাকমেইল করে টাকা বা নানান সুবিধা আদায় করতেন। এ ছাড়া ধনাঢ্যদের ফাঁদে ফেলে বিয়ে করে বিপুল পরিমাণ সম্পদ হাতিয়ে নেওয়া ছিল তার কাজ।

এ পর্যন্ত মৌ মোট ১১টি বিয়ে করেছেন বলে জানায় ডিবির তদন্তসংশ্লিষ্ট সূত্র। মডেলিং পেশার আড়ালে ব্ল্যাকমেইলিং করে তিনি কোটি কোটি টাকা হাতিয়ে নিতেন বলে অভিযোগ পেয়েছেন তদন্তসংশ্লিষ্টরা। তার দৃশ্যমান কোনো আয়ের উৎস না থাকলেও মোহাম্মদপুরে পাঁচতলা আলিশান বাড়ি, নেক্সাস, পাজেরো ও টয়োটা ব্র্যান্ডের তিনটি দামি গাড়িও রয়েছে বলে গোয়েন্দাদের অনুসন্ধানে উঠে এসেছে।


আরও খবর
জজ কোর্ট চত্বরে ককটেল বিস্ফোরণ

বৃহস্পতিবার ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




১৪ ফেব্রুয়ারি থেকে রাজধানীতে চার দিনব্যাপী পার্বত্য মেলা

প্রকাশিত:সোমবার ১২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ১২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
প্রেস বিজ্ঞপ্তি

Image

পার্বত্য চট্টগ্রামের মানুষের জীবন-কৃষ্টি, সংস্কৃতি, পোশাক-পরিচ্ছদ, ইতিহাস-ঐতিহ্য বিষয়ক তথ্যাদি সমতলের মানুষের মাঝে পরিচয় করিয়ে দেয়া এবং পার্বত্য চট্টগ্রামের ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর  উৎপাদিত পণ্যসামগ্রী প্রচার ও বিপণনের জন্য পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের উদ্যোগে রাজধানীর বেইলি রোডস্থ শেখ হাসিনা পার্বত্য চট্টগ্রাম ঐতিহ্য সংরক্ষণ ও গবেষণা কেন্দ্রে আগামি ১৪-১৭ ফেব্রুয়ারি চারদিনব্যাপী পার্বত্য মেলার বিশেষ আয়োজন করা হয়েছে।

মেলা প্রতিদিন সকাল ৯টা থেকে রাত ১০টা পর্যন্ত সবার জন্য উন্মুক্ত থাকবে। প্রতি সন্ধ্যা ৬ টা থেকে রাত ১০ টা পর্যন্ত পার্বত্য বিশেষ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানেরও আয়োজন রয়েছে।

১৪ ফেব্রুয়ারি প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে মেলার উদ্বোধন করবেন পার্বত্য চট্টগ্রাম চুক্তি বাস্তবায়ন ও পরিবীক্ষণ কমিটির আহ্বায়ক (মন্ত্রী পদমর্যাদা) আবুল হাসানাত আবদুল্লাহ, এমপি। আগামি ১৭ ফেব্রুয়ারি বেলা ৩ টায় পার্বত্য মেলার সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন গৃহায়ণ ও গর্ণপূর্ত মন্ত্রী জনাব র আ ম উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরী, এমপি। উদ্বোধনী ও সমাপনী অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করবেন পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা এমপি।

পার্বত্য তিন জেলার ২৭৫ জন শিল্পীর ঐতিহ্যবাহী পরিবেশনায় প্রতিদিন বিকাল ৬ টা থেকে রাত ১০ টা পর্যন্ত সাংস্কৃতিক সন্ধ্যার আয়োজন করা হয়েছে। চারদিনব্যাপী এ পার্বত্য মেলায় ৯৭টি স্টল বরাদ্দ থাকবে। মেলার স্টলে তিন পার্বত্য জেলায় উৎপাদিত কৃষি পণ্য সামগ্রী, হস্তশিল্প, ঐতিহ্যবাহী কোমর তাঁতে বোনা পণ্য, ঐতিহ্যবাহী পার্বত্য খাবার দ্রব্য প্রদর্শন ও বিক্রয় করা হবে। সাংস্কৃতিক সন্ধ্যায় অংশ নেবেন।

নিউজ ট্যাগ: পার্বত্য মেলা

আরও খবর



বইমেলায় এবার ডা. সাবরিনাকে দুয়োধ্বনি

প্রকাশিত:রবিবার ১১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:রবিবার ১১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

কয়েক দিন আগে আলোচিত-সমালোচিত মুশতাক আহমেদ ও তার স্ত্রী তিশাকে দুয়োধ্বনি দিয়ে বইমেলা প্রাঙ্গণ থেকে বের হয়ে যেতে বাধ্য করেন মেলায় আসা শতাধিক দর্শনার্থী। এবার আরেক আলোচিত ডা. সাবরিনা হুসেন মিষ্টিকেও ভুয়া ভুয়া বলে দুয়োধ্বনি দিলেন দর্শনার্থীরা।

সামজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভাইরাল হওয়া একটি ভিডিওতে দেখা যায় ডা. সাবরিনা বইয়ের স্টলে অনেকটাই মন খারাপ করে বসে আছেন। আর তার চারপাশে ক্রেতা-দর্শনার্থীরা ভুয়া ভুয়া বলে চিৎকার করছেন।

এ সময় দর্শকদের বলতে শোনা যায়, এই সেই সাবরিনা যে করোনার সময় জনগণকে ঠকিয়েছে। তার বই কেউ কিনছে না। দেখতে একটু সুন্দর তাই সবাই দেখতে ভিড় করছে।

তিন বছর বন্দিনী জীবনের কথা নিয়ে বই লিখেছেন আলোচিত-সমালোচিত এই ডাক্তার। এরই সুবাদে বইমেলায় দেখা যায় তাকে। করোনাকালে ডা. সাবরিনা নেতিবাচক কর্মকাণ্ডের জন্য টক অব দ্য কান্ট্রি ছিলেন।

গত শুক্রবার (০৯ ফেব্রুয়ারি) বইমেলার নবম দিনে তিশার ভালোবাসা বইয়ের লেখক মুশতাক আহমেদকে ও তার স্ত্রী তিশাকে ভুয়া ভুয়া ছি ছি দুয়োধ্বনি দিয়ে বইমেলা প্রাঙ্গণ থেকে বের হয়ে যেতে বাধ্য করেন মেলায় আসা শতাধিক দর্শনার্থী। এ সময় আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা তাদেরকে নিরাপত্তা বেষ্টনী দিয়ে ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউটের গেট দিয়ে মেলা প্রাঙ্গণ থেকে বের হয়ে যেতে সাহায্য করেন।

প্রসঙ্গত, করোনাভাইরাসের নমুনা পরীক্ষা না করেই জাল রিপোর্ট দেওয়ার অভিযোগে করা মামলায় জেকেজি হেলথ কেয়ারের চেয়ারম্যান ডা. সাবরিনা চৌধুরীকে রিমান্ড শেষে কারাগারে পাঠানো হয়েছিল। সেই মামলায় তিনি তিন বছর কারাগারে ছিলেন।


আরও খবর