আজঃ শুক্রবার ০১ মার্চ ২০২৪
শিরোনাম

প্রেমিকের হাতে রক্তাক্ত, বাড়ি ফিরে ‘আত্মহত্যা’ কলেজছাত্রীর!

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৭ জানুয়ারী ২০২৩ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৭ জানুয়ারী ২০২৩ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

পাবনার বেড়ায় সুস্মিতা খাতুন (১৮) নামের এক কলেজছাত্রীর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। মঙ্গলবার (১৭ জানুয়ারি) দুপুর ২টার দিকের বেড়া পৌর এলাকার মৈত্রবাঁধা মহল্লার নিজ বাড়ি থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

এর আগে একইদিন সকালে সুস্মিতাকে বেধড়ক মারধর করার অভিযোগ উঠেছে তার প্রেমিক আশিক হোসেনের বিরুদ্ধে। মারধরের পরই রক্তাক্ত অবস্থায় বাড়ি ফিরে সুস্মিতা আত্মহত্যা করেছেন বলে অভিযোগ করেছেন তার সহপাঠী ও পরিবারের লোকজন।

নিহত সুস্মিতা মৈত্রবাঁধা এলাকার চা-দোকানি জাইদুল হোসেনের মেয়ে এবং বেড়া সরকারি কলেজের ব্যবসায় শিক্ষা বিভাগের দ্বাদশ শ্রেণির ছাত্রী। আর অভিযুক্ত আশিক হোসেন (২০) সাঁথিয়া উপজেলার সোনাতলা গ্রামের বাসিন্দা।

নিহতের পরিবার সূত্রে জানা গেছে, আশিকের সঙ্গে সুস্মিতার প্রেমের সম্পর্ক ছিল। কিছুদিন ধরে তাদের মধ্যে মনোমালিন্য চলছিল। আজকে কলেজ যাওয়ার পথে সুস্মিতাকে জোর করে রিকশায় তুলে অন্যত্র নিয়ে যায় আশিক। পরে রক্তাক্ত অবস্থায় কলেজের সামনে সুস্মিতাকে নিয়ে আসেন। এসময় সহপাঠীরা তাকে বাড়িতে পৌঁছে দেন। বাড়ি পৌঁছানোর পরপরই ঘরের দরজা বন্ধ করে দেন সুস্মিতা। পরে অনেকক্ষণ তার সাড়াশব্দ না পাওয়ায় পরিবারের লোকজন দরজা ভেঙে তার মরদেহ উদ্ধার করে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক সুস্মিতার একাধিক সহপাঠী জানান, সুস্মিতা কিছুদিন ধরে আশিককে এড়িয়ে চলার চেষ্টা করছিল। নানা সময়ে আশিককে নিয়ে ভয়ের মধ্যে থাকত সুস্মিতা। আজ সুস্মিতাকে রক্তাক্ত অবস্থায় যখন কলেজের সামনে আশিক নামিয়ে দিয়ে যায়, তখন সুস্মিতা জানিয়েছিল যে- আশিক তাকে বেধড়ক মারধর করেছে।

বিষয়টি নিশ্চিত করে বেড়া মডেল থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আসাদুজ্জামান বলেন, মরদেহ উদ্ধার করে পাবনা জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। তবে এখন পর্যন্ত কেউ লিখিত অভিযোগ দেয়নি। ময়নাতদন্তের পর আত্মহত্যার প্রকৃত কারণ জানা যাবে।


আরও খবর
৯ ছাত্রীর চুল কাটার ঘটনায় শিক্ষিকা বরখাস্ত

বৃহস্পতিবার ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




আজ টেডি ডে : যে কারণে এই দিন পালন করা হয়

প্রকাশিত:শনিবার ১০ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ১০ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
জীবন ধারা ডেস্ক

Image

ভ্যালেনটাইনস ডে আসতে এখনও কয়েক দিন বাকি। চলছে ভ্যালেন্টাইনস উইক, অর্থাৎ প্রেমের সপ্তাহ। এই বিশেষ সপ্তাহের চতুর্থ দিন টেডি ডে। আর এই বিশেষ দিনে প্রিয়জনকে টেডি উপহার দেওয়ার রীতি আছে।

একেই ভালবাসার সপ্তাহ। তার উপর একেকদিন পালন করা হয় একেকটি বিশেষ আবহ। টেডি ডেও তেমনই এক বিশেষ আবহ। তবে এই দিবস কেন পালিত হয়, তা কি জানেন?

ভালোবাসার প্রকাশ নানাভাবেই হয়। ভালোবাসার পাশাপাশি প্রেম, আদর ও যত্নের প্রতীক হয়ে থাকে টেডি। তবে টেডি উপহার হিসেবে কেন এত বিখ্যাত? কবে থেকেই বা টেডি দেওয়ার রীতি শুরু হলো?

টেডি ডের ইতিহাস : টেডি ডের সঙ্গে অনেকটাই জড়িয়ে আছে টেডির গল্প। টেডি উপহার হিসেবে খুব বেশি দিন বিখ্যাত হয়নি। গত শতক থেকে এটি উপহার হিসেবে জনপ্রিয় হয়। কিন্তু তার পেছনে আছে এক গল্প। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট সেই গল্পের নায়ক।

বিভিন্ন সূত্র থেকে প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী, বিশ শতকের গোড়ার দিকে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে প্রেসিডেন্ট থিওডোর রুজভেল্ট একবার শিকারে যান। শিকারের সময় একটি ভাল্লুককে দেখে তার মত বদলে ফেলেন।

ভাল্লুকটিকে ছেড়ে দেন মার্কিন রাষ্ট্রপতি। থিওডোরের এই ঘটনার কথা সঙ্গে সঙ্গে রটে যায়। তার এই মানবিক গুণ কার্টুনে ফুটিয়ে তোলেন ক্লিফোর্ড বেরিম্যান। কার্টুনে দেখা যায় একটা মিষ্টি ভাল্লুককে। কার্টুনটি জনপ্রিয় হয়েছিল। একই সঙ্গে সেই ভাল্লুকটিই জনপ্রিয় হয়ে যায়। এর পর মরিস মিকটোম ওই কার্টুন ভাল্লুকের আকারে একটী খেলনা পুতুল তৈরি করেন। যেটি টেডি হিসেবে জনপ্রিয় হয়ে ওঠে।

জনপ্রিয় উপহার হিসেবে টেডির চল : শুরু থেকেই টেডি জনপ্রিয় হয়ে গিয়েছিল। শুরুতে মার্কিন প্রেসিডেন্ট এর সঙ্গে জড়িত থাকায় সহজে জনপ্রিয়তা পায় ভাল্লুক। এর পর বিভিন্ন অনুষ্ঠানে টেডি জনপ্রিয় উপহার হয়ে ওঠে।

টেডির চেহারার মধ্যে আছে এক নিষ্পাপ আদুরে ভাব। যে কারণে ব্যক্তিগত সম্পর্কে জায়গা করে নিল উপহার। কিশোরী, তরুণীদের মধ্যে টেডি প্রেম অচিরে বাড়তে থাকে। আর সেই থেকে প্রেমের একটি মিষ্টি উপহার টেডি। টেডি ডের সেই উপহারের জন্য বরাদ্দ একটি দিন। এদিন চাইলে সঙ্গী রং-বেরঙের টেডি উপহার দিতে পারেন।


আরও খবর
২৯ ফেব্রুয়ারি: ইতিহাসের এই দিনে

বৃহস্পতিবার ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

আজকের রাশিফল: বৃহস্পতিবার ২৯ ফেব্রুয়ারি ২০২৪

বৃহস্পতিবার ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




২৩ বাংলাদেশিকে ভারতীয় পুলিশের কাছে সোপর্দ বিএসএফের

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ০৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

ফেনীর ছাগলনাইয়ার সীমান্তবর্তী এলাকা থেকে আটক ২৩ বাংলাদেশিকে ভারতীয় পুলিশের কাছে হস্তান্তর করেছে দেশটির সীমান্তরক্ষী বাহিনী (বিএসএফ)। আজ বুধবার সন্ধ্যায় ফেনীর -৪ বর্ডার গার্ড বাংলাদেশের (বিজিবি) অধিনায়ক শেখ মোহাম্মদ বদরুদ্দোজা বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, ২৩ বাংলাদেশিকে আটকের বিষয়টি প্রথমে স্বীকার করেনি বিএসএফ। আজ তারা স্বীকার করে জানিয়েছে, চোরাকারবারি হিসেবে তাদের ভারতের মনুবাজার থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে। ফলে পতাকা বৈঠক করার কোনো সুযোগ নেই। আদালতের মাধ্যমে তাদের ব্যাপারে সিদ্ধান্ত হবে।

স্থানীয়রা জানায়, গত সোমবার রাত ২ টায় পূর্ব ছাগলনাইয়া এলাকার এক বাংলাদেশিকে বিএসএফ ধরে নিয়ে গেছে বলে গুঞ্জন শুনে স্থানীয়রা খবর নিতে সীমান্তের ৯৯ নম্বর পিলার সংলগ্ন কাঁটাতারের কাছাকাছি যায়। তখন বিএসএফ পুনরায় বাংলাদেশিদের ধাওয়া শুরু করে। একপর্যায়ে তারা সেখান থেকে ২৩ বাংলাদেশিকে ধরে নিয়ে যায়।

আটকরা হলেন, পূর্ব ছাগলনাইয়া গ্রামের সাইমুম হোসেন (১৯), রাইসুল ইসলাম (১৯), সামিন (৪০), হারুন (২৩), লিটন (৩০), মাঈন উদ্দিন (২০), রাধানগর এলাকার মহসিন (২৫), কাজী রিপন (৪০), তাজুল ইসলাম সাকিল (২২), হানিফ (৩৫), আবুল হাসান (৩০), ইমরান (২২), রুবেল (২৮), জাফর ইমাম মজুমদার (৪০), মো. ওবায়দুল হক (৪৪), জামাল উদ্দিন (৪০), আরিফ হোসেন (২৪), করিম (২০), ছাগলনাইয়া এলাকার মটুয়া এলাকার খোরশেদ (৩৮), আজাদ হোসেন (২৫), মাহিম (২৫), হারুন (৩২), ইমাম হোসেন (২২)।


আরও খবর



৪৬তম বিসিএসের প্রিলিমিনারি হতে পারে ঈদের পর

প্রকাশিত:শনিবার ১০ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ১০ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

৪৬তম বিসিএসের প্রিলিমিনারি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে ৯ মার্চ। সরকারি কর্ম কমিশনের (পিএসসি) ঘোষণা অনুযায়ী এদিন ঢাকাসহ ৮ বিভাগীয় শহরে এ পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা।

একই দিন ময়মনসিংহ ও কুমিল্লা সিটি করপোরেশনের নির্বাচন তারিখ ঘোষণা করায় পরীক্ষা নিয়ে অনিশ্চয়তা পড়েছেন প্রার্থীরা। পরীক্ষা পেছাবে কি না, তা নিয়ে পিএসসি এখনো আনুষ্ঠানিক ঘোষণা না দেওয়ায় বিপাকে পড়েছেন সোয়া তিন লাখেরও বেশি প্রার্থী।

পিএসসি সূত্র বলছে, ৪৬তম বিসিএসের প্রিলিমিনারি পরীক্ষা নিয়ে এখনো কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি। ঈদের আগে এ পরীক্ষা নেওয়া সম্ভব নয়। পূর্ণ কমিশন সভায় পিএসসির সদস্যরা চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেবেন।

পিএসসির পরীক্ষা শাখার (ক্যাডার) দুজন কর্মকর্তার সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, ৪৬তম বিসিএসের প্রিলিমিনারি নিয়ে এখনো কোনো আলোচনা হয়নি। সিটি নির্বাচনের দিনে পরীক্ষা নেওয়াটাও সম্ভব নয়। এসএসসি পরীক্ষার কারণে বিসিএস পরীক্ষা এগিয়ে আনারও সুযোগ নেই।

দুই কর্মকর্তার একজন নাম-পরিচয় প্রকাশ না করে বলেন, ঈদুল ফিতরের আগে প্রিলিমিনারি পরীক্ষা হওয়ার কোনো সম্ভাবনা দেখছি না। রোজার মধ্যে বিসিএস পরীক্ষা নেওয়ার নজির নেই।

আরেকজনের ভাষ্য, নির্বাচনের দিনে তো আর পরীক্ষা হয় না। ৯ মার্চও পরীক্ষা হচ্ছে না, এটা নিশ্চিত। এরপর রোজা শুরু। তারপর ঈদ। ঈদের ছুটি শেষে প্রথম অথবা দ্বিতীয় শুক্রবার প্রিলিমিনারি পরীক্ষা হতে পারে।

এ নিয়ে জানতে পিএসসি চেয়ারম্যান মো. সোহরাব হোসাইনের সঙ্গে মোবাইল ফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করেও তাকে পাওয়া যায়নি। কয়েক দফা তাকে কল করা হলেও রিসিভ করেননি।

গত ৩০ নভেম্বর ৪৬তম বিসিএসের বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে সরকারি কর্ম কমিশন (পিএসসি)। এ বিসিএসে আবেদন চলে ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত। ১০ ডিসেম্বর থেকে শুরু হয় আবেদন, যা চলে ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত। এ বিসিএসে আবেদন জমা পড়েছে ৩ লাখ ৩৮ হাজারেরও কিছু বেশি।

পিএসসির বিজ্ঞপ্তির তথ্যানুযায়ী৪৬তম বিসিএসে বিভিন্ন ক্যাডারে শূন্য পদের সংখ্যা ৩ হাজার ১৪০টি। এর মধ্যে সবচেয়ে বেশি নেওয়া হবে স্বাস্থ্য ক্যাডারে। এছাড়া শিক্ষা ক্যাডারে বিভিন্ন বিষয়ে ৫২০ জনকে নিয়োগ দেওয়া হবে।


আরও খবর



পাঁচ বছরে সরকারি চাকরি পেয়েছেন কতজন, জানালেন জনপ্রশাসনমন্ত্রী

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

আওয়ামী লীগ সরকারের গত মেয়াদে সরকারি প্রতিষ্ঠানে ৩ লাখ ৫৮ হাজার ২৩৭ পদে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন জনপ্রশাসনমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন।

আজ বৃহস্পতিবার জাতীয় সংসদে স্বতন্ত্র সংসদ সদস্য সোহরাব উদ্দিনের প্রশ্নের জবাবে তিনি এ তথ্য জানান। অধিবেশনে সভাপতিত্ব করেন স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরী।

জনপ্রশাসন মন্ত্রী বলেন, ২০১৯-২০২৩ সাল মেয়াদে সব সরকারি প্রতিষ্ঠানে ৩ লাখ ৫৮ হাজার ২৩৭টি পদে নিয়োগ প্রদান করা হয়েছে। গত ৫ বছরে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের অধীনে ২০ হাজার ২৬৪ জনকে নিয়োগ প্রদান করা হয়েছে। এ মন্ত্রণালয়ের অধীনে সর্বোচ্চ চট্টগ্রাম থেকে ১ হাজার ৩৪১ জন, দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ঢাকায় ১ হাজার ২৩৫ জনকে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে।

ফরহাদ হোসেন বলেন, সর্বনিম্ন বান্দরবান থেকে ৩৪ জন, দ্বিতীয় সর্বনিম্ন মেহেরপুর থেকে ৬৭ জনকে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে।

উল্লেখ্য, জনপ্রশাসনে দ্বিতীয় সর্বনিম্ন নিয়োগ দেওয়া মেহেরপুর মন্ত্রীর নিজ জেলা।


আরও খবর



সরকার গঠনে ইমরানের দলের সামনে যেসব বাধা

প্রকাশিত:শনিবার ১০ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ১০ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
আন্তর্জাতিক ডেস্ক

Image

পাকিস্তানের নির্বাচন কমিশন ঘোষিত ২৫০ আসনের প্রাথমিক ফলাফলে ইমরান খানের দল পিটিআইয়ের সমর্থিত স্বতন্ত্র প্রার্থীরাই বেশি আসনে জয়ী হয়েছেন। আসন সংখ্যায় দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে সাবেক প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফের দল পিএমএল-এন। তৃতীয় স্থানে বিলাওয়াল ভুট্টো জারদারির পিপিপি। এ অবস্থায় ইমরানের দলের সরকার গঠন করতে হলে জোটের পথেই হাঁটতে হবে। পিএমএল-এন নেতা নওয়াজ শরিফ বিজয়ী ভাষণে জোট গঠনের অভিপ্রায় ব্যক্ত করেছেন। কিন্তু পিটিআই এখনও জোট সম্পর্কিত কিছু জানায়নি।

শুক্রবার লাহোর শহরে নওয়াজ শরিফের দলের কার্যালয়ের বাইরে সমর্থকদের উদ্দেশে এক বক্তৃতায় নওয়াজ শরীফ স্বীকার করেছেন যে তার দল পিএমএল-এন এককভাবে সরকার গঠনে প্রয়োজনীয় আসনে জয়ী হতে পারেনি। তিনি অন্য প্রার্থীদের তার সাথে জোটে যোগ দেওয়ার আহ্বান জানান।

পিএমএল-এন ও পিপিপি জোটের প্রতি আগ্রহী হলেও সবার নজর পিটিআই কী সিদ্ধান্ত নেয় সেদিকে। ইমরান খানের যে বক্তব্য প্রচারিত হয়েছে, সেখানে তিনি ভোটারদের অভিবাদন জানিয়েছেন এবং গত দুই বছরের রাজনৈতিক অত্যাচার-নিপীড়নের কথাও বলেছেন। কিন্তু সরকার গঠন সংক্রান্ত কোনো পরিকল্পনার কথা জানাননি। তিনি বরং দুই-তৃতীয়াংশ ভোটে জয়ের কথা বলেছেন। শুক্রবার রাতে কৃত্তিম বুদ্ধিমত্তার (এআই) প্রযুক্তি ব্যবহার করে ইমরান খানের বক্তব্য প্রচার করা হয় এক্সে।

অন্যদিকে নওয়াজ শরিফ আজ শনিবার সকালে পিপিপি চেয়ারম্যান বিলাওয়াল ভুট্টো এবং আসিফ আলি জারদারির সঙ্গে বৈঠক করে তাদেরকে একত্রে কাজ করার আমন্ত্রণ জানিয়েছেন। পাঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী মোহসিন নাকভির বাসভবনে পিপিপির শীর্ষ নেতাদের সঙ্গেও সাক্ষাৎ করেন শাহবাজ শরিফ। সেখানেও নওয়াজ শরিফের একত্রে কাজ করার বার্তাই তুলে ধরেন বলে সূত্রের বরাত দিয়ে জানিয়েছে জিও টিভি।

পাকিস্তান নির্বাচন কমিশনের সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী, ২৬৫টি আসনের মধ্যে ২৫০ আসনের ফল পাওয়া গেছে। এর মধ্যে সবচেয়ে বেশি ৯৯ আসনে জয় পেয়েছেন স্বতন্ত্র প্রার্থীরা। এরপরই পিএমএলএন ৭১ আসনে, পিপিপি ৫৩ আসনে ও এমকিউএম ১৭ আসনে জয়ী হয়েছে। এ ছাড়া অন্যান্য দল পেয়েছে ১০টি আসন। সরকারি ফল মোতাবেক পিটিআই বা যেকোনো দলকেই সরকার গঠন করতে হলে জোটের পথে আগাতে হবে। পিএমএল-এন ও পিপিপি জোট গঠন চূড়ান্ত হয়ে গেলে সরকার গঠন না করে বিরোধী দল হিসেবেও থাকতে হতে পারে ইমরানের দল পিটিআইকে।

পাকিস্তানের জাতীয় পরিষদের ২৬৫ আসনে (একটি স্থগিত) ভোট গ্রহণ হয় বৃহস্পতিবার। কোনো দলের সরকার গঠনে প্রয়োজন হবে ১৩৪ আসন। পাকিস্তান জাতীয় পরিষদের মোট আসনসংখ্যা ৩৩৬টি। এর মধ্যে ২৬৬ আসনে সরাসরি ভোট হয়। এ ছাড়া বাকি ৭০টি আসন সংরক্ষিত। এসব আসনের মধ্যে ৬০টি নারীদের ও ১০টি সংখ্যালঘুদের।


আরও খবর