আজঃ বুধবার ২৫ মে ২০২২
শিরোনাম

প্রাথমিকের সহকারী শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষার ফল প্রকাশ

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১২ মে ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১২ মে ২০২২ | ৪৫০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের রাজস্ব খাতভুক্ত সহকারী শিক্ষক নিয়োগ ২০২০ -এর লিখিত পরীক্ষার ফল প্রকাশ করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার (১২ মে) প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতর প্রথম দফার ২২ জেলার ফল প্রকাশ করে। এতে ৪০ হাজার ৮৬২ জন প্রার্থীকে মৌখিক পরীক্ষার জন্য নির্বাচিত করা হয়েছে।

সহকারী শিক্ষক নিয়োগ ২০২০ এর প্রথম ধাপ গত ২২ এপ্রিল ২২ জেলার পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। এর মধ্যে ১৪ জেলার সম্পূর্ণ পরীক্ষা নেওয়া হয়। এসব জেলার মধ্যে ছিল চাপাইনবাবগঞ্জ, মাগুরা, শেরপুর, গাজীপুর, নরসিংদী, মানিকগঞ্জ, ঢাকা, মাদারীপুর, মুন্সিগঞ্জ, লক্ষ্মীপুর, ফেনী, চট্টগ্রাম, মৌলভীবাজার, লালমনিরহাট।

আর ৮ জেলার আংশিক পরীক্ষা পরীক্ষা নেওয়া হয়। জেলারগুলোর মধ্যে রয়েছে সিরাজগঞ্জ, যশোর, ময়মনসিংহ, নেত্রকোনা, কিশোরগঞ্জ, টাঙ্গাইল, কুমিল্লা ও নোয়াখালী।

ফলাফলের নির্দেশনায় বলা হয় এই ফলের ভিত্তিতে নির্বাচিত প্রার্থীরা কেবল মৌখিক পরীক্ষায় অংশ নিতে পারবেন। এ ফল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের রাজস্ব খাতভুক্ত সহকারী শিক্ষক নিয়োগ ২০২০ এর কোনও শূন্য পদে নিয়োগের জন্য কোনও নিশ্চয়তা প্রদান করে না।

প্রকাশিত ফলের যেকোনও পর্যায়ে কোনও প্রকার ভুল-ভ্রান্তি/ত্রুটি-বিচ্যুতি/মুদ্রণজনিত ত্রুটি পরিলক্ষিত হলে, তা সংশোধন করার বা প্রয়োজনবোধে সংশ্লিষ্ট ফল বাতিল করার এখতিয়ার কর্তৃপক্ষ সংরক্ষণ করে।

ফলাফল জানতে ক্লিক করুন: http://www.dpe.gov.bd


আরও খবর



‘ভোটের মাধ্যমে সংসদে জনগণের অধিকার প্রতিষ্ঠা হোক’

প্রকাশিত:শুক্রবার ২০ মে ২০22 | হালনাগাদ:শুক্রবার ২০ মে ২০22 | ৩২০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

ভোটের মাধ্যমে সংসদে জনগণের অধিকার প্রতিষ্ঠা হোক বলে জানিয়েছেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার কাজী হাবিবুর আউয়াল।

শুক্রবার (২০ মে) ঢাকার সাভার উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে ভোটার তালিকা হাল নাগাদ অনুষ্ঠানে এসে সাংবাদিকদের সাথে আলাপকালে তিনি এ কথা বলেন।

প্রধান নির্বাচন কমিশনার আরো বলেন, সাধারণ জনগণের পাশাপাশি আজ হিজরা, বেদে সম্প্রদায় ও যৌন কর্মীদেরকেও ভোটার তালিকায় আনা হয়েছে।

বাংলাদেশ নির্বাচন কমিশনের ভোটার তালিকা হালনাগাদ কার্যক্রম-২০২২ সরকারি কর্মকর্তাদের পাশাপাশি তৃতীয় লিঙ্গ ও বেদে জনগোষ্ঠীর মানুষ অংশগ্রহণ করেন।

তৃতীয় লিঙ্গের আইরিন বলেন, আমরা অনেক আনন্দিত হয়েছি। আমরাও সাধারণ মানুষ সাথে ভোট কেন্দ্র গিয়ে ভোট দিতে পারবো। আমরা এখন আমাদের পরিচয় পেয়েছি। আমরা হয়েছি বাংলাদেশের নাগরিক। সাধারণ জনগণের পাশাপাশি এখন আমরা সকলের সাথে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে গণতান্ত্রিক অধিকার প্রতিষ্ঠা করতে পারবো।

প্রধান নির্বাচন কমিশনার, কাজী হাবিবুল আওয়াল বলেন, সময়ের সাথে সাথে বাংলাদেশে সুন্দর নির্বাচনের প্রত্যয়ে আমরা সকলেই কাজ করে যাচ্ছি জনগণের অধিকার ও সঠিক হালনাগাদ শুরু করেছি। জনগণ সচেতন হলে সুষ্ঠ হবে ভোটাধিকার। ডিজিটাল পদ্ধতির মাধ্যমে বিভিন্ন কার্যক্রম চলমান রয়েছে আমাদের।

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন নির্বাচন কমিশন সচিব হুমায়ুন কবীর খন্দকার। এছাড়াও অনুষ্ঠানে সরকারী নির্বাচন কমিশন ও পুলিশের উর্ধতন কর্মকর্তা, স্থানীয় জনপ্রতিনিধি, গণ্যমান্য ব্যক্তি ও বিভিন্ন সংগঠনেনর প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।


আরও খবর



উল্লাপাড়ায় নিখোঁজের তিন দিন পর যুবকের লাশ উদ্ধার

প্রকাশিত:শুক্রবার ২০ মে ২০22 | হালনাগাদ:শুক্রবার ২০ মে ২০22 | ২৫৫জন দেখেছেন

Image

সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি:

সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়ায় নিখোঁজ হওয়ার তিন দিন পর বিল থেকে এক যুবকের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। শুক্রবার বিকেলে উপজেলার কয়ড়া ইউনিয়নের কয়ড়া রতনদিয়ার এলাকার বাজার দিয়ার বিল থেকে মরদেহটি উদ্ধার করে পুলিশ।

নিহত যুবকের নাম আলম খনকার (৪৫) তিনি উপজেলার কয়ড়া ইউনিয়নের কয়ড়া হরিশপুর গ্রামের মৃত আজগর খনকারের ছেলে। নিহত আলম খনকার পেশায় একজন অটো ভ্যানচালক ছিলেন। বিগত ৫ থেকে ৬ বছর আগে তাঁর স্ত্রী মারা যায়। নিহত আলম খনকাকের দুইটি ছেলে ও একটি মেয়ে আছে বলে জানা যায়।

স্থানীয় ও নিহতের মামা শহিদ মণ্ডল ও মোক্তার মণ্ডলের কাছ থেকে জানা যায়, মঙ্গলবার রাত ১২টার সময় কয়ড়া আদর্শ গ্রামের মৃত মোসলেমের ছেলে রায়হান ফোন দিয়ে বাসা থেকে তাঁকে বের করে নিয়ে যায়। তাঁর ফোন পেয়ে নিহত আলম অটো ভ্যান নিয়ে বাড়ি থেকে বের হয়ে যায়। পরে রাতে বাড়ি না ফেরায় তাঁর পরিবারের লোকজন বিভিন্ন স্বজনের বাড়িতে দুই তিন দিন ধরে খোঁজাখুঁজি করেন। তবে তাঁকে আর পাওয়া যায় না। আলম খনকারের মোবাইলও বন্ধ পায় স্বজনেরা। পরে আজ শুক্রবার সকালে উল্লাপাড়া মডেল থানায় সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করা হয়। আজ শুক্রবার বিকেলে কয়ড়া রতনদিয়ার এলাকার বাজার দিয়ার বিলে স্থানীয়রা তার লাশ দেখতে পায়। পরে বিষয়টি জানাজানি হলে স্থানীয়রা বিলে লাশ দেখতে ভিড় জমায়। পরে পুলিশ এসে আলম খনকারে লাশ উদ্ধার করে।

এ বিষয়ে উল্লাপাড়া মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হুমায়ুন কবির বলেন, মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য সিরাজগঞ্জ মর্গে পাঠানোর প্রস্তুতি চলছে। ময়নাতদন্তের পর মৃত্যুর সঠিক কারণ জানা যাবে।


আরও খবর



রাত থেকে ডাচ-বাংলার এটিএম বুথ ৩ দিন বন্ধ

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০৫ মে ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ০৫ মে ২০২২ | ৪৪৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

সুইচিং সিস্টেম আপগ্রেডের জন্য ডাচ-বাংলা ব্যাংকের এটিএম বুথ ও সিআরএম তিন দিন বন্ধ থাকবে। এছাড়া পয়েন্ট অব সেলস (পিওএস), ই-কমার্স, রকেট ও ডেবিট-ক্রেডিট কার্ডের সেবাও ১২ থেকে ৩৬ ঘণ্টা বন্ধ থাকবে। সম্প্রতি ডাচ-বাংলা ব্যাংকের পক্ষ থেকে এ তথ্য জানানো হয়।

ব্যাংকটি জানায়, সুইচিং সিস্টেম আপগ্রেড করার জন্য এটিএম/সিআরএম, পিওএস, ই-কমার্স, নেক্সাসপে, নেক্সাস ডেবিট কার্ড, এজেন্ট ব্যাংকিং কার্ড, রকেট, ভিসা ও মাস্টারকার্ড ডেবিট কার্ড এবং মাস্টারকার্ড ক্রেডিট কার্ড সেবা আজ ৬ মে থেকে ৮ মে পর্যন্ত বিভিন্ন সময় বন্ধ থাকবে।

আজ (৫ মে) রাত ১২টা ১ মিনিট থেকে ৮ মে রাত ১১টা ৫৯ মিনিট পর্যন্ত এটিএম ও সিআরএম সেবা ৭২ ঘণ্টা বন্ধ থাকবে। পিওএস সেবা বন্ধ থাকবে ৩৬ ঘণ্টা। ৫ মে দিবাগত রাত ১২টা ১ মিনিট থেকে ৭ মে দুপুর ১২ টা পর্যন্ত পিওএস সেবা নিতে পারবে না ব্যাংকটির গ্রাহকরা।

আজ দিবাগত রাত ১২টা ১ মিনিট থেকে ৬ মে রাত ১১টা ৫৯ মিনিট পর্যন্ত এই ২৪ ঘণ্টা ই-কমার্স, রকেট অ্যাড মানি সেবা বন্ধ থাকবে। নেক্সাস ডেবিট, ভিসা ডেবিট, মাস্টারকার্ড ডেবিট, এনপিএসবি ফান্ড স্থানান্তর, আউটওয়ার্ড রেমিট্যান্স সেবা বন্ধ থাকবে ১৮ ঘণ্টা। আজ রাত ১২টা ১ মিনিট থেকে আগামীকাল সন্ধ্যা ৬টা এসব সেবা বন্ধ থাকবে। আর মাস্টারকার্ড ক্রেডিট সেবা বন্ধ থাকবে আগামী আজ রাত ১২টা ১ মিনিট থেকে আগামীকাল রাত ১১টা ৫৯ মিনিট পর্যন্ত।

নিউজ ট্যাগ: এটিএম বুথ

আরও খবর



আশুলিয়া থেকে ৫ মামলার সাজাপ্রাপ্ত আসামি গ্রেপ্তার

প্রকাশিত:রবিবার ১৫ মে ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ১৫ মে ২০২২ | ৩৩৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

পাবনার ভাঙ্গুড়ায় বাচ্চু হোসেন (৪২) নামের সাজাপ্রাপ্ত এক পলাতক আসামিকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। তার বিরুদ্ধে ৫টি সিআর মামলা ও একটি সাধারণ ওয়ারেন্ট রয়েছে। রোববার (১৫ মে) সকালে তাকে আদালতের মাধ্যমে পাবনা জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে। এর আগে শনিবার (১৪ মে) মোবাইল ফোন ট্রাকিংয়ের মাধ্যমে ঢাকার আশুলিয়া থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। বাচ্চু উপজেলার উত্তর মেন্দা গ্রামের আব্দুর রশিদের ছেলে।

ভাঙ্গুড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মু. ফয়সাল বিন আহসান বলেন, গ্রেপ্তারকৃত বাচ্চু হোসেন একজন ধূর্ত প্রকৃতির লোক ও চিহ্নিত প্রতারক। তিনি চাটমোহর, ভাঙ্গুড়া, ফরিদপুর উপজেলার বিভিন্ন মানুষের সঙ্গে প্রতারণা করে টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন। এসব ঘটনায় তার বিরুদ্ধে পাবনার আদালতে ৫টি সিআর মামলা ও একটিতে সাধারণ ওয়ারেন্ট রয়েছে। সব মামলায়ই তার বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন মেয়াদে সাজা হয়েছে।

তিনি জানান, তিনি দীর্ঘ দিন পুলিশের চোখ ফাঁকি দিয়ে পালিয়ে বেড়াচ্ছিলেন। তাকে ধরতে বিভিন্ন সময় অভিযান চালানো হয়। পুলিশ ঢাকার আশুলিয়া থানার বিবাংলা এলাকা থেকে শনিবার (১৪ মে) তাকে গ্রেপ্তার করে। আশুলিয়া থানা পুলিশের সহায়তায় ভাঙ্গুড়া থানার এসআই আবু তাহের ও এএসআই জাহিদুল ইসলাম তাকে গ্রেপ্তার করে থানায় নিয়ে আসেন।


আরও খবর



জাতীয় ক্রীড়া পুরস্কার দেয়া হচ্ছে ৮৫ ক্রীড়া ব্যক্তিত্বকে

প্রকাশিত:বুধবার ১১ মে ২০২২ | হালনাগাদ:বুধবার ১১ মে ২০২২ | ৩৭৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

দেশের গুণী ক্রীড়া ব্যক্তিত্বকে দেয়া হচ্ছে জাতীয় ক্রীড়া পুরস্কার। ২০১৩ সাল থেকে ২০২০ সাল পর্যন্ত গত আট বছরের জন্য ক্রীড়া পুরস্কারের জন্য মনোনীত করা হয়েছে ৮৫ জন ক্রীড়া ব্যক্তিত্বকে। এদের মধ্যে ৩৯ জন ক্রীড়া সংগঠক রয়েছেন।

বুধবার (১১ মে) ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে ভার্চুয়াল প্লাটফর্মে উপস্থিত থেকে এ পুরস্কার বিতরণ করছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।পুরস্কার হিসেবে প্রত্যেকে পাবেন একটি আঠারো ক্যারেট মানের ২৫ গ্রাম ওজনের স্বর্ণপদক, এক লাখ টাকার চেক এবং একটি সম্মাননাপত্র।

জাতীয় ক্রীড়া পুরস্কারের জন্য বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের পর ২০১৩ সালের জন্য ৪৯টি, ২০১৪ সালের জন্য ৫৩টি, ২০১৫ সালের জন্য ৩০টি, ২০১৬ সালের জন্য ৩৩টি, ২০১৭ সালের জন্য ৩৯টি এবং ২০১৮ সালের জন্য ৫৮টি, ২০১৯ ও ২০২০ সালের জন্য ৭৮টিসহ মোট ৩৪০ জন ক্রীড়াবিদ ও ক্রীড়া সংগঠক আবেদন পত্র জমা দেন।

সেখান থেকেই তথ্য যাচাই বাছাইয়ের জন্য মন্ত্রণালয় মোট ৩টি কমিটি গঠন করে। যাচাই-বাছাই শেষে সংক্ষিপ্ত তালিকা প্রস্তুত করে তারা। তালিকাটি জাতীয় বাছাই কমিটির কাছে পাঠানো হয়।

জাতীয় বাছাই কমিটি ২০১৩ সালের জন্য ১১ জন, ২০১৪ সালের জন্য ১০ জন, ২০১৫ সালের জন্য ১১ জন, ২০১৬ সালের জন্য ১৩ জন, ২০১৭ সালের জন্য ১১ জন, ২০১৮ সালের জন্য ১০ জন, ২০১৯ সালের জন্য ১১ জন এবং ২০২০ সালের জন্য ৮ জনসহ সর্বমোট ৮৫ জন ক্রীড়াবিদ ও ক্রীড়া সংগঠককে জাতীয় ক্রীড়া পুরস্কার দেয়ার সুপারিশ করে।

যারা পুরস্কার পাচ্ছেন

২০২০ সাল (৮ জন): মুক্তিযোদ্ধা শহীদ লেফটেন্যান্ট শেখ জামাল (মরণোত্তর) খেলোয়াড় ও সংগঠক,  মুক্তিযোদ্ধা আফজালুর রহমান সিনহা (মরণোত্তর) সংগঠক (ক্রিকেট), নাজমুল আবেদীন ফাহিম- সংগঠক (ক্রিকেট কোচ), মোঃ মহসীন- খেলোয়াড় (ফুটবল), মো. মাহাবুবুল এহছান রানা- খেলোয়াড় (হকি), গ্র্যান্ডমাস্টার মোল্লা আব্দুল্লাহ আল রাকিব- খেলোয়াড় (দাবা), বেগম মোছা: নিলুফা ইয়াসমিন- খেলোয়াড় (অ্যাথলেটিক্স), আব্দুল কাদের স্বরণ- খেলোয়াড় (ব্যাডমিন্টন-বুদ্ধিপ্রতিবন্ধী)।

২০১৯ সাল (১১ জন): তানভীর মাজহার তান্না- সংগঠক (ফুটবল), অরুন চন্দ্র চাকমা (মরণোত্তর)- (অ্যাথলেটিক্স), লেফটেন্যান্ট জেনারেল (অব.) মো. মইনুল ইসলাম- সংগঠক (আরচারি), দিপু রায় চৌধুরী- খেলোয়াড় (ক্রিকেট), কাজী নাবিল আহমেদ- সংগঠক (ফুটবল), ইন্তেখাবুল হামিদ- সংগঠক (শ্যুটিং), বেগম মাহফুজা রহমান তানিয়া- খেলোয়াড় (সাঁতার), বেগম ফারহানা সুলতানা শীলা- খেলোয়াড় (সাইক্লিং),  টুটুল কুমার নাগ- খেলোয়াড় (হকি), মাহবুবুর রব- খেলোয়াড় (ব্যাডমিন্টন), বেগম সাদিয়া আক্তার উর্মি- খেলোয়াড় (টেবিলটেনিস-বুদ্ধিপ্রতিবন্ধী)।

২০১৮ সাল (১০ জন): ফরিদা আক্তার বেগম- সংগঠক (অ্যাথলেটিক্স), জ্যোৎস্না আফরোজ- খেলোয়াড় (অ্যাথলেটিক্স), মোঃ রফিক উল্যা আখতার মিলন- সংগঠক (অ্যাথলেটিক্স), কাজী আনোয়ার হোসেন- খেলোয়াড় (ফুটবল), মোঃ শওকত আলী খান জাহাঙ্গীর- সংগঠক (ফুটবল), মীর রবিউজ্জামান- খেলোয়াড় (জিমন্যাস্টিকস), মোহাম্মদ আলমগীর আলম- খেলোয়াড় (হকি), তৈয়েব হাসান সামছুজ্জামান- সংগঠক (রেফারী), নিবেদিতা দাস- খেলোয়াড় (সাঁতার), মাহমুদুল ইসলাম রানা- সংগঠক (তায়কোয়ানডো)

২০১৭ সাল (১১ জন): শাহরিয়া সুলতানা- খেলোয়াড় (ভারোত্তোলন), আওলাদ হোসেন-সংগঠক (জুডো, কারাতে ও মার্শাল আর্ট), ওয়াসিফ আলী- খেলোয়াড় (বাস্কেটবল), শেখ বশির আহমেদ মামুন- সংগঠক (জিমন্যাস্টিকস), মো: সেলিম মিয়া- খেলোয়াড় (সাঁতার), হাজী মো: খোরশেদ আলম- সংগঠক (রোইং), আবু ইউসুফ- খেলোয়াড় (ফুটবল), এ টি এম শামসুল আলম- সংগঠক (টেবিল টেনিস), রহিমা খানম যুথী- খেলোয়াড় (অ্যাথলেটিক্স), আসাদুজ্জামান কোহিনুর- সংগঠক (হ্যান্ডবল), মো: মাহবুব হারুন- খেলোয়াড় (হকি)।

২০১৬ সাল (১৩ জন): মোহাম্মদ মনিরুজ্জামান- খেলোয়াড় (সাঁতার), লেঃ কমান্ডার এ কে সরকার (অবঃ)- সংগঠক (বাস্কেটবল), বেগম সুলতানা পারভীন লাভলী- খেলোয়াড় (অ্যাথলেটিক্স), মুক্তিযোদ্ধা শামীম-আল-মামুন- সংগঠক (ভলিবল), আরিফ খান জয়- খেলোয়াড় (ফুটবল), খন্দকার রকিবুল ইসলাম- খেলোয়াড় (ফুটবল), মোহাম্মদ জালাল ইউনুস- সংগঠক (ক্রিকেট), মো: তোফাজ্জল হোসেন- সংগঠক (অ্যাথলেটিক্স), কাজল দত্ত- খেলোয়াড় (ভরোত্তোলন), মো: তাবিউর রহমান পালোয়ান- সংগঠক (কুস্তি), জেড. আলম (মরণোত্তর)- সংগঠক (ফুটবল), আবদুর রাজ্জাক সোনা মিয়া (মরণোত্তর)- খেলোয়াড় (হকি), কাজী হাবিবুল বাশার- খেলোয়াড় (ক্রিকেট)।

২০১৫ সাল (১১ জন): অধ্যাপক ড. শেখ আবদুস সালাম- সংগঠক (ক্যারম), মো: আহমেদুর রহমান- খেলোয়াড় ও সংগঠক (জিমন্যাস্টিক্স), আহমেদ সাজ্জাদুল আলম- সংগঠক (ক্রিকেট), খাজা রহমতউল্লাহ (মরণোত্তর)- খেলোয়াড় (হকি), মাহ্তাবুর রহমান বুলবুল- খেলোয়াড় ও সংগঠক (বাস্কেটবল), বেগম ফারহাদ জেসমীন লিটি- খেলোয়াড় (অ্যাথলেটিক্স), বরুন বিকাশ দেওয়ান- খেলোয়াড় (ফুটবল), রেহানা জামান- খেলোয়াড় (সাঁতার), মো: জুয়েল রানা- খেলোয়াড় (ফুটবল), বেগম জেসমিন আক্তার- খেলোয়াড় (ভারোত্তোলন, কারাতে ও তায়কোয়ানডো), বেগম শিউলী আক্তার সাথী- খেলোয়াড় (ব্যাডমিন্টন)।

২০১৪ সাল (১০ জন): শামসুল বারী (মরণোত্তর)- খেলোয়াড় ও সংগঠক (হকি), এনায়েত হোসেন সিরাজ- সংগঠক (ক্রিকেট), মো: ফজলুর রহমান বাবুল- সংগঠক (ফুটবল), সৈয়দ শাহেদ রেজা- সংগঠক (হ্যান্ডবল), মো: ইমতিয়াজ সুলতান জনি- খেলোয়াড় (ফুটবল), মোহাম্মদ এহসান নামিম- খেলোয়াড় (হকি), বেগম কামরুন নেছা- খেলোয়াড় (অ্যাথলেটিক্স), মো: সামছুল ইসলাম- খেলোয়াড় (সাঁতার), মিউরেল গোমেজ- খেলোয়াড় (অ্যাথলেটিক্স), মো: জোবায়েদুর রহমান রানা- খেলোয়াড় (ব্যাডমিন্টন)।

২০১৩ সাল (১১ জন): মুজাফ্ফর হোসেন পল্টু- খেলোয়াড় ও সংগঠক (ক্রিকেট), কাজী মাহতাব উদ্দিন আহমেদ- সংগঠক (হ্যান্ডবল), উইং কমান্ডার (অব.) মহিউদ্দিন আহমেদ- সংগঠক (ভারোত্তোলন), সামশুল হক চৌধুরী- সংগঠক (ফুটবল), মুক্তিযোদ্ধা মো: শাহ্জাহান মিজি- খেলোয়াড় (সাঁতার), রোকেয়া বেগম খুকী- খেলোয়াড় (অ্যাথলেটিক্স), বেগম মুনিরা মোর্শেদ খান হেলেন- খেলোয়াড় (টেবিল টেনিস), মো: ইলিয়াস হোসেন- খেলোয়াড় (ফুটবল), বেগম জ্যোৎস্না আক্তার- খেলোয়াড় (অ্যাথলেটিক্স), ভোলা লাল চৌহান- খেলোয়াড় (স্কোয়াশ), খালেদ মাহমুদ সুজন- খেলোয়াড় (ক্রিকেট)।

 

 

 


আরও খবর