আজঃ সোমবার ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
শিরোনাম

প্রার্থিতা ফিরে পেতে ইসিতে আরও ৯৩ জনের আপিল

প্রকাশিত:শুক্রবার ০৮ ডিসেম্বর ২০২৩ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০৮ ডিসেম্বর ২০২৩ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে প্রার্থিতা ফিরে পেতে নির্বাচন কমিশনে (ইসি) আরও ৯৩ জন আপিল আবেদন করেছেন। আজ শুক্রবার রাজধানীর আগারগাঁওয়ের নির্বাচন ভবন চত্বরে তারা এ আপিল আবেদন করেন।

ইসি কর্মকর্তারা বলেন, প্রথম দিন ৪২, দ্বিতীয় দিন ১৪১, তৃতীয় দিন ১৫৫ এবং আজ চতুর্থ দিন ৯৩ জন আপিল আবেদন করেছেন। চার দিনে মোট ৪৩১ জন প্রার্থী ইসিতে আপিল আবেদন করেছেন। এরমধ্যে বেশ কিছু বৈধ প্রার্থীর প্রার্থিতা বাতিলের আবেদনও রয়েছে।

আরও পড়ুন>> সংসদ নির্বাচন দেখতে আগ্রহী ১৭৯ বিদেশি পর্যবেক্ষক

ইসির ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী, আগামী ৭ জানুয়ারি দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। নির্বাচনে মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার শেষ তারিখ ছিল ৩০ নভেম্বর। ১ ডিসেম্বর থেকে বাছাই শুরু হয়, শেষ হয় ৪ ডিসেম্বর সন্ধ্যা পর্যন্ত। রিটার্নিং কর্মকর্তার সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে আপিল ও শুনানি ১৫ ডিসেম্বর পর্যন্ত এবং ১৭ ডিসেম্বরের মধ্যে মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করা যাবে। প্রতীক বরাদ্দ দেওয়া হবে ১৮ ডিসেম্বর।


আরও খবর



খালেদার গ্যাটকো দুর্নীতি মামলায় অভিযোগ গঠন শুনানি ৬ মার্চ

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
আদালত প্রতিবেদক

Image

গ্যাটকো দুর্নীতি মামলায় বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়াসহ ১৩ আসামির বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন শুনানির জন্য নতুন দিন নির্ধারণ করেছেন আদালত। আগামী ৬ মার্চ নতুন এ দিন ধার্য করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (১৫ ফেব্রুয়ারি) কেরাণীগঞ্জ কেন্দ্রীয় কারাগারে অবস্থিত ঢাকার ৩ নম্বর বিশেষ আদালতের বিচারক আলী হোসেনের আদালতে মামলাটির অভিযোগ গঠন শুনানির জন্য দিন ধার্য ছিল।

এ দিন খালেদা জিয়ার পক্ষে আংশিক শুনানি করেন তার আইনজীবী মাসুদ আহম্মেদ তালুকদার। এরপর শুনানি মুলতবি রাখার জন্য সময়ের সময়ের আবেদন করেন তিনি। আদালত সময়ের আবেদন মঞ্জুর করে আগামী ৬ মার্চ দিন ধার্য করেন। খালেদা জিয়ার আইনজীবী হান্নান ভূঁইয়া এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

উল্লেখ্য, ২০০৭ সালের ২ সেপ্টেম্বর দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) উপ-পরিচালক গোলাম শাহরিয়ার চৌধুরী চার দলীয় জোট সরকারের তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়া ও তার ছোট ছেলে আরাফাত রহমান কোকোসহ ১৩ জনের বিরুদ্ধে তেজগাঁও থানায় এ মামলা দায়ের করেন। মামলার পরদিন খালেদা জিয়া ও কোকোকে গ্রেপ্তার করা হয়।

ওই বছরের ১৮ সেপ্টেম্বর মামলাটি অন্তর্ভুক্ত করা হয় জরুরি ক্ষমতা আইনে। পরের বছর ১৩ মে খালেদা জিয়াসহ ২৪ জনের বিরুদ্ধে এ মামলায় অভিযোগপত্র দাখিল করা হয়।

মামলার অভিযোগপত্রে বলা হয়, আসামিরা পরস্পর যোগসাজশে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান গ্যাটকোকে ঢাকার কমলাপুর আইসিডি ও চট্টগ্রাম বন্দরের কনটেইনার হ্যান্ডলিংয়ের কাজ পাইয়ে দিয়ে রাষ্ট্রের ১৪ কোটি ৫৬ লাখ ৩৭ হাজার ৬১৬ টাকার ক্ষতি করেছেন।

মামলার ২৪ আসামির মধ্যে ১১ জন এরই মধ্যে মারা গেছেন। মামলার জীবিত আসামিরা হলেন, সাবেক মন্ত্রী ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষের সাবেক চেয়ারম্যান কমোডর জুলফিকার আলী, প্রয়াত মন্ত্রী কর্নেল (অব.) আকবর হোসেনের স্ত্রী জাহানারা আকবর, তিন ছেলে ইসমাইল হোসেন সায়মন ও এ কে এম মুসা কাজল, এহসান ইউসুফ, চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষের সাবেক সদস্য এ কে রশিদ উদ্দিন আহমেদ, গ্লোবাল অ্যাগ্রোট্রেড প্রাইভেট লিমিটেডের (গ্যাটকো) পরিচালক শাহজাহান এম হাসিব, গ্যাটকোর পরিচালক সৈয়দ তানভির আহমেদ ও সৈয়দ গালিব আহমেদ, চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষের সাবেক চেয়ারম্যান এ এস এম শাহাদত হোসেন, বন্দরের সাবেক পরিচালক (পরিবহন) এ এম সানোয়ার হোসেন ও বন্দরের সাবেক সদস্য লুৎফুল কবীর।


আরও খবর



আর কোনো রোহিঙ্গাকে আশ্রয় দেওয়া সম্ভব নয় : পররাষ্ট্রমন্ত্রী

প্রকাশিত:শনিবার ২৪ ফেব্রুয়ারী 20২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ২৪ ফেব্রুয়ারী 20২৪ | অনলাইন সংস্করণ
রাহুল সরকার, চট্টগ্রাম ব্যুরো

Image

পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, আমাদের পক্ষে আর কোনো রোহিঙ্গাকে গ্রহণ কিংবা আশ্রয় দেওয়া সম্ভব নয়। মিয়ানমার সীমান্তে এর আগে যে ধরনের পরিস্থিতি তৈরি হয়েছিল, আশা করব তেমন পরিস্থিতির উদ্ভব আর হবে না। আমরা প্রায় ১২ লাখের বেশি রোহিঙ্গাকে আশ্রয় দিয়েছি। প্রতিবছর ৩৫ হাজার নতুন রোহিঙ্গা শিশু জন্মগ্রহণ করে। অর্থাৎ, প্রতিবছর এই সংখ্যা বাড়ছে।

শুক্রবার চট্টগ্রাম নগরীর সিআরবির শিরীষতলায় এক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য শেষে সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের জবাবে এসব কথা বলেন তিনি।

হাছান মাহমুদ বলেন, যাদের এর আগে মানবিক কারণে আশ্রয় দেওয়া হয়েছে, তাদের কীভাবে ফেরত পাঠানো যায়, আমরা সেই নিয়েই কাজ করছি। যুক্তরাষ্ট্রসহ সব দেশের সহায়তা কামনা করেছি, রোহিঙ্গাদের ফেরত পাঠানোর ক্ষেত্রে মিয়ানমার সরকারের ওপর যাতে আন্তর্জাতিক চাপ প্রয়োগ করা হয়।

সাংবাদিকদের আরেক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, সরকার পরিবর্তন করতে হলে বিএনপিকে আগামী ২৯ সালের নির্বাচন পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে। তখন জনগণ যাদের ভোট দেবে তারাই সরকার গঠন করবে। বিএনপি সব পরীক্ষায় ফেল করেছে। এখন তারা আবার পরীক্ষা-নিরীক্ষা করুক, আরও বেশি করে পড়াশোনা করুক, তারপর আমরা দেখব তারা কী করে। অবশ্যই নিয়মতান্ত্রিক আন্দোলন করার ক্ষেত্রে সরকার কাউকে বাধা দেবে না। বিএনপি আন্দোলনের নামে সহিংসতা ও নৈরাজ্য করেছে। এসব আর করতে দেওয়া হবে না।

বিভিন্ন ক্ষেত্রে বিশেষ অবদানের জন্য এবার চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের একুশে স্মারক সম্মাননা পদক ও সাহিত্য পুরস্কার পেয়েছেন ১৬ জন। শিরীষতলায় অমর একুশে বইমেলায় তাদের হাতে পদক ও পুরস্কার তুলে দেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী।

পদকপ্রাপ্তরা হলেন মুক্তিযুদ্ধ ও স্বাধীনতা আন্দোলনে শহীদ সাইফুদ্দিন খালেদ চৌধুরী (মরণোত্তর), শিল্প উন্নয়ন ও সমাজসেবায় মো. নাছির উদ্দিন (মরণোত্তর), চিকিৎসায় অধ্যাপক ডা. গোফরানুল হক, নাট্যকলায় শিশির দত্ত, সংস্কৃতিতে শ্রেয়সী রায়, শিক্ষায় অধ্যাপক প্রদীপ ভট্টাচার্য, সংবাদপত্র শিল্পের বিকাশ ও মানোন্নয়নে সুপ্রভাত বাংলাদেশ সম্পাদক রুশো মাহমুদ, সাংবাদিকতায় জসীম চৌধুরী সবুজ, ক্রীড়ায় জাকির হোসেন লুলু, স্বল্পদের্ঘ্য চলচ্চিত্র নির্মাণ ও গবেষণায় শৈবাল চৌধুরী, লোকসাহিত্য ও গবেষণায় শামসুল আরেফীন, প্রবন্ধে শামসুদ্দিন শিশির, কবিতায় আবসার হাবীব ও ভাগ্যধন বড়ুয়া, শিশুসাহিত্যে ছড়াকার অরুণ শীল ও শিবু কান্তি দাশ।

চসিক মেয়র রেজাউল করিম চৌধুরীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন অমর একুশে বইমেলা উদযাপন পরিষদের আহ্বায়ক কাউন্সিলর ড. নিছার উদ্দিন আহমেদ মঞ্জু। স্বাগত বক্তব্য দেন সিটি করপোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা শেখ মোহাম্মদ তৌহিদুল ইসলাম।


আরও খবর
ঝিনাইদহ জেলা কারাগারে কয়েদির মৃত্যু

সোমবার ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




মিয়ানমারে সংঘাত নিরসনে চীন ভূমিকা রাখলে বাংলাদেশ উপকৃত হবে: কাদের

প্রকাশিত:রবিবার ০৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:রবিবার ০৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

মিয়ানমারে সংঘাত নিরসনে চীন ভূমিকা রাখলে বাংলাদেশ উপকৃত হবে বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেন, বাংলাদেশের সঙ্গে নয়, মিয়ানমারের আরাকানে অভ্যন্তরীণ যুদ্ধ চলছে। এটা সীমান্তে চলে এসেছে। তবে গোলাগুলির কারণে ভয়ভীতি ছড়াচ্ছে।

আজ রোববার দুপুরে সচিবালয়ের নিজ দপ্তরে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে তিনি এসব কথা বলেন।

মিয়ানমার থেকে ১৪ জন সেনা সদস্য এসে বাংলাদেশের বান্দরবানে আশ্রয় নিয়েছেএ ব্যাপারে কাদের বলেন, আরাকান আর্মিদের সঙ্গে তাদের যে ইন্টারনাল কনফ্লিক্ট, সেটার কিছু কিছু প্রতিক্রিয়া আমাদের এখানেও হয়। রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনে চীন উদ্যোগী হওয়ার পরও কেন বিলম্বিত হচ্ছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমরা যেভাবে বলার বলেছি। এসব সমস্যাগুলো আমাদের জন্য অতিরিক্ত চাপ সৃষ্টি করে।

চীন-ভারত সম্পর্ক নিয়ে সাংবাদিকের প্রশ্নে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, আমরা চাই তারা বন্ধুসুলভ থাকুক। এখানে ভূ-রাজনৈতিক কৌশলে চীন-ভারত, এখানে একটা তো আছে শক্তি বলয়। তারা একমতের দেশ নয়। চীনের একটা দৃষ্টিভঙ্গি আছে। ভারত ও চীনের কনফ্লিক্ট অব ইন্টারেস্ট আছে। ওটার মধ্যে আমরা নাক গলাতে চাই না। ওটা ভারত আর চীনের ব্যাপার। তারা তাদের কনফ্লিক্ট মীমাংসা করবে। আমরা আমাদের স্বার্থ নিয়ে বলবো। প্রতিবেশী দেশ হিসেবে আমরা যেন তাদের ইন্টারনাল কনফ্লিক্টের শিকার না হই। আমাদের যেন কোনো ক্ষতি না হয়।

মন্ত্রী বলেন, এখন মিয়ানমারের আরাকান আর্মিদের সঙ্গে কনফ্লিক্টের জন্য আমরা ক্ষতিগ্রস্ত; কিছু কিছু ক্ষতি তো আমাদের হচ্ছে। কোনো কোনো সময় আমাদের আকাশসীমা তারা অতিক্রমও করছেএমন রিপোর্টও আছে। সে বিষয়গুলো তাদের আরেকটু বেশি মনোযোগ দেওয়া, তাদের ইন্টারনাল কনফ্লিক্টের সঙ্গে; যেহেতু মিয়ানমারের সঙ্গে চীনের একটা চমৎকার সম্পর্ক, সে জন্য চীন এখানে কোনো ভূমিকা পালন করতে পারে কি না এবং করলে আমরা উপকৃত হবো।

এ সময় যুক্তরাষ্ট্র প্রসঙ্গে মন্ত্রী বলেন, তারা (যুক্তরাষ্ট্র) আমাদের সঙ্গে কাজ করতে আগ্রহী। আমরাও তাদের সঙ্গে কাজ করব। গায়ে পড়ে সম্পর্ক খারাপ করব না। সারা পৃথিবী এখন সংকটে, এখন গায়ে পড়ে সংকট বাধানোর কারো লাভ নেই। সম্পর্ক থাকুক, সামনে সম্পর্কের আরও উন্নয়ন হোক।


আরও খবর



আজকের রাশিফল: বৃহস্পতিবার ৮ ফেব্রুয়ারি ২০২৪

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ০৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
জীবন ধারা ডেস্ক

Image

আজ নতুন কী ঘটতে চলেছে? আজ কি আপনার জন্য ভাল কিছু অপেক্ষা করে আছে? কেমন থাকবে আপনার আর্থিক অবস্থা? নাকি খারাপ কিছুর অপেক্ষা করে আছে আপনার ভাগ্যে। বিখ্যাত জ্যোতিষীর দ্বারা বিশ্লেষণের পর আজকের দিন নিয়ে ভবিষ্যত গণনা জানুন আপনার আজকের রাশিফলে।

মেষ/ Aries রাশিফল ( March 21 April 20 )

ক্লান্তি আপনার মধ্যে হতাশার সৃষ্টি করবে। কাউকে প্রভাবিত করার জন্য বেশী খরচ করবেন না। পরিবারের সদস্যদের প্রয়োজনীয়তাকে অগ্রাধিকার দিন। আনন্দ এবং দুঃখ ভাগ করে নিতে নিজেকেও অন্তর্ভুক্ত করুন

বৃষ/ Taurus রাশিফল ( April 21 May 21 )

আপনার স্ত্রীর সাথে ভালো বোঝাপড়া ঘরে সুখ-শান্তি এবং সমৃদ্ধি আনবে। আপনার ভালবাসার জীবন আজ সত্যি সত্যিই আপনার জন্যে অসাধারণ কিছু বয়ে আনবে। কর্মক্ষেত্রে এই দিনটা আপনার হতে চলেছে! আপনার বাইরে বেরোনো প্রয়োজন এবং উচুঁ জায়গার লোকেদের সঙ্গে যোগাযোগ বাড়ান।

মিথুন/ Gemini রাশিফল ( May 22 June 21 )

আগামী সময়ে সমস্যার মুখোমুখি হতে হবে আর কিছুই না। আজ সবকিছু শান্ত হবে বলে মনে হয়। অবাঞ্ছিত চিন্তায় মন ভরাবেন না। বরং স্থির এবং দুশ্চিন্তামুক্ত থাকুন যাতে মানসিক দৃঢ়তা বাড়ে। ঝুঁকি বা অপ্রত্যাশিত লাভের মাধ্যমে আর্থিক অবস্থান উন্নত হতে পারে।

কর্কট/ Cancer রাশিফল ( June 22 July 23 )

বিনিয়োগের পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে কিন্তু সঠিক উপদেশের খোঁজ করুন। পরিবারের সদস্যরা সহায়ক হলেও অত্যন্ত দাবীদার হবে। প্রেমের জন্য ভালো দিন। দৃঢ় পদক্ষেপ এবং সিদ্ধান্ত সহায়ক ফলাফল নিয়ে আসবে। যদি আপনি ভাবেন বন্ধু বান্ধবের সাথে প্রয়োজনের বেশি সময় কাটানো আপনার জন্য ভালো।

সিংহ/ Leo রাশিফল ( July 24 August 23 )

আজকে আপনি সবার থেকে দূরে সরে নিজের জন্য সময় বার করতে পারবেন। লোকেদের হস্তক্ষেপ আপনার স্ত্রীর সঙ্গে আপনার সম্পর্ক আজ ক্ষতি করতে পারে। আপনার স্বযত্নলালিত স্বপ্ন সত্যে পরিণত হবে। কিন্তু আপনার উত্তেজনা নিয়ন্ত্রণের রাখা উচিত কারণ খুব বেশী আনন্দ কিছু সমস্যার কারণ হতে পারে।

কন্যা/ Virgo রাশিফল ( August 24 September 23 )

আপনার স্ত্রীর পরিবারের সদস্যদের বাধা ফলে আপনার দিনটা একটু খারাপ হতে পারে। অতিরিক্ত কাজ থাকা সত্ত্বেও আজকে কর্মক্ষত্রে আপনার মধ্যে ফুর্তি দেখা যেতে পারে।আজকে আপনি সময়ের আগেই কাজ শেষ করে ফেলতে পারেন। পরিবারের ইচ্ছা পূরণ করতে-করতে আপনি ফাঁসবেন।

তুলা/ Libra রাশিফল ( Sept 24 Oct 23)

অন্যদের সাথে খুশি ভাগ করে নেওয়ার মাধ্যমে স্বাস্হ্যের বিকাশ ঘটতে পারে। যে কারও কাছ থেকে ঋণ নিয়েছেন তাদের যে কোনও পরিস্থিতিতে ঋণ পরিশোধ করতে হতে পারে। এই পদ্ধতিতে এটি আপনার অর্থনৈতিক পরিস্থিতিকে দুর্বল করতে পারে।

বৃশ্চিক/ Scorpio রাশিফল ( Oct 24 Nov 22 )

নিজের কাজে এবং অগ্রাধিকারে মনোনিবেশ করুন। আপনাকে ফাঁকা সময়ের সঠিক ব্যবহার করা শিখতেই হবে। জীবনে আপনি সবার পেছনে থেকে যাবেন। আজ আপনি বিয়ের সত্য ভাবাবেশ জানতে পারবেন।

ধনু/ Sagitarious রাশিফল ( Nov 23 Dec 22 )

আপনার স্ত্রীর সাথে কিছু মূল্যবান জিনিস কিনতে যেতে পারেন। আপনার আর্থিক পরিস্থিতি কিছুটা টানটান করে তুলতে পারে। যাদেরকে আপনি ভালোবাসেন তাদের উপহার দেওয়া এবং তাদের থেকে উপহার নেওয়ার পক্ষে শুভ দিন। প্রেমের অনুভূতিগুলি আজ পরিশোধিত হবে।

মকর/ Capricorn রাশিফল ( Dec 23 Jan 20 )

ফাঁকা সময়ের সঠিক ব্যবহার করতে পারেন। আপনি আজ আবার আপনার স্ত্রীর প্রেমে পড়বেন কারণ তিনি তার যোগ্য। আপনার জন্য নিছকই আনন্দ এবং মজা-যেহেতু আপনি পূর্ণমাত্রায় জীবন উপভোগ করতে নেমে পড়েছেন। পরিবারের প্রয়োজনীয়তা অনুসারে আপনি কাজ করুন।

কুম্ভ/ Aquarious রাশিফল ( Jan 21 Feb 19 )

আজকে আপনি অফিসে ভালো ফলাফল পাবেন না। আপনার বিশেষ কেউ আজ আপনার সাথে বিশ্বাসঘাতকতা করতে পারে। আজ আপনি সারাদিন সমস্যার মধ্যে থাকতে পারেন। আজকে আপনি আপনার ঘরের ছোট সদস্যের সাথে গল্প করে কাটাবেন।

মীন/ Pisces রাশিফল ( Feb 20 Mar 20 )

আপনি আপনার শারীরিক সক্ষমতা বজায় রাখতে কিছু ক্রীড়া কার্যকলাপ উপভোগ করতে পারেন। ঝুঁকি বা অপ্রত্যাশিত লাভের মাধ্যমে আর্থিক অবস্থান উন্নত হতে পারে। পারিবারিক অনুষ্ঠান এবং গুরুত্বপূর্ণ সমারোহের জন্য এটি একটি শুভ দিন। আপনার হৃদয়ে এবং মনে প্রেম রাজ করবে।


আরও খবর
নারীর জন্য প্রয়োজনীয় পাঁচ ভিটামিন

রবিবার ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

২৩ ফেব্রুয়ারি : ইতিহাসে আজকের এই দিনে

শুক্রবার ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




বগুড়া প্রায় সাড়ে ৮শ’ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে নেই শহিদ মিনার

প্রকাশিত:বুধবার ১৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
বগুড়া প্রতিনিধি

Image

বগুড়া বিভিন্ন উপজেলায় প্রায় সাড়ে ৮শ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে নেই শহিদ মিনার। প্রতিবছর একুশে ফেব্রুয়ারি এলেই তিনটি কলাগাছ দিয়ে অস্থায়ী শহিদ মিনার নির্মাণ করা হয়। তারপর সেই শহিদ মিনারে স্কুলের শিক্ষার্থী ও শিক্ষকরা ভাষা শহিদের ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান। বগুড়ার সারিয়াকান্দি উপজেলার কর্ণিবাড়ী ইউনিয়নের শোনপচা উচ্চ বিদ্যালয়ে গত ৩০ বছর থেকে এভাবেই শহিদদের স্মরণ করা হয়।

ওই বিদ্যালয়ের মত আরও বেশি সময় থেকে জেলার আদমদীঘি উপজেলার পাইলট বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজের শিক্ষার্থীরা ভাষা শহিদদের স্মরণে পায়ে হেঁটে  প্রায় দেড় মাইল দূরে উপজেলা সদরের শহিদ বেদীতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান। একইভাবে বগুড়ার কাহালু উপজেলার পাঁচপীর মাজার বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা প্রায় এক কিলোমিটার দূরের অপর একটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শহিদ বেদীতে ফুল দিয়ে ভাষা শহিদদের স্মরণ করেন।

শুধু এই তিনটি বিদ্যালয়ই নয়, ভাষা আন্দোলনের ৭২ বছর পরও বগুড়ার অধিকাংশ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানেই এখনও নির্মাণ করা হয়নি শহিদ মিনার। যেসব প্রতিষ্ঠানে শহিদ মিনার নেই ভাষা দিবস এলেই ওই প্রতিষ্ঠানগুলোর কলাগাছ কিংবা বাঁশ-কাঠ দিয়ে অস্থায়ীভাবে শহিদ মিনার তৈরি করে শহিদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে হয়।

আবার কোনো কোনো প্রতিষ্ঠানে শুধু পতাকা উত্তোলন করে বিশেষ দিবস পালন করা হয়। ফলে শিক্ষার্থীরা বঞ্চিত হচ্ছে দেশপ্রেম ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনার শিক্ষা অর্জনে। জাতীয় দিবসের গুরুত্ব ও শহিদদের সম্পর্কেও জানতে পারছে না তারা। বাংলা ভাষাকে রাষ্ট্রভাষা করার দাবিতে ৫২'র রাজপথ রক্তে ভিজিয়ে ছিলেন আমাদের পূর্ব-পুরুষেরা।

তাদের আত্মত্যাগের ফসল আজকের এই বাংলা ভাষা। পৃথিবীর ইতিহাসে একমাত্র বাঙালিরাই ভাষার জন্যে জীবন দিয়েছে, রক্ত দিয়েছে। বাঙালীদের সাথে সাথে সারা বিশ্ব ২১ ফেব্রুয়ারিকে পালন করেন আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস হিসেবে।

১৯৫২ সালে ভাষা আন্দোলনের বীর শহিদদের আত্মত্যাগকে শ্রদ্ধা জানাতে তৈরী করা হয়েছিলো শহিদ মিনার। সরকারী নির্দেশনায় প্রতিটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শহীদ মিনার থাকার কথা থাকলেও জেলার শিক্ষা দপ্তরগুলোর তথ্য অনুযায়ী জেলায় প্রাথমিক, নিম্ন মাধ্যমিক, মাধ্যমিক, কলেজ, মাদ্রাসা ও কারিগরী সরকারি-বেসরকারি সব মিলে ২ হাজার ৭৩০টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান রয়েছে।

এরমধ্যে প্রায় সাড়ে ৮শ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে এখনও শহিদ মিনার নির্মাণ করা হয়নি। প্রাথমিকে ১ হাজার ৬৫৩টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের মধ্যে ১ হাজার ৫৫২টি বিদ্যালয়ে শহিদ মিনার রয়েছে বলে জেলার প্রাথমিক শিক্ষা দপ্তর দাবি করছে।

মাত্র ৭২টিতে নেই বলে তারা জানিয়েছে। অপরদিকে সরকারি-বেসরকারি সব মিলে জেলায় নিম্ন মাধ্যমিক, মাধ্যমিক, স্কুল এন্ড কলেজ, কলেজ, স্নাতক পর্যায়ের কলেজ, মাদ্রাসা ও কারিগরী শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ১ হাজার ৭৭টি রয়েছে। এরমধ্যে মাত্র ৩১০টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শহিদ মিনার রয়েছে, ৭৬৭টি প্রতিষ্ঠানে নেই বলে জানিয়েছে জেলা শিক্ষা দপ্তর।

আদমদীঘি উপজেলার পাইলট বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজের অধ্যক্ষ আব্দুস সালাম তালুকদার জানান, ১৯৬৯ সালে প্রতিষ্ঠানটি স্থাপন হয়। অর্ধ শতাধিক বছর পেরিয়ে গেলেও এখন পর্যন্ত বিদ্যালয়ে শহিদ মিনার নির্মাণ করা হয়নি। বর্তমানে প্রতিষ্ঠানে প্রায় দেড় হাজার শিক্ষার্থী রয়েছে। ভাষা দিবসসহ বিশেষ দিবসগুলোতে প্রায় দেড় কিলো দূরে উপজেলা সদরের শহিদ মিনারে গিয়ে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানানো হয়।

তিনি জানান, প্রতিষ্ঠানটিতে শহিদ মিনার নির্মাণের জন্য একাধিকবার স্থানীয় জনপ্রতিনিধিসহ সরকারি কর্মকর্তাদের অবগত করা হয়েছে। তারাও বারবার নির্মাণের আশ্বাস দিলেও এখন পর্যন্ত কার্যকর হয়নি। সারিয়াকান্দি উপজেলার কর্ণিবাড়ী ইউনিয়নের শোনপচা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ রবিউল ইসলাম জানান, ১৯৯৪ সালে ওই বিদ্যালয়টি প্রতিষ্ঠিত হয়।

প্রতিষ্ঠার ৩০ বছরেও ওই বিদ্যালয়ে শহীদ মিনার নির্মাণ করা হয়নি। অথচ বর্তমানে ওই বিদ্যালয়ে ৪৫৩জন শিক্ষার্থী রয়েছে। ভাষা দিবসসহ বিভিন্ন বিশেষ দিবসে কলাগাছ দিয়ে শহীদ মিনার নির্মাণ করে শহিদদের শ্রদ্ধা জানানো হয়। প্রায় ৯০ বছর আগে প্রতিষ্ঠিত হওয়া বগুড়া শহরের অভিজাত এলাকায় গড়ে ওঠা ইয়াকুবিয়া বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে আজ অব্দি নির্মাণ করা হয়নি শহিদ মিনার।

ভাষা দিবসসহ বিশেষ দিবসগুলোতে ওই বিদ্যালয় জেলা প্রশাসনের সাথে মিলিত হয়ে দিবসগুলো পালন করে বলে স্কুলের প্রধান শিক্ষক মোঃ শাহাদৎ হোসেন জানান। তিনি বলেন, স্কুলে শহিদ মিনার নির্মাণের জন্য ইতোমধ্যে নক্শার কাজ শুরু করা হয়েছে, আশা করা যাচ্ছে আগামি বছর ভাষা শহিদ দিবসের আগেই শহিদ মিনার নির্মাণ হবে।

এদিকে খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, শহিদ মিনার বিষয়ে শিক্ষা দপ্তরগুলোর পাঠানো তথ্যের সাথে বাস্তবের তেমন মিল নেই।

সম্প্রতি জেলা প্রশাসনের কার্যালয়ে শহিদ দিবস পালনের প্রস্তুতি সভায় জেলার শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে শহিদ মিনার বিষয়ক তথ্য শিক্ষা কর্মকর্তাদের কাছে জানতে চাওয়া হলে জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা তাৎক্ষণিকভাবে জেলা সার্বিক তথ্য দিলেও জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা সে সময় কোন তথ্যই দিতে পারেননি। পরে তড়িঘড়ি করে এই যে তথ্য জেলা প্রশাসকের দফতরে পাঠিয়েছেন, তার সাথে বাস্তবতার গড়মিল খুঁজে পাওয়া গেছে।

জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা মোঃ হজরত আলী জানান, যেসব প্রতিষ্ঠানে শহিদ মিনার নেই সেইসব প্রতিষ্ঠানকে শহিদ মিনার নির্মাণের জন্য চিঠি দেওয়া হয়েছে। শহিদ মিনার নির্মাণে খুব বেশি অর্থের প্রয়োজন হয় না, আন্তরিকতাটাই বড়। প্রতিষ্ঠান প্রধান, ম্যানেজিং কমিটি এবং স্থানীয় গণ্যমান্য বা ধনাঢ্য ব্যক্তিরা যদি একটু আন্তরিক হন তবে অবশ্যই প্রতিটি প্রতিষ্ঠানেই শহিদ মিনার নির্মিত হবে। তবে তারা তা না করে জেলা শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তরের বরাদ্দের অপেক্ষায় থাকেন , যা সত্যি দুঃখজনক।

নিউজ ট্যাগ: শহিদ মিনার

আরও খবর
ঝিনাইদহ জেলা কারাগারে কয়েদির মৃত্যু

সোমবার ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪