আজঃ বুধবার ২৫ মে ২০২২
শিরোনাম

পাড়াগাঁয়ে ব্যতিক্রমী এক বিদ্যাপীঠ

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১২ মে ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১২ মে ২০২২ | ৩৮০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

প্রথমে দেখে মনে হবে এটি কোনো জমিদারের বাড়ি বা অভিজাত রিসোর্ট। বাংলাদেশে এমন দৃষ্টিনন্দন বিদ্যাপিঠ তেমন দেখা যায় না। যেখানে ব্যতিক্রম পরিবেশে শিক্ষা দেওয়া হয়। ঠাকুরগাঁওয়ের হরিপুর উপজেলার বকুয়া ইউনিয়নের চরভিটা গ্রামে অবস্থিত ব্যতিক্রম এ বিদ্যাপিঠ। নাম চরভিটা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়। এখানে ছাত্র-ছাত্রীদের আধুনিক সৃজনশীল পদ্ধতিতে পাঠদান করা হয়।

ভারত সংলগ্ন বর্ডারের প্রায় দুই কিলোমিটার আগে দেখা মিলল দৃষ্টিনন্দন একটি বিদ্যাপিঠের। সূর্যের আলোয় বিদ্যাপিঠটি ঝলমল করছে। রাতের জন্য রয়েছে ল্যাম্পশেডও। ২০০১ সালে এরফান আলীর (প্রধান শিক্ষক) বাবা নুরুল ইসলাম নিজ জমিতে স্কুলটি প্রতিষ্ঠা করেন। ২০১৩ সালে প্রাথমিক বিদ্যালয়টির সরকারিকরণ করা হয়।

সরেজমিনে দেখা যায়, বিদ্যালয় ভবনের চারপাশ খোলামেলা। শ্রেণিকক্ষসহ বিদ্যালয়ের সবকিছুই রঙিন প্রচ্ছদে ঢাকা। বালক-বালিকাদের জন্য রয়েছে আলাদা আলাদা শৌচাগার, খেলাধুলার জন্য রয়েছে নানান ধরনের সরঞ্জাম। বিদ্যালয়টিতে রয়েছে কারুকার্যখচিত, সুসজ্জিত নান্দনিক ভবন। দ্বিতল ভবনের ছাদে দেওয়া হয়েছে বিদ্যালয়ের নিজ অর্থায়নে কম্পিউটার ল্যাব। ভবনের উত্তরে হাঁস-মুরগির খামার ও বেগম ফজিলাতুন নেছা মুজিব লাইব্রেরি এবং পশ্চিম পাশে রয়েছে সিসি ক্যামেরায় মনিটরিং রুম, সততা ক্যান্টিন, মসজিদ, মাছ চাষের পুকুর।

শিক্ষার্থীদের বিনোদনের জন্য রয়েছে শিশুপার্ক ও মিনি চিড়িয়াখানা। খেলার মাঠের এক পাশে আছে দোলনা, গরুর গাড়ি। পুকুরে নৌকা। দেয়ালে আঁকা রয়েছে স্বাধীনতার মহান পুরুষ ও শহীদদের প্রতিকৃতি, কবি-সাহিত্যিকদের ছবি। এ ছাড়া রয়েছে বিভিন্ন প্রাণীর ছবি। মাটিতে ফুলের গাছ দিয়ে বানানো হয়েছে ত্রিভুজ, চতুর্ভুজ ও বৃত্ত। চরভিটা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের নিজ জমিতে সবজি চাষ করা হয়। তাদের ফলানো সবজি ব্যবহার হয় মিড-ডে মিলে। তা ছাড়া, বিনামূল্যে শেখানো হয় কম্পিউটার, আবৃত্তি, অভিনয়। ভারতের সীমান্তঘেঁষা এ স্কুলে প্রাক-প্রাথমিক থেকে পঞ্চম শ্রেণি পর্যন্ত পড়ানো হয়। শিক্ষার্থী সংখ্যা প্রায় ৩৫০। চারজন শিক্ষক ও তিনজন প্যারাশিক্ষক রয়েছেন।

শিক্ষার্থীরা জানায়, বিদ্যালয়ে লেখাপড়ার ফাঁকে তারা প্রতিদিন একদল খাবার দেয় হাঁস-মুরগিকে, অন্য দল সবজি বাগানের পরিচর্যা করে। এ কাজ করতে ওদের ভালো লাগে। স্কুলের খাবার খেয়ে তারা এখন নিশ্চিন্তে পড়ালেখা করতে পারছে। সমাপনী পরীক্ষার পর স্কুল ছেড়ে চলে যাবে কেউ কেউ। স্কুলের জন্য ভালো কিছু একটা করে যেতে পারলে নিজেরও ভালো লাগবে।

অভিভাবকরা জানান, এখন বাচ্চারা বাড়ির খাবারের থেকে মিড-ডে মিল খেতে বেশি আগ্রহী। ছেলে-মেয়েরা যে চাষাবাদ ও অনেক কিছু শিখছে, তাতে তারা খুশি।

চরভিটা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক এরফান আলী বলেন, অভাব-অনটনের কারণে অনেক শিক্ষার্থী বিদ্যালয়ে খুব একটা হাজির হতো না। ২০১৩ সালে বিদ্যালয়ে ১৫০ শিক্ষার্থী ছিল, কিন্তু প্রতিদিন হাজির থাকত ৬০ থেকে ৭০ জন। শিক্ষার্থীদের বিদ্যালয়মুখী করা এবং ঝরে পড়া রোধে বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটি ও অভিভাবকদের নিয়ে মতবিনিময় সভা করে পড়ালেখায় শিক্ষার্থীদের মনোযোগ ধরে রাখতে বিদ্যালয়ে মিড ডে মিল চালুর ব্যবস্থা করি। প্রতি মাসে ৩০ থেকে ৪০ হাজার টাকা খরচ হয়। এ উদ্যোগ চালু রাখতে বিদ্যালয়ের ব্যবস্থাপনা কমিটির সভাপতি নুরুল ইসলাম নিজের ৬ বিঘার একটি পুকুর ও ২ বিঘা জমি বিদ্যালয়কে ব্যবহার করতে দিয়েছেন। এ ছাড়া তিনি প্রতি মাসের লবণ ও তেলের জোগান দেন। সেই পুকুরেই চলছে মাছ চাষ, হাঁস-মুরগির খামার, জমিতে সবজি। মিড ডে মিল চালু করায় স্কুলে শিক্ষার্থী বাড়ছে, সেই সুবাদে তিনি মনে করেন তার স্কুল এখন সেরা।

হরিপুর উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা আজিজার রহমান বলেন, চরভিটা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় হরিপুর উপজেলার অন্যতম একটি বিদ্যালয়। এখানে শিক্ষার্থীদের মনোযোগ আকর্ষণের জন্য সৃজনশীল অনেক কিছু জিনিস আছে যা শিক্ষার্থীদের মনকে দোলা দেয়। বিদ্যালয়টি দিন দিন উত্তরোত্তর বৃদ্ধি পাচ্ছে, এলাকাবাসী সম্পৃক্ত হচ্ছে।


আরও খবর



প্রেসিডেন্টের মৃত্যুতে আমিরাতে ৪০ দিনের শোক ঘোষণা

প্রকাশিত:শুক্রবার ১৩ মে ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ১৩ মে ২০২২ | ৫০৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

সংযুক্ত আরব আমিরাতের প্রেসিডেন্ট ও আবুধাবির শাসক শেখ খলিফা বিন জায়েদ আল নাহিয়ানের মৃত্যুতে দেশটিতে ৪০ দিনের শোক ঘোষণা করা হয়েছে। আজ থেকে পতাকা অর্ধনমিত রেখে এই শোক পালন করা হবে।

সেইসঙ্গে শনিবার থেকে দেশটির সরকারি-বেসরকারি সব প্রতিষ্ঠান তিন কার্যদিবস বন্ধ থাকবে। আমিরাতের প্রেসিডেনশিয়াল অ্যাফেয়ার্স মন্ত্রণালয় এই ঘোষণা দিয়েছে।

আমিরারের রাষ্ট্রীয় সংবাদ সংস্থার (ওয়াম) বরাতে এই খবর দিয়েছে আরব নিউজ ও খালিজ টাইমস।

আজ শুক্রবার ৭৩ বছর বয়সে মারা যান সংযুক্ত আরব আমিরাতের প্রেসিডেন্ট ও আবুধাবির শাসক শেখ খলিফা বিন জায়েদ আল নাহিয়ান।


আরও খবর



অভিজ্ঞতা ছাড়াই জনবল নিয়োগ দেবে এসিআই

প্রকাশিত:শনিবার ০৭ মে ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০৭ মে ২০২২ | ৩৪৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

অ্যাডভান্সড কেমিক্যাল ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডে (এসিআই) ফিল্ড মার্কেটিং এক্সিকিউটিভ’ পদে জনবল নিয়োগ দেওয়া হবে। আগ্রহীরা নির্ধারিত সময়ে সাক্ষাৎকারে অংশগ্রহণ করতে পারবেন।

প্রতিষ্ঠানের নাম: অ্যাডভান্সড কেমিক্যাল ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড (এসিআই)

পদের নাম: ফিল্ড মার্কেটিং এক্সিকিউটিভ

পদসংখ্যা: নির্ধারিত নয়

শিক্ষাগত যোগ্যতা: স্নাতক

অভিজ্ঞতা: প্রযোজ্য নয়

বেতন: আলোচনা সাপেক্ষে

চাকরির ধরন: ফুল টাইম

প্রার্থীর ধরন: নারী-পুরুষ

বয়স: ৩২ বছর

কর্মস্থল: যে কোনো স্থান

সাক্ষাৎকারের সময়সূচি:


নিউজ ট্যাগ: চাকরির খবর

আরও খবর



রাণীশংকৈলে পৃথক সড়ক দুর্ঘটনা, নিহত ২

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১২ মে ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১২ মে ২০২২ | ৩৬৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

হুমায়ুন কবির, রাণীশংকৈল (ঠাকুরগাঁও):

ঠাকুরগাঁওয়ের রাণীশংকৈল উপজেলায় বৃহস্পতিবার ১২ মে পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় দু'জনের মৃত্যু খবর পাওয়া গেছে। উপজেলার নেকমরদ-কাতিহার পাকাসড়কে ফুটানি টাউনের পাশে গোগরা ব্রিজে বাইসাইকেল আরোহী বিশাল রায় (১০) একটি ট্রাক্টরের সাথে সংঘর্ষে মারা যায়। বিশাল বাচোর ইউনিয়নের ডাংডাং পাড়া গ্রামের হরেণ রায়ের ছেলে।

থানা ও পারিবারিক সুত্রে জানা গেছে, বৃহস্পতিবার ১২ মে  দুপুর ১২টার দিকে বিশাল গোগরা ব্রিজের পশ্চিম দিক থেকে বাইসাইকেলে আসছিল। এ সময় পিছন থেকে আসা ইট বোঝাই একটি  ট্রাক্টর তাকে ধাক্কা দেয়। গুরুতর আহত বিশালকে নেকমরদে চিকিৎসার জন্য নিয়ে যাওয়ার পথে সে মারা যায়।

অপরদিকে নন্দুয়ার ইউনিয়নের ভন্ডগ্রাম গ্রামের গোলাম মোস্তফার ছেলে সাকিব (২২) গতকাল বুধবার  রাত ১০ টার দিকে রাণীশংকৈল থেকে বাড়ি ফেরার পথে সড়ক দুর্ঘটনার শিকার হয়। পথচারি তাকে রাস্তায় পড়ে থাকা অবস্থায় দেখতে পেয়ে তার বাসায় খবর দেয়। খবর পেয়ে পরিবারের লোকজন  তাকে উদ্ধার করে রাণীশংকৈল স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসে।রোগির শারীরিক অবস্থা আশঙ্কাজনক দেখে কর্মরত ডাক্তার তাকে দিনাজপুর জিয়া হার্ড ফাউন্ডেশনে রেফার্ড করেন। বৃহস্পতিবার  ১২ মে বিকেলে সেখানে সাকিব মারা যায়।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে রাণীশংকৈল থানার ওসি এস এম জাহিদ ইকবাল বলেন,বাচোর ইউনিয়নে সড়ক দুর্ঘটনার খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। পরিবারের পক্ষ থেকে কোন অভিযোগ না থাকায় মরদেহ সৎকারের জন্য বলা হয়েছে।  অপর সড়ক দুর্ঘটনায় বিষয়ে এখন পর্যন্ত কোনো খবর পাওয়া যায় নি মর্মে ওসি জানান।


আরও খবর



সহিংসতার মধ্যেও শ্রীলঙ্কায় যেতে চায় অস্ট্রেলিয়া

প্রকাশিত:বুধবার ১১ মে ২০২২ | হালনাগাদ:বুধবার ১১ মে ২০২২ | ৩৯০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

শ্রীলঙ্কায় চলমান সহিংসতায় নিবিড় পর্যবেক্ষণ শুরু করেছে অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট বোর্ড। তবে এই সহিংসতার মধ্যেও শ্রীলঙ্কা সফরের ব্যাপারে পূর্ণ আশাবাদী তারা। ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার বিশ্বাস, পূর্ব নির্ধারিত সূচিতেই হবে তাদের শ্রীলঙ্কা সফর। সোমবার (৯ মে) রাতে বিক্ষোভকারীদের হামলার পর পদত্যাগ করেছেন শ্রীলঙ্কার প্রধানমন্ত্রী মাহিন্দা রাজাপাকশে। গত কয়েক মাস ধরেই অর্থনৈতিক মন্দার কারণে অস্থির অবস্থা বিরাজ করছে শ্রীলঙ্কায়। এরই মধ্যে নিজেদের দেউলিয়া ঘোষণা করেছে তারা।

রাজাপাকশের পদত্যাগের পর সরকারি সমর্থকরা বিক্ষোভকারীদের ওপর পাল্টা হামলা করেন। যার ফলে সারা দেশে কারফিউ জারি করে রাজধানী কলম্বোয় আর্মি মোতায়েন করা হয়েছে। স্থানীয় সংবাদমাধ্যম জানাচ্ছে, এই সহিংসতায় এরই মধ্যে চারজনের প্রাণহানি ঘটেছে। এমতাবস্থায় স্বাভাবিকভাবেই প্রশ্ন জাগে, অস্ট্রেলিয়া দল সফরের জন্য রাজি হবে তো? কেননা এর আগে নিরাপত্তার কারণে ২০১৬ সালে বাংলাদেশ সফরসহ বেশ কয়েকটি ভিন্ন সফর বাতিল ও স্থগিতের নজির রয়েছে তাদের।

তবে এবার ভিন্ন অবস্থানে অসিরা। শ্রীলঙ্কায় এখন সহিংসতা চললেও, সফরের ব্যাপারে আশাবাদী তারা। আগামী ৭ জুন থেকে ১২ জুলাই পর্যন্ত শ্রীলঙ্কায় তিন টি-টোয়েন্টি, পাঁচ ওয়ানডে ও দুই টেস্ট খেলার কথা রয়েছে অসিদের। শ্রীলঙ্কা সফরের জন্য এরই মধ্যে ভিন্ন সিরিজের জন্য ভিন্ন ভিন্ন শক্তিশালী স্কোয়াড ঘোষণা করেছে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া। এই সফরে কলম্বোয় ১৬ দিন থাকতে হবে অস্ট্রেলিয়া দলকে। আর মূলত কলম্বোতেই চলছে মূল সহিংসতা। তবু সফরের ব্যাপারে আশাবাদী বোর্ডের কর্মকর্তারা।

অস্ট্রেলিয়ার ক্রিকেটভিত্তিক সংবাদমাধ্যম ক্রিকেটডটকমডটএইউ তাদের প্রতিবেদনে জানাচ্ছে, গত মাসে অর্থনৈতিক অস্থিরতার মাঝেই শ্রীলঙ্কা সফর করেছিলেন বোর্ডের নিরাপত্তা প্রধান স্টুয়ার্ট বেইলি। তার কাছে শ্রীলঙ্কাকে সফরের জন্য নিরাপদই মনে হয়েছে। তবে এখন নতুন করে সহিংসতা শুরু হওয়ায় শ্রীলঙ্কার পরিস্থিতি নিবিড় পর্যবেক্ষণে রাখবে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া। যাতে যেকোনো জরুরি পরিস্থিতি সামনে এলে দ্রুত সিদ্ধান্ত নিতে পারে তারা। তাই এ সফরের ব্যাপারে অস্ট্রেলিয়া আশাবাদী হলেও, একপ্রকার অনিশ্চয়তা থেকেই যাচ্ছে।

শ্রীলঙ্কা সফরে অস্ট্রেলিয়ার টি-টোয়েন্টি স্কোয়াড: অ্যারন ফিঞ্চ (অধিনায়ক), শন অ্যাবট, অ্যাশটন অ্যাগার, জশ হ্যাজলউড, জশ ইংলিস (উইকেটরক্ষক), মিচেল মার্শ, গ্লেন ম্যাক্সওয়েল, ঝাই রিচার্ডসন, কেইন রিচার্ডসন, স্টিভেন স্মিথ, মিচেল স্টার্ক, মার্কাস স্টয়নিস, মিচেল সুয়েপসন, ডেভিড ওয়ার্নার ও ম্যাথু ওয়েড (উইকেটরক্ষক)।

শ্রীলঙ্কা সফরে অস্ট্রেলিয়ার ওয়ানডে স্কোয়াড: অ্যারন ফিঞ্চ (অধিনায়ক), অ্যাশটন অ্যাগার, অ্যালেক্স ক্যারে (উইকেটরক্ষক), প্যাট কামিন্স, ক্যামেরন গ্রিন, জশ হ্যাজলউড, ট্রাভিস হেড, জশ ইংলিস (উইকেটরক্ষক), মার্নাস লাবুশেন, মিচেল মার্শ, গ্লেন ম্যাক্সওয়েল, স্টিভেন স্মিথ, মিচেল স্টার্ক, মার্কাস স্টয়নিস, মিচেল সুয়েপসন ও ডেভিড ওয়ার্নার।

শ্রীলঙ্কা সফরে অস্ট্রেলিয়ার টেস্ট স্কোয়াড: প্যাট কামিন্স (অধিনায়ক), অ্যাশটন অ্যাগার, স্কট বোল্যান্ড, অ্যালেক্স ক্যারে, ক্যামেরন গ্রিন, জশ হ্যাজলউড, ট্রাভিস হেড, জশ ইংলিস (উইকেটরক্ষক), উসমান খাজা, মার্নাস লাবুশেন, নাথান লিয়ন, মিচেল মার্শ, স্টিভেন স্মিথ (সহ-অধিনায়ক), মিচেল স্টার্ক, মিচেল সুয়েপসন ও ডেভিড ওয়ার্নার।


আরও খবর



৩০০ আসনে ইভিএমে ভোট করার সক্ষমতা নেই: ইসি

প্রকাশিত:সোমবার ০৯ মে ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ০৯ মে ২০২২ | ৩৯০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

নির্বাচন কমিশনার (ইসি) মো. আলমগীর বলেছেন, আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচনে রাজনৈতিক দলগুলোর আস্থা অর্জন করতে পারলে ১০০ আসনে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন (ইভিএম) ব্যবহার করা সম্ভব। তবে, ৩০০ আসনে ইভিএম ব্যবহার করার সক্ষমতা ইসির নেই।

সোমবার (৯ মে) নির্বাচন কমিশন সচিবালয়ে নিজ কার্যালয়ে সাংবাদিকদের এ কথা বলেন তিনি।

কমিশনার বলেন, ইভিএম নিয়ে আমাদের মধ্যে কোনো আলোচনা হয়নি। আমাদের এখন যে ইভিএম আছে তাতে সর্বোচ্চ ১০০ থেকে ১৩০ আসনে ভালোভাবে ভোট করতে পারবো। এর চেয়ে বেশি আসনে ইভিএমে ভোট করা সম্ভব না।

তিনি বলেন, সংলাপে ইভিএমের পক্ষে-বিপক্ষে অনেকেই মতামত দিয়েছেন। আমরা এগুলো পর্যালোচনা করছি। পাশের দেশ ভারতে সম্পূর্ণ নির্বাচন ইভিএমে হয়। তারা কীভাবে সফল হলো? তারা নিশ্চয়ই একটা সিস্টেমের মাধ্যমে সফল হয়েছে। ওগুলোই আমরা স্টাডি করছি। তারা যেগুলো করেছে, আমরা সেগুলো এখানে করতে পারি কিনা সেটা দেখা হচ্ছে। পাশাপাশি আইনানুযায়ীও পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে দেখা হচ্ছে। ভারত যেমন অবিশ্বাসের জায়গা থেকে বিশ্বাসের জায়গায় এসেছে আমরাও সেভাবে চেষ্টা করবো। তাহলে সবার কাছে ইভিএম গ্রহণযোগ্য হবে বলে আশা ব্যক্ত করেন তিনি।

এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, একটি রাজনৈতিক দলের দলীয় সভায় ৩০০ আসনে ইভিএমে ভোট করার বিষয়ে আলোচনা হয়েছে। ইভিএম নিয়ে তারা কমিশনের কাছে প্রস্তাব দেবে। তবে এখনো আমাদের কাছে এ ধরনের কোনো ফরমাল বা ইনফরমাল প্রস্তাব আসেনি। তারা প্রস্তাব দিলেও চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত কমিশন দেবে। তবে বলে রাখা ভালো সরকারের পক্ষ থেকে এ ধরনের প্রস্তাব আসার কোনো সুযোগ নেই। সব রাজনৈতিক দলের প্রতিনিধিদের নিয়ে ইভিএম ব্যবহারের বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।


আরও খবর