আজঃ রবিবার ০৫ ডিসেম্বর ২০২১
শিরোনাম

অভিনয় থেকে বিরতি নিয়েছেন ক্যাটরিনা

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২৩ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২৩ নভেম্বর ২০২১ | ৬৮০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

কদিন পরই বিয়ের পিঁড়িতে বসতে যাচ্ছেন বলিউড সেনসেশন ক্যাটরিনা কাইফ ও অভিনেতা ভিকি কৌশল। এ খবর এখন ভারতজুড়ে টক অব দ্য টাউন।  ভারতীয় গণমাধ্যমের খবরে তাদের বিয়ের প্রস্তুতির সব আপডেট জানানো হচ্ছে।  ডিসেম্বরে বিয়ে সামনে রেখে অভিনয় থেকে বিরতি নিয়েছেন ক্যাটরিনা। টাইমস অব ইন্ডিয়ার বরাত দিয়ে এ খবর দিয়েছে ভারতের বিনোদনভিত্তিক ওয়েবসাইট বলিউড হাঙ্গামা।

সম্প্রতি রিলিজ পাওয়া সুরাইয়াভানশি ছবি দিয়ে প্রশংসায় ভাসছেন ক্যাট। যেটি বক্স অফিসে তোলপাড় সৃষ্টি করেছে।

চলচ্চিত্রটি মুক্তির পর ফুরফুরে মেজাজে থাকা ক্যাটরিনা কাজ থেকে এক মাস বিরতি নিয়েছেন। মূলত ডিসেম্বরে বিয়ের প্রস্তুতির কথা মাথায় রেখেই নায়িকা এ বিরতি নিয়েছেন বলে খবর।

ভিকি-ক্যাটরিনা এখন তাদের বিয়ের সাজসজ্জা নিয়ে ব্যস্ত। জুলুতে নতুন অ্যাপার্টমেন্ট ভাড়া করেছেন।  বিয়ের পর নাকি সেখানেই উঠবেন তারা।


আরও খবর



করোনায় আরও ৪ জনের প্রাণহানি

প্রকাশিত:রবিবার ১৪ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ১৪ নভেম্বর ২০২১ | ৫৪০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় আরও ৪ জনের মৃত্যু হয়েছে। গতকাল (শনিবার) মৃত্যু হয়েছিল ৬ জনের। এ পর্যন্ত দেশে করোনায় ২৭ হাজার ৯২২ জন প্রাণ হারালেন। রোববার স্বাস্থ্য অধিদপ্তর থেকে পাঠানো করোনাবিষয়ক নিয়মিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে। বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে করোনা শনাক্ত হয়েছে ২২৩ জনের। এ নিয়ে মোট শনাক্ত রোগীর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১৫ লাখ ৭২ হাজার ৫০১ জনে।

গত ২৪ ঘন্টায় ১৮ হাজার ৫১৭টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়। পরীক্ষার বিপরীতে শনাক্তের হার ১ দশমিক ১৪ শতাংশ। গত ২৪ ঘন্টায় সুস্থ হয়েছেন ২১২ জন। এখন পর্যন্ত মোট সুস্থ হয়েছেন ১৫ লাখ ৩৬ হাজার ৫১৫ জন।

দেশে করোনাভাইরাসের প্রথম সংক্রমণ ধরা পড়েছিল গত বছরের ৮ মার্চ। প্রথম রোগী শনাক্তের ১০ দিন পর গত বছরের ১৮ মার্চ দেশে প্রথম মৃত্যুর তথ্য নিশ্চিত করে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর। সেই বছর সর্বোচ্চ মৃত্যু হয়েছিল ৬৪ জনের।

ডেল্টা ভ্যারিয়েন্ট ছড়িয়ে পড়ায় চলতি বছর জুন থেকে রোগীর সংখ্যা হু-হু করে বাড়তে থাকে। ২৮ জুলাই একদিনে সর্বোচ্চ ১৬ হাজার ২৩০ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছিল।

চলতি বছরের গত ৭ জুলাই প্রথমবারের মতো দেশে করোনায় মৃতের সংখ্যা ২০০ ছাড়িয়ে যায়। এর মধ্যে ৫ ও ১০ আগস্ট ২৬৪ জন করে মৃত্যু হয়, যা মহামারির মধ্যে একদিনে সর্বোচ্চ মৃত্যু।

বেশকিছু দিন ২ শতাধিক মৃত্যু হয়। এরপর গত ১৩ আগস্ট মৃত্যুর সংখ্যা ২০০ এর নিচে নামা শুরু করে। দীর্ঘদিন শতাধিক থাকার পর গত ২৮ আগস্ট মৃত্যু ১০০ এর নিচে নেমে আসে।


আরও খবর



ডিজিটাল আইনে রফিকুল মাদানীর বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র গ্রহণ

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ৩০ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ৩০ নভেম্বর ২০২১ | ২৮৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image
আদালতের সরকারি কোঁসুলি নজরুল ইসলাম শামীম বিষয়টি গণমাধ্যমকে নিশ্চিত করে বলেন, আজ আসামির উপস্থিতিতে অভিযোগপত্র গ্রহণ করেছেন বিচারক

ইসলামি বক্তা রফিকুল ইসলাম মাদানীর বিরুদ্ধে গাজীপুরের গাছা থানায় র‍্যাবের দায়ের করা ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলায় অভিযোগপত্র গ্রহণ করেছেন আদালত। আজ মঙ্গলবার ঢাকার সাইবার ট্রাইব্যুনালের বিচারক আসসামছ জগলুল হোসেন এই অভিযোগপত্র গ্রহণ করেন।

আদালতের সরকারি কোঁসুলি নজরুল ইসলাম শামীম বিষয়টি গণমাধ্যমকে নিশ্চিত করে বলেন, আজ আসামির উপস্থিতিতে অভিযোগপত্র গ্রহণ করেছেন বিচারক। একই সঙ্গে আগামী ৯ জানুয়ারি অভিযোগ গঠনের শুনানির তারিখ নির্ধারণ করেছেন আদালত।

নথি থেকে জানা গেছে, গত ১১ এপ্রিল রফিকুল ইসলাম মাদানীর বিরুদ্ধে স্থানীয় টেকনগরপাড়া এলাকার বাসিন্দা যুবলীগ কর্মী মোস্তাফিজুর রহমান বাসন থানায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলাটি করেন। এ মামলায় ১৮ এপ্রিল পুলিশ আদালতে রফিকুল ইসলামের সাত দিনের রিমান্ড আবেদন করে। পরে তাঁর দুই দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন আদালত।

এর আগে গত ৭ এপ্রিল রফিকুল ইসলাম মাদানীকে রাষ্ট্রবিরোধী উস্কানিমূলক ও ঔদ্ধত্যপূর্ণ বক্তব্য এবং বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির অভিযোগে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব) নেত্রকোনার নিজ বাড়ি থেকে আটক করে। এ সময় তাঁর কাছ থেকে চারটি মোবাইল ফোন জব্দ করা হয়। তারপর র‌্যাবের ডিএডি আব্দুল খালেক বাদী হয়ে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে জিএমপির গাছা থানায় একটি মামলা করেন। ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে ২৫, ২৮ ও ৩১ ধারায় মামলা করা হয়েছে।

পরে ১৩ এপ্রিল সংবাদ সম্মেলনের (জিএমপি) উপপুলিশ কমিশনার মোহাম্মদ ইলতুৎমিশ জানান, রফিকুল ইসলাম মাদানীর মোবাইল জব্দ করে সেটি ফরেনসিক রিপোর্টের জন্য পাঠানো হয়। ফরেনসিক বিশেষজ্ঞরা উক্ত মোবাইল ফোনে আপত্তিকর অশ্লীল পর্নো দেখার প্রমাণ পেয়েছেন। তিনি নিয়মিত পর্নোগ্রাফি ভিডিও দেখাসহ রাষ্ট্রবিরোধী বিভিন্ন কার্যক্রম পরিচালনা করতেন। এ কারণে তাঁর বিরুদ্ধে করা মামলায় পর্নোগ্রাফি নিয়ন্ত্রণ আইনের ধারা যুক্ত করা হয়েছে।


আরও খবর



সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ১১ দশমিক ৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস

প্রকাশিত:রবিবার ২৮ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২৮ নভেম্বর ২০২১ | ৩২৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

আরও কমেছে তাপমাত্রা। দেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ১২ ডিগ্রি সেলসিয়াসের নিচে নেমে গেছে। তবে আগামী ২৪ ঘণ্টায় তাপমাত্রা কিছুটা বাড়তে পারে বলে পূর্বাভাস দিয়েছে আবহাওয়া অধিদপ্তর।

রবিবার (২৮ নভেম্বর) সকালে দেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ১১ দশমিক ৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস রেকর্ড করা হয়েছে শ্রীমঙ্গলে। এই শ্রীমঙ্গলেই গতকাল দেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ১২ দশমিক ৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

আবহাওয়াবিদ এ কে এম রুহুল কুদ্দুছ জানান, রবিবার সকাল ৯টা থেকে পরবর্তী ২৪ ঘণ্টায় অস্থায়ীভাবে আংশিক মেঘলা আকাশসহ সারাদেশের আবহাওয়া শুষ্ক থাকতে পারে। সকালের দিকে দেশের নদী অববাহিকার হালকা কুয়াশা পড়তে পারে।

এ সময়ে সারাদেশে রাতের তাপমাত্রা সামান্য বাড়তে এবং দিনের তাপমাত্রা প্রায় অপরিবর্তিত থাকতে পারে বলেও জানান এই আবহাওয়াবিদ।

দক্ষিণ আন্দামান সাগর এবং তৎসংলগ্ন এলাকায় একটি লঘুচাপ সৃষ্টি হতে পারে পারে বলেও পূর্বাভাস দিয়েছে আবহাওয়া অধিদপ্তর।

শনিবার দেশের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল টেকনাফে, সেখানে ৩২ দশমিক ২ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা রেকর্ড করেছে আবহাওয়া অধিদপ্তর।


আরও খবর



জিকে শামীমের মায়ের নামে গ্রেফতারি পরোয়ানা

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৬ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৬ নভেম্বর ২০২১ | ৫১৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

অবৈধ সম্পদ অর্জনের মামলায় যুবলীগের কথিত সমবায় বিষয়ক সম্পাদক, ঠিকাদার এস এম গোলাম কিবরিয়া শামীম ওরফে জিকে শামীমের মা আয়েশা আক্তারের নামে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেছেন আদালত।

মঙ্গলবার (১৬ নভেম্বর) ঢাকার মহানগর সিনিয়র স্পেশাল জজ কেএম ইমরুল কায়েশ এ আদেশ দেন।

এ দিন জিকে শামীম ও তার মা আয়েশা আক্তারের বিরুদ্ধে দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) দেওয়া চার্জশিট আমলে নেন আদালত। শুনানিকালে জিকে শামীমকে কারাগার থেকে আদালতে হাজির করা হয়।

তবে পলাতক থাকায় আয়েশা আক্তারের নামে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেন আদালত। আগামী ১৫ ডিসেম্বর গ্রেফতার সংক্রান্ত তামিল প্রতিবেদন দাখিলের দিন ধার্য করেছেন আদালত।

দুদকের কোর্ট ইন্সপেক্টর আমিনুল ইসলাম বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

২০১৯ সালের ২১ অক্টোবর জিকে শামীম ও তার মা আয়েশা আক্তারের বিরুদ্ধে ২৯৭ কোটি ৮ লাখ ৯৯ হাজার টাকার অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগে দুদকের সমন্বিত জেলা কার্যালয়-১ এ মামলা দায়ের করেন দুদকের উপপরিচালক মো. সালাহউদ্দিন। চলতি বছরের শুরুর দিকে তাদের দুজনকে অভিযুক্ত করে চার্জশিট দাখিল করা হয়।


আরও খবর



ফাইজারের কোভিড পিল ৮৯ শতাংশ কার্যকর

প্রকাশিত:শনিবার ০৬ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:শনিবার ০৬ নভেম্বর ২০২১ | ৪৭৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

কোভিড চিকিৎসার জন্যে যুক্তরাষ্ট্রের ওষুধ প্রস্তুতকারক প্রতিষ্ঠান ফাইজারের তৈরি পিল বা বড়ি করোনায় আক্রান্ত হয়ে গুরুতর অবস্থায় চলে যাওয়া বয়স্কদের মৃত্যু এবং হাসপাতালে ভর্তি হওয়া এড়াতে ৮৯ শতাংশ কার্যকরী বলে প্রমাণ মিলেছে। প্যাক্সলোভিড নামের ক্ষুদ্রাকৃতির পিলটি ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালে এমন কার্যকারিতা দেখিয়েছে। সংবাদমাধ্যম বিবিসির প্রতিবেদনে এসব তথ্য দেওয়া হয়েছে।

ফাইজার গতকাল শুক্রবার তাদের কোভিড পিলের ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালের তথ্য জানিয়েছে। প্রতিদিন দুই বারে তিনটি করে পিল টানা পাঁচদিন খাওয়ানো হয়েছে ট্রায়ালে। ভালো ফলাফল আসায় ট্রায়াল শেষ না করেই, তা স্থগিত রেখেছে বলে জানিয়েছে ফাইজার।

যা তথ্য পাওয়া গেছে, সেগুলো মার্কিন নিয়ন্ত্রণ সংস্থাগুলোতে জমা দেবেন বলে জানিয়েছেন ফাইজারের চেয়ারম্যান ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা অ্যালবার্ট বৌরলা। তিনি বলেছেন, পিলটি রোগীদের জীবন বাঁচাতে, কোভিড-১৯ সংক্রমণের তীব্রতা কমাতে এবং ১০ জনের মধ্যে নয় জনের হাসপাতালে ভর্তি ঠেকিয়ে দিতে সহায়তা করতে সক্ষম।

উপসর্গ দেখা দেওয়ার পরই রোগীকে ফাইজারের প্যাক্সলোভিড খাওয়ানোর কথা বলা হয়েছে।

ভাইরাসের বৃদ্ধির জন্য যে এনজাইম দরকার পড়ে, তা আটকে দেয় ফাইজারের পিল। এ কারণে একে প্রোটিজ ইনহিবিটর বলা হচ্ছে।

যুক্তরাজ্যের ওষুধ নিয়ন্ত্রক সংস্থাগুলো মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের অপর ওষুধ প্রস্তুতকারক কোম্পানি মার্ক সার্প অ্যান্ড ডোমের (এমএসডি) একই ধরনের ট্যাবলেটের অনুমোদন দেওয়ার পরদিনই ফাইজার তাদের ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালের তথ্য জানাল।

যুক্তরাজ্য ফাইজারের অনুমোদন না পাওয়া এই প্যাক্সলোভিডের আড়াই লাখ কোর্স এবং এমএসডির তৈরি মলনুপিরাভির ট্যাবলেটের চার লাখ ৮০ হাজার কোর্সের ক্রয়াদেশ দিয়েছে।

অন্যদিকে, মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনও জানিয়েছেন, তাঁর দেশ এরই মধ্যে লাখ লাখ কোভিড ট্যাবলেট মজুদ করেছে।

উচ্চ ঝুঁকিতে থাকা এক হাজার ২১৯ জন কোভিড রোগীকে প্যাক্সলোভিড দেওয়া হয়। এর মধ্যে শূন্য দশমিক ৮ শতাংশ রোগীকে হাসপাতালে নিতে হয়েছে। অন্যদিকে, একই অবস্থায় থাকা যেসব কোভিড রোগীদের ডামি পিল খাওয়ানো হয়েছিল, তাঁদের সাত শতাংশকে হাসপাতালে ভর্তি করতে হয়েছে।

ট্রায়ালে কোভিড উপসর্গ দেখা দেওয়ার তিন দিনের মধ্যেই রোগীদের পিল খাওয়ানো শুরু করা হয়েছে।

ডামি পিল খাওয়ানো রোগীদের সাত জন করোনায় মারা গেছেন। কিন্তু, আসল পিল খাওয়ানো রোগীদের কেউ মারা যাননি।

এ ছাড়া উপসর্গ দেখা দেওয়ার পাঁচ দিনের মধ্যে প্যাক্সলোভিডের মাধ্যমে চিকিৎসা শুরু করা রোগীদের এক শতাংশকে হাসপাতালে নিতে হয়েছে। তবে, তাঁদের মধ্যে কেউ মারা যাননি। আর ডামি পিল খাওয়ানোদের ৬ দশমিক ৭ শতাংশকে হাসপাতালে নিতে হয়েছে এবং তাঁদের মধ্যে ১০ জনের মৃত্যু হয়েছে।

তবে, ফাইজার কম ঝুঁকিপূর্ণ কোভিড রোগীদের বেলায় তাদের ট্যাবলেটের কার্যকারিতা নিয়েও গবেষণা করছে।

যুক্তরাজ্যের লিডস ইউনিভার্সিটির স্কুল অব মেডিসিনের সহযোগী অধ্যাপক ড. স্টিফেন গ্রিফিন বলেন, অ্যান্টিভাইরালের এসব সাফল্য সার্স-কোভ২-এর আক্রমণ প্রতিরোধে নতুন যুগের সূচনা করবে। গুরুতর অবস্থা নিয়ে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন কোভিড রোগীদের জন্য এটি ব্যাপক উপকারী উপাদান হিসেবে বিবেচিত হবে।


আরও খবর