আজঃ মঙ্গলবার ১৬ জুলাই ২০২৪
শিরোনাম

অর্থনৈতিক পুনরুদ্ধারে চাঙ্গা আন্তর্জাতিক পণ্যবাজার

প্রকাশিত:বুধবার ১৮ জানুয়ারী ২০২৩ | হালনাগাদ:বুধবার ১৮ জানুয়ারী ২০২৩ | অনলাইন সংস্করণ
অর্থ ও বাণিজ্য ডেস্ক

Image

লম্বা সময় ধরেই মূল্যস্ফীতি ও অর্থনৈতিক মন্দার উভয়সংকটে ছিল আন্তর্জাতিক পণ্যবাজার। বাণিজ্যে শ্লথগতির পাশাপাশি বাজারদরও ছিল নিম্নমুখী। তবে গত সপ্তাহে বাজারে চাঙ্গা ভাব পরিলক্ষিত হয়েছে। চীনের অর্থনীতিতে পুনরুদ্ধার ও যুক্তরাষ্ট্রে মূল্যস্ফীতি হ্রাস বাজারে স্বস্তি ফেরাচ্ছে বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।

গত সপ্তাহে তামা ও অপরিশোধিত জ্বালানি তেলের পারফরম্যান্স ছিল চমকপ্রদ। একই সময় স্বর্ণের দাম এক সপ্তাহের ব্যবধানে ২ দশমিক ৯ শতাংশ এবং রৌপ্যের দাম ১ দশমিক ৮ শতাংশ বেড়েছে।

যুক্তরাষ্ট্রে সংকোচনমুখী মুদ্রানীতি শিথিলের প্রত্যাশায় স্বর্ণের দাম বেড়েছে। আগামী মাসে ফেডারেল রিজার্ভ ৭৫ বেসিস পয়েন্টের বদলে ২৫ বেসিস পয়েন্টে সুদের হার বাড়াবে বলে ধারণা করা হচ্ছে। ঊর্ধ্বমুখী বাজার প্রবণতা গত সপ্তাহে ধাতব পণ্যের বাজারে আধিপত্য করেছে। বিশেষ করে তামার দাম রেকর্ড পরিমাণ বেড়েছে। গত সপ্তাহে প্রতি পাউন্ড লেনদেন হয়েছে ৪ ডলার ১৩ সেন্টে। গত জুনের পর এটিই সর্বোচ্চ দাম।

চীন মহামারী সংক্রান্ত কঠোর বিধিনিষেধ শিথিল করছে। আবাসন খাতে দেয়া হচ্ছে প্রণোদনা। এসব কারণে এক সপ্তাহের ব্যবধানে তামার দাম ৭ দশমিক ৯ শতাংশ বেড়েছে। অন্যদিকে, অ্যালুমিনিয়ামের দাম ১২ শতাংশ এবং দস্তার দাম ৯ দশমিক ৫ শতাংশ বেড়েছে।

বিশ্লেষকরা বলছেন, ফ্রান্সভিত্তিক অ্যালুমিনিয়াম বিগলন প্রতিষ্ঠান অ্যালুমিনিয়াম ডানকার্ক এরই মধ্যে পূর্ণ সক্ষমতায় উৎপাদন বাড়াতে শুরু করেছে। অর্থনৈতিক কার্যক্রমে ইতিবাচক পরিস্থিতি এটির মতো অন্যান্য প্রতিষ্ঠানকেও উৎপাদন বাড়াতে উৎসাহিত করছে। গত সপ্তাহে অপরিশোধিত জ্বালানি তেলের আন্তর্জাতিক বাজার আদর্শ ব্রেন্টের দাম ৮ দশমিক ৮ শতাংশ বেড়েছে। একই সময় নিউইয়র্ক মার্কেন্টাইল এক্সচেঞ্জে (নিমেক্স) প্রাকৃতিক গ্যাসের বাজারদর কমেছে ১১ শতাংশ।

বিশ্বের শীর্ষ জ্বালানি তেল আমদানিকারক দেশ চীন আন্তর্জাতিক ফ্লাইটের জন্য সীমান্ত পুরোপুরি খুলে দেয়ার ঘোষণা দিলে এর বাজারদরে এমন উল্লম্ফন দেখা দেয়। তবে যুক্তরাষ্ট্রে প্রাকৃতিক গ্যাসের মজুদ বাড়ার কারণে জ্বালানিটির দাম কমেছে।

অন্যদিকে, শিকাগো মার্কেন্টাইল এক্সচেঞ্জে গমের দাম অপরিবর্তিত ছিল। তবে ভুট্টার দাম ৩ দশমিক ৩, সয়াবিনের ২ দশমিক ৪ এবং চালের দাম ২ দশমিক ২ শতাংশ বেড়েছে। তুলার দাম ৩ দশমিক ৮ এবং কফির দাম ৪ দশমিক ২ শতাংশ কমেছে। চিনির দাম বেড়েছে ৩ দশমিক ৩ শতাংশ আর কোকোর ১ দশমিক ৮ শতাংশ। কৃষি পণ্যের মধ্যে চাল ও ভুট্টার উৎপাদন কমার পূর্বাভাস দাম বাড়াতে সহায়তা করেছে। ডলারের মূল্যসূচক হ্রাস ও চাহিদা বৃদ্ধির প্রত্যাশায় ঊর্ধ্বমুখী হয়েছে চিনির দাম। অন্যদিকে, যুক্তরাষ্ট্রের সাপ্তাহিক রফতানি স্বাভাবিকের তুলনায় কমে যাওয়ার খবরে কমেছে তুলার দাম। আর নতুন মৌসুমে কফি উৎপাদন বাড়ার সম্ভাবনায় নিম্নমুখী চাপে পড়েছে কফির বাজার।


আরও খবর



কেনিয়ায় পার্লামেন্টে হামলা, পুলিশের গুলিতে নিহত ১৩

প্রকাশিত:বুধবার ২৬ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ২৬ জুন ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
আন্তর্জাতিক ডেস্ক

Image

নতুন একটি আর্থিক প্রস্তাব পাশের বিরুদ্ধে কেনিয়ার রাজধানী নাইরোবিতে ব্যাপক বিক্ষোভ শুরু হয়েছে। মঙ্গলবার (২৫ জুন) শুরু হওয়া এই সংঘর্ষে পুলিশের গুলিতে এখন পর্যন্ত অন্তত ১৩ জন নিহত হয়েছেন। কেনিয়া মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশনের প্রধান কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল-জাজিরাকে এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি আরও বলেন, নাইরোবির দুটি সরকারি হাসপাতাল হতাহতের ঘটনায় আহতদের ভিড়ে উপচে পড়েছে। এদিকে সংসদ সদস্যরা অ্যাম্বুলেন্সগুলো নিরাপদ জায়গায় যাওয়ার জন্য নিয়ে গেছেন। এর ফলে কয়েকটি অ্যাম্বুলেন্সে হামলা চালিয়েছে বিক্ষোভকারীরা। রাজধানী নাইরোবি ছাড়াও দেশটির আরও কয়েকটি শহরে বিক্ষোভ ও সংঘর্ষ ঘটেছে।

এদিকে সহিংসতা ও নির্বিচারে আটক নিয়ে গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন জাতিসংঘ মহাসচিব অ্যান্তোনিও গুতেরেস। তার মুখপাত্র স্টিফেন দুজারিক বলেছেন, বিক্ষোভে হতাহতের খবরে জাতিসংঘ মহাসচিবও অত্যন্ত দুঃখিত। নির্বিচারে আটকের ঘটনা নিয়েও আমরা উদ্বিগ্ন।

তিনি বলেন, শান্তিপূর্ণভাবে বিক্ষোভ করার জন্য মানুষের অধিকার সমুন্নত রাখা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। কর্তৃপক্ষকে অবশ্যই নিশ্চিত করতে হবে যে নিরাপত্তা বাহিনীর হাতে মৃত্যুর সব ঘটনার যেন পূর্ণ ও সুষ্ঠু তদন্ত হয়।

গুতেরেস কেনিয়ার পুলিশ ও কর্তৃপক্ষ ও নিরাপত্তা বাহিনীকে সংযম প্রদর্শনের ও বিক্ষোভকারীদের শান্তিপূর্ণভাবে কাজ করার আহ্বান জানিয়েছেন।

এদিকে, শুধু রাজধানী নাইরোবি নয়, নতুন প্রস্তাবের বিরুদ্ধে দেশজুড়েই বিক্ষোভ হচ্ছে। কারণ এই প্রস্তাবের মাধ্যমে ট্যাক্স বাড়ানো হয়েছে। গত সপ্তাহে প্রস্তাবটির কিছু বিষয়ে সংশোধন করা হলেও, কেনিয়ার সাধারণ জনগণ এটি বাতিল চায়।

এমন পরিস্থিতিতে কেনিয়ার প্রেসিডেন্ট উইলিয়াম রুটো দেশটির সেনাবাহিনীকে নিরাপত্তা ও স্থিতিশীলতা নষ্ট করার যেকোন প্রচেষ্টা ঠেকানোর নির্দেশ দিয়েছেন। সেই সঙ্গে এই বিক্ষোভকে বিশ্বাসঘাতকতা বলেও আখ্যা দিয়েছেন তিনি।


আরও খবর



চট্টগ্রামে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে বাস উল্টে নিহত ১, আহত ১৪

প্রকাশিত:শনিবার ২৯ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ২৯ জুন ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
রাহুল সরকার, চট্টগ্রাম ব্যুরো

Image

চট্টগ্রামের ফৌজদারহাটে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে যাত্রীবাহী একটি বাস উল্টে একজন নিহত ও ১৪ জন আহত হয়েছেন। এ ঘটনায় ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে তীব্র যানজট তৈরি হয়েছে। এরইমধ্যে ফায়ার সার্ভিস উদ্ধার কাজ শুরু করেছে।

শনিবার (২৯ জুন) সকালে ফৌজদারহাটের ফকিরহাট এলাকায় ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টির মধ্যেই বাসটি ফেনির দিকে যাচ্ছিলো। হঠাৎ কোনো কারণে ব্রেক চাপেন চালক। রাস্তা পিচ্ছিল থাকার ফলে এ সময় গাড়িটি উল্টে যায়।

অনেকে আবার বলছেন, গাড়িটির গতি বেশি ছিল, যার কারণে ব্রেক ধরতে পারেননি চালক। স্থানীয়দের মধ্যে কয়েকজন বিকট শব্দে চাকা ফাটার আওয়াজ পেয়েছেন বলেও জানা গেছে। তবে, ঠিক কী কারণে গাড়িটি এভাবে সড়কে উল্টে গেলো সেটি এখনও নিশ্চিত হওয়া যায়নি।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন চট্টগ্রাম ফায়ার সার্ভিসের মবিলাইজিং অফিসার (এমও)।

তিনি বলেন, সকাল ৯টার দিকে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে একটি উল্টে গেছে। খবর পাওয়া মাত্রই উদ্ধারে ফায়ার সার্ভিসের একটি ইউনিট কাজ শুরু করেছে।


আরও খবর



কোটা বাতিলের দাবিতে শাহবাগ অবরোধ, যান চলাচল বন্ধ

প্রকাশিত:শনিবার ০৬ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ০৬ জুলাই ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

কোটা বাতিলের দাবিতে রাজধানীর শাহবাগ মোড় অবরোধ করে বিক্ষোভ করছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) শিক্ষার্থীরা। শনিবার (৬ জুলাই) বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে বৈষম্যবিরোধী ছাত্র আন্দোলন -এর ব্যানারে ঢাবি ক্যাম্পাস থেকে বিক্ষোভ মিছিল নিয়ে শাহবাগে আসেন শিক্ষার্থীরা। এরপর তারা শাহবাগ মোড় অবরোধ করেন। এ সময় যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়।

এ সময় শিক্ষার্থীরা সারা বাংলায় খবর দে, কোটা প্রথার কবর দে, জেগেছে রে জেগেছে, ছাত্রসমাজ জেগেছে, কোটা প্রথা, বাতিল চাই বাতিল চাই এমন বিভিন্ন স্লোগান দিতে থাকেন।

শিক্ষার্থীরা জানান, এই কোটা পদ্ধতির ফলে চাষার ছেলে চাষা, রাজমিস্ত্রীর ছেলে রাজমিস্ত্রী, মজুরের ছেলে মজুর থেকে যাবে। আমরা একই প্রশ্নে পরীক্ষা দেবো, একই প্রশ্নে লিখব, একই প্রশ্নে ভাইভার মুখোমুখি হবো। কিন্তু তারা কোটা সুবিধার কারণে একাই এক শ সুবিধা পাবে, সেটা মেনে নেবো না।

উল্লেখ্য, ২০১৮ সাল পর্যন্ত বাংলাদেশে সরকারি চাকরিতে ৫৬ শতাংশ কোটা প্রচলিত ছিল। এর মধ্যে ৩০ শতাংশ মুক্তিযোদ্ধা কোটা, ১০ শতাংশ নারী কোটা, অনগ্রসর জেলার বাসিন্দাদের জন্য ১০ শতাংশ কোটা, ক্ষুদ্র জাতিগোষ্ঠীর মানুষদের জন্য ৫ শতাংশ এবং প্রতিবন্ধীদের জন্য ১ শতাংশ আসন সংরক্ষিত ছিল।

ওই বছর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়সহ দেশের বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে কোটা সংস্কারের দাবিতে বড় বিক্ষোভ হয়। কোটাব্যবস্থার সংস্কার করে ৫৬ শতাংশ কোটা থেকে ১০ শতাংশে নামিয়ে আনার দাবি জানিয়েছিলেন আন্দোলনকারীরা। পরে সে বছরের ৪ অক্টোবর কোটাপদ্ধতি বাতিলবিষয়ক পরিপত্র জারি করে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়।

এর মাধ্যমে ৪৬ বছর ধরে প্রথম ও দ্বিতীয় শ্রেণির সরকারি চাকরিতে যে কোটাব্যবস্থা ছিল, তা বাতিল হয়ে যায়। পরে ২০২১ সালে সেই পরিপত্রের মুক্তিযোদ্ধা কোটা বাতিলের অংশটিকে চ্যালেঞ্জ করে কয়েকজন মুক্তিযোদ্ধার সন্তান উচ্চ আদালতে রিট করেন। সেই রিটের রায়ে চলতি বছরের ৫ জুন পরিপত্রের ওই অংশ অবৈধ ঘোষণা করা হয়। এরপর থেকেই চাকরিপ্রত্যাশী সাধারণ শিক্ষার্থীরা মাঠে নামছেন।

বৈষম্যবিরোধী ছাত্র আন্দোলন ব্যানারে ঐক্যবদ্ধ শিক্ষার্থী ও চাকরিপ্রত্যাশীরা পরিপত্র পুনর্বহালের পাশাপাশি আরও কিছু দাবি জানাচ্ছেন। এগুলো হলো, পরবর্তী সময়ে সরকার কোটাব্যবস্থা নিয়ে কোনো পদক্ষেপ নিতে চাইলে ২০১৮ সালের পরিপত্র বহাল সাপেক্ষে কমিশন গঠন করে দ্রুততম সময়ের মধ্যে সরকারি চাকরিতে সব গ্রেডে অযৌক্তিক ও বৈষম্যমূলক কোটা বাদ দেওয়া, সংবিধান অনুযায়ী অনগ্রসর জনগোষ্ঠীর কথা বিবেচনা করা, চাকরির নিয়োগের পরীক্ষায় কোটাসুবিধা একাধিকবার ব্যবহার করার সুযোগ বন্ধ করা ও কোটায় যোগ্য প্রার্থী না পাওয়া গেলে শূন্য পদগুলোয় মেধা অনুযায়ী নিয়োগ দেওয়া এবং দুর্নীতিমুক্ত, নিরপেক্ষ ও মেধাভিত্তিক আমলাতন্ত্র নিশ্চিত করতে কার্যকর ব্যবস্থা নেওয়া।


আরও খবর



নয়াদিল্লি পৌঁছেছেন প্রধানমন্ত্রী, কাল মোদির সঙ্গে একান্ত বৈঠক

প্রকাশিত:শুক্রবার ২১ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২১ জুন ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
কূটনৈতিক প্রতিবেদক

Image

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির আমন্ত্রণে দুই দিনের রাষ্ট্রীয় সফরে নয়াদিল্লি পৌঁছেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। দেশটিতে নতুন সরকার গঠনের পর এটিই কোনো বিদেশি প্রধানমন্ত্রীর দ্বিপক্ষীয় সফর।

প্রধানমন্ত্রীর সফর সঙ্গীদের একটি সূত্র বিষয়টি নিশ্চিত করে জানায়, শুক্রবার বিকাল সোয়া ৪টার দিকে নয়াদিল্লির পালাম বিমানবন্দরে অবতরণ করে প্রধানমন্ত্রীকে বহনকারী ফ্লাইটটি। বিমানবন্দরে প্রধানমন্ত্রীকে স্বাগত জানিয়েছেন ভারতের পররাষ্ট্র ও পরিবেশবিষয়ক প্রতিমন্ত্রী কীর্তি বর্ধন সিং।

এর আগে শুক্রবার দুপুর ২টা ৮ মিনিটে প্রধানমন্ত্রী ও তার সফরসঙ্গীরা বাংলাদেশ বিমানের একটি ফ্লাইটে ঢাকার হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর ত্যাগ করেন।

প্রধানমন্ত্রীর উপপ্রেস সচিব এমএম ইমরুল কায়েস জানান, গুরুত্বপূর্ণ এ দ্বিপক্ষীয় সফর উপলক্ষ্যে ২১ থেকে ২২ জুন ভারতে অবস্থান করবেন বাংলাদেশ সরকারপ্রধান।

জানা গেছে, এ সফরে দুদেশের চমৎকার সম্পর্ক আরও দৃঢ় ও এগিয়ে নেওয়ার বার্তা থাকবে। সফরে গুরুত্ব পাবে অর্থনৈতিক সংকট উত্তরণে পারস্পরিক সহযোগিতা এবং আঞ্চলিক নিরাপত্তার বিষয়টি। পাশাপাশি আলোচনায় থাকবে ঋণ সহায়তা, সীমান্ত হত্যা ও তিস্তার পানি বণ্টন চুক্তির মতো অমীমাংসিত ইস্যুগুলো।

সফরকালে উভয় দেশের মধ্যে বিদ্যমান দ্বিপক্ষীয় সম্পর্ক আরও জোরদারে বেশ কিছু চুক্তি ও সমঝোতা স্মারক সই হবে। এ ছাড়া একটি সম্ভাব্য বাণিজ্য চুক্তি বিষয়ে আলোচনা হতে পারে।

সফরের শুরুতে আজ (২১ জুন) সন্ধ্যায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে সাক্ষাৎ করবেন ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এস জয়শঙ্কর। পরদিন (শনিবার) প্রধানমন্ত্রীকে আনুষ্ঠানিক অর্ভ্যথনা জানাবেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। পরে মোদির সঙ্গে একান্ত বৈঠক করবেন শেখ হাসিনা। এরপর হায়দরাবাদ হাউজে যাবেন প্রধানমন্ত্রী। এ সময় উভয় দেশের প্রধানমন্ত্রী সমঝোতা স্মারক ও চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠান প্রত্যক্ষ করবেন। এরপর দুই প্রধানমন্ত্রী তাদের বিবৃতি দেবেন।

সফরের শেষ দিন (শনিবার) বিকালে ভারতের উপরাষ্ট্রপতি জগদীপ ধনকড়ের সঙ্গে সাক্ষাৎ করবেন। এরপর শেখ হাসিনা রাষ্ট্রপতি ভবনে ভারতের রাষ্ট্রপতি দ্রৌপদী মুর্মুর সঙ্গে সাক্ষাৎ করবেন। সন্ধ্যা ৬টায় বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের ফ্লাইটে নয়াদিল্লি ত্যাগ করবেন প্রধানমন্ত্রী। রাত ৯টায় ঢাকায় পৌঁছার কথা রয়েছে তার।


আরও খবর



ফজরের নামাজ শেষে বাড়ি ফেরা হলো না হাবিবুল্লার

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২৫ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২৫ জুন ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
সুজন কুমার মন্ডল, জয়পুরহাট

Image

জয়পুরহাটের মসজিদ থেকে ফজরের নামাজ শেষে বাড়ি ফেরার পথে বাসের চাপায় এক কৃষকের মৃত্যু হয়েছে। মঙ্গলবার ভোর ৫টার দিকে জয়পুরহাট শহরের বামনপুর চারমাথা এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহত হাবিবুল্লাহ (৮০) সদর উপজেলার বামনপুর চারমাথা দত্তপাড়া এলাকার বাসিন্দা।

জয়পুরহাট থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) হুমায়ুন কবির জানান, নিহত হাবিবুল্লাহ প্রতিদিনের মতো ভোরে ফজরের নামাজ আদায়ের জন্য বাড়ি থেকে বের হন। মসজিদে নামাজ শেষে বামনপুর চারমাথা এলাকায় চা পান করে বাইপাস সড়কের পাশ দিয়ে বাড়ি ফিরছিলেন। এ সময় রুহল নামে এক ব্যক্তির বাড়ির সামনে দুটি কোচের মুখোমুখি সংঘর্ষের সময় বাসের চাপায় ঘটনাস্থলেই কৃষক হাবিবুল্লাহর মৃত্যু হয়। পরে ঘটনাস্থল থেকে হাবিবুল্লাহর মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে।

জয়পুরহাট থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) হুমায়ুন কবীর বলেন, ময়নাতদন্তের জন্য হাবিবুল্লাহর মরদেহ জেলা হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় একটি ইউডি মামলা হয়েছে।


আরও খবর