আজঃ বুধবার ২৫ মে ২০২২
শিরোনাম

‘অপশক্তি দমনে শেখ হাসিনার বিকল্প নেই’

প্রকাশিত:শনিবার ১৪ মে ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ১৪ মে ২০২২ | ২৬৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

দেশে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি রক্ষায় এবং অপশক্তি দমনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বিকল্প নেইবলেছেন তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী এবং আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ।

বৌদ্ধদের সবচেয়ে বড় উৎসব বুদ্ধপূর্ণিমা উপলক্ষ্যে আজ শনিবার সকালে রাজধানীর শাহবাগে বাংলাদেশ বৌদ্ধ সাংস্কৃতিক পরিষদ আয়োজিত জাতীয় সম্মিলিত শান্তি শোভাযাত্রা ও সম্প্রীতি উৎসবে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তথ্যমন্ত্রী এ কথা বলেন। মহামতি গৌতম বুদ্ধের জন্ম, বোধিলাভ ও মহাপ্রয়াণের স্মৃতিবিজড়িত বুদ্ধপূর্ণিমা উপলক্ষ্যে সবাইকে শুভেচ্ছা জানান অতিথিরা।

ড. হাছান এ সময় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে অসাম্প্রদায়িকতার প্রতীক হিসেবে বর্ণনা করেন। তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধুকন্যা প্রধানমন্ত্রী শুধু মুক্তিযুদ্ধের চেতনা, গণতন্ত্র ও উন্নয়ন-অগ্রগতিরই প্রতীক নন, একই সঙ্গে তিনি অসাম্প্রদায়িক চেতনারও মূর্ত প্রতীক। তিনি কদিন আগে বক্তৃতায় বলেছেনসংস্কৃতিকে ধর্মের সঙ্গে মেলানো উচিত নয়।

তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী হাছান মাহমুদ আরও বলেন, পাকিস্তানের সাম্প্রদায়িক রাষ্ট্রব্যবস্থা থেকে বেরিয়ে এসে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে সব ধর্মের মানুষের মিলিত রক্তস্রোতে অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশ রাষ্ট্র রচিত হয়েছে। কিন্তু, ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পর রাষ্ট্রকে সাম্প্রদায়িক করার অপচেষ্টা করা হয়। ১৯৯৬ সালে বঙ্গবন্ধুকন্যা দেশ পরিচালনার দায়িত্বে আবার সেই অসাম্প্রদায়িক চেতনাকে ফিরিয়ে এনেছেন।

প্রতিটি ধর্মের উৎসব আজ দেশে সবার উৎসবে পরিণত হয়েছে উল্লেখ করে ড. হাছান বলেন, ঈদ, দুর্গাপূজা, বুদ্ধপূর্ণিমা, বড়দিন, প্রবারণা পূর্ণিমাসহ ধর্মীয় উৎসবগুলো এ দেশে সর্বজনীন আনন্দের। যে সাম্প্রদায়িক অপশক্তি এ সম্প্রীতি বিনষ্ট করতে মাঝেমধ্যে মাথাচাড়া দিয়ে উঠতে চায়, তাদের দমনে শেখ হাসিনার বিকল্প নেই।

সাম্প্রদায়িক অপশক্তি এবং যারা তাদের নিয়ে রাজনীতি করে, তারা বিভিন্ন সময়ে সাম্প্রদায়িক হানাহানি সৃষ্টির অপচেষ্টা চালায় উল্লেখ করে তথ্যমন্ত্রী বলেন, রামু, কুমিল্লা, নাসিরাবাদসহ বিভিন্ন জায়গার ঘটনা বিশ্লেষণ করলে দেখা যায়, তারাই এগুলো ঘটিয়েছে এবং তাদের রাজনৈতিক পৃষ্ঠপোষকেরা এর পেছনে ছিল। এদের দমন করতে বঙ্গবন্ধুকন্যার নেতৃত্বে ঐক্যবদ্ধ থাকতে হবে।’ সমাবেশ শেষে সব ধর্মের মানুষের শান্তি শোভাযাত্রাটি শাহবাগ-সংলগ্ন এলাকা প্রদক্ষিণ করে।


আরও খবর



লিজ ছাড়াই রাবি ছাত্রলীগের আমবাগান দখল

প্রকাশিত:রবিবার ২২ মে 20২২ | হালনাগাদ:রবিবার ২২ মে 20২২ | ২৩৫জন দেখেছেন

Image

রাবি প্রতিনিধি:

লিজ না পাওয়া সত্ত্বেও লিজের কথা বলে ক্যাম্পাসের আমবাগান দখলে নেওয়ার অভিযোগ উঠেছে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় (রাবি) শাখা ছাত্রলীগের বিরুদ্ধে।

শনিবার সন্ধ্যায় বিশ্ববিদ্যালয়ের পশ্চিমপাড়া এলাকার গোদাগারী নামক আমবাগানে কয়েকজন শিক্ষার্থী আম খেতে গেলে লিজ নেওয়ার কথা বলে শিক্ষার্থীদের আম পারতে বাঁধা প্রদান করেন শাখা ছাত্রলীগের নেতারা।

এসময় শিক্ষার্থীদের সঙ্গে ছাত্রলীগ নেতাদের বাকবিতন্ডার পাশাপাশি ঘটনাস্থলে উপস্থিত সাংবাদিকদের ছাত্রলীগ নেতারা হেনস্তা করেন বলে জানা গেছে।

অভিযুক্তরা হলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ সোহরাওয়ার্দী হল শাখা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি সাখাওয়াত হোসেন শাকিল এবং শহীদ হবিবুর রহমান হল শাখা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক রেজোয়ান গাজি মহারাজ। তারা উভয়ই বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগ সভাপতি গোলাম কিবরিয়ার অনুসারী। ভুক্তভোগী শিক্ষার্থীরা জানায়, সন্ধ্যায় পশ্চিমপাড়া এলাকায় আম পারতে গেলে, সেখানে উপস্থিত ছাত্রলীগের কয়েকজন কর্মী তাদের বাঁধা দেয় এবং ক্যাম্পাসের অন্য জায়গায় গিয়ে আম পারতে বলে। পাশাপাশি সেখানে আম খেতে হলে কিনে খেতে হবে এবং এটা তারা 'লিজ' নিয়েছে বলে জানায়। এটা নিয়ে বাকবিতন্ডা শুরু হলে ছাত্রলীগ কর্মীরা তাদের মারতে উদ্যোত হয়। এসময় ঘটনাস্থলের পাশে থাকা কয়েকজন সংবাদকর্মী তাদের সঙ্গে কথা বলতে গেলে, সংবাদকর্মীদেরও তারা মারতে যায়।

এ বিষয়ে সংবাদকর্মীরা জানান, আম পাড়া নিয়ে সাধারণ শিক্ষার্থীদের সঙ্গে ছাত্রলীগ কর্মীদের বাকবিতন্ডা দেখে তাদের সঙ্গে সাংবাদিক পরিচয়ে কথা বলতে গেলে ছাত্রলীগ কর্মীরা বলে 'সাংবাদিক হইছিস তো কি হইছিস, কি নিউজ করবি কর, কারে ফোন দিবি দে।' এসময় ফোন বের করলে তারা ফোন কেড়ে নিতে আসে এবং ধস্তাধস্তি করে। একজন লাইট হাতে মারতে আসে আবার পরবর্তীতে মারার জন্য পাশে বাঁশ খুঁজতে যায়। পরে ছাত্রলীগ কর্মীরা ভুক্তভোগীদের কয়েকজনকে নিজেদের পরিচিত ছোটভাই দেখে থেমে যায়।

জানতে চাইলে অভিযুক্ত ছাত্রলীগ নেতা সাখাওয়াত হোসেন শাকিল বলেন, ছোটখাটো একটা ঝামেলা হয়েছিল। সেটা সেখানেই মিটে গেছে। আমরা প্রথমে চিনতে পারিনি, পরে দেখি তারা আমাদের পরিচিত ছোটভাই। আর সেখানে তাদের সঙ্গে সাংবাদিকও ছিলো। এসময় তিনি সাংবাদিকে হেনস্তার বিষয়টি অস্বীকার করে বলেন, 'সাংবাদিকের সঙ্গে কোনো ঝামেলা হয়নি।'

বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি গোলাম কিবরিয়া বলেন, আমি বিষয়টি জেনেছি। বিশ্ববিদ্যালয়ের কোনো আমবাগান লিজ নেয়নি ছাত্রলীগ। আমি তাদের সঙ্গে কথা বলেছি। এখন তারা ক্যাম্পাসে নেই। আগামীকাল বিষয়টি নিয়ে উভয়পক্ষের সঙ্গে বসব।

লিজের প্রসঙ্গে জানতে চাইলে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য অধ্যাপক সুলতান-উল-ইসলাম বলেন, বাগানটি এখনও লিজ দেওয়া হয়নি তবে লিজ দেওয়ার কার্যক্রম চলছে। আমরা কাকে লিজ দিব এখনও ঠিক করিনি। লিজ না পেয়েই তারা লিজ নিয়েছে বলাটা এবং শিক্ষার্থীদের মারতে উদ্যোত হওয়াটা অন্যায় করেছে। আর তাদের বাগানে নিরাপত্তা দেওয়ার জন্যও থাকতে বলা হয়নি। ঘটনার পরেই আমরা সেখানে গেছিলাম, তাদেরকে জিজ্ঞাসাবাদ করেছি এবং বলে দিয়েছি যাতে তারা আর সেখানে না যায়। এছাড়া তাদের আগামীকাল উপ-উপাচার্য দপ্তরেও ডেকেছি।


আরও খবর



ভারতের আসাম রাজ্যে ভয়াবহ বন্যায় ১৪ জনের মৃত্যু

প্রকাশিত:শনিবার ২১ মে ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ২১ মে ২০২২ | ৩০৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

বর্ষা শুরুর আগেই ভয়াবহ বন্যার কবলে পড়েছে ভারতের আসাম রাজ্য। ক্রমেই অবনতি ঘটছে রাজ্যের বন্যা পরিস্থিতির। এখন পর্যন্ত ১৪ জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে। প্রচুর ফসল নষ্ট হয়েছে। ভেসে গেছে গবাদিপশু।

এরই মধ্যে রাজ্যের বহু মানুষ ঘরবাড়ি ছেড়ে অন্যত্র আশ্রয় নিয়েছে। ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে অন্তত আট লাখ মানুষ। পরিস্থিতি এমন যে, রেললাইনে এসে আশ্রয় নিয়েছে প্রায় ৫০০ পরিবার। অনেকটা উঁচুতে হওয়ায় রেললাইন ডুবে যায়নি, তাই সেখানেই এখন ঠাঁই নিয়েছে হাজার হাজার মানুষ।

জানা গেছে, আসামের চাঙ্গুরাজ ও পাতিয়া পাথার গ্রামের মানুষ বন্যায় হারিয়েছেন সর্বস্ব। বাড়িঘর পানির তলায় ডুবে গেছে। তেরপল টাঙিয়ে অস্থায়ী আশ্রয়ে রয়েছে বহু মানুষ। তাদের অভিযোগগত পাঁচ দিনে জেলা প্রশাসন ও রাজ্য সরকারের কাছ থেকে তেমন একটা সাহায্য পাওয়া যায়নি।

আসামে বন্যাকবলিত এলাকাগুলোতে অমানবিক পরিস্থিতিতে দিন কাটাচ্ছে মানুষ। বন্যা পরিস্থিতি সেখানে এখনও ভয়াবহ। রাজ্যের ২৯টি জেলার দুই হাজার ৫৮৫টি গ্রামের আট লাখ মানুষ এ প্রাকৃতিক বিপর্যয়ে ক্ষতিগ্রস্ত।

কয়েক লাখ মানুষ ত্রাণ শিবিরে আশ্রয় নিয়েছে। আসামের ছয়টি জেলার শতাধিক গ্রাম পানিতে তলিয়ে গেছে। চার লাখের বেশি মানুষ ত্রাণ শিবিরে আশ্রয় নিয়েছে। কয়েক হাজার হেক্টর চাষের জমি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। বন্যাদুর্গত এলাকায় উদ্ধারকাজ চালাতে সেনাবাহিনীর সাহায্য নিয়েছে রাজ্য সরকার।


আরও খবর



রংপুরে পেট্রল সংকট

চাহিদা পূরণে হিমশিম খাচ্ছে ফিলিং স্টেশনগুলো

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১২ মে ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১২ মে ২০২২ | ৪২৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

রেলপথনির্ভর জ্বালানি তেল পরিবহন দীর্ঘদিন ছুটির ফাঁদে পড়ায় রংপুর বিভাগে এখনো পেট্রলের চাহিদা পূরণে হিমশিম খাচ্ছে ফিলিং স্টেশনগুলো। আবার তেল পরিবহনে রেলের সীমাবদ্ধতা থাকায় ঈদ ঘিরে পেট্রলের বর্ধিত চাহিদার অনুপাতে পাম্পগুলো প্রয়োজনীয় তেল সংগ্রহ করতে ব্যর্থ হচ্ছে। ফলে ভোগান্তিতে পড়েছেন যানবহন মালিক ও যাত্রীরা।  রংপুর বিভাগীয় পেট্রল পাম্প ওনার্স অ্যাসোসিয়েশন সূত্রে জানা গেছে, বিভাগে ফিলিং স্টেশনের সংখ্যা হচ্ছে ৩৫৪টি। প্রতিদিন পেট্রলের চাহিদা প্রায় ৩ লাখ লিটার। ঈদ ঘিরে এ চাহিদা অনেক বেড়ে যায়। কিন্তু পদ্মা, মেঘনা ও যমুনা অয়েল কোম্পানিগুলো সোমবার পর্যন্ত প্রয়োজনীয় পেট্রল সরবরাহ করতে পারেনি।

রংপুরের শাপলা ফিলিং স্টেশনের মালিক মো. আজিজুল ইসলাম মিন্টু বলেন, রংপুরে অবস্থিত অয়েল কোম্পানিগুলোয় চাহিদামতো তেল পাওয়া যাচ্ছে না। আবার দিনাজপুর জেলার পার্বতীপুরে অবস্থিত ডিপো থেকে তেল পাওয়া কঠিন। রোববার কিছু পেট্রল বিক্রি করলেও সোমবার তার পাম্পে পেট্রল নেই। আবার কবে পেট্রল পাবেন তিনি তা জানেন না। একই অবস্থা অধিকাংশ পাম্পে।

পদ্মা, মেঘনা এবং যমুনা তেল কোম্পানিগুলোয় খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, রেলের দুটি র্যাকারের মাধ্যমে তাদের প্রয়োজনীয় জ্বালানি তেল পেট্রল, ডিজেল, অকটেন এবং কেরোসিন নিয়ে আসা হয়। চট্টগাম থেকে একটি র্যাকারে তেল নিয়ে আসতে ছয় থেকে সাতদিন সময় লাগে। মেঘনা তেল কোম্পানির সিনিয়র সেলস অফিসার মো. গোলাম ইয়াসিন বলেন, ঈদ উপলক্ষে দীর্ঘ ছুটি থাকায় তেল এনে বিতরণে বিলম্ব হয়েছে। এদিকে ঈদে পেট্রলের চাহিদা বৃদ্ধি পাওয়ায় সময়মতো পেট্রল পেতে সময় লাগছে।

এদিকে দিনাজপুরের পার্বতীপুরে অবস্থিত যমুনা তেল কোম্পানির এক ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা নাম না প্রকাশ করার শর্তে বলেন, ১-৫ মে পর্যন্ত সরকারি ছুটি থাকায় জ্বালানি তেল বিতরণে ব্যাঘাত ঘটে। আস্তে আস্তে স্বাভাবিক হচ্ছে। সিন্ডিকেটের কারণে রংপুরে পাম্পমালিকরা প্রয়োজনে পার্বতীপুর থেকে তেল সংগ্রহ করতে ব্যর্থ হওয়ার বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি এ বিষয়ে কোনো কিছু বলতে অপারগতা জানান।

রংপুর বিভাগীয় পেট্রল পাম্প ওনার্স অ্যাসোসিয়েশনের সাংগঠনিক সম্পাদক এবং সাঈদ ফিলিং স্টেশনের প্রোপাইটার মো. রিয়াজ শহিদ শোভন বলেন, যদি এখানে অন্তত রেলের পাঁচটি র‌্যাকার নিরবচ্ছিন্নভাবে চলাচল করত তাহলে ঈদের এ চাহিদায়ও পাম্পমালিকদের বিব্রতকর পরিস্থিতিতে পড়তে হতো না বলে তিনি মনে করেন।

রংপুর বিভাগীয় পেট্রল পাম্প ওনার্স অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক এবং রংপুর চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রিজের সভাপতি মোস্তফা সোহরাব চৌধুরী টিটু বলেন, যেকোনো সংকটে একটি অসাধু মহল সরকারকে বিব্রতকর পরিস্থিতিতে ফেলতে চায়। তাই প্রশাসনের তদারকি বৃদ্ধি করতে হবে। এছাড়াও তিনি বলেন, পাশের দেশে জ্বালানি তেলের দাম বেশি হওয়ায় সীমান্তসংলগ্ন জেলাগুলো দিয়ে যাতে তেল পাচার না হয় সেজন্য প্রশাসনিক নজরদারি বৃদ্ধি করা দরকার। রংপুর রেলের সুপারিনটেনডেন্ট শংকর গাঙ্গুলী বলেন, র‌্যাকার বৃদ্ধির বিষয়টি রেলের নীতিনির্ধারকদের সিদ্ধান্তের বিষয়। রেলের ইঞ্জিন সংকটের কারণে র‌্যাকার বহনে বিলম্ব হয় এ কথা সত্য বলে তিনি জানান।

নিউজ ট্যাগ: পেট্রল-ডিজেল

আরও খবর



রাবিতে ভর্তি পরীক্ষার প্রাথমিক আবেদন শুরু আজ

প্রকাশিত:বুধবার ২৫ মে ২০২২ | হালনাগাদ:বুধবার ২৫ মে ২০২২ | ৮৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) ২০২১-২২ শিক্ষাবর্ষের ভর্তি পরীক্ষার প্রাথমিক আবেদন আজ বুধবার দুপুর ১২টায় শুরু হবে। আগামী ৯ জুন রাত ১২টা পর্যন্ত এই আবেদন প্রক্রিয়া চলবে। আজ সকালে বিশ্ববিদ্যালয়ের জনসংযোগ দপ্তরের প্রশাসক অধ্যাপক প্রদীপ কুমার পাণ্ডে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, আজ দুপুর ১২টা থেকে এবারের ভর্তি পরীক্ষার প্রাথমিক আবেদন শুরু হবে৷ ভর্তিচ্ছুরা বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইটে প্রবেশ করে ৫৫ টাকা ফি দিয়ে প্রাথমিক আবেদন সম্পন্ন করতে পারবেন। প্রাথমিক আবেদন যাচাই-বাছাই শেষে আগামী ১৫ জুন থেকে চূড়ান্ত আবেদন শুরু হবে। চূড়ান্ত আবেদন ফি ইউনিট প্রতি ১ হাজার ১০০ টাকা।

এবার এ, বি ও সি তিনটি ইউনিটে ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে আগামী ২৫ থেকে ২৭ জুলাই। প্রতিটি ইউনিটে ৭২ হাজার শিক্ষার্থী করে মোট ২ লাখ ১০ হাজার ভর্তিচ্ছু এ বছর পরীক্ষায় অংশ নিতে পারবেন। প্রতিদিন চার শিফটে পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে।

বিজ্ঞানের শিক্ষার্থীদের ক্ষেত্রে মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিকে পৃথকভাবে জিপিএ ৩.৫ সহ দুটি মিলিয়ে কমপক্ষে ৮ থাকতে হবে। ব্যবসায় শাখা শিক্ষার্থীদের ক্ষেত্রে মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিকে পৃথকভাবে জিপিএ ৩.৫ সহ দুটি মিলিয়ে কমপক্ষে ৭.৫ থাকতে হবে। মানবিকের শিক্ষার্থীদের আবদনের জন্য এসএসসি ও এইচএসসিতে জিপিএ কমপক্ষে ৩ পয়েন্টসহ দুটিতে কমপক্ষে জিপিএ ৭ থাকতে হবে। এ ছাড়া এবার দ্বিতীয়বার ভর্তি পরীক্ষা দেওয়ার সুযোগ থাকছে।

ভর্তি সংক্রান্ত বিস্তারিত তথ্য বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইটে (https://admission.ru.ac.bd/undergraduate/) পাওয়া যাবে।


আরও খবর



ইউক্রেন যুদ্ধ নিয়ে জাপানকে বার্তা পাঠালো চীন

প্রকাশিত:বুধবার ১৮ মে ২০২২ | হালনাগাদ:বুধবার ১৮ মে ২০২২ | ৩৭৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

ইউক্রেনে রাশিয়ার আগ্রাসন নিয়ে বুধবার চীনকে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালনের আহ্বান জানিয়েছে জাপান। বার্তা সংস্থা এএফপি এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে।

ওই প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ছয় মাসের মধ্যে বুধবারই প্রথম চীনের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে কথা বলেন জাপানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী। এ সময়ই তিনি এ আহ্বান জানান।

জাপানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এক বিবৃতিতে বলেছে, জাপানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ইয়োশিমাসা হায়াশি চীনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ওয়াং ইকে বলেছেন, রাশিয়ার আগ্রাসন জাতিসংঘের সনদ এবং অন্যান্য আন্তর্জাতিক আইনের সুস্পষ্ট লঙ্ঘন

জাপানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী আন্তর্জাতিক শান্তি ও নিরাপত্তা বজায় রাখতে চীনকে দায়িত্বশীল ভূমিকা পালনের আহ্বান জানিয়েছেন বলেও ওই বিবৃতিতে বলা হয়েছে।

দুই দেশের মধ্যে চলমান ভূরাজনৈতিক উত্তেজনার মধ্যে দেশ দুটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী গত নভেম্বরের পর এই প্রথম কথা বললেন বলে এএফপির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে। আগামী সপ্তাহে মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের জাপান সফরের প্রাক্কালে এই ঘোষণা সামনে এলো।

ইউক্রেনে আগ্রাসনের জেরে রাশিয়ার বিরুদ্ধে বিশ্বের বিভিন্ন দেশের মতো নিন্দায় যোগ না দেওয়ায় মস্কো ও বেইজিং নিজেদের মধ্যে সমন্বয় বাড়াচ্ছে বলেই মনে হচ্ছে।


আরও খবর