আজঃ বুধবার ২৯ মে ২০২৪
শিরোনাম

নোয়াখালীতে ছোট ভাইয়ের লাঠির আঘাতে বড় ভাই নিহত

প্রকাশিত:রবিবার ২২ মে 20২২ | হালনাগাদ:রবিবার ২২ মে 20২২ | অনলাইন সংস্করণ
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

নোয়াখালীর কবিরহাট উপজেলায় জমি সংক্রান্ত বিরোধের জেরে আপন ছোট ভাইয়ের লাঠির আঘাতে বড় ভাই নিহত হওয়ার ঘটনা ঘটেছে।নিহত দেলোয়ার হোসেন (৪৫) কবিরহাট উপজেলার ঘোষবাগ ইউনিয়নের নবাবপুর গ্রামের মৃত আব্দুল গফুরের ছেলে এবং তাকে লাঠি দিয়ে আঘাত করেন তার ছোট ভাই আবদুল হাই মাষ্টার।

শনিবার বিকেলে কবিরহাট উপজেলার ঘোষবাগ ইউনিয়নের নবাবপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।  এরপর গা ঢাকা দিয়েছেন ছোট ভাই আবদুল হাই মাষ্টার। জানা যায়, জায়গা জমি সংক্রান্ত বিষয়ে দুই ভাইয়ের মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়। এমন সময় বড় ভাই দেলোয়ার হোসেনের  মাথায় লাঠি দিয়ে আঘাত করেন ছোট ভাই আবদুল হাই মাষ্টার।

এসময় মাথা ফেটে অচেতন হয়ে পড়েন দেলোয়াড়। পরিবারের লোকজন গুরুতর আহত অবস্থায় তাকে মাইজদী গুডহিল হাসপাতালে নিয়ে গেলে সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মৃত্যুবরণ করেন।

কবিরহাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোঃ রফিকুল ইসলাম মৃত্যুর বিষয় নিশ্চিত করে বলেন, পুলিশ ঘটনাস্থলে গেছে। নিহতের লাশ হাসপাতাল থেকে বাড়িতে আনা হয়েছে।  এ ঘটনায় আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

নিউজ ট্যাগ: জমি নিয়ে বিবাদ

আরও খবর



লিপি চক্রবর্তীর ‘আকণ্ঠ মরেছি’

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০২ মে 2০২4 | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ০২ মে 2০২4 | অনলাইন সংস্করণ
Image

এখানে ছায়াহীন রৌদ্র

শূন্যতার পরে শূন্যতার অনুবৃত্তি

অবাধ্য ভালবাসা নিয়ে বুকে

আমি ঠাঁই দাঁড়িয়ে।

আসবে তুমি? কোন এক সকালে

শিশিরের বুকে পা ফেলে

হাঁটবো দুজন পাশাপাশি।

আমাদের অভিবাদন জানাবে

একজোড়া শালিক পাখি।

অসুখে পরেছি

এমন অসুখ সচারাচর নয়

ক্ষুদ্র হৃদয়ের সমস্ত গর্ব বিসর্জন দিয়ে

আত্মসমর্পণ করছি।

ফিরে আসো

আকণ্ঠ মরেছি তোমার ভালোবাসায়।


আরও খবর



আনোয়ারুল আজিম ইস্যুতে এখনই মন্তব্য করবে না ভারত

প্রকাশিত:বুধবার ২২ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ২২ মে ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
কূটনৈতিক প্রতিবেদক

Image

বন্ধুপ্রতিম প্রতিবেশী দেশের পার্লামেন্টারিয়ান আনোয়ারুল আজিম ভারতে চিকিৎসা করাতে এসে যেরকম দুর্ভাগ্যজনকভাবে মারা গেছেন, তাতে দিল্লিতে ভারতীয় কর্তৃপক্ষ বেশ অস্বস্তিতে পড়েছেন। তবে এ ব্যাপারে তদন্ত শেষ না হলে এবং পুলিশ সব বিস্তারিত না জানালে ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এখনই কোনও আনুষ্ঠানিক বিবৃতি দিতে চাইছে না।     

দিল্লিতে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের একটি সূত্র অবশ্য নিশ্চিত করেছেন, এমপি আজিম যে কলকাতায় আসার পর হঠাৎ নিখোঁজ হয়ে গেছেন বাংলাদেশ কর্তৃপক্ষ সেটা তাদের জানানোর পর থেকেই তাকে খুঁজে বের করার সব ধরনের চেষ্টা চালানো হচ্ছিল। ভারতের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের গোয়েন্দারাও এ ব্যাপারে কলকাতা তথা পশ্চিমবঙ্গের পুলিশের সঙ্গে নিয়মিত যোগাযোগ রাখছিলেন।

বস্তুত, আনোয়ারুল আজিম কলকাতায় এসে যে ভারতীয় সিমকার্ডটি ব্যবহার করছিলেন, সেটি যে ১৭ মে (শুক্রবার) খুব অল্প সময়ের জন্য বিহারের মুজাফফরপুরের কাছে চালু করা হয়েছিল সেই তথ্যও কেন্দ্রীয় গোয়েন্দারা ট্র্যাক করে বের করেছিলেন। পরে কলকাতায় বাংলাদেশের উপদূতাবাসের মারফত সেই খবর ঢাকায় তদন্তকারীদের কাছেও পৌঁছে দেওয়া হয়।

আনোয়ারুল আজিমকে ঠিক কী পরিস্থিতিতে, কীভাবে, আর কেন হত্যা করা হয়েছে (যদি এটা হত্যাই হয়ে থাকে) তা নিয়ে যেহেতু এখনও অনেক অস্পষ্টতা আছে, তাই সরকারিভাবে ভারত এটা নিয়ে এখনই কোনও মন্তব্য করতে চাইছে না। দিল্লির নর্থ ব্লকে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের একজন সিনিয়র কর্মকর্তাকে এটা নিয়ে প্রশ্ন করা হলে তিনি শুধু জানিয়েছেন, এই বিষয়ে যা বলার পশ্চিমবঙ্গের (বিধাননগর) পুলিশই বলবে।

এর আগে বুধবার (২২ মে) সকালে কলকাতার উপকণ্ঠে বিধাননগর পুলিশ কমিশনারেটের ডেপুটি পুলিশ কমিশনার মানব শ্রিংলা সাংবাদিকদের জানান, আনোয়ারুল আজিম শেষ যে ভাড়া গাড়িটি কলকাতায় ব্যবহার করেছিলেন, সেই ক্যাবটির চালক জেরার মুখে স্বীকার করেছে যে ওই যাত্রীকে খুন করে তার দেহ টুকরো টুকরো করে ছড়িয়ে দেওয়া হয়েছিল।

কিন্তু সত্যিই যদি তা হয়ে থাকে, তাহলে সেই খুনের মোটিভ কী ছিল, খুনিরা কয়জন ছিল বা তারা কারা, স্থানীয় ক্যাবচালককে এই কাজের জন্য তারা ভাড়া করেছিল কিনা, লাশের টুকরো কোথায় কোথায় ফেলা হয়েছিল পুলিশ কর্তৃপক্ষ এসব প্রশ্নের কোনও জবাব দেয়নি।

তবে তদন্তকারী দলের পক্ষ থেকে এটুকু আভাস দেওয়া হয়েছে, এমপি আনোয়ারুল আজিমকে যারাই হত্যা করে থাকুক, এই হত্যার মূল ষড়যন্ত্রকারীরা বাংলাদেশেরই বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা পাওয়া যাচ্ছে।

একজন বিদেশি এমপি কলকাতায় এসেছেন, আর তার সঙ্গে পয়সাকড়ি আছে এটা আঁচ করে স্থানীয় কোনও অপরাধী চক্র বা দুষ্কৃতকারী গ্যাং তাকে মেরে ফেলে টাকাপয়সা লুট করতে চেয়েছিল ব্যাপারটা অত সহজ নয় বলেই আমরা ধারণা করছি, জানিয়েছে একটি সূত্র। সোজা কথায় তারা অনুমান করছেন, এই হত্যারহস্য আসলেই খুব জটিল এবং এর পুরো কিনারা করতে বেশ সময় লাগতে পারে।

বিদেশের কোনও এমপি যখন ভারতে সফর করেন, তারা সাধারণত নিজেদের ডিপ্লোম্যাটিক পাসপোর্টই ব্যবহার করে থাকেন। আনোয়ারুল আজিমও ঠিক তাই করেছিলেন। এখন এমন একজন ভিআইপি বিদেশি অতিথিকে যখন ভারতের মাটিতেই প্রাণ হারাতে হয়, বিষয়টি খুবই স্পর্শকাতর চেহারা নিয়েছে তাতে কোনও সন্দেহ নেই। তাই তদন্তে সব দিক আগে পরিষ্কার না হলে এবং বাংলাদেশ সরকারের সঙ্গে কথা না বলে ভারত আগ বাড়িয়ে এই হত্যাকাণ্ড নিয়ে কোনও মন্তব্য করতে চাইছে না।  


আরও খবর



বান্দরবানে কুকি-চিনের দুই সদস্য নিহত

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২৩ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২৩ মে ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
জেলা প্রতিনিধি

Image

বান্দরবানে যৌথবাহিনীর সন্ত্রাস বিরোধী অভিযানে সশস্ত্র সংগঠন কুকি-চিন ন্যাশনাল ফ্রন্টের (কেএনএফ) দুই সদস্য নিহত হয়েছেন।

বৃহস্পতিবার (২৩ মে) সকালে সদর উপজেলার সুয়ালক ইউনিয়নের ৬ নম্বর ওয়ার্ড শ্যারণপাড়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

শ্যারণপাড়া প্রধান তলুয়াং থাং বমের তথ্য অনুযায়ী, নিহতরা হলেন শ্যারণপাড়া এলাকার লাল নু বম ও বেথানি পাড়া এলাকার থাং পুই বম।

স্থানীয় ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, সন্ত্রাস বিরোধী অভিযানের অংশ হিসেবে শ্যারণপাড়া এলাকায় অভিযান চালায় যৌথবাহিনী। এসময় তাদের লক্ষ্য করে গুলি ছোড়েন কেএনএফ সদস্যরা। আত্মরক্ষার্থে যৌথবাহিনী পাল্টা গুলি চালালে ঘটনাস্থলেই কেএনএফের দুই সদস্য নিহত হন।

দুই কেএনএফ সদস্য নিহতের বিষয়টি নিশ্চিত করে বান্দরবানের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার হোসাই মো. রায়হান কাজেমী বলেন, মরদেহ দুটি উদ্ধার করে বান্দরবান হাসপাতালে আনা হয়েছে। আগামীকাল তাদের ময়নাতদন্ত হবে।

বান্দরবান সদর হাসপাতালের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক জুয়েল ত্রিপুরা জানান, নিরাপত্তাবাহিনীর সদস্যরা বিকেল ৫টার দিকে গুলিবিদ্ধ দুটি মরদেহ হাসপাতালে নিয়ে এসেছেন। মরদেহগুলো ময়নাতদন্তের অপেক্ষায় রয়েছে।

গত ২ ও ৩ মে বান্দরবানের রুমা ও থানচিতে ব্যাংক ডাকাতি, হামলা, আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর ১৪টি অস্ত্র লুট ও ব্যাংক ম্যানেজার অপহরণের ঘটনায় এ পর্যন্ত ৯টি মামলা হয়েছে। থানচিতে চারটি ও রুমায় পাঁচটি। এসব মামলায় কেএনএফ সদস্য সন্দেহে ৮৬ জনকে গ্রেফতার করে আদালতের নির্দেশে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। এদের মধ্যে ২৫ জন নারী রয়েছেন।


আরও খবর



হোয়াইটওয়াশের মিশনে ব্যাটিং বিপর্যয়ে বাংলাদেশ

প্রকাশিত:রবিবার ১২ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:রবিবার ১২ মে ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
ক্রীড়া প্রতিবেদক

Image

প্রথম চার ম্যাচ জিতে এরই মধ্যে সিরিজ নিজেদের করে নিয়েছে বাংলাদেশ। আজ পঞ্চম ম্যাচ এবং এই ম্যাচে জিম্বাবুয়েকে হোয়াইটওয়াশ করার মিশন। নাজমুল হোসেন শান্তর দল পারবে কি হোয়াইটওয়াশের জন্ম দিতে!

তার আগে আজ সকালে টস করতে নেমে হারতে হয়েছে নাজমুল হোসনে শান্তকে। টস জিতে জিম্বাবুয়ে অধিনায়ক সিকান্দার রাজা ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন এবং বাংলাদেশকে ব্যাট করার আমন্ত্রণ জানান।

ব্যাট করতে নেমে শুরুতেই দারুণ বিপর্যয়ে পড়েছে টাইগাররা। ৯ রানের মধ্যে হারিয়েছে দুই ওপেনার তানজিদ হাসান তামিম এবং সৌম্য সরকারকে। ৫ বলে ২ রান করেন তামিম। তিনি আউট হন ব্লেসিং মুজারাবানির বলে। এবং ৭ বলে ৭ রান করে ব্রায়ান বেনেতের বলে আউট হন সৌম্য সরকার।

এ রিপোর্ট লেখার সময় বাংলাদেশের রান ৪ ওভারে ২ উইকেট হারিয়ে ১৫। ৫ রানে নাজমুল হোসেন শান্ত এবং ১ রানে ব্যাট করছেন তাওহিদ হৃদয়।

বাংলাদেশ একাদশে ৩টি পরিবর্তন আনা হয়েছে। আগের ম্যাচ থেকে নেই তাসকিন আহমেদ, তানভির ইসলাম ও তানজিম সাকিব। দলে এসেছেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, সাইফউদ্দিন ও শেখ মেহদি। একাদশে পেসার ২ জন, মোস্তাফিজ ও সাইফউদ্দিন। তিন স্পিনার- সাকিব, রিশাদ ও শেখ মেহদি।

বাংলাদেশ একাদশ

সৌম্য সরকার, তানজিদ হাসান তামিম, নাজমুল হোসেন শান্ত, সাকিব আল হাসান, তাওহিদ হৃদয়, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, জাকের আলী অনিক, রিশাদ হোসেন, মোস্তাফিজুর রহমান, সাইফউদ্দিন ও শেখ মেহদি হাসান।


আরও খবর
আবারও বিশ্বরেকর্ড রোনালদোর

মঙ্গলবার ২৮ মে ২০২৪




বরগুনায় ঘূর্ণিঝড় রেমালে নিহত ১, আহত ৩৭

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২৮ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২৮ মে ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
অলিউল্লাহ্ ইমরান, বরগুনা

Image

ঘূর্ণিঝড় রেমালের প্রভাবে ঘরের ওপর ভেঙে পড়া গাছ অপসারণের সময় ডাল ভেঙে পড়ে আব্দুর রহমান বয়াতি (৫৫) নামে এক বৃদ্ধ নিহত হয়েছেন। মঙ্গলবার (২৮ মে) এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন বরগুনা সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. শামীম মিঞা।

তিনি জানান, গতকাল সোমবার (২৭ মে) দুপুরে সদর উপজেলার আয়লা পাতাকাটা ইউনিয়নের ৪ নম্বর ওয়ার্ডের লেমুয়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। নিহত আব্দুর রহমান বয়াতি ওই এলাকার মৃত্যু খুতি বয়াতির ছেলে।

জেলা প্রশাসক মোহা. হাবিবুর রহমান বলেন, বরগুনায় ঘূর্ণিঝড় রেমালের প্রভাবে ঘরের ওপর ভেঙে পড়া গাছ অপসারণের সময় একজনের মৃত্যু হয়েছে। এছাড়াও জেলায় প্রাথমিক তথ্য অনুযায়ী ৩৭ জন আহত হয়েছে বলে জানা গেছে।

তিনি আরও জানান, ঘূর্ণিঝড়ে বরগুনায় এখন পর্যন্ত যে তথ্য রয়েছে তাতে ৩ হাজার ৩৩৭টি ঘর সম্পূর্ণ বিধ্বস্ত হয়েছে। ১৩ হাজার ৩৪টি ঘর আংশিক বিধ্বস্ত হয়েছে। পুরো জেলায় ১২ কিলোমিটার বেড়িবাঁধ ভেঙে গিয়েছে। যার কারণে ৩০০ গ্রাম সাগরের পানিতে প্লাবিত হয়েছে। ৪ হাজার ১৫৭ হেক্টর মাছের ঘের পুকুর ভেসে গিয়েছে।

বিদ্যুৎ বিভাগের প্রাথমিক তথ্য অনুযায়ী বরগুনা জেলায় ৯০০ এর মতো খুঁটি পড়ে গিয়েছে। ২৫০টির মতো খুঁটি ভেঙে গিয়েছে। ১ হাজার ২০০ এর মতো স্পটে বিদ্যুতের তারের ওপর গাছ হেলে রয়েছে এবং ৯০০ এর মতো স্পটে বিদ্যুতের তারের গাছ পড়ে তার ছিঁড়ে গিয়েছে। পুরো জেলায় ২ লাখ ৩১ হাজার মানুষ বন্যার দুর্ভোগ আছে। তবে সবকিছু সচল করতে প্রত্যেকটি উপজেলাতেই প্রশাসন কাজ করছে।


আরও খবর