আজঃ বৃহস্পতিবার ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
শিরোনাম

নেত্রকোণায় স্কুলছাত্রীকে কুপিয়ে হত্যা, অভিযুক্ত তরুণ গ্রেপ্তার

প্রকাশিত:বুধবার ০৩ মে ২০২৩ | হালনাগাদ:বুধবার ০৩ মে ২০২৩ | অনলাইন সংস্করণ
নেত্রকোনা প্রতিনিধি

Image

নেত্রকোণার বারহাট্টা উপজেলায় স্কুল থেকে বাড়ি ফেরার পথে দশম শ্রেণির ছাত্রী মুক্তি বর্মণকে (১৬) কুপিয়ে হত্যার ঘটনায় অভিযুক্ত কাউছার মিয়াকে (১৯) গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। গ্রেপ্তার কাউছার বারহাট্টা উপজেলার বাউসী ইউনিয়নের প্রেমনগর গ্রামের সামছু মিয়ার ছেলে।

বুধবার (৩ মে) বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে নেত্রকোণার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ) মো. হারুন অর রশিদ বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, এলাকার একটি জঙ্গল থেকে স্কুলছাত্রী মুক্তি হত্যাকারী কাউছারকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এ ঘটনায় প্রেস ব্রিফিং করে বিস্তারিত জানানো হবে।

এর আগে মঙ্গলবার (২ মে) বিকেলে স্কুল থেকে সহপাঠীদের সঙ্গে বাড়ি ফেরার পথে স্থানীয় ছালিপুরা এলাকায় স্কুলছাত্রী মুক্তিকে দা দিয়ে কুপিয়ে গুরুতর জখম করে কাউছার। পরে তাকে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

পুলিশ ও স্কুলছাত্রীর পরিবারের বরাতে জানা গেছে, মুক্তি বর্মণকে বিদ্যালয়ে যাওয়া-আসার পথে দীর্ঘদিন ধরে উত্ত্যক্ত করে আসছিল একই গ্রামের সামছু মিয়ার ছেলে কাউছার মিয়া। বিষয়টি তার পরিবারকেও জানানো হয়েছিল। এ অবস্থায় মঙ্গলবার বিদ্যালয় থেকে ফেরার পথে মুক্তির পথরোধ করে তাকে দা দিয়ে কুপিয়ে আহত করে কাউছার। পরে তাকে উদ্ধার করে বারহাট্টা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে সেখানে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে চিকিৎসকরা নেত্রকোণা আধুনিক সদর হাসপাতালে প্রেরণ করেন। পরে সেখান থেকে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার পর তার মৃত্যু হয়।

এদিকে স্কুলছাত্রী মুক্তি বর্মণকে নৃশংসভাবে হত্যার বিচার দাবিতে আজ বুধবার দুপুরে বারহাট্টায় মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করা হয়েছে। বাংলাদেশ নারী প্রগতি সংঘ, ইয়ুথ গ্রুপ, কমিউনিটি ফোরাম ও সর্বস্তরের নাগরিক সমাজ এ মানববন্ধন কর্মসূচির আয়োজন করে।

নিউজ ট্যাগ: নেত্রকোণা

আরও খবর



মেট্রোরেলের লাইনে বৈদ্যুতিক তার সংক্রান্ত জটিলতা, চলাচলে বিঘ্ন

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২৩ জানুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২৩ জানুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

মেট্রোরেলের কারওয়ান বাজার-শাহবাগমুখী রুটের লাইনে বৈদ্যুতিক তারের ওপর ডিসের তার ঝুলে থাকায় প্রায় আধাঘণ্টারও অধিক সময় ট্রেন চলাচল বন্ধ ছিল। মঙ্গলবার (২৩ জানুয়ারি) বেলা ১১টা ৫১ মিনিটে রেলটির চলাচলে এমন জটিলতার সৃষ্টি হয়।

বেলা ১১টা ৫৪ মিনিটের দিকে মেট্রোলের উত্তরা দক্ষিণ স্টেশন থেকে ছেড়ে আসা রেলটি কারওয়ান বাজার স্টেশনে যাত্রী নামানো ও উঠানোর কিছু পরই প্যান প্যাসেফিক সোনারগাঁও এর সামনে এলে তা বন্ধ হয়ে যায়। এসময় ইঞ্জিনরুম থেকে চালক যাত্রীদের রেলের তার সংক্রান্ত জটিলতার বিষয়ে অবগত করে। এসময় কিছুক্ষণ পর পর রেলের ইঞ্জিনরুমে চালকের সাথে একাধিকবার যোগাযোগ করে পরিস্থিতির বিষয়ে জানতে এবং আগে পিছে নিকটস্থ যেকোনো স্টেশনে নামানোর জন্য অনুরোধ করেন।

তবে কারওয়ান বাজার স্টেশন থেকে ছাড়ার সময়ই রেলের ভয়েস এলার্ট নির্দেশনায় দুঃখ প্রকাশ করে যাত্রীদের জানানো হয় কারওয়ান বাজার থেকে শাহাবাগ পর্যন্ত রেলটি জটিলতার কারণে ধীরে ধীরে অগ্রসর হবে। পরে সেটি সার্ক ফোয়ারা চত্বরের নিকট হোটেল সোনারগাঁয়ের নিকট যেয়ে রেলটির চলাচল প্রায় আধাঘন্টারও বেশি বন্ধ রাখা হয়।

ত্রুটি সংক্রান্ত জটিলতার বিষয়ে মে‌ট্রো‌রে‌লের নির্মাণ ও পরিচালনার দা‌য়ি‌ত্বে থাকা সরকা‌রি কোম্পা‌নি ডিএমটিসিএলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক এম এ এন ছিদ্দিক জানান, ১৫ মি‌নিট ট্রেন চলাচল বন্ধ ছিল। বৈদ্যুতিক তিন তা‌রের (ক্যাটনারি) উপ‌রেরটি নিউট্রাল। কারওয়ান বাজার থে‌কে শাহবা‌গের ম‌ধ্যে কো‌নো স্থা‌নে এর উপ‌রে কো‌নো দুর্বৃত্ত আ‌শপা‌শের ভবন থে‌কে ডি‌সের তা‌রের ম‌তো কিছু একটা ফে‌লে। এতে দুর্ঘটনার ঝুঁকি তৈরি হওয়ায় ট্রেন চলাচল বন্ধ রাখা হয়। পরে তারটি অপসারণ করে, দুই লাইনেই ট্রেন চলছে স্বাভাবিক হয়।

ডিএমটিসিএলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ১৫ মিনিট রেলের বন্ধ থাকার কথা জানালেও রেলটি আধঘণ্টারও বেশি সময় বন্ধ থাকে। যাত্রীরা এসময় কিছুটা আতঙ্কিতও হয়ে যায়।


আরও খবর
দেশে ৩০ শতাংশ খাদ্য অপচয় হয়: কৃষিমন্ত্রী

বুধবার ২১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




পোশাক কারখানায় ছাঁটাই বন্ধ ও কারখানাভিত্তিক রেশন চালুর দাবি

প্রকাশিত:শুক্রবার ০২ ফেব্রুয়ারী 2০২4 | হালনাগাদ:শুক্রবার ০২ ফেব্রুয়ারী 2০২4 | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

গার্মেন্ট শ্রমিক ট্রেড ইউনিয়ন কেন্দ্রের নেতারা সারা দেশে রপ্তানিমুখী তৈরি পোশাক কারখানার শ্রমিকদের বিরুদ্ধে অব্যাহত ছাঁটাই-বরখাস্ত, গ্রেড কারচুপি, টার্গেটের নামে ফাও খাটানোসহ সকল হয়রানি, নির্যাতন অবিলম্বে বন্ধ এবং রেশনিং ব্যবস্থা চালুর দাবি জানিয়েছেন।

শুক্রবার (০২ ফেব্রুয়ারি) জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে কেন্দ্রীয় শ্রমিক সমাবেশে এসব দাবি জানান সংগঠনের নেতারা। গার্মেন্ট শ্রমিক ট্রেড ইউনিয়ন কেন্দ্রের সভাপতি শ্রমিকনেতা মন্টু ঘোষের সভাপতিত্বে এবং সাংগঠনিক সম্পাদক মোহাম্মদ শাহাজাহানের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত সমাবেশে বক্তব্য রাখেন গার্মেন্ট টিইউসির উপদেষ্টা আবদুল্লাহ ক্বাফী রতন, সাধারণ সম্পাদক সাদেকুর রহমান শামীম, সহসভাপতি জলি তালুকদার, কেন্দ্রীয় নেতা দুলাল সাহা, আব্দুস সালাম বাবুল, বাবুল হোসেন ও মাসুদ রানা প্রমুখ।

এ সময় শ্রমিকনেতারা মজুরি আন্দোলনে কারাবন্দি শ্রমিক ও নেতৃবৃন্দের মুক্তি এবং আন্দোলনে নিহত ৪ শ্রমিকের আজীবন আয়ের সমপরিমাণ ক্ষতিপূরণ প্রদান, হত্যাকাণ্ডের সুষ্ঠু তদন্ত ও বিচারের দাবি জানান।

সমাবেশে শ্রমিকনেতা মন্টু ঘোষ বলেন, শ্রমিকদের দাবি ও বর্তমান বাজার পরিস্থিতি অনুসারে মজুরি বৃদ্ধি করা হয়নি। উপরন্তু যে যৎসামান্য মজুরি বৃদ্ধি হয়েছে তা থেকেও নানা অপকৌশলে শ্রমিকদের বঞ্চিত করা হচ্ছে। উল্লেখযোগ্য সংখ্যক কারখনার শ্রমিকরা অভিযোগ করেছেন, তাদের পূর্বের গ্রেড থেকে পদাবনতি ঘটানো হয়েছে। একাধিক কারখানায় শ্রম আইন লঙ্ঘন করে আন্দোলনে অংশগ্রহণকারী কমিটির নির্বাচিত সদস্যদের বরখাস্ত করা হয়েছে। নতুন মজুরি কাঠামো থেকে বঞ্চিত করতে ছাঁটাই-বরখাস্তের শিকার শ্রমিকদের নামে মিথ্যা তারিখ দিয়ে নোটিশ জারি করা হয়েছে। তিনি এসব অত্যাচার বন্ধের দাবি জানিয়ে দ্রুত সময়ের মধ্যে কারখানাভিত্তিক রেশন চালু করার দাবি জানান।

উপদেষ্টা আবদুল্লাহ ক্বাফী রতন বলেন, বর্তমানে দেশ লুটেরাদের স্বার্থে পরিচালিত হচ্ছে। দেশের ৯৫ ভাগ শ্রমিক মেহনতি মানুষ লুটপাট ও অর্থ পাচারের নির্মম পরিণতি ভোগ করছে। এই পরিস্থিতিতে শ্রমিকশ্রেণির রাষ্ট্র ক্ষমতা দখল করাই মুক্তির পথ। দেশে শ্রম মন্ত্রণালয় থাকলেও সেটা শ্রমিকদের স্বার্থে কাজ না করে মালিকের স্বার্থ রক্ষা করে চলেছে। নামে শ্রম মন্ত্রণালয় হলেও প্রকৃত অর্থে তা মালিক মন্ত্রণালয়ে পরিণত হয়েছে।

সাধারণ সম্পাদক সাদেকুর রহমান শামীম বলেন, শ্রম মন্ত্রণালয়ের দুটি দপ্তর, কলকারখানা ও প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন অধিদপ্তর ও শ্রম অধিদপ্তর এ সব অনিয়ম ও আইন লঙ্ঘনের ঘটনায় তাদের দায়িত্ব পালন করছে না। একদিকে মজুরি বোর্ড খুবই অপর্যাপ্ত মজুরি নির্ধারণ করেছে, অন্যদিকে মালিকপক্ষ নানাভাবে শ্রমিকদের হয়রানি ও নির্যাতন করছে। অবিলম্বে এই অবস্থার প্রতিকার না করলে শ্রমিকরা কঠোর অবস্থান গ্রহণে বাধ্য হবে।

সহসভাপতি জলি তালুকদার বলেন, টঙ্গী বিসিক শিল্প নগরীতে ডিসেম্বর ২০২৩-এর প্রথম সপ্তাহে প্যাট্রিয়ট ইকো অ্যাপারেল লি. কারখানার অংশগ্রহণকারী কমিটির দুজন নির্বাচিত সদস্যকে বেআইনিভাবে বরখাস্ত করা হয়। যা বাংলাদেশ শ্রম আইনের ধারা ২০৫(১০) ও ধারা ১৯৫ লঙ্ঘনের কারণে শাস্তিযোগ্য অপরাধ। অথচ দীর্ঘদিন পূর্বে অভিযোগ গ্রহণ করেও অদ্যবধি শ্রম মন্ত্রণালয়ের দুই অধিদপ্তর কোনো ব্যবস্থা গ্রহণ করেনি।


আরও খবর
দেশে ৩০ শতাংশ খাদ্য অপচয় হয়: কৃষিমন্ত্রী

বুধবার ২১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




বাস-কাভার্ডভ্যান মুখোমুখি সংঘর্ষ, নিহত ৩

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ০৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
মোহাম্মদ ফারুক, কক্সবাজার

Image

চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কের চকরিয়ায় যাত্রীবাহী বাস ও কাভার্ডভ্যানের মুখোমুখি সংঘর্ষে এক নারীসহ দুই গাড়ির চালক নিহত হয়েছেন। এতে আহত হয়েছেন অন্তত ১১ জন। তবে হতাহতদের নাম পরিচয় জানা সম্ভব হয়নি।

বৃহস্পতিবার (০৮ ফেব্রুয়ারি) সকাল সাড়ে ১০টার দিকে কক্সবাজারের চকরিয়া উপজেলার হারবাং ইউনিয়নের আরএফএল ফ্যাক্টরির সামনের মহাসড়কে ওই দুর্ঘটনা ঘটে বলে জানান চিরিঙ্গা হাইওয়ে থানা পুলিশের পরিদর্শক মাহবুবুল আলম ভূঁইয়া।

স্থানীয়দের বরাত দিয়ে মাহবুবুল আলম জানান, সকালে চকরিয়ার হারবাং ইউনিয়নের আরএফএল ফ্যাক্টরির সামনে চট্টগ্রামগামী ঈগল পরিবহন সার্ভিসের একটি বাসের সঙ্গে বিপরীত দিক থেকে আসা স্কয়ার কোম্পানির ওষুধবাহী কাভার্ডভ্যানের মধ্যে মুখোমুখি সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এতে বাসটি সড়কের পাশের খাদে পড়ে যায়। এ ছাড়া গাড়ি দুটির সামনের অংশ দুমড়ে-মুচড়ে যায়।

তিনি আরও জানান, দুর্ঘটনায় দুই গাড়ির চালক ও এক নারী যাত্রী নিহত হয়েছেন। আহতদের উদ্ধার করে চকরিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করানো হয়েছে। হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক জানিয়েছেন আহতদের মধ্যে দুইজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক।

দুর্ঘটনাকবলিত গাড়ি দুটি জব্দ করা হয়েছে বলে জানান চকরিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শেখ মো. আলী।


আরও খবর



আরও ১০৮ শহীদ বুদ্ধিজীবীর তালিকা প্রকাশ

প্রকাশিত:রবিবার ১৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:রবিবার ১৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

আরও ১০৮ শহীদ বুদ্ধিজীবীর তালিকা প্রকাশ করা হয়েছে। এ নিয়ে তিন দফায় ৪৪৩ জন শহীদ বুদ্ধিজীবীর তালিকা প্রকাশ করলো সরকার।

তৃতীয় ধাপে ১০৮ জন শহীদ বুদ্ধিজীবীর তালিকা প্রকাশ করে ১৫ ফেব্রুয়ারি গেজেট প্রকাশ করেছে মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রণালয়। এদের মধ্যে শিক্ষক, রাজনীতিক, সমাজকর্মী, চিকিৎসক, আইনজীবী, লেখক, চাকরিজীবী, প্রকৌশলী, নাট্যকার, সাংবাদিক, সংগীত শিল্পী এবং সংস্কৃতিকর্মী রয়েছেন।

গেজেটে বলা হয়েছে, শহীদ বুদ্ধিজীবীদের তালিকা প্রণয়নের জন্য গঠিত কমিটির সুপারিশের আলোকে শহীদ বুদ্ধিজীবীর সংজ্ঞা অনুযায়ী এদের তালিকা প্রকাশ করা হলো।

৬ জানুয়ারি মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ে শহীদ বুদ্ধিজীবী যাচাই-বাছাই কমিটির সভায় নতুন করে ১০৮ জনের নাম শহীদ বুদ্ধিজীবীর তালিকায় অন্তর্ভুক্ত করার বিষয়টি চূড়ান্ত করা হয়।

২০২১ সালের ৭ এপ্রিল ১৯১ জন শহীদ বুদ্ধিজীবীর নাম গেজেট আকারে প্রকাশ করে মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রণালয়। ২০২২ সালের ২৯ মে দ্বিতীয় তালিকায় ১৪৩ জন শহীদ বুদ্ধিজীবীর নাম অন্তর্ভুক্ত করা হয়।

শহীদ বুদ্ধিজীবীদের তালিকা প্রণয়নের জন্য ২০২০ সালের ১৯ নভেম্বর গবেষক, বীর মুক্তিযোদ্ধা এবং মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তাদের নিয়ে যাচাই-বাছাই কমিটি গঠন করা হয়।

কমিটি নির্ধারিত শহীদ বুদ্ধিজীবীর সংজ্ঞা অনুযায়ী, যে সব সাহিত্যিক, দার্শনিক, বিজ্ঞানী, চিত্রশিল্পী, শিক্ষক, গবেষক, সাংবাদিক, আইনজীবী, চিকিৎসক, প্রকৌশলী, স্থপতি, ভাস্কর, সরকারি ও বেসরকারি কর্মচারী, রাজনীতিবিদ, সমাজসেবী, সংস্কৃতিসেবী, চলচ্চিত্র, নাটক সঙ্গীত ও শিল্পকলার অন্যান্য শাখার সঙ্গে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তি যাদের বুদ্ধিবৃত্তিক কর্মের মাধ্যমে স্বাধীন বাংলাদেশের অভ্যুদয়ে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রেখেছেন এবং পাকিস্তানি দখলদার বাহিনী কিংবা তাদের সহযোগীদের হাতে শহীদ কিংবা চিরতরে নিখোঁজ হয়েছেন তারা শহীদ বুদ্ধিজীবী হিসেবে বিবেচিত হবেন।

২০২০ সালের ১৩ ডিসেম্বর কমিটির প্রথম সভায় প্রাথমিকভাবে এক হাজার ২২২ জন বুদ্ধিজীবীর তালিকা অনুমোদন দেওয়া হয়। প্রাথমিকভাবে ১৯৭২ সালে এক হাজার ৭০ জন শহীদের তালিকা, পরবর্তীসময়ে ডাক বিভাগ ১৫২ জন শহীদের ডাক টিকিট প্রকাশ করে সেই তালিকাও অনুমোদন দেওয়া হয় ওই সভায়।

১৯৭১ সালের ডিসেম্বরে স্বাধীনতা যুদ্ধের শেষ পর্যায়ে এসে পাকিস্তানি বাহিনী বুঝতে পারে, তাদের পক্ষে যুদ্ধে জেতা সম্ভব নয়। তখন তারা সাংস্কৃতিক, সামাজিক ও শিক্ষাগত দিক থেকে অঙ্কুরেই দুর্বল করে দিতে এক হত্যাযজ্ঞের পরিকল্পনা করে। পরিকল্পনা অনুযায়ী ১৪ ডিসেম্বর রাতে পাকিস্তানি বাহিনী তাদের এ দেশীয় দোসর রাজাকার, আলবদর ও আল শামস বাহিনীর সহায়তায় দেশের শ্রেষ্ঠ সন্তানদের তাদের বাসা থেকে তুলে এনে নির্মম নির্যাতনের পর হত্যা করে। এ গণহত্যা বাংলাদেশের ইতিহাসে বুদ্ধিজীবী হত্যাকাণ্ড নামে পরিচিত। বন্দি অবস্থায়ও বুদ্ধিজীবীদের বিভিন্ন স্থানে নিয়ে হত্যা করা হয়।

দেশ স্বাধীন হওয়ার পর তাদের ক্ষত-বিক্ষত ও বিকৃত লাশ রায়েরবাজার এবং মিরপুর বধ্যভূমিতে পাওয়া যায়। অনেকের লাশ শনাক্তও করা যায়নি। কারও কারও লাশের হসিদই মেলেনি। এ নির্মম হত্যাকাণ্ডের কথা স্মরণ করে প্রতি বছর ১৪ ডিসেম্বর বাংলাদেশে পালিত হয় শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস।

শহীদ বুদ্ধিজীবীর তৃতীয় তালিকা দেখুন এখানে।


আরও খবর
দেশে ৩০ শতাংশ খাদ্য অপচয় হয়: কৃষিমন্ত্রী

বুধবার ২১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




আজ গোয়াতে চার হাত এক হবে রাকুল-জ্যাকির!

প্রকাশিত:বুধবার ২১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ২১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
বিনোদন ডেস্ক

Image

গোয়াতে দু-দু চারহাত এক হতে চলেছে বলিউড অভিনেত্রী রাকুল প্রীত সিং ও অভিনেতা প্রযোজক জ্যাকি ভগনানির। আজ বুধবার (২১ ফেব্রুয়ারি) বেলা ৩টা নাগাদ সাত পাক ঘুরবেন তাঁরা।

গত শনিবার রাতেই সপরিবার গোয়ায় উড়ে গিয়েছেন হবু বর-কনে। সঙ্গীত, মেহন্দি,গায়ে হলুদবিয়ের সমস্ত উদযাপনই হয়েছে গোয়াতে। বিয়ের ক্ষেত্রে জ্যাকি-রাকুল প্রথম থেকেই অন্যপথে হেঁটেছেন। আয়োজনে কোনো কমতি থাকছে না। কিন্তু সব কিছুই হবে পরিবেশবান্ধব পদ্ধতিতে। তেমনই তাঁদের বিয়ের ধরণও আলাদা। এক বার নয়, দুবার বিয়ে করবেন তাঁরা।

রাকুল প্রীত নিজে শিখ। তাই প্রথম অনন্তকারজ (শিখদের বিয়ের অনুষ্ঠান) হবে। অন্যদিকে জ্যাকিরা হলেন সিন্ধি। সেই কারণে ফের সিন্ধি নিয়ম মেনে হবে বিয়ে। গোয়ায় বিয়ের পর্ব মিটিয়েই মুম্বাই ফিরবেন তাঁরা। ২২ ফেব্রুয়ারি মুম্বাইয়ের বন্ধুবান্ধব, তারকাদের জন্য রয়েছে রিসেপশন পার্টির আয়োজন।

বেশ কয়েক বছর ধরে প্রেম করছেন তাঁরা। নিজেদের সম্পর্ক নিয়ে জনসমক্ষে তেমনভাবে আলোচনা না করলেও কখনও সে ভাবে লুকোছাপাও করেননি তাঁরা। গত কয়েক বছরের প্রেমের পর নতুন বছরে নিজেদের সম্পর্কের নতুন অধ্যায় শুরু করতে চলেছেন দুই বলিউড ব্যক্তিত্ব।


আরও খবর
জয়ার ইরান জয়

বুধবার ২১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

মা হচ্ছেন দীপিকা পাডুকোন

বুধবার ২১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪