আজঃ মঙ্গলবার ২৮ জুন ২০২২
শিরোনাম

নেত্রকোনায় ১১টি ক্লিনিক-ডায়াগনস্টিক সেন্টার বন্ধ

প্রকাশিত:রবিবার ২৯ মে ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ২৯ মে ২০২২ | ২৪৯৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

নেত্রকোনার দুর্গাপুর উপজেলায় নিবন্ধনহীন ক্লিনিক-ডায়াগনস্টিক সেন্টারে অভিযান চালিয়েছে স্বাস্থ্য বিভাগ। এ সময় মোট ১১টি নিবন্ধনহীন ক্লিনিক-ডায়াগনস্টিক সেন্টার বন্ধ ও ১টি প্রতিষ্ঠানকে সিলগালা করেছে উপজেলা স্বাস্থ্য বিভাগ। এ ছাড়া লাইসেন্স নবায়নের জন্য ৬টি প্রতিষ্ঠানকে ১ মাস সময় দেওয়া হয়েছে।

আজ শনিবার বিকেলে এ অভিযান পরিচালনা করেন উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. সজীব রায়। অভিযানে সহযোগিতা করেন আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. তানজিরুল ইসলাম রায়হান, স্বাস্থ্য পরিদর্শক সুব্রত চক্রবর্তী, স্যানিটারি অফিসার আলী আকবর ও থানা উপপরিদর্শক আব্দুল হান্নান।

জানা গেছে, শনিবার বিকেলে পৌর শহরে অভিযান চালিয়ে নিবন্ধন না থাকায় সেবা ডিজিটাল ডায়াগনস্টিক, সততা ডিজিটাল ডায়াগনস্টিক, নিরাপদ ডায়াগনস্টিক, তাহমিনা ডায়াগনস্টিক, ইডেন ডায়াগনস্টিক, হেলথ কেয়ার ডায়াগনস্টিক, সোমেশ্বীর ডিজিটাল ডায়াগনস্টিক, রাফিয়া ডিজিটাল ডায়াগনস্টিক, তালুকদার ক্লিনিক, জয়া হেলথ কেয়ার ক্লিনিক, পপুলার স্বাস্থ্যসেবা বন্ধ করে দেওয়া হয়। এ ছাড়া কোনো কাগজপত্র না থাকায় সুপার ডায়াগনস্টিক সেন্টার সিলগালা করা হয়।

এ বিষয়ে উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. সজীব রায় বলেন, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের নির্দেশ মোতাবেক দুর্গাপুর পৌর শহরের ক্লিনিক ও ডায়াগনস্টিক সেন্টারে অভিযান পরিচালনা করেছি। এ সময় নিবন্ধন না থাকায় ১১টি প্রতিষ্ঠানকে বন্ধ, ১ টি প্রতিষ্ঠানকে সিলগালা ও ৬টি প্রতিষ্ঠানকে লাইসেন্স নবায়নের জন্য ১ মাস সময় দিয়েছি। যারা এ আদেশ অমান্য করবে, তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে। সজীব রায় বলেন, ডায়াগনস্টিক ও ক্লিনিক সেন্টার বন্ধে এ অভিযান অব্যাহত থাকবে।


আরও খবর



২৩৩ শিক্ষক-কর্মকর্তাকে পদোন্নতি দিয়ে প্রজ্ঞাপন

প্রকাশিত:বুধবার ১৫ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:বুধবার ১৫ জুন ২০২২ | ৩৬৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

দেশের বিভিন্ন জেলার ২৩৩ জন সরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সহকারী প্রধান ও প্রধান শিক্ষককে পদোন্নতি দেওয়া হয়েছে। সহকারী প্রধান শিক্ষকদের প্রধান শিক্ষক, সহকারী জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা এবং প্রধান শিক্ষকদের জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা পদে পদায়ন দেওয়া হয়েছে। রাষ্ট্রপতির আদেক্রমে মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের সচিব মো. আবু বকর ছিদ্দীক সাক্ষরিত এ সংক্রান্ত প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়েছে।

এতে বলা হয়েছে, এই প্রজ্ঞাপন জারির আগে উপরিউক্ত কোনো শিক্ষক/কর্মকর্তা অবসরোত্তর ছুটিতে গমন/মৃত্যুবরণ করে থাকলে তার ক্ষেত্রে এ আদেশ প্রযোজ্য হবে না। জনস্বার্থে জারি করা এ আদেশ অবিলম্বে কার্যকর করতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

প্রজ্ঞাপনে দেখা গেছে, ৯ম গ্রেডে কর্মরত সহকারী প্রধান শিক্ষক, সহকারী প্রধান শিক্ষিকা, সহকারী জেলা শিক্ষা কর্মকর্তাদের জাতীয় বেতনস্কেল ২০১৫ এর ৩৫,৫০০-৬৭,০১০ টাকা বেতনক্রমে (৬ষ্ঠ গ্রেডে) প্রধান শিক্ষক/প্রধান শিক্ষিকা ও জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা পদে পদোন্নতি প্রদান করা হয়েছে। এর মধ্যে ঢাকার কয়েকটি সরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয়সহ শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অধীনে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে কর্মরত শিক্ষক-কর্মকর্তা রয়েছেন। এর বাইরে বিভিন্ন জেলা ও মাঠ পর্যায়ের অফিসে কর্মরত শিক্ষক-কর্মকর্তারা এ তালিকায় রয়েছেন।

জানা গেছে, মামলাজনিত কারণে দীর্ঘদিন ধরে সরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের পদোন্নতি কার্যক্রম বন্ধ ছিল। সে কারণে সহকারী শিক্ষক হিসেবে যোগদান করে সারাজীবন এক পদে থেকে বিদ্যালয় শিক্ষকরা অবসরে যান। সেটি বিবেচনা করে সহকারী প্রধান শিক্ষক পদ সৃজন করে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। সম্প্রতি দেশের সব সরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে নতুন সৃজন হওয়া পদে সিনিয়র শিক্ষকদের পদোন্নতি দেওয়া হয়েছে। আবারও এ স্তরের শিক্ষক ও মাঠ কর্মকর্তাদের পদোন্নতি দেওয়া হলো।


আরও খবর



যে আট লক্ষণে বুঝবেন সঙ্গীর কাছে আপনার গুরুত্ব নেই

প্রকাশিত:বুধবার ১৫ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:বুধবার ১৫ জুন ২০২২ | ৪৭৫জন দেখেছেন
আব্দুল্লাহ আল মামুন

Image

প্রেমময়, প্রাণবন্ত আর যত্নশীল সঙ্গী পেলে জীবন যেন স্বর্গসুখে ভরে ওঠে। যখন আপনি সহায়ক, ভালোবাসাময় আর যত্নবান সঙ্গী পাবেন, তখন জীবনকে খুব সুন্দর মনে হবে। কিন্তু সঙ্গীর কাছে যদি আপনার কোনো মূল্যই না থাকে?

জীবনে এমন অধ্যায়ও আসতে পারে, যখন নিজের সমস্ত স্বপ্ন, আশা-আকাঙ্ক্ষা সঙ্গীর কল্যাণে সঁপে দিয়েও দিনশেষে আশাভঙ্গ হয়, আপনার হৃদয় হয়ে ওঠে বেদনার্ত।

কিন্তু এটা জানা খুব গুরুত্বপূর্ণ যে সঙ্গী আপনাকে মূল্য দেয় কি না। ভারতের জীবনধারা ও স্বাস্থ্যবিষয়ক সাময়িকী বোল্ডস্কাই এক প্রতিবেদনে এমন কিছু স্পষ্ট লক্ষণের কথা উল্লেখ করেছে, যা জেনে নিতে পারেন। আসুন, একবার চোখ বুলিয়ে নিই—

১. সম্পর্কোন্নয়নে সঙ্গীর কোনো প্রচেষ্টাই নেই:

সঙ্গীর কাছে যে আপনার মূল্য খুবই সীমিত, তার অন্যতম স্পষ্ট লক্ষণ এটি। আপনার প্রচেষ্টা কী, তাতে সঙ্গীর কোনো আগ্রহই নেই। সম্পর্ক প্রাণবন্ত রাখতে সঙ্গী কখনও কিছুই করে না। শুধু তা-ই নয়, আপনার যেকোনো প্রচেষ্টাকে সঙ্গী কোনোপ্রকার সম্মান করে না। এসব লক্ষণ দেখে বুঝবেন, তার কাছে আপনার কোনো মূল্য নেই।

২. সঙ্গী আপনার জন্য কিছুই করে না:

সঙ্গীর জন্য আপনি বিশেষ কিছু করেন। এই যেমন আপনি হয়তো বিশেষ কিছু লেখেন তার উদ্দেশে, উপহার আনেন, বিশেষ খাবার রান্না করেন। এমন অনেক কিছুই করেন সঙ্গীকে সুখী করার জন্য। সঙ্গী যে বিশেষ, তা বোঝানোর জন্য এমনটা করে অনেকে। কিন্তু এমন বিশেষ কিছুই যদি আপনার সঙ্গী না করে, তবে তার কাছে যে আপনার মূল্য নেই, এটা তার স্পষ্ট লক্ষণ।

৩. গুরুত্বপূর্ণ আলাপ এড়িয়ে যায় সঙ্গী:

সম্পর্কে গুরুত্বপূর্ণ বা একান্ত আলাপ থাকবেই। কিন্তু আপনার সঙ্গী যদি এমন আলাপ এড়িয়ে চলে সর্বদা? এর মানে দাঁড়ায়, সঙ্গীর কাছে আপনার গুরুত্ব কম। দেখা যাচ্ছে, দিন পার হয়ে গেল অথচ সঙ্গী আপনার সঙ্গে কোনো বাক্য বিনিময়ই করেনি। কিছু জিজ্ঞেস করলে অস্পষ্ট উত্তর দিচ্ছে। আবার মুখোমুখি আলাপেও অস্বস্তি বোধ করছে। এসব তো স্পষ্ট লক্ষণই।

৪. সঙ্গী কখনও আপনার প্রশংসা করে না:

আপনি যদি সঙ্গীর জন্য বিশেষ কিছু করেন, তাঁকে খুশি করার জন্য প্রাণান্তকর চেষ্টা করেন, কিন্তু কোনোভাবেই তার কাছ থেকে ন্যূনতম প্রশংসাবাক্যও শোনেন না, তবে এটি স্পষ্ট লক্ষণ যে সঙ্গীর কাছে আপনার গুরুত্ব কম। এই রেড ফ্ল্যাগ কোনোভাবেই আপনি এড়াতে পারেন না।

৫. আপনার পছন্দ, ভাবনা ও বিশ্বাসের সমালোচনা করে:

সুস্থ সম্পর্কের জন্য শুধু ভালোবাসাই যথেষ্ট নয়, পরস্পরকে সম্মান করা অত্যন্ত জরুরি। যখন আমরা পারস্পরিক শ্রদ্ধার কথা বলব, তখন অবশ্যই একে অন্যের বিশ্বাস, চিন্তাচেতনা, মত ও পছন্দকে সম্মান করতে হবে। এটা ভালোবাসা প্রকাশের অন্যতম উপায়। কিন্তু যদি দেখেন সঙ্গী আপনার বিশ্বাস, চিন্তাচেতনা, মত ও পছন্দের সমালোচনা করে এবং কটাক্ষ করে, তখন বুঝবেন তার কাছে আপনার গুরুত্ব নেই।

৬. সঙ্গী প্রায় আপনাকে এড়িয়ে যায়:

আপনি কি খেয়াল করে দেখেছেন, সঙ্গী ইচ্ছাকৃতভাবে আপনাকে এড়িয়ে যায়? যদি হ্যাঁ হয়, আমরা বুঝতে পারছি আপনার কষ্টটা। এটা খুবই দুঃখজনক। এমন পরিস্থিতিতে নিজেকে দোষারোপ করবেন না। আপনাকে যে সত্যিই ভালোবাসবে, সে কখনও এড়িয়ে যাবে না। সে প্রতি মুহূর্ত আপনার সঙ্গ উপভোগ করবে।

৭. সব সময় সঙ্গী অজুহাত দেয়:

সঙ্গীর কাছে যে আপনার গুরুত্ব কম, তার আরেকটি স্পষ্ট লক্ষণ হচ্ছে, সে সব সময় কিছু না কিছু অজুহাত দেখায়। ধরা যাক, আপনি কোথাও যেতে চাইলেন বা একসঙ্গে সিনেমা দেখতে চাইলেন আর সঙ্গী কিছু একটা অজুহাত দেখিয়ে এড়িয়ে গেল। সঙ্গী কখনও আপনার আবেগের গুরুত্ব বুঝতে চেষ্টা করে না। অথবা আপনি তাকে কতটা ভালোবাসেন, তা কখনও বুঝতে পারে না।

৮. অন্যের সঙ্গে আপনার তুলনা করে:

এটা বলার অপেক্ষা রাখে না যে দুজন মানুষ কখনও একই বৈশিষ্ট্যের হতে পারে না। প্রত্যেকের আলাদা বৈশিষ্ট্য আছে। প্রত্যেকেই স্বতন্ত্র। কিন্তু সঙ্গী যদি অন্য কারও সঙ্গে আপনার তুলনা করে? তা হলে বুঝবেন তার কাছে আপনার মূল্য একেবারেই কম। আপনি তো আপনার মতোই হবেন, অন্যকে অনুকরণ করতে যাবেন কেন? সঙ্গী যদি আপনার কাছে অন্যের মতো আচরণ প্রত্যাশা করে, তবে নিশ্চয়ই সে আপনাকে গুরুত্ব দেয় না।

উপর্যুক্ত বিষয়গুলোর সঙ্গে যদি আপনার উপলব্ধির অধিকাংশই মেলে, তাহলে এখনই সঙ্গীর সঙ্গে কথা বলুন, মুখোমুখি বসুন। আপনি আপনার সম্পর্ক পুনর্বিবেচনা করেও দেখতে পারেন।

নিউজ ট্যাগ: আপনার গুরুত্ব

আরও খবর
বিফ সাসলিক তৈরির রেসিপি

সোমবার ২৭ জুন ২০২২




ভারতীয় ফ্যাশন ডিজাইনার প্রত্যুষা গারিমেল্লার রহস্যমৃত্যু

প্রকাশিত:রবিবার ১২ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ১২ জুন ২০২২ | ৩৪০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

হায়দরাবাদের বনজারা হিলস থেকে ভারতীয় ফ্যাশন ডিজাইনার প্রত্যুষা গারিমেল্লার (৩৫) মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। পুলিশের ধারণা, প্রত্যুষা আত্মহত্যা করেছেন। যদিও, তার মৃত্যু ঘিরে দানা বেঁধেছে একাধিক রহস্য। প্রত্যুষা ভারতের অন্যতম ফ্যাশন ডিজাইনারদের মধ্যে একজন। তার ক্লায়েন্টের মধ্যে রয়েছেন, বলিউড থেকে টলিউডের বিভিন্ন সেলেব্রিটিরা।

পুলিশ জানিয়েছে, শনিবার (১১ জুন) দুপুরের পর বনজারা হিলসের ফ্ল্যাটে অনেকক্ষণ প্রত্যুষার কোনো সাড়া না পেয়ে নিরাপত্তারক্ষীরা খবর দেন স্থানীয় থানায়। খবর পেয়ে পুলিশ এসে দরজা ভেঙে তার মৃতদেহ উদ্ধার করে। ফ্ল্যাটের বাথরুম থেকে মরদেহটি উদ্ধার করা হয়। এসময় পুলিশ তার ঘর থেকে একটি বিষের শিশি উদ্ধার করেছে। প্রাথমিকভাবে মনে করা হচ্ছে, এই বিষই প্রত্যুষার মৃত্যুর কারণ। তবে তিনি আত্মহত্যা করেছেন নাকি খুন হয়েছেন, সে বিষয়ে এখনই নিশ্চিত নয়।

প্রত্যুষার পরিচিতদের কাছ থেকে পুলিশ জানতে পেরেছে, গত কয়েকদিন ধরে মানসিক অবসাদে ভুগছিলেন তিনি। কাজের সঙ্গেই সেই অবসাদ জড়িয়ে ছিল।


আরও খবর



মাঝেমাঝেই দাঁতে যন্ত্রণা হয়? এই খাবারগুলি খাচ্ছেন না তো

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৭ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ০৭ জুন ২০২২ | ৩৪৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

সারা দিনে নিয়মমাফিক ব্রাশ, খাওয়ার পরে কুলকুচি করে মুখ ধোয়া ছাড়া আলাদা করে দাঁতের যত্ন নিতে খুব একটা সময় দেওয়া হয় না। দাঁতের যত্ন নিতে এই বিষয়গুলি ছাড়াও আরও কয়েকটি দিকে যত্নবান হওয়া প্রয়োজন। দাঁতের ফাঁকে ঢুকে যাওয়া খাবারের টুকরো, খাবারের অতিরিক্ত চিনি দাঁতের ক্ষয় করে। এখান থেকে শুরু হয় দাঁতে ব্যথা। তবে খাদ্যাভ্যাসের কারণেও কিন্তু দাঁতে ব্যথা হতে পারে। দাঁতে ব্যথা এড়াতে কোন খাবারগুলি থেকে দূরে থাকবেন?

লেবু জল

ভিটামিন সি-র উৎস লেবু জল। রোগা হতে অনেকেই নিয়মিত গরমজলে লেবু মিশিয়ে খান। দন্ত বিশেষজ্ঞরা বলছেন, লেবুর রসে থাকা অ্যাসিড দাঁতের এনামেল ক্ষয় করতে পারে। ফলে দাঁতে ব্যথা এবং সঙ্গে মাড়ি সংক্রান্ত বিভিন্ন সমস্যার কারণ হতে পারে।

আপেল সিডার ভিনিগার

ডিটক্স পানীয় হিসাবে অনেকেই ভরসা রাখেন আপেল সিডার ভিনিগারে। দাঁতের চিকিৎসকরা বলছেন, আপেল সিডার ভিনিগার শরীর ঝরঝরে রাখতে সাহায্য করলেও এর অ্যাসিড উপাদান দাঁতের ক্ষয় করে। এমনকি, আপেল সিডার ভিনিগারের অত্যধিক ব্যবহারে দাঁতের রঙেও পরিবর্তন আসতে পারে। এর উচ্চ মাত্রার অম্ল উপাদানের কারণে পেটের গোলমালেরও কারণ হতে পারে।

জুস

এই গরমে গলা ভেজাতে অনেকেই বিভিন্ন নরম পানীয়, কোল্ড ড্রিংক, রঙিন পানীয়তে। এই পানীয়গুলি আপনাকে গরম থেকে সাময়িক স্বস্তি দিলেও এই পানীয়তে থাকা শর্করা দাঁতের পক্ষে ক্ষতিকারক হতে পারে। তাই এই ধরনের পানীয় বেশি না খাওয়াই ভাল।

বারে বারে খাবার খাওয়া

অল্প সময়ের বিরতিতে খাবার খাওয়ার প্রবণতাও ঝুঁকি দাঁতের সমস্যার। বারে বারে খাবার খাওয়ার ফলে দাঁতে চাপ পড়ে। ফলে দাঁত ভিতর থেকে ক্ষয়ে যেতে থাকে। ক্যাভিটির সমস্যাও দেখা দিতে পারে।

দন্ত চিকিৎসকরা সারা দিনে যত বার খাচ্ছেন, তত বারই দাঁত মেজে নেওয়ার পরামর্শ দিচ্ছেন। এতে দাঁতের ফাঁকে খাবারের টুকরো আটকে থাকার আশঙ্কা থাকে না।

নিউজ ট্যাগ: দাঁতে যন্ত্রণা

আরও খবর



আশুলিয়ায় ২ যুবকের লাশ উদ্ধার

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১৬ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৬ জুন ২০২২ | ৪১০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

ঢাকার আশুলিয়ার দুই যুবকের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। আউকপাড়া আদর্শ গ্রাম ও সরকার মার্কেট এলাকা থেকে তাদের লাশ উদ্ধার করে পুলিশ।বৃহস্পতিবার সকালে এই দুটি লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

পুলিশ জানায়, আজ সকালে আশুলিয়া ইউনিয়নের আউকপাড়া আদর্শগ্রামে একটি বাড়ির ঘরে ২৫ বছর বয়সি এক যুবকের ধারালো অস্ত্র দিয়ে হাত ও পায়ের রগ কাটা অবস্থায় লাশ দেখতে পায় প্রতিবেশীরা। পরে আশুলিয়া থানা পুলিশকে খবর দিলে পুলিশ তার লাশ উদ্ধার করে।

স্থানীয়দের ধারনা নিহত ওই যুবক সবসময় মাদক সেবন করতেন তিনি নিজেই নিজের পায়ের ও হাতের রগ কেটে আত্মহত্যা করে থাকতে পারেন।

এছাড়া আশুলিয়া সরকার মার্কেট এলাকায় নারী ও শিশু কেন্দ্র হাসপাতালে বুধবার রাত ৯টার দিকে অজ্ঞাতনামা এক যুবকের লাশ অজ্ঞাতনামা লোকেরা ফেলে রেখে পালিয়েছে। সকালে আশুলিয়া থানা পুলিশ ওই হাসপাতাল থেকে লাশ উদ্ধার করে।

এটি কি হত্যাকাণ্ড নাকি মৃত্যু তা নারী ওশিশু হাসপাতালের কর্তব্যরত ডাক্তার ও থানা পুলিশ কহই মন্তব্য করেননি। তবে পুলিশ জানান,  নিহতের লাশ ময়নাতদন্তের জন্য ঢাকা সোহরাওয়ার্দী হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। সেই সঙ্গে নিহতের পরিচয়ের জন্য খোঁজ খবরের চেষ্টা চলছে বলে তিনি জানান।


আরও খবর