আজঃ মঙ্গলবার ২৮ জুন ২০২২
শিরোনাম

নারীর গোসলের ভিডিও ধারণ, পর্নোগ্রাফি মামলায় গ্রেপ্তার

প্রকাশিত:বুধবার ২২ জুন 20২২ | হালনাগাদ:বুধবার ২২ জুন 20২২ | ৫০০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

ঢাকার আশুলিয়ায় নারী পোশাককর্মীর গোসলের ভিডিও ধারণ করে ব্ল্যাকমেইলের অভিযোগে একজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। এ ঘটনায় ভুক্তভোগী নারী বাদী হয়ে আসামির বিরুদ্ধে আশুলিয়া থানায় পর্নোগ্রাফি আইনে মামলা দায়ের করেছেন। মঙ্গলবার (২২ জুন) তাকে গ্রেপ্তারের পর দুপুরে আদালতে পাঠানো হয় বলে আশুলিয়া থানার এসআই ইউনুস আলী জানান।

গ্রেপ্তার মোফাজ্জল হোসেন (৩৫) নেত্রকোণার বারহাট্টা থানার দেওপুর গ্রামের আব্দুল মান্নাফের ছেলে। আশুলিয়ার জিরাবো বাগানবাড়ি এলাকায় ভাড়া বাসায় থেকে পোশাক কারখানায় শ্রমিক হিসেবে চাকরি করেন মোফাজ্জল।

এসআই মামলার নথির বরাতে বলেন, ২২ বছর বয়সী এই নারীর প্রতিবেশী মোফাজ্জল। শুক্রবার বিকালে এই নারী গোসল করার সময় গোপনে মোবাইল ফোনে ভিডিও ধারণ করেন মোফাজ্জল; তারপর রাতে সেটা প্রকাশের ভয় দেখিয়ে ধর্ষণের চেষ্টা করেন।

সকালে ওই নারী পর্নোগ্রাফি আইনে মামলা করলে তাকে গ্রেপ্তার করে দুপুরে আদালতে পাঠনো হয়। তার মোবাইল ফোন জব্দ করা হয়েছে বলে জানান এসআই ইউনুস আলী।


আরও খবর



৪১০ যাত্রী নিয়ে ঢাকা ছাড়লো প্রথম হজ ফ্লাইট

প্রকাশিত:রবিবার ০৫ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ০৫ জুন ২০২২ | ৪৫৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

চলতি বছরের প্রথম হজ ফ্লাইট ৪১০ জন যাত্রী ঢাকা ছেড়েছে। করোনা মহামারির কারণে ২ বছর পর বাংলাদেশে থেকে হজে গেল। রোববার (৫ জুন) সকাল ৯টার দিকে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের ফ্লাইট হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে ছেড়ে যায়। এদিন হজযাত্রী নিয়ে বাংলাদেশ বিমান এবং সৌদি এয়ারলাইন্সের আরও দুটি ফ্লাইট যাবে। গত শুক্রবার (৩ জুন) হজ কার্যক্রম উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

বাংলাদেশ থেকে এবার ১২৮টি ফ্লাইট পরিচালিত হবে। বাংলাদেশ বিমান ৬৫টি, সাউদিয়া ৫১টি এবং ফ্লাইনাস এয়ারলাইন্স ১২টি ফ্লাইটে হজযাত্রী পরিবহন করবে। চাঁদ দেখা সাপেক্ষে আগামী ৮ জুলাই (৯ জিলহজ) সৌদি আরবে পবিত্র হজ অনুষ্ঠিত হবে।

করোনা মহামারির কারণে গেলো ২ বছর বাংলাদেশে থেকে কেউ হজে অংশ নিতে পারেননি। এবার হজে সারা বিশ্বের ১০ লাখ মুসল্লি অংশগ্রহণের সুযোগ পাচ্ছেন। হজযাত্রীর এই সংখ্যা কোটা অনুযায়ী বিভিন্ন দেশের মধ্যে ভাগ করে দেওয়া হয়েছে।

এ বছর বাংলাদেশ থেকে সরকারি ব্যবস্থাপনায় ৪ হাজার জন ও বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় ৫৩ হাজার ৫৮৫ জনসহ সর্বমোট ৫৭ হাজার ৫৮৫ জন পবিত্র হজ পালনের জন্য সৌদি আরব গমনের সুযোগ পাচ্ছেন। যদিও আগে প্রায় ১ লাখ ৩০ হাজার মানুষ বাংলাদেশ থেকে হজে অংশ নেওয়ার সুযোগ পেতেন।

এ বছর ৬৫ বছরের নীচের বয়সীরা এবার হজে অংশগ্রহণের সুযোগ পাচ্ছেন। যাওয়ার ৭২ ঘন্টার মধ্যে তাদেরকে কোভিড-১৯ টেস্টের নেগেটিভ ফলাফল জমা দিতে হবে।


আরও খবর



চট্টগ্রামে দুলাভাইয়ের ছুরিকাঘাতে শ্যালক খুন

প্রকাশিত:রবিবার ১২ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ১২ জুন ২০২২ | ৪৩০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

চট্টগ্রাম নগরের ইপিজেড থানায় বোন জামাইয়ের ছুরিকাঘাতে মোহাম্মাদ মামুন (২০) নামে এক শ্যালক নিহত হয়েছেন। শনিবার রাত পৌনে ৯টার দিকে আকমল আলী রোড এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

নিহত মামুন ইপিজেড এলাকার মতন মেম্বারের বাড়ির মো. জামালের ছেলে। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ইপিজেড থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. কবিরুল ইসলাম।

তিনি বলেন, চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে থেকে পুলিশের মাধ্যমে আমরা বিষয়টি জানতে পেরেছি। ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। 

চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল পুলিশ বক্সের ইনচার্জ উপ-পরিদর্শক (এসআই) নুরুল আলম আশিক বলেন, দুপক্ষের মধ্যে ঝগড়া হলে মো. মামুনের জেঠাতো (চাচাতো) বোনের জামাই তাকে ছুরিকাঘাত করেন। এরপর রাত সাড়ে ৯টার দিকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ওয়ান স্টপ ইমারজেন্সি কেয়ারে আনা হয়। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। মরদেহ মর্গে পাঠানো হয়েছে।


আরও খবর



৪৪তম বিসিএস প্রিলির ফল প্রকাশ

প্রকাশিত:বুধবার ২২ জুন 20২২ | হালনাগাদ:বুধবার ২২ জুন 20২২ | ২৬০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

৪৪তম বিসিএসের প্রিলিমিনারির ফল প্রকাশ করেছে বাংলাদেশ সরকারি কর্ম কমিশন (পিএসসি)। আজ বুধবার বিকেলে ফল প্রকাশ করা হয়। এতে উত্তীর্ণ হয়েছেন ১৫ হাজার ৭০৮ জন প্রার্থী।

এর আগে, আজ দুপুরে পিএসসির সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভা শেষে পিএসসির ওয়েবসাইটে ফল প্রকাশ করা হয়।

গত ২৭মে ৪৪তম বিসিএসের প্রিলিমিনারি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। ঢাকা, চট্টগ্রাম, রাজশাহী, খুলনা, বরিশাল, সিলেট, রংপুর ও ময়মনসিংহ শহরের ২৫০টি কেন্দ্রে একযোগে নেওয়া হয় এ পরীক্ষা। এই বিসিএসে আবেদনকারীর সংখ্যা ছিল ৩ লাখ ৫০ হাজার ৭১৬ জন। তবে পরীক্ষাকেন্দ্রে ৭৩ হাজার ৯৫৬ জন অনুপস্থিত ছিলেন। পরীক্ষায় অংশ নেন ২ লাখ ৭৬ হাজার ৭৬০ জন প্রার্থী। অংশগ্রহণের হার ছিল ৭৮ দশমিক ৯১ শতাংশ।

গত বছরের ৩০ ডিসেম্বর ৪৪তম বিসিএসের আবেদন শুরু হয়। আবেদনের শেষ সময়সীমা ছিল গত ২ মার্চ। এই বিসিএসে বিভিন্ন ক্যাডারে ১ হাজার ৭১০ জন কর্মকর্তা নেওয়ার কথা রয়েছে। এর মধ্যে প্রশাসন ক্যাডারে ২৫০ জন, পুলিশ ক্যাডারে ৫০, পররাষ্ট্র ক্যাডারে ১০, আনসার ক্যাডারে ১৪, নিরীক্ষা ও হিসাবে ৩০, করে ১১, সমবায়ে ৮, রেলওয়ে পরিবহন ও বাণিজ্যিকে ৭, তথ্যে ১০, ডাকে ২৩, বাণিজ্যে ৬, পরিবার পরিকল্পনায় ২৭, খাদ্যে ৩, টেকনিক্যাল ক্যাডারে ৪৮৫ ও শিক্ষা ক্যাডারে ৭৭৬ জন নিয়োগ পাবেন।

৪৪তম বিসিএসের প্রিলিমিনারির ফল দেখতে এই ক্লিক করুন।


আরও খবর



সুন্দরবনে প্রবেশ নিষেধ, ২৩ হাজার পরিবার বিপাকে

প্রকাশিত:শুক্রবার ১০ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ১০ জুন ২০২২ | ৪৯৫জন দেখেছেন

Image

সাতক্ষীরা প্রতিনিধি:

জীববৈচিত্র্য সংরক্ষণে সুন্দরবনে ভ্রমণ ও মাছ শিকারে বন বিভাগের টানা তিন মাসের নিষেধাজ্ঞা চলছে। এতে কর্মহীন হয়ে পড়েছে সাতক্ষীরা উপকূলের ২৩ হাজার পরিবার। মানবেতর জীবনযাপন করছে তারা।

২০১৯ সাল থেকে প্রতি বছর জুলাই থেকে আগস্ট পর্যন্ত সুন্দরবনের নদী ও খালে মাছ আহরণ বন্ধ রাখে বন বিভাগ। এ বছর ১ জুন থেকে এই নিষেধাজ্ঞা শুরু হয়। এতে বিপাকে পড়েছেন জেলে-বাওয়ালিসহ সুন্দরবনকেন্দ্রিক পর্যটনে জড়িতরা।

শ্যামনগরের বুড়িগোয়ালিনী ইউনিয়নের দাতিনাখালী গ্রামের সিদ্দিক গাজী বলেন, সুন্দরবনের পাস বন্ধ। ডাঙায়ও কাজ নেই। বেকার বসে আছি। সংসার চালাতে খুব কষ্ট হচ্ছে। শিশুদের ওষুধও কিনতে পারছি না।

গাবুরা ইউনিয়নের সোরা গ্রামের বাওয়ালি ইউনুচ শেখ বলেন, আমরা বাপ-দাদার আমল থেকে বন করে খাই। পাস পারমিট বন্ধ করে দেয়ায় খেয়ে না খেয়ে দিন কাটাচ্ছি। সরকারি সুযোগ-সুবিধাও পাচ্ছি না।

নীলডুমুর ট্রলার মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক আব্দুল হালিম বলেন, তিন মাস সুন্দরবনে প্রবেশ নিষেধ। জেলে, বাওয়ালি, পর্যটক কেউই সুন্দরবনে প্রবেশ করতে পারছে না। জেলে বাওয়ালিদের পাশাপাশি ট্রলার মালিক ও শ্রমিকদেরও দুর্দিন চলছে। কারণ এখানকার ট্রলারগুলো শুধু পর্যটকদের জন্য।

জেলে-বাওয়ালিসহ পর্যটনসংশ্লিষ্টদের সরকারি সহায়তা দেয়ার দাবি জানান তিনি।

এসব পরিবারের সদস্যরা সুন্দরবন, নদী ও সাগরে মাছ, কাঁকড়া ও বনজ সম্পদ আহরণ এবং পর্যটক গাইড হিসেবে কাজ করে জীবিকা নির্বাহ করেন।

পশ্চিম সুন্দরবন সাতক্ষীরা রেঞ্জ সূত্রে জানা গেছে, সুন্দরবনের জলভাগে ২১০ প্রজাতির সাদা মাছ, ২৪ প্রজাতির চিংড়ি, ১৪ প্রজাতির কাঁকড়া, ৪৩ প্রজাতির মালাস্কা ও এক প্রজাতির লবস্টার রয়েছে। জুন থেকে আগস্ট এই তিন মাস মাছের প্রজনন মৌসুমে সুন্দরবনের নদী-খালে মাছের ডিম থেকে জন্ম নেয় পোনা।

এ বছর ১ জুন থেকে এই নিষেধাজ্ঞা কার্যকরের পর এখনও বনজীবী পরিবারগুলোর কাছে পৌঁছায়নি সরকারি সহায়তা।

শ্যামনগর উপজেলা জ্যেষ্ঠ মৎস্য কর্মকর্তা তুষার মজুমদার বলেন, উপজেলায় নিবন্ধন করা ২৩ হাজার মৎস্যজীবী রয়েছেন। এর মধ্যে কেউ খাল-বিলে, কেউ নদীতে আবার কেউ কেউ সাগরে মাছ ধরেন। এদের মধ্যে সমুদ্রে মৎস্য আহরণকারী ৭৯৫টি পরিবার দু-এক দিনের মধ্যেই ৫৬ কেজি করে চাল পাবে। ডিও হয়ে গেছে।

‘৮ হাজার ৩২৪টি পরিবারের তালিকা পাঠানো হয়েছে। তারা ২০ জুলাইয়ের মধ্যে ৩০ কেজি করে চাল পেতে পারেন।’

তিনি আরো বলেন, মৎস্য প্রজনন মৌসুমে নিষেধাজ্ঞার মধ্যে আমরা শুধু সাগরে মাছ আহরণকারীদের জন্য সহায়তা দিয়ে থাকি। সুন্দরবনের ওপর নির্ভরশীল পরিবারগুলোর কথা বন বিভাগ বলতে পারবে।’

পশ্চিম সুন্দরবন সাতক্ষীরা রেঞ্জের সহকারী বন সংরক্ষক এম এ হাসান বলেন, সাতক্ষীরা রেঞ্জে পর্যটক গাইডসহ ৯ থেকে সাড়ে ৯ হাজার মানুষ সুন্দরবনের বনজ সম্পদ আহরণের সঙ্গে জড়িত।

‘তাদের সরকারিভাবে সহায়তার জন্য ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কাছে চিঠি দেয়া হয়েছে। এখনও নির্দেশনা আসেনি।’

নিউজ ট্যাগ: সুন্দরবন

আরও খবর



বিকল্প নৌ-রুট খুঁজছেন লঞ্চ মালিকরা

প্রকাশিত:রবিবার ২৯ মে ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ২৯ মে ২০২২ | ৫৮৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

আগামী ২৫ জুন চালু হচ্ছে বহুল কাঙ্ক্ষিত পদ্মাসেতু। এ সেতু চালুর মধ্য দিয়ে রাজধানী ঢাকার সঙ্গে যোগাযোগ সহজ হবে দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের ২১ জেলার মানুষের। এর মাধ্যমে অনেকটাই কমে আসবে নৌ-যানের প্রয়োজন। ফলে চিন্তা বাড়ছে এ নৌ-রুট দিয়ে চলাচলকারী লঞ্চ মালিকদের। যে কারণে বিকল্প রুট খুঁজছেন তারা। বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌ-পরিবহন কর্তৃপক্ষের (বিআইডব্লিউটিএ) হিসাব অনুসারে, বাংলাবাজার-শিমুলিয়া নৌ-রুটে ছোট বড় মিলিয়ে মোট ৮৭ টি লঞ্চ চলাচল করে। সেতু চালু হলে স্বাভাবিকভাবেই প্রয়োজনীয়তা হারাবে এ রুটের নৌ-যানগুলো। তাই লঞ্চ মালিকরা ভিন্ন রুটে তাদের লঞ্চ পরিচালনা করার কথা ভাবছেন।

জানা গেছে, ভিন্ন রুটে দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলগামী লঞ্চ চলাচলে ইতোমধ্যেই সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছে আবেদন করেছে বাংলাবাজার-শিমুলিয়া-মাঝিকান্দি লঞ্চ মালিক সমিতি। তিন-চার মাস আগে সমিতির সদস্যরা বিআইডব্লিউটিএ কর্মকর্তাদের সঙ্গে দেশের কয়েকটি নৌ-রুট পরিদর্শন করেছেন বলে জানা গেছে। কিন্তু নতুন নৌ-রুট নির্ধারণের বিষয়ে এখন পর্যন্ত কর্তৃপক্ষের কাছ থেকে কোনো আশ্বাস পায়নি লঞ্চ মালিকরা। বাংলাবাজার-শিমুলিয়া-মাঝিরকান্দি লঞ্চ-মালিক সমিতি সূত্রে জানা গেছে, নতুন নৌ-রুটের জন্য জামালপুর-সারিয়াকান্দি রুট, নড়িয়া- চাঁদপুর রুটের আলুবাজার ফেরিঘাট এবং ফরিদপুরের চর-ভদ্রাসন-মৈনট ঘাটে লঞ্চ সার্ভিস চালু নিয়ে প্রাথমিকভাবে পরিকল্পনা করছেন তারা। যদিও এ ব্যাপারে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কাছ থেকে কোনো সাড়া পাওয়া যায়নি।

সূত্র থেকে আরও জানা গেছে, করোনাভাইরাস সংক্রমণ সময়ে দীর্ঘদিন লঞ্চ বন্ধ থাকায় মালিক-শ্রমিকরা চরম আর্থিক ক্ষতির সম্মুখীন হয়েছেন। সেতু চালু হলে এ ঘাটের লঞ্চগুলো অন্যত্র চালাতে না পারলে সংশ্লিষ্ট খাতে জীবিকা নির্বাহে সম্পৃক্ত হাজার হাজার পরিবার ক্ষতিগ্রস্ত হবে। হঠাৎ করেই বেকার হয়ে যাওয়ার সম্ভাবনাও রয়েছে অনেকের। এ ব্যাপারে দ্রুত প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে তাই সরকারের কাছে আবেদনও করেছেন তারা। একই সঙ্গে আর্থিক ক্ষতিপূরণেরও দাবি করেছে লঞ্চ মালিক সমিতি।

বিআইডব্লিউটিএ বাংলাবাজার ঘাট সূত্রে জানা গেছে, বাংলাবাজার-শিমুলিয়া নৌ-রুটে চলাচলকারী দূরের যাত্রীদের জন্য রয়েছে আলাদা লঞ্চ ব্যবস্থা। দক্ষিণাঞ্চল থেকে ঢাকাগামী যাত্রীরা ঘাটে নেমে লঞ্চে পার হয়ে শিমুলিয়া থেকে আবার একই পরিবহনে ঢাকা গিয়ে থাকে। এছাড়া ছোট বড় অন্যান্য লঞ্চগুলোয় সাধারণ যাত্রীরা নিয়মিত পার হয়ে থাকেন। বর্তমানে যাত্রী প্রতি করে ভাড়া ৪৫ টাকা। এমএল বোরহান কবীর এবং শাহিন-সোনিয়া লঞ্চের মালিক মো. সাগর হাওলাদার বলেন, এই ঘাটের লঞ্চগুলো বিকল্প নৌ-রুটে নেওয়ার কথা হচ্ছে। তবে এখন পর্যন্ত কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি। কর্তৃপক্ষ দ্রুত ব্যবস্থা নিলে অসংখ্য পরিবারের জন্য ভালো হবে। অন্যথায় সবাইকে আর্থিক ক্ষতির মুখে পড়তে হবে।

লঞ্চ মালিক সমিতির শিমুলিয়া জোনের সাধারণ সম্পাদক মনিরুজ্জামান মনির বলেন, এ নৌ-রুটের ৮৭ টি লঞ্চের চালক-শ্রমিকসহ কমপক্ষে দশজন সদস্যের দশটি করে পরিবারের জীবিকা নির্বাহ করে থাকেন। সব মিলিয়ে হাজার খানেক পরিবারের রুটি-রুজি আসে এ রুটের লঞ্চগুলো থেকে। সেতু চালু হলে যেহেতু এ রুটের প্রয়োজন হবে না, তাই আমরা বিকল্প ব্যবস্থা নিতে কর্তৃপক্ষ বরাবর দুবার লিখিত আবেদন করেছি। কিন্তু এ ব্যাপারে এখনও কোনো সিদ্ধান্ত আসেনি। দেশের অন্যান্য রুটে যেন এ রুটের লঞ্চ পরিচালনায় ব্যবস্থা নেওয়া হয় এবং লঞ্চ সংশ্লিষ্ট মালিক-শ্রমিকরা যাতে ক্ষতির মুখে না পড়ে সে জন্য ব্যবস্থা নিতে আমরা সরকারের কাছে অনুরোধ জানাই।


আরও খবর