আজঃ শনিবার ২৯ জানুয়ারী ২০২২
শিরোনাম

ময়মনসিংহে ট্রাকচাপায় ৩ মোটরসাইকেল আরোহী নিহত

প্রকাশিত:শুক্রবার ১৪ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ১৪ জানুয়ারী ২০২২ | ৮৮৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

ময়মনসিংহ সদরের শম্ভুগঞ্জ চায়না মোড় এলাকায় ট্রাকচাপায় মোটরসাইকেলের তিন আরোহী নিহত হয়েছেন। শুক্রবার (১৪ জানুয়ারি) সন্ধ্যা ৬ টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন-জেলার ত্রিশাল উপজেলার সেনবাড়ি কালিবাজার গ্রামের ফজলুল হকের পুত্র বাবু (২৫), একই গ্রামের সোহরাব উদ্দিনের পুত্র ইয়াসিন (১৮) ও ইসলামের পুত্র রিপন(৩০)।

কোতোয়ালি মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা শাহ কামাল আকন্দ জানান, মোটরসাইকেলে ৩ আরোহী টোলপ্লাজা থেকে শম্ভুগঞ্জ যাচ্ছিল। আর শম্ভুগঞ্জ থেকে বালুবোঝাই ট্রাক টোলপ্লাজার দিকে আসছিল। এ সময় চায়না মোড় এলাকায় ট্রাকটি ওই ৩ মোটরসাইকেল আরোহীকে চাপা দেয়। ঘটনাস্থলে ২ জন মারা যান। গুরুতর আহত একজনকে ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।


আরও খবর
ময়মনসিংহ মেডিকেলে করোনায় ৪ জনের মৃত্যু

বৃহস্পতিবার ২৭ জানুয়ারী ২০২২




১৩ ঘণ্টা পর দিনাজপুরে ট্রেন চলাচল শুরু

প্রকাশিত:বুধবার ০৫ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:বুধবার ০৫ জানুয়ারী ২০২২ | ৫৪৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

দুর্ঘটনার প্রায় সাড়ে ১৩ ঘণ্টা পর পার্বতীপুর-পঞ্চগড় রুটে ট্রেন চলাচল শুরু রয়েছে। বুধবার (৫ জানুয়ারি) বিকেল ৫টা ২০ মিনিটে ট্রেন চলাচল স্বাভাবিক হয়।

দিনাজপুর রেলওয়ে স্টেশনের সুপারিনটেনডেন্ট জিয়াউর রহমান এতথ্য নিশ্চিত করেছেন।

এর আগে ভোর ৪টার দিকে দুর্ঘটনার পর বন্ধ থাকে ট্রেন চলাচল। দিনাজপুর রেলওয়ে স্টেশন সূত্র জানায়, দিনাজপুর থেকে বগুড়া হয়ে সান্তাহারগামী দোলনচাপা এক্সপ্রেস ট্রেনটির বুধবার সাপ্তাহিক ছুটি ছিল। তাই ভোরে ট্রেনটি ধোয়া-মোছার জন্য দিনাজপুর থেকে পার্বতীপুর রেলওয়ে স্টেশনের উদ্দেশ্যে নিয়ে যাওয়া হচ্ছিল। একই সময় যশাই রেলক্রসিংয়ে একটি বালুবোঝাই ডাম্পট্রাক বিকল হয়ে পড়ে।

ঘন কুয়াশা থাকায় ট্রেনটি জোরে ট্রাকটিকে ধাক্কা দেয়। এতে ঘটনাস্থলে ট্রেনের ইঞ্জিন ও ট্রাকটি দুমড়ে-মুচড়ে যায়। সঙ্গে সঙ্গে ট্রেনের পেছনে থাকা পাঁচটি বগি পার্শ্ববর্তী ক্ষেতে উল্টে পড়ে। দুর্ঘটনার পর থেকে পার্বতীপুর থেকে পঞ্চগড়মুখী ট্রেন চলাচল বন্ধ থাকে।

দুর্ঘটনায় ট্রেনের চালক গুরুতর আহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। তাকে আহত অবস্থায় রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।


আরও খবর
হিলি স্থলবন্দরে আমদানি রফতানি বন্ধ

বুধবার ২৬ জানুয়ারী ২০২২




ভিকি রাইয়ের মৃত্যুদণ্ড চাইছেন পাওলি দাম

প্রকাশিত:সোমবার ১৭ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ১৭ জানুয়ারী ২০২২ | ২৯৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

ইনস্টাগ্রামের ক্যামেরা চালু করে কান্নায় ভেঙে পড়েছেন পাওলি দাম! কাঁদতে কাঁদতে অভিযোগ জানিয়েছেন অনুরাগীদের কাছে। তাঁর অভিযোগ জনৈক ভিকি রাইয়ের বিরুদ্ধে। তিনি নাকি এমন অপরাধ করেছেন, যা ক্ষমার যোগ্য নয়। এই অপরাধ তিনি অন্যদের সঙ্গেও করেছেন। অভিনেত্রীর সঙ্গেও। তাই তিনি অপরাধীর যেনতেনপ্রকারেণ মৃত্যুদণ্ড চেয়েছেন!

ভিকি রাই কী করেছে পাওলির সঙ্গে? কেনই বা তিনি এ ভাবে কান্নায় ভেঙে পড়ে সুবিচার চাইছেন?

তার আগে জানতে হবে, এই ভিকি রাই কে? জাতীয় স্তরের একটি ওয়েব প্ল্যাটফর্ম একটি নতুন সিরিজ আনতে চলেছে। নাম অখণ্ড। তারই প্রধান চরিত্র ভিকি রাই। সিরিজের প্রচারে প্ল্যাটফর্মটি সম্পূর্ণ ভিন্ন ধারায় হেঁটেছে। প্ল্যাটফর্মের টুইটার থেকে মুক্তির দিন ঘোষণা হয়নি। বরং এক ব্যবহারকারীর প্রশ্নের উত্তর দিতে গিয়েই যেন সিরিজ-মুক্তির কথা প্রকাশ্যে এসেছে। এ বার একটি ছোট্ট ঝলক প্রকাশ্যে এসেছে। সিরিজের নাম বা প্রচার ঝলক হিসেবে নয়। বদলে সংবাদমাধ্যম বিচারকের আসনে বসে। সেখানে রায় ঘোষিত হচ্ছে।

সংবাদমাধ্যম সেই ভিকি রাই-কে জেলে পাঠাতে চায়। তাঁদের দাবি, এই ব্যক্তি অত্যন্ত নির্লজ্জ এবং হিংসাত্মক। সমাজের রীতিনীতি নিয়ে অকারণ মজা করেন। ৩ বছর আগে তাঁর বিরুদ্ধে একটি এফআইআর নথিভুক্ত হয়েছিল। তার পরেই জনসাধারণ ধরে নিয়েছে, তিনি অপরাধী। এর জন্য সবাই মিডিয়া ট্রায়ালকে ধন্যবাদও জানিয়েছেন।

পাওলিও কি চলতি হাওয়ার পন্থী? তিনিও কি তাই চোখের জলে ভিজে মুখ খুলেছেন ভিকির বিরুদ্ধে?

কিছু দিন আগেই পাওলি শুধু স্বচ্ছ, সাদা শার্টে ছবি তুলে ইনস্টাগ্রামে ভাইরাল। তাঁর প্রায় উন্মুক্ত বক্ষ দেশ এবং বক্ষ ভাঁজ ঢেকেছিল বহুমূল্য নেকলেসে! এ বার জাতীয় স্তরের সিরিজের প্রচারের সঙ্গে যেন জড়িয়ে গেলেন তিনি।

পাওলিও কি এই সিরিজের অন্যতম অভিনেত্রী? জানা যায়নি। কারণ, সিরিজ নির্মাতা, ওয়েব প্ল্যাটফর্ম এবং অভিনেত্রী--- কেউই প্রচারের স্বার্থে অভিনেতাদের নাম ঘোষণা করতে চাননি!

নিউজ ট্যাগ: পাওলি দাম

আরও খবর
টাকা দিয়ে ভোট কিনছেন জায়েদ খান : নিপুণ

শুক্রবার ২৮ জানুয়ারী ২০২২




শেরপুরে অগ্নিকাণ্ডে ১৩ দোকান ভষ্মীভূত

প্রকাশিত:রবিবার ০২ জানুয়ারী 2০২2 | হালনাগাদ:রবিবার ০২ জানুয়ারী 2০২2 | ৩৪০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

শেরপুর সদর উপজেলার উপশহর কুসুমহাটি বাজারে এক ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডে ১৩ দোকান ভষ্মীভূত হয়েছে। এতে প্রায় ৩ কোটি টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলে ক্ষতিগ্রস্তরা অভিযোগ করেছেন। তারা আরও জানান, সুযোগসন্ধানী দুর্বৃত্তরা আগুন নেভানোর চেষ্টা না করে বেশ কয়েকটি দোকানে লুটপাট চালিয়েছে।

স্থানীয় প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, রবিবার ভোর ৫টার দিকে সদর উপজেলার কুসুমহাটি বাজারের একটি প্লাস্টিক ও সুতার দোকানের ভিতর বৈদ্যুতিক খুঁটির থেকে আগুনের সূত্রপাত হয়। পরে আগুনের লেলিহান শিখা দ্রুত ছড়িয়ে পড়লে ওই দোকানের প্লাস্টিক ও সুতা পুড়ে পার্শ্ববর্তী মুদি দোকান, চালের আড়ৎ, কসমেটিকস, পান-সুপারি, সেলুন এবং বিভিন্ন গোডাউনসহ মোট ১৩টি দোকান পুড়ে ছাই হয়ে যায়।

এদিকে আগুনের খবর পেয়ে সকাল সাড়ে ৭টায় জেলা শহর থেকে ফায়ার সার্ভিসের ৪ টি ইউনিট দুই ঘণ্টা চেষ্টা চালিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। আগুন জ্বলছিল এমন সময় কিছু অসাধু মানুষ ঘরগুলো থেকে বিভিন্ন মূল্যবান মালামাল রক্ষা করার কথা বলে হরিলুট চালায় লুটপাট বলে ক্ষতিগ্রস্তরা বলেছেন।

ফায়ার সার্ভিস বিভাগের উপ-পরিচালক জাভেদ হোসেন তারেক জানায়, বৈদ্যুতিক গোলযোগের কারণে অগ্নিকাণ্ডের সূত্রপাত হয়েছে বলে প্রাথমিকভাবে ধারনা করা হচ্ছে। ক্ষয়ক্ষতি নিরূপণ করতে কাজ চলছে। করা হয়নি বলে তিনি জানান।

সদর উপজেলা নির্বার্হী কর্মকর্তা মেহনাজ ফেরদৌস বলেছেন, সার্বিক বিষয়টি উপজেলা প্রশাসন দেখছে। আগুন লাগার কারণ, ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ, পুনর্বাসন ও লুটপাটের বিষয়টি তদন্ত করা হবে।  


আরও খবর
বোদায় আরো ১৪টি কঙ্কাল চুরির অভিযোগ

বুধবার ২৬ জানুয়ারী ২০২২




২০ বছর ছদ্মবেশে থেকেও ধরা পড়ল ফাঁসির আসামি

প্রকাশিত:শুক্রবার ২৮ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৮ জানুয়ারী ২০২২ | ৪৪০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

চট্টগ্রামের লোহাগাড়ায় ব্যবসায়ী জানে আলম হত্যা মামলার মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত পলাতক আসামি সৈয়দ আহমেদ। ২০ বছর ধরে বিভিন্ন পরিচয় ব্যবহার করে পলাতক ছিলেন তিনি। অবশেষ ধরা পড়েছেন। গতকাল বৃহস্পতিবার রাতে নগরের আকবর শাহ থানা এলাকা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করে র‍্যাব।

আজ শুক্রবার র‍্যাব-৭ চট্টগ্রামের সহকারী পরিচালক (গণমাধ্যম) নুরুল আবসার বিষয়টি নিশ্চিত করেন। তিনি বলেন, গোপন তথ্যের ভিত্তিতে সৈয়দ আহমেদকে গ্রেপ্তার করা হয়। এরপর তাকে লোহাগাড়া থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে।

র‍্যাব কর্মকর্তা নুরুল আবসার বলেন, গ্রেপ্তারের পর সৈয়দ আহমেদকে প্রাথমিকভাবে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে। জিজ্ঞাসাবাদে তিনি তার পলাতক জীবন সম্পর্কে বিবরণ দিয়েছেন।

সৈয়দ আহমেদ জানিয়েছেন, হত্যাকাণ্ডের পরপরই তিনি চট্টগ্রামের বাঁশখালীর ডাকাত দলের সঙ্গে সমুদ্র পাড়ি দিয়ে আত্মগোপন করেন। প্রথম চার থেকে পাঁচ বছর সৈয়দ আহমেদ তার পরিবার ও আত্মীয়স্বজন ছেড়ে বাঁশখালী, আনোয়ারা, কুতুবদিয়া, পেকুয়ায়ার সাগর কূলবর্তী এলাকায় থাকতে শুরু করেন। পরে চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ড এলাকায় উদ্বাস্তু হিসেবে অবস্থান করেন।

একপর্যায়ে জঙ্গল ছলিমপুরে মশিউর বাহিনীর প্রধান মশিউরের ছত্রচ্ছায়ায় সেখানে স্থায়ীভাবে বসবাস শুরু করেন। আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর অভিযানের কারণে ওই এলাকা ছাড়েন তিনি। এরপর চট্টগ্রামে বিভিন্ন মাজার এলাকায় বাবুর্চির কাজ শুরু করেন। পরে চট্টগ্রাম মহানগরের আকবরশাহ থানা এলাকার একটি বাড়িতে নিরাপত্তাকর্মীর হিসেবে কাজ নেন।

র‍্যাব জানায়, পলাতক থাকাকালে সৈয়দ আহমেদ দুটি ভুয়া জাতীয় পরিচয়পত্র বানান। তিনি তার পরিবার-পরিজন-আত্মীয়স্বজনের সঙ্গে সব ধরনের যোগাযোগ বন্ধ রাখেন। ফলে তাকে কোনোভাবেই শনাক্ত করা যাচ্ছিল না।

২০০২ সালের ৩০ মার্চ সকালে জানে আলমকে নৃশংসভাবে কুপিয়ে ও গুলি করে হত্যা করা হয়। এ ঘটনায় নিহত ব্যক্তির বড় ছেলে তজবিরুল আলম বাদী হয়ে চট্টগ্রাম জেলার লোহাগাড়া থানায় ২১ জনকে আসামি করে একটি হত্যা মামলা করেন।

২০০৭ সালের ২৪ জুলাই বিচারিক আদালত মামলার রায় ঘোষণা করেন। রায়ে সৈয়দ আহমেদসহ ১২ জনকে মৃত্যুদণ্ড দেওয়া হয়। আটজনকে দেওয়া হয় যাবজ্জীবন কারাদণ্ড। বিচারিক আদালতের রায়ের বিরুদ্ধে দণ্ডপ্রাপ্ত আসামিরা আপিল করেন। আপিলে সৈয়দ আহমেদসহ ১০ জনকে মৃত্যুদণ্ড, দুজনকে যাবজ্জীবন ও বাকিদের খালাস দেওয়া হয়।


আরও খবর



১৮ ভরি স্বর্ণসহ অজ্ঞানপার্টির ২ সদস্য আটক

প্রকাশিত:রবিবার ২৩ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ২৩ জানুয়ারী ২০২২ | ২৯৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

ছিনিয়ে নেয়া ১৮ ভরি স্বর্ণ ও অন্যান্য মালামালসহ অজ্ঞানপার্টির ২ সদস্যকে আশুলিয়া থেকে আটক করেছে র‌্যাব-১২। এই চক্র সিরাজগঞ্জের হাটিকুমরুল গোলচত্তর থেকে বিদেশফেরত এক বাসযাত্রীকে অজ্ঞান করে এই স্বর্ণ হাতিয়ে নিয়েছিল। রোববার এক সংবাদ সন্মেলনে এ তথ্য জানান র‌্যাব-১২ মিডিয়া অফিসার সহকারি পুলিশ সুপার মোস্তাফিজুর রহমান।

তিনি জানান, ২০২১ সালের ২ অক্টোবর বিকেলে সিরাজগঞ্জের হাটিকুমরুল গোলচত্তর এলাকা থেকে বিদেশফেরত বাসযাত্রী ইব্রাহিম হোসেনকে অজ্ঞান করে স্বর্ণালংকার, নগদ টাকা ও মোবাইল ফোন ছিনিয়ে নেয় অজ্ঞানপার্টির সদস্যরা।

এ ঘটনায় সলঙ্গা থানায় মামলা দায়ের করা হলে তথ্য প্রযুক্তির সহায়তায় শনিবার রাতে ঢাকার আশুলিয়া থেকে অজ্ঞান পার্টির দুই সদস্যকে আটক করা হয়। এসময় আটককৃতদের কাছ থেকে ১৮ ভরি স্বর্ণ, নগদ টাকা ও মোবাইল ফোন উদ্ধার করা হয়েছে, জানান পুলিশ সুপার মোস্তাফিজুর।

আটককৃতরা হলেন ঢাকার আশুলিয়া থানার শ্রীকান্ডিয়া গ্রামের রফিকুল ইসলাম ও গাজিপুরের কালিগঞ্জ থানার মুলগাও গ্রামের দীপক চন্দ্র বর্মন।


আরও খবর