আজঃ শুক্রবার ০১ মার্চ ২০২৪
শিরোনাম

মঠবাড়িয়ায় চার স্ত্রীর স্বামী খুন

প্রকাশিত:বুধবার ০৯ ডিসেম্বর ২০২০ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৬ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | অনলাইন সংস্করণ
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

মঠবাড়িয়া  প্রতিনিধি

পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ায় চার স্ত্রীর স্বামী সোবাহান প্যাদা (৫০) নামে এক কৃষককে নৃশংসভাবে কুপিয়ে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। বুধবার সকালে থানা পুলিশ উপজেলার কবুতরখালী গ্রামের হাসেম হাওলাদারের বাড়ির সামনের সড়ক থেকে নিহতের লাশ উদ্ধার করেছে। ধারণা করা হচ্ছে মঙ্গলবার গভীর রাতে দুর্বৃত্তরা তাকে নৃশংসভাবে হত্যা করে রাস্তায় ফেলে রেখে যায়। নিহত সোবাহান প্যাদা ওই গ্রামের মৃত. তুজাম্বর প্যাদার ছেলে। সে ৭ সন্তানের জনক।

স্থানীয় চৌকিদার খলিলুর রহমান জানান, বুধবার সকালে শামীম ও কাঞ্চন নামে দুই যুবক রক্তাক্ত অবস্থায় লাশ পরে থাকতে দেখে আমাকে জানায়। আমি তাৎক্ষনিক পুলিশকে অবহিত করি। তিনি আরও বলেন, মঙ্গলবার সন্ধ্যায় নিহত সোবাহান প্যাদা দক্ষিণ কবুতরখালী ব্রিজ সংলগ্ন আল আমিনের দোকানে চা পান করার সময় বলেছিলো রাতে তৃতীয় স্ত্রী হেলেনার কাছে যাবে। নিহত সোবাহান প্যাদা তার চাচাতো ভাগ্নি রাবেয়া হত্যা মামলার চার্জশীটভুক্ত আসামী।

তৃতীয় স্ত্রী হেলেনা বেগম জানান, ওই রাতে সে (নিহত সোবাহান প্যাদা) আমার কাছে আসেনি। সকালে শুনতে পাই আমার স্বামী খুন হয়েছে।

খবর পেয়ে পিরোজপুর পুলিশ সুপার হায়াতুল ইসলাম খান, পিবিআইর বিশেষ টিমসহ ও বিভিন্ন আইন শৃঙ্খলা বাহিনী ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।

মঠবাড়িয়া থানার ওসি মাসুদুজ্জামান বলেন, প্রাথমিক ভাবে ধারণা করা হচ্ছে। মঙ্গলবার গভীর রাতে তাকে পরিকল্পিত ভাবে কুপিয়ে হত্যা করা হয়েছে। এঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে। দ্রুত হত্যার রহস্য উদ্ঘাটন পূর্বক অপরাধীদের গ্রেপ্তার করা হবে।


আরও খবর
৯ ছাত্রীর চুল কাটার ঘটনায় শিক্ষিকা বরখাস্ত

বৃহস্পতিবার ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




বাংলাদেশ মেশিন টুলস ফ্যাক্টরী লিমিটেডের সম্মাননা লাভ

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
প্রেস বিজ্ঞপ্তি

Image

বাংলাদেশ মেশিন টুলস ফ্যাক্টরী লিমিটেড প্রথমবারের মতো ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলা-২০২৪ এ অংশগ্রহণ করে জেনারেল প্যাভিলিয়ন ক্যাটাগরীতে ২য় স্থান অর্জনসহ প্রশংসাপত্র অর্জন করে। এই সম্মাননা বাংলাদেশ মেশিন টুলস ফ্যাক্টরী লিমিটেড এর ভবিষ্যৎ পথ চলাকে আরও বেগবান করবে।

উল্লেখ্য, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ২০০০ সালে বাংলাদেশ মেশিন টুলস ফ্যাক্টরী (বিএমটিএফ) লিমিটেডকে একটি লাভজনক প্রতিষ্ঠানে পরিণত করে দেশের আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে অবদানের উদ্দেশ্যে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর নিকট হস্তান্তর করেন। বিএমটিএফ লিমিটেড এর পরিচালনা পর্ষদের চেয়ারম্যান হিসেবে সেনাবাহিনী প্রধান জেনারেল এস এম শফিউদ্দিন আহমেদ, এসবিপি (বার), ওএসপি, এনডিইউ, পিএসসি, পিএইচডি এবং ব্যবস্থাপনা পরিচালক হিসেবে মেজর জেনারেল মোহাম্মদ আসাদুল্লাহ মিনহাজুল আলম, এনডিইউ, পিএসসি, পিএইচডি দায়িত্বরত রয়েছেন। 

বিএমটিএফ দেশের অন্যতম বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠান হিসেবে শিল্পোন্নয়নের এ ধারা অব্যাহত রেখে দেশের আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে অবদান রাখতে বদ্ধ পরিকর। বিএমটিএফ কর্তৃক উৎপাদিত পণ্যসমূহ নিয়ে ক্রেতাগণের মাঝে অগ্রহ সৃষ্টি এবং পণ্যসমূহ ক্রেতাদের দোর গোড়ায় পৌঁছে দেওয়ার লক্ষ্যে প্রথমবারের মতো ঢাকা আন্তজার্তিক বাণিজ্য মেলায় অংশগ্রহণ করেছে। ইতোমধ্যে বিএমটিএফ লিমিটেড কর্তৃক উৎপাদিত পণ্যসমূহের প্রতি ক্রেতাগণের ব্যাপক আগ্রহ ও চাহিদা পরিলক্ষিত হয়েছে।


আরও খবর



জাবিতে পাঁচ দফা দাবিতে প্রশাসনিক ভবন অবরোধ

প্রকাশিত:সোমবার ১২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ১২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি

Image

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে (জাবি) এক দম্পতিকে কৌশলে ডেকে নিয়ে স্বামীকে আটকে রেখে স্ত্রীকে ধর্ষণের ঘটনায় জড়িতদের সর্বোচ্চ শাস্তি নিশ্চিত করাসহ পাঁচ দফা দাবিতে দুই ঘন্টার জন্য প্রশাসনিক ভবন অবরোধ করেছেন আন্দোলনকারী শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা। এ পরিস্থিতিতে বিশ্ববিদ্যালয়ে সুষ্ঠু পরিবেশ ফেরানোর জন্য আচার্যের হস্তক্ষেপ কামনা করেন তারা।

সোমবার (১২ ফেব্রুয়ারি) সকাল নয়টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের নতুন প্রশাসনিক ভবনের প্রধান ফটকে তালা ঝুলিয়ে অবস্থান নেন শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা। এরপর বেলা ১১টার দিকে অবরোধ কর্মসূচি শেষ করেন তারা।

শিক্ষার্থীদের অন্য দাবিগুলো হলো- অছাত্রদের বের করে গণরুম বিলুপ্ত করা; নিয়মিত শিক্ষার্থীদের আবাসন নিশ্চিত করা; যৌন নিপীড়ক শিক্ষক মাহমুদুর রহমান জনির বিচার নিষ্পত্তিসহ ক্যাম্পাসে নানাবিধ অপরাধে অভিযুক্তদের বিচারের আওতায় আনা; ধর্ষণের ঘটনায় প্রক্টর ও মীর মশাররফ হোসেন হলের প্রাধ্যক্ষের অপরাধ তদন্ত করা এবং সুষ্ঠু তদন্তের স্বার্থে তদন্ত চলাকালে তাদের প্রশাসনিক পদ থেকে অব্যাহতি দেওয়া; মাদকের সিন্ডিকেট চিহ্নিত করে তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা।

সরেজমিনে ঘুরে দেখা যায়, আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীরা প্রশাসনিক ভবনের গেটে তালা দিয়ে অবস্থান নিয়েছেন। সেখানে 'নিপীড়ন বিরোধী মঞ্চের' ব্যানারে অবরোধ লেখা সম্বলিত ব্যানার ও প্লাকার্ড ঝুলিয়ে দেন তারা। ফলে প্রশাসনিক ভবনের কর্মকর্তা ও কর্মচারীসহ সংশ্লিষ্টদের বাইরে দাড়িয়ে থাকতে দেখা যায়।

অবরোধ চলাকালে ইংরেজি বিভাগের শিক্ষার্থী আলিফ মাহমুদ বলেন, 'সিন্ডিকেট সভায় গৃহীত সিদ্ধান্তের কোনো বাস্তবায়ন বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন করতে পারেনি। তারা পাঁচ কর্মদিবস সময় চেয়েছেন। কিন্তু নির্ধারিত সময় গতকাল শেষ হলেও অছাত্রদেরকে বের তো দূরে থাক বরং প্রশাসন তাদেরকে নিয়ে ভাগবাটোয়ারার মিটিং করছে প্রতিনিয়ত। তাই পূর্বঘোষিত কর্মসূচির অংশ হিসেবে আমরা অবরোধ করছি।'

নিপীড়ন বিরোধী মঞ্চের সংগঠক ও ইতিহাস বিভাগের অধ্যাপক আনিছা পারভীন জলি বলেন, উপাচার্য গতকাল বলেছেন আমরা আপ্রাণ চেষ্টা করছি অছাত্রদের বের করার। তিনি যদি আপ্রাণ চেষ্টা করেই থাকবে তাহলে এই পাঁচ দিনে অন্তত পাঁচশত শিক্ষার্থী বের করার কথা। যদি সেটা না পারেন তাহলে তিনি কোন নৈতিকতার বলে তিনি তার পদে আছেন সেই প্রশ্নটি করতে চাই। বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর গত কয়েক বছর ধরে ঘুরে ঘুরে পদে আসছেন। আমরা জানিনা তার মধ্যে বিশেষ কি গুণ রয়েছে, কোনো বিশেষ গুণতো দেখতে পাই না। তিনি নিজেও নিপীড়নের দায়ে অভিযুক্ত, অসংখ্য নিপীড়নের ঘটনাকে তিনি উস্কে দিচ্ছেন। তাকে বারবার ক্ষমতায় বসিয়ে কি বুঝাতে চান আমরা বুঝিনা।এ পরিস্থিতিতে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার সুষ্ঠু পরিবেশ ফেরানোর জন্য রাষ্ট্রপতি ও আচার্যের কাছে প্রয়োজনীয় নির্দেশনার জন্য অনুরোধ করছি আমরা।

এ সময় অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, সরকার ও রাজনীতি বিভাগের অধ্যাপক শামছুল আলম সেলিম, ফার্মেসি বিভাগের অধ্যাপক মোহাম্মদ মাফরুহি সাত্তার, প্রাণ রসায়ন ও অনুপ্রাণ বিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক সোহেল আহমেদ, বাংলা বিভাগের অধ্যাপক শামীমা সুলতানা, পরিবেশ বিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক জামাল উদ্দিন ও পদার্থবিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক মোহাম্মদ মাহবুবুর রহমান প্রমুখ।

এর আগে, গতকাল রবিবার রাতে একই দাবিতে একটি মশাল মিছিল বের করেন আন্দোলনকারী শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা। মিছিলটি বিশ্ববিদ্যালয়ের গুরুত্বপূর্ণ সড়ক ঘুরে উপাচার্যের বাসভবনের সামনে গিয়ে শেষ হয়। আধা-ঘণ্টা পর বাসভবন থেকে বের হয়ে আসেন উপাচার্য। এসময় আন্দোলনকারীদের তোপের মুখে পড়েন তিনি। তখন নির্ধারিত পাঁচ কর্মদিবস পার হলে প্রতিশ্রুতির কথা রাখতে না পারায় আন্দোলনকারী প্রশাসনিক ভবন অবরোধের ঘোষণা দেন।


আরও খবর
জাবির ‘ডি’ ইউনিটের ফল প্রকাশ

বৃহস্পতিবার ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




হাসপাতাল ও হেলথ কমপ্লেক্সকে স্বাবলম্বী করে তোলা হচ্ছে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

প্রকাশিত:সোমবার ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

স্বাস্থ্যমন্ত্রী সামন্ত লাল সেন বলেছেন, স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের প্রথম লক্ষ্য হচ্ছে চিকিৎসা ব্যবস্থা দেশের গ্রামগঞ্জে ছড়িয়ে দেয়া। লক্ষ্য একটাই, প্রতিটি হেলথ কমপ্লেক্স বা জেলার সকারি হাসপাতালগুলোকে সাবলম্বি করে গড়ে তোলা। তাহলে গ্রামগঞ্জের কোন রোগী চিকিৎসা নিতে ঢাকা বা চট্টগ্রামসহ বড় বড় শহরে ভীড় করবে না।

আজ সোমবার সকালে টাঙ্গাইলের মির্জাপুর কুমুদিনি কমপ্লেক্স পরিদর্শন কালে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এসব কথা বলেন তিনি। মন্ত্রী জানান, কোন রোগী যাতে চিকিসকের ভুল চিকিৎসার শিকার না হন, সে ব্যাপারে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় জিরো টলারেন্স নীতি গ্রহণ করেছে। প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনায় এই উদ্যোগ নেয়া হয়েছে।

গ্রামে চিকিৎসক না থাকার বিষয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, গ্রামে চিকিৎসকদের পর্যাপ্ত সুরক্ষা দেয়ার বিষয়ে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় কাজ করছে। এসময় তার সঙ্গে ছিলেন, টাঙ্গাইল শেখ হাসিনা মেডিকেল কলেজের পরিচালক মোঃ আব্দুল কুদ্দুছ, কুমুদিনি ওয়েলফেয়ার ট্রাস্টের পরিচালক রাজিব প্রসাদ সাহাসহ অন্যান্য কর্মকর্তারা।


আরও খবর



বাগেরহাটে দুই পক্ষের সংঘর্ষে একজন নিহত, পুলিশসহ আহত ২৫

প্রকাশিত:সোমবার ১৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ১৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
বাগেরহাট প্রতিনিধি

Image

বাগেরহাটের মোল্লাহাটে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে কাজী গ্রুপ ও খাকী গ্রুপের মধ্যে দফায় দফায় সংঘর্ষে পান্না মোল্লা (৪০) নামে এক কৃষক নিহত হয়েছে।নিহত পান্না মোল্লা মোল্লাহাট উপজেলার মোল্লারকুল গ্রামের তৈয়াব মোল্লার ছেলে।

রবিবার (১৮ ফেব্রুয়ারী) সন্ধ্যায় মোল্লাহাট উপজেলার মোল্লারকুল গ্রামে এই সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এসময় অন্তত ২৫ জন আহত হয়েছে। তাদের মধ্যে পুলিশের ৩ এসআইসহ ৬ পুলিশ সদস্য রয়েছে। সংঘর্ষে জড়িত থাকার অভিযোগে পুলিশ ৪ জনকে গ্রেফতার করেছে।

মোল্লাহাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এসএম আশরাফুল আলম জানান, রবিবার সন্ধায় মোল্লাহাট উপজেলার মোল্লারকুল গ্রামে এলাকার আধিপত্য বিস্তার নিয়ে স্থানীয় কাজী গ্রুপ ও খাকী গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষ শুরু হয়। এসময় দেশীয় ইট, গুল্টি, কাচের বল, চাকতি, বর্ষ্যাসহ আগ্নেয়াস্ত্র ব্যবহার করা হয়েছে। ঘন্টাব্যাপি এ সংঘর্ষে কাজী গ্রুপের পান্না মোল্লা গুরুতর আহত হলে তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। সংঘর্ষের খবর পেয়ে মোল্লাহাট থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্টা করলে তাদের উপরও দেশীয় ও আগ্নেয়াস্ত্র দিয়ে হামলা করা হয়। এতে এসআই মামুন, এসআই মাজহার, এসআই বিধান, পুলিশ সদস্য গোপাল, সঞ্জয় ও হাফিজ আহত হন।

সংঘর্ষের খবর পেয়ে বাগেরহাটের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. রাসেলুর রহমান ঘটনা ঘটনাস্থলে যান। এ ছাড়াও এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়ন করা হয়েছে।


আরও খবর
৯ ছাত্রীর চুল কাটার ঘটনায় শিক্ষিকা বরখাস্ত

বৃহস্পতিবার ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




জাবিতে ধর্ষণের ঘটনায় মূল পরিকল্পনাকারীসহ গ্রেপ্তার দুই

প্রকাশিত:বুধবার ০৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ০৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে (জাবি) স্বামীকে ডেকে এনে হলকক্ষে আটকে রেখে স্ত্রীকে পাশের জঙ্গলে নিয়ে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের ঘটনায় মূল পরিকল্পনাকারী ও অন্যতম সহযোগীকে গ্রেফতার করেছে র‍্যাব। গ্রেফতাররা হলেন- মামুনুর রশিদ ওরফে মামুন ও মো. মুরাদ।

বুধবার (৭ ফেব্রুয়ারি) রাতে মামুনকে রাজধানীর ফার্মগেট এলাকা থেকে ও মুরাদকে নওগাঁ থেকে গ্রেফতার করে র‍্যাব। 

র‍্যাবের লিগ্যাল অ্যান্ড মিডিয়া উইংয়ের পরিচালক কমান্ডার খন্দকার আল মঈন এ তথ্য জানান।

তিনি বলেন, গত শনিবার (৩ ফেব্রুয়ারি) দিনগত রাত সাড়ে ৯টার দিকে স্বামীকে ডেকে এনে হলকক্ষে আটকে রেখে পরে স্ত্রীকে ডেকে নিয়ে পাশের জঙ্গলে ধর্ষণের অভিযোগ উঠে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীসহ এক বহিরাগতের বিরুদ্ধে। এ ঘটনার পর মামলা হলে র‍্যাব বিষয়টি নিয়ে ছায়া তদন্তে নামে। ছায়া তদন্তের এক পর‍্যায়ে আত্মগোপনে থাকা সংঘবদ্ধ ধর্ষণের ঘটনায় মূল পরিকল্পনাকারী মামুনুর রশিদ ওরফে মামুন ও অন্যতম সহায়তাকারী মুরাদকে গ্রেফতার করা হয়।

কমান্ডার খন্দকার আল মঈন আরও বলেন, এ বিষয়ে বৃহস্পতিবার (৮ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে কারওয়ান বাজার র‍্যাব মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে বিস্তারিত জানানো হবে।

এ ঘটনায় বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগ থেকে অভিযুক্ত মোস্তাফিজকে বহিষ্কার করে বিবৃতি দিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগ। পাশাপাশি তাকে স্থায়ী বহিষ্কারের জন্য কেন্দ্রে সুপারিশ করা হয়।

ঘটনার দিন গভীর রাতে অভিযান চালিয়ে ধর্ষণের ঘটনায় ছাত্রলীগ নেতাসহ চারজনকে গ্রেফতার করে পুলিশ। গ্রেফতাররা হলেন- জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের ৪৫ ব্যাচের শিক্ষার্থী ও শাখা ছাত্রলীগের আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক মোস্তাফিজুর রহমান, শিক্ষার্থী সাব্বির হাসান সাগর, সাগর সিদ্দিক ও হাসানুজ্জামান।


আরও খবর