আজঃ রবিবার ০৫ ডিসেম্বর ২০২১
শিরোনাম

মোবাইলের কারণে বদলে যাচ্ছে চোখের গড়ন

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২৫ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২৫ নভেম্বর ২০২১ | ৫০৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

ক্রমশ বাড়ছে মোবাইল ফোন বা কম্পিউটারের ব্যবহার। বিশেষ করে অতিমারির সময় থেকে এই ব্যবহার আরও বেড়ে গিয়েছে। তার প্রভাব পড়ছে চোখে। চোখের গড়ন বদলে যাচ্ছে পাকাপাকি ভাবে। এমনই বলছে হালের গবেষণা।

মোবাইল ফোনের ব্যবহারের সময়ে আমরা সেটিকে চোখের খুব কাছে ধরি। সেই যন্ত্রের আলোর সঙ্গে খাপ খাওয়াতেই চোখের গড়ন বদলে যাচ্ছে। বিজ্ঞান বইতে চোখের যে গোলাকার গড়নের ছবি দেখে আমরা অভ্যস্ত, তা বদলে এখন অনেকটা জলপাইয়ের আকার নিচ্ছে অক্ষিগোলক। চোখের সামনের দিকটা বাইরের দিকে বেরিয়ে আসছে এর ফলে। এমনই বলছেন ইংল্যান্ডের কয়েক জন চক্ষুবিদ।

তবে এর শেষ এখানেই নয়। এই হারে চোখের গড়নে বদল আসলে, তার প্রভাব পড়বে ভবিষ্যৎ প্রজন্মের উপরেও। এমনই আশঙ্কা বিজ্ঞানীদের।

কী বলা হয়েছে এই গবেষণাপত্রে? বলা হয়েছে, প্রতি দিন গড়ে ৬ ঘণ্টা ৫৫ মিনিট ফোনের দিকে তাকিয়ে থাকেন মানুষ। যত ক্ষণ জেগে থাকেন, তার প্রায় ৪৬ শতাংশ সময়ই কাটে ফোন বা কম্পিউটার সামনে বসে। তার ফলেই চোখের গড়নে বদল আসছে। এর সবচেয়ে বেশি প্রভাব পড়ছে শিশুদের উপর। বড়দের চোখ আগের অবস্থায় ফিরে যেতেও পারে।

কিন্তু শিশুদের ক্ষেত্রে ভবিষ্যতে তেমন কিছু হওয়ার সম্ভাবনা নেই। কারণ ১৬-১৭ বছর বয়সের আগে পর্যন্ত তাদের চোখের বিকাশ সম্পূর্ণ হয় না। এই সময়ে মোবাইল ফোনের অতিরিক্ত ব্যবহার তাদের চোখের গড়ন পাকাপাকি বদলে দেয়।

কেন এমন হয়? চিকিৎসকরা বলছেন, মোবাইল ফোনের দিকে তাকানোর সময়ে আমরা এমন ভাবে তাকাই, যাতে ফোকাসটি থাকে ফোনের পর্দার উপর। তার পিছনের সব কিছুকে আমরা যত ঝাপসা দেখব, ততই স্পষ্ট হবে ফোনের ছবি। দীর্ঘ দিন এটি চলতে থাকলে, চোখও চেষ্টা করে আলো যাওয়ার পথটিকে সরু করে দিতে। তাতেই বদলায় চোখের গড়ন। একে চিকিৎসার পরিভাষায় বলা হচ্ছে শর্ট সাইটেড আই

কী করে এই সমস্যা কমাবেন? চিকিৎসকরা বলছেন, দিনের মাথায় অন্তত দুঘণ্টা বাড়ির বাইরে কাটান। রোদে ঘোরাঘুরি করতে পারেন। তাতে সমস্যা কমবে। আর ২০ মিনিট টানা কাজ করার পরে ২০ সেকেন্ডের জন্য এমন কোনও কিছুর দিকে তাকান, যা আপনার থেকে অন্তত ২০ ফুট দূরে রয়েছে।

 


আরও খবর



‘বীর সিমেন্টের’ লোগো উন্মোচন করলেন বসুন্ধরা গ্রুপ

প্রকাশিত:শুক্রবার ১২ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:শুক্রবার ১২ নভেম্বর ২০২১ | ৯৩৩৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

জমকালো লগো উন্মোচন অনুষ্ঠানের মধ্যে দেশের বাজারে আনুষ্ঠানিকভাবে যাত্রা শুরু করলো বসুন্ধরা গ্রুপের বীর সিমেন্ট। গতকাল শুক্রবার রাজধানীর বসুন্ধরা আবাসিক এলাকার বসুন্ধরা ইন্ডাস্ট্রিয়াল হেডকোয়ার্টার অডিটোরিয়ামে বীর সিমেন্টের লোগো উন্মোচন ও আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন ঘোষণা করেন বসুন্ধরা গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক সায়েম সোবহান আনভীর। বাংলাদেশের ৫০ তম বিজয়ের দিবস উৎযাপনের প্রাক্কালে এই ব্র্যান্ড বাংলাদেশের উন্নয়নে অগ্রযাত্রায় সহযোগী হিসেবে এক নতুন ভূমিকা পালনের প্রত্যাশা বীর সিমেন্টের কর্তৃপক্ষ।      

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে বসুন্ধরা গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক সায়েম সোবহান আনভীর বলেন, বাংলাদেশের উন্নয়নের অগ্রাযাত্রায় সবসময় দেশের সবচেয়ে বড় শিল্প প্রতিষ্ঠান বসুন্ধরা গ্রুপ সবসময়েই সম্পৃক্ত ছিলো এবং বেসরকারী উদ্যোগে ১৯৯৬ সালে প্রথম সিমেন্ট ইন্ড্রাস্টির সূচনা করে। এর ধারাবাহিকতার ২০১২ সালের ১২ নভেম্বর যাত্রা শুরু করে বসুন্ধরা সিমেন্ট। তিনি আরো বলেন, বীরের দেশ আমাদের বাংলাদেশ, আগামীর বাংলাদেশের জন্য টেকসই এক অবকাঠামো গড়তে বসুন্ধরা গ্রুপের নতুন সংযোজন বীর সিমেন্ট, আমি বীর সিমেন্টর আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন ঘোষণা করলাম।

এ সময় সিমেন্ট সেক্টরের প্রধান বিপণন কর্মকর্তা (সিএমও) খন্দকার কিংশুক হোসেন বলেন, আজ আমাদের জন্য এক বিশেষ দিন, একটি শুভ দিন। কারণ এই দিনে আমরা দেশের বাজারে নতুন একটি ব্র্যান্ডের যাত্রা শুর করতে যাচ্ছি । আমরা সকলের পরিশ্রমের মধ্যে দিয়ে এই ব্র্যান্ডেটিকে আরো সামনের দিকে এগিয়ে নিয়ে যাবো এই প্রত্যাশায় সবাইকে আরো একবার ধন্যবাদ।

অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের মধ্যে আরও উপস্থিত ছিলেন বসুন্ধরা গ্রুপের উপদেষ্টা ময়নাল হোসেন চৌধুরী, বসুন্ধরা গ্রুপের গভমেন্ট রেগুলেটরি অ্যাফেয়ার্সের সিওও মো. তারিকুল ইসলাম চৌধুরী, ফাইন্যান্স হেড নূরে-আলাম-ছিদ্দিকি, হেড অফ ব্যাংকিং শেখ মো. রাজিব সামাদ, হেড অফ একাউন্টস পিজিরুল আলম খাঁন, জেনারেল ম্যানেজার (সেলস) আব্দুল লতিফ, ব্যান্ড এ্যন্ড কমিউনিকেশনের এ জিএম মো. সাইফুল ইসলাম রুবেল প্রমূখ।


আরও খবর



দেশে দেশে ছড়িয়ে পড়েছে ওমিক্রন

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০২ ডিসেম্বর 2০২1 | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ০২ ডিসেম্বর 2০২1 | ৩০৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image
করোনার ওমিক্রন ধরন দেহের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কিছুটা ধ্বংস করতে পারলেও পুরোপুরি পারে না। আর এই ধরনে আক্রান্ত হলেও টিকা গুরুতর রোগ থেকে সুরক্ষা দেয়

বিশ্বের ২৪টি দেশে ছড়িয়ে পড়েছে করোনার নতুন ধরন ওমিক্রন। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার পক্ষ থেকে গতকাল বুধবার এমনটি জানানো হয়েছে।

বার্তা সংস্থা রয়টার্সের প্রতিবেদনে বলা হয়, ওমিক্রনের সংক্রমণ ঠেকাতে এরই মধ্যে সীমান্তে কড়াকড়ি আরোপ করেছে বিশ্বের বিভিন্ন দেশ। এদিকে দক্ষিণ আফ্রিকায় গত একদিনে করোনার সংক্রমণ দ্বিগুণ বেড়েছে। দেশটিতে গত একদিনে ৮ হাজার ৫৬১ জন করোনা রোগী শনাক্ত করা হয়েছে। যুক্তরাষ্ট্রেও একজন করোনা রোগী পাওয়া গেছে। ক্যালিফোর্নিয়ায় দক্ষিণ আফ্রিকা ফেরত এক ব্যক্তির দেহে করোনার ওমিক্রন ধরন শনাক্ত করা হয়। যুক্তরাষ্ট্র সরকার জানিয়েছে, ওই ব্যক্তির দেহে মৃদু উপসর্গ রয়েছে।

দক্ষিণ আফ্রিকার ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট ফর কমিউনিকেবল ডিজিজেস (এনআইসিডি) জানিয়েছে, করোনার ওমিক্রন ধরন দেহের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কিছুটা ধ্বংস করতে পারলেও পুরোপুরি পারে না। আর এই ধরনে আক্রান্ত হলেও টিকা গুরুতর রোগ থেকে সুরক্ষা দেয়।

গত ৮ নভেম্বর দক্ষিণ আফ্রিকার গৌতেং প্রদেশের নমুনায় করোনার নতুন একটি ধরন শনাক্ত হয়। এই ধরনটির নামই রাখা হয়েছে ওমিক্রন।

এই ধরন নিয়ে  বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার রোগতত্ত্ববিদ মারিয়া ভ্যান কারখোভ বলেছেন, কয়েক দিনের মধ্যে ওমিক্রনের সংক্রমণ ক্ষমতা সম্পর্কে জানা যাবে।


আরও খবর
করোনায় আরও ৭ হাজারের বেশি মৃত্যু

শনিবার ০৪ ডিসেম্বর ২০২১




সীতাকুণ্ডে ৪০ কেজি গাঁজাসহ আটক ২

প্রকাশিত:শুক্রবার ০৩ ডিসেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০৩ ডিসেম্বর ২০২১ | ১৮০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ড থেকে ৪০ কেজি গাঁজা জব্দ করেছে র‌্যাব। এ সময় দুই মাদক কারবারিকে আটক করা হয়েছে। উদ্ধার হওয়া গাঁজার মূল্য প্রায় ৬ লাখ টাকা।

শুক্রবার (৩ ডিসেম্বর) ভোরে ঢাকা- চট্টগ্রাম মহাসড়কের সীতাকুণ্ডের বিএম গেট এলাকা থেকে তাদের আটক করা হয়। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন র‌্যাব-৭ এর সিনিয়র সহকারী পরিচালক ( মিডিয়া) ফ্লাইট লেফটেন্যান্ট নিয়াজ মোহাম্মদ চপল। আটক দুইজন হলেন, বিল্লাল হোসেন (২৮) ও শহীদ আফ্রিদি (২১)।

নিয়াজ মোহাম্মদ চপল বলেন, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানা যায়, মিনি ট্রাকযোগে বিপুল পরিমাণ গাঁজা কুমিল্লা থেকে চট্টগ্রামের দিকে আসছে। এরই পরিপ্রেক্ষিতে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে একটি বিশেষ চেকপোস্ট স্থাপন করে গাড়ি তল্লাশি শুরু করে র‌্যাব-৭। এ সময় একটি মিনি ট্রাক থেকে দুজনকে আটক করা হয়। পরে তাদের দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে মিনি ট্রাকের পেছনে থাকা ২টি প্লাস্টিকের বস্তা থেকে ৪০ কেজি গাঁজা জব্দ করা হয়।

তিনি আরও বলেন, আসামিরা কুমিল্লার সীমান্তবর্তী এলাকা থেকে গাঁজা সংগ্রহ করে চট্টগ্রামসহ দেশের অন্যান্য অঞ্চলের মাদক কারবারিদের কাছে বিক্রি করে আসছিল। তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

নিউজ ট্যাগ: গাঁজাসহ আটক

আরও খবর



ধূমপান ছাড়ব এ বার! দাবি অভিনেত্রীর

প্রকাশিত:বুধবার ১৭ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:বুধবার ১৭ নভেম্বর ২০২১ | ৩৮৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

শ্রীলেখা মিত্র তখন নবম কি দশম শ্রেণির ছাত্রী। বাবা সন্তোষ মিত্রের ঘর থেকে প্রথম চুরি করে ধূমপান!

অভিনেত্রীর কথায়, সেই প্রথম সুখটান। মনে হয়েছিল যেন স্বর্গ সুখ! সেই সুখ আপাতত অ-সুখের কারণ হয়েছে তাঁর! অভিযাত্রিক ছবির রাণুদি ফ্যাসফ্যাঁসে গলায় বলেন, কথা বলতে কষ্ট হচ্ছে। গলায় সারাক্ষণ অস্বস্তি। দম নিতেও কষ্ট হচ্ছে।

সারাক্ষণ বুকে যেন চাপ ধরা ভাব। ফুসফুসে যেন বাতাসের অভাব! শ্রীলেখা জানেন, তিনি চিকিৎসকের কাছে গেলেই সবার আগে তাঁকে ধূমপান ছাড়ার নির্দেশ দেওয়া হবে। তাই নিজেই সেই রাস্তায় হাঁটবেন বলে ঠিক করেছেন। অনুরাগীদের সঙ্গে ভাগ করে নিয়েছেন তাঁর ভাবনা, আর নয়! এ বার সত্যি সত্যিই ধূমপান ছাড়বেন তিনি।

ধূমপান নিয়ে শ্রীলেখার ঝুলিতে অনেক মজার স্মৃতি। কথায় কথায় জানিয়েছেন, অত ছোট বয়স থেকে ধূমপান শুরু। সবটাই বাবার অজান্তে। ফলে, ঘরে ছাই ফেলার পাত্র যে রাখবেন, সে উপায়ও নেই। কী করতেন তখন? আমার ঘরের ফুলদানিতে ছাই ফেলতাম। তার পরে নিজের গায়ে, ঘরে ছড়িয়ে দিতাম সুগন্ধি। বাবা যাতে কিছুতেই টের না পান, বলতে বলতে ধরা গলায় তখন হাসির ছোঁয়া।

এ ভাবেই কলেজ পেরিয়ে অভিনেত্রী অভিনয়ের দুনিয়ায়। এক দিন একটি শট দেওয়ার পরে সেটে দাঁড়িয়ে সুখটান দিচ্ছেন। হঠাৎ দেখেন বাইরে বাবা দাঁড়িয়ে। নিজেকে আড়াল করতে সঙ্গে সঙ্গে কলাকুশলীদের ভিড়ে মিশে গিয়েছেন।

কিন্তু ততক্ষণে যা হওয়ার হয়ে গিয়েছে। রেনবো জেলিপরি বকুনি এড়াতে কপালে কাটছেন! কাঁপতে কাঁপতে বাড়ি ফিরে দেখেন বাবা বিছানায় শুয়ে। মেয়েকে দেখেই তাঁর তর্জনগর্জন, এক হাট লোকের মাঝে দাঁড়িয়ে আমার মেয়ে ফুক ফুক করে ধোঁয়া ছাড়ছেন! দেখে মনে হচ্ছিল মেট্রো রেললাইনে ঝাঁপ দিয়ে আত্মহত্যা করি। ধূমপানের কারণে বাবার হাতে মারও খেয়েছেন শ্রীলেখা। তবু ধূমপান ছাড়তে পারেননি।

এই নেশা তাঁকে শ্বশুরমশাইয়ের ঘর থেকেও সিগারেট চুরি করতে বাধ্য করেছিল! অভিনেত্রী জানিয়েছেন, ফুলশয্যার রাতে তিনি আর তাঁর স্বামী শিলাদিত্য সান্যাল (এখন প্রাক্তন) এক সঙ্গে বসে ধোঁয়া ছাড়ছেন। আর সিনেমা দেখছেন। একটার পর একটা সিগারেট পুড়তে পুড়তে বাক্স ফাঁকা! এ বার কী হবে? নেশা মেটাতে বাধ্য হয়ে পায়ে নুপূর পরে ছম ছম শব্দ তুলে শ্বশুরমশাইয়ের ঘরে চুপিচুপি মাঝরাতে হানা! ড্রয়ার খুলে সিগারেট চুরি করতে! বলতে বলতে হাসির পরেই ঝাপসা তাঁর গলা! যে বাবার থেকে নেশা করতে শিখেছিলাম, তিনি শেষের দিকে আমার সিগারেট চুরি করে খেতেন। ধরা পড়লে বলতেন, এত দামি দামি সিগারেট খাস না। সব ছাড় এ বার! বলতে বলতে মেয়ের প্যাাকেট থেকেই সিগারেট হাওয়া করে দিচ্ছেন। বাবার শেষ যাত্রায় তাই তাঁর বুক পকেটে দামি সিগারেটের একটি প্যাকেট দিয়ে দিয়েছিলেন শ্রীলেখা এবং তাঁর ভাইয়ের বৌ।

এই বাবার মুখ মনে করেই কি এ বার ফুক ফুক করে ধোঁয়া ছাড়া ছাড়বেন শ্রীলেখা?

নিউজ ট্যাগ: শ্রীলেখা মিত্র

আরও খবর



শাহজাদপুরে ট্রাক উল্টে খাদে, নিহত ২

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৯ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ০৯ নভেম্বর ২০২১ | ৭৮০জন দেখেছেন

Image

শাহজাদপুর (সিরাজগঞ্জ) প্রিতিনিধি:

সিরাজগঞ্জে শাহজাদপুর উপজেলার শাহজাদপুর-জামিরতা আঞ্চলিক সড়কে ট্রাক উল্টে ২ জন শ্রমিক  নিহত হয়েছে। এ ঘটনায় আহত হয়েছে আরও ১৭ জন শ্রমিক। মঙ্গলবার (৯ নভেম্বর) দুপুর ১২টার দিকে উপজেলার জামিরতা আঞ্চলিক সড়কের পারজামিরতা এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন পোরজনা ইউনিয়নের বাশুরিয়া গ্রামের তানুক আলীর ছেলে আব্দুর রাজ্জাক (৩০) ও একই গ্রামের মৃত রমজান আলীর ছেলে বাবর(৫০)।

প্রত্যক্ষদর্শী ও এলাকাবাসী জানায়, জামিরতা গ্রাম থেকে ট্রাক নিয়ে অর্ধশত শ্রমিক ধান কাটার জন্য রাজশাহীর উদ্দেশ্যে রওনা দেন। ট্রাকটি পারজামিরতা এলাকায় পৌছলে চালক নিয়ন্ত্রণ হারালে ট্রাকটি উল্টে খাদে পরে যায়। এতে ১৭ জন শ্রমিক গুরুতর আহত হয়। আহতদের মধ্যে মুমূর্ষূ অবস্থায় দুজনকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স নেওয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক দুজনকেই মৃত্যু ঘোষণা করেন। দুর্ঘটনা আহত অন্যদের বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। পরে খবর পেয়ে শাহজাদপুর ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা ঘটনাস্থলে পৌঁছে উল্টে যাওয়া ট্রাকটি উদ্ধার করে।


আরও খবর