আজঃ মঙ্গলবার ০৫ মার্চ ২০২৪
শিরোনাম

মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানির প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৩ অক্টোবর ২০২৩ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ০৩ অক্টোবর ২০২৩ | অনলাইন সংস্করণ
মামুন হোসেন, পাবনা

Image

পাবনা সুজানগরের পৌর কাউন্সিলর জায়দুল হক জনির বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রমূলক হয়রানি ও মিথ্যা চুরি মামলার প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন।

মঙ্গলবার (৩ অক্টোবর) দুপুরে পাবনা প্রেসক্লাব অডিটোরিয়ামে এ সংবাদ সম্মেলন করেন তারা।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে ভুক্তভোগী কাউন্সিলর জনি জানান, মিথ্যা চুরি মামলায় তাকে ফাসানো হয়েছে। এর জন্য তাকে জেলও খাটতে হয়েছে। সম্প্রতি জেলহাজত থেকে জামিনে মুক্তি পেয়ে সত্য প্রকাশে এ সংবাদ সম্মেলন করছেন তিনি। এছাড়াও হয়রানির বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে তিনি জানান।

তিনি আরও জানান, বাদি আব্দুর সবুর রাজা তার আপন মেঝো মামা। পরিবারসহ তার বড় মামা সড়ক দুর্ঘটনায় মারা গেলে সকলকে বঞ্চিত করে তার কয়েক কোটি টাকার সম্পত্তি রাজা মামা একাই ভোগ দখল করতে থাকেন। ওয়ারিশসূত্রে ভাইবোন বা যাদের অংশিদারিত্ব রয়েছে তাদের কাউকেই সেগুলো না দিয়ে উল্টো তাদের সাথে ঝামেলা শুরু করেন। একপর্যায়ে জনির ছোট মামা রেজোয়ান খোকন তার প্রতিবাদ করলে তার সাথে বিরোধ বাধে। খোকন মামার সাথে তার পরিবারের সম্পর্ক ভালো থাকায় সেও রাজার বিরাগভাজন হন। এরপর মধ্যরাতে সুজানগরের নিজ বাসার তালা ভেঙে মালামাল বের করে জনির কাছে রাখেন। নিজ ছোটভাই খোকনকে ফাসাতে চাইলে জনি সম্মতি না হওয়ায় গত আগস্ট মাসে সুজানগর থানায় জনির নামে মিথ্যা মামলা দিয়ে জনিকে ফাসানো হয়। সংবাদ সম্মেলনে জনির ছোটমামা ও রাজার ছোটভাই রেজোয়ান খোকন এবং রাজার চাচাতো ভাই শফিকুল ইসলাম উপস্থিত ছিলেন। তারা উভয়েই বিষয়টিকে ষড়যন্ত্রমূলক দাবি করেছেন।


আরও খবর



চালের বস্তায় ৬ তথ্য লেখা বাধ্যতামূলক করল সরকার

প্রকাশিত:বুধবার ২১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ২১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
অর্থ ও বাণিজ্য ডেস্ক

Image

পাইকারি ও খুচরা পর্যায়ে চালের দাম সহনশীল ও যৌক্তিক পর্যায়ে রাখতে ধানের নামেই চাল বাজারজাত নিশ্চিত করতে বস্তার ওপর ছয়টি তথ্য লেখা বাধ্যতামূলক করেছে সরকার। আগামী ১৪ এপ্রিল থেকে এই নির্দেশনা কার্যকর হবে।

বস্তায় উৎপাদনকারী মিলের নাম, জেলা ও উপজেলার নাম, উৎপাদনের তারিখ, মিল গেট মূল্য এবং ধান বা চালের জাত উল্লেখ করার নির্দেশনা দিয়ে বুধবার (২১ ফেব্রুয়ারি) সরকারি পরিপত্র জারি করেছে খাদ্য মন্ত্রণালয়।

নির্দেশনার কপি মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের সচিব, প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব, বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব, কৃষি মন্ত্রণালয়ের সচিব, অর্থ বিভাগের সচিব, সকল বিভাগীয় কমিশনার, সকল জেলা প্রশাসক, সকল জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক, সকল উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রকসহ সংশ্লিষ্টদের পাঠানো হয়েছে।

জারি করা এ পরিপত্রে বলা হয়েছে, সম্প্রতি দেশের চাল উৎপাদনকারী কয়েকটি জেলায় পরিদর্শন করে নিশ্চিত হওয়া গেছে যে, বাজারে একই জাতের ধান থেকে উৎপাদিত চাল ভিন্ন ভিন্ন নামে ও দামে বিক্রি হচ্ছে। চালের দাম অযৌক্তিক পর্যায়ে গেলে বা অকস্মাৎ বৃদ্ধি পেলে মিলার, পাইকারি বিক্রেতা, খুচরা বিক্রেতা একে অপরকে দোষারোপ করছেন। এতে ভোক্তাগণ ন্যায্যমূল্যে পছন্দমত জাতের ধান, চাল কিনতে অসুবিধার সম্মুখীন হচ্ছেন এবং অনেক ক্ষেত্রে আর্থিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন। এ অবস্থার উত্তরণের লক্ষ্যে চালের বাজার মূল্য সহনশীল ও যৌক্তিক পর্যায়ে রাখতে, ধানের নামেই যাতে চাল বাজারজাতকরণ করা হয়, তা নিশ্চিত করার উদ্দেশ্যে এবং এ সংক্রান্ত কার্যক্রম মনিটরিংয়ের সুবিধার্থে ছয় নির্দেশনা দেওয়া হয়।

১. চালের উৎপাদনকারী মিলাররা গুদাম হতে বাণিজ্যিক কাজে চাল সরবরাহের প্রাক্কালে চালের বস্তার ওপর উৎপাদনকারী মিলের নাম, জেলা ও উপজেলার নাম, উৎপাদনের তারিখ, মিল গেট মূল্য এবং ধান/চালের জাত উল্লেখ করতে হবে।

ধানের জাতের নাম, প্রস্তুতকারক, ঠিকানা (উপজেলা ও জেলা), নিট ওজন, উৎপাদনের তারিখ, মিল গেট মূল্যের এই তথ্যগুলো ছক মোতাবেক লেখা থাকবে।

২. বস্তার ওপর উল্লিখিত তথ্যাদি কালিতে হাত দিয়ে লেখা যাবে না।

৩. চাল উৎপাদনকারী সকল মিল মালিক (অটো/হাস্কিং) কর্তৃক সরবরাহকৃত সকল প্রকার চালের বস্তা/প্যাকেটের (৫০/২৫/১০/৫/২/১ কেজি ইত্যাদি) ওপর উল্লিখিত তথ্যাদি মুদ্রিত করতে হবে।

৪. কর্পোরেট প্রতিষ্ঠানের ক্ষেত্রেও একই নির্দেশনা প্রতিপালন করতে হবে। এ ক্ষেত্রে মিল গেট দামের পাশাপাশি প্রতিষ্ঠান চাইলে সর্বোচ্চ খুচরা মূল্য উল্লেখ করতে পারবে।

৫. এ পরিপত্রের আলোকে সকল জেলা প্রশাসক/উপজেলা নির্বাহী অফিসার/আঞ্চলিক খাদ্য নিয়ন্ত্রক/জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক/ উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক। খাদ্য পরিদর্শকগণ পরিদর্শনকালে এ বিষয়টি নিশ্চিত করবেন। এর ব্যত্যয় ঘটলে খাদ্যদ্রব্য উৎপাদন, মজুত, স্থানান্তর, পরিবহন, সরবরাহ, বিতরণ, বিপণন (ক্ষতিকর কার্যক্রম প্রতিরোধ) আইন, ২০২৩ এর ধারা ৬ ও ধারা ৭ মোতাবেক প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেবেন।

৬. আগামী ১৪ এপ্রিল (১ বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ) তারিখ থেকে এ পরিপত্রের নির্দেশ আবশ্যিকভাবে প্রতিপালন করতে হবে।


আরও খবর



ইসরাইলি হামলায় গাজায় নিহত বেড়ে প্রায় ২৯ হাজার

প্রকাশিত:রবিবার ১৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:রবিবার ১৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
আন্তর্জাতিক ডেস্ক

Image

গাজা উপত্যকায় ইসরায়েলি বাহিনীর তাণ্ডব যেন থামছেই না। এখন পর্যন্ত সেখানে প্রায় ২৯ হাজার ফিলিস্তিনিকে হত্যা করেছে ইসরায়েল। ওয়াফা নিউজ এজেন্সির এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, মধ্য গাজার দেইর আল-বালাহ এবং রাফাহ প্রান্তে ইসরায়েলি বাহিনী হামলা চালানোয় এক রাতেই ১০ ফিলিস্তিনি নিহত হয়েছে।

এর আগে জাতিসংঘ জানিয়েছে, রাফায় ইসরায়েলি স্থল আগ্রাসনের ভয়ে ফিলিস্তিনিরা দেইর আল-বালাহ শরণার্থী শিবিরসহ মধ্য গাজার বিভিন্ন স্থানে পালিয়ে বেড়াচ্ছে।

এদিকে গাজার হামাস-নিয়ন্ত্রিত স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, ইসরায়েলি বাহিনী খান ইউনিসের নাসের হাসপাতালের বেশ কয়েকজন কর্মীকে গ্রেফতার করে নিয়ে গেছে।

অপরদিকে ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেঞ্জামিন নেতানিয়াহু হামাসের যুদ্ধবিরতি এবং বন্দীদের মুক্তির দাবিকে বিভ্রান্তিকর বলে অভিহিত করেছেন। গাজায় যুদ্ধবিরতির বিষয়ে এখনও আলোচনা চলছে।

হামাস-নিয়ন্ত্রিত গাজার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, গত ৭ অক্টোবর ইসরায়েল এবং হামাসের মধ্যে সংঘাত শুরুর পর এখন পর্যন্ত ২৮ হাজার ৮৫৮ জন ফিলিস্তিনি প্রাণ হারিয়েছে। এছাড়া আহত হয়েছে আরও ৬৮ হাজার ৬৬৭ জন।

এর আগে মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন বলেছিলেন, তিনি ইসরায়েলি প্রধানমন্ত্রী নেতানিয়াহুকে বলেছেন যে, জিম্মিদের মুক্ত করতে অস্থায়ী যুদ্ধবিরতির প্রয়োজনীয়তা বিষয়টি তিনি গভীরভাবে অনুভব করছেন। গত ৭ অক্টোবর ইসরায়েলের সীমান্তে প্রবেশ করে আকস্মিক হামলা চালায় ফিলিস্তিনি স্বাধীনতাকামী সংগঠন হামাস। এরপর থেকেই ইসরায়েলকে সব ধরনের সমর্থন দিয়ে যাচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র।

এদিকে গাজার রাফা শহরের পরিস্থিতি দিন দিন আরও ভয়াবহ হয়ে উঠছে। সেখানকার মানুষ প্রচণ্ড ক্ষুধার্থ। তারা খাবারের জন্য মরিয়া হয়ে ‍উঠেছে। জাতিসংঘের মানবিক সংস্থা (ওসিএইচএ) তাদের সর্বশেষ দৈনিক আপডেটে জানিয়েছে, রাফা শহরের লোকজন খাবারের জন্য এমন করুণ পরিস্থিতিতে রয়েছে যে, তারা খাবারের জন্য আর অপেক্ষা করতে পারছে না। তারা ত্রাণবাহী ট্রাক দেখলে সেগুলো থামাচ্ছে যেন সঙ্গে সঙ্গেই সেখান থেকে খাবার নিয়ে খেতে পারে।

ওসিএইচএ বলছে, দক্ষিণ গাজার ওই জনবহুল শহরে মানবিক সংকট নিয়ে আতঙ্কিত অবস্থার মধ্যেই খাদ্য সংকটের কারণে লোকজন মরিয়া হয়ে উঠেছে এবং তাদের মধ্যে তীব্র হতাশা তৈরি হয়েছে।

সংস্থাটি জানিয়েছে, গাজায় অস্থায়ী আশ্রয়কেন্দ্রগুলোতে জনাকীর্ণ পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে এবং সেখানকার লোকজনের জরুরি ভিত্তিতে খাবার প্রয়োজন। তারা ক্ষুধার্ত এবং আতঙ্কিত হয়ে পড়েছে। ওসিএইচএ জানিয়েছে, গাজায় আরও ত্রাণবাহী ট্রাকে খাবার সরবরাহ করা জরুরি হয়ে পড়েছে। সেখানকার লোকজনের পুষ্টির প্রয়োজনীয়তা নিশ্চিত করতে হবে।

শুধুমাত্র রাফাহ এবং কেরেম শালোম (কারেম আবু সালেম) ক্রসিং দিয়ে ত্রাণ সহায়তা গাজা উপত্যকায় প্রবেশ করতে পারছে। ফলে মধ্য এবং উত্তর গাজায় খাদ্য সরবরাহ করতে হলে প্রথমে রাফাহ দিয়েই প্রবেশ করতে হয়। এদিকে ইসরায়েলি কর্তৃপক্ষ আশদোদ বন্দর দিয়ে গাজা উপত্যকার জন্য পাঠানো আটার একটি বড় চালান আটকে দিয়েছে।


আরও খবর
আইনি লড়াইয়ে বড় জয় পেলেন ট্রাম্প

মঙ্গলবার ০৫ মার্চ ২০২৪




বিএনপিকে নির্বাচনের প্রস্তুতি নেওয়ার আহ্বান কাদেরের

প্রকাশিত:শুক্রবার ১৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ১৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর গতকাল বৃহস্পতিবার জেল থেকে বের হয়ে নেতাকর্মীদের আন্দোলন চালিয়ে যেতে বলেছেন। ফখরুলের এমন মন্তব্যের পর বিএনপিকে আন্দোলনের কথা না ভেবে পরবর্তী নির্বাচনের প্রস্তুতি নেওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের।

শুক্রবার (১৬ ফেব্রুয়ারি) বেলা সাড়ে ১১টার দিকে আওয়ামী লীগের সহযোগী সংগঠনগুলোর সঙ্গে যৌথসভা শেষে এই আহ্বান জানান তিনি।

ওবায়দুল কাদের বলেন, বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর জেল থেকে ছাড়া পেয়ে আন্দোলনের দিবাস্বপ্ন দেখছে।

তিনি বলেন, জনগণের সরকার ক্ষমতায় থাকলে আন্দোলনের ইস্যু খুঁজে পাওয়া যায় না, এটা বিএনপির টের পাওয়া উচিত।

মিউনিখ সিকিউরিটি কনফারেন্সের বিষয়ে কাদের বলেন, মিউনিখ সিকিউরিটি কনফারেন্সে বাংলাদেশকে আমন্ত্রণ জানানো দেশের জন্য সম্মানের এবং গর্বের। অতীতে কখনও এটা হয়নি।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কঠিন ষড়যন্ত্র ও বাধার মুখে নির্বাচন করেছেন জানিয়ে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী বলেন, সংরক্ষিত নারী আসনে যারা মনোনয়ন পাননি তাদের ধৈর্য ধরতে হবে।


আরও খবর



চট্টগ্রামে দুটি লজ্জাবতী বানর উদ্ধার, গ্রেপ্তার ১

প্রকাশিত:শুক্রবার ১৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ১৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
রাহুল সরকার, চট্টগ্রাম ব্যুরো

Image

চট্টগ্রামের সিটি গেট এলাকা থেকে বুধবার বিকেলে দুটি বিপন্ন প্রজাতির লজ্জাবতী বানর উদ্ধার করেছে পুলিশ। এ ঘটনায় আতুয়ার নামে একজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

গ্রেপ্তার হওয়া আতুয়ার বগুড়া জেলার ধুপচাচিয়া থানা এলাকার মৃত অছিম উদ্দিনের ছেলে।

বৃহস্পতিবার (১৫ ফেব্রুয়ারি) অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার স্পিনা রানী প্রামাণিক গণমাধ্যমের কাছে গ্রেপ্তারের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

মহানগর গোয়েন্দা বিভাগের উপ-পুলিশ কমিশনার সাদিরা খাতুন বলেন, আকবর শাহ থানা এলাকা থেকে দুটি বিপন্ন প্রজাতির বানর উদ্ধার করা হয়েছে। এসময় একজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তার বিরুদ্ধে বন্যপ্রাণি সংরক্ষণ ও নিরাপত্তা আইনে মামলা করা হয়েছে।


আরও খবর



ইতিহাসের এই দিনে যা ঘটেছিল

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
জীবন ধারা ডেস্ক

Image

কালের গহ্বরে হারিয়ে যায় সময়। আর এই সময়ে ঘটে চলে নানা ঘটনা। প্রজন্ম থেকে প্রজন্ম ইতিহাস চিন্তা, চেতনা ও প্রেরণার উৎস। ইতিহাসই আমাদের পথ দেখায় নতুন নতুন দিগন্তের। ইতিহাসের দিকে তাকালে দেখা যায়, পৃথিবীকে আলোকিত করেছেন অনেক জ্ঞানী-গুণী। বিশ্বজুড়ে ঘটেছে গুরুত্বপূর্ণ অনেক ঘটনা। তবে সব ঘটনা ইতিহাসে ঠাঁই হয় না। ১৩ ফেব্রুয়ারি গ্রেগরীয় বর্ষপঞ্জি অনুসারে বছরের ৪৪তম দিন। বছর শেষ হতে আরো ৩২১ (অধিবর্ষে ৩২২) দিন বাকি রয়েছে।

ঘটনাবলি:

১২৫৭ - হালাকু খানের মোঙ্গল বাহিনীর হাতে আব্বাসীয় খলিফাদের রাজধানী বাগদাদের পতন ঘটে।

১৬০১ - ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানির সমুদ্র পথে ভারত আগমন।

১৬৩৩ - ইনকুইজিশনের পূর্বে বিচারের জন্য গ্যালিলিও গ্যালিলি রোম ফিরে আসেন।

১৭৩৯ - কারণালের যুদ্ধ: ইরানি শাসক নাদির শাহর বাহিনী মুঘল সম্রাট মুহাম্মদ শাহর বাহিনীকে পরাজিত করে।

১৭৮৮ - ওয়েস্ট মিনিস্ট্রিতে ওয়ারেন হেস্টিংসের বিচার শুরু।

১৮৩২ - লন্ডনে প্রথম কলেরার প্রাদুর্ভাব।

১৮৮০ - টমাস আলভা এডিসন এডিসন ইফেক্ট পর্যবেক্ষণ করেন।

১৮৮২ - কলকাতায় প্রথম পৌরসভা নির্বাচন অনুষ্ঠিত।

১৮৮৩ - জার্মানীর বিখ্যাত সুরস্রষ্টা এবং সংগীতবিদ রিচার্ড ওয়েগনার পরলোকগমন করেন।

১৮৯০ - বোটানিক্যাল সার্ভে অব ইন্ডিয়া প্রতিষ্ঠিত হয়।

১৯৩১ - ব্রিটিশ ভারতের রাজধানী কলকাতা থেকে নয়া দিল্লিতে স্থানান্তর সম্পন্ন।

১৯৩৪ - সোভিয়েত বাষ্পীয় জাহাজ এসএস চেলয়ুসকিন আর্কটিক মহাসাগরে ডুবে যায়।

১৯৪৫ - দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ: লাল ফৌজের কাছে নাৎসি জার্মানি ও হাঙ্গেরি বাহিনীর নিঃশর্ত আত্মসমর্পণের মাধ্যমে বুদাপেস্ট অবরোধের সমাপ্তি।

১৯৫৫ - ইসরায়েল সাতটি ডেড সী স্ক্রলের মধ্যে চারটি লাভ করে।

১৯৬০ - ফ্রান্সে প্রথম পারমাণবিক বোমার বিস্ফোরণ।

১৯৭২ - বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সংসদ প্রতিষ্ঠা।

১৯৭২ - ঢাকা-মস্কো সরাসরি টেলিযোগাযোগ স্থাপন।

১৯৮২ - গুয়েতেমালায় রিও নিগ্রো গণহত্যা সংঘটিত।

১৯৮৫ - ছাত্রনেতা রাউফুন বসুনিয়া ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে আততায়ীদের গুলিতে নিহত হন।

১৯৯০ - জার্মান পুনঃএকত্রীকরণ: জার্মানিকে ঐক্যবদ্ধ করার জন্য দুইস্তর বিশিষ্ট পরিকল্পনার বিষয়ে সমঝোতা হয়।

১৯৯১ - উপসাগরীয় যুদ্ধ: দুইটি লেজার নিয়ন্ত্রিত বোমার আঘাতে বাগদাদের আমিরিয়া বাংকার ধ্বংস হয়। এতে ৪০০ জনেরও বেশি ইরাকি বেসামরিক লোক নিহত হলেও মিত্রবাহিনী দাবি করে যে বাংকারটি সামরিক যোগাযোগের জন্য ব্যবহৃত হচ্ছিল।

২০০৭ - সংশোধিত জরুরি ক্ষমতাবিধি জারি করে সরকার।

জন্ম

১৫৯৯ - পোপ সপ্তম আলেক্সান্ডার।

১৮৭৯ - সরোজিনী নাইডু, ভারতীয় বাঙালি স্বাধীনতা সংগ্রামী।

১৮৮৫ - বেস ট্রুমান, যুক্তরাষ্ট্রের ৩৫তম ফার্স্টলেডি।

১৮৯১ - গ্রান্ট উড, আমেরিকান চিত্রশিল্পী ও অ্যাকাডেমিক।

১৮৯২ - রবার্ট এইচ. জ্যাকসন, আমেরিকান আইনজীবী, বিচারক ও রাজনীতিবিদ, যুক্তরাষ্ট্রের ৫৭তম অ্যাটর্নি জেনারেল।

১৯১১ - ফয়েজ আহমেদ ফয়েজ, পাকিস্তানি কবি ও সাংবাদিক।

১৯১৩ - খালিদ বিন আবদুল আজিজ, সৌদি আরবের বাদশাহ।

১৯১৫ - অং সান, মায়ানমারের স্বাধীনতা সংগ্রামের প্রধান নেতা ও সমরনায়ক।

১৯১৯ - মনিরউদ্দীন ইউসুফ, কবি ও প্রাবন্ধিক।

১৯২১ - আহমদ শরীফ, বাংলাদেশি ভাষাবিদ, খ্যাতনামা মনীষী।

১৯২৮ - গেরাল্ড রিগান, কানাডীয় আইনজীবী ও রাজনীতিবিদ, নোভা স্কটিয়ার ১৯তম প্রিমিয়ার।

১৯২৯ - গাজীউল হক, বাংলাদেশের প্রখ্যাত গীতিকার, সাহিত্যিক ও ভাষা সৈনিক।

১৯৪৮ - নীলুফার ইয়াসমিন, কণ্ঠশিল্পী।

মৃত্যু

৮৫৮ - কেনেথ ম্যাকআলপিন, স্কটিশ রাজা।

৯০৪ - ইয়ায়িয়া ইবনে জিকরাওয়াহ,কারমাতি নেতা।

৯৪২ - মুহাম্মদ ইবনে রাইক, মুসলিম সামরিক কর্মকর্তা।

১১৩০ - পোপ দ্বিতীয় হনোরিয়াস।

১৫৮৫ - অলফনসো সালমেরন, স্প্যানিশ যাজক ও পণ্ডিত।

১৭২৭ - উইলিয়াম উটন, ইংরেজ ভাষাবিদ ও পণ্ডিত।

১৮৮৩ - জার্মানীর বিখ্যাত সুরস্রষ্টা এবং সংগীতবিদ রিচার্ড ওয়েগনার পরলোকগমন করেন।

১৯৫০ - রাফায়েল সাবাতিনি, ইতালীয়-সুইস লেখক।

১৯৬৪ - অসিতকুমার হালদার বাংলার নবজাগরণের প্রথম দিকের প্রধান চিত্রশিল্পী।

১৯৬৯ - পরেশচন্দ্র ভট্টাচার্য ভারতীয় রিজার্ভ ব্যাংকের প্রথম বাঙালি গভর্নর ও ভারতীয় স্টেট ব্যাংকের চেয়ারম্যান।

১৯৭৪ - উচ্চাঙ্গসংগীত শিল্পী ওস্তাদ আমির খাঁ।

১৯৭৭ - সাংবাদিক আবদুস সালাম মৃত্যুবরণ করেন।

১৯৮৬ - বৃটিশবিরোধী সক্রিয় কর্মী, কবি ও সমাজকর্মী আশালতা সেন।

১৯৯৬ - মার্টি‌ন বেলসাম, আমেরিকান অভিনেতা।

২০১২ - হুমায়ুন ফরীদি, বাংলাদেশি অভিনেতা।

২০১৫ - কেশব রেড্ডি, ভারতীয় চিকিৎসক ও লেখক।


আরও খবর
মজাদার ফুলকপির বিরিয়ানি

সোমবার ০৪ মার্চ ২০২৪