আজঃ বৃহস্পতিবার ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
শিরোনাম

মাতারবাড়িতে পৌঁছালো আরও ৬৪ হাজার টন কয়লা

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১৫ জুন ২০২৩ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৫ জুন ২০২৩ | অনলাইন সংস্করণ
চট্টগ্রাম প্রতিনিধি

Image

ইন্দোনেশিয়ার তারাহান বন্দর থেকে ৬৪ হাজার ৭৭০ মেট্রিক টন কয়লা নিয়ে কক্সবাজারের মহেশখালীর মাতারবাড়ীর তাপ বিদ্যুৎকেন্দ্রের কয়লা জেটিতে ভিড়েছে দেশের ইতিহাসে সবচেয়ে বড় জাহাজ। পানামার পতাকাবাহী এমভি জিসিএল পারাডিপ নামের জাহাজটি বুধবার সকাল ৯টা ৪০ মিনিটে তাপ বিদ্যুৎকেন্দ্রের কয়লা জেটিতে ভিড়েছে। জাহাজটি লম্বায় ২২৯ দশমিক ৯৯ মিটার ও সাড়ে ১২ মিটার ড্রাপ্টের।

মাতারবাড়ী তাপ বিদ্যুৎকেন্দ্রে বিদ্যুৎ উৎপাদন শুরুর পর থেকে কয়লা নিয়ে আসা এটি পঞ্চম জাহাজ। বিদ্যুৎকেন্দ্রের জন্য প্রথম ৬৩ হাজার মেট্রিক টন কয়লা নিয়ে ২৫ এপ্রিল জেটিতে ভিড়ে এমভি অউসো মারো। এ ছাড়া ১৯ মে ৬৫ হাজার মেট্রিক টন কয়লা নিয়ে ২২৯ মিটার লম্বা ও ১২ দশমিক ৫ মিটার ড্রাফটের একটি জাহাজ বন্দরে নোঙর করে। ওই মাসে আরও তিনটি জাহাজ কয়লা নিয়ে ভিড়ে তাপ বিদ্যুৎকেন্দ্রের কয়লা জেটিতে।

আরও পড়ুন>> মে মাসে সড়কে ঝরলো ৪৬৮ প্রাণ

মাতারবাড়ী গভীর সমুদ্রবন্দরের প্রকল্প ব্যবস্থাপক ক্যাপ্টেন আতাউল হাকিম সিদ্দিকী বলেন, বুধবার সকালে কয়লাবাহী জাহাজটি তাপ বিদ্যুৎকেন্দ্রের কয়লা জেটিতে ভিড়েছে। এটা কয়লা নিয়ে ভেড়া চতুর্থ বড় জাহাজ। তবে এর চেয়ে বড় কোনো জাহাজ এখনো ভিড়েনি। শুরুতে ২৫ এপ্রিল বড় একটি জাহাজ আসে। এরপর মে মাসে আরও চারটি জাহাজ কয়লা নিয়ে মতারবাড়ী আসে।

কক্সবাজারের মহেশখালীর মাতারবাড়ীতে তৈরি হয়েছে দেশের সবচেয়ে গভীর কৃত্রিম নৌপথ। একের পর এক জাহাজ ভেড়ানোর মাধ্যমে এই নৌপথের সুবিধা পেতে শুরু করেছে বাংলাদেশ।

নতুন উৎপাদনে যাওয়া মাতারবাড়ী তাপ বিদ্যুৎকেন্দ্রে দুটি জেটির একটিতে কয়লা খালাস করা হয়। ৩০০ মিটার লম্বা এ জেটিতেই বড় জাহাজগুলো ভিড়ছে। তাপ বিদ্যুৎকেন্দ্রের অন্য জেটিটি ১১০ মিটারের, এ তেল খালাসের জন্য এই জেটি নির্মাণ করা হয়েছে।


আরও খবর



হেলিকপ্টার বিধ্বস্ত হয়ে চিলির সাবেক প্রেসিডেন্ট নিহত

প্রকাশিত:বুধবার ০৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ০৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
আন্তর্জাতিক ডেস্ক

Image

চিলির সাবেক প্রেসিডেন্ট সেবাস্তিয়ান পিনেরা হেলিকপ্টার বিধ্বস্ত হয়ে নিহত হয়েছেন। বুধবার (০৭ ফেব্রুয়ারি) সংবাদমাধ্যম বিবিসি এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানিয়েছে। নিহত পিনেরা দুই মেয়াদে চিলির প্রেসিডেন্ট হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছিলেন। একইসঙ্গে তিনি একজন বিলেনিয়ার ব্যবসায়ীও ছিলেন।

বিবিসি তাদের প্রতিবেদনে জানিয়েছে, চিলির সাবেক প্রেসিডেন্ট সেবাস্তিয়ান পিনেরা ৭৪ বছর বয়সে হেলিকপ্টার দুর্ঘটনায় মারা গেছেন। দেশটির দক্ষিণাঞ্চলীয় শহর লাগো র‍্যাঙ্কোর কাছে একটি হ্রদে হেলিকপ্টারটি বিধ্বস্ত হয়। তবে দুর্ঘটনার পর এর অন্য তিনজন আরোহী বেঁচে গেছেন।

বিবিসি আরও বলছে, হেলিকপ্টার দুর্ঘটনার পর চিলির নৌবাহিনী এমন অঞ্চল থেকে সেবাস্তিয়ান পিনেরার মৃতদেহ উদ্ধার করে যেখানে তিনি প্রতি ফেব্রুয়ারিতে তার পরিবারের সাথে ছুটি কাটাতেন বলে স্প্যানিশ সংবাদপত্র এল পাইস জানিয়েছে।

এদিকে পিনেরার মৃত্যুতে তিন দিনের শোক ঘোষণা এবং রাষ্ট্রীয় অন্ত্যেষ্টিক্রিয়া ঘোষণা করে চিলির প্রেসিডেন্ট ও পিনেরার বামপন্থি উত্তরসূরি গ্যাব্রিয়েল বোরিক। তিনি বলেছেন, আমরা সবাই চিলি এবং আমাদের এটিই স্বপ্ন দেখা উচিত। সেই স্বপ্ন মনে আঁকুন এবং একসাথে বাস্তবায়ন করা উচিত। সেবাস্তিয়ান পিনেরা যখন ২০১৮ সালের ১১ মার্চ দ্বিতীয় মেয়াদে প্রেসিডেন্ট হিসেবে দায়িত্ব গ্রহণ করেন তখন এই কথাই বলেছিলেন। আমরা এই কঠিন সময়ে তার পরিবার এবং প্রিয়জনদের পাশে আছি।

এদিকে ব্রাজিলের বামপন্থি প্রেসিডেন্ট লুইজ ইনাসিও লুলা দা সিলভা বলেছেন, পিনেরার মৃত্যুতে তিনি বিস্মিত ও দুঃখিত। সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্ম এক্সে তিনি লিখেছেন, আমরা একসাথে ছিলাম, আমরা আমাদের দেশের মধ্যে সম্পর্ক জোরদার করার জন্য কাজ করেছি এবং যখন আমরা উভয়ই প্রেসিডেন্ট ছিলাম এবং যখন ছিলাম না তখনও আমরা সবসময় নিজেদের মধ্যে ভালো সংলাপ করেছি।

সংবাদমাধ্যম বিবিসি জনিয়েছে, পিনেরা তার নিজের হেলিকপ্টারটি উড়িয়েছিলেন। তবে দুর্ঘটনার সময় তিনি পাইলটের আসনে ছিলেন এমন কোনো তথ্য এখনো আনুষ্ঠানিকভাবে নিশ্চিত করা হয়নি।

রক্ষণশীল রাজনীতিবিদ সেবাস্তিয়ান পিনেরা ২০১০ সাল থেকে ২০১৪ সাল পর্যন্ত প্রথম মেয়াদে চিলির প্রেসিডেন্ট হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছিলেন। এ সময় দেশের দ্রুত অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধির জন্য তাকে কৃতিত্ব দেওয়া হয়েছিল।

আর বিদেশে তিনি সম্ভবত ২০১০ সালে আতাকামা মরুভূমির নিচে ৬৯ দিন ধরে আটকে থাকা ৩৩ জন খনি শ্রমিকের উদ্ধার তদারকির জন্য সবচেয়ে বেশি পরিচিত ছিলেন। সেসময় এই ঘটনাটি বিশ্বকে কার্যত আঁকড়ে ধরেছিল।

তবে পিনেরার দ্বিতীয় মেয়াদ ছিল ২০১৮ সাল থেকে গত বছর পর্যন্ত। তার এই দ্বিতীয় মেয়াদে দক্ষিণ আমেরিকার এই দেশটি সহিংস সামাজিক অস্থিরতার জেরে ক্ষতিগ্রস্ত হয়।


আরও খবর
সাত দশক পর পাকিস্তানে প্রথম নারী মুখ্যমন্ত্রী

বৃহস্পতিবার ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

রাশিয়াকে ‘জুলফিকার’ ক্ষেপণাস্ত্র দিচ্ছে ইরান

বৃহস্পতিবার ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




অপহৃত বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থী হিমেল উদ্ধার, গ্রেপ্তার ৫

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২৫ জানুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২৫ জানুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি

Image

প্রায় এক মাস আগে ঢাকার উত্তরা থেকে শেরপুর যাওয়ার পথে অপহরণ হওয়া বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থী হাসিবুর রহমান হিমেলকে উদ্ধার করেছে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব)।

বুধবার (২৪ জানুয়ারি) সুনামগঞ্জের তাহিরপুর সীমান্তবর্তী এলাকা থেকে তাকে উদ্ধার করা হয়।

এদিকে অপহরণ চক্রের মূলহোতা আব্দুল মালেকসহ পাঁচজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এসময় তাদের কাছ থেকে আগ্নেয়াস্ত্র, গোলাবারুদ ও ওয়াকিটকি উদ্ধার করা হয়েছে।

বুধবার নেত্রকোনা, সুনামগঞ্জের তাহিরপুর ও রাজধানীর উত্তরা থেকে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়।

র‌্যাবের লিগ্যাল অ্যান্ড মিডিয়া উইংয়ের সহকারী পরিচালক আ ন ম ইমরান খান জানান, বহুল আলোচিত বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থী হাসিবুর রহমান হিমেলকে অপহরণের পর পাশবিক কায়দায় নির্যাতন ও মুক্তিপণ দাবির ঘটনায় পাঁচজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (২৫ জানুয়ারি) দুপুরে রাজধানীর কারওয়ানবাজার র‌্যাব মিডিয়া সেন্টারে সংবাদ সম্মেলন করে এ বিষয়ে বিস্তারিত জানানো হবে বলেও জানান তিনি।

ব্যবসায়ীর ছেলে হিমেল (২৮) ও তার গাড়ির চালক সামিদুল গত ২৬ ডিসেম্বর সকাল সাড়ে ৯টার দিকে পারিবারিক ব্যবসার প্রয়োজনে শেরপুর যাচ্ছিলেন। পথে হিমেলকে অপহরণ করা হয়েছিল।


আরও খবর



শেষ মুহূর্তে বাদ পড়লেন সাই পল্লবী, সীতা হবেন জাহ্নবী কাপুর

প্রকাশিত:শুক্রবার ০৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
বিনোদন ডেস্ক

Image

ঘোষণার পর থেকে আলোচনায় ভারতীয় মহাকাব্য রামায়ণ নিয়ে বলিউড সিনেমা রামায়ণ। অবশেষে আগামী মাসে শুরু হচ্ছে সিনেমার শুটিং। নীতীশ তিওয়ারির পরিচালনায় এতে রাম চরিত্রে রণবীর কাপুর ও সীতার চরিত্রে সাই পল্লবীর অভিনয়ের কথা। শেষ পর্যন্ত রণবীর টিকে গেলেও শুটিং শুরুর এক মাস আগে পরিবর্তন হয়ে গেল নায়িকা। সাই পল্লবী নয়, শোনা যাচ্ছে সীতা হবেন শ্রীদেবীকন্যা জাহ্নবী কাপুর; এমনটাই জানাচ্ছে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম পিঙ্কভিলা।

সংবাদমাধ্যমটি জানিয়েছে, নীতীশের পরিচালনায় বাওয়াল সিনেমায় অভিনয় করেছেন জাহ্নবী। সেখানেই নাকি তাঁকে পছন্দ হয়ে গিয়েছিল পরিচালকের। তাঁর মনে হয়েছিল, সীতার চরিত্রে জাহ্নবীকেই সবচেয়ে ভালো মানাবে। সে কারণেই সাই পল্লবীকে বাদ দিয়ে জাহ্নবীকে নেওয়া হচ্ছে। তবে এ বিষয়ে এখন পর্যন্ত কোনো অফিশিয়াল বক্তব্য পাওয়া যায়নি। সংবাদমাধ্যমটি আরও জানায়, সাই পল্লবীর আগে সীতা চরিত্রের জন্য যোগাযোগ করা হয়েছিল আলিয়া ভাটের সঙ্গে। তিনি রাজি না হলে সেই প্রস্তাব যায় সাই পল্লবীর কাছে। 

আরও পড়ুন>> পরিচালকের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ ফরাসি অভিনেত্রীর

সীতা বদলে গেলেও বাকি চরিত্রগুলোয় কোনো পরিবর্তন হয়নি। রাবণের ভূমিকায় দেখা যাবে কেজিএফ তারকা যশকে। বিভীষণের চরিত্রে অভিনয় করবেন বিজয় সেতুপতি। আর হনুমান হচ্ছেন সানি দেওল।

জানা গেছে, মার্চের শেষ সপ্তাহ থেকে শুরু হবে রামায়ণের শুটিং। মুম্বাইয়ে বেশির ভাগ শুটিংয়ের পর রামায়ণ টিম যাবে লন্ডনে। রামায়ণের লঙ্কা অংশের চিত্রায়ণ হবে সেখানে। এ সময় রণবীরের সঙ্গে যোগ দেবেন যশ। মোট ১২০ দিন চলবে শুটিং।

শোনা যাচ্ছে, রাম চরিত্রের প্রতি সম্মান রেখে প্রস্তুতিস্বরূপ কিছুদিন ধরে অ্যালকোহল, আমিষ এমনকি মধ্যরাতের পার্টিও ছেড়ে দিয়েছেন রণবীর কাপুর।


আরও খবর
আজ গোয়াতে চার হাত এক হবে রাকুল-জ্যাকির!

বুধবার ২১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

জয়ার ইরান জয়

বুধবার ২১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




জামালপুরে বিরল প্রজাতির গন্ধগোকুল উদ্ধার

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
জামালপুর প্রতিনিধি

Image

জামালপুর পৌর শহরের বিসিক শিল্প এলাকায় বিরল প্রজাতির একটা গন্ধগোকুল পাওয়া গেছে। মঙ্গলবার (১৩ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে বিসিক শিল্পনগরী এলাকায় শ্রমিকরা এ বন্য প্রাণীটিকে উদ্ধার করে। প্রাণীটি কৃষকের বন্ধু হিসেবে পরিচত বলে জানিয়েছেন বাংলাদেশ বন অধিদপ্তরের বন্যপ্রাণী ও জীববৈচিত্র্য সংরক্ষণ কর্মকর্তা এবং তরুণ বন্যপ্রাণী গবেষক জোহরা মিলা।

বিসিক শিল্প মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক এনামুল হক খান মিলন জানান, প্রাণীটিকে দেখতে পেয়ে শ্রমিকরা প্রথমে আতঙ্কিত হয়ে পড়ে। পরে বিভিন্ন উপায়ে চটের বস্তায় আটক করে রশি দিয়ে বেঁধে রাখা হয়।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, বিসিক শিল্পনগরীর আর সি আই লিমিটেডের গোডাউনের বাইরের পেছন অংশে পেঁপে গাছের নিচে গন্ধগোকুলটি রোদ পোহাচ্ছিল। এ সময় সেই কারখানার শ্রমিক মান্নানসহ অন্যরা সুকৌশলে অক্ষত অবস্থায় প্রাণীটি ধরে ফেলেন।

পরে জামালপুর বন বিভাগকে খবর দিলে তারা বন্যপ্রাণীটি উদ্ধার করে। জামালপুর সামাজিক বনায়ন প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. আব্দুল করিম জানান, এ প্রাণীটির নাম গন্ধগোকুল। তাকে চিকিৎসা দেওয়ার পর বনে অবমুক্ত করা হবে।

জোহরা মিলা জানান, নিশাচর এ প্রাণীটি লোকালয়ের কাছাকাছি ঝোপ-জঙ্গলে বাস করে। এরা তাল-খেজুর রস, ফল, সবজি ছাড়াও কৃষির জন্য ক্ষতিকর পোকামাকড় ও ইঁদুর খেয়ে কৃষকের উপকার করে। মজার বিষয় হলো, বট বা অন্যান্য গাছের ফল খাওয়ায় এদের মলের সঙ্গে নির্গত বীজগুলোর শতভাগ অঙ্কুরোদগম হয়, যা উদ্ভকূল রক্ষায় দারুণ কার্যকরী।

তিনি জানান, বনজঙ্গল ধ্বংস, খাদ্যের অভাব, পিটিয়ে হত্যা ইত্যাদি কারণে প্রকৃতির উপকারী এই প্রাণীটির অস্তিত্ব হুমকির মুখে পড়েছে। বিভিন্ন লোকজ ওষুধ ও টোটকা তৈরিতে গন্ধগোকুল হত্যা করা হয়। কিন্তু এসব ওষুধের কোনো বৈজ্ঞানিক ভিত্তি নেই। বরং কিছু অসাধু ব্যক্তি দেশের সরল মানুষকে ঠকাচ্ছে। এক সময় দেশে প্রচুর গন্ধগোকুলের দেখা মিললেও বর্তমান পরিস্থিতি এতটাই খারাপ হয়েছে যে, আন্তর্জাতিক প্রকৃতি ও প্রাকৃতিক সম্পদ সংরক্ষণ সংঘের (আইইউসিএন) বিবেচনায় এটি পৃথিবীর বিপন্ন প্রাণীর তালিকায় ওঠে এসেছে।

বাংলাদেশের ২০১২ সালের বন্যপ্রাণী (সংরক্ষণ ও নিরাপত্তা) আইনের তফশিল-১ অনুযায়ী এ প্রাণীটি সংরক্ষিত। তাই এটি হত্যা বা কোনো ক্ষতি করা শাস্তিযোগ্য অপরাধ বলেও জানান এই কর্মকর্তা।

নিউজ ট্যাগ: গন্ধগোকুল

আরও খবর



সাবেক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আলতাফ হোসেন গ্রেপ্তার

প্রকাশিত:রবিবার ১১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:রবিবার ১১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
আদালত প্রতিবেদক

Image

রমনা মডেল থানার পৃথক তিন মামলায় সাবেক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ও বিএনপির ভাইস প্রেসিডেন্ট এয়ার ভাইস মার্শাল (অব.) আলতাফ হোসেন চৌধুরীকে গ্রেপ্তার দেখিয়েছেন আদালত।

রোববার (১১ ফেব্রুয়ারি) ঢাকার অতিরিক্ত মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট মো. সুলতান সোহাগ উদ্দিনের আদালত শুনানি শেষে গ্রেপ্তার দেখান। অসুস্থ থাকায় আলতাফকে শুনানিতে ভার্চুয়ালি কারাগার থেকে উপস্থিত দেখানো হয়।

এর আগে গত ৭ ফেব্রুয়ারি তার গ্রেপ্তার ও জামিন চেয়ে আবেদন করেন। এরপর ঢাকার চীফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট রেজাউল করিম চৌধুরীর আদালত শুনানির জন্য ১১ ফেব্রুয়ারি দিন ধার্য করেন।

গত ২৮ অক্টোবরের বিএনপির মহাসমাবেশকে কেন্দ্র করে তার বিরুদ্ধে রমনা মডেল থানায় চারটি মামলা হয়। গত ৫ নভেম্বর ভোরে গাজীপুরের টঙ্গী এলাকা থেকে তাকে আটক করে র‍্যাব। ওইদিন তাকে প্রধান বিচারপতির বাসভবনের সামনে নাশকতা ও ভাংচুরের এক মামলায় আদালতে হাজির করা হয়।

এরপর মামলার তদন্ত শেষ না হওয়া পর্যন্ত তাকে কারাগারে আটক রাখার আবেদন করেন তদন্তকারী কর্মকর্তা ও রমনা মডেল থানার উপপরিদর্শক আবু আনছার। আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে আদালত তাকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন। গত ২৯ নভেম্বর এ মামলায় ঢাকা মহানগর দায়রা জজ আদালত তার জামিন নামঞ্জুর করেন। বর্তমানে এ মামলাটিতে জামিনের জন্য উচ্চ আদালতে আবেদন করা হয়েছে।


আরও খবর